Bartaman Patrika
ভ্রমণ
 

ভাটোয়ারি পাওয়ালি কাঁটা ত্রিযুগীনারায়ণ

রতনলাল বিশ্বাস: অতীতে উত্তরাখণ্ডের চারধাম অর্থাৎ যমুনোত্রী, গঙ্গোত্রী, কেদারনাথ ও বদ্রীনাথ যাত্রা একসঙ্গে সম্পন্ন করার জন্য একটা পায়ে চলা পথ ছিল। বহু ধর্মপ্রাণ মানুষেরা এই পথেই চারধাম যাত্রা করতেন। বর্তমানে হিমালয়ের অন্তঃপুরে অনেক স্থানেই গাড়িপথ পৌঁছে গিয়েছে। এই চারধাম যাত্রায় এখন সামান্যই হাঁটতে হয়। গাড়িপথ পৌঁছে গিয়েছে গঙ্গোত্রী ও বদ্রীনাথে। সচরাচর আর কেউ সেই পুরনো দিনের পথে হেঁটে চারধাম যান না। বর্তমানে সে পথের অনেকাংশ বিলুপ্ত হলেও কোথাও কোথাও তার কিছুটা অস্তিত্ব পাওয়া যায়। ভাটোয়ারি থেকে ত্রিযুগীনারায়ণ এরই একটা অংশ। গঙ্গোত্রী থেকে কেদারনাথ যাওয়ার জন্য তীর্থযাত্রীরা এক সময়ে এই পথে পাড়ি দিতেন।
হাওড়া থেকে ট্রেনে হরিদ্বার। তারপর বাসে উত্তরকাশী হয়ে ভাটোয়ারির পথে লাতাসরাইতে নেমে পড়তে হবে।
প্রথম দিন: লাতাসরাই (১ হাজার ৪৭৮ মি)— সৌরি গ্রাম (১ হাজার ২১৮ মি)— দুগাড্ডা-বেলাক খাল (২ হাজার ৯৬৬ মি) ১৫ কিমি যাত্রাপথ।
ভাগীরথীরে উপর পুল পেরিয়ে উঠে আসবেন সৌরি গ্রামে। গ্রাম ছাড়িয়ে একটানা চড়াইপথ। পাথর বাঁধান পুরনো পথ। পথ ক্রমে ঢুকে পড়বে গভীর অরণ্যের মাঝে। অসীম নির্জনতা ভেদ করে ভেসে আসবে পাখির কলোবর আর বনের সোঁদাগন্ধ। সব মিলিয়ে এপথে পাবেন অনাবিল আনন্দ। চড়াই ওঠার ক্লান্তি দূর হবে। পথিমধ্যে একটা ঘর দেখতে পাবেন। এ জায়গাটির নাম দুগাড্ডা। ক্রমে রডোডেনড্রনের আধিক্য নজরে পড়বে। ছায়া ছায়া পথে উঠে আসবেন বেলাক খালের উপরে। এখানে বকরিওয়ালাদের কয়েকটি ঘর আছে।
দ্বিতীয় দিন: বেলাক খাল— পাংরানা (২ হাজার ২০৩ মি)— ঝালা (২ হাজার ৪৩৯ মি)— থাতিকাটুর (১ হাজার ৫২৪ মি) ১৬ কিমি যাত্রাপথ।
চারদিকের ঘন সবুজের সমারোহ দেখতে দেখতে বনের মধ্যে দিয়ে নামতে থাকুন। নেমে আসবেন পাংরানা চারণক্ষেত্রে। মেষপালকদের ঘর আছে। একই রকম পথ ধরে নামা আর নামা। নেমে যাবেন ঝালা চটিতে। গুটি কয়েক ঘর আছে। এরপর ধর্মগঙ্গার উপর পুল পেরিয়ে চলতে হবে ওঠানামা পথে। অনেকটা পথ পেরিয়ে পৌঁছে যাবেন ধর্মগঙ্গা ও বালগঙ্গার সঙ্গমস্থলের কাছে থাতিকাটুর গ্রামে। এখানেই বুড়াকেদার বা বৃদ্ধকেদার মন্দিরটি। টিহরী থেকে এখানে গাড়িপথেও আসা যায়।
তৃতীয় দিন: থাতিকাটুর— বেনাক খাল (২ হাজার ০৪২ মি)— কালদি (১ হাজার ৩১১ মি)— ভৈরবঘাটি (২ হাজার ৪৯৩ মি) ১৬ কিমি যাত্রাপথ।
গাড়িপথ চলে যাবে টিহরী অভিমুখে। চড়াইপথে উঠে আসবেন বেনাক খালের ওপরে। এখানে ঘরবাড়ি ও দোকানপাট আছে। তারপর সহজপথে চলে আসবেন কালদি গ্রামে। গ্রাম ছাড়িয়ে হালকা চড়াইপথে উঠে আসবেন ভৈরবঘাটি। ভৈরবনাথের মন্দির আছে। আছে কালীকমলী ধর্মশালা। বালগঙ্গা ও ভীলঙ্গনা গঙ্গার মাঝে জল বিভাজিকার উপর এই মন্দিরটি।
