বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
কলকাতা
 

জল যন্ত্রনা

মঙ্গলবারও জলমগ্ন গল্ফগ্রিন রোড। ভাস্কর মুখোপাধ্যায়ের তোলা ছবি।

শিক্ষকদের আটকে রাখতে পারবে না স্কুল,
উৎসশ্রী উদ্বোধন করে জানালেন শিক্ষামন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: শিক্ষক বদলির উৎসশ্রী প্রকল্প কাজ শুরু করল শনিবার মধ্যরাত থেকে। এবার আর বদলিতে বাধা হতে পারবে না স্কুল কর্তৃপক্ষ। স্কুলের এনওসি না পেয়ে বছরের পর বছর বাড়ি থেকে দূরে থাকতে বাধ্য হন শিক্ষক-শিক্ষিকারা। এবার তা পুরোপুরি বন্ধ হচ্ছে। ১ আগস্ট রাত ১২টা থেকে উৎসশ্রী পোর্টালে শিক্ষকদের বদলির আবেদন নেওয়া শুরু হবে। শনিবার বিকাশভবনে পোর্টাল উদ্বোধন করে শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু বলেন, আবেদনের এক মাসের মধ্যে সব খতিয়ে দেখে ট্রান্সফার অর্ডার ইস্যু হবে। প্রধান শিক্ষক বা স্কুল কর্তৃপক্ষ আবেদনকারী কাউকে জোর করে আটকে রাখতে পারবেন না। 
উৎসশ্রী পোর্টালে শিক্ষক-শিক্ষিকাদের পাশাপাশি বদলির আবেদন জানাতে পারবেন শিক্ষাকর্মীরাও। মেডিক্যাল গ্রাউন্ডের ক্ষেত্রে আবেদন করলে রেজিস্টার্ড ডাক্তারের প্রেসক্রিপশন ও অন্যান্য কাগজ লাগবে। ৪০ শতাংশের বেশি প্রতিবন্ধকতা থাকলে রিনিউ করা প্রতিবন্ধী সার্টিফিকেট দিয়ে আবেদন করতে হবে। শিক্ষামন্ত্রী জানিয়েছেন, জটিল অসুখ বা কোনও শিক্ষিকার বিবাহ বিচ্ছেদ বা স্বামীর মৃত্যুও বদলির আবেদনে গ্রাহ্য হবে। বিভিন্ন ধরনের বদলির জন্য আলাদা-আলাদা ভাগ রাখা হয়েছে। সরকার পোষিত ও সাহায্যপ্রাপ্ত প্রাথমিক থেকে উচ্চ মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষক ও শিক্ষাকর্মীরা এই পোর্টালের মাধ্যমে আবেদন জানাতে পারবেন। একই স্কুলে পাঁচ বছর কর্মরত যে কোনও শিক্ষক বা শিক্ষিকা আবেদনের যোগ্য। পাঁচ বছরের মধ্যে ট্রান্সফার নিলে আবেদন করা যাবে না। সাত বছরের মধ্যে  বদলির আদেশ প্রত্যাখ্যান করলে আবেদন করা যাবে না। কোনও শিক্ষক বা শিক্ষিকা সাসপেন্ড থাকলে আবেদন করতে পারবেন না। বিভাগীয় তদন্ত বা বিদ্যালয় সংক্রান্ত বিষয়ে কোর্ট কেস চললেও আবেদন গ্রাহ্য হবে না। 
কীভাবে সুবিধা মিলবে এই পোর্টালের মাধ্যমে? https://banglarshiksha.gov.in/utsashree পোর্টালে এমপ্লয়ি কোড ও প্যান নম্বর সাবমিট করলে একটি ওটিপি আসবে। এটি নিৰ্দিষ্ট ঘরে বসিয়ে সাবমিট করলে লগ ইন করা যাবে। এর পর শিক্ষক শিক্ষিকা জেলা ঠিক করবেন। অর্থাৎ, তিনি যে জেলায় চাকরি করেন সেই জেলায় আবেদন করবেন নাকি অন্য কোনও জেলায় আবেদন করবেন। সর্বাধিক তিনটি স্কুল পছন্দ করা যাবে। একদম শেষ পর্যায়ে সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা হলো ‘রিজন’ পয়েন্ট।  অর্থাৎ, কোন গ্রাউন্ডে শিক্ষক শিক্ষিকা ট্রান্সফার নিতে চান তার ছ’টি কারণ খুলে যাবে। এর মধ্য থেকে যে কোনও একটি সিলেক্ট করতে হবে। সবশেষে আবেদনকারী শিক্ষক/শিক্ষিকা সমস্ত তথ্য দেখে নিয়ে চূড়ান্ত করবেন। পরে পাল্টানো যাবে না।
মন্ত্রী জানিয়েছেন, বদলির আবেদন করার সময় কোনও সমস্যা হলে টোল ফ্রি নম্বর ১৮০০১০২৩১৫৪ এ জানানো যাবে। এছাড়াও ৮৯০২৬০২৫১৯ এবং ৬২৯২২৬৩৩০০ নম্বরে হোয়াটসঅ্যাপ করা যাবে। এছাড়া  onlineteachertransfer.com  ওয়েবসাইটেও অভিযোগ জানানোর ব্যবস্থা থাকছে।

1st     August,   2021
 
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021