বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
কলকাতা
 

স্কুলে খেলার ছলে মারপিট,
সহপাঠীর ঘুসিতে মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিনিধি, দক্ষিণ ২৪ পরগনা: খেলার ছলে মারপিট। আর এই মারপিটই মর্মান্তিক চেহারা নিল ডায়মন্ডহারবারের একটি স্কুলে। সহপাঠীর ঘুসিতে মৃত্যু হল বন্ধুর। সোমবার ঘটনাটি ঘটেছে ধনবেড়িয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে। মৃতের নাম মলয় হালদার। সে একাদশ শ্রেণীর কলা বিভাগের ছাত্র। মলয়ের বাড়ি ডায়মন্ডহারবার পুরসভার ১০ নম্বর ওয়ার্ডের রবীন্দ্রনগরে। অভিযুক্ত ছাত্রকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে পুলিস। এই ঘটনায় স্কুলের নজরদারির অভাবকেই দায়ী করেছেন মৃতের পরিবারের লোকজন। 
পুলিস সূত্রে জানা গিয়েছে, গত কয়েকদিন ধরেই জ্বরে ভুগছিল মলয়। সুস্থ হওয়ার পর সোমবারই সে প্রথম স্কুলে গিয়েছিল। এদিন দ্বিতীয় পিরিয়ডের পর মলয় এবং তার এক সহপাঠী খেলার ছলেই মারপিট শুরু করে। সেই সময় মলয়ের কানের নীচে ঘুসি লাগে। সঙ্গে সঙ্গেই অচৈতন্য হয়ে পড়ে সে। বাকি পড়ুয়ারা তা দেখে সঙ্গে সঙ্গে খবর দেয় শিক্ষকদের। দ্রুত তাকে নিয়ে যাওয়া হয় ডায়মন্ডহারবার মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। সেখানকার চিকিৎসকরা মলয়কে মৃত বলে ঘোষণা করেন। 
মলয়ের বাবা শ্যামাপদ হালদার বলেন, স্কুলে এত বড় ঘটনা ঘটে গেল, অথচ কেউ কিছু জানতেই পারলেন না! স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষিকারা কি করছিলেন? তাঁদের গাফিলতির জন্যই আমার ছেলের প্রাণ গেল। স্কুলে কোনও নজরদারি না থাকাতেই এত বড় ঘটনা ঘটে গিয়েছে। স্কুলকেই এর দায় নিতে হবে। এই ঘটনায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। মলয়ের দেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে পুলিস। অনিচ্ছাকৃত খুনের মামলা দায়ের করে তদন্ত শুরু করেছে পুলিস। পাশাপাশি, অভিযুক্ত সহপাঠীকে জিজ্ঞাসাবাদও করছে তারা। স্কুলের ভূমিকা নিয়ে পুলিসের কাছে অভিযোগ জানিয়েছেন শ্যামাপদবাবু। পড়ুয়া মৃত্যুর ঘটনায় স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা মানসী নস্করের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, এমন ঘটনা ঘটবে, স্বপ্নেও ভাবিনি। আমি স্কুলে নিজের ঘরেউ ছিলাম। গণ্ডগোলের খবর পেয়েই ছুটে যাই। আহত ছাত্রকে নিয়ে হাসপাতালে যাই। কীভাবে ঘটনাটি ঘটল, তা তদন্ত করে দেখতে হবে। 

5th     July,   2022
 
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