বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
কলকাতা
 

ভূগর্ভ পথে মেট্রো চললে প্রকল্প ব্যয়
বাড়বে পাঁচ গুণ, জানালেন কর্তারাই

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: নিউ বারাকপুর থেকে বারাসত পর্যন্ত প্রস্তাবিত মেট্রো রুট নিয়ে অভিনব সিদ্ধান্ত হতে চলেছে। মাটির উপর দিয়ে এই মেট্রোর যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু গত ডিসেম্বর মাসে রাজ্যের তৎকালীন মুখ্যসচিব মেট্রো কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ করেন, মাটির নীচে দিয়ে ওই রুটকে নিয়ে যেতে। সোমবার কসবার পরিবহণ ভবনে শহরের একাধিক মেট্রো প্রকল্প নিয়ে আলোচনায় বসেন রাজ্যের শীর্ষকর্তারা। সেখানেই মেট্রোর কর্তারা পরিবহণ মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমকে সাফ জানান, মাটির নীচে দিয়ে এই রুট তৈরি করতে হলে প্রকল্প ব্যয় পাঁচগুণ বেড়ে যাবে। এ নিয়ে তাঁরা সমীক্ষা চালাচ্ছেন বলেও পরিবহণ মন্ত্রীকে জানিয়েছেন। প্রসঙ্গত, সংশ্লিষ্ট রুটে মাটির উপর দিয়ে রেল লাইন গেলে কয়েক হাজার বাড়ি ভাঙতে হতে পারে। একইসঙ্গে একাধিক জায়গায় জমিজটের কারণে প্রকল্পের কাজ দীর্ঘায়িত হবে বলে মনে করেন রেল ও রাজ্যের কর্তারা। এখন সমীক্ষার চূড়ান্ত রিপোর্টের অপেক্ষা। এখন পাতালপথে ট্রেন চালাতে হলে বাড়তি পাঁচগুণ ব্যয় রাজ্য নিজের ঘাড়ে নেবে কি না, তা নিয়েও সংশয় রয়েছে।
এদিকে, এই বৈঠকে শহরের একাধিক মেট্রো প্রকল্পের কাজ পর্যালোচনা করা হয়। প্রকল্প রূপায়ণের কাজে যুক্ত আরভিএনএল এবং কেএমআরসিএলের কর্তারা বৈঠকে হাজির ছিলেন। রাজ্যের তরফে ছিলেন পরিবহণ মন্ত্রী ছাড়াও দপ্তরের প্রধান সচিব রাজেশকুমার সিনহা ও আধিকারিকরা। মেট্রো নির্মাতা সংস্থাগুলি মন্ত্রীকে আশ্বস্ত করে বলেছে, আগামী বছর জুন মাসের মধ্যে জোকা থেকে তারাতলা, শিয়ালদহ থেকে হাওড়া ময়দান পর্যন্ত মেট্রো চলাচল শুরু হয়ে যাবে। একইসঙ্গে গড়িয়া থেকে বিমানবন্দর রুটের একটা বড় অংশ খুলে দেওয়া হতে পারে বলে জানানো হয়েছে। তবে একাধিক রুটে জমি জটের কারণে কাজ আটকে থাকার অভিযোগ করেন মেট্রো কর্তারা। পরিবহণ মন্ত্রী এই সমস্যার সমাধানে সমস্ত রকম সহায়তার আশ্বাস দেন।
এদিনের বৈঠকে রেল এবং পরিবহণ কর্তাদের পাশাপাশি কলকাতার পুলিস কমিশনার, কলকাতা পুরসভা এবং কেএমডিএ’র উচ্চপদস্থ কর্তারা হাজির ছিলেন। পরিবহণ দপ্তরের দায়িত্ব পেয়ে শহরের বিভিন্ন মেট্রো প্রকল্পের হাল-হকিকত বুঝে নেন ফিরহাদ সাহেব। এদিন সকালে তিনি শালিমার শিপইয়ার্ড পরিদর্শন করেন। সঙ্গে ছিলেন পরিবহণ সচিব রাজেশকুমার সিনহা এবং ডব্লুবিটিসি’র এমডি রজনভীর সিং কাপুর। জলপথ পরিবহণকে আরও উন্নত করার লক্ষ্যে শালিমার শিপইয়ার্ডকে নতুন করে গড়ে তোলার কথা জানান পরিবহণ মন্ত্রী। সংস্থার চেয়ারম্যান পদে রজনবীর সিং কাপুরকে এদিন দায়িত্ব দেন ফিরহাদ সাহেব। আগামী দিনে এই সংস্থার তৈরি বোট হুগলি নদীতে চলতে পারে বলে জানান পরিবহণ মন্ত্রী। উল্লেখ্য, এখনও পর্যন্ত প্রায় ৬০০টি বোট বানিয়েছে শালিমার শিপইয়ার্ড। যার মধ্যে ভারতীয় নৌ বাহিনীকে কিছু দেওয়া হয়েছে। আগামী দিনে বিশ্বব্যাঙ্কের টাকায় রাজ্যের জলপথ পরিবহণকে ভিন্ন রূপ দিতে আন্তর্জাতিক প্রকল্প গ্রহণ করেছে রাজ্য। এক্ষেত্রে শালিমার শিপইয়ার্ডের তৈরি ভেসেল সহ রক্ষণাবেক্ষণের বিভিন্ন কাজ এই প্রকল্পের আওতায় আনা হবে বলে মন্ত্রী জানিয়েছেন।

15th     June,   2021
 
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
কিংবদন্তী গৌতম
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021