Bartaman Patrika
বিজ্ঞান-প্রযুক্তি
 

বদলে গেল কিলোগ্রাম বুঝে নিন নতুন ওজন

সৌম্য নিয়োগী: ২০ মে, ২০১৯। বিজ্ঞানের ইতিহাসে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ দিন। কারণ, গত ১৩০ বছর ধরে প্রচলিত ওজনের একক কিলোগ্রামের (কেজি) সংজ্ঞা বদল কার্যকর হয়েছে এই দিন থেকে। ২০১৮ সালের নভেম্বর মাসে ফ্রান্সের ভার্সাইতে ওজন ও পরিমাপ বিষয়ক এক সম্মেলনে বিজ্ঞানীরা কিলোগ্রামের সংজ্ঞা পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। ২০ মে বিশ্ব পরিমাপ বিজ্ঞান দিবসে (ওয়ার্ল্ড মেট্রোলজি ডে) এই নতুন সংজ্ঞা কার্যকর হল। ১৮৭৫ সালে এই দিনেই ১৭টি দেশের প্রতিনিধিরা ওজন ও পরিমাপ সংক্রান্ত একক চালুর লক্ষ্যে ‘মিটার কনভেনশেন’ স্বাক্ষর করেছিলেন। এ বছর সেই দিনে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেটস ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজির হান্টিংটন হলে কিলোগ্রাম, অ্যাম্পিয়ার (বিদ্যুৎ পরিমাপক একক), কেলভিন (তাপ পরিমাপক একক), মোল (পদার্থ পরিমাপক একক) ইত্যাদি এককের নতুন সংজ্ঞা দিয়েছেন নোবেলজয়ী পদার্থবিদ উলফগ্যাং কেটের্লে। সমস্ত এসআই এককগুলির (ইন্টারন্যাশনাল সিস্টেম অব ইউনিট) সংজ্ঞা আরও নিখুঁত করে তুলেছেন বিজ্ঞানীরা। আগামীদিনে পাঠ্যবইতে সেই সংজ্ঞাই আমাদের পড়তে হবে।
ভর ও ওজনের পার্থক্য
কিলোগ্রামের সংজ্ঞা বদল সম্পর্কে জানতে গেলে আমাদের প্রথমেই যে বিষয়টি মাথায় রাখা প্রয়োজন, তা হল ভর ও ওজনের পার্থক্য। দৈনন্দিন জীবনে কিন্তু আমরা ওজন বলতে ভরকেই বোঝাই। আসলে প্রত্যেক বস্তু পদার্থ দ্বারা গঠিত। ভর হল কোনও বস্তুতে থাকা সেই পদার্থের পরিমাণ। কোনও বস্তুর ভর বস্তুর অবস্থান, আকৃতি বা গতি পরিবর্তনের জন্য পরিবর্তিত হয় না। ভরের আন্তর্জাতিক একক হল কিলোগ্রাম (কেজি)। এর মানে, যখন আমরা বলি কোনও জিনিসের ওজন ৮০ কেজি, তা আসলে সেই জিনিসের ভর।
আর কোনও বস্তুকে পৃথিবী যে বল দ্বারা নিজের কেন্দ্রের দিকে আকর্ষণ করে, তাকে ওই বস্তুর ওজন বলে। পদার্থবিজ্ঞানের ভাষায় বললে, কোনও বস্তুর ভর m এবং পৃথিবীর কোনও স্থানে অভিকর্ষজ ত্বরণ g হলে, ওই স্থানে বস্তুটির ওজন W হবে, W = mg। ওজন একটি বল হওয়ায় বলের একক নিউটনই ওজনের একক। ভর ও ওজন সমানুপাতিক, মানে বস্তুর ভর বেশি হলে ওজনও বেশি হয়। এসআই-এর অনুসারে এক কেজি হল ১৩০ বছরের পুরনো প্লাটিনাম-ইরিডিয়ামের একটি নির্দিষ্ট সিলিন্ডারের ভর। এই সবটাই আমরা পাঠ্যবইতে পড়ে থাকি। কিন্তু বাস্তব জীবনে অনেকেই বিষয়টি মাথায় রাখি না।
