Bartaman Patrika
চাষ আবাদ
 

নিষেধাজ্ঞা উঠলেও গম চাষে সতর্ক কৃষি দপ্তর  

ব্রতীন দাস: ছত্রাক ঘটিত ঝলসা বা ‘হুইট ব্লাস্ট’-এর আতঙ্ক কাটিয়ে রাজ্যে বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী জেলাগুলিতে গম চাষের নিষেধাজ্ঞা উঠলেও বিশেষ সতর্ক থাকছে কৃষি দপ্তর। ২০১৫-১৬ সালে রাজ্যে ঝলসার আক্রমণ দেখা দেয় গমের জমিতে। চাষিরা মারাত্মক ক্ষতির মুখে পড়েন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বরে কলকাতায় রাজ্য ও কেন্দ্রের কৃষিকর্তাদের বৈঠক হয়। সেখানেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, দু’বছর রাজ্যে গম চাষ বন্ধ থাকবে। সেইমতো দক্ষিণবঙ্গের নদীয়া ও মুর্শিদাবাদ জেলায় দু’বছর গম চাষ হয়নি। এছাড়াও বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী এ রাজ্যের জেলাগুলিতে বর্ডার থেকে ৫ কিলোমিটারের মধ্যে গম বুনতে নিষেধ করা হয়। কিন্তু এবার কেন্দ্র থেকে গম চাষ বন্ধ রাখার বিষয়ে নতুন করে কোনও নির্দেশিকা আসেনি। ফলে রাজ্যে হুইট হলিডে বা গম চাষে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হয়েছে।
এ ব্যাপারে রাজ্যের কৃষি অধিকর্তা ইতিমধ্যে নির্দেশিকা জারি করে জানিয়েও দিয়েছেন, যেসব জেলায় গম চাষ গত দু’বছর বন্ধ ছিল, সেখানে এবার কৃষকরা চাইলে গম বুনতে পারেন। কিন্তু সেক্ষেত্রে গমের চারটি জাত নির্দিষ্ট করে দেওয়া হয়েছে। কৃষি দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, ডিবিডব্লু ১৮৭, ডিবিডব্লু ১৭৩, এইচডি ২৯৬৭ ও এইচডি ৩০৪৩ প্রজাতির গমের বীজ কৃষকরা বুনতে পারেন। সেইমতোই নির্দেশিকায় জানানো হয়েছে। এগুলি ঝলসা রোগ প্রতিরোধকারী এবং সহনশীল জাত। অবশ্যই বীজ হতে হবে সার্টিফায়েড। জমিতে বোনার আগে ভালো করে ছত্রাকনাশক দিয়ে শোধন করে নিতে হবে। জমিতে জারি রাখতে হবে বিশেষ পরিচর্যা। ঝলসার কোনওরকম উপসর্গ দেখা দিলেই রাজ্য কৃষি দপ্তরের সদর অফিসের সঙ্গে যোগাযোগ করতে হবে। বাংলাদেশ থেকেই গমের মারাত্মক ঝলসা রোগটি ঢুকে পড়েছিল বলে অনুমান কৃষি আধিকারিকদের। বিপন্ন চাষিদের মাঠেই ফসল পুড়িয়ে দিতে হয়েছিল। এবার যাতে কোনওভাবেই ওপার বাংলা থেকে চোরাপথে গমের বীজ এ রাজ্যে না ঢোকে, সেদিকে কড়া নজর রাখতে বলা হয়েছে। এনিয়ে সীমান্তরক্ষী বাহিনীকেও সজাগ করা হয়েছে। সরকারি তরফে নির্দিষ্ট করে দেওয়া জাতের বাইরে কোনও দোকানে যাতে গমের বীজ বিক্রি না হয়, সেদিকেও নজর রাখতে বলা হয়েছে কৃষি আধিকারিকদের। রাজ্যের এক কৃষিকর্তা জানিয়েছেন, গম চাষে নিষেধাজ্ঞা উঠে গেলেও এ বছর চাষের এলাকা বাড়াতে বিশেষ জোর দেওয়া হচ্ছে না। তবে কোনও কৃষক যদি গম চাষ করতে চান, তাঁকে আমরা নিরুৎসাহিত করছি না। নির্দিষ্ট ভ্যারাইটির বীজ বুনতে বলা হচ্ছে। চাষের প্রথম থেকে কৃষি আধিকারিকদের পরামর্শ মেনে চলতে বলা হচ্ছে। তবে, খুব বেশি জমিতে গম চাষ না করে বিকল্প চাষ হিসেবে তৈলবীজ, ডালশস্য, হাইব্রিড ভুট্টা, পেঁয়াজ চাষ করতে বলা হচ্ছে।
