Bartaman Patrika
শিক্ষা-কেরিয়ার
 

 চাকরির অবস্থার পরিবর্তন হলেও বাজারে নতুন চাকরির সুযোগও কম নয়

পড়ার বিষয়ের যেমন বদল ঘটছে তেমনই পড়ুয়াদেরও সুযোগ রয়েছে নতুন নতুন বিষয়কে কেরিয়ার হিসেবে বেছে নেওয়ার। চাকরির বাজারে চূড়ান্ত প্রতিযোগিতা থাকলেও সঠিকভাবে তৈরি হতে পারলে এখনও ভালো প্রতিষ্ঠানে চাকরি হাতের নাগালের বাইরে নয়। এসব নিয়েই কথা বললেন কলিঙ্গ ইনস্টিটিউট অব ইন্ডাস্ট্রিয়াল টেকনোলজি’র প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক ডঃ অচ্যুত সামন্ত।

 আমরা তো উন্নয়নশীল দেশের মানুষ। শিক্ষা কীভাবে সমাজ গঠনে সাহায্য করতে পারে বলে আপনার মনে হয়?
 শিক্ষা একমাত্র মাধ্যম যাতে সমাজের প্রগতি এবং উন্নতি হতে পারে। যেখানে শিক্ষা নেই সেখানে সমাজ বদ্ধ, তার এগনোর কোনও জায়গাও নেই। শিক্ষা সমাজের সবথেকে বড় উপহারও বলা যায়। যে দেশে কিংবা প্রদেশে শিক্ষা আছে আপনি দেখুন সেখানে উন্নতি ততই বেশি। শিক্ষিত মানুষ যেভাবে সমাজকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারে তা আর কারও পক্ষেই সম্ভব নয়। আর শিক্ষিত মানুষ যেখানে বেশি থাকবে সেখানেই সমাজ সঠিক পথে, সঠিক ভাবে এগোবে।
 আপনি ‘কিট’- এর ফাউন্ডার। আপনি আজ বিশ্বের কাছে নিজের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে তুলে ধরেছেন। আচ্ছা কেরিয়ারের কোন পর্যায় এসে আপনার মনে হল এরকম একটি প্রতিষ্ঠানের দরকার?
 আমার ছোট থেকে বড় হওয়ার মধ্যে কোথাও একটা এই স্বপ্ন লুকিয়ে ছিল। আমি খুব গরিব পরিবারে জন্মেছিলাম, না খেতে পাওয়া পরিবারে বড় হতে হতে বুঝেছিলাম কোথাও গিয়ে শিক্ষার খুব দরকার। আমি নিজে খুব মন দিয়ে পড়াশোনা করা শুরু করি। বড় হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে শিক্ষামাধ্যমে কিছু করার ইচ্ছা এবং স্বপ্নটাও বড় হতে লাগল। তারপর মাত্র ২৫ বছর বয়সে আমি আরম্ভ করলাম ‘কিট’ এবং ‘কিস’ (কলিঙ্গ ইনস্টিটিউট অব সোশ্যাল সায়েন্সেস)। ভাড়া বাড়িতে খুব কম সংখ্যক ছাত্রছাত্রী নিয়ে আমি এটা শুরু করি। এখন ‘কিট’- এ সারা বিশ্ব থেকে ছাত্রছাত্রী আসে। পশ্চিমবঙ্গ থেকেও অনেকে আসে। আর ‘কিস’ হল গরিব আদিবাসীদের জন্য। ওদের থেকে আমি কোনও টাকা নিই না। ওদের ছোট থেকে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যন্ত পড়াশোনা আমাদের এখানে হয়। এই দুই সংস্থাকে বিশ্বমানের তৈরি করার জন্য আমরা পরের স্টেপগুলো নিলাম।
এখন ৫৩ টা দেশের ছেলেমেয়ে এখানে পড়ে। লন্ডনের ‘অ্যাক্রেডেশান ইনস্টিটিউট অব ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজি ইউ কে’-সেটাও আমরা পেয়েছি।
