বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
কলকাতা
 

সম্পত্তি নিয়ে বিবাদে
৪ জনকে কুপিয়ে খুন
সিঙ্গুরে পলাতক অভিযুক্তের খোঁজে পুলিস

নিজস্ব প্রতিনিধি, চুঁচুড়া: এক সকালে নিকেশ করে দেওয়া হল একই পরিবারের চারজনকে। ব্যবসা সংক্রান্ত বিবাদে রক্তগঙ্গা বয়ে গেল সিঙ্গুরের নান্দাবাজারে। আত্মীয়ের রোষে পড়ে খুন হলেন ব্যবসায়ী সহ তাঁর স্ত্রী-পুত্র ও বৃদ্ধ বাবা। এরমধ্যে দু’জনকে বৃহস্পতিবার সকালে ঘুমন্ত অবস্থাতেই খুন করা হয়। কয়েক মুহুর্তের মধ্যে সমস্ত ঘটনা ঘটে গিয়েছিল। ফলে দিনভর স্থানীয়রা বিশ্বাস করতে পারছিল না যে, সিঙ্গুরের ওই গুজরাতি পরিবারের আর কেউ বেঁচে নেই! আত্মীয়রাও বিশ্বাস করতে পারছেন না যে, এমন মর্মান্তিক ঘটনা ঘটতে পারে। পুলিস জানিয়েছে, একজনই ধারালো অস্ত্র নিয়ে এসে চারজনকে খুন করেছে।
এদিন সকালে ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় নান্দাবাজারের বাসিন্দা দীনেশ প্যাটেল (৫০) ও তাঁর স্ত্রী অনুসূয়া প্যাটেলের (৪৬)। বিকেলে এসএসকেএম হাসপাতালে মৃত্যু হয় দীনেশবাবুর ছেলে ভাবিক প্যাটেল (২৩) ও বাবা মাভজি প্যাটেলের (৭৬)। ওই ঘটনার মূল সন্দেহভাজন প্যাটেল পরিবারের আত্মীয় যোগেশ ধাওয়ানী ঘটনার পর থেকেই পলাতক। অভিযুক্তর এক ঘনিষ্ঠ আত্মীয়কে আটক করে পুলিস জিজ্ঞাসাবাদ করছে। খতিয়ে দেখা হচ্ছে সিসি ক্যামেরার ফুটেজ। হুগলির পুলিস সুপার (গ্রামীণ) আমনদীপ বলেন, ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। আততায়ী হিসেবে একজনের নাম পাওয়া গিয়েছে। পুলিস তদন্ত করছে। যাবতীয় সূত্র খতিয়ে দেখা হচ্ছে।
স্থানীয় ও পুলিস সূত্রে জানা গিয়েছে, সিঙ্গুরের নান্দাবাজারে প্যাটেলদের কাঠচেরাই মিল আছে। কিছুদিন ধরে সেই মিল চালানোর পাশাপাশি প্লাইউডের ব্যবসাও তাঁরা শুরু করেছিলেন। এলাকায় সম্ভ্রান্ত ব্যবসায়ী পরিবার হিসেবে প্যাটেলদের নাম ছিল। ওই মিলের লাগোয়া বাড়িতেই তাঁরা থাকতেন। এদিন সকালে এক ব্যক্তি বাড়ির সামনে এসে দীনেশ প্যাটেলের নাম ধরে ডাকে। তারপরেই দীনেশবাবু বেরিয়ে এসে ওই ব্যক্তিকে ঘরে নিয়ে যান। সেই সময় কারখানার নিরাপত্তা রক্ষী ও কয়েকজন কর্মী গোটা বিষয়টি নজর করেছিল। এরপর বাড়ির ভিতরে কী হয়েছে, তা স্পষ্টভাবে কেউ কিছু বলতে পারছেন না। তবে কিছুক্ষণ পরে চিৎকার শুনে নিরাপত্তারক্ষী বাড়ির ভিতরে গিয়ে দেখতে পান দীনেশবাবু ও তাঁর স্ত্রী রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে আছেন। তাঁদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার উদ্যোগ নেন নিরাপত্তারক্ষীই। সেই সময়েই তাঁর নজরে আসে সকালের সেই ব্যক্তি বেরিয়ে যাচ্ছেন। পুলিস সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই ব্যক্তিকেই পরে তিনি যোগেশ ভাওয়ানী বলে শনাক্ত করেছেন। ওই দম্পতিকে উদ্ধারের মাঝেই অন্য দু’টি ঘর থেকে গোঙানির শব্দ শুনে সেখানে গিয়ে দেখা যায়, দীনেশবাবুর ছেলে ও তাঁর বাবা জখম হয়ে পড়ে রয়েছেন। স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা দীনেশবাবু ও অনুসূয়াদেবীকে মৃত ঘোষণা করেন। ভাবিক ও তাঁর দাদুকে কলকাতায় রেফার করে দেওয়া হয়। পুলিসের অনুমান, দাদু ও নাতিকে ঘুমন্ত অবস্থাতেই কোপানো হয়েছে।
এদিকে সন্দেহভাজন আততায়ী সম্পর্কে পুলিস বিস্তারিত তথ্য সংগ্রহ করেছে। জানা গিয়েছে, যোগেশ ভাওয়ানী, প্যাটেলদের মামাতো ভাই। সে ও তার আরও দু’ভাই দীনেশবাবুর মিলেই কাজ করত। বছর খানেক আগে, যোগেশ পরিবারের অমতে বিয়ে করে। এনিয়েই বিবাদের সূত্রপাত। ওই ঘটনায় ক্ষুব্ধ প্যাটেলরা তাকে কাজ থেকে ছাড়িয়ে দেয়। এরপর পুরুষোত্তমপুরে স্ত্রীকে নিয়ে যোগেশ থাকত। কিন্তু ব্যবসায়িক ভাগ নিয়ে বিবাদ চলছিলই।

3rd     December,   2021
 
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021