বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
কলকাতা
 

সাধারণতন্ত্র দিবস উপলক্ষে জাতীয় পতাকার রঙের আলোয় সেজেছে জিপিও। ছবি: সায়ন চক্রবর্তী

ঋণ পরিশোধ করুন,
হুমকি দিয়ে প্রতারণা
ভুয়ো মেসেজে নাকাল মানুষ

 

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: হোয়াটসঅ্যাপ হ্যাকের পর এবার ‘গো ক্যাশ’ অ্যাপের নাম করে অভিনব প্রতারণার চেষ্টা কলকাতা শহরে। বিষয়টি নজরে আসতেই কলকাতা পুলিসের গোয়েন্দা প্রধান ‘টুইট’ করে শহরবাসীকে সতর্ক করে দিয়েছেন। ওই টুইটে বলা হয়েছে, এটা ভুয়ো মেসেজ। কোনও অবস্থাতেই ওই মেসেজের শেষে যে লিঙ্ক রয়েছে, তাতে ‘ক্লিক’ করবেন না। 
গো ক্যাশ কী? গুগল প্লে স্টোরে গেলেই এই অ্যাপের দেখা মিলবে। লালবাজার জানাচ্ছে, গত কয়েকদিন ধরেই শহরের বিভিন্ন প্রান্তের বাসিন্দারা সাইবার থানায় জানিয়েছেন, ঋণ পরিশোধের নাম করে তাঁদের হোয়াটসঅ্যাপে হুমকি মেসেজ আসছে। 
কী বলা হচ্ছে ওই মেসেজে? গোয়েন্দারা বলছেন, এই সব মেসেজে সাধারণভাবে সময়সীমা বেঁধে দেওয়া হচ্ছে। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে ঋণ পরিশোধ না করলে, সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির আত্মীয় ও বন্ধুবান্ধবদের কাছে মেসেজ পাঠিয়ে জানিয়ে দেওয়া হবে যে তিনি ঋণখেলাপি। পাশাপাশি, সিবিল তালিকায় নাম তুলে দেওয়া হবে। এই তালিকায় নাম উঠলে ওই ব্যক্তিকে দেশের কোনও ব্যাঙ্ক, আর্থিক প্রতিষ্ঠান আর কখনওই ঋণ দেবে না। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই দেখা গিয়েছে, এই মেসেজ প্রাপকদের বাজারে কোনও বকেয়া ঋণ নেই। স্বভাবতই এমন হুমকি মেসেজ পেয়ে সবাই ভীত সন্ত্রস্ত এবং বিভ্রান্ত হয়ে পড়ছেন।
গোয়েন্দারা শহরবাসীকে সতর্ক করে বলেছেন, ‘গো ক্যাশ’-এর নাম করে কোনও মেসেজ পেলে তাকে গুরুত্ব দেওয়ার প্রয়োজন নেই। কারণ এটা ভুয়ো মেসেজ। তবে কোনও অবস্থাতেই ওই মেসেজের শেষে থাকা লিঙ্কে ‘ক্লিক’ করবেন না। ক্লিক করলেও সাইবার দুষ্কৃতীরা আপনার মোবাইলের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নেবে। ফলে আপনার স্মার্ট ফোনে থাকা নেট ব্যাঙ্কিং, পেটিএম, ফোন পে, ডেবিট কার্ড, ক্রেডিট কার্ডের মতো গোপন তথ্য সাইবার দুষ্কৃতীদের হাতে চলে যাবে। সেক্ষেত্রে আপনার অ্যাকাউন্ট থেকে খোয়া যেতে পারে মোটা টাকা। আপনি সর্বস্বান্তও হতে পারেন। পাশাপাশি কোনও নম্বর থেকে হোয়াটসঅ্যাপে এমন মেসেজ পেলে তা ‘ব্লক’ করে দিন। সমস্যা হলে লালবাজারের সাইবার থানায় যোগাযোগ করতে পারেন। 
কলকাতার বুকে এই নয়া কায়দায় প্রতারণার চেষ্টা নিয়ে ডিসি (সাইবার) বিদিশা কলিতার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানিয়েছেন, সৌভাগ্যবশত শহরে অনেকেই এমন হুমকি মেসেজ পেলেও কেউ ওই লিঙ্কে ‘ক্লিক’ করেননি। ফলে কারও টাকা খোয়া যায়নি। টাকা খোয়া না যাওয়ায় স্বাভাবিকভাবেই এখনও সাইবার থানায় এনিয়ে কোনও এফআইআর দায়ের হয়নি বলেই লালবাজার দাবি করেছে। 
সাইবার গোয়েন্দা বলছেন, সাম্প্রতিক অতীতে কলকাতা শহরে গ্রাহকের কেওয়াইসি আপডেটের টোপ দিয়ে ‘এনি ডেস্ক’ বা ‘টিম ভিউওয়ার’-এর মতো অ্যাপ গ্রাহকের মোবাইলে ডাউনলোড করানোর পর এক টাকা পেমেন্টের টোপ দিয়ে অ্যাকাউন্ট থেকে মোটা টাকা হাতানোর নেপথ্যে ছিল জামতাড়া গ্যাং। তবে এবার এই ‘গো ক্যাশ’ চক্রের নেপথ্যে কারা রয়েছে, তা এখনও স্পষ্ট নয়। কিন্তু ‘গো ক্যাশ’ অ্যাপের মাধ্যমেও লিঙ্ককে কাজে লাগিয়ে টাকা হাতানোর পথে হাঁটতে চলেছে সাইবার দুষ্কৃতীরা।

30th     November,   2021
 
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021