 ‘কিট’-এর শিক্ষাব্যবস্থা নিয়ে জানতে চাই। কী বিষয় পড়ানো হয় এবং ভবিষ্যতের সুযোগগুলি কী কী?
 তিরিশ হাজার ছেলেমেয়ে আমাদের এই সংস্থায় আছে। এখানে তারা বহু বিষয় পড়ার সুযোগ পায়। তার মধ্যে আছে ইঞ্জিনিয়ারিং, মেডিক্যাল, ডেন্টাল, নার্সিং, ম্যানেজমেন্ট, ল, বায়োটেকনোলোজি, রুরাল ম্যানেজমেন্ট, ফ্যাশন ম্যানেজমেন্ট, মাস কমিউনিকেশন সব কিছু গ্র্যাজুয়েশন পর্যন্ত এখানে পড়ানো হয়। তাছাড়া এখানে স্কুল লেভেলেও শিক্ষা দেওয়া হয় যা সিবিএসসি-র সঙ্গে যুক্ত। ২৫ টা ক্যাম্পাস আছে। বিশ্বমানের নানা সুযোগ এখানে দেওয়া হয়ে থাকে।
 ‘কিস’- নিয়ে যদি কিছু বলেন।
 গরিব আদিবাসী ছেলেমেয়েদের জন্য এটা তৈরি। আমি নিজেই যেহেতু ছোটবেলায় গরিবি দেখেছি তাই আমি জানি একজন ছেলে বা মেয়ে এই দারিদ্র্যের জন্য ঠিক করে শিক্ষা পায় না। ফলে তাদের আর উন্নতি হয় না। তাদের কীভাবে মূলস্রোতে আনা যেতে পারে সেটাই আমার মূল ভাবনা ছিল কারণ একবার তারা শিক্ষিত হলে সমাজে তাদের অবস্থার উন্নতি হবে। তারা নিজে রোজগার করে পরিবারকে সাহায্য করতে পারবে এবং তাদের সন্তানদের আর তাদের মতো অসুবিধার মধ্যে পড়তে হবে না। এটা খুব বড় সাফল্য আমার কাছে। এখান থেকে কুড়ি হাজার ছেলে মেয়ে পাশ করে গিয়েছে। আরও তিরিশ হাজার ছেলে মেয়ে এখানে আছে এখন। পড়ছে তারা। এখান থেকে স্পোর্টস এবং অ্যাথলেটিক্সে অনেক ছেলে মেয়ে সুযোগ পায়, তাদের মধ্যে অনেকেই আজ দেশের হয়ে খেলছে, ভারতকে ট্রফি এনে দিচ্ছে।
 ওড়িশার শিক্ষাব্যবস্থার ক্ষেত্রে তার উন্নতি, ভবিষ্যতে এই শিক্ষাব্যবস্থা কোন জায়গায় যেতে পারে এবং সেক্ষেত্রে আপনি কীভাবে সেই যাত্রার অংশ হয়ে উঠবেন বলে মনে করেন?
 ওড়িশার শিক্ষা ব্যবস্থা বেশ ভালো এবং তা ভবিষ্যতে আরও ভালো হবে। এমনিতেই ওড়িশাকে ‘এডুকেশনাল হাব অব ইস্টার্ন জোন’- বলা হচ্ছে। ওখানে এখন আমাদের মুখ্যমন্ত্রী নবীন পট্টনায়কের নেতৃত্বে ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট খুলেছে। তাই বলব ওড়িশার আগামীদিনের এডুকেশন সিনারিও খুব আশাব্যাঞ্জক।
 রাজনৈতিক সক্রিয়তার পাশাপাশি একজন বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ আপনি। এই দুটি দিক আপনি একসঙ্গে সামলান কীভাবে?
 সমস্যা হয় না খুব একটা। কারণ আমি সোশ্যাল ওয়ার্কার এবং শিক্ষাবিদ হিসেবে প্রায় তিরিশ বছর ধরে কাজ করছি। আর তাই আমার কাছে এই কাজটা খুব ভালোবাসার জায়গায় আছে এবং প্রায় জীবনের একটা অংশ হয়ে উঠেছে। এর মাঝেই নানা লোকের সঙ্গে দেখা করা-মেলামেশা-কথা চলছিল। এখন রাজনীতিতে এসে ওই লোকেদের সঙ্গেই কাজ করব আমি। শুধু আরও বড় করে এবং ভালোভাবে কাজটা করতে পারব।
