Bartaman Patrika
চাষ আবাদ
 

শীতকালীন পেঁয়াজ চাষ শুরু করতে
হবে এখনই, যত্ন চাই চারা তৈরিতে 

ব্রতীন দাস: শীতের পেঁয়াজ চাষের প্রস্তুতি শুরু করতে হবে এখনই। এমনটাই বলছেন কৃষি বিশেষজ্ঞরা। তাঁদের সুপারিশ, আগামী কিছুদিনের মধ্যেই রবি মরশুমে চাষের জন্য পেঁয়াজের বীজতলা তৈরির কাজ শেষ করে ফেলতে হবে। কিন্তু কেমন হবে সেই বীজতলা? কিংবা কী ধরনের জমিতে ভালো হতে পারে পেঁয়াজ চাষ? উদ্যানপালন আধিকারিকরা বলছেন, পলি ও দোঁয়াশ মাটি পেঁয়াজ চাষের জন্য উপযোগী। লবণাক্ত ও নিচু জমিতে পেঁয়াজ চাষ করা উচিত নয়। বেশি পরিমাণে জৈবসার দিলে এঁটেল মাটিতেও পেঁয়াজ হতে পারে। শীতকালীন পেঁয়াজ চাষের জন্য ১৫-২৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা আদর্শ। ১৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা ও দিনে ৯-১০ ঘণ্টা আলো থাকলে পেঁয়াজের কাণ্ড দ্রুত বৃদ্ধি পায়। পরবর্তীতে ২১ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা ও ১০-১২ ঘণ্টা দিনের আলো থাকলে পেঁয়াজের কন্দ ভালো হয়, বলছেন কৃষি বিজ্ঞানীরা। এই সময় গড় আর্দ্রতা প্রয়োজন ৭০ শতাংশ। পেঁয়াজের জন্য মাটির পিএইচ মাত্রা দরকার ৫.৮-৬.৫। ২১০০ মিটার উঁচু পার্বত্য উপত্যকাতেও পেঁয়াজ চাষ সম্ভব। হাল্কা মাটিতে জৈব ও রাসায়নিক সার প্রয়োগে পেঁয়াজের ভালো ফলন পাওয়া যেতে পারে। তবে বেশি অম্ল বা ক্ষার মাটিতে চাষ করলে পেঁয়াজের আকার ছোট হয়। এবং পেঁয়াজ পুষ্ট হতে বেশি সময় লাগে।
উত্তর ২৪ পরগনার সহকারি উদ্যানপালন অধিকর্তা ড. শুভদীপ নাথ জানিয়েছেন, বর্তমানে প্রায় সব জেলাতেই পেঁয়াজ চাষ হয়। হুগলি, নদীয়া, বর্ধমান, মুর্শিদাবাদ জেলায় এটি একটি অন্যতম অর্থকরী ফসল। রবি মরশুমে পেঁয়াজের উন্নত জাত, পুসা রেড, পুসা রত্না, পুসা মাধবী, অর্কা নিকেতন, অর্কা বিন্দু, পাটনা রেড, এগ্রিফাউন্ড লাইট রেড, সুখসাগর প্রভৃতি। হাইব্রিড জাতের ক্ষেত্রে বিঘায় ৫০০-৬০০ গ্রাম এবং উন্নত জাতের ক্ষেত্রে বিঘায় বীজ লাগবে ১-১.২ কেজি। ছোট কন্দের জাত সরাসরি জমিতে ছিটিয়ে বোনা যায়। নির্দিষ্ট বয়সের চারা জমিতে লাগাতে হবে। কারণ, কম বয়সের চারা লাগালে জমিতে দাঁড়াবে না। আবার চারার বয়স বেশি হয়ে গেলে তাড়াতাড়ি শুকিয়ে যাবে। রবি মরশুমের পেঁয়াজ চাষে ৬-৭ সপ্তাহের চারা বসাতে হবে।
বিধানচন্দ্র কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সব্জি বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. তপন মাইতি বলেছেন, ঘন করে পেঁয়াজের বীজতলা তৈরি করতে হবে। অনেকে পেঁয়াজের বীজতলায় গোবর দিয়ে থাকেন। এটা না দিলেই ভালো। কারণ, গোবরের মধ্যে মিশে থাকা ঘাসের বীজ থেকে আগাছা জন্মানোর আশঙ্কা বেশি থাকে। পরিবর্তে