বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
কলকাতা
 

কোভিডকালে দাঁত তোলার হিসেবে
গড়মিল, তোলপাড় আর আহমেদ

বিশ্বজিৎ দাস, কলকাতা: কোভিডকালেও পুরোদমে চলছে শিয়ালদহের আর আহমেদ ডেন্টাল কলেজ। একথা বোঝাতে গিয়ে রাজ্যের এই ডেন্টাল কলেজ হাসপাতালে দাঁত তোলার হিসেবেই ‘জল মেশানো’র অভিযোগ উঠল। কোভিড পরিস্থিতিতে যত দাঁত তোলা হয়েছে বলে অধ্যক্ষকে হিসেব দেওয়া হয়েছে, বাস্তবে ততটা হয়নি বলেই অভিযোগ। বলা হচ্ছে, পিঠ চাপড়ানি পেতেই গরমিলের হিসেব পেশ করা হয়েছে। সরকারিভাবে দেখানো হয়েছে, বেশি বেশি দাঁত তোলা হয়েছে।  হাসপাতালে ওরাল ও ম্যাক্সিলোফেসিয়াল সার্জারি বিভাগের বিরুদ্ধে এই ‘কেলেঙ্কারি’র অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগ এনেছে খোদ আর আহমেদ ডেন্টাল কলেজেরই ছাত্র সংসদ। এছাড়াও দিনের পর দিন বিভাগের অপারেশন থিয়েটার বন্ধ থাকা সহ নানা বিষয়ে অধ্যক্ষের কাছে চিঠি জমা পড়েছে। চিকিৎসক ও কর্মীদের একাংশ জানিয়েছে, দূর-দূরান্ত থেকে বহু কষ্ট করে নড়বড়ে দাঁত নিয়ে রোগীরা এসেছেন। অথচ ওরাল সার্জারি বিভাগ সেই দাঁত তোলার সময় দিয়েছে চার মাস পর! এদিকে, করোনার মধ্যেও প্রচুর দাঁত তোলা হয়েছে বলে হিসেব দেওয়া হচ্ছে। 
কলেজ সূত্রের খবর, বিষয়টি জেনে অধ্যক্ষ ডাঃ তপন গিরি বিভাগীয় প্রধান ডাঃ স্বপন মজুমদারকে ডেকে সতর্ক করেছেন। ঘটনার তদন্ত হতে পারে বলে সূত্রের খবর। এ প্রসঙ্গে বিভাগীয় প্রধানের দাবি, এটা বিরাট কিছু ব্যাপার নয়। এক-আধটা পরিসংখ্যান এদিক-ওদিক হতে পারে। করোনার কারণে হাসপাতালে রোগী আসা কমে গিয়েছিল। তাই অপারেশন থিয়েটার বন্ধ রাখা হয়। সোমবার থেকে ফের ওটি খুলছে। অন্যদিকে, অধ্যক্ষ তপনবাবু বলেন, অভিযোগগুলি গুরুত্ব সহকারে দেখা হচ্ছে। হাসপাতাল সূত্রের খবর, দাঁত তোলা বা ‘টুথ এক্সট্র্যাকশন’ নিয়ে অভিযোগ মারাত্মক। দিন ধরে কবে কত দাঁত তোলা হয়েছে বলে দেখানো হয়েছে, আর বাস্তবে কত দাঁত তোলা হয়েছে, সেই হিসেব হাতে এসেছে। ৪ জানুয়ারি দেখানো হয়েছে ৪৫টি দাঁত তোলা হয়েছে। অথচ খাতায় তোলা হয়েছে ৩৬টির হিসেব। ৫ জানুয়ারিও তাই। দেখানো হয়েছে ২০টি, অথচ দাঁত তোলা হয়েছে ১৫টি। ১০ জানুয়ারি সরকারিভাবে দেখানো হয়েছে ৫০টি দাঁত তোলা হয়েছে। আসলে সেদিন তোলা হয়েছে ৩০টি। ১১ এবং ১২ জানুয়ারি ৪৫টি করে দাঁত তোলা হয়েছে বলে বিভাগের তরফে দাবি করা হলেও, প্রকৃত সংখ্যা যথাক্রমে ২০ ও ২৩। বায়োপসির ক্ষেত্রেও বিস্তর জল মেশানো রিপোর্ট জমা দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ। এছাড়াও দিনের পর দিন অনুপস্থিত থেকেও হাজিরা খাতায় সই করা, দাঁতের গুরুতর সমস্যা নিয়ে হাজির রোগীদের বেসরকারি হাসপাতাল-নার্সিংহোমে পাঠানো সহ অজস্র বিষয় নিয়ে অধ্য‌঩ক্ষের কাছে অভিযোগ জমা পড়েছে। ছাত্র সংসদের সাধারণ সম্পাদক মলয় মণ্ডল বলেন, দাঁত তোলার হিসেবে প্রচুর জল মেশানো হয়েছে। আরও অনিয়মের কথা অধ্যক্ষকে জানিয়েছি। সুরাহা না পেলে স্বাস্থ্যভবনে যাব।  

22nd     January,   2022
 
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