 একটা শিক্ষা সংস্থার আদর্শ পরিবেশ কেমন হওয়া উচিত বলে আপনার মনে হয়?
 একটা শিক্ষানিকেতনকে ‘ছাত্র-বান্ধব’ হতে হবে। তারপর ‘কর্মচারী-বান্ধব’ হতে হবে এবং শেষ কিন্তু সবথেকে বড় বিষয় যেটা সেটা হল শিক্ষাগত মান বজায় রাখতে হবে। ছাত্র ছাত্রীদের কোনওরকম সমস্যা হলে সেটা জানতে হবে এবং সেটাকে সমাধানের চেষ্টা করতে হবে। অভিভাবকদের সঙ্গেও সংযোগ রাখতে হবে। ছাত্র ছাত্রীরাই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সম্পদ, তাদের ঘিরেই সব, তাই তাদের কথা মাথায় রেখে সংস্থাকে এগতে হবে। আমাদের সংস্থায় যেমন আছে টিউটর-মেন্টর প্রোগ্রাম। যেখানে ২০-২৫ জন ছাত্রছাত্রীকে নিয়ে একজন শিক্ষক শিক্ষাদান করেন। সবার সমস্যা আলাদা করে শোনা এবং তা সমাধান করাই এখানে আসল বিষয়।
 বর্তমানে অনলাইন বা ডিজিটাল এডুকেশন মানুষের কাছে ধীরে ধীরে গ্রহণযোগ্য হয়ে উঠছে। এই ব্যবস্থা নিয়ে আপনার কী মত? কতটা গ্রহণযোগ্য এই শিক্ষা?
 এটা নির্ভর করে কে কোন শিক্ষা দিচ্ছে তার উপর এবং কে কীভাবে দিচ্ছে তার ওপর। প্র্যাক্টিকাল বিষয় যাতে থাকে সেটা অনলাইনে পুরোটা করা সম্ভব নয়। এবার দেখতে হবে রেগুলার ক্লাস যে করছে আর অনলাইন ক্লাস যে করছে তাদের
মধ্যে কে বেশি সেলেবেল। যে বেশি সেলেবেল তার কেরিয়ারে সুযোগ বেশি কিংবা সে বেশি ভালো চাকরি পাবে।
তুলনায় শিক্ষার হার বাড়লেও এখন চাকরি কম। অনেকেই পড়াশোনা করছে কিন্তু চাকরি পাচ্ছে না। তাদের আপনি কী বলবেন?
 এখন আগের থেকে চাকরির অবস্থা যেমন অন্যরকম হয়েছে ঠিক সেভাবে মার্কেটে অনেক নতুন রকম চাকরি তৈরি হয়েছে। এখন অনেক বিষয় নিয়ে পড়ার সুবিধা আছে। আমাদের সময় সেসব কিছুই ছিল না। এখন স্কোপ অনেক বেশি। ছাত্র ছাত্রীদের কাজের ইন্টারেস্ট কোথায়, যোগ্যতা কী সেসব দেখে সঠিক কেরিয়ার বেছে নিতে হবে। তারপর সেই লাইনে কীভাবে এগিয়ে যাওয়া যায় সেটাই দেখতে হবে।
 সাম্প্রতিক যুব সম্প্রদায়কে একজন শিক্ষাবিদ হিসেবে কী বলবেন?
 ওদের এটাই বলব যে তোমাদের কাছে এখন সুবিধা অনেক। অনেক কিছুই আছে যেমন কম্পিউটার কিংবা ইন্টারনেট যেগুলো আগে ছিল না। আমাদের সময় কেবল ছিল ক্লাসরুম টিচিং ব্যস আর কিছুই নয়।
এখন অনেক স্কোপ আছে ছাত্র ছাত্রীদের। তার সঠিক ব্যবহার করা উচিত। যার যাতে ইন্টারেস্ট সেটাই পড়ো। মনে রেখো সব লাইনেই স্কোপ আছে। শুধু চাই এগিয়ে চলার ইচ্ছা আর কঠোর পরিশ্রম করার শক্তি।
কৌশানী মিত্র
26th  August, 2019
সাইকোলজিক্যাল কাউন্সেলিং অ্যান্ড ফ্যামিলি থেরাপি পোস্ট গ্র্যাজুয়েট কোর্স 