ভার্মিকম্পোস্ট সার ব্যবহার করা যেতে পারে বীজতলায়। শীতকালে আমাদের রাজ্যে চাষের জন্য সুখসাগর জাতটিই উপযুক্ত বলে মনে করেন তপনবাবু। তাঁর সুপারিশ, জমিতে জো আসার পর পেঁয়াজের চারা বসাতে হবে। মাস দেড়েকের চারা লাগানো উচিত। অনেকে ধানের মতো জমি কাদা করেও পেঁয়াজ লাগিয়ে থাকেন। পেঁয়াজের দু’টি সারির মধ্যে ৬ ইঞ্চি এবং একই সারিতে দু’টি গাছের মধ্যে অন্তত ৪ ইঞ্চি দূরত্ব রাখতে হবে। কয়েক সারি অন্তর একটু বেশি ফাঁকা রাখতে হবে। যাতে সেখানে বসে বা দাঁড়িয়ে পেঁয়াজের জমিতে পরিচর্যার কাজ ভালোভাবে করা যায়। উদ্যানপালন আধিকারিকরা জানিয়েছেন, পেঁয়াজ চাষের জন্য জমি গভীরভাবে লাঙল দিয়ে নিতে হবে। এর পর মই দিয়ে সমান করতে হবে মাটি। সরাসরি জমিতে বীজ বুনে কিংবা চারা রোপণ করে পেঁয়াজ চাষ করা যায়। জমিতে শেষ চাষ দেওয়ার সময় গোবর বা কম্পোস্ট সার দিতে হবে। পেঁয়াজের জমিতে মাটির পিএইচ মাত্রা ৩-এর নীচে নেমে গেলে চুন দিতে হবে। সেক্ষেত্রে জমি তৈরির কয়েকদিন আগে চুন দেওয়ার কাজ শেষ করা দরকার। পিএইচ কমে গেলে পুষ্টিজনিতে অভাবের কারণে ফলন মার খাওয়ার আশঙ্কা থাকে। প্রতি লিটার জলে ৪ গ্রাম ব্লু কপার মিশিয়ে বীজতলার মাটি শোধন করে নিতে হবে। বীজতলার উপর ১০ সেমি পুরু করে খড় বিছিয়ে তা পুড়িয়েও বীজতলার মাটি শোধন করা যায়। প্রয়োজনমতো বীজতলায় ১-২দিন অন্তর হাল্কা জলসেচ দিতে হবে। ৫-৭ দিন পর চারা বের হবে। পেঁয়াজ চাষের গোটা পর্যায়ে ৮-১০টি সেচ দেওয়া দরকার। তবে পেঁয়াজ সংগ্রহের একমাস আগে থেকে সেচ দেওয়া বন্ধ করতে হবে।
পেঁয়াজের জমিতে থ্রিপস-এর আক্রমণ ঘটে। এই পোকা ছোট। কিন্তু এরা পাতার রস শুষে খায়। গাছ দুর্বল হয়ে পড়ে। আক্রান্ত পাতায় বাদামি দাগ দেখা যায়। প্রতি লিটার জলে ১ মিলি সাইপারমেথ্রিন বা ০.৫ মিলি ইমিডাক্লোরোপিড মিশিয়ে ৪-৫দিন অন্তর স্প্রে করতে হবে। জাবপোকা দলবদ্ধভাবে আক্রমণ করে। পেঁয়াজ পাতার রস শুষে খায়। থ্রিপস-এর মতোই প্রতিকার করতে হয়। পেঁয়াজে ধসা রোগ দেখা দেয়। গাছের পাতা ও কাণ্ড আক্রান্ত হয়। কাণ্ডে জল ভেজা হাল্কা বেগুনি দাগ দেখা যায় প্রথমে। পরে দাগগুলি বড় হয়। আক্রান্ত স্থান খড়ের মতো হয়ে শুকিয়ে যায়। বৃষ্টি হলে রোগটি দ্রুত ছড়ায়। সহনশীল জাত চাষ করতে হবে। প্রতি কেজি বীজে আড়াই গ্রাম হারে কার্বেন্ডাজিম মিশিয়ে বীজ শোধন করতে হবে। আক্রমণ বেশি হলে ১০ লিটার জলে ০.০৫ মিলি টেবুকোনাজোল মিশিয়ে স্প্রে করতে হবে। পেঁয়াজে কাণ্ডপচা রোগ দেখা দেয়। পেঁয়াজ গাছ পরিপক্ক হলে পাতা হলুদ হয়ে যায়। বীজ বপন থেকে ফসল তুলতে ১১০-১২০ দিন সময় লাগে। রবি মরশুমে হেক্টরে ১২-১৬ টন ফলন পাওয়া যায়।  
23rd  October, 2019
বুলবুলের তাণ্ডব: জেলায় পিছতে পারে রবি চাষ 