এতদিন কিলোগ্রাম যেভাবে
নির্ণয় হতো
কাচের একটা জার, তার ভেতর আর একটু ছোট জার, তারও ভেতর আরও খানিকটা ছোট জার এবং তার ভেতর ধাতব একটা ‘পি’। ফ্রান্সের সেভারে ‘ইন্টারন্যাশনাল বুরো অফ ওয়েটস অ্যান্ড মেজার্স’ এর ভল্টে রাখা আছে এই ইন্টারন্যাশনাল প্রোটোটাইপ কিলোগ্রাম বা ‘আইপিকে’। যা আসল কেজি বা ভর মাপার একক। ফ্রান্সে একে ‘ল্য গ্রঁদ কে’ বলা হয়।
পৃথিবীর সব জায়গায় মাপজোকের এই সমতা আদতে ফরাসি বিপ্লবের অবদান। রক্তক্ষয়ী ওই অভ্যুত্থানের আশীর্বাদ মেট্রিক মাপ-জোক। প্লাটিনামের তৈরি একটা দণ্ড হল মিটার, আর একটা পিণ্ড হল কিলোগ্রাম। ১৭৯৯ সালে কিলোগ্রামের ‘পি’-টা ছিল কেবল প্লাটিনামের। ৯০ বছর পরে যখন তৈরি হল আইফেল টাওয়ার, তার পরে মাপ-জোক বিজ্ঞানীদের প্রথম সম্মেলনে এল নতুন কিলোগ্রাম। ফরাসি বিপ্লবের পর ১৮৮৯ সালে তা পাল্টে প্লাটিনাম-ইরিডিয়াম সঙ্কর ধাতু দিয়ে গড়া হয়। লন্ডনে তৈরির পরে প্লাটিনাম-ইরিডিয়ামের ওই সিলিন্ডার পাঠানো হয় প্যারিসে। দেশে দেশে যার অনুকরণে তৈরি হয়েছে অনুরূপ বাটখারা। ভারতেও দিল্লিতে ‘ন্যাশনাল ফিজিক্যাল ল্যাবরেটরি’-তে রাখা আছে ‘ল্য গ্রঁদ কে’-র প্রতিলিপি। যার নকল বাটখারা রয়েছে দেশের বাজারে।
গত বছর ১৬ নভেম্বর ফ্রান্সেরই ভার্সাইয়ের সম্মেলনে পরিমাপ-বিজ্ঞানীদের ভোটাভুটিতে সেই মর্যাদা হারিয়েছে প্লাটিনাম-ইরিডিয়ামের ধাতব টুকরোটা। ঐতিহাসিক এই ভোটে ৬০ সদস্য রাষ্ট্রের প্রতিনিধিরা অংশ নেন। তবে কিলোগ্রামের ধারণাতেই কেবল বদল এসেছে। পরিমাণে বা বাটখারায় কোনও বদল হয়নি। নতুন কিলোগ্রাম এখন ‘প্রাকৃতিক মাপকাঠি’তে মাপা হবে। কারণ, ভর তো পরিবর্তন হয় না।
কেন এই পরিবর্তন
‘ল্য গ্রঁদ কে’ পি-টা যেন কোনওভাবে ধুলোবালির সংস্পর্শে না আসে, সে জন্য সেটিকে ওরকম ত্রিস্তরীয় জারে পুরে রাখা হতো। এমন সাবধানে তাকে নাড়াচাড়া করতে হয় যে, রক্ষণাবেক্ষণ যাঁরা করেন, এর সামনে তাঁদের হাঁচি-কাশিও বারণ। কয়েক দশক অন্তর সেটিকে বাইরে এনে পরীক্ষা করে দেখা হতো। কিন্তু দীর্ঘদিনের ব্যবধানে দেখা গেছে কিছুটা ভর হারিয়েছে ধাতব সিলিন্ডারটা। ক্ষয়ে যাচ্ছে সেটি। পদার্থবিদরা বলছেন, প্লাটিনামের ওজন সবসময় এক থাকে না। নানা কারণে একটি ওজন পরিবর্তিত হয়। যদিও এই পরিবর্তন খুবই সূক্ষ্ম। তা হলে উপায়?