গাইডেন্স সাইকোলজিক্যাল কাউন্সিলিং অ্যান্ড ফ্যামিলি থেরাপি’র উপর এক বছরের পোস্ট গ্র্যাজুয়েট কোর্স করানো হবে। সান্ধ্যকালীন এই কোর্সে ভর্তির জন্য স্নাতক হতে হবে। বয়সের কোন উচ্চসীমা নেই। 
বিশদ

09th  December, 2019
মেডিক্যালে সর্বভারতীয় প্রবেশিকা পরীক্ষা 

এনটিএ আয়োজিত আন্ডার গ্র্যাজুয়েট মেডিক্যাল কোর্সে ভর্তির ন্যাশনাল এলিজিবিলিটি কাম এন্ট্রান্স টেস্ট পরীক্ষায় বসার আবেদন করার বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ হয়েছে। পরীক্ষা নেওয়া হবে ৩ মে ২০২০। এ বছর ১১টি ভাষায় পরীক্ষা দেওয়া যাবে। পরীক্ষাটিতে বসার জন্য প্রার্থীর বয়স ১৭ বছর থেকে ২৫ বছরের মধ্যে হতে হবে। 
বিশদ

09th  December, 2019
জেক্সপো এবং ভিওসিএলইটি ২০২০ 

পলিটেকনিক কলেজগুলিতে কারিগরি শিক্ষা নেওয়ার জন্য প্রবেশিকা পরীক্ষা জেক্সপো এবং কারিগরি শিক্ষার দ্বিতীয় বছরে ভর্তির জন্য আয়োজিত পরীক্ষা ভিওসিএলইটি নেওয়া হবে ২০২০ সালের ২৬ এপ্রিল। আবেদন করার জন্য ওএমআর আবেদনপত্র পাওয়া যাবে ২ জানুয়ারি থেকে ১৬ মার্চ ২০২০ তারিখ পর্যন্ত।  বিশদ

09th  December, 2019
যোগায় স্নাতকোত্তর ডিপ্লোমা কোর্স 

ইদানীং চলতি ধারার বাইরে গিয়ে অন্য ধরনের পড়াশোনা করেও নিজের কেরিয়ার তৈরি করা যায়। গতানুগতিক পদ্ধতির বাইরে গিয়ে যাঁরা পড়াশোনা করতে চান, তাঁদের জন্যই মূলত এই ধরনের কোর্স তৈরি হচ্ছে। যাঁরা শরীর নিয়ে সচেতন বা নিয়মিত ব্যায়াম চর্চা করেন তাঁরা যোগা নিয়ে স্পেশালাইজড কোর্স করতে পারেন। 
বিশদ

09th  December, 2019
আদিবাসী পড়ুয়াদের জন্য নতুন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান 

কৌশানী মিত্র: কলিঙ্গ ইনস্টিটিউট অফ ইন্ডাস্ট্রিয়াল টেকনোলজি - র প্রতিষ্ঠাতা প্রফেসর অচ্যুত সামন্ত সম্প্রতি গিয়েছিলেন ‘কৌন বনেগা ক্রোড়পতি’- তে। সেখানে ছিল বিশেষ ‘কর্মবীর’ পর্ব। একদম দরিদ্র অবস্থা থেকে উঠে এসে আজ ‘কিট’এবং ‘কিস’ এর মতো দুটি বড় ইনস্টিটিউশন তৈরি করেছিলেন তিনি নিজের হাতে। 
বিশদ