চতুর্থ দিন: ভৈরবঘাটি— কোপোড়ধার— ঘুত্তু (১ হাজার ৬৭৭ মি) ৮ কিমি পথ।
হালকা বনের মধ্যে দিয়ে উতরাই পথ। নেমে আসবেন এক আপাত সমতল প্রান্তে। তারপর ওঠানামা পথে পৌঁছে যাবেন কোপোড়ধার নামক জায়গায়। এপথে লোকজনের চলাচল নজরে পড়বে। এরপর একটানা নেমে আসবেন একটা নালার ধারে। নালাটি পেরিয়ে আরও নীচে নেমে আসবেন টিহরী-ঘুত্তু বাস পথের উপরে। ভীলঙ্গনার ডানতটের এই গাড়িপথে বেশ খানিকটা এগোলেই ঘুত্তুর জনবসতি।
পঞ্চম দিন: ঘুত্তু (১ হাজার ৫২৪ মি)— গওয়ানা (১ হাজার ৬৭৭ মি)— গায়ানমাণ্ডা (২ হাজার ১৩৪ মি)—পাওয়ালি কাঁটা (৩ হাজার ৯৬৪ মি) ১৬ কিমি যাত্রাপথ।
পুল পেরিয়ে চলে আসতে হবে ভীলঙ্গনার বামতটে। পূর্বদিক থেকে নেমে আসা গওয়ানা গাডের উপর পুল পেরিয়ে গওয়ানা গ্রামটিকে বাঁদিকে রেখে শুরু হবে চড়াই পথ। অতীতে প্রচলিত কথা ছিল যে ‘পাওয়ালি কা চড়াই হাতি কা লড়াই’ অর্থাৎ একদিনে ১৬ কিমি পথে উঠতে হবে প্রায় সাতহাজার ফুট। একটানা চড়াই ভেঙে উঠে আসবেন গোয়ানমাণ্ডা খড়কে। পাহাড়ের ঢালে সামান্য গাছপালা আছে। দুফাণ্ডা খড়ক হয়ে উঠে আসবেন পাওয়ালি কাঁটায়। পাস সংলগ্ন বিস্তীর্ণ চারণভূমি। সেই সুন্দর প্রান্তরের মধ্যে দিয়ে কয়েক পা নামলেই কালীকমলীর চটি ও কয়েকটি ঘর আছে।
ষষ্ঠ দিন: পাওয়ালি কাঁটা— রাজখড়ক (৩ হাজার ৮১০ মি)— তালি (৩ হাজার ৮৭১ মি)— কিউখোলা খাল (৩ হাজার ৬৫৯ মি)— মুগ্গু চটি (৩ হাজার ০৪৯ মি) ১২ কিমি যাত্রাপথ।
পাওয়ালি কাঁটা জায়গাটি অতীব সুন্দর। এখান থেকে উত্তরদিকে একসারি তুষারাবৃত পর্বতচূড়া দেখা যাবে। সকালটা এখানে কাটিয়ে বেরিয়ে পড়ুন। সুন্দর চারণভূমির মধ্যে দিয়ে প্রায় সমতল পথে রাজখড়ক হয়ে নেমে আসবেন তালি বুগিয়ালে। এ জায়গাটিও খুব সুন্দর। অল্প অল্প গাছপালা আর চারণভূমির মধ্যে দিয়ে ওঠানামা পথে কিউখোলা খালে পৌঁছে যাবেন। এখান থেকে উতরাই পথ। নামার পথে মেষপালকদের ঘর দেখতে পাবেন। নেমে আসবেন মুগ্গু চটিতে। এখানে রাত কাটানোর নামমাত্র ব্যবস্থা আছে।
সপ্তম দিন: মুগ্গু চটি— ত্রিযুগীনারায়ণ (১ হাজার ৯৮২ মি) ৭ কিমি পথ।
রডোডেনড্রন বনের মধ্যে দিয়ে সুন্দর প্রশস্ত পথে নেমে আসবেন ত্রিযুগীনারায়ণ। এখানে থাকা ও খাওয়ার ভালো ব্যবস্থা আছে। স্থানীয় মানুষের বিশ্বাস যে এখানে শিব ও পার্বতীর বিয়ে হয়েছিল। মন্দির দর্শন করে ১২ কিমি গাড়িপথে নেমে আসবেন শোনপ্রয়াগ। শোনপ্রয়াগ থেকে বাসপথে ফিরে আসবেন হরিদ্বার।
উত্তরকাশী বা ভাটোয়ারি থেকে মালবাহক নিতে হবে।
পুরো পথের রসদ একসঙ্গে নেওয়ার প্রয়োজন নেই। পথিমধ্যে অনেক জায়গায় রসদ পাওয়া যাবে। এ প্রোগ্রামটি উল্টোভাবে অর্থাৎ ত্রিযুগীনারায়ণ থেকে ভাটোয়ারি যেতে পারেন।
একই সময় লাগবে।
ছবি: লেখক
02nd  June, 2019
কালকা স্টেশনে ছোট রেলের মিউজিয়াম  