কৃত্রিম থেকে ফের প্রাকৃতিক মানদণ্ড
অন্যান্য মেট্রিক এককের মতো কিলোগ্রাম কিন্তু আগে প্রাকৃতিক মানদণ্ডেই মাপা হতো। হিমাঙ্কে (শূন্য ডিগ্রি সেলসিয়াস) এক লিটার বিশুদ্ধ জলের ভরকে বলা হতো এক কিলোগ্রাম। মিটারও ছিল প্রাকৃতিক একটা মানদণ্ড। এরপর কৃত্রিম মাপকাঠি ‘ল্য গ্রঁদ কে’-ই কিলোগ্রামের মাপকাঠি ধরা। এখন আবার তা বদলে প্রাকৃতিক মাপকাঠিতেই ফিরল বিশ্ব। বিজ্ঞানীরা দীর্ঘদিন ধরে এই সমাধানের কথা ভেবেছেন। প্রকৃতি নিখুঁত, তাই তার সাহায্যে মাপজোক হবে ত্রুটিহীন। মাপ তো শুধু ওজনের নয়, দৈর্ঘ্যের, সময়ের, আরও নানা বিষয়ের। যেমন মিটার। আলো শূন্যস্থানের মধ্যে দিয়ে দৌড়য় এক সেকেন্ডে ২৯৯,৭৯২,৪৫৮ মিটার। তা হলে মিটারের মাপও হবে আলো এক সেকেন্ডের ২৯৯,৭৯২,৪৫৮ ভাগের এক ভাগে যতটা দৌড়য়, ততটা।
নতুন মাপকাঠি কী
পদার্থ বিজ্ঞানের সূত্রের সাথে সামঞ্জস্য রাখতে কিলোগ্রামের সংজ্ঞা বদল করা হচ্ছে। বিজ্ঞানীরা বলছেন, তড়িৎ–চুম্বক শক্তির মাধ্যমে কোনও বস্তুকে ওঠানো বা নামানো যায়। কাজেই ওজনের সঙ্গে বিদ্যুতের সরাসরি সম্পর্ক রয়েছে। প্রয়াত নোবেলজয়ী জার্মান পদার্থবিজ্ঞানী মাক্স প্ল্যাঙ্কের নামাঙ্কিত একটা ধ্রুবক এক্ষেত্রে মূল ভূমিকা রাখছে। প্ল্যাঙ্কের ধ্রুবক (এইচ) মূলত একটা আলোর শক্তি আর কম্পাঙ্কের সম্পর্ককে ব্যাখ্যা করে। এতে ওজন, দূরত্ব ও সময় পরস্পর সম্পর্কিত। এর মান অত্যন্ত ছোট। শূন্য দশমিকের পরে ৩৩টা শূন্য বসিয়ে ৬৬২৬০৭০১৫ বসালে যত হয়, তত কিলোগ্রাম বর্গমিটার/সেকেন্ড। এই যে ধ্রুবকটার ভেতর কিলোগ্রাম রয়েছে, ফলে এখান থেকে কিলোগ্রামের নিখুঁত মাপ পাওয়া যায়। ব্রিটিশ বিজ্ঞানী ব্রায়ান কিবল সুপার অ্যাকুরেট সেট অব স্কেল উদ্ভাবন করে গিয়েছেন। এর মাধ্যমে প্ল্যাঙ্কের ধ্রুবকের মান অত্যন্ত নিখুঁত ভাবে পরিমাপ করা সম্ভব। এখানে ভুলের সম্ভাবনা দশ কোটি ভাগের এক ভাগ। তবে এর পিছনে আইনস্টাইনের শক্তি ও ভরের নিত্যতা সূত্রের (E=mc2) অবদান অনস্বীকার্য।
নোবেল জয়ী পদার্থবিদ কেটের্লে গণনা করে দেখিয়েছেন, নির্দিষ্ট কিছু সংখ্যক ফোটন কণার ভর এক কিলোগ্রামের সমান বলা যায়। অতএব এর মাধ্যমে সংজ্ঞা তৈরি হলে তা নিখুঁত হবে। কেটের্লের গণনায় দেখা গিয়েছে, সিজিয়াম পরমাণুর একটি নির্দিষ্ট তরঙ্গদৈর্ঘ্যের ১.৪৭৫৫২১৪ X ১০৪০ – এতগুলি ফোটনের ভর এক কিলোগ্রাম। সাধারণের দৈনন্দিন ওজন মাপামাপিতে পরিবর্তন না এলেও এর ফলে ওষুধ শিল্প, ন্যানো টেকনোলজি ও ধাতব সংমিশ্রণে যুগান্তকারী পরিবর্তন আসবে।
