বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
কলকাতা
 

পুজোর পরেই বাড়ি বাড়ি
জনসংযোগ করবে তৃণমূল

সংবাদদাতা,  বারুইপুর: দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার সাতটি পুরসভার মধ্যে ছ’টি তৃণমূল কংগ্রেসের দখলে আছে। জয়নগর-মজিলপুর পুরসভা নিজেদের দখলে আনতে এবার কোমর বেঁধে নামছে তৃণমূল কংগ্রেস। পুজোর পরেই পুরসভার ১৪টি ওয়ার্ডে বাসিন্দাদের বাড়ি বাড়ি ঘুরে জনসংযোগে নামছে শাসকদল। জয়নগরের বিধায়ক বিশ্বনাথ দাসকে এমনই নির্দেশ দিয়েছেন সুন্দরবন সাংগঠনিক জেলার সভাপতি বিধায়ক যোগরঞ্জন হালদার। এই প্রসঙ্গেই বিধায়ক বিশ্বনাথ দাস বলেন, ১ নভেম্বর থেকে এই কর্মসূচি নেওয়া হবে। দুয়ারে সরকারের মতোই এবার বাড়ি বাড়ি গিয়ে রাজ্য সরকারের উন্নয়নের বার্তা পৌঁছে দেওয়া হবে। যদিও শাসকদলের এই কর্মসূচিকে কটাক্ষ করে পুরসভার প্রাক্তন পুরপ্রশাসক কংগ্রেসের সুজিত সরখেল বলেন, যে কোনও রাজনৈতিক দলের জনসংযোগ করা কর্তব্য। তাঁরা এতদিন করেননি, সেটা তাঁদের ব্যর্থতা। জনসংযোগের আড়ালে তাঁরা হুমকি দেওয়ার চিন্তাভাবনা করছে বলে মনে হয়।    
প্রসঙ্গত, সুন্দরবন সাংগঠনিক জেলা হওয়ার পরেই দলের জেলা সভাপতি দলের কর্মীদের নিয়ে প্রথম বৈঠকেই জানিয়ে দিয়েছিলেন জয়নগর-মজিলপুর পুরসভাকে পাখির চোখ করে ঐক্যবদ্ধভাবে কর্মীদের ঝাঁপাতে হবে। কীভাবে এই পুরসভা জিততে হবে, তা নিয়ে প্রাথমিকভাবে রূপরেখাও তৈরি হয়ে গিয়েছিল। পাথরপ্রতিমার বিধায়ক সমীর জানাকে চেয়ারম্যান করে কুলতলির বিধায়ক গণেশ মণ্ডলকে, বিশ্বনাথ দাসকে বাড়তি দায়িত্ব দিয়ে দলীয় কমিটিও গড়া হয়েছে। পাশাপাশি এই ব্যাপারেই জয়নগর শহরের তৃণমূলের যুব শিবিরকে নিয়ে বৈঠকও করেছিলেন সুন্দরবন সাংগঠনিক জেলার যুব সভাপতি বাপি হালদার। জয়নগরের বিধায়ক বলেন, ১৪টি ওয়ার্ডেই দলের নতুন করে কমিটি গঠন করা হবে। পুরাতন কমিটি সম্পূর্ণভাবে ভেঙে দেওয়া হবে। এই কমিটিতে ৫ জনের বেশি সদস্য থাকবে। দলের সক্রিয় ও যুব কর্মীকে কমিটিতে অন্তর্ভুক্ত করা হবে। বাসিন্দাদের বাড়ি বাড়ি যাবেন কমিটির সদস্যরা। তাঁরা রাজ্য সরকারের বিভিন্ন জনমুখী প্রকল্পের কথা মানুষের কাছে তুলে ধরবেন। একই সঙ্গে কোন কোন ওয়ার্ডে কী কী সমস্যা আছে, তা চিহ্নিত করে দ্রুত সমাধানের ব্যবস্থা করা হবে। পুরসভা এলাকায় মোট ভোটার প্রায় ২০ হাজার। গত বিধানসভা নির্বাচনে দেখা গিয়েছে, পুর এলাকায় মাত্র ৩০টি ভোটে পিছিয়ে রয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। কারণ, বিজেপির ভোট যেখানে ৭৫৪৮, সেখানে তৃণমূলের ভোট ৭৫১৮। উল্টোদিকে কংগ্রেসের ভোট ১৭০০, এসইউসি পেয়েছে ১৯০০ ভোট। শাসকদলের জয়নগর শহরের প্রাক্তন সভাপতি প্রবীর চক্রবর্তী বলেন, বিধানসভা ভোটে ৬টি ওয়ার্ডে আমরাই এগিয়ে। যা পুর নির্বাচনের আগে বাড়তি অক্সিজেনও দেবে দলকে।

22nd     September,   2021
 
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021