বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
কলকাতা
 

সাধারণতন্ত্র দিবস উপলক্ষে জাতীয় পতাকার রঙের আলোয় সেজেছে জিপিও। ছবি: সায়ন চক্রবর্তী

ভোটের ১৭ দিন আগে ওয়ার্ডে
হবে করোনা রোগী চিহ্নিতকরণ

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: পুরভোটের ১৭ দিন আগে অর্থাৎ ২ ডিসেম্বর থেকে কলকাতার প্রতিটি ওয়ার্ডে করোনা আক্রান্তদের চিহ্নিত করার কাজ শুরু হবে। ১৯ ডিসেম্বর কলকাতায় পুরভোট। ওই দিন ভোটগ্রহণ প্রক্রিয়ার শেষ এক ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত ভোটারদের ভোটদানের ব্যবস্থা করা হবে। তাঁদের বুথে নিয়ে আসার জন্য প্রতি বরোতে তিনটি করে অ্যাম্বুলেন্স প্রস্তুত রাখবে রাজ্য নির্বাচন কমিশন। সোমবার স্বাস্থ্য দপ্তরের সঙ্গে রাজ্য নির্বাচন কমিশনের বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। 
করোনা এখন কিছুটা নিয়ন্ত্রণে থাকলেও সবরকমভাবে সতর্ক থাকতে চাইছে কমিশন। তাই যাঁদের এখনও টিকাকরণ বাকি, তাঁদের টিকা দেওয়ার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। সেক্টর অফিস থেকে টিকাকরণের ব্যবস্থা করছে কমিশন। স্বাস্থ্য দপ্তরের তরফে এদিন বৈঠকে জানানো হয়, বর্তমানে কলকাতায় করোনা রোগীর সংখ্যা ২০০। নতুন করে কেউ করোনা  পজিটিভ হলে স্বাস্থ্যদপ্তর এবং কলকাতা পুরসভার কাছ থেকে সেই তথ্য জানতে পারবে নির্বাচন কমিশন। সেই মতো ব্যবস্থা গ্রহণ করা যাবে। এছাড়া ভোটকেন্দ্রে ভোটারদের জন্য ডান হাতের গ্লাভস, স্যানিটাইজার এবং থার্মাল চেকিংয়ের ব্যবস্থা থাকছে। এ ব্যাপারে সবকিছু চূড়ান্ত করতে আজ, মঙ্গলবার স্বাস্থ্যদপ্তর, ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প দপ্তর, কলকাতা পুরসভা ও দক্ষিণ ২৪ পরগনার জেলাশাসকের দপ্তরের আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠকে বসবেন রাজ্য নির্বাচন কমিশনার সৌরভ দাস। 
কলকাতা পুরসভার আসন্ন নির্বাচন পর্ব অবাধ ও শান্তিপূর্ণ করতে রাজ্য নির্বাচন কমিশন বরো পিছু একজন করে পর্যবেক্ষক নিয়োগ করেছে। পাশাপাশি গোটা ভোট প্রক্রিয়ার উপর নজরদারি চালানোর জন্য আইএএস পদমর্যাদার চারজন বিশেষ পর্যবেক্ষক নিয়োগ করা হয়েছে। এবারের ভোটে প্রার্থীদের খরচের সীমা কিছুটা বাড়ানো হয়েছে। ওয়ার্ডে ভোটারের সংখ্যার ভিত্তিতে সর্বোচ্চ কত টাকা খরচ করা যাবে, রাজ্য নির্বাচন কমিশনের জারি করা বিজ্ঞপ্তিতে সেই হিসেব দেওয়া হয়েছে। যেমন কোনও ওয়ার্ডে ছ’হাজার বা তার কম সংখ্যক ভোটার হলে একজন প্রার্থী সর্বোচ্চ ৪২ হাজার টাকা খরচ করতে পারবেন। যা আগে ছিল ৩০ হাজার টাকা। অর্থাৎ ভোটার পিছু আগে পাঁচ টাকা খরচ করার অনুমোদন থাকত। এখন তা সাত টাকা করা হল। আবার কোনও ওয়ার্ডের ভোটারের সংখ্যা ১০ হাজার হলে একজন প্রার্থী সর্বোচ্চ ৮০ হাজার টাকা খরচ করতে পারবেন। এক্ষেত্রে আগে সর্বোচ্চ সীমা ছিল ৬০ হাজার টাকা। ভোটারের সংখ্যা ১০ হাজার থেকে ৫০ হাজার হলে একজন প্রার্থী ভোটার পিছু আট টাকা করে খরচ করতে পারবেন, যা আগে ছিল ছ’টাকা। আবার কোনও ওয়ার্ডের ভোটার সংখ্যা যদি ৫০ হাজারেরও বেশি হয়, তবে ওই প্রার্থী সর্বোচ্চ চার লক্ষ টাকা খরচ করতে পারবেন। যা আগে ছিল তিন লক্ষ টাকা। সব খরচের হিসেব নির্বাচন কমিশনের কাছে জমা করতে হবে।

30th     November,   2021
 
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021