কিবল্ ব্যালেন্স কী
১৯৯০ সালে কিলোগ্রামের নতুন সংজ্ঞা নিয়ে বিতর্ক তুঙ্গে উঠেছিল। একদল বিজ্ঞানী বলেন, সিলিকন পরমাণুর ভর দিয়ে কিলোগ্রামের সংজ্ঞা দেওয়া সম্ভব। তাঁদের মতে, এক কেজি ভরের অতি বিশুদ্ধ সিলিকন-২৮-এর (সিলিকনের এই আইসোটোপটি প্রকৃতিতে সবচেয়ে বেশি পরিমাণে পাওয়া যায়, যার মধ্যে ১৪টি প্রোটন ও ১৪টি নিউট্রন আছে) সাহায্যে ভর পরিমাপ করা সম্ভব। কিন্তু ১৯৯৯ সালে কিবল্‌ ব্যালেন্স (kibble balance) ব্যবহার করে ভর মাপতে সক্ষম হলেন ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব স্ট্যান্ডার্ডস অ্যান্ড টেকনোলজির (এনআইএসটি) দুই বিজ্ঞানী পিটার মোর এবং ব্যারি টেলর।
কিবল্‌ ব্যালেন্স অত্যন্ত জটিল একটি তুলাযন্ত্র। যা তড়িৎ-চুম্বকীয় মাপন পদ্ধতিতে ভরকে অত্যন্ত নিখুঁতভাবে মাপতে পারে! ন্যাশনাল ফিজিক্স ল্যাবরেটরি তথা এনপিএল-এর বিজ্ঞানী ব্রিটিশ পদার্থবিদ ব্রায়ান কিবল্‌ ১৯৮৫ সালে এই অতি সংবেদনশীল যন্ত্রটি তৈরি করেন। তাঁর নামানুসারেই এর নাম কিবল্‌ ব্যালেন্স। ১৯৯৯ সালে এনপিএল এবং এনআইএসটি-র বিজ্ঞানীরা কিবল্‌ তুলাযন্ত্র ব্যবহার করে প্লাঙ্কের ধ্রুবকের মান নিখুঁত ভাবে মাপতে উঠে পড়ে লাগলেন এবং সেই কাজে সক্ষম হলেন।
কে কী বলছেন
আন্তর্জাতিক ভর ও পরিমাপ সংস্থার প্রাক্তন প্রধান টেরি কুইন বলেছেন, সম্ভবত পাঁচ হাজার বছর আগের মেসোপটেমিয়া সভ্যতা থেকে এক পাল্লায় একটা বাটখারা আর অপর পাল্লায় পণ্য রেখে মাপজোক করে আসছে। এ বছর থেকে এটা বদলে যাচ্ছে। আমি মনে করি, এটা অসাধাণ একটা ঘটনা। কিলোগ্রামের নতুন সংজ্ঞা প্রসঙ্গে নোবেলজয়ী বিজ্ঞানী উইলিয়াম ফিলিপস বলেছেন, ফরাসি বিপ্লবের পরে পরিমাপের জগতে এত বড় বিপ্লব আর হয়নি। ভাটনগর পুরস্কার জয়ী পদার্থবিদ অমিতাভ রায়চৌধুরী বলেন, ভরের একক হিসেবে আন্তর্জাতিক স্তরেই কিলোগ্রামকে গণ্য করা হয়। কিন্তু এক কিলোগ্রাম এখন যে ভাবে পরিমাপ করা হয়, তাতে পরিবর্তন আনা হয়েছে। অতি সূক্ষ্ম গবেষণার ক্ষেত্রে তার কিছু প্রভাব থাকবে। দৈনন্দিন জীবনে প্রভাব পড়বে না। তবে এই নিয়ে সবচেয়ে বুদ্ধিদীপ্ত মন্তব্যটি সম্ভবত করেছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলোজির বিজ্ঞানী স্টিফেন স্খলামিঙ্গার। তিনি বলেছেন, ‘ধরুন যদি কোনওদিন কোনও বুদ্ধিমান ভিনগ্রহের প্রাণীর সঙ্গে আমাদের যোগাযোগ হয়, আর যদি ওরা আমাদের জিজ্ঞেস করে যে আমরা জিনিসপত্র কীভাবে মাপি? উত্তরে আমরা যদি বলি, আমাদের হাতে তৈরি জিনিসের তুলনায় মাপামাপি করি, তা হলে ওরা আমাদের বোকা বলে ধরে নেবে। এত দিনে আমরা চালাক হলাম।’
