Bartaman Patrika
শিক্ষা-কেরিয়ার
 

 চাকরির অবস্থার পরিবর্তন হলেও বাজারে নতুন চাকরির সুযোগও কম নয়

পড়ার বিষয়ের যেমন বদল ঘটছে তেমনই পড়ুয়াদেরও সুযোগ রয়েছে নতুন নতুন বিষয়কে কেরিয়ার হিসেবে বেছে নেওয়ার। চাকরির বাজারে চূড়ান্ত প্রতিযোগিতা থাকলেও সঠিকভাবে তৈরি হতে পারলে এখনও ভালো প্রতিষ্ঠানে চাকরি হাতের নাগালের বাইরে নয়। এসব নিয়েই কথা বললেন কলিঙ্গ ইনস্টিটিউট অব ইন্ডাস্ট্রিয়াল টেকনোলজি’র প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক ডঃ অচ্যুত সামন্ত।

 আমরা তো উন্নয়নশীল দেশের মানুষ। শিক্ষা কীভাবে সমাজ গঠনে সাহায্য করতে পারে বলে আপনার মনে হয়?
 শিক্ষা একমাত্র মাধ্যম যাতে সমাজের প্রগতি এবং উন্নতি হতে পারে। যেখানে শিক্ষা নেই সেখানে সমাজ বদ্ধ, তার এগনোর কোনও জায়গাও নেই। শিক্ষা সমাজের সবথেকে বড় উপহারও বলা যায়। যে দেশে কিংবা প্রদেশে শিক্ষা আছে আপনি দেখুন সেখানে উন্নতি ততই বেশি। শিক্ষিত মানুষ যেভাবে সমাজকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারে তা আর কারও পক্ষেই সম্ভব নয়। আর শিক্ষিত মানুষ যেখানে বেশি থাকবে সেখানেই সমাজ সঠিক পথে, সঠিক ভাবে এগোবে।
 আপনি ‘কিট’- এর ফাউন্ডার। আপনি আজ বিশ্বের কাছে নিজের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে তুলে ধরেছেন। আচ্ছা কেরিয়ারের কোন পর্যায় এসে আপনার মনে হল এরকম একটি প্রতিষ্ঠানের দরকার?
 আমার ছোট থেকে বড় হওয়ার মধ্যে কোথাও একটা এই স্বপ্ন লুকিয়ে ছিল। আমি খুব গরিব পরিবারে জন্মেছিলাম, না খেতে পাওয়া পরিবারে বড় হতে হতে বুঝেছিলাম কোথাও গিয়ে শিক্ষার খুব দরকার। আমি নিজে খুব মন দিয়ে পড়াশোনা করা শুরু করি। বড় হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে শিক্ষামাধ্যমে কিছু করার ইচ্ছা এবং স্বপ্নটাও বড় হতে লাগল। তারপর মাত্র ২৫ বছর বয়সে আমি আরম্ভ করলাম ‘কিট’ এবং ‘কিস’ (কলিঙ্গ ইনস্টিটিউট অব সোশ্যাল সায়েন্সেস)। ভাড়া বাড়িতে খুব কম সংখ্যক ছাত্রছাত্রী নিয়ে আমি এটা শুরু করি। এখন ‘কিট’- এ সারা বিশ্ব থেকে ছাত্রছাত্রী আসে। পশ্চিমবঙ্গ থেকেও অনেকে আসে। আর ‘কিস’ হল গরিব আদিবাসীদের জন্য। ওদের থেকে আমি কোনও টাকা নিই না। ওদের ছোট থেকে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যন্ত পড়াশোনা আমাদের এখানে হয়। এই দুই সংস্থাকে বিশ্বমানের তৈরি করার জন্য আমরা পরের স্টেপগুলো নিলাম।
এখন ৫৩ টা দেশের ছেলেমেয়ে এখানে পড়ে। লন্ডনের ‘অ্যাক্রেডেশান ইনস্টিটিউট অব ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজি ইউ কে’-সেটাও আমরা পেয়েছি।