09th  December, 2019
বৃত্তি পাওয়ার সুলুক সন্ধান

শৌণক সুর: দেশে শিক্ষার হার বাড়াতে উদ্যোগী হয়েছে কেন্দ্র ও রাজ্য সরকার। কেন্দ্রের বেটি বাঁচাও, বেটি পড়াও স্কিমের পাশাপাশি পশ্চিমবঙ্গে কন্যাশ্রী প্রকল্প রয়েছে, যা ইতিমধ্যেই বিদেশে সমাদৃত। ছেলেদেরও যুবশ্রী নামের উৎসাহ ভাতা দেওয়ার ফলে পড়াশোনা করে জীবনে এগিয়ে যাওয়ার পথ সুগম হয়েছে। 
বিশদ

09th  December, 2019
জীবিকা যখন রুপোলি জগৎ 
শৌণক সুর

সময় দ্রুত পরিবর্তন হচ্ছে। বাড়িতে বাড়িতে টেলিফোনের ঘড়াং ঘড়াং শব্দ শুনতে পাওয়া ভার। তার জায়গায় এসেছে মুঠোফোন। সপ্তাহান্তে একদিন টেলিভিশনের সামনে বসে সিনেমা দেখার জন্য হাপিত্যেশ করে থাকার দিনও শেষ। কারণ টেলিভিশনের গণ্ডি পেরিয়ে এবার মোবাইলে ঢুকে পড়েছে বিনোদন জগৎ। 
বিশদ

02nd  December, 2019

আকর্ষণীয় পেশা ইন্টিরিয়ার ডিজাইনিং 
বর্ণালী ঘোষ

ইন্টিরিয়ার ডিজাইনিং আমাদের প্রয়োজন হয় মূলত কোনও ঘরের ফাঁকা জায়গা এবং কাজের জায়গার সঠিকভাবে ব্যবহারের জন্য। এর সঙ্গে যুক্ত রয়েছে সুন্দর দেখার ব্যাপারটি। এছাড়া রয়েছে আরাম এবং সঠিক মূল্যের আসবাবপত্রের ব্যবহার। এই পুরো ব্যবস্থার পরিকল্পনা করে দেন ইন্টিরিয়ার ডিজাইনার। 
বিশদ

02nd  December, 2019
যাদবপুর থেকে সার্টিফিকেট ও ডিপ্লোমা কোর্স 

যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের স্কুল অব ল্যাঙ্গুয়েজ অ্যান্ড লিঙ্গুইস্টিক থেকে এক বছরের বিভিন্ন কোর্স করা যাচ্ছে। সেগুলি হল— সার্টিফিকেট, ডিপ্লোমা, অ্যাডভান্সড ডিপ্লোমা-১ এবং অ্যাডভান্সড ডিপ্লোমা–২। সপ্তাহে দু’দিন বিকাল ৫টা থেকে রাত্রি ৮টা পর্যন্ত ক্লাস হবে। 
বিশদ

02nd  December, 2019
এবার এম-স্কলারের ৬০ শতাংশই বাংলার 

চলতি বছরের জন্য ১০০ জন স্কলারশিপ (এম-স্কলার) প্রাপকের নাম ঘোষণা করল মুম্বই ভিত্তিক সংস্থা ম্যাগমা ফিনকর্প। এই ১০০ জনের মধ্যে ৬০জনই পশ্চিমবঙ্গের বাসিন্দা। সংস্থার সিএসআর বিভাগের প্রধান কৌশিক সিনহা বললেন, পাঁচ বছর আগে আমরা যখন এই এম-স্কলার চালু করেছিলাম, তখন কেমন সাড়া পাব তাই নিয়ে চিন্তায় ছিলাম।  
বিশদ