বিএনএ, কৃষ্ণনগর: বুলবুলের তাণ্ডবে রবি শস্য চাষ পিছিয়ে যেতে পারে। কৃষি দপ্তরের কর্তারা বলেন, বুলবুলের প্রভাবে যে বৃষ্টিপাত হয়েছে তাতে মাটির রস বেড়ে যাবে। রবি শস্য চাষে মাটির রস বা ‘জো’টা খুবই গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করা হয়। ফলে শীতকালীন চাষে প্রভাব পড়তে পারে। কারণ, এখনই চাষ শুরু করা যাবে না। 
বিশদ

15th  November, 2019
কালীপুজোর আগে নিম্নচাপের বৃষ্টিতে ক্ষতি সামলে
তড়িঘড়ি আলু বসাচ্ছেন জেলার চাষিরা 

সংবাদদাতা, বহরমপুর: দুর্গাপুজোর পর আলু বসানো হলেও নিম্নচাপের জেরে বহু চাষির আলু জমিতেই নষ্ট হয়ে গিয়েছে। সেই ক্ষতি পোষাতে ফের চাষিরা ঝুঁকি নিয়েই মাঠে নেমেছেন। ক্ষতি পুষিয়ে নিতে মাঠে আলু বসাচ্ছেন বড়ঞা ব্লকের চাষিরা। এদিকে বাড়িতে বীজ মজুত করে এখনও জমিতে নামতে না পারায় বহু চাষি বিপাকে পড়েছেন। 
বিশদ

15th  November, 2019
বুলবুল কাড়ল খেতের ফসল
জমি থেকে দ্রুত জল বের করে প্রয়োগ করতে হবে বহুমুখী ছত্রাকনাশক

ব্রতীন দাস: বুলবুলের দাপটে মাথায় হাত চাষিদের। আমন ধান তো বটেই, সব্জি, ফুল সহ বিভিন্ন শস্যের মারাত্মক ক্ষতি হয়েছে দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলায়। সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হয়েছে দক্ষিণ ২৪ পরগনায়। এর পর রয়েছে পূর্ব মেদিনীপুর, উত্তর ২৪ পরগনা, হুগলি, বর্ধমান ও নদীয়া। 
বিশদ

13th  November, 2019
শীতে ডালিয়া ফোটাতে প্রস্তুতি নিতে হবে এখনই 

নবজ্যোতি সরকার : শীতকালীন রঙিন সুন্দরী চন্দ্রমল্লিকা এবং ডালিয়া ফুলগুলি যাঁরা বাণিজ্যিকভাবে চাষ করতে চান, তাঁরা এখন নিজেদের বাগান তৈরি করুন। এমনটাই বলছেন বিশেষজ্ঞরা। এই দুই ফুলের চাহিদা প্রচুর। এগুলি ভালোই অর্থকরী। উৎপাদন চন্দ্রমল্লিকায় বিঘা প্রতি দেড় থেকে দুই টন। 
বিশদ

13th  November, 2019
উন্নত জাত ও নিয়ম মেনে গম চাষে মিলবে লাভ

অলোক বন্দ্যোপাধ্যায়: সঠিক নিয়ম মেনে চাষ করলে গমে ভালো উৎপাদন পাওয়া যাবে। কার্তিক মাসের শেষ থেকে অগ্রহায়ণ মাসের মাঝামাঝি পর্যন্ত আমন ধান কাটা শেষ হলেই ওই জমিতে রস থাকা অবস্থায় গমের বীজ বুনে ফেলতে হবে। ফলে গম চাষের জন্য দ্রুত প্রস্তুতি শেষ করতে হবে। 
বিশদ

