বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
কলকাতা
 

এখনও জমা পড়েনি টাকা, এভারেস্ট
জয়ের আনন্দ ম্লান এজেন্সির ফোনে
স্বীকৃতি মিলবে তো? সংশয়ে পিয়ালির পরিবার

নিজস্ব প্রতিনিধি, চুঁচুড়া: রবিবারই খবর এসেছে, ন্যূনতম অক্সিজেনের সাহায্য নিয়ে বিশ্বের সর্বোচ্চ শৃঙ্গ জয় করেছেন চন্দননগরের মেয়ে পিয়ালি বসাক। ঘরের মেয়ের নাছোড়বান্দা লড়াইয়ের সাফল্যে ঝলমল করছিল বসাক পরিবারের সদস্যদের চোখমুখ। সোমবার সকালে নেপাল থেকে আরও একবার ফোন আসে পিয়ালির বোন তমালির কাছে। ফোনের উল্টোদিক থেকে প্রশ্ন, বাকি টাকার কোনও ব্যবস্থা হল? মুহূর্তেই খুশির আবেশ হারিয়ে তমালি সহ পরিবারের বাকি সদস্যের মধ্যে নেমে আসে দুশ্চিন্তার ছায়া। কারণ, এই প্রশ্নের জবাব তাঁদের কাছে নেই! তাঁরা জানেন, নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে পর্বতারোহণ সংস্থাকে বকেয়া মিটিয়ে দিতে না পারলে মিলবে না এই জয়ের কোনও স্বীকৃতি। সেক্ষেত্রে পিয়ালির দাঁতে দাঁত চেপে লড়াইয়ের কোনও মূল্যই থাকবে না। আরও ১৪ লক্ষ টাকা মেটাতে হবে পর্বতারোহণ এজেন্সিকে। কিন্তু সাধারণ চাকুরিজীবী পরিবারের আর টাকা জোগানোর সামর্থ্য নেই। বাড়ি বন্ধক দেওয়ার পরিকল্পনাও আইনি জটিলতায় সম্ভব হয়নি। তাই এভারেস্ট জয়ের শংসাপত্র পিয়ালি আদৌ পাবেন কি না, তা নিয়ে যথেষ্ট সংশয় রয়েছে। জয় করেও ভয় যাচ্ছে না বসাক পরিবারের।
তমালিদেবী বলেন, সকালেই পাসাং স্যার (পাসাং শেরপা) ফোন করেছিলেন। ওঁদের বকেয়া ১৪ লক্ষ টাকার বিষয়ে জানতে চাইছিলেন। কী উত্তর দেব বুঝতে পারিনি। শুধু বলেছি, আমরা চেষ্টা করছি। টাকা পেয়ে যাবেন। সকলের সাহায্যে এবং নিজেদের অবশিষ্ট সঞ্চয় দিয়ে ইতিমধ্যে ২৩ লক্ষ টাকা মেটানো হয়েছে। এরপর কী হবে, আমরা জানি না। টাকা না দিতে পারলে ওঁরা দিদিকে এভারেস্ট জয়ের শংসাপত্র যদি না দেয়, আমাদের কিছু বলার থাকবে না। বসাক পরিবারের শুভানুধ্যায়ী তথা স্থানীয়  কাউন্সিলার মোহিত নন্দী বলেন, এজেন্সি টাকা চাইবে, সেটাই স্বাভাবিক। ওরা অনেক সাহায্য করেছে। পুরো টাকা না জমা পড়ার পরেও অভিযানে বাধা দেননি। কিন্তু কীভাবে বাকি টাকার ব্যবস্থা হবে, তা ভেবে কূল পাচ্ছি না। 
পিয়ালির এবারের অভিযানে পর্যাপ্ত অর্থের অভাবের কথা আগেই জানা গিয়েছে। আগের একাধিক অভিযানের জন্য নেওয়া ব্যাঙ্ক ঋণ শোধ হয়নি এখনও। স্থানীয় মানুষ, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সাহায্যে সামান্য কিছু টাকা নিয়েই বড় লক্ষ্য পূরণে এবার রওনা হয়েছেন তিনি। কিন্তু অর্থের জন্য এই যাত্রায় তাঁকে বারবার থমকে যেতে হয়েছে। বেসক্যাম্পে পৌঁছনোর পরেও আর এগতে পারেননি।  ক্যাম্প টু পর্যন্ত উঠে গিয়েও নেমে আসতে হয়েছে তাঁকে। দু’সপ্তাহ সময় কার্যত নষ্ট হয়েছে। শেষপর্যন্ত রেকর্ড গড়েও তার স্বীকৃতি পাওয়া নিয়ে এখন সঙ্কট তৈরি হয়েছে। লোৎসে জয়ের লক্ষ্য নিয়ে ইতিমধ্যেই ক্যাম্প টু’তে ফিরেছেন পিয়ালি। খারাপ আবহাওয়ার জন্য আপাতত অভিযান বন্ধ আছে। ২৬ মে তিনি লোৎসে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। কিন্তু টাকার ব্যবস্থা না হওয়ায় এখনও সবটাই এক অজানা ভবিষ্যতের গহ্বরে নিমজ্জিত! 

24th     May,   2022
 
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