বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
কলকাতা
 

আজ সিবিআইয়ের মুখোমুখি রুজিরা 

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: সিবিআইয়ের সঙ্গে সহযোগিতা করতে সর্বতোভাবে প্রস্তুত সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্ত্রী রুজিরা নারুলা বন্দ্যোপাধ্যায়। সিবিআইয়ের পাঠানো নোটিসের উত্তর তিনি দেন সোমবার। কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাকে পাঠানো চিঠিতে তিনি লিখেছেন, কী কারণে তাঁকে তলব করা হচ্ছে, তা জানেন না। তবে আজ, মঙ্গলবার সকাল ১১টা থেকে দুপুর ৩টের মধ্যে হরিশ মুখার্জি রোডে নিজের বাসভবন ‘শান্তিনিকেতন’-এ সিবিআইয়ের মুখোমুখি হতে প্রস্তুত তিনি।
তাঁর এই প্রস্তাব মেনে মঙ্গলবার ওই বাসভবনে আসছেন তদন্তকারী অফিসাররা। জানা গিয়েছে, সাংসদ-পত্নীর বিদেশে লেনদেনের সমস্ত নথি সঙ্গে থাকছে। প্রশ্নমালাও তৈরি। কী কারণে তাঁর বিদেশে অ্যাকাউন্ট খোলার প্রয়োজন পড়ল, প্রোপোজার কে ছিলেন, তাঁর ব্যবসায়িক লেনদেন কার কার সঙ্গে হয়েছে, টাকা আবার অন্য অ্যাকাউন্টে কেন গিয়েছে—মূলত এইসবই জানতে চাওয়া হবে। তাঁর ঘন ঘন বিদেশযাত্রার ব্যাখ্যাও চাওয়া হবে। সব মিলিয়ে ২০টির বেশি প্রশ্ন রাখা হচ্ছে। সঙ্গে থাকছে লিগ্যাল অ্যাডভাইজারি টিম। যাতে কোনও প্রশ্ন নিয়ে আইনি জটিলতা তৈরি হলে চটজলদি তাদের পরামর্শ নেওয়া যায়। তদন্তকারীদের দলে থাকছেন মহিলা অফিসারও। গোটা জিজ্ঞাসাবাদ পর্বের ভিডিওগ্রাফি করা হবে। তা লাইভে দেখবেন দিল্লির শীর্ষ আধিকারিকরা। সূত্রের খবর, দিল্লির ওই আধিকারিকরাও প্রশ্ন করতে পারেন অভিষেকের স্ত্রীকে।
এদিকে, সোমবার বেলা ১১টা নাগাদ রুজিরার বোন মেনকা গম্ভীরের পঞ্চসায়রের বাড়িতে যান সিবিআই অফিসাররা। তিনি রবিরার অফিসারদের জানিয়েছিলেন, এদিন নিজের বাড়িতে প্রশ্নের মুখোমুখি হতে রাজি আছেন। আইনজীবীকে সঙ্গে নিয়ে অফিসারদের সামনে আসেন মেনকা। তদন্তকারী অফিসাররা তাঁর কাছে বিদেশে অ্যাকাউন্টের লেনদেনের তথ্য তুলে ধরেন। জানতে চাওয়া হয়, কী কারণে টাকা তাঁর অ্যাকাউন্টে ঢুকেছে। সূত্রের খবর, মেনকা জানিয়েছেন গোটাটাই ব্যবসায়িক লেনদেন। তার পক্ষে নথিও দেখান তিনি। সিবিআইয়ের দাবি, তাঁরা এই জবাবে সন্তুষ্ট নন। রুজিরা এই নিয়ে যা উত্তর দেবেন, তার সঙ্গে মেনকার জবাব মিলিয়ে দেখা হবে। কোনও অসঙ্গতি আছে কি না, তা বিশ্লেষণ করা হবে। তারপর ফের তাঁদের কাছে নোটিস যাবে বলে খবর। ধোঁয়াশা না কাটলে দু’জনকে সামনাসামনি বসানো হবে বলে ইঙ্গিত মিলেছে। এদিন গোটা জিজ্ঞাসাবাদ পর্বের ভিডিও তোলা হয়। প্রশ্নোত্তর পর্বের সময় লাইভে ছিলেন দিল্লি ও কলকাতার কর্তারা।
এই আর্থিক লেনদেনের শিকড় অনেক দূর ছড়িয়ে রয়েছে বলে সিবিআই জেনেছে। তদন্তকারী অফিসারদের দাবি, ব্যাংকক ও লন্ডনে অ্যাকাউন্টের পাশাপাশি সেখানকার হোটেলের তাঁদের নামে ‘শেয়ার’-এর খোঁজ মিলেছে। এর মধ্যে ব্যাংককের হোটেলের ডিরেক্টর পদে অভিষেকের স্ত্রী ও শ্যালিকা ছিলেন বলে দাবি সিবিআইয়ের। এমনকী সেখানে তৃণমূল যুব নেতা বিনয় মিশ্রেরও শেয়ার রয়েছে বলে তদন্তকারী সংস্থা সূত্রে জানানো হচ্ছে। আর লন্ডনের হোটেলে শ্যালিকার শেয়ার আছে। লন্ডনের এক ব্যবসায়ী এই হোটেলের ‘মেজর শেয়ার হোল্ডার’। কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার আরও দাবি, কয়লার টাকা দুবাইতে আসে। সেখানে বিভিন্ন ব্যবসায় বিনিয়োগ হয়। এরপর ব্যবসায়িক লেনদেন দেখিয়ে তা আনা হয় থাইল্যান্ড ও লন্ডনে। সেখানকার হোটেল ব্যবসায় বিনিয়োগ করা হয় এই টাকা। যা আবার পরে বাংলাদেশ হয়ে কলকাতায় ফিরেছে। এই ‘মানি রুট চেইন’-এ কারা কারা রয়েছেন, তা জানাই উদ্দেশ্য সিবিআইয়ের। 

23rd     February,   2021
 
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
কিংবদন্তী গৌতম
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
6th     March,   2021