পাহাড়ি পথে শুয়োঁপোকার মতো চলা ছোট রেলের অতীত দেখতে পাবেন কালকা স্টেশনে। দেশ বিদেশের পর্যটকরা ছোট রেলে চড়ে পৌঁছে যান সিমলা। সাহেবদের তৈরি শতাব্দী প্রাচীন এই রেলকে এবার ফ্ল্যাশব্যাকে দেখে নেওয়ার সু্যোগ পাবেন সবাই। 
বিশদ

16th  June, 2019
ভ্যালি অফ ফ্লাওয়ারস  

ফুলের উপত্যকা ‘ভ্যালি অফ ফ্লাওয়ারস।’ উত্তরাখণ্ডের এই বর্ণময় উপত্যকায় রঙের রামধনু খেলে বর্ষার আগে। বিশ্ব ঐতিহ্যের তকমাপ্রাপ্ত এই ফুলের উপত্যকায় প্রায় তিনশো প্রজাতির ফুল মেলে ধরে তাদের সৌন্দর্যকে।  
বিশদ

16th  June, 2019
গঙ্গায় হাউস বোট 

নামে হাউস বোট হলেও হাউস নেই। তাতে কী? এই বোটে চেপে ঘোরা তো যাবে গঙ্গার বুকে। সম্প্রতি কেরলের হাউস বোটের মতো গঙ্গায় ভাসল ‘গঙ্গাশ্রী ’ ও ‘জলশ্রী ’ নামে দুটি হাউস বোট।  
বিশদ

16th  June, 2019
এবার দার্জিলিংয়ের চিড়িয়াখানায় টাকিন 

ভুটানের জাতীয় পশু টাকিন। পাহাড়ি ছাগল ও অ্যান্টিলোপের মাঝামাঝি গোত্রের এক প্রাণী টাকিন। প্রাণীটি সংকটাপন্ন তালিকাভুক্ত।  
বিশদ