কিলোগ্রামের সংজ্ঞা বদল হওয়ার বড় প্রভাব পড়বে পড়ুয়াদের উপর, এমনটাই মনে করছেন ইন্ডিয়ান স্ট্যাটিস্টিক্যাল ইনস্টিটিউটের অধ্যাপক শুভময় মৈত্র। তিনি বলেন, সিবিএসই-আইসিএসই বোর্ড হয়তো এই শিক্ষাবর্ষে, না হলে পরবর্তী শিক্ষাবর্ষ থেকে কিলোগ্রামের সংজ্ঞায় বদল এনে ফেলবে। কিন্তু, তার বাইরে দেশের বাকি বোর্ডগুলিকেও দ্রুত এই নতুন সংজ্ঞাকে পাঠক্রমে ঢোকাতে হবে। না হলে, পিছিয়ে পড়বে পড়ুয়ারা। বিষয়টি নিয়ে ভাবনা চিন্তা করছে রাজ্য শিক্ষা দপ্তরও।
কলকাতার প্রথম সারির দাঁড়িপাল্লা, বাটখারার দোকান উমাচরণ কর্মকার অ্যান্ড সন্স। সংস্থার মালিক সজল কর্মকার বলেন, এ নিয়ে ‘ওয়েটস অ্যান্ড মেজার্স’-এর থেকে আমরা কোনও নির্দেশিকা পাইনি। তা পেলে তবেই বুঝতে পারব, আমাদের কী করণীয়। আপাতত যেমন চলছিল, তেমনই চলবে।
বদলাতে চলেছে সময়ের এককও
সময়ের একক সেকেন্ডের সংজ্ঞা বদলেরও সময় এসে গিয়েছে। বর্তমানে সেকেন্ড মাপা হয় সিজিয়াম পরমাণু দিয়ে তৈরি ঘড়িতে। সিজিয়ামের পরমাণু নির্দিষ্ট কম্পাঙ্কের আলো শুষে নিয়ে নির্দিষ্ট সময় অন্তর তা তড়িৎ-চুম্বকীয় তরঙ্গ আকারে ছেড়ে দেয়। ঠিক যেমন আদর্শ অবস্থায় একটি পেন্ডুলাম নির্দিষ্ট সময় অন্তর বিশেষ একটি স্থানে পৌঁছায়। সিজিয়ামের ঘড়িতে আলোর ৯১৯,২৬,৩১,৭৭০ বার স্পন্দন বা দোলনকালকে এক সেকেন্ড ধরা হয়। কিন্তু পরবর্তী কালে তৈরি হওয়া ‘অপটিক্যাল অ্যাটমিক ক্লক’ অনেক বেশি নিখুঁত সময় দিচ্ছে।
কলোরাডোর বোল্ডারের ‘ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব স্ট্যান্ডার্ডস অ্যান্ড টেকনোলজি’-র পদার্থবিদ অ্যান্ড্রু লাডলো জানিয়েছেন, এই ঘড়িতে কম্পাঙ্ক অনেক বেশি। ফলে ঘড়ির প্রতিটি ‘টিক’ অনেক কাছাকাছি। ফলে এই ঘড়িতে সিজিয়াম ঘড়ির চেয়ে ১০০ গুণ বেশি নিখুঁত ভাবে এক সেকেন্ডকে মাপা যাচ্ছে। তবে এই বদলের আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি মিলতে মিলতে ২০২০ সালের শেষ হয়ে যেতে পারে। সেই ইতিহাসেরও সাক্ষী থাকব আমরা।
09th  June, 2019
এই বোস সেই বোস নয়

