বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
কলকাতা
 

মেলা শেষে সাগরে শুরু হল স্যানিটাইজেশন 

নিজস্ব প্রতিনিধি, দক্ষিণ ২৪ পরগনা: মেলা শেষ হতেই মন্দির চত্বর সহ অন্যান্য জায়গা জীবাণুমুক্ত করতে নেমে পড়ল জেলা প্রশাসন। সোমবার সকাল থেকেই মন্দির, বাজার, বাসস্ট্যান্ড সহ পুণ্যার্থীদের আশ্রয় নেওয়া বিভিন্ন জায়গা স্যানিটাইজ করা হয়। রবিবার রাতে আনুষ্ঠানিকভাবে মেলা শেষের ঘোষণা করা হয়েছে। তারপর আর সময় নষ্ট না করে প্রশাসনের পক্ষ থেকে সাফাই কাজ শুরু করে দেওয়া হয়। জীবাণুমুক্ত করা হয়েছে জেটিঘাট, পর্যটকদের থাকার লজ, হোটেল ইত্যাদিও। করোনা সংক্রমণের কথা মাথায় রেখেই এই অভিযান, জানিয়েছেন আধিকারিকরা। এদিনও সকালে মেলা প্রাঙ্গণে স্থানীয়দের অল্প বিস্তর ভিড় দেখা যায়। মেলা চলাকালে বৃষ্টির কারণে হরেকরকমের সামগ্রী নিয়ে বসা হকারদের ব্যবসা এবার বেশ মার খেয়েছে। তাই বাড়তি কয়েকটা দিন থেকে লোকসানের পরিমাণ কমানোর মরিয়া চেষ্টা করছেন তাঁরা।

হুঁশ নেই, ফুটপাতে প্লাস্টিকের তলায় ঝুঁকির ব্যবসা চলছেই
আলোচনার পর সুপরিকল্পিত নীতি, প্লাস্টিকের বিকল্পই আগামী লক্ষ্য, বলছেন ফিরহাদ

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: হওয়ার কথা ছিল ‘মডেল’ হকার মার্কেট। ত্রিপল, প্লাস্টিকবিহীন ঝাঁ-চকচকে নীল-সাদা কিয়স্কে বসে বিক্রি-বাট্টা। কিন্তু নানা জটিলতায় সেই পরিকল্পনা আপাতত ঠান্ডাঘরে। 
১৯, জানুয়ারি, ২০১৯। গড়িয়াহাট মোড়ে একটি একটি নামী জামাকাপড়ের দোকানে আগুন লাগে। সেই আগুন ছড়িয়ে লাগোয়া ফুটপাতের ২৮টি দোকান ভস্মীভূত হয়ে যায়। ফুটপাতে প্রায় সব দোকান তৈরি ত্রিপল এবং প্লাস্টিক দিয়ে। যার ফলে চোখের নিমেষে ছড়িয়েছিল আগুন। দমকলের ১৯টি ইঞ্জিনের সাহায্যে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়েছিল। এরপর কলকাতা পুরসভা সিদ্ধান্ত নিয়েছিল, ত্রিপল কিংবা প্লাস্টিক ব্যবহারের বদলে প্রত্যেক হকারের জন্য ছাতা লাগানো বা শেড দেওয়া কিয়স্কের ব্যবস্থা করা হবে। সেইমতো প্রস্তুতিও শুরু হয়। কিন্তু নানাবিদ কারণে সেই কাজ বেশি দূর এগোয়নি। 
ঘটনার আড়াই বছর হয়ে গিয়েছে।  গড়িয়াহাট, হাতিবাগান, যদুবাবুর বাজার, মানিকতলা, উল্টোডাঙা থেকে মুচিবাজারগামী রাস্তার ফুটপাত, এমনকী শিয়ালদহ উড়ালপুলের নীচে এবং এন আর এস হাসপাতালের ফুটপাত জুড়েও প্লাস্টিক ঢাকা দোকানের ছয়লাপ দেখা গিয়েছে। কোথাও আবার রাস্তাতেই লোহার কাঠামো বানিয়ে তার উপর টিনের ছাউনি কিংবা প্লাস্টিক টাঙিয়েই চলছে বিক্রিবাট্টা। হাতিবাগান, যদুবাবুর বাজার ঘুরে দেখলে সেই ছবি স্পষ্ট। যদিও, ফুটপাতে এভাবে লোহার কাঠামো বানানো কতটা আইন সম্মত, তা নিয়ে অবশ্য প্রশ্ন থাকছে। হাতিবাগান মার্কেটের ব্যবসায়ী বলেন, আইন কী আছে জানি না। প্রশাসনের অনুমতি নিয়েই সব হয়েছে। এখন অনেকেই টিন দিয়েছে। প্লাস্টিক কম আছে। তাই, আগুন লাগার আশঙ্কাও কম। তবে, অন্য বিকল্প কিছু হলে তো ভালোই হয়। 
কাপড়-জামার ব্যবসা করতে হলে ছোট কিয়স্কে বসে মালপত্র রেখে ব্যবসা করা সম্ভব নয়। তাই তখন কলকাতা পুরসভার সঙ্গে আলোচনাক্রমে গড়িয়াহাটের ফুটপাতে ক্ষতিগ্রস্ত ২৮ জন হকারের জন্য বিশেষ কিয়স্ক তৈরি করে দেওয়া হয়েছিল। যা তুলনায় একটু চওড়া এবং বড়। ঠিক হয়েছিল, আগামী দিনে ওখানকার প্রত্যেকটি হকারকে এই ধরনের কিয়স্ক দেওয়া হবে। যার ফলে একদিকে যেমন পথচলতি মানুষের অসুবিধা হবে না। আগুন লাগার মতো ঘটনাও ঘটবে না, বা ঘটলেও আগুন ছড়িয়ে এত ক্ষয়ক্ষতি হবে না। কিন্তু ওই ২৮ জন হকারের পর আর নতুন করে কেউ কিয়স্ক পায়নি বলে অভিযোগ। গড়িয়াহাট হকার্স ইউনিয়নের দেবরাজ ঘোষ বলেন, পুরসভা এবং পুলিস আমাদের থেকে তথ্য নিয়েছিল। তবে বিভিন্ন কারণে বিষয়টি আটকে রয়েছে। হকার আন্দোলনের নেতা শক্তিমান ঘোষও স্বীকার করছেন, প্লাস্টিক থাকা উচিত নয়। তাঁর কথায়, ছাতা লাগাতে হবে। কিন্তু, ছাতার তলায় রেডিমেড কাপড়ের ব্যবসা সম্ভব নয়। তার জন্য চাই অন্য বিকল্প। 
হাজরা পার্ক ও এসএসকেএম হাসপাতালের দু’দিকের ফুটপাতে এমনই সারি সারি নীল-সাদা হকার কিয়স্ক রয়েছে। কিন্তু সেগুলিতে সঠিক রক্ষণাবেক্ষণের অভাব স্পষ্ট। এই প্রসঙ্গে কলকাতা পুরসভার বিদায়ী মেয়র ফিরহাদ হাকিম বলেছেন, হকারদের সঙ্গে কথা বলেই নির্দিষ্ট হকার নীতি করতে হবে। চাই বিকল্প ব্যবস্থা। ফুটপাতে চলাচলেও অসুবিধা করা যাবে না। দুর্ঘটনা কমাতে হবে। সঙ্গে কিয়স্ক বা গাড়ি দেওয়ার প্রসঙ্গে বলেছেন, সেগুলি পাওয়ার পর তা দেখভালের দায়িত্ব হকারদের নিতে হবে। 

3rd     December,   2021
 
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021