16th  June, 2019
অন্ধ্রপ্রদেশ বেড়াতে গেলে 

বিজয়ওয়াড়া শহর ছাড়িয়ে এসেছি প্রায় আধঘণ্টা আগে, এবার গাড়ি হাইওয়ে ছেড়ে মোড় নিয়ে ঢুকল গ্রামের মধ্যে। পূর্বঘাট পর্বতমালার পায়ের নীচে ছোট্ট গ্রাম কোণ্ডাপল্লি। কিন্তু গ্রামে ঢুকে প্রথমেই মনে হল অন্ধ্রপ্রদেশের এই স্বল্পপরিচিত গ্রামের সঙ্গে পূর্ব বর্ধমানের নতুনগ্রামের কী আশ্চর্য মিল!  
বিশদ

16th  June, 2019
গাঁয়ের নাম পাবুং

অজন্তা সিনহা: ঘুম ভাঙে ‘ওম মণিপদ্মে হুম’ সুরে। আহা, কি শান্তি! এমন সকাল রোজ রোজ কেন হয় না? যাঁরা শুনেছেন, তাঁরা জানেন, এই সুরের এক অতুলনীয় ও অপ্রতিরোধ্য শক্তি রয়েছে, যা খুব সহজেই মনকে অপার শান্তির দেশে নিয়ে যায়—উত্তরবঙ্গের চারকোলের অন্তর্গত পাবুং গ্রামে (নামভেদে পাবং)।  
বিশদ

16th  June, 2019
 যা যা ব র চাঙপাদের ঘর গেরস্থালি

 উৎপল দাস: জুন, জুলাই, আগস্ট আর সেপ্টেম্বর— এই চার মাস হল লাদাখ ভ্রমণের শ্রেষ্ঠ সময়। আর এই ভ্রমণসূচির মধ্যে যদি থাকে সোমোরিরি লেক আর তার সংলগ্ন কোরজোক গ্রাম তাহলে সেখানে আরও একটা দিন বাড়তি থাকুন। দেখে আসুন যাযাবর চাঙপাদের ঘর গেরস্থালি।
বিশদ

02nd  June, 2019
উদ্ধার ৪০ মমি

 মিশর ভ্রমণের আকর্ষণ পর্যটকদের কাছে ইতিহাসের সন্ধানে। প্রাচীন এক সভ্যতার কাছে পৌঁছে মুগ্ধ হয়ে যাওয়া। এবার পর্যটকদের কাছে আরও আকর্ষণীয় হয়ে উঠবে মিশর ভ্রমণ। সম্প্রতি মিশরের মিনইয়ার সমাধি ক্ষেত্র থেকে আবিষ্কার হয়েছে ৪০টি মমি।
বিশদ

02nd  June, 2019
আন্দামান, লাক্ষাদ্বীপে সি প্লেন

 এক দ্বীপ থেকে আর এক দ্বীপে যেতে জাহাজই ভরসা।এবার সে পথে যুক্ত হতে চলেছে সি প্লেন। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের আইল্যান্ড ডেভেলপমেন্ট এজেন্সির বৈঠকে আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপের স্বরাজ দ্বীপ, শহীদ দ্বীপ, হাটবে ও লং আ ইল্যান্ডকে সি প্লেনের পরিষেবার জন্য নির্বাচন করা হয়।
বিশদ

02nd  June, 2019
জোড়াসাঁকো ঠাকুর বাড়ির আলোকধ্বনি

 রবীন্দ্রনাথ ও ঠাকুর বাড়ি। বাংলা শুধু নয়, সমগ্র দেশে স্বাধীনতা আন্দোলনে রবীন্দ্রনাথ ও তাদের বাড়ির ভূমিকা অনস্বীকার্য। সেই ইতিহাসকে দেশের তরুণ প্রজন্মকে তথা দেশ বিদেশের পর্যটকদের সামনে তুলে ধরতে জোড়াসাঁকোয় শুরু হয়েছে আলোকধ্বনি প্রদর্শনী।
বিশদ

