বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
কলকাতা
 

জল যন্ত্রনা

মঙ্গলবারও জলমগ্ন গল্ফগ্রিন রোড। ভাস্কর মুখোপাধ্যায়ের তোলা ছবি।

দ্রুত অডিট সম্পন্ন করে রিপোর্ট
জমা দিতে নির্দেশ সব পঞ্চায়েতকে

সঞ্জয় গঙ্গোপাধ্যায়, কলকাতা: সব গ্রাম পঞ্চায়েত অডিট করার নির্দেশ দিল সংশ্লিষ্ট দপ্তর। বর্তমানে রাজ্যে ৩২৩৯টি গ্রাম পঞ্চায়েতের মধ্যে ১১৬৫টিতে এখনও অডিট হয়নি। অবিলম্বে সেই সব গ্রাম পঞ্চায়েতের অডিট করার নির্দেশ দেওয়া হল এবং সেই রিপোর্ট পাঠানোর জন্য বলা হয়েছে। বিশ্বব্যাঙ্কের আর্থিক সহায়তায় গ্রামীণ পরিকাঠামো তৈরি করতে গ্রাম পঞ্চায়েত সশক্তিকরণ কর্মসূচিতে (আইএসজিপিপি) ১৪০০ কোটি টাকা দেওয়া হয়। যার মধ্যে ১১০০ কোটি টাকা ইতিমধ্যে দিয়েছে বিশ্বব্যাঙ্ক। রাজ্য সরকার তার ম্যাচিং গ্র্যান্ট হিসেবে আরও ১১০০ কোটি টাকা দিয়েছে। সেই টাকার হিসেব এবং কাজের রিপোর্ট নিয়ে সব পঞ্চায়েতকে অডিট রিপোর্ট জমা দিতে হয়। সেই রিপোর্টের উপর ভিত্তি করে পঞ্চায়েতগুলি পুরস্কার পায়। গত বছর সাতটি পঞ্চায়েত পুরস্কার পেয়েছে। অবিলম্বে অডিট করতে নির্দেশ পাঠানো হয়েছে। অডিট রিপোর্ট না এলে বিশ্বব্যাঙ্কের পরবর্তী প্রকল্প আসার ক্ষেত্রে সমস্যা থাকে।
২০১১ সালে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ক্ষমতায় আসার পর পঞ্চায়েত মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায় বিশ্বব্যাঙ্কের কাছ থেকে গ্রাম পঞ্চায়েত সশক্তিকরণ প্রকল্প (আইএজিপিপি) কার্যত আদায় করে নিয়ে আসেন। প্রথম পাঁচ বছর কাজের রিপোর্টে খুশি হয় বিশ্বব্যাঙ্ক। এর ফলে ২০১৭ সালে ফের ওই প্রকল্পের দ্বিতীয় পর্যায়ের জন্য ১৪০০ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়। সেই পর্যায়ের কাজ শেষ হবে ২০২২ সালে। তার আগে অডিট করার উপরে জোর দিয়েছে পঞ্চায়েত দপ্তর। পাশাপাশি তৃতীয় পর্যায়ে যাতে বিশ্বব্যাঙ্ক থেকে অনুমোদন করা যায়, তার জন্য উদ্যোগী হতে নির্দেশ দিয়েছেন পঞ্চায়েত মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়। শুক্রবার এই প্রকল্পের সঙ্গে কর্মীদের সংগঠন পঞ্চায়েত রুর‌্যাল ডেভেলপমেন্ট এমপ্লয়িজ অ্যাসোসিয়েশন ৫০ বছরের পরিষদীয় জীবন এবং তৃতীয়বার পঞ্চায়েত মন্ত্রী হওয়ায় সংবর্ধনা দেওয়া হয় প্রবীণ মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়কে। 
তিনি বলেন, এই প্রকল্পের মাধ্যমে আমরা গত দশ বছরে গ্রামে অনেক কাজ করতে পেরেছি। রাস্তা, আলো, পানীয় জল, নিকাশি’র কাজ করা গিয়েছে। বিশ্বব্যাঙ্কও গ্রাম পঞ্চায়েতের পারফরম্যান্সে খুশি। তারা কাজের মূল্যায়ণ করে পুরস্কারও দিয়েছে। আগামী সপ্তাহে বিশ্বব্যাঙ্কের প্রতিনিধিরা ভার্চুয়াল বৈঠক করবেন। তাঁদের কাছে রাজ্যের কাজের অগ্রগতি এবং রিপোর্ট তুলে ধরা হবে। যাতে দ্বিতীয় পর্যায়ের কাজ যাতে পাওয়া যায়, তার জন্য আমি একা ওয়াশিংটনে বিশ্বব্যাঙ্কের ডাকা বৈঠকে যোগ দিতে গিয়েছিলাম। চীনের সঙ্গে টক্কর করে কাজের বরাদ্দ নিয়ে এসেছিলাম। বিশ্বব্যাঙ্কের প্রতিনিধিরা জানতে চেয়েছিল, চীনকে দেব না, আপনাদের দেব কেন? আমার উত্তরে খুশি হয়েছিল তাঁরা। এবার যাতে তৃতীয় পর্যায় অর্থাৎ আইএসজিপিপি-৩ আনতে পারি তার জন্য সব পঞ্চায়েতে অডিট করা দরকার হয়। কাজের স্বচ্ছতা আনতেই এই সিদ্ধান্ত। সকলের মতামত নিয়েই গ্রাম পঞ্চায়েতগুলি কাজ করে। প্রত্যেকটি কাজের জিও ট্যাগিং করা হয়। যাতে বিশ্বব্যাঙ্কের প্রতিনিধিরা প্রতিমুহূর্তে অনায়াসে দেখতে পারেন। এই সব করেই আইএসজিপিপি-৩ যাতে চালু করা যায় সে ব্যাপারে উদ্যোগী হয়েছেন পঞ্চায়েত মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়। 
                              - ফাইল চিত্র

1st     August,   2021
 
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021