বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
কলকাতা
 

পুরভোটেও শূন্যের আতঙ্ক, অস্তিত্ব টিকিয়ে
রাখতে লড়াইয়ের প্রস্তুতি নিচ্ছে সিপিএম

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: লোকসভা ও বিধানসভা নির্বাচনে খালি হাতে ফেরার পর এবার কি আসন্ন পুরসভা নির্বাচনেও ফাঁকা ঝুলি বইতে হবে বামেদের? রাজ্য-রাজনীতির সমীকরণ যে দিকে গড়িয়েছে, তাতে সেই সম্ভাবনাই ক্রমশ প্রবল হয়ে উঠছে। কারণ ৩৪ বছর ধরে রাজ্য শাসন করা বামফ্রন্টের ভোট এখন নামতে নামতে পাঁচ শতাংশে এসে ঠেকেছে। তলানিতে চলে যাওয়া জনসমর্থনের উপর ভিত্তি করে সিপিএম ও ফ্রন্টের শরিক দলগুলি বড়জোর দু’-একটি ওয়ার্ড দখল করতে সক্ষম হলেও কোনও পুরসভা কব্জা করার অবস্থায় এখন আর নেই। আসলে তৃণমূল ও বিজেপি’র মধ্যে মেরুকরণের ফলে রাজ্যে নিজেদের প্রাসঙ্গিকতা অনেকটাই হারিয়েছে রাজ্য সিপিএম। আসন্ন পুরভোট আসলে তাদের কাছে অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখার লড়াই।
কলকাতা ও হাওড়া কর্পোরেশন সহ রাজ্যের ১১৬টি পুরসভায় নির্বাচন বকেয়া। উৎসবের মরশুম পেরলেই বাজতে পারে ভোটের দামামা। এই অবস্থায় সিপিএম বা বামফ্রন্ট কীভাবে লড়াইয়ে নামবে, তা নিয়ে চিন্তায় আলিমুদ্দিনের কর্তারা। শেষ পর্যন্ত রাজ্যের সব আসনে তারা প্রার্থী খুঁজে পাবে কি না, সেই প্রশ্নও বড় হয়ে দেখা দিয়েছে। পাশাপাশি পুরভোটেও শূন্য আসনের দুঃস্বপ্ন তাড়া করতে শুরু করেছে তাদের। সেই উদ্বেগের আবহেই মঙ্গলবার পার্টির রা‌জ্য সম্পাদকমণ্ডলীর বৈঠক হয়েছে আলিমুদ্দিনে। রাজ্য নেতৃত্ব এই বৈঠক থেকে জেলা কমিটিগুলিকে প্রার্থী তালিকা তৈরি ও নির্বাচনী সংগঠন গড়ে তোলার নির্দেশ দিয়েছে। পুজো-পর্ব শেষ হলেই এলাকায় এলাকায় নিবিড় জনসংযোগের মাধ্যমে প্রচার শুরু করতে চায় বামেরা। এব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে রাজ্য কমিটির পরবর্তী বৈঠকে।  
বিভিন্ন পুরসভায় গত নির্বাচনে একচেটিয়া আধিপত্য ছিল তৃণমূল কংগ্রেসের। কতগুলিতে আবার সরাসরি জয় না পেলেও পরবর্তীকালে দলবদলের অঙ্কে গরিষ্ঠতা পায় শাসকদল। বর্তমানে সবকটি পুর বোর্ডই মেয়াদ উত্তীর্ণ। সরকার সময়ে ভোট করার পথে হাঁটেনি অনেক ক্ষেত্রে। তার উপর কোভিড পরিস্থিতি চলে আসায় পুরভোটের যেটুকু সম্ভাবনা দেখা দিয়েছিল, তাও মিলিয়ে যায়। ফলে পুরনো কাউন্সিলারদেরই কো-অর্ডিনেটর নাম দিয়ে কাজ চালানো হচ্ছে বিভিন্ন পুরসভায়। চেয়ারম্যান বা মেয়রের পদমর্যাদাও বদলে হয়েছে মুখ্য প্রশাসক। এখন কোভিড পরিস্থিতি আগের মতো নেই। স্বাভাবিকতা ফিরে এসেছে অনেকটাই। তাই আগামী ডিসেম্বরের প্রথমার্ধে পুরভোট করা যায় কি না, তা নিয়ে ভাবনাচিন্তা করছে রাজ্য সরকার। এই সম্ভাবনা সামনে আসতেই আর পাঁচটি দলের মতো নড়েচড়ে বসেছে সিপিএম। 
দলীয় সূত্রের খবর, কোন পুরসভায় কত আসনে প্রার্থী দেওয়ার মতো অবস্থা রয়েছে, তা জেলা কমিটিগুলিকে খতিয়ে দেখতে বলেছে রাজ্য নেতৃত্ব। মুখরক্ষার মতো ভোট পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে, এমন ওয়ার্ডগুলিতেই প্রার্থী দেওয়ার পক্ষপাতী আলিমুদ্দিন। আসন নিয়ে শরিক দলগুলির সঙ্গেও কথা বলতে বলা হয়েছে জেলা নেতৃত্বকে। দলের একাংশ চায় না, এই ভোটে জোটে থাকুক কংগ্রেস। তারা চায় নিজের শক্তির উপর ভিত্তি করেই জনাদেশ নিক পার্টি। দলের রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্রও জোট না করেই পুরভোটের প্রস্তুতি নেওয়ার ইঙ্গিত দিয়েছেন।

21st     October,   2021
 
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021