কৃষি আধিকারিকরা জানিয়েছেন, অক্টোবর থেকে ডিসেম্বরের মাঝামাঝি পর্যন্ত গমের বীজ বোনার সময়। মুর্শিদাবাদে প্রায় ৮০ হাজার হেক্টর জমিতে গমচাষ হতো। কিন্তু গত দু’বছর চাষ বন্ধ থাকায় এবার কৃষকদের মধ্যে গম বোনার ক্ষেত্রে তেমন উৎসাহ নেই। চাষিরা জানিয়েছেন, তাঁদের হাতে এখন গমের বীজ নেই। ফলে চাষ করতে গেলে বীজ কিনতে হবে। তা ছাড়া রাজ্যে শীতের স্থায়ীত্ব কমছে। গরম পড়ে গেলে গম গাছের বৃদ্ধি ভালো হয় না। ফলন মার খায়। এমনকী গম চাষে অন্তত ৫-৬টি সেচ দেওয়ার দরকার পড়ে। ভূগর্ভস্থ জলের সমস্যাও বাড়ছে। এতসব সত্ত্বেও যদি তাঁরা গম চাষ করেন, তা হলে কী সরকারি সহায়তা মিলবে, তা আগে জানানো হোক। জেলার উপ কৃষি অধিকর্তা তাপসকুমার কুণ্ডু জানিয়েছেন, যাঁরা গমচাষ করতে চাইছেন, তাঁদের বলা হয়েছে অবশ্যই যেন সার্টিফায়েড বীজে চাষ করেন। সেইসঙ্গে সরকারের সুপারিশকৃত ভ্যারাইটি ছাড়া গম চাষ করা যাবে না। একই বক্তব্য নদীয়া জেলার উপ কৃষি অধিকর্তা রঞ্জন রায়চৌধুরীর। তিনি বলেন, চাষিরা গমচাষ করতে চাইলে সুপারিশকৃত ভ্যারাইটির সার্টিফায়েড বীজ কিনে করতে বলা হচ্ছে। কৃষি আধিকারিকরা যা-ই বলুন না কেন, বিধানচন্দ্র কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক ড. ধীমান মুখোপাধ্যায় জানিয়েছেন, নিষেধাজ্ঞা উঠলেও সাবধানতার কারণে এ বছর নদীয়া ও মুর্শিদাবাদ জেলায় গম চাষ না করাই ভালো। সেক্ষেত্রে কৃষকরা বিকল্প হিসেবে তৈলবীজ ও ডালশস্য চাষ করতে পারেন। জলের সুবিধা থাকলে সব্জিও চাষ করতে পারেন। তাঁদের তরফে নদীয়ার কল্যাণী, বীরভূম, বর্ধমান, হুগলি ও মুর্শিদাবাদ জেলায় গমের ৮৬টি ভ্যারাইটি নিয়ে পরীক্ষামূলক চাষ চলছে বলে জানিয়েছেন ধীমানবাবু। এর মধ্যে ৫টির মতো ভ্যারাইটিকে প্রাধান্য দিয়ে চাষ করানো হচ্ছে বলে জানিয়েছেন তিনি।
তাঁর বক্তব্য, গমের বীজ বোনার সময় ২০-২৫ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড থাকলেও চলে। কিন্তু গাছের যখন মূল বৃদ্ধির সময়, তখন তাপমাত্রা ১৩-১৪ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেডের বেশি হয়ে গেলে ক্ষতি হয়। ফলনে প্রভাব পড়ে। জলের সমস্যার কারণে অনেক চাষিই গমচাষে তিনটির বেশি সেচ দিতে পারেন না। অথচ পাঁচ-ছ’টি সেচ দেওয়া দরকার।
মুর্শিদাবাদের রানিনগর ২ ব্লকের সহকারি কৃষি অধিকর্তা ড. মিঠুন সাহা জানিয়েছেন, এ বছর পারতপক্ষে গম চাষ না করাই ভালো। 