মৃণাল শীল: আমরা দেশনায়ক সুভাষচন্দ্র বসুর ছাত্রাবস্থার একটি ঘটনার সঙ্গে সকলেই পরিচিত। সেটি হল, প্রেসিডেন্সি কলেজের ইতিহাসের এক ইংরেজ অধ্যাপক ওটেন সাহেব এক বাঙালি ছাত্রকে বিনা কারণে অপমান করেন। এই ঘটনার প্রতিবাদে সরব হয় গোটা প্রেসিডেন্সি কলেজ।  
বিশদ

12th  January, 2020
অদৃশ্য ক্যামেরার ফোন!

রোটেটর, পপ আপ, আন্ডার ডিসপ্লে ক্যামেরার স্মার্টফোনের দুনিয়ায় নতুন সংযোজন। ছবি তোলার পরই অদৃশ্য হয়ে যাবে ক্যামেরা। এমনই অভিনব প্রযুক্তির স্মার্টফোনের আত্মপ্রকাশ করল ওয়ান প্লাস। সম্প্রতি লাস ভেগাসে আয়োজিত ‘কনজিউমার ইলেক্ট্রনিক্স শো’-তে (সিইএস ২০২০) মডেলটি প্রকাশ্যে এনেছে ওয়ান প্লাস।
বিশদ

12th  January, 2020
রোদ্দুর ছুঁতে সূর্যের দেশে পাড়ি দিচ্ছে ভারত 

বিনয় মালাকার: চাঁদের পর এবার সূর্য। পরপর দু’বার চন্দ্র অভিযানের সাফল্যের পর ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা বা ইসরোর এখন লক্ষ্য সূর্য। সূর্যের অগ্নি বলয়ে হয়তো পৌঁছনো সম্ভব হবে না, তবে সূর্যের অনেকটাই কাছে পৌঁছনোর চেষ্টা চালানো হবে।  
বিশদ

12th  January, 2020
সেরা কিছু প্রযুক্তিগত উন্নতি 

১০৮, ৪৮ ও ৬৪ মেগা পিক্সেল ক্যামেরা: মোবাইল ক্যামেরার অগ্রগতি ডিএসএলআর জগৎকে কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে ঠেলে দিয়েছে। বিশ্বে প্রথমবার ১০৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা সেন্সর বাজারে নিয়ে এসেছে স্যামসাং।  বিশদ

29th  December, 2019
এ বছরের সেরা ব্যক্তিত্ব 

২০১৯ সালে বিজ্ঞানের অগ্রগতিতে অবদান রাখা ব্যক্তিদের মধ্যে এক ঝলকে খুঁজে নেওয়া কয়েকজন...  বিশদ

29th  December, 2019
জীবজন্তু 

প্রতিবছরই কিছু না কিছু নতুন প্রজাতির জীবজন্তু আবিষ্কার হয়। ২০১৯ সালও তার ব্যতিক্রম ছিল না। সেরকমই কয়েকটি প্রাণী হল  বিশদ

29th  December, 2019
এ বছরের উল্লেখযোগ্য ঘটনা 

 ১ জানুয়ারি: মানববিহীন মহাকাশযান নিউ হরাইজন্‌স সৌর জগতের দূরতম প্রান্তে অবস্থিত কাইপার বেল্টের মহাজাগতিক বস্তু ২০১৪ এমইউ৬৯-এর কাছে পৌঁছয়।
 ৩ জানুয়ারি: মহাকাশ গবেষণার ইতিহাসে প্রথমবার চাঁদের অন্ধকার পৃষ্ঠে অবতরণ করে চীনা মহাকাশযান চ্যাং ই-৪।  বিশদ

29th  December, 2019
ইলেকট্রনিক্সের ইতি!
আলোয় চলবে নতুন
যুগের কম্পিউটার

রক্তিম হালদার: বর্তমানে ‘কোয়ান্টাম সুপ্রিমেসি’র মাহেন্দ্রক্ষণে দাঁড়িয়ে তামাম বিশ্ব। এই পরিস্থিতিতে প্রশ্ন একটাই — তাহলে কি আজকের যুগের সাধারণ ইলেকট্রনিক কম্পিউটারের বদলে খুব শীঘ্রই বাজারে আসতে চলেছে ‘কোয়ান্টাম কম্পিউটার’? 
বিশদ

08th  December, 2019
 কৃত্রিম ত্বক নিয়ে মানুষ
হয়ে উঠবে রোবট

 সৌম্য নিয়োগী: রোবটরাও এবার হয়ে উঠবে মানুষের মতো! কৃত্রিম নয়, যন্ত্রমানবের শরীরেও থাকবে ব্যথা-বেদনা-ভালোবাসার মতো অনুভূতি। রোবটকে জড়িয়ে ধরলে সে লজ্জা পাবে। ভালোবেসে জড়িয়েও ধরবে। হাতে হাত রেখে মনও পড়তে পারবে সে। ঠান্ডা-গরম, হাসি-কান্না, আশঙ্কা — সব‌মিলিয়ে ষষ্ঠ ইন্দ্রিয়ই কাজ করবে যন্ত্র শরীরে।
বিশদ

08th  December, 2019
যন্ত্র কখনই চেতনা সম্পন্ন হবে না
বেদান্ত দর্শন তুলে ধরে বসু বিজ্ঞান
মন্দিরে বলে গেলেন সুভাষ কাক