 ‘কিট’-এর শিক্ষাব্যবস্থা নিয়ে জানতে চাই। কী বিষয় পড়ানো হয় এবং ভবিষ্যতের সুযোগগুলি কী কী?
 তিরিশ হাজার ছেলেমেয়ে আমাদের এই সংস্থায় আছে। এখানে তারা বহু বিষয় পড়ার সুযোগ পায়। তার মধ্যে আছে ইঞ্জিনিয়ারিং, মেডিক্যাল, ডেন্টাল, নার্সিং, ম্যানেজমেন্ট, ল, বায়োটেকনোলোজি, রুরাল ম্যানেজমেন্ট, ফ্যাশন ম্যানেজমেন্ট, মাস কমিউনিকেশন সব কিছু গ্র্যাজুয়েশন পর্যন্ত এখানে পড়ানো হয়। তাছাড়া এখানে স্কুল লেভেলেও শিক্ষা দেওয়া হয় যা সিবিএসসি-র সঙ্গে যুক্ত। ২৫ টা ক্যাম্পাস আছে। বিশ্বমানের নানা সুযোগ এখানে দেওয়া হয়ে থাকে।
 ‘কিস’- নিয়ে যদি কিছু বলেন।
 গরিব আদিবাসী ছেলেমেয়েদের জন্য এটা তৈরি। আমি নিজেই যেহেতু ছোটবেলায় গরিবি দেখেছি তাই আমি জানি একজন ছেলে বা মেয়ে এই দারিদ্র্যের জন্য ঠিক করে শিক্ষা পায় না। ফলে তাদের আর উন্নতি হয় না। তাদের কীভাবে মূলস্রোতে আনা যেতে পারে সেটাই আমার মূল ভাবনা ছিল কারণ একবার তারা শিক্ষিত হলে সমাজে তাদের অবস্থার উন্নতি হবে। তারা নিজে রোজগার করে পরিবারকে সাহায্য করতে পারবে এবং তাদের সন্তানদের আর তাদের মতো অসুবিধার মধ্যে পড়তে হবে না। এটা খুব বড় সাফল্য আমার কাছে। এখান থেকে কুড়ি হাজার ছেলে মেয়ে পাশ করে গিয়েছে। আরও তিরিশ হাজার ছেলে মেয়ে এখানে আছে এখন। পড়ছে তারা। এখান থেকে স্পোর্টস এবং অ্যাথলেটিক্সে অনেক ছেলে মেয়ে সুযোগ পায়, তাদের মধ্যে অনেকেই আজ দেশের হয়ে খেলছে, ভারতকে ট্রফি এনে দিচ্ছে।
 ওড়িশার শিক্ষাব্যবস্থার ক্ষেত্রে তার উন্নতি, ভবিষ্যতে এই শিক্ষাব্যবস্থা কোন জায়গায় যেতে পারে এবং সেক্ষেত্রে আপনি কীভাবে সেই যাত্রার অংশ হয়ে উঠবেন বলে মনে করেন?
 ওড়িশার শিক্ষা ব্যবস্থা বেশ ভালো এবং তা ভবিষ্যতে আরও ভালো হবে। এমনিতেই ওড়িশাকে ‘এডুকেশনাল হাব অব ইস্টার্ন জোন’- বলা হচ্ছে। ওখানে এখন আমাদের মুখ্যমন্ত্রী নবীন পট্টনায়কের নেতৃত্বে ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট খুলেছে। তাই বলব ওড়িশার আগামীদিনের এডুকেশন সিনারিও খুব আশাব্যাঞ্জক।
 রাজনৈতিক সক্রিয়তার পাশাপাশি একজন বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ আপনি। এই দুটি দিক আপনি একসঙ্গে সামলান কীভাবে?
 সমস্যা হয় না খুব একটা। কারণ আমি সোশ্যাল ওয়ার্কার এবং শিক্ষাবিদ হিসেবে প্রায় তিরিশ বছর ধরে কাজ করছি। আর তাই আমার কাছে এই কাজটা খুব ভালোবাসার জায়গায় আছে এবং প্রায় জীবনের একটা অংশ হয়ে উঠেছে। এর মাঝেই নানা লোকের সঙ্গে দেখা করা-মেলামেশা-কথা চলছিল। এখন রাজনীতিতে এসে ওই লোকেদের সঙ্গেই কাজ করব আমি। শুধু আরও বড় করে এবং ভালোভাবে কাজটা করতে পারব।