19th  May, 2019
দার্জিলিংয়ের টয় ট্রেনে ভিস্তাডোম কামরা

 পর্যটকদের কাছে টয় ট্রেনের আকর্ষণ দুর্নিবার। কু ঝিক ঝিক করে পাহাড়ের আঁকা বাঁকা পথ ধরে হুইসল তুলে ছুটে যায় খেলনা রেল। রেলপথের দু’পাশে সরে সরে যায় সবুজের রহস্য ঘেরা জঙ্গল, রংবাহারি ফুলের বাড়ি, বারান্দা। লাল টুকটুকে পাহাড়ি শিশুর মুখ। 
বিশদ

19th  May, 2019
গরমের ছুটিতে ঠিকানা হোক মধ্যপ্রদেশের কাশ্মীর

ভোট মিটলেই গরমের ছুটি। কাশ্মীর যাওয়া এখন প্রায় অসম্ভব। তাহলে কোথায় যাওয়া যেতে পারে। মধ্যপ্রদেশের কাশ্মীর গেলে কেমন হয়? ভাবছেন তো মধ্যপ্রদেশের কাশ্মীর? সেটা আবার কোথায়? তাহলে বলেই ফেলি।
বিশদ

19th  May, 2019
গরমে বাঘের দেশে

 উত্তরা গঙ্গোপাধ্যায়: বিকেলের জঙ্গল সাফারি সবে শুরু হয়েছে। মোহরলি থেকে পিচ রাস্তা সোজা চলে গিয়েছে জঙ্গলের মধ্যে দিয়ে। কপালে কী আছে ভাবছি, এমন সময় দেখি সামনে মহারাষ্ট্র রাজ্য পরিবহনের বাস দাঁড়িয়ে রাস্তা জুড়ে। যাত্রীদের অনেকেই চেঁচামেচি করছেন। সাফারির আরও দু’একটি গাড়িও দাঁড়িয়ে পড়েছে।
বিশদ

19th  May, 2019
একশৃঙ্গদের নতুন আবাস হচ্ছে রসমতী 

এক সময় কোচরাজাদের মৃগয়া ক্ষেত্র ছিল রসমতী বনাঞ্চল। তাঁরা নিজেদের শক্তির প্রমাণ দিয়েছেন বাঘ, হাতি, গণ্ডার শিকার করে। কালে কালে এই বনাঞ্চল চোড়াশিকারীদের হাতযশে শুধুই জঙ্গলে পরিণত হয়।  
বিশদ

05th  May, 2019
একনজরে
  চেন্নাই, ১৭ জুন: তামিলনাড়ু পুলিসের এক সাব-ইন্সপেক্টরের বিশেষ রিপোর্টের ভিত্তিতে তিন আইএস সমর্থনকারীকে গ্রেপ্তার করল বিশেষ তদন্তকারী শাখা (এনআইএ)। ওই তিনজন কোয়েম্বাটোরের বিভিন্ন ধর্মীয়স্থানে আত্মঘাতী হামলার ছক করেছিল বলে পুলিসের দাবি। ধৃতদের নাম মহম্মদ হুসেন, শাহজাহান এবং শেখ সইফুল্লা। ...

সংবাদদাতা, আলিপুরদুয়ার: বিধানসভা ভোটের দিকে লক্ষ্য রেখে আলিপুরদুয়ারে জেলা জুড়ে ফের সদস্য সংগ্রহ অভিযানে নামছে বিজেপি। কিভাবে এই সদস্য সংগ্রহ হবে তার জন্য প্রশিক্ষণ নিতে দলের জেলা ও মণ্ডল কমিটির চার নেতার নাম কলকাতায় পাঠানো হয়েছে।   ...

 দীপ্তিমান মুখোপাধ্যায়, হাওড়া: জেলার সেচবাঁধ ও শর্ট কাট চ্যানেলগুলির অবস্থা খতিয়ে দেখে পঞ্চায়েত সমিতিগুলিকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিল জেলা প্রশাসন। আগামী কয়েকদিনের মধ্যেই রাজ্যে বর্ষা ঢুকবে বলে জেলা প্রশাসনের কর্তারা মনে করছেন। ...