06th  November, 2019
বুলবুলের তাণ্ডব: জেলায় পিছতে পারে রবি চাষ 

বিএনএ, কৃষ্ণনগর: বুলবুলের তাণ্ডবে রবি শস্য চাষ পিছিয়ে যেতে পারে। কৃষি দপ্তরের কর্তারা বলেন, বুলবুলের প্রভাবে যে বৃষ্টিপাত হয়েছে তাতে মাটির রস বেড়ে যাবে। রবি শস্য চাষে মাটির রস বা ‘জো’টা খুবই গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করা হয়। ফলে শীতকালীন চাষে প্রভাব পড়তে পারে। কারণ, এখনই চাষ শুরু করা যাবে না। 
বিশদ

15th  November, 2019
কালীপুজোর আগে নিম্নচাপের বৃষ্টিতে ক্ষতি সামলে
তড়িঘড়ি আলু বসাচ্ছেন জেলার চাষিরা 

সংবাদদাতা, বহরমপুর: দুর্গাপুজোর পর আলু বসানো হলেও নিম্নচাপের জেরে বহু চাষির আলু জমিতেই নষ্ট হয়ে গিয়েছে। সেই ক্ষতি পোষাতে ফের চাষিরা ঝুঁকি নিয়েই মাঠে নেমেছেন। ক্ষতি পুষিয়ে নিতে মাঠে আলু বসাচ্ছেন বড়ঞা ব্লকের চাষিরা। এদিকে বাড়িতে বীজ মজুত করে এখনও জমিতে নামতে না পারায় বহু চাষি বিপাকে পড়েছেন। 
বিশদ

15th  November, 2019
বুলবুল কাড়ল খেতের ফসল
জমি থেকে দ্রুত জল বের করে প্রয়োগ করতে হবে বহুমুখী ছত্রাকনাশক

ব্রতীন দাস: বুলবুলের দাপটে মাথায় হাত চাষিদের। আমন ধান তো বটেই, সব্জি, ফুল সহ বিভিন্ন শস্যের মারাত্মক ক্ষতি হয়েছে দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলায়। সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হয়েছে দক্ষিণ ২৪ পরগনায়। এর পর রয়েছে পূর্ব মেদিনীপুর, উত্তর ২৪ পরগনা, হুগলি, বর্ধমান ও নদীয়া। 
বিশদ

13th  November, 2019
শীতে ডালিয়া ফোটাতে প্রস্তুতি নিতে হবে এখনই 

নবজ্যোতি সরকার : শীতকালীন রঙিন সুন্দরী চন্দ্রমল্লিকা এবং ডালিয়া ফুলগুলি যাঁরা বাণিজ্যিকভাবে চাষ করতে চান, তাঁরা এখন নিজেদের বাগান তৈরি করুন। এমনটাই বলছেন বিশেষজ্ঞরা। এই দুই ফুলের চাহিদা প্রচুর। এগুলি ভালোই অর্থকরী। উৎপাদন চন্দ্রমল্লিকায় বিঘা প্রতি দেড় থেকে দুই টন। 
বিশদ

13th  November, 2019
উন্নত জাত ও নিয়ম মেনে গম চাষে মিলবে লাভ

অলোক বন্দ্যোপাধ্যায়: সঠিক নিয়ম মেনে চাষ করলে গমে ভালো উৎপাদন পাওয়া যাবে। কার্তিক মাসের শেষ থেকে অগ্রহায়ণ মাসের মাঝামাঝি পর্যন্ত আমন ধান কাটা শেষ হলেই ওই জমিতে রস থাকা অবস্থায় গমের বীজ বুনে ফেলতে হবে। ফলে গম চাষের জন্য দ্রুত প্রস্তুতি শেষ করতে হবে। 
বিশদ