 একটা শিক্ষা সংস্থার আদর্শ পরিবেশ কেমন হওয়া উচিত বলে আপনার মনে হয়?
 একটা শিক্ষানিকেতনকে ‘ছাত্র-বান্ধব’ হতে হবে। তারপর ‘কর্মচারী-বান্ধব’ হতে হবে এবং শেষ কিন্তু সবথেকে বড় বিষয় যেটা সেটা হল শিক্ষাগত মান বজায় রাখতে হবে। ছাত্র ছাত্রীদের কোনওরকম সমস্যা হলে সেটা জানতে হবে এবং সেটাকে সমাধানের চেষ্টা করতে হবে। অভিভাবকদের সঙ্গেও সংযোগ রাখতে হবে। ছাত্র ছাত্রীরাই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সম্পদ, তাদের ঘিরেই সব, তাই তাদের কথা মাথায় রেখে সংস্থাকে এগতে হবে। আমাদের সংস্থায় যেমন আছে টিউটর-মেন্টর প্রোগ্রাম। যেখানে ২০-২৫ জন ছাত্রছাত্রীকে নিয়ে একজন শিক্ষক শিক্ষাদান করেন। সবার সমস্যা আলাদা করে শোনা এবং তা সমাধান করাই এখানে আসল বিষয়।
 বর্তমানে অনলাইন বা ডিজিটাল এডুকেশন মানুষের কাছে ধীরে ধীরে গ্রহণযোগ্য হয়ে উঠছে। এই ব্যবস্থা নিয়ে আপনার কী মত? কতটা গ্রহণযোগ্য এই শিক্ষা?
 এটা নির্ভর করে কে কোন শিক্ষা দিচ্ছে তার উপর এবং কে কীভাবে দিচ্ছে তার ওপর। প্র্যাক্টিকাল বিষয় যাতে থাকে সেটা অনলাইনে পুরোটা করা সম্ভব নয়। এবার দেখতে হবে রেগুলার ক্লাস যে করছে আর অনলাইন ক্লাস যে করছে তাদের
মধ্যে কে বেশি সেলেবেল। যে বেশি সেলেবেল তার কেরিয়ারে সুযোগ বেশি কিংবা সে বেশি ভালো চাকরি পাবে।
তুলনায় শিক্ষার হার বাড়লেও এখন চাকরি কম। অনেকেই পড়াশোনা করছে কিন্তু চাকরি পাচ্ছে না। তাদের আপনি কী বলবেন?
 এখন আগের থেকে চাকরির অবস্থা যেমন অন্যরকম হয়েছে ঠিক সেভাবে মার্কেটে অনেক নতুন রকম চাকরি তৈরি হয়েছে। এখন অনেক বিষয় নিয়ে পড়ার সুবিধা আছে। আমাদের সময় সেসব কিছুই ছিল না। এখন স্কোপ অনেক বেশি। ছাত্র ছাত্রীদের কাজের ইন্টারেস্ট কোথায়, যোগ্যতা কী সেসব দেখে সঠিক কেরিয়ার বেছে নিতে হবে। তারপর সেই লাইনে কীভাবে এগিয়ে যাওয়া যায় সেটাই দেখতে হবে।
 সাম্প্রতিক যুব সম্প্রদায়কে একজন শিক্ষাবিদ হিসেবে কী বলবেন?
 ওদের এটাই বলব যে তোমাদের কাছে এখন সুবিধা অনেক। অনেক কিছুই আছে যেমন কম্পিউটার কিংবা ইন্টারনেট যেগুলো আগে ছিল না। আমাদের সময় কেবল ছিল ক্লাসরুম টিচিং ব্যস আর কিছুই নয়।
এখন অনেক স্কোপ আছে ছাত্র ছাত্রীদের। তার সঠিক ব্যবহার করা উচিত। যার যাতে ইন্টারেস্ট সেটাই পড়ো। মনে রেখো সব লাইনেই স্কোপ আছে। শুধু চাই এগিয়ে চলার ইচ্ছা আর কঠোর পরিশ্রম করার শক্তি।
কৌশানী মিত্র
26th  August, 2019
গ্রিন এনার্জি নিয়ে আলোচনাসভা 

