বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
কলকাতা
 

ত্রিপুরায় অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপর হামলার ঘটনায় মন্ত্রী সুজিত বসুর নেতৃত্বে তৃণমূল কংগ্রেসের প্রতিবাদ।-নিজস্ব চিত্র

তৃণমূলের গোষ্ঠী কোন্দলে রণক্ষেত্র
হাড়োয়া, গুলিতে হত ২, ধৃত ১৮

নিজস্ব প্রতিনিধি, বারাসত ও সংবাদদাতা, বসিরহাট: বুধবার ছিল তৃণমূলের শহিদ দিবস। এদিনই দলের গোষ্ঠী কোন্দলে রণক্ষেত্রের চেহারা নিল হাড়োয়ার ট্যাংরামারি গ্রাম। অভিযোগ, বেপরোয়াভাবে গুলিও চালানো হয়। গুলি লেগে মৃত্যু হয় দু’জনের। তাঁদের মধ্যে একজন বৃদ্ধা। গুরুতর জখম হয়েছেন আরও পাঁচজন তৃণমূল কর্মী। তাঁদের মধ্যে চারজনকে আর জি কর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে। পুলিস জানিয়েছে, মৃতদের নাম লক্ষ্মীবালা মণ্ডল (৭২) এবং সন্ন্যাসী সর্দার (৩২)। তাঁদের বাড়ি ওই গ্রামেই। ঘটনার পর বিশাল পুলিস বাহিনী ও র‌্যাফ ঘটনাস্থলে পৌঁছয়। গোষ্ঠী কোন্দলের ঘটনায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ঘনিষ্ঠমহলে তিনি জানিয়ে দিয়েছেন, এই ঘটনা কোনওভাবেই বরদাস্ত করা হবে না। অভিযুক্তদের দল থেকে বের করে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। বসিরহাটের পুলিস সুপার জোবি থমাস কে বলেন, এই ঘটনায় রাত পর্যন্ত ১৮ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বাকি অভিযুক্তদের খোঁজে তল্লাশি চলছে।  
পুলিস ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, হাড়োয়ার মোহনপুর গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় মেছো ভেড়ির দখলকে কেন্দ্র করে তৃণমূলের গোষ্ঠী কোন্দল নতুন কিছু নয়। এই পঞ্চায়েতের তৃণমূল সভাপতি যজ্ঞেশ্বর প্রামাণিকের সঙ্গে  স্থানীয় তৃণমূল নেতা তপন রায়ের গোষ্ঠীর ঝামেলা মেটাতে হিমশিম খাচ্ছে ব্লক নেতৃত্ব। সম্প্রতি ট্যাংরামারি গ্রামের শতাধিক বিজেপি সমর্থকের তৃণমূলে যোগদানকে কেন্দ্র করে দুই গোষ্ঠীর মধ্যে উত্তেজনা বাড়ছিল। এই আবহে এদিন দু’টি জায়গায় আলাদাভাবে শহিদ দিবস পালনের আয়োজন করা হয়। ট্যাংরামারি গ্রামে যে অনুষ্ঠান হয়, সেটির মূল আয়োজক হলেন ভাস্কর দাস। তিনি যজ্ঞেশ্বরবাবুর অনুগামী বলে এলাকায় পরিচিত। ওই গ্রামেরই বাসিন্দা তথা তপনবাবুর অনুগামী বলে পরিচিত তৃণমূল নেতা ভবসিন্ধু মণ্ডল তাঁর অনুগামীদের নিয়ে মোহনপুর গ্রাম পঞ্চায়েত অফিস লাগোয়া কালীবাড়িতে আলাদাভাবে আয়োজিত অনুষ্ঠানে যোগ দেন।  অনুষ্ঠান শেষে ভবসিন্ধুবাবু ও তাঁর অনুগামীরা ট্যাংরামারিতে ফিরছিলেন,  তখন দু’টি গোষ্ঠীর মুখোমুখি মোলাকাত হয়। এক-দু’কথায় বচসা থেকে সংঘর্ষ বেধে যায়। অভিযোগ, এরপর আচমকাই ভাস্কর দাসের অনুগামীরা গুলি চালায়। খুব গোলমাল হচ্ছে দেখে ভবসিন্ধুবাবুকে সরিয়ে নিয়ে যেতে তাঁর কাকিমা লক্ষ্মীবালা মণ্ডল সেখানে চলে আসেন। গুলি লেগে ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান। গুলিবিদ্ধ আরও ছ’জনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। চিকিৎসকরা সন্ন্যাসীকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। 
এই বিষয়ে যজ্ঞেশ্বর বলেন, তপন রায় এলাকার বিজেপি কর্মীদের সঙ্গে নিয়ে তাণ্ডব চালাচ্ছেন। একতরফাভাবে আমাদের সমর্থকদের উপর হামলা চালিয়েছে ওরা। তপন পাল্টা বলেন, যজ্ঞেশ্বর প্রামাণিক এলাকায় সন্ত্রাস তৈরি করে পদে টিকে থাকতে চাইছেন। বাড়ি ফেরার পথে কর্মীদের উপর ওঁর অনুগামীরা অতর্কিতে গুলি চালায়। তৃণমূলের মিনাখাঁ বিধানসভা কমিটির চেয়ারম্যান মৃত্যুঞ্জয় মণ্ডল বলেন, ওই গোষ্ঠীর দুষ্কৃতীরাই গুলি চালিয়েছে। আমরা পুলিসকে নিরপেক্ষ তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে বলেছি। 

22nd     July,   2021
 
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021