13th  November, 2019
বাঁকুড়ায় পতিত জমিতে ডাল ও সর্ষে চাষে জোর 

বিএনএ, বাঁকুড়া: অনাবৃষ্টির কারণে বাঁকুড়া জেলায় এবার প্রায় ৩০ শতাংশ জমিতে আমন চাষ করতে পারেননি কৃষকরা। তাই আমনের ক্ষতি পোষাতে জেলায় সরকারি সাহায্যে প্রায় ৩৯ হাজার হেক্টর জমিতে ডাল ও তৈল চাষের উদ্যোগ নিয়েছে কৃষি দপ্তর। 
বিশদ

08th  November, 2019
নিষেধাজ্ঞা উঠলেও গম চাষে সতর্ক কৃষি দপ্তর  

ব্রতীন দাস: ছত্রাক ঘটিত ঝলসা বা ‘হুইট ব্লাস্ট’-এর আতঙ্ক কাটিয়ে রাজ্যে বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী জেলাগুলিতে গম চাষের নিষেধাজ্ঞা উঠলেও বিশেষ সতর্ক থাকছে কৃষি দপ্তর। ২০১৫-১৬ সালে রাজ্যে ঝলসার আক্রমণ দেখা দেয় গমের জমিতে। চাষিরা মারাত্মক ক্ষতির মুখে পড়েন। 
বিশদ

06th  November, 2019
আয় বাড়াতেই শালবনীতে কাজুবাগান তৈরির উদ্যোগ 

হরিহর ঘোষাল, মেদিনীপুর: আয় বাড়াতে শালবনীর কাশীজোড়া পঞ্চায়েত এলাকায় কাজুর বাগান তৈরির উদ্যোগ নিতে চলেছে ব্লক কর্তৃপক্ষ। ইতিমধ্যেই জায়গা চিহ্নিতকরণের কাজ হয়ে গিয়েছে। এমনকী, জল সরবরাহ করার জন্য সেখানে পাম্প মেশিনও বসানো হয়েছে। 
বিশদ

06th  November, 2019
মুর্শিদাবাদে একাঙ্গী চাষে উৎসাহ বাড়ছে কৃষকদের 

সুখেন্দু পাল, বহরমপুর: মুর্শিদাবাদে চাষ হওয়া একাঙ্গীর চাহিদা তুঙ্গে। অনেক চাষি চাহিদামতো তা সরবরাহ করতে পারছেন না। জেলা কৃষি দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, একাঙ্গী দেখতে অনেকটা আদার মতো। মাটির তলাতেই তা হয়। গাছও দেখতে আদার মতোই। স্থানীয়ভাবে তা একআনি নামেই পরিচিত।  
বিশদ

06th  November, 2019
ভাতারে ধানগাছে পোকার আক্রমণ, দুশ্চিন্তায় চাষিরা 

গণেন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায়, বর্ধমান: ভাতারের বেলেণ্ডা, বালশিডাঙা, বলগোনা গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রায় সর্বত্র ও মাহাচান্দার পঞ্চায়েতের খুরুল গ্রাম সহ একাধিক এলাকায় জমিতে লাগানো ধান গাছে পোকার সংক্রমণে মাথায় হাত পড়েছে চাষিদের। জমির মধ্যে বেশ কিছুটা অংশ বাদামি রঙের হয়ে যাচ্ছে। ক্রমে তা গোটা জমিতে ছড়িয়ে পড়ছে। 
বিশদ

06th  November, 2019
শিলিগুড়িতে রেশম গুটি উৎপাদনে লাভের মুখ 

সুব্রত ধর, শিলিগুড়ি: রেশম দপ্তরের উদ্যোগে ফাঁসিদেওয়া ও মাটিগাড়ায় অগ্রহায়ণী পি-১ সঞ্চ গুটির ভালো উৎপাদন হয়েছে। পরবর্তী বন্দগুলিতেও উৎপাদনে জোর দেওয়া হচ্ছে। পরিচর্যা, প্রশিক্ষণ ও বিক্রির সুবন্দোবস্ত থাকায় এই গুটি উৎপাদনের ফলে কৃষকরা আর্থিকভাবে সহজেই লাভবান হতে পারবেন। 
বিশদ

06th  November, 2019
আমনের ফলন মার খাওয়ায় ক্ষতিগ্রস্ত বীরভূমের কৃষকরা 

অলোক বন্দ্যোপাধ্যায় : বীরভূম জেলার মুরারই ২ নম্বর ব্লকের জাজিগ্রাম, আমডোল, পাইকোর ১ ও ২, নন্দীগ্রাম ও রুদ্রনগর গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গত বিভিন্ন অঞ্চলে আমন ধানের ফলন নষ্ট হয়ে যাওয়ায় চাষিরা আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছেন। এমনিতেই এবছর এই অঞ্চলে আমন ধান চাষে জলের অভাব ছিল।  
বিশদ