‘গ্রিন এনার্জি’ নিয়ে সচেতনতা প্রসারে বিশেষ উদ্যোগ নেওয়ায় জিআইএস গ্রুপের অন্যতম প্রধান কলেজ গুরু নানক ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি (জিএনআইটি)-কে পুরস্কার দিল সোলার এনার্জি সোসাইটি অব ইন্ডিয়া (এসইএসআই)।  
বিশদ

24th  February, 2020
জেইএনপিএএস-পিজি ২০২০ 

২০২০-২০২১ অ্যাকাডেমিক সেশনে জেইএনপিএএস পরীক্ষার তারিখ জানানো হয়েছে। পরীক্ষা নেওয়া হবে ওয়েস্ট বেঙ্গল জয়েন্ট এন্ট্রান্স বোর্ড থেকে ১২ জুলাই ২০২০। এই কমন এন্ট্রাসের আবেদন নেওয়া হবে ১৪ এপ্রিল থেকে ৭ মে ২০২০ পর্যন্ত।  
বিশদ

24th  February, 2020
চাকরির পথ দেখাবে প্লাস্টিক টেকনোলজির কোর্স 

শৌণক সুর: প্লাস্টিক একটি যুগান্তকারী আবিষ্কার হলেও বর্তমানে এটি ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছে। বিশ্বে দূষণের একটি অন্যতম কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে প্লাস্টিকের ব্যবহার। বাজার করতে হলে প্লাস্টিকের ব্যাগ, মিষ্টির প্যাকেটও প্লাস্টিকের। জলের বোতল, দুধের প্যাকেট, এমনকী খাবার থালা-বাটি-গ্লাসও প্লাস্টিকের। দৈনন্দিন জীবনের একেবারে গভীরে ঢুকে গিয়েছে এর ব্যবহার। 
বিশদ

24th  February, 2020
ভবিষ্যতে প্রতিষ্ঠা পেতে এমবিএ 

বর্ণালী ঘোষ: এ রাজ্যের বেশিরভাগ বিশ্ববিদ্যালয়ে এমবিএ করার সুযোগ রয়েছে। এমবিএ করার জন্য প্রবেশিকা পরীক্ষায় বসতে হয়। তাছাড়াও সর্বভারতীয় পরীক্ষাগুলির মাধ্যমে দেশের বিভিন্ন স্থানে এমবিএ এবং পোস্টগ্র্যাজুয়েট ডিপ্লোমা ইন ম্যানেজমেন্ট (পিজিডিএম) পড়ে নেওয়া যায়। 
বিশদ

24th  February, 2020
দ্বাদশে বিজ্ঞান থাকলে চাকরিতে
একটু অগ্রাধিকার পাওয়া যায়

 কৌলিক ঘোষ: অনেকেই ভেবে নেন যে, একাদশ-দ্বাদশে যাদের বিজ্ঞান ছিল তারা নির্ঘাৎ ইঞ্জিনিয়ারিং বা ডাক্তারি নিয়ে পড়াশোনা করবে এবং সেইমতো প্রস্তুতির জন্য প্রশিক্ষণ নেবে প্রথম সারির কোনও কোচিং সেন্টার থেকে। এই ভাবনা কিন্তু মোটেই ঠিক নয়।
বিশদ

23rd  February, 2020
 কেরিয়ারের চোখা কথা

  সাধ আছে কিন্তু সাধ্য নেই। শিক্ষার ক্ষেত্রে এটাকে বলা যায় সাধ আছে কিন্তু মেধা নেই। কিন্তু অভিভাবকরা এটা তো কখনওই মানবেন না। কম নম্বর পেলে বলে বেড়াবেন খাতা দেখা হয়নি।
বিশদ

23rd  February, 2020
কাজের দিগন্ত খুলে
দেয় ইলেক্ট্রনিক সায়েন্স 

প্রসেনজিৎ রায়চৌধুরী : অনেকে জানেন, আবার অনেকে জানেন না ইলেক্ট্রনিক সায়েন্সের অতীত, বর্তমানের উপযোগিতা কিংবা ভবিষ্যতের অসীম সম্ভাবনার বিষয়টিকে। বর্তমানে বিজ্ঞান বিভাগে যে যে বিষয়ে পড়াশোনার সুযোগ আছে ইলেক্ট্রনিক সায়েন্স তার মধ্যে একটি ‘লুকানো রত্ন’।  
বিশদ

17th  February, 2020
খেলার দুনিয়াতেই মিলবে
জীবিকার সন্ধান

শৌণক সুর: স ময় পরিবর্তিত হচ্ছে। তার সঙ্গে পাল্টাচ্ছে আমাদের মানসিকতাও। আগে শুধুমাত্র পড়াশোনার উপরেই জোর দেওয়া হতো। মনে করা হতো কেবলমাত্র ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, শিক্ষক হতে পারলে তবেই জীবনে শিক্ষা অর্জনের সঠিক মূল্য পাওয়া গেল।
বিশদ

17th  February, 2020
ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব ফিনান্সিয়াল ম্যানেজমেন্টে কোর্স 

