বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
কলকাতা
 

দিনভর বৃষ্টিতে দুর্ভোগ

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: মঙ্গলবার নিম্নচাপের বৃষ্টিতে ভাসল কলকাতা এবং পার্শ্ববর্তী জেলাগুলি। কাজের দিনে অবিরাম বৃষ্টিতে ব্যাপক দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে সাধারণ মানুষকে। শহরের বিভিন্ন জায়গায় কমবেশি জল জমেছে। গোদের উপর বিষফোঁড়ার ভূমিকা নিয়েছে সন্ধ্যায় গঙ্গার জলস্তর বৃদ্ধি। সে কারণে লকগেটগুলি বন্ধ রাখতে হয়। তবে, সকালের দিকে তা খোলা থাকায় জল বেরিয়ে যেতে পেরেছে। কলকাতা পুরসভার দাবি, অল্পবিস্তর জল জমলেও চেনা জলছবি এদিন ছিল না।
সকাল ৮টা থেকে কলকাতায় বৃষ্টির দাপট বাড়তে শুরু করে। বেলা ২টো পর্যন্ত উল্টোডাঙায় মোট বৃষ্টির পরিমাণ ছিল শহরের মধ্যে সবচেয়ে বেশি। দ্বিতীয় স্থানে বীরপাড়া। ধাপা লকগেট এবং দত্তবাগানেও বৃষ্টির পরিমাণ ছিল যথেষ্টই বেশি। ধাপা লকগেট এবং মোমিনপুরে বৃষ্টি তুলনায় কম হয়েছে। পুরসভা জানিয়েছে, ভারী বৃষ্টির সময় লকগেট খোলা থাকায় মুকুন্দপুর মেইন রোড, পাটুলি ঝিলপাড়, বুড়ো শিবতলা, এস এল রায় রোড, বীরেন রায় রোড পূর্ব এবং পশ্চিম, পাহাড়পুর রোড, মুদিয়ালি রোড, আলিপুর, যোধপুর পার্ক, ঠনঠনিয়া, কলেজ স্ট্রিট, মুক্তারামবাবু স্ট্রিট প্রভৃতি অঞ্চলে জমা জলের চেনা ছবি দেখা যায়নি। তবে, বিক্ষিপ্তভাবে এই জায়গাগুলিতে জল জমেছে। সন্ধ্যা ৭টা নাগাদ গঙ্গায় জলস্তর বেড়ে যাওয়ায় লকগেট বন্ধ রাখতে হয়। তাই তখন জল বেরতে কিছুটা সমস্যা হয়।
হাওড়া শহরের গুরুত্বপূর্ণ এলাকা যেমন রামচরণ শেঠ রোড, পঞ্চাননতলা রোড, টিকিয়াপাড়া, দাশনগর, সালকিয়া, লিলুয়া, বালি, বেলুড়ের বিভিন্ন অংশে জল জমেছে। হুগলি থেকে হাওড়ায় জল ঢোকা ঠেকাতে লকগেট বন্ধ রাখা হয়েছিল বলে হাওড়া পুরসভা সূত্রে খবর। উলুবেড়িয়া, বাউড়িয়ায় একাধিক ওয়ার্ড জলমগ্ন হয়েছে। এয়ারপোর্ট এক নম্বর গেট, হলদিরাম ক্রসিং এবং সার্ভিস রোডে জল থাকায় বিমানবন্দরে যেতে সমস্যায় পড়েন যাত্রীরা। বিমানবন্দরের ভিতরে বিভিন্ন অংশে জল জমে যাওয়ায় অধিকাংশ উড়ানই নির্ধারিত সময়ের চেয়ে দেরিতে ছেড়েছে। দমদমে সকাল সাড়ে ৮টা থেকে বেলা আড়াইটে পর্যন্ত ১১৬ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। দমদম সেন্ট্রাল জেল চত্বরেও জল দাঁড়িয়ে ছিল দীর্ঘক্ষণ। সেন্ট্রাল সিঁথি সরকারি আবাসনের একতলার ঘরগুলিতেও জল ঢুকে যায়। দমদম স্টেশনের আন্ডারপাসটি জলমগ্ন হয়ে পড়ে। একই অবস্থা পাতিপুকুর আন্ডারপাসের। সল্টলেকের একাধিক এলাকায় জল জমেছে। করুণাময়ী মোড়ে ছিল থইথই জল। রাস্তায় জল থাকায় অফিসে পৌঁছতে সমস্যায় পড়েন বহু মানুষ। তবে বিকেলের পর জল নেমে গিয়েছে বলে জানা গিয়েছে। আবহাওয়া দপ্তর সূত্রে খবর, সকাল সাড়ে ৮টা থেকে বেলা আড়াইটে পর্যন্ত ৯০ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। নিউটাউনের প্রায় সমস্ত রাস্তাই জলমগ্ন হয়ে পড়ে এদিনের বৃষ্টিতে।
বরানগর থেকে গারুলিয়া, বারাসত, মধ্যমগ্রামের বহু এলাকা এদিন জলের নীচে চলে যায়। দক্ষিণে মহেশতলা, পুজালি এবং বজবজ পুরসভার প্রতিটি ওয়ার্ডেই কোথাও না কোথাও জল জমেছে। সোনারপুরের বৈকুণ্ঠপুর, গ্রিন পার্ক এলাকা, ডায়মন্ডহারবার হাসপাতালেও জল জমে যায়। কাকদ্বীপ, সাগর, নামখানার দিকেও বহু এলাকা জলমগ্ন হয়ে পড়েছে।

15th     September,   2021
 
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021