06th  November, 2019
বনগাঁয় হাইব্রিড বেগুনে জোর 

নবজ্যোতি সরকার: বেগুনের বাজারদর বর্তমানে ভালোই। বেগুনচাষে সমৃদ্ধ উত্তর ২৪ পরগনার বনগাঁ মহকুমার চাষিরা উৎপাদন বাড়াতে শীতকালীন হাইব্রিড বেগুনচাষে মন দিয়েছেন। বনগাঁ, বাগদা, গাইঘাটার চাষিরা জানান, এবছর তাঁরা পুসা হাইব্রিড ৫, পুসা হাইব্রিড ৬ এবং গ্রীন হাইব্রিড, এই তিন প্রজাতির বেগুন চাষ করছেন। 
বিশদ

06th  November, 2019
নিয়ম মেনে সাদা ও টোরি সর্ষে চাষে মিলবে লাভ 

অলোক বন্দ্যোপাধ্যায়: বিভিন্ন তৈলবীজ চাষের মধ্যে সাদা সর্ষের চাষ বেশ লাভজনক। এই চাষ একটু কম হয় বলে বাজারে ভালোই চাহিদা আছে। সাদা সর্ষের উন্নত জাতগুলির মধ্যে সবচেয়ে ভালো ফলন দেয় বিনয় (বি-৯), সুবিনয় এবং ঝুমকা।  বিশদ

30th  October, 2019

Pages: 12345

একনজরে
নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: শয়নে স্বপনে এখন শুধুই গোলাপি টেস্ট। যার উন্মাদনা কেবল সমর্থকদের মধ্যে সীমাবদ্ধ নয়। উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছে ভারতীয় ক্রিকেটারদের মধ্যেও। দেশের মাটিতে প্রথমবার ...

সংবাদদাতা, ইসলামপুর: সোমবার সকালে উত্তর দিনাজপুর জেলার গোয়ালপোখর থানার বেলন গ্রাম পঞ্চায়েতের পটুয়া এলাকায় ধান খেতে এক অজ্ঞাতপরিচয়ের যুবকের মৃতদেহ উদ্ধার হয়। এই ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়ায়।   ...

সংবাদদাতা, কান্দি: সোমবার সকালে বড়ঞা থানার বিপ্রশেখর গ্রামে এক প্রৌঢ়ের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়ায়। পুলিস জানিয়েছে, মৃতের নাম বাদল দত্ত(৫২)। তিনি ওই গ্রামের বাসিন্দা ছিলেন।   ...

সংবাদদাতা, তারকেশ্বর: পশ্চিমবঙ্গ সরকারের মৎস্য দপ্তরের পক্ষ থেকে ৩৮ জন মাছচাষিকে সোমবার মাছ ও চুন বিতরণ করা হল।  ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

কর্মপ্রার্থীদের কর্মলাভ কিছু বিলম্ব হবে। প্রেম-ভালোবাসায় সাফল্য লাভ ঘটবে। বিবাহযোগ আছে। উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় থেকে ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৮৩৮: সমাজ সংস্কারক কেশবচন্দ্র সেনের জন্ম
১৮৭৭: কবি করুণানিধান বন্দ্যোপাধ্যায়ের জন্ম
১৯১৭: ভারতের তৃতীয় প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীর জন্ম
১৯২২: সঙ্গীতকার সলিল চৌধুরির জন্ম
১৯২৮: কুস্তিগীর ও অভিনেতা দারা সিংয়ের জন্ম
১৯৫১: অভিনেত্রী জিনাত আমনের জন্ম 





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.৮৪ টাকা ৭২.৫৪ টাকা
পাউন্ড ৯১.০৬ টাকা ৯৪.৩৪ টাকা
ইউরো ৭৭.৮৫ টাকা ৮০.৮১ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৮,৫৮০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬,৬০৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৭,১৫৫ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৪,৪০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৪,৫০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১৯ নভেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার, সপ্তমী ২৪/১১ দিবা ৩/৩৬। অশ্লেষা ৩৮/৩৮ রাত্রি ৯/২২। সূ উ ৫/৫৫/২২, অ ৪/৪৮/২৩, অমৃতযোগ দিবা ৬