অমৃতকথা

কল্যাণ

আত্মজীবনে কল্যাণ-লাভকেই যথেষ্ট মনে করিতে পার না। নিজে কল্যাণবন্ত হইয়া অপরাপর প্রত্যেকের অন্তরে কল্যাণের প্রদীপ জ্বালাইয়া দিতে না পারিলে মনুষ্যজীবনের সুবিপুল সার্থকতা যেন হীনাঙ্গ ও ভ্রষ্টশ্রী হইয়া পড়ে। পরকে দিয়াই মানুষের ব্যক্তিত্বের গৌরব। “সকলের তরে সকলে আমরা, প্রত্যেকে আমরা পরের তরে”—এই মহাবাণীকে জীবন-মুকুরে প্রতিবিম্বিত না করিতে পারিলে মনুষ্যদেহধারী হইয়াও চিরকাল আমরা অমানুষই রহিব। জীবন সংগ্রামে পরাঙ্মুখ না হইয়া যিনি মৃত্যুঞ্জয়ী সাহসে অগ্রসর হন, তিনি বীর বটে, কিন্তু যিনি নিজে অগ্রসর হইবার সাথে সাথে ভৈরব-হুঙ্কারে আবাহন করিয়া আরও দশ জনকে মরণ-ভয়-রহিত করেন, তাঁহাকে আমি মহাবীর বলিব। যিনি জাগিয়াছেন, তিনিই প্রকৃত মানুষ; যিনি নিজে জাগিয়া শত শত ঘুমন্তের ঘুম ভাঙ্গাইয়া দিতেছেন, তিনি দেবতা। কর্ত্তব্যবুদ্ধির প্রেরণা পাইয়া যিনি নবজাগ্রত জীবনে যৌবনের মলয়-হিল্লোল পাইয়াছেন, তিনি ভাগ্যবান্‌; কিন্তু যিনি শত শত রুগ্নমনা, জীর্ণোৎসাহ, ভগ্নবিশ্বাস, হতোদ্যম হতভাগ্যদের মধ্যে কর্ম্মৈষণার প্রচণ্ড বিপ্লব-তাড়নার সৃষ্টি করিয়া পঙ্গুকে দিয়া গিরিলঙ্ঘন করাইবেন, তেমন ব্যক্তি মহাভাগ্যবান্‌। এই সকল কর্ম্মপ্রেরক মহামানবগণকে তোমাদের মধ্য হইতেই পাইতে চাহি। তাই, অকুণ্ঠিতচিত্তে তোমাদের দুয়ারে দাঁড়াইয়াছি।
তোমার ভিতরে বা তোমার বালক ও যুবক বন্ধুদের ভিতরে পবিত্রতার প্রতিষ্ঠাই সব নহে, তোমার ভগিনীটীর ভিতরেও ত্যাগ, তপস্যা, সংযম ও ব্রহ্মচর্য্যের প্রতিষ্ঠা প্রয়োজন। বহু মহাপুরুষ নারীজাতির নিন্দা করিয়াছেন। কেমন নারী? যে নারী নিজ জীবন গঠন করে নাই বলিয়াই পুরুষের প্রলোভন-বর্দ্ধির্নী, আত্মসংযম অভ্যাস করে নাই বলিয়াই প্রিয়জনেরও অমঙ্গল-কারিণী, মনুষ্যজন্মের দায়িত্ব ও মহিমা উপলব্ধি করিতে পারে নাই বলিয়াই পুরুষের অন্তরে লালসা-হলাহল-সঞ্চারিণী। তোমার ভগিনীটীকে তুমি এই শ্রেণীর নারী হইতে পৃথক্‌ করিয়া গড়িয়া তুলিতে চেষ্টা করিও। দৃষ্টিতে তাহার তপস্যার অগ্নি চতুর্দ্দিকে ছড়াইয়া পড়ুক, কণ্ঠে তাহার তপস্যার মধুরতা দিগ্‌দেশ আচ্ছন্ন করুক, সান্নিধ্যে তার অপবিত্রতার উচ্ছ্বসিত সাগর-তরঙ্গ স্তব্ধ হউক। এমন শিক্ষা দাও, যেন তাহার দৃষ্টির পবিত্রতা ত্রিভুবনকে স্নিগ্ধ করে, পাপতাপহীন করে, জান্তব-তাণ্ডব হইতে পরাঙ্মুখ করিয়া দেবত্বের সাত্ত্বিকতায় বিমণ্ডিত করে। তাহার মুখের বাক্য যেন জননীর স্নেহ দিয়া পশুর পশুত্বকে ঘুম পাড়ায়, তাহার বুকের নিঃশ্বাস যেন শত যোজন দূরে তাহার অলঙ্ঘনীয় মহিমাকে নিয়া বিস্তারিত করিয়া দেয়। যে তাহাকে দেখিয়াছে, সে যেন পাপ ভোলে, নবজন্ম পায়; যে তাহার চিন্তাটুকুও করিয়াছে, সে যেন জীবনের সহস্র ব্যর্থতায় পদাঘাত করিয়া নূতন করিয়া জীবন-সংগ্রামে ঝাঁপাইয়া পড়িতে সাহস পায়, প্রেরণা পায়। তবেই ভারত পুনরায় সোনার ভারতে পরিণত হইবে। ভগবানকে কর তুমি তোমার জীবনের কেন্দ্র। তোমার শরীরের প্রতিটি অণু-পরমাণুতে যৌবন আসিয়া ডাক ছাড়িতেছে,—“আমি আসিয়াছি”। তুমিও তাহার সঙ্গে সঙ্গে ডাক ছাড়িয়া বলিতে সমর্থ হও,—“আমার দেহ-মন্দিরে ভগবানও আসিতেছেন। যৌবনকে তুমি সম্বর্দ্ধনা কর, তোমার জীবনের বসন্তকে তুমি ব্যর্থ যাইতে কেন দিবে? যৌবন কেবল দেহের রন্ধ্রে রন্ধ্রে পিক-কুল-কুজনই জাগাইতে আসে নাই, তোমাকে ভগবানের প্রেমে মজাইতে এবং মাতাইতেও আসিয়াছে। 
স্বামী স্বরূপানন্দ পরমহংসদেবের ‘প্রবুদ্ধ যৌবন’ থেকে
1Month ago
কলকাতা
রাজ্য
দেশ
বিদেশ
খেলা
বিনোদন
ব্ল্যাকবোর্ড
শরীর ও স্বাস্থ্য
বিশেষ নিবন্ধ
সিনেমা
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
আজকের দিনে
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
mesh

গুরুজনের থেকে অর্থকড়ি লাভ হতে পারে। স্বার্থান্বেষী আত্মীয়-স্বজনের সঙ্গে দূরত্ব রেখে চলুন। মনে চাঞ্চল্য।...

বিশদ...

এখনকার দর
ক্রয়মূল্যবিক্রয়মূল্য
ডলার৮৩.২৩ টাকা৮৪.৩২ টাকা
পাউন্ড১০৬.৮৮ টাকা১০৯.৫৬ টাকা
ইউরো৯০.০২ টাকা৯২.৪৯ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
*১০ লক্ষ টাকা কম লেনদেনের ক্ষেত্রে
দিন পঞ্জিকা