বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
কলকাতা
 

মন্ত্রী, পুরকর্তার নামে ‘সন্ধান চাই’ পোস্টার,
বিজেপির বিরুদ্ধে তৃণমূলের নালিশ থানায়

নিজস্ব প্রতিনিধি, বারাসত: প্রত্যেক বছরের মতো এবারও হাবড়া শহরের কয়েকটি ওয়ার্ড জলমগ্ন। নিচু এলাকার বাড়ি ছেড়ে অনেকেই উঠে এসেছেন উঁচু জায়গায়। জলবন্দি এলাকার মানুষ সমস্যার দ্রুত সমাধান চাইছেন। পাম্প চালিয়ে জমা জল বের করার চেষ্টা করছে পুরসভা। কিন্তু জলযন্ত্রণাকে হাতিয়ার করে যুযুধান দুই রাজনৈতিক দলের চাপানউতোরও চরমে উঠেছে। মন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক, পুরপ্রশাসক নারায়ণচন্দ্র সাহা প্রমুখ তৃণমূল নেতার নামে নিখোঁজ পোস্টার দিয়েছে বিজেপি। সোশ্যাল মিডিয়াতেও ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছে সেসব। ওই পোস্টারে আপত্তিকর কথা লেখার অভিযোগে, নারায়ণবাবু হাবড়া থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। পুলিস জানিয়েছে, ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। পুলিস ও স্থানীয় সূত্রের খবর, নদীয়ার হরিণঘাটা সহ বিভিন্ন এলাকার বৃষ্টির জল অশোকনগরের বাঁশপুল এলাকার ভিতর দিয়ে হাবড়া পুরসভার ১৫ নম্বর ওয়ার্ডে যায়। এরপর তা ৭, ৮ নম্বর ওয়ার্ডসহ নিকটবর্তী এলাকায় কিছুদিন জমে থাকে। আগে এই জল বনবনিয়া শ্মশানের কাছ দিয়ে গুমার কাছে বিদ্যাধরীতে পড়ত। কিন্তু ওই খালের অংশবিশেষ বেদখল হয়ে গিয়েছে। মজেও গিয়েছে বিদ্যাধরী। তাই জমা জল ঠিকমতো সরে না। তার উপর হাবড়ায় পদ্মাখালের চর বেদখল করে বসতি গড়া হয়েছে। এও এক বড় সমস্যা। ফলে প্রতি বছরের মতো ৭, ৮, ১৫ নম্বর সহ কয়েকটি ওয়ার্ড এবারও জলমগ্ন। গত বছর ২৫টি পাম্প চালানো হয়। এবার চলছে ১৫টি।  গত বছর দুটি বুস্টিং স্টেশন তৈরির অনুমোদন দেয় সরকার। কেএমডিএর এই কাজের জন্য বরাদ্দ হয়েছে ২৭কোটি টাকা। টেন্ডার প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়ে গিয়েছে।  এই প্রকল্প রূপায়িত হলে জমা জলের সমস্যা কমবে বলেই মনে করে সরকার। এই পরিস্থিতিতে হাবড়ায় সোশ্যাল মিডিয়ায় অপ্রীতিকর পোস্ট করা নিয়ে ক্ষুব্ধ তৃণমূল সমর্থকরা। এই বিষয়ে বিজেপির বারাসত সাংগঠনিক জেলার সহসভাপতি বিপ্লব হালদার বলেন, হাবড়ার মানুষকে জলযন্ত্রণায় প্রতি বছর নাজেহাল হতে হচ্ছে। খাদ্যমন্ত্রী থাকাকালীন জ্যোতিপ্রিয়বাবুকে তাও হাবড়ায় দেখা যেত। এখন তাঁকে পাওয়াই যাচ্ছে না। সুরাহা দিতে ব্যর্থ পুরসভাও। তাই ভুক্তভোগী কোনও ‘কার্যকর্তা’ এই ধরনের পোস্ট করে থাকতে পারেন। কিন্তু বিজেপির তরফে এমন কোনও কিছু করা হয়নি। পুরপ্রশাসক বলেন,  ভোটের পর থেকে রাহুল সিনহাকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক সবসময় হাবড়ার মানুষেরই সঙ্গে থাকেন। তাঁর উদ্যোগে এবছরই বুস্টিং স্টেশন তৈরি হচ্ছে। সমস্যাটি এরপর আর থাকবে না। কিন্তু রাজনৈতিক শালীনতা নষ্ট করে যেভাবে আক্রমণ করা হয়েছে তা মানা যায় না। আমরা থানায় অভিযোগ করেছি। জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক বলেন, বিজেপি হাবড়ার উন্নয়নের খোঁজই রাখে না। ওদের কুৎসার জবাব আইনি পথেই দেব।

19th     October,   2021
 
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021