বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
কলকাতা
 

শ্রীরামপুরের এক কিশোরকে
‘অপহরণ’ করে চম্পট কৃষ্ণর
বিড়ম্বনায় পুলিস

নিজস্ব প্রতিনিধি, চুঁচুড়া: পুলিসের চোখে ধুলো দিয়ে ফেরার সুপারি কিলার কৃষ্ণ সরকার। তবে পালানোর সময় এক কিশোরকে অপহরণ করে নিয়ে গিয়েছে সে। এই অভিযোগের কথা প্রকাশ্যে আসতেই চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে শ্রীরামপুরে। জানা গিয়েছে, কৃষ্ণ মঙ্গলবার সকালে শ্রীরামপুরের ঘোষালপাড়া থেকে এক কিশোরকে অপহরণ করে। ওই কিশোর অবশ্য কৃষ্ণর পূর্ব পরিচিত। কৃষ্ণর লোকদেখানো একটি ব্যবসা ছিল। বাড়িঘর ভাঙার পর সেই রাবিশ সংগ্রহ করাই ছিল তার কাজ। এই ব্যবসায় তাকে সাহায্য করত ওই কিশোর। ফলে, পুলিস প্রাথমিকভাবে অপহরণের তত্ত্বকে উড়িয়ে দিলেও ফেরার এক অভিযুক্ত অন্য একজনকে সঙ্গে নিয়ে গা ঢাকা দিল কেন, সেই প্রশ্নের উত্তর খুঁজে পায়নি।
কৃষ্ণ যে পালানোর পর শ্রীরামপুরেই ছিল, তাও স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে। পুলিস তা অনুমান করলেও ধরতে পারেনি এই সুপারি কিলারকে। পুলিসের একটি মহলের ধারণা, সোমবার দুপুরে পালিয়ে যাওয়ার পর সে রাত পর্যন্ত এই শহরেই গা ঢাকা দিয়েছিল। পরে ওই কিশোরের সঙ্গে যোগাযোগ করে তার বাড়িতেই রাত কাটায়। ভোরের দিকে তাকে সঙ্গে নিয়েই এলাকা ছাড়ে কৃষ্ণ। বুধবার আকাশের দাদু শ্যামল দে তাঁর নাতিকে অপহরণ করার অভিযোগ তুলেছেন। স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই কিশোরের বাবা ও মা দু’জনেই বাড়ি ছেড়ে অন্যত্র চলে গিয়েছেন। বিপত্নীক দাদুর কাছেই মানুষ হচ্ছে নাতি। বাড়ির বাঁধুনি সেভাবে না থাকায় ছোট থেকেই উচ্ছন্নভাব আসে ওই কিশোরের জীবনে। সেই সময় থেকেই তার সঙ্গে কৃষ্ণর আলাপ। সেই সূত্র ধরেই কৃষ্ণ তাকে তার রাবিশের ব্যবসায় নামায়। শ্যামলবাবু বলেন, আমি অসুস্থ, রাতে ঘুমের ওষুধ খাই। মঙ্গলবার সকালে কৃষ্ণ এসে নাতিকে ডাকে। পরে একসময় সে আমার নাতিকে নিয়ে চলে যায়। পরে জানতে পারি ও খুনের মামলার অভিযুক্ত। কৃষ্ণ নিজেকে বাঁচাতে নাতিকে ঢাল করতে চেয়েছে। সেকারণেই ওকে অপহরণ করেছে। শ্রীরামপুর থানার পুলিস জানিয়েছে, তদন্ত চলছে। তবে এটি অপহরণ, নাকি ওই কিশোর স্বেচ্ছায় তার সঙ্গে গিয়েছে, তা খতিয়ে দেখা হবে। তবে এটা ঠিক যে, ওদের মধ্যে ঘনিষ্ঠতা ছিল।
গত শুক্রবার গভীর রাতে দক্ষিণ রাজ্যধরপুরের বাসিন্দা সুপারি কিলার কৃষ্ণ সরকারকে পুলিস গ্রেপ্তার করে। রাজ্যধরপুরেরই বাসিন্দা উজ্জ্বল দাসের কাছ থেকে সুপারি নিয়ে তার দাদা গৌতম দাসকে খুন করে কৃষ্ণ। সম্পত্তি নিয়ে বিবাদের জন্যই ওই খুন বলে অভিযোগ। গ্রেপ্তারের পর থেকেই পুলিসের জীবন অতিষ্ঠ করে তোলে ওই সুপারি কিলার। সোমবার আদালতে নিয়ে যাওয়ার পথে পুলিসের চোখে ধুলো দিয়ে পালায় কৃষ্ণ। ফেরার অবস্থাতেই সে ‘অপহরণের কাণ্ড’ ঘটিয়ে নতুন করে বিড়ম্বনায় ফেলেছে পুলিসকে।
অপহৃত কিশোরের দাদু শ্যামল দে। বুধবার তোলা নিজস্ব চিত্র

19th     May,   2022
 
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