02nd  December, 2019
মাকাউট-এর অফ ক্যাম্পাস 

মৌলানা আবুল কালাম আজাদ ইউনিভার্সিটি অব টেকনোলজি (মাকাউট) তাদের প্রথম ‘অফ ক্যাম্পাস’ শিক্ষাকেন্দ্র চালু করল কলকাতার অ্যানেক্স কলেজ অব ম্যানেজমেন্ট স্টাডিজে। উদ্বোধন করেন মাকাউট-এর উপাচার্য সৈকত মৈত্র। পরে পেশাদারি শিক্ষায় উঠে আসা নানা দৃষ্টান্ত নিয়ে একটি আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়।  
বিশদ

02nd  December, 2019
বিগ ডেটার সাতসতেরা 

শৌণক সুর: একটা সময় ছিল যখন আমরা সবকিছুই খাতায়, ডায়েরিতে লিখে রাখতাম। দরকারি কাজ, মিটিং, কেনাকাটা-বাজারের লিস্ট, এমনকী মাসকাবারি বিলের বাকি হিসেবও। স্যারের কাছে পড়ার সময়ও খাতা বার করে খসখস করে নোটস নেওয়া ছিল আমাদের অভ্যাস।  বিশদ

25th  November, 2019
জীবনের সঙ্গে জীবিকার চাহিদা মেটায় সংস্কৃত 

লোকনাথ চক্রবর্তী: যা সংস্কার করা হয়েছে তাই সংস্কৃত— এমন অর্থ ধরলে তথাকথিত দেশ ও কালের গতানুগতিক সংকীর্ণতাকে অতিক্রম করে পরিধি প্রশস্ত হয়ে ওঠে সংস্কৃতের। 
বিশদ

25th  November, 2019
সবজান্তা 

 বাংলা অনার্স নিয়ে দ্বিতীয় বর্ষে পড়ছি। স্টেনোগ্রাফি জানি কোনও চাকরির খবর দিলে উপকৃত হব।
—পিয়ালি ঘোষ, চণ্ডীতলা, হুগলি
 বাংলাতে অনার্সের সঙ্গে স্টেনোগ্রাফি জানলে আজকাল চাকরির ক্ষেত্রে বিশেষ কোনও দিক খুলে যায় এমনটা কিন্তু নয়। আগে সাংবাদিকতার ক্ষেত্রে বা অফিস সেক্রেটারিশিপ-এর মতো চাকরির জন্য এই ধরনের মেলবন্ধন অনেক ক্ষেত্রে এগিয়ে দিত। 
বিশদ

24th  November, 2019
একনজরে
ওয়েলিংটন, ৯ ডিসেম্বর (এএফপি): ছবির মতো সুন্দর হোয়াইট আইল্যান্ড। ভ্রমণের আনন্দে মশগুল পর্যটকের দল। ভরদুপুরে হঠাৎ করে জেগে উঠল আগ্নেয়গিরি। সোমবার নিউজিল্যান্ডের এই ঘটনায় মৃত্যু হল অন্তত পাঁচজনের। জখম ১৮ জন। সরকারি সূত্রে খবর, আটকে পড়েছেন বহু পর্যটক। তাঁদের উদ্ধারের ...

জম্মু, ৯ ডিসেম্বর (পিটিআই): কয়েকদিন বন্ধ থাকার পর ফের সংঘর্ষবিরতি চুক্তি লঙ্ঘন করে গুলি চালাল পাক সেনা। সোমবার ভোর পৌনে চারটে নাগাদ জম্মু ও কাশ্মীরের পুঞ্চ সেক্টরে ভারতীয় সেনার চৌকি লক্ষ্য করে তারা গুলি চালায়। ...

সংবাদদাতা, রামপুরহাট: অজ্ঞাতপরিচয় এক সাধুর মৃত্যু হল রামপুরহাট মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। রবিবার রাতে তারাপীঠের শ্মশান থেকে অসুস্থ ওই সাধুকে উদ্ধার করে রামপুরহাট মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসে তারাপীঠ থানার পুলিস। সেখানে চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।   ...