13th  November, 2019
বাঁকুড়ায় পতিত জমিতে ডাল ও সর্ষে চাষে জোর 

বিএনএ, বাঁকুড়া: অনাবৃষ্টির কারণে বাঁকুড়া জেলায় এবার প্রায় ৩০ শতাংশ জমিতে আমন চাষ করতে পারেননি কৃষকরা। তাই আমনের ক্ষতি পোষাতে জেলায় সরকারি সাহায্যে প্রায় ৩৯ হাজার হেক্টর জমিতে ডাল ও তৈল চাষের উদ্যোগ নিয়েছে কৃষি দপ্তর। 
বিশদ

08th  November, 2019
আয় বাড়াতেই শালবনীতে কাজুবাগান তৈরির উদ্যোগ 

হরিহর ঘোষাল, মেদিনীপুর: আয় বাড়াতে শালবনীর কাশীজোড়া পঞ্চায়েত এলাকায় কাজুর বাগান তৈরির উদ্যোগ নিতে চলেছে ব্লক কর্তৃপক্ষ। ইতিমধ্যেই জায়গা চিহ্নিতকরণের কাজ হয়ে গিয়েছে। এমনকী, জল সরবরাহ করার জন্য সেখানে পাম্প মেশিনও বসানো হয়েছে। 
বিশদ

06th  November, 2019
মুর্শিদাবাদে একাঙ্গী চাষে উৎসাহ বাড়ছে কৃষকদের 

সুখেন্দু পাল, বহরমপুর: মুর্শিদাবাদে চাষ হওয়া একাঙ্গীর চাহিদা তুঙ্গে। অনেক চাষি চাহিদামতো তা সরবরাহ করতে পারছেন না। জেলা কৃষি দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, একাঙ্গী দেখতে অনেকটা আদার মতো। মাটির তলাতেই তা হয়। গাছও দেখতে আদার মতোই। স্থানীয়ভাবে তা একআনি নামেই পরিচিত।  
বিশদ

06th  November, 2019
ভাতারে ধানগাছে পোকার আক্রমণ, দুশ্চিন্তায় চাষিরা 

গণেন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায়, বর্ধমান: ভাতারের বেলেণ্ডা, বালশিডাঙা, বলগোনা গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রায় সর্বত্র ও মাহাচান্দার পঞ্চায়েতের খুরুল গ্রাম সহ একাধিক এলাকায় জমিতে লাগানো ধান গাছে পোকার সংক্রমণে মাথায় হাত পড়েছে চাষিদের। জমির মধ্যে বেশ কিছুটা অংশ বাদামি রঙের হয়ে যাচ্ছে। ক্রমে তা গোটা জমিতে ছড়িয়ে পড়ছে। 
বিশদ

06th  November, 2019
শিলিগুড়িতে রেশম গুটি উৎপাদনে লাভের মুখ 

সুব্রত ধর, শিলিগুড়ি: রেশম দপ্তরের উদ্যোগে ফাঁসিদেওয়া ও মাটিগাড়ায় অগ্রহায়ণী পি-১ সঞ্চ গুটির ভালো উৎপাদন হয়েছে। পরবর্তী বন্দগুলিতেও উৎপাদনে জোর দেওয়া হচ্ছে। পরিচর্যা, প্রশিক্ষণ ও বিক্রির সুবন্দোবস্ত থাকায় এই গুটি উৎপাদনের ফলে কৃষকরা আর্থিকভাবে সহজেই লাভবান হতে পারবেন। 
বিশদ

