বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
কলকাতা
 

মেলা শেষে সাগরে শুরু হল স্যানিটাইজেশন 

নিজস্ব প্রতিনিধি, দক্ষিণ ২৪ পরগনা: মেলা শেষ হতেই মন্দির চত্বর সহ অন্যান্য জায়গা জীবাণুমুক্ত করতে নেমে পড়ল জেলা প্রশাসন। সোমবার সকাল থেকেই মন্দির, বাজার, বাসস্ট্যান্ড সহ পুণ্যার্থীদের আশ্রয় নেওয়া বিভিন্ন জায়গা স্যানিটাইজ করা হয়। রবিবার রাতে আনুষ্ঠানিকভাবে মেলা শেষের ঘোষণা করা হয়েছে। তারপর আর সময় নষ্ট না করে প্রশাসনের পক্ষ থেকে সাফাই কাজ শুরু করে দেওয়া হয়। জীবাণুমুক্ত করা হয়েছে জেটিঘাট, পর্যটকদের থাকার লজ, হোটেল ইত্যাদিও। করোনা সংক্রমণের কথা মাথায় রেখেই এই অভিযান, জানিয়েছেন আধিকারিকরা। এদিনও সকালে মেলা প্রাঙ্গণে স্থানীয়দের অল্প বিস্তর ভিড় দেখা যায়। মেলা চলাকালে বৃষ্টির কারণে হরেকরকমের সামগ্রী নিয়ে বসা হকারদের ব্যবসা এবার বেশ মার খেয়েছে। তাই বাড়তি কয়েকটা দিন থেকে লোকসানের পরিমাণ কমানোর মরিয়া চেষ্টা করছেন তাঁরা।

চিনার পার্কে পাম্পিং স্টেশনের কাজ শুরু
জল জমা রুখতে উদ্যোগ, বিধাননগর পুরসভার ১৯ নম্বর ওয়ার্ডে নয়া পাম্প

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: বর্ষা এলেই রীতিমতো দুশ্চিন্তায় ভোগেন চিনার পার্ক এলাকার বাসিন্দারা। ভারী বৃষ্টিতে সংশ্লিষ্ট এলাকা জলমগ্ন হবে, এটাই স্বাভাবিক চিত্র। আগামী বর্ষায় সেই দুর্ভোগ থেকে বাসিন্দাদের মুক্তি দিতে একটি পাম্পিং স্টেশনের কাজ শুরু হল। বৃহস্পতিবার সেই স্টেশনের কাজের ভূমিপুজো করা হয়। সেখানে উপ঩স্থিত ছিলেন বিধাননগর পুরসভার মুখ্য প্রশাসক কৃষ্ণা চক্রবর্তী, হিডকোর ম্যানেজিং ডিরেক্টর দেবাশিস সেন, রাজারহাট-নিউটাউনের বিধায়ক তাপস চট্টোপাধ্যায় সহ অন্যান্যরা। হিডকো, বিধাননগর পুরসভা ও সেচদপ্তরের মিলিত প্রয়াসে এই পাম্পিং স্টেশনটি তৈরি হচ্ছে। 
হিডকো সূত্রে খবর, সিটি সেন্টার-২ এর বিপরীতে এই স্টেশন চালু করা হবে। সেখানে জল টানার উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন চারটি পাম্প থাকবে। বৃষ্টি হলেই একসঙ্গে তিনটি পাম্প চালিয়ে দেওয়া হবে, যাতে চিনার পার্ক, সিটি সেন্টার-২ সংলগ্ন এলাকা জলমগ্ন না হয়ে পড়ে। একটি পাম্পকে স্ট্যান্ডবাই রাখা হবে। অত্যধিক বৃষ্টি হলে সেটিকেও অন্য তিনটির সঙ্গে চালিয়ে দেওয়া হবে বলে জানা গিয়েছে। হিডকোর ম্যানেজিং ডিরেক্টর দেবাশিস সেন জানান, পাম্পিং স্টেশনটির দিনে প্রায় দেড় লক্ষ কিউবিক লিটার জল টানার ক্ষমতা রয়েছে। চিনার পার্ক ও সংলগ্ন এলাকা থেকে জমা জল বের করে তা ঘুণি খালে ফেলে দেওয়া হবে। তাতে এলাকাবাসীর বহুদিনের জল-যন্ত্রণা দূর হবে বলেই মনে করছেন প্রশাসনিক আধিকারিকরা। সূত্রের খবর, এই কাজের জন্য প্রায় ৩ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। বিধাননগর পুরসভা সূত্রে জানা গিয়েছে, বর্ষার আগেই এই কাজ শেষ হয়ে যাবে।
অন্যদিকে, বিধাননগর পুরসভা এলাকার ১৯ নম্বর ওয়ার্ডে পানীয় জলের জন্য একটি পাম্প বসাল কর্তৃপক্ষ। এর ফলে সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের জ্ঞানেন্দ্র পল্লি এলাকার মানুষের জলের হাহাকার মিটবে বলেই আশ্বাস প্রশাসনের। এদিন পাম্পিং স্টেশনের উদ্বোধন করা হয়। সেখানে উপস্থিত ছিলেন রাজারহাট-গোপালপুরের বিধায়ক অদিতি মুন্সি এবং বিধাননগর পুরসভার মুখ্য প্রশাসক। কৃষ্ণা চক্রবর্তী বলেন, প্রতিদিনের হিসেবে ওই পাম্প প্রায় ৭২ হাজার গ্যালন জল এলাকায় সরবরাহ করবে। স্থানীয় কো-অর্ডিনেটর অনিতা বিশ্বাস বলেন, অনেকদিন ধরে এলাকাবাসীর মধ্যে জলের হাহাকার ছিল। এই পাম্পিং স্টেশনের ফলে প্রায় হাজার বাসিন্দা উপকৃত হবেন। এই জলের কিছুটা পৌঁছে যাবে ১৮ নম্বর ওয়ার্ডের একাংশেও। 

3rd     December,   2021
 
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021