বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
কলকাতা
 

ত্রিপুরায় অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপর হামলার ঘটনায় মন্ত্রী সুজিত বসুর নেতৃত্বে তৃণমূল কংগ্রেসের প্রতিবাদ।-নিজস্ব চিত্র

শহরে আটক গ্যাংস্টার
ভুল্লারের ৪ শাগরেদ

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: নিউটাউনের সাপুরজি আবাসনে এনকাউন্টারে খতম পাঞ্জাবের গ্যাংস্টার জয়পাল সিং ভুল্লারের গ্যাংয়ের সদস্যদের একটি চক্রকে পাকড়াও করল রাজ্য পুলিসের এসটিএফ। ভুল্লার গ্যাংকে কলকাতায় লজিস্টিক সাহায্য দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে এই চক্রের বিরুদ্ধে। মূল পান্ডা পেশায় পশু চিকিৎসক চমকর সিংকে সোমবার ভোরে বসিরহাটের মাটিয়ার নিষিদ্ধ পল্লি থেকে পাকড়াও করা হয়েছে। প্রাথমিক তদন্তে পুলিস জেনেছে, এদিনই চোরাপথে বাংলাদেশে পালানোর ছক ছিল তার। কিন্তু ঘুম থেকে উঠতে দেরি হওয়ায় পুলিসের জালে ধরা পড়ে যায়। দাউদ মোল্লা নাম নিয়ে ভাঙড়ের কাশীপুরে একটি খাটালে আশ্রয় নিয়েছিল চমকর। তাকে জেরা করে আরও তিনজনকে আটক করেছে পুলিস। চমকর সহ প্রত্যেকেই পাঞ্জাবের বাসিন্দা। তাদের সঙ্গে জয়পালের যোগাযোগ কতদিনের এবং কীভাবে তারা সাহায্য করত, তা জানার চেষ্টা চালাচ্ছে এসটিএফ। এদিকে, ছেলের দ্বিতীয়বার ময়নাতদন্তের দাবিতে পাঞ্জাব হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতিকে চিঠি লিখেছেন ভুল্লারের বাবা।
নিউটাউনের এনকাউন্টারের পর থেকেই জয়পাল সিং ভুল্লারের ‘কলকাতা সংস্রব’ খুঁজতে জোরদার তদন্ত শুরু করে এসটিএফ। তদন্তকারীদের কাছে খবর আসে, জয়পালের বেআইনি কারবারের আগ্নেয়াস্ত্র এই রাজ্যেও এসেছে। এখান থেকেই তা ছড়িয়েছে অন্য রাজ্য এবং  প্রতিবেশী দেশে। এই কাজে গ্যাংস্টারকে সাহায্য করেছে বর্তমানে দক্ষিণ ২৪ পরগনার ভাঙড়ে বসবাসকারী এক ব্যক্তি। সে পাঞ্জাবের বারনালা শহরের বাসিন্দা। অনেকদিন আগে এখানে এসে ঘাঁটি তৈরি করে। এসটিএফ সূত্রের খবর, জয়পালের মোবাইল ফোনের  কল ডিটেইলস থেকে দেখা যায়, চমকর সহ এই চারজনের সঙ্গে তার নিয়মিত কথা হতো। এমনকী গোয়ালিয়র থেকে কলকাতায় আসার আগেও জয়পাল কথা বলেছে তাদের সঙ্গে।  
এই পশু চিকিৎসক ও তার সহযোগীদের কাজ কী ছিল? পুলিস অফিসাররা জানতে পেরেছেন, এই পশু চিকিৎসকের কাছে বাইরের প্রচুর লোকজন আসে। তাদেরকে অস্ত্র লেনদেনের কাজে ব্যবহার করা হয়। কাশীপুরের যে খাটালে সে আশ্রয় নিয়েছিল, সেখানেই আগ্নেয়াস্ত্র লুকিয়ে রাখা হতো। ভুল্লার গ্যাংয়ের অত্যাধুনিক আগ্নেয়াস্ত্র বিদেশ থেকে আসায়, ক্রিমিনালদের কাছে তার ব্যাপক কদর ছিল।  সূত্রের খবর, চমকর গোরুর ব্যবসা করত। গোরুর লরি করে পাঞ্জাব থেকে আগ্নেয়াস্ত্র কলকাতায় নিয়ে আসা হতো। সেগুলি নিরাপদ জায়গায় রাখার ব্যবস্থা করত কলকাতার এই চার ব্যক্তি। ভাঙড়-কাশীপুরের সঙ্গেই নিউটাউনের কিছু ডেরায় চোরাই আগ্নেয়াস্ত্র রাখা হতো।
তদন্তকারীরা বলছেন, এই সমস্ত আগ্নেয়াস্ত্র বিভিন্ন জায়গায় পাচার করার পাশাপাশি পাঞ্জাব থেকে পালিয়ে আসা ভুল্লার গ্যাংয়ের সদস্যদের যাবতীয় ‘লজিস্টিক সাপোর্ট’ দিত চমকররা। জয়পাল সিং ভুল্লারের সঙ্গে তাদের যোগাযোগ এবং আগ্নেয়াস্ত্র কারবার সম্বন্ধে আরও বিশদে জানতে ওই চারজনকে জেরা করা হচ্ছে। 

15th     June,   2021
 
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021