বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
কলকাতা
 

মার্চের প্রথম সপ্তাহে ভোট ঘোষণা, জনসভায় মোদি 
কমিশনের স্বাধীনতা নেই,
চালাচ্ছে বিজেপিই: অধীর

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা ও ধেমাজি (পিটিআই): দরজায় কড়া নাড়ছে বিধানসভা নির্বাচন। বিজেপির পাখির চোখ বাংলা হলেও ভোট কিন্তু পাঁচ রাজ্যে। কবে হবে সেই নির্বাচনী নির্ঘণ্ট ঘোষণা? কমিশন এ ব্যাপারে উচ্চবাচ্য না করলেও অসমের ধেমাজিতে জনসভায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি কিন্তু জানিয়ে দিলেন, ভোট ঘোষণা হতে পারে মার্চ মাসের প্রথম সপ্তাহে, অর্থাৎ ৭ মার্চের মধ্যে। সোমবার অসম সফরে গিয়ে তিনি বললেন, ‘গতবার (২০১৬) নির্বাচন কমিশন ৪ মার্চ ভোটের দিন ঘোষণা করেছিল। আশা করি একইভাবে এবারও মার্চের প্রথম সপ্তাহের মধ্যেই ভোটের দিনক্ষণ ঘোষণা হয়ে যাবে। তবে কমিশনই ঘোষণাটা করবে।’ স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী এহেন ঘোষণা করায় তুমুল রাজনৈতিক বিতর্ক শুরু হয়েছে। বিরোধীরা সরাসরি অভিযোগ তুলছে, নির্বাচন কমিশনের কাজে ও ক্ষমতায় হস্তক্ষেপ করছে বিজেপি নেতৃত্বাধীন কেন্দ্রীয় সরকার। কংগ্রেসের অধীর চৌধুরী, সিপিএমের মহম্মদ সেলিমরা রীতিমতো হুঁশিয়ারির ঢঙে দাবি করেছেন, কমিশন যেন নিরপেক্ষ ভূমিকা পালন করে।
উল্লেখযোগ্য হল, ভোট ঘোষণার সম্ভাব্য দিনের ইঙ্গিত দিয়েই থেমে থাকেননি প্রধানমন্ত্রী। আরও বলেছেন, ভোটের দিনক্ষণ ঘোষণার আগে পর্যন্ত ভোটমুখী রাজ্যগুলিতে তিনি বারবার আসবেন। সেই তালিকায় অগ্রগণ্য অবশ্যই পশ্চিমবঙ্গ। তাঁর কথায়, ‘আমি ধরেই নিচ্ছি ৭ মার্চ নির্বাচন ঘোষণা হবে। আমার চেষ্টা থাকবে ভোট ঘোষণার আগে যত বেশিবার সম্ভব অসম, পশ্চিমবঙ্গ, কেরল, তামিলনাড়ু ও পুদুচেরি যাওয়ার।’ এমন ঘোষণার পরই নির্বাচন কমিশনের মতো সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানকে নিয়ন্ত্রণ করার অভিযোগ গেরুয়া শিবিরের বিরুদ্ধে উঠতে শুরু করেছে। লোকসভায় কংগ্রেসের দলনেতা অধীর চৌধুরী স্পষ্ট বলেন, ‘এক দেশ, এক নির্বাচন কমিশন তো আছেই! কিন্তু এখন দেখছি একটি রাজনৈতিক পার্টির প্রধান একথা বলছেন। এর থেকে একটা বিষয়ই প্রমাণ হয়—নির্বাচন কমিশনের উপর কেন্দ্রীয় সরকারে আসীন দলের প্রভাব নির্ধারক শক্তি হিসেবে কাজ করছে। নির্বাচন কমিশনের স্বাধীনতা কি আর আছে? আসলে মার্চ মাসের প্রথম সপ্তাহ পর্যন্ত উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী। যতক্ষণ উদ্বোধন চলবে, ততক্ষণ নির্বাচন ঘোষণা করার ক্ষমতা নেই। উদ্বোধন থামবে, ভোট ঘোষণা হবে। এটা ভারতের গণতন্ত্রের জন্য ভয়ঙ্কর।’ নরেন্দ্র মোদি তথা বিজেপির বিরুদ্ধে এই ইস্যুতে অস্ত্রে শান দিয়েছে সিপিএমও। পলিটব্যুরো সদস্য মহম্মদ সেলিম বলেছেন, ‘বালাকোটে বিমানহানার ঘটনা একটি সর্বভারতীয় চ্যানেলের সঞ্চালকের সঙ্গে শেয়ার করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী। আর এবার নির্বাচনের নির্ঘণ্ট ঘোষণার দিনক্ষণ জনসভা থেকেই ঘোষণা করে দিলেন। এটা সাংঘাতিক প্রবণতা।’ সেলিমের প্রশ্ন, ‘নির্বাচনের দিনক্ষণের কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী কি কমিশনকে কিছু ইঙ্গিত দিলেন? নাকি কমিশন তাঁকে আগে থেকেই এই ইঙ্গিত দিয়েছে? আসলে মোদি জমানায় স্বশাসিত সংস্থার মর্যাদা ভূলুণ্ঠিত।’ তবে তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায় এ ব্যাপারে বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীই উত্তর দিতে পারবেন, কেন এমন কথা তিনি বলেছেন।’
অসমের এমন ‘রাজনৈতিক’ ঘোষণায় প্রধানমন্ত্রীর এদিনের পশ্চিমবঙ্গ সফরই পিছনের সারিতে চলে গিয়েছে। এদিন বাংলায় নোয়াপাড়া থেকে দক্ষিণেশ্বর সম্প্রসারিত মেট্রোর সূচনা করেন তিনি। সেইসঙ্গে একাধিক রেল প্রকল্পেও সবুজ সঙ্কেত দেন মোদি। সেগুলি হল, কলাইকুণ্ডা ও ঝাড়গ্রাম তৃতীয় লাইন, আজিমগঞ্জ থেকে খাগড়াঘাট রোড সেকশনে ডাবল লাইন, হাওড়া-বর্ধমান কর্ড লাইনে ডানকুনি ও বারুইপাড়ার মধ্যে চতুর্থ লাইন এবং হাওড়া-বর্ধমান মেন লাইনে রসুলপুর ও মগরা তৃতীয় লাইন। এই প্রকল্পগুলির জন্য রাজ্যবাসীর জীবনযাত্রা আরও সহজ হবে বলেও জানিয়েছেন মোদি।
এরপরও অবশ্য ভোটার মহলে চলছে একটাই চর্চা, প্রধানমন্ত্রীর ‘ভবিষ্যদ্বাণী’ কি মিলবে? 

23rd     February,   2021
 
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
কিংবদন্তী গৌতম
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
8th     March,   2021