বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
কলকাতা
 

বিদ্যুতের ঝলকানি। বুধবার বারাসতে কুমার বসুর তোলা ছবি।

বিজেপিতে ভাঙন, হাজার খানেক কর্মী 
নিয়ে প্রাক্তন জেলা সভাপতি তৃণমূলে

নিজস্ব প্রতিনিধি, বারাকপুর: পুরসভা নির্বাচনের দিন ঘোষণা হয়ে গিয়েছে। কিন্তু, সেই ভোটের মুখেই বারাকপুর শিল্পাঞ্চলে গেরুয়া শিবিরের বড় ভাঙন দেখা দিল। সোমবার এক হাজারের বেশি নেতা-কর্মীকে সঙ্গে নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিলেন বিজেপির বারাকপুর সাংগঠনিক জেলার প্রাক্তন সভাপতি রবীন্দ্রনাথ ভট্টাচার্য। জেলার বিভিন্ন জায়গা থেকে তাঁর সঙ্গে সংগঠনের বিভিন্ন দায়িত্বপ্রাপ্ত বিজেপির পদাধিকারী নেতা-কর্মী চলে যাওয়ায় চরম অস্বস্তিতে পড়েছেন পদ্মফুলের নেতারা। তৃণমূল কংগ্রেসের দাবি, বিজেপির জেলা সংগঠন একেবারে শূন্য করে দিয়ে তৃণমূলে এসেছেন রবীন্দ্রনাথবাবুরা। তাঁকে সাদর আমন্ত্রণও জানানো হয়েছে।
গত ২৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত বিজেপির বারাকপুর সাংগঠনিক জেলার সভাপতি ছিলেন রবীন্দ্রনাথবাবু। তিনি পেশায় আইনজীবী। এর আগে তিনি তৃণমূল কংগ্রেসেই ছিলেন। কিন্তু, পরে বিজেপিতে চলে যান। ২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচনে তিনিই ছিলেন বারাকপুর অথবা নোয়াপাড়ায় বিজেপি প্রার্থী পদের দাবিদার। কিন্তু, তাঁকে প্রার্থী করা হয়নি। ২৫ ডিসেম্বর তাঁকে জেলা সভাপতির পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়। তারপর থেকেই রবীন্দ্রনাথবাবুর অনুগামীরা ‘বিক্ষুব্ধ’ হয়ে ওঠেন।
এদিন টিটাগড়ে তৃণমূল কংগ্রেসের বারাকপুর-দমদম সাংগঠনিক জেলা অফিসে ওই যোগদান অনুষ্ঠান হয়। সেখানে ছিলেন কৃষিমন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায় এবং তৃণমূলের জেলা সভাপতি পার্থ ভৌমিক ও বারাকপুরের বিধায়ক রাজ চক্রবর্তী। আর ছিলেন পুরপ্রশাসক। 
পার্থ ভৌমিক বলেন, পুরনো ঘরে রবীন্দ্রনাথবাবুকে স্বাগত। তিনি কারও নাম না করে বলেন, এখন একজন বিজেপির সাংসদ হয়েছেন, তাঁর অঙুলি হেলনে রবীন্দ্রনাথবাবুকে গুলি করা হয়েছিল। কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে আমরা লড়াই করেছি। আমরা সবাই মিলে একসঙ্গেই লড়ব। মন্ত্রী শোভনদেববাবু বলেন, জেলার গুরুত্বপূর্ণ পদাধিকারীদের নিয়ে সদলবলে রবীন্দ্রনাথবাবু তৃণমূলে এলেন। তিনি বিজেপির প্রায় গোটা জেলাকে শূন্য করে দিয়ে আমাদের দলে এলেন। তাঁকে আমরা সাদর আমন্ত্রণ জানাচ্ছি। রবীন্দ্রনাথ ভট্টাচার্য বলেন, আমি সংগঠন করার মানুষ। কিন্তু, বিজেপিতে জেলা সভাপতি হয়েও সংগঠনের কোনও কাজ করতে পারছিলাম না। তাই তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিলাম। তিনি বলেন, এদিনও আমাকে রাজ্য বিজেপি থেকে ফোন করে বলা হয়েছিল, আমি যেন তৃণমূলে যোগ না দিই। 
আমাকে রাজ্যের লিগ্যাল সেলের আহ্বায়ক করা হবে। রবীন্দ্রনাথবাবু আরও বলেন, তৃণমূলে আমার সঙ্গেই এসেছেন বিজেপির জেলা কমিটির সদস্য, সাধারণ সম্পাদক, অফিস সম্পাদক, কিষান মোর্চার সাধারণ সম্পাদক, লিগ্যাল সেলের সাধারণ সম্পাদক ও মহিলা মোর্চার সভাপতি। এক হাজারের বেশি কর্মীও যোগ দিয়েছেন। বিজেপির বারাকপুর সাংগঠনিক জেলার নতুন সভাপতি সন্দীপ বন্দ্যোপাধ্যায় সাংবাদিকদের কাছে দাবি করেন, এতে পার্টির কোনও ক্ষতি হবে না। ওঁর সঙ্গে যে লোকের সংখ্যা দিচ্ছেন, তাঁদের সাংগঠনিক ক্যাপাসিটি নেই। উনি যাঁদের ক্ষমতায় বসিয়েছিলেন, তাঁদেরই নিয়ে যাচ্ছেন। এর সঙ্গে বারাকপুরের সংগঠনের এবং পার্টির কোনও ক্ষতি হবে না। 

18th     January,   2022
 
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