06th  November, 2019
আমনের ফলন মার খাওয়ায় ক্ষতিগ্রস্ত বীরভূমের কৃষকরা 

অলোক বন্দ্যোপাধ্যায় : বীরভূম জেলার মুরারই ২ নম্বর ব্লকের জাজিগ্রাম, আমডোল, পাইকোর ১ ও ২, নন্দীগ্রাম ও রুদ্রনগর গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গত বিভিন্ন অঞ্চলে আমন ধানের ফলন নষ্ট হয়ে যাওয়ায় চাষিরা আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছেন। এমনিতেই এবছর এই অঞ্চলে আমন ধান চাষে জলের অভাব ছিল।  
বিশদ

06th  November, 2019
বনগাঁয় হাইব্রিড বেগুনে জোর 

নবজ্যোতি সরকার: বেগুনের বাজারদর বর্তমানে ভালোই। বেগুনচাষে সমৃদ্ধ উত্তর ২৪ পরগনার বনগাঁ মহকুমার চাষিরা উৎপাদন বাড়াতে শীতকালীন হাইব্রিড বেগুনচাষে মন দিয়েছেন। বনগাঁ, বাগদা, গাইঘাটার চাষিরা জানান, এবছর তাঁরা পুসা হাইব্রিড ৫, পুসা হাইব্রিড ৬ এবং গ্রীন হাইব্রিড, এই তিন প্রজাতির বেগুন চাষ করছেন। 
বিশদ

06th  November, 2019
নিয়ম মেনে সাদা ও টোরি সর্ষে চাষে মিলবে লাভ 

অলোক বন্দ্যোপাধ্যায়: বিভিন্ন তৈলবীজ চাষের মধ্যে সাদা সর্ষের চাষ বেশ লাভজনক। এই চাষ একটু কম হয় বলে বাজারে ভালোই চাহিদা আছে। সাদা সর্ষের উন্নত জাতগুলির মধ্যে সবচেয়ে ভালো ফলন দেয় বিনয় (বি-৯), সুবিনয় এবং ঝুমকা।  বিশদ

30th  October, 2019
ধান কাটা শেষ হলেই মুসুর ও ছোলা বুনুন 

ব্রতীন দাস: অনেক জায়গায় আউশ ও আমন ধান কাটা শুরু হয়েছে। কিছু জায়গায় আর কিছুদিন পরই ধান কাটা হবে। এই পরিস্থিতিতে চাষিদের জন্য কৃষি আধিকারিকদের সুপারিশ, যেসব জমিতে ধান কাটা হয়ে যাচ্ছে এবং যেখানে অন্তত একটা সেচ দেওয়ার সুযোগ রয়েছে, সেখানে জমি ফেলে না রেখে মুসুর ও ছোলা চাষ করা যেতে পারে।   বিশদ

30th  October, 2019

Pages: 12345

একনজরে
ইসলামাবাদ, ১৮ নভেম্বর (পিটিআই): ভারতের অগ্নি-২ ক্ষেপণাস্ত্রের সফল পরীক্ষার একদিন পরেই পাকিস্তান শাহিন-১ নামের একটি ক্ষেপণাস্ত্রের সফল উৎক্ষেপণ করল। ৬৫০ কিলোমিটার দূরের বস্তুকে আঘাতে সক্ষম পাক ক্ষেপণাস্ত্র শাহিন-১। ...

সংবাদদাতা, ইসলামপুর: সোমবার সকালে উত্তর দিনাজপুর জেলার গোয়ালপোখর থানার বেলন গ্রাম পঞ্চায়েতের পটুয়া এলাকায় ধান খেতে এক অজ্ঞাতপরিচয়ের যুবকের মৃতদেহ উদ্ধার হয়। এই ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়ায়।   ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: দু’টি পরীক্ষার মধ্যে দু-একদিন করে ছুটি থাকবে বলে আগেই ঘোষণা করেছিলেন কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সোনালি চক্রবর্তী বন্দ্যোপাধ্যায়। ...