 রিও ডি জেনেইরো, ১৭ জুন: কোপা আমেরিকার প্রথম ম্যাচে বলিভিয়ার চ্যালেঞ্জ সহজেই অতিক্রম করেছে ব্রাজিল। বুধবার সকালে (ভারতীয় সময়) গ্রুপ-এ’র দ্বিতীয় ম্যাচে পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের মুখোমুখি ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

উচ্চতর বিদ্যায় সাফল্য আসবে। প্রেম-ভালোবাসায় আগ্রহ বাড়বে। পুরনো বন্ধুর সঙ্গে সাক্ষাতে আনন্দলাভ হবে। সম্ভাব্য ক্ষেত্রে ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৯৩৬- রুশ সাহিত্যিক ম্যাক্সিম গোর্কির মৃত্যু
১৯৮৭- পরিচালক হীরেন বসুর মৃত্যু
২০০৫- ক্রিকেটার মুস্তাক আলির মৃত্যু
২০০৯- প্রখ্যাত সরোদ শিল্পী আলি আকবর খানের মৃত্যু  





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৮.৯৯ টাকা ৭০.৬৮ টাকা
পাউন্ড ৮৬.৩৪ টাকা ৮৯.৫৫ টাকা
ইউরো ৭৬.৭৯ টাকা ৭৯.৭৬ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৩,৩২৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩১,৬১৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩২,০৯০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৩৭,১০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৩৭,২০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

৩ আষা‌ঢ় ১৪২৬, ১৮ জুন ২০১৯, মঙ্গলবার, প্রতিপদ ২৩/৫৮ দিবা ২/৩১। মূলা ১৭/১৬ দিবা ১১/৫০। সূ উ ৪/৫৬/০, অ ৬/১৮/৫৪, অমৃতযোগ দিবা ৭/৩৬ মধ্যে পুনঃ ৯/২৩ গতে ১২/৩ মধ্যে পুনঃ ৩/৩৮ গতে ৪/৩১ মধ্যে। রাত্রি ৭/১ মধ্যে পুনঃ ১১/৫৮ গতে ২/৬ মধ্যে, বারবেলা ৬/৩৭ গতে ৮/১৭ মধ্যে পুনঃ ১/১৮ গতে ২/৫৮ মধ্যে, কালরাত্রি ৭/৩৯ গতে ৮/৫৮ মধ্যে। 
২ আষাঢ় ১৪২৬, ১৮ জুন ২০১৯, মঙ্গলবার, প্রতিপদ ২২/২২/৩৮ দিবা ১/৫২/৩৩। মূলানক্ষত্র ১৭/২৭/২৯ দিবা ১১/৫৪/৩০, সূ উ ৪/৫৫/৩০, অ ৬/২১/২৮, অমৃতযোগ দিবা ৭/৪০ মধ্যে ও ৯/২৭ গতে ১২/৮ মধ্যে ও ৩/৪২ গতে ৪/৩৫ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/৫ মধ্যে ও ১২/২ গতে ২/৯ মধ্যে, বারবেলা ৬/৩৬/১৫ গতে ৮/১৬/৫৯ মধ্যে, কালবেলা ১/১৯/১৩ গতে ২/৫৯/৫৮ মধ্যে, কালরাত্রি ৭/৪০/৪৩ গতে ২/৫৯/৫৯ মধ্যে। 
মোসলেম: ১৪ শওয়াল 
এই মুহূর্তে
বিশ্বকাপ: আফগানিস্তানকে ১৫০ রানে হারাল ইংল্যান্ড

10:48:34 PM

স্বাস্থ্য ক্ষেত্রে নিরাপত্তা, চালু কলকাতা পুলিসের হেল্প লাইন 
গতকাল মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ পাওয়ার পর স্বাস্থ্য ক্ষেত্রে নিরাপত্তা জনিত সমস্যার ...বিশদ

09:48:24 PM

বিশ্বকাপ: আফগানিস্তান ৮৬/২ (২০ ওভার) 

08:17:00 PM

দার্জিলিং পুরসভায় প্রশাসক নিয়োগ করল রাজ্য সরকার 

08:08:39 PM

জাপানে বড়সড় ভূমিকম্প, মাত্রা ৬.৫, জারি সুনামি সতর্কতা 

07:34:58 PM

বিশ্বকাপ: আফগানিস্তান ৪৮/১ (১০ ওভার) 

07:05:00 PM