সংবাদদাতা, পুরাতন মালদহ: ডেঙ্গু নিয়ে আতঙ্ক ছড়িয়েছে চাঁচলে। এই সপ্তাহেই চাঁচলের খরবা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে। কলকাতার একটি নার্সিংহোমে চিকিৎসা চলাকালীন মৃত্যু হয় তাঁর।  ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
aries

কর্মপ্রার্থীদের ক্ষেত্রে শুভ। সরকারি ক্ষেত্রে কর্মলাভের সম্ভাবনা। প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় সাফল্য আসবে। প্রেম-ভালোবাসায় মানসিক অস্থিরতা থাকবে। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

বিশ্ব মানবাধিকার দিবস,
১৮৭০- ঐতিহাসিক যদুনাথ সরকারের জন্ম,
১৮৮৮- শহিদ প্রফুল্ল চাকীর জন্ম,
২০০১- অভিনেতা অশোককুমারের মৃত্যু  





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.৪৪ টাকা ৭২.১৪ টাকা
পাউন্ড ৯২.০৭ টাকা ৯৫.৩৭ টাকা
ইউরো ৭৭.৩৪ টাকা ৮০.২৯ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৮,২৮৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬,৩২৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৬,৮৭০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৩,৫০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৩,৬০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১০ ডিসেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার, ত্রয়োদশী ১১/২৬ দিবা ১০/৪৪। কৃত্তিকা ৫৯/২৯ শেষ রাত্রি ৫/৫৭। সূ উ ৬/৯/৩১, অ ৪/৪৮/৪৩, অমৃতযোগ দিবা ৬/৫২ মধ্যে পুনঃ ৭/৩৫ গতে ১১/৮ মধ্যে। রাত্রি ৭/২৯ গতে ৮/২২ মধ্যে পুনঃ ৯/১৬ গতে ১১/৫৬ মধ্যে পুনঃ ১/৪৩ গতে ৩/৩০ মধ্যে পুনঃ ৫/১৭ গতে উদয়াবধি, বারবেলা ৭/২৮ গতে ৮/৪৮ মধ্যে পুনঃ ১২/৪৮ গতে ২/৮ মধ্যে, কালরাত্রি ৬/২৮ গতে ৮/৮ মধ্যে। 
২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১০ ডিসেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার, ত্রয়োদশী ১০/২/৪৮ দিবা ১০/১২/৫। কৃত্তিকা ৬০/০/০ অহোরাত্র, সূ উ ৬/১০/৫৮, অ ৪/৪৯/১৩, অমৃতযোগ দিবা ৭/৩ মধ্যে ও ৭/৪৫ গতে ১১/৬ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/৩৫ গতে ৮/২৯ মধ্যে ও ৯/২৩ গতে ১২/৪ মধ্যে ও ১/৫২ গতে ৩/৩৯ মধ্যে ও ৫/২৭ গতে ৬/১২ মধ্যে, কালবেলা ১২/৪৯/৫৩ গতে ২/৯/৩৯ মধ্যে, কালরাত্রি ৬/২৯/২৬ গতে ৮/৯/৩৯ মধ্যে।
 
মোসলেম: ১২ রবিয়স সানি 

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
২৪৮ পয়েন্ট পড়ল সেনসেক্স 

04:02:02 PM

আইলিগ: ইস্ট বেঙ্গল ৪-১ গোলে হারাল নেরোকাকে 

04:01:36 PM

২৫০ পয়েন্ট পড়ল সেনসেক্স 

03:36:09 PM

গৌড়বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ে রেজিস্ট্রারকে হেনস্তার অভিযোগ 
গৌড়বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার বিপ্লব গিরিকে হেনস্তার অভিযোগ উঠল। আজ, মঙ্গলবার ...বিশদ

03:30:27 PM

দক্ষিণদাঁড়িতে আগ্নেয়াস্ত্র সহ ধৃত ৩ দুষ্কৃতী

03:30:00 PM

আজ থেকে ৬ দিন বন্ধ মোবাইল নম্বর পোর্টেবিলিটি পরিষেবা 
আজ, মঙ্গলবার থেকে আগামী রবিবার পর্যন্ত দেশজুড়ে বন্ধ থাকবে মোবাইল ...বিশদ

03:22:06 PM