বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
কলকাতা
 

কয়লাঘাট রেল ভবনে
আগুন, ঝলসে মৃত ৯

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: স্ট্র্যান্ড রোডের নিউ কয়লাঘাট বিল্ডিংয়ে আগুন লেগে মৃত্যু হয়েছে ৯ জনের। সোমবার সন্ধ্যা ৬টা ১০ মিনিট নাগাদ আগুন লাগে পূর্ব রেলের অন্যতম এই কার্যালয়ে। বহুতলটির ১৩ এবং ১৪ তলায় আগুন নেভাতে গিয়ে যথেষ্ট বেগ পেতে হয় দমকলকে। পরে দেখা যায়, আগুনে ঝলসে এবং দমবন্ধ হয়ে চারজন দমকলকর্মী, হেয়ার স্ট্রিট থানার একজন এএসআই এবং একজন আরপিএফকর্মীর মৃত্যু হয়েছে।মৃতদের মধ্যে মোট আট জনের দেহ সনাক্ত করা গিয়েছে। বাকি এক জনের নাম, পরিচয় জানা যায়নি। মৃতদের মধ্যে অমিত ভাওয়াল (এএসআই), গৌরব বেজ, অনিরুদ্ধ জানা, গিরিশ দে, বিমান পুরকায়েতকে চিহ্নিত করা গিয়েছে। পূর্ব রেলের ডেপুটি চিফ কমার্শিয়াল ম্যানেজার পার্থসারথি মণ্ডল এবং একজন রক্ষী রাত পর্যন্ত নিখোঁজ। ঘটনাস্থলে মুখ্যমন্ত্রী এসে জানান, নিহতদের পরিবারকে ১০ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ এবং পরিবারের একজনকে সরকারি চাকরি দেওয়া হবে। ঘটনার প্রথমে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়নি। মুখ্যমন্ত্রী এবং দমকলমন্ত্রী সুজিত বসু জানান, মৃতরা ভুল করে লিফটে চড়ে উঠে গিয়েছিলেন। সেখানেই আগুনের একটি লেলিহান শিখা তাঁদের গ্রাস করে। পাঁচজনকে লিফটের ভিতরে এবং আরও দু’জনকে বাইরে পড়ে থাকতে দেখা যায়। আগুন লাগা বহুতলের লিফটে ওঠা বড়সড় ভুল বলে মানছেন সকলে। রেলের তরফে অসহযোগিতার অভিযোগও করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, রেলের ভবন হওয়া সত্ত্বেও তাদের তরফে কেউ আসেননি। ভবনটির ম্যাপও দমকলকর্মীরা চেয়ে পাননি। এর ফলে আগুন নেভাতে এবং উদ্ধারকাজ চালাতে দেরি হয়েছে বলে তিনি দাবি করেন। পুলিসের একটি তদন্তকারী দল রেলের গাফিলতি খতিয়ে দেখছে। 
শর্ট সার্কিট থেকেই আগুন লেগেছে বলে দমকলের প্রাথমিক অনুমান। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, ১৪ স্ট্র্যান্ড রোডের বহুতলটির প্রথমে ১৩ তলায় একটি এসি মেশিনে আগুন জ্বলতে দেখা যায়। তারপর কয়েক মিনিটের মধ্যেই সেই আগুন ছড়িয়ে পড়ে ১৪ তলায়। তবে যখন আগুন লেগেছে, তখন অফিস ছুটি হয়ে গিয়েছে। ফলে ভিতরে খুব বেশি লোকজন ছিলেন না। এই বিল্ডিংয়ের একতলায় রেলের বুকিং কাউন্টার রয়েছে। খবর পাওয়া মাত্র আতঙ্কে হুড়োহুড়ি পড়ে যায় সেখানে। বিভিন্ন তলায় থাকা লোকজন প্রাণভয়ে বিল্ডিংয়ের বাইরে বেরিয়ে আসেন। আশপাশের বিভিন্ন অফিসের লোকজনও রাস্তায় এসে জড়ো হন। প্রথমে ঘটনাস্থলে আসে দমকলের ৬টি ইঞ্জিন। তবে আগুনের ভয়াবহতা এতটাই ছিল যে, বাড়ানো হয় ইঞ্জিনের সংখ্যা। একটি হাইড্রলিক ল্যাডার সহ মোট ১৫টি ইঞ্জিন আগুন নেভানোর কাজ করেছে। ঘটনাস্থল ঘিরে ফেলে পুলিসবাহিনী। আসে বিপর্যয় মোকাবিলা দলও। তাঁরাও আগুন নেভানোয় হাত লাগান। একে একে দেহগুলিতে উদ্ধার করা হয়। রেল মন্ত্রকের তরফে পূর্ব রেলকে এই ঘটনার রিপোর্ট জমা দিতে বলা হয়েছে। বহুতলের ভিতরে ঢোকার ক্ষেত্রে বেগ পেতে হয় দমকলকে। বিল্ডিংয়ের সামনে একটি বড় গাছ থাকায় হাইড্রলিক ল্যাডার ভিতরে ঢোকাতে অসুবিধা হয়। ফলে ওই গাছের ডালপালা কাটতে হয় দমকল কর্মীদের। একারণে প্রায় আধ ঘণ্টারও কিছু বেশি সময় আগুন নেভানোর কাজ বন্ধ রাখতে হয়। রাত ৯.৪০ মিনিটে আগুন অনেকটা নিয়ন্ত্রণে আসে। তবে কিছু জায়গায় ছোট ছোট আগুন থাকায় তারপরেও কাজ চালিয়ে যান দমকলের কর্মীরা। রাতের দিকে ১২ তলাতেও আগুন ছড়িয়ে পড়ে।ঘটনাস্থলে আসেন পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম, স্থানীয় বিধায়ক নয়না বন্দ্যোপাধ্যায় সহ অন্যান্যরা। ফিরহাদ হাকিম ওঠার চেষ্টাও করেছিলেন। পুরোটা না উঠতে পেরে ফিরে আসতে বাধ্য হন। সুজিত বসু বলেন, ভিতরে ল্যাডার ঢোকাতে না পারায় প্রথমদিকে কিছুটা সমস্যা হয়েছিল। দমকল কর্মীরা যথাসাধ্য চেষ্টা করে আগুন নিয়ন্ত্রণে এনেছেন। 

9th     March,   2021
 
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
কিংবদন্তী গৌতম
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
10th     April,   2021