বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
কলকাতা
 

প্রথমদিনের সাক্ষী কয়েকশো যাত্রী 
দক্ষিণেশ্বর মেট্রো স্টেশন দেখতে উপচে
পড়ল ভিড়, সেলফি তোলার হিড়িক

অলকাভ নিয়োগী, বারাকপুর: ঘড়ির কাঁটায় তখন সকাল ৬টা। আকাশ ফুঁড়ে তখনও রোদ্দুর বের হয়নি। নতুন মেট্রো স্টেশনে পা রাখলেন সন্দীপ ঘোষ। সঙ্গে স্ত্রী রুমাদেবী ও মেয়ে স্বস্তিকা। সবার মুখেই হাসি। হাতে মোবাইল। গেট দিয়ে ঢোকার মুখেই ক্যামেরাবন্দি করলেন প্রথমদিনের যাত্রা। তারপর চলমান সিঁড়িতে উঠে সোজা একতলার টিকিট কাউন্টার। বুকিং ক্লার্করাও অধীর অপেক্ষায় বসেছিলেন। তাঁর হাতে স্মার্ট কার্ড ধরিয়ে শুভেচ্ছা জানালেন আধিকারিকরা। হবেই নাইবা কেন? মঙ্গলবার ছিল নোয়াপাড়া-দক্ষিণেশ্বর মেট্রো পরিষেবার প্রথমদিন। সেই প্রথম দিনের প্রথম মেট্রোয় সন্দীপবাবুই ছিলেন স্টেশনের প্রথম যাত্রী! প্রথমদিনের সাক্ষী হতে এদিন শত শত যাত্রী দক্ষিণেশ্বর থেকে উঠে মেট্রো সফরে মজলেন। সকলের চোখে-মুখে উচ্ছ্বাস।
দক্ষিণেশ্বর থেকে কবি সুভাষ পর্যন্ত এদিন প্রথম মেট্রো ছিল সকাল ৭টায়। এসি রেক এসে হাজির হয়েছিল কিছুটা আগেই। স্বাস্থ্যবিধি মেনে ভিড় নিয়ন্ত্রণ করতে তৈরি ছিলেন আরপিএফ জওয়ানরা। প্রথম মেট্রোয় কতজন যাত্রী উঠছেন, এন্ট্রি পয়েন্টে তার হিসেব রাখা হচ্ছিল। হিসেব বলছে, দক্ষিণেশ্বর স্টেশন থেকে প্রথম মেট্রোয় উঠেছেন ৭০ জন যাত্রী। কোনও কাজে নয়, তাঁদের বেশিরভাগই এসেছেন প্রথম সফরের সাক্ষী থাকতে। সন্দীপবাবু বলেন, প্রথম দিন প্রথম মেট্রোয় চড়ব বলে ভোর সাড়ে ৪টেয় ঘুম থেকে উঠেছিলাম। আলমবাজারে আমার বাড়ি। এসে দেখলাম, আমরাই প্রথম যাত্রী।
সকাল ৭টা ১৮ মিনিটের দ্বিতীয় মেট্রোতেও একই দৃশ্য। ছেলে অদ্রিশকে নিয়ে মেট্রো চড়তে এসেছিলেন অনিমেষ কুণ্ডু। তিনি বলেন, ঘুরতে যাচ্ছি। দমদম পর্যন্ত যাব। তারপর আবার ফিরে আসব। আমরা খুবই উপকৃত হলাম। ২ নম্বর প্ল্যাটফর্মে দাঁড়িয়ে একই কথা শোনা গেল দুই তরুণী শ্রাবণী রায় ও কাবেরী পালের মুখে। তাঁরা বলেন, প্রথম দিনের সাক্ষী থাকতেই এই সফর।
দক্ষিণেশ্বর থেকে মেট্রো চালু হওয়ায় সকলেই খুশি। অনিন্দিতা বন্দ্যোপাধ্যায় নামে এক মহিলা যাত্রী বলেন, আমার বাড়ি বালিতে। দক্ষিণেশ্বর থেকে মেট্রো চালু হওয়ায় আমাদের খুবই উপহার হল। অল্প সময়ে গন্তব্যে পৌঁছে যাব। দক্ষিণেশ্বরের বাসিন্দা মনীশ সাউ বলেন, আমি রোজ মেয়েকে রবীন্দ্রসদন মেট্রো স্টেশন পর্যন্ত ছেড়ে আসি। এতদিন বাড়ি থেকে বাইকে করে দমদম যেতাম। সেখান থেকে মেট্রোয় চাপতাম। আজ দক্ষিণেশ্বর থেকে সরাসরি রবীন্দ্রসদন। হয়রানি বন্ধ হল।
এদিন বেলা যত বেড়েছে, ততই পাল্লা দিয়ে বেড়েছে যাত্রীর ভিড়। বরানগর স্টেশনের তুলনায় ভিড় বেশি ছিল দক্ষিণেশ্বরে। বন্ধুদের নিয়ে অনেকেই এসেছেন মেট্রো দেখতে। দক্ষিণেশ্বর স্টেশনের সামনে এমন বহু কৌতূহলীকে দেখা গেল, যাঁরা শুধুমাত্র সেল্ফি তুলতে এসেছেন। তাঁদের কথায়, যখন কাজ চলছিল, তখন বাইরে থেকে দেখেছি। আজ, চালু হওয়ার পর দেখতে এলাম। সাজগোজ দেখে আপ্লুত সকলেই। এদিন দক্ষিণেশ্বর মন্দিরে পুজো দিতে আসা অনেকেই ঘুরে গিয়েছেন মেট্রো স্টেশনে। সাতসকালে গড়িয়া থেকে অনেকেই মেট্রোয় এসেছিলেন দক্ষিণেশ্বরে। সুমন মুখোপাধ্যায় নামে এক যুবক বলেন, প্রথমদিনে মেট্রো চড়ার স্বাদ আলাদা। ভাবলাম, দক্ষিণেশ্বর পর্যন্ত যখন যাব, তখন পুজো দিয়েই ফিরব। রথ দেখা, কলা বেচা দু’টোই হল। 

24th     February,   2021
 
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
কিংবদন্তী গৌতম
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
7th     March,   2021