কেন্দ্রীয় সরকারের অর্থমন্ত্রকের এই প্রতিষ্ঠানটি থেকে ফিন্যান্সের উপর দু’বছরের পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ডিপ্লোমা ইন ম্যানেজমেন্ট পড়ার সুযোগ রয়েছে। এআইসিটিই অনুমোদিত এই কোর্সটিতে ভর্তির শেষদিন ৬ মার্চ ২০২০।  
বিশদ

17th  February, 2020
স্নাতকোত্তর ডিপ্লোমা কোর্স 

হায়দরাবাদের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব রুরাল ডেভলপমেন্ট অ্যান্ড পঞ্চায়েতি রাজ থেকে করে নেওয়া যাবে দু’টি বিষয়ে পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ডিপ্লোমা। এআইসিইটি অনুমোদিত পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ডিপ্লোমা ইন ম্যানেজমেন্ট – রুরাল ম্যানেজমেন্টের ২০২০-’২২ সেশনে ভর্তির জন্য স্নাতকস্তরে ৫০ শতাংশ নম্বর থাকতে হবে।  
বিশদ

17th  February, 2020
ঝাড়খণ্ড থেকে এমবিএ 

সেন্ট্রাল ইউনিভার্সিটি অব ঝাড়খণ্ড এমবিএ প্রোগ্রামে ভর্তির প্রক্রিয়া শুরু করেছে। দু’বছরের ফুলটাইম এমবিএ কোর্সে ২০২০-’২২ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি নেওয়া হচ্ছে। CAT-২০১৯ স্কোর থাকলে আবেদন করা যাবে। 
বিশদ

17th  February, 2020
এবিএ’তে ভর্তি 

জয়পুরের মালব্য ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি ডিপার্টমেন্ট অব ম্যানেজমেন্ট স্টাডিজে ২০২০-২১ সেশনে এমবিএ-তে ভর্তি নিচ্ছে। CAT, GMAT, CMAT, MAT পরীক্ষায় স্কোর থাকতে হবে। 
বিশদ

17th  February, 2020
স্বাস্থ্য সেবায় নার্সিং

বর্ণালী ঘোষ: মানুষের সেবা করার জন্য প্রথমেই এগিয়ে আসেন নার্সিং স্টাফরা। তাঁদের যেসব জায়গায় কাজ করতে হয়, তার মধ্যে অন্যতম হাসপাতাল, লন টার্ম কেয়ার ফেসিলিটিজ, পাবলিক হেলথ ডিপার্টমেন্টস, পাবলিক স্কুল বা মেন্টাল হেলথ। অন্যান্য পেশার মতোই জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে নার্সিং। 
বিশদ

10th  February, 2020
নার্সিং ও প্যারামেডিক্যাল কোর্সে ভর্তির সুযোগ 

কৌশানী মিত্র: দেশের যুবসমাজে বেকারত্ব এখন একটা বড় সমস্যা। কিন্তু একটু খুঁজে দেখলে পাওয়া যাবে এমন কিছু চাকরির সন্ধান, যার চাহিদা হয়তো কখনও ফুরোবে না। ঠিক সেরকম এক পরীক্ষার ফর্ম ফিলআপ শুরু হয়েছে। নার্সিং এবং প্যারামেডিক্যাল কোর্সের নানা ক্ষেত্রে গ্র্যাজুয়েশনের পরীক্ষার ভর্তির ফর্ম ফিলআপ শুরু হয়ে গিয়েছে। 
বিশদ

10th  February, 2020
একনজরে
সংবাদদাতা, বালুরঘাট: সরকারি আইটিআই প্রতিষ্ঠানে পঠনপাঠন লাটে ওঠার অভিযোগ তুলে তালা ঝুলিয়ে বিক্ষোভ দেখাল পড়ুয়ারা। বুধবার ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার হিলি থানার জমালপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের রামজীবনপুর আইটিআইতে।   ...

বিএনএ, আসানসোল: বেসরকারি গ্যাস কোম্পানির নিরাপত্তারক্ষী ছাঁটাই নিয়ে ক্রমশ জটিলতা বাড়ছে আসানসোলে। কোম্পানি থেকে ২৯জনকে ছাঁটাইয়ের প্রতিবাদে মঙ্গলবার থেকে অনশন শুরু করেছেন ছাঁটাই হওয়া নিরাপত্তারক্ষীরা।   ...

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: কলকাতা কর্পোরেশনের ভোটে ওয়ার্ড ভিত্তিক সমস্যা তুলে ধরতে নাগরিকদের কাছে বিশেষ সমীক্ষক টিম পাঠাচ্ছে বিজেপি। মহানগরের ১৪৪টি ওয়ার্ডের নিত্যদিনের সমস্যার চিত্র তুলে ধরতে চাইছে গেরুয়া শিবির। ভোটের প্রচারে স্থানীয় স্তরে এই ইস্যুগুলিকে সামনে রেখে শাসক তৃণমূলকে বিঁধতে ...