 দেবজ্যোতি রায়: আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্স (এআই) বা কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার উন্নতিতে অনেক কাজই আর মানুষকে করতে হচ্ছে না। করে দিচ্ছে যন্ত্র। কর্মচ্যুত হচ্ছেন বহু চাকুরিজীবী। এআইয়ের অগ্রগতির ফলে বর্তমান গোটা বিশ্বজুড়ে একটা অস্থিরতা তৈরি হয়েছে। আশঙ্কা, সংশয়ের প্রহর গুনছে তামাম দুনিয়া।
বিশদ

08th  December, 2019
 গুগল ইন্ডিয়ার শীর্ষ পদে সঞ্জয় গুপ্ত

ডিজনি ভারত শাখার প্রাক্তন শীর্ষ আধিকারিক সঞ্জয় গুপ্তকে কান্ট্রি ম্যানেজার এবং সেলস ও অপারেশনসের ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে নিয়োগ করল মার্কিন তথ্যপ্রযুক্তি জায়ান্ট গুগল। আগামী বছরের শুরুতে তিনি নতুন পদে কাজ শুরু করবেন। এই পদে ছিলেন রঞ্জন আনন্দন।
বিশদ

08th  December, 2019
কী করে বুঝবেন ফোন
ট্যাপ হচ্ছে কি না?

 একটি উপায় হচ্ছে অ্যান্টি-ভাইরাস বা অ্যান্টি-ম্যালওয়্যার অ্যাপ বা মোবাইল এন্ড টু এন্ড সিকিউরিটির উপর অনেক অ্যাপ প্লে স্টোরে রয়েছে। সেরকম অ্যাপ যদি ডাউনলোড করা হয়, তারা কিন্তু একটা সঙ্কেত দেবে যে কিছু একটা হতে চলেছে বা কোনও প্রিভিলেজ অ্যাক্সেস দেওয়া হয়েছে।
বিশদ

10th  November, 2019
বিজ্ঞানের টুকিটাকি 

চন্দ্র অভিযানের জন্য নাসার নতুন স্পেসস্যুট, পরতে পারবেন যে কেউ
নতুন অভিযানের জন্য চাই নতুন পোশাক। আগামী আর্টেমিস চন্দ্র অভিযানের জন্য প্রস্তুত হচ্ছে নাসা। তার জন্য বিশেষ স্পেসস্যুট বা মহাকাশ অভিযানের উপযুক্ত পোশাক প্রস্তুত করে ফেললেন বিজ্ঞানীরা। সাংবাদিক সম্মেলন করে তা প্রকাশ্যে নাসার প্রধান জিম ব্রিডেনস্টাইন।   বিশদ

10th  November, 2019
নজরদারির নয়া ফাঁদ হোয়াটসঅ্যাপ 

সন্দীপ সেনগুপ্ত (ফাউন্ডার ডিরেক্টর, ইন্ডিয়ান স্কুল অব অ্যান্টি হ্যাকিং): আপনার তথ্য কি সুরক্ষিত? বা আপনার হাতে থাকা মোবাইল ফোনের মাধ্যমেই কেউ আপনার উপর নজরদারি চালাচ্ছে না তো? ফেসবুকে তথ্য চুরির বিষয়টি এখন আর কারও অজানা নয়। কিন্তু, অনেকেই হোয়াটসঅ্যাপের সুরক্ষা ব্যবস্থার উপর ভরসা রেখেছিল।  
বিশদ

10th  November, 2019
একনজরে
নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: রাজ্যপালের দায়িত্ব নিয়ে এই প্রথম নির্বিঘ্নে কোনও সমাবর্তনে হাজির হলেন জগদীপ ধনকার। আর সেই অনুষ্ঠানে গিয়েও সরকারের উদ্দেশ্যে খোঁচা দিতে ছাড়লেন না ...

সংবাদদাতা, গঙ্গারামপুর: যে রাধে সে যেমন চুলও বাঁধে, তেমনি যিনি চোর-ডাকাত-অপরাধীর পিছনে ছুটে বেড়ান, তিনি আবার সাহিত্যচর্চাও করেন। হরিরামপুর থানায় কর্তব্যরত পুলিস কর্মী তাপস মণ্ডল ডিউটির চাপ সামলেও সামান্য যেটুকু অবসর পেয়েছেন, তাতেই একটি বই লিখে ফেলেছেন।   ...