সংবাদদাতা, কান্দি: সোমবার সকালে বড়ঞা থানার বিপ্রশেখর গ্রামে এক প্রৌঢ়ের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়ায়। পুলিস জানিয়েছে, মৃতের নাম বাদল দত্ত(৫২)। তিনি ওই গ্রামের বাসিন্দা ছিলেন।   ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

কর্মপ্রার্থীদের কর্মলাভ কিছু বিলম্ব হবে। প্রেম-ভালোবাসায় সাফল্য লাভ ঘটবে। বিবাহযোগ আছে। উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় থেকে ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৮৩৮: সমাজ সংস্কারক কেশবচন্দ্র সেনের জন্ম
১৮৭৭: কবি করুণানিধান বন্দ্যোপাধ্যায়ের জন্ম
১৯১৭: ভারতের তৃতীয় প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীর জন্ম
১৯২২: সঙ্গীতকার সলিল চৌধুরির জন্ম
১৯২৮: কুস্তিগীর ও অভিনেতা দারা সিংয়ের জন্ম
১৯৫১: অভিনেত্রী জিনাত আমনের জন্ম 





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.৮৪ টাকা ৭২.৫৪ টাকা
পাউন্ড ৯১.০৬ টাকা ৯৪.৩৪ টাকা
ইউরো ৭৭.৮৫ টাকা ৮০.৮১ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৮,৫৮০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬,৬০৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৭,১৫৫ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৪,৪০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৪,৫০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১৯ নভেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার, সপ্তমী ২৪/১১ দিবা ৩/৩৬। অশ্লেষা ৩৮/৩৮ রাত্রি ৯/২২। সূ উ ৫/৫৫/২২, অ ৪/৪৮/২৩, অমৃতযোগ দিবা ৬/৪০ মধ্যে পুনঃ ৭/২৩ গতে ১১/০ মধ্যে। রাত্রি ৭/২৬ গতে ৮/১৯ মধ্যে পুনঃ ৯/১১ গতে ১১/৪৯ মধ্যে পুনঃ ১/৩৪ গতে ৩/১৯ মধ্যে পুনঃ ৫/৫ গতে উদয়াবধি, বারবেলা ৭/১৬ গতে ৮/৩৮ মধ্যে পুনঃ ১২/৪৩ গতে ২/৫ মধ্যে, কালরাত্রি ৬/২৭ গতে ৮/৫ মধ্যে। 
২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১৯ নভেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার, সপ্তমী ১৯/২৬/৫২ দিবা ১/৪৩/৫৬। অশ্লেষা ৩৬/১/৪১ রাত্রি ৮/২১/৫১, সূ উ ৫/৫৭/১১, অ ৪/৪৮/১৯, অমৃতযোগ দিবা ৬/৫০ মধ্যে ও ৭/৩০ গতে ১১/৬ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/২৮ গতে ৮/২১ মধ্যে ও ৯/১৪ গতে ১১/৫৪ মধ্যে ও ১/৪১ গতে ৩/২৮ মধ্যে ও ৫/১৪ গতে ৫/৫৮ মধ্যে, বারবেলা ৭/১৮/৩৬ গতে ৮/৪০/১ মধ্যে, কালবেলা ১২/৪৩/১৫ গতে ২/৫/৪০ মধ্যে, কালরাত্রি ৬/২৭/৪ গতে ৮/৫/৪০ মধ্যে।
২১ রবিয়ল আউয়ল  

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
কোচবিহারে মদনমোহন মন্দিরে পুজো দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় 

18-11-2019 - 05:36:00 PM

খড়্গপুরের এসডিপিও সুকমল দাসকে সরিয়ে দিল নির্বাচন কমিশন 

18-11-2019 - 05:34:00 PM

হাসপাতালে ভর্তি নুসরত জাহান
অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হলেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী তথা সংসদ সদস্য ...বিশদ

18-11-2019 - 04:58:35 PM

কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে অপারেশন করা হয়েছে: মমতা 

18-11-2019 - 04:46:00 PM

মিথ্যে কথা বলা ছাড়া কোনও কাজ করছে না বিজেপি: মমতা 

18-11-2019 - 04:43:00 PM

৩ দলকেই বাংলা থেকে বিদায় নিতে হবে: মমতা 

18-11-2019 - 04:41:00 PM