 দুবাই, ২৬ ফেব্রুয়ারি: নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে ওয়েলিংটন টেস্টে ব্যর্থতার জেরে স্টিভ স্মিথের কাছে মসনদ খোয়ালেন বিরাট কোহলি। আইসিসি’র টেস্ট র‌্যাঙ্কিংয়ে দু’নম্বরে নেমে গেলেন ভারত অধিনায়ক। তাঁর জায়গায় শীর্ষস্থানে অস্ট্রেলিয়ার তারকা ব্যাটসম্যান স্মিথ। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

বিদ্যার্থীদের ক্ষেত্রে আজকের দিনটা শুভ। কর্মক্ষেত্রে আজ শুভ। শরীর-স্বাস্থ্যের ব্যাপারে সতর্ক হওয়া প্রয়োজন। লটারি, শেয়ার ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৮০২- ফরাসি লেখক ভিক্টর হুগোর জন্ম
১৯০৮- লেখিকা লীলা মজুমদারের জন্ম
১৯৩১- স্বাধীনতা সংগ্রামী চন্দ্রশেখর আজাদের মৃত্যু
১৯৩৬- চিত্র পরিচালক মনমোহন দেশাইয়ের জন্ম
২০১২- কিংবদন্তি ফুটবলার শৈলেন মান্নার মৃত্যু





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.৮৯ টাকা ৭২.৫৯ টাকা
পাউন্ড ৯১.৫৯ টাকা ৯৪.৮৮ টাকা
ইউরো ৭৬.৪৯ টাকা ৭৯.৪১ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৪৩,১৬০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৪০,৯৫০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৪১,৫৬০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৭,৪০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৭,৫০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

১৪ ফাল্গুন ১৪২৬, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, বৃহস্পতিবার, (ফাল্গুন শুক্লপক্ষ) চতুর্থী অহোরাত্র। রেবতী ৪৭/৪০ রাত্রি ১/৮। সূ উ ৬/৪/১৪, অ ৫/৩৫/২, অমৃতযোগ রাত্রি ১/৫ গতে ৩/৩৫ বারবেলা ২/৪২ গতে অস্তাবধি। কালরাত্রি ১১/৪৯ গতে ১/৩৫ মধ্যে। 
১৪ ফাল্গুন ১৪২৬, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, বৃহস্পতিবার, চতুর্থী, রেবতী ৪২/২৩/২২ রাত্রি ১১/৪/৩৪। সূ উ ৬/৭/১৩, অ ৫/৩৪/৯। অমৃতযোগ দিবা ১/০ গতে ৩/২৮ মধ্যে। কালবেলা ২/৪২/২৫ গতে ৪/৮/১৭ মধ্যে। কালরাত্রি ১১/৫০/৪১ গতে ১/২৪/৪৯ মধ্যে। 
২ রজব 

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
জলপাইগুড়িতে ২১০ কেজি গাঁজা সহ ধৃত ৩ 

03:39:45 PM

পুরভোট অবাধ ও শান্তিপূর্ণ করতে হবে, রাজ্য নির্বাচন কমিশনারকে নির্দেশ রাজ্যপাল 
পুরভোটের দিনক্ষণ চূড়ান্ত না হলেও প্রশাসনিক তৎপরতা তুঙ্গে। এরমধ্যেই রাজ্য ...বিশদ

01:25:00 PM

লেকটাউনে নির্মীয়মাণ বিল্ডিং থেকে পড়ে মৃত শ্রমিক 

01:10:00 PM

মালদহে কার্তুজ উদ্ধার 
মালদহের হবিবপুর ব্লকের আইহো বাজারের একটি দোকান থেকে ১০ রাউন্ড ...বিশদ

01:05:54 PM

ইংলিশবাজারে দুর্ঘটনায় মৃত ১, জখম ১০ 
মালদহের ইংলিশবাজারে ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কে দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকের পিছনে ...বিশদ

12:58:00 PM

মেচেদা লোকালে দেহ উদ্ধার: লিজের টাকা হাতাতে খুন? 
মেচেদা লোকালে ট্রলি ব্যাগে দেহ উদ্ধারের ঘটনায় নতুন মোড়। হাসান ...বিশদ

11:51:12 AM