জীবানন্দ বসু, কলকাতা: গত কয়েক মাস ধরে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তথা রাজ্য সরকারের সঙ্গে অহি-নকুল সম্পর্ক তৈরি হয়েছে রাজ্যপালের। সম্প্রতি শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় তাঁর সঙ্গে দেখা করায় সমঝোতার আবহ তৈরি হলেও পরবর্তীকালে নানা ইস্যুতে ফের সংঘাতের বাতাবরণ ফিরে এসেছে।  ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: কথা রাখতে ব্যর্থ মোহন বাগান কর্তারা। তাঁরা আনতে পারলেন না নতুন ইনভেস্টর কিংবা স্পনসর। শেষ পর্যন্ত এটিকের সঙ্গে সংযুক্তিকরণের পথেই হাঁটতে হল ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
aries

গুরুজনের চিকিৎসায় বহু ব্যয়। ক্রোধ দমন করা উচিত। নানাভাবে অর্থ আগমনের সুযোগ। সহকর্মীদের সঙ্গে ঝগড়ায় ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৯৪১: মহান বিপ্লবী সুভাষচন্দ্র বসুর মহানিষ্ক্রমণ
১৯৪২: মার্কিন মুষ্টিযোদ্ধা মহম্মদ আলির জন্ম
১৯৪৫: গীতিকার ও চিত্রনাট্যকার জাভেদ আখতারের জন্ম
২০১০: কমিউনিস্ট নেতা তথা পশ্চিমবঙ্গের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী জ্যোতি বসুর মৃত্যু 





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৯. ২০ টাকা ৭২.৩৪ টাকা
পাউন্ড ৯০.১৯ টাকা ৯৪.৫৮ টাকা
ইউরো ৭৭.১০ টাকা ৮০.৮৫ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৪০, ৩৯৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৮, ৩২৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৮, ৯০০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৬, ৩০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৬, ৪০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

২ মাঘ ১৪২৬, ১৭ জানুয়ারি ২০২০, শুক্রবার, সপ্তমী ২/৪০ দিবা ৭/২৮। চিত্রা ৪৭/৪ রাত্রি ১/১৩। সূ উ ৬/২৩/৭, অ ৫/৯/৫১, অমৃতযোগ দিবা ৭/৪৯ মধ্যে পুনঃ ৮/৩২ গতে ১০/৪১ মধ্যে পুনঃ ১২/৫০ গতে ২/১৭ মধ্যে পুনঃ ৩/৪৪ গতে অস্তাবধি। বারবেলা ৯/৪ গতে ১১/৪৫ মধ্যে। কালরাত্রি ৮/২৮ গতে ১০/৭ মধ্যে। 
২ মাঘ ১৪২৬, ১৭ জানুয়ারি ২০২০, শুক্রবার, সপ্তমী ১২/৪/১৯ দিবা ১১/১৫/২৬। হস্তা ০/৩/৫ প্রাতঃ ৬/২৬/৫৬ পরে চিত্রা নক্ষত্র দং ৫৬/৯/৪১ শেষরাত্রি ৪/৫৩/৩৪। সূ উ ৬/২৫/৪২, অ ৫/৮/৫৬, অমৃতযোগ দিবা ৭/৪৮ মধ্যে ও ৮/৩২ গতে ১০/৪৩ মধ্যে ও ১২/৫৫ গতে ২/২৩ মধ্যে ও ৩/৫১ গতে ৫/৯ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/৩ গতে ৮/৪৭ মধ্যে ও ৩/৪৪ গতে ৪/৩৬ মধ্যে। কালবেলা ১০/২৬/৫৫ গতে ১১/৪৭/১৯ মধ্যে, কালরাত্রি ৮/২৮/৮ গতে ১০/৭/৪৩ মধ্যে । 
মোসলেম: ২১ জমাদিয়ল আউয়ল 

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে ভারত ৩৬ রানে জিতল 

09:55:34 PM

অস্ট্রেলিয়া ২৩৫/৫ (৪০ ওভার), টার্গেট ৩৪১ 

08:50:02 PM

অস্ট্রেলিয়া ১৫১/২ (২৬ ওভার), টার্গেট ৩৪১

07:46:57 PM

অস্ট্রেলিয়াকে ৩৪১ রানের টার্গেট দিল ভারত 

05:12:00 PM

নির্ভয়া কাণ্ড: দোষীদের ফাঁসি ১ ফেব্রুয়ারি 
নির্ভয়া কাণ্ডে চারজন দোষীদের ফাঁসি ২২ জানুয়ারির বদলে হবে ১ ...বিশদ

05:08:00 PM

ভারত ২৪৯/৩ (৪০ ওভার) 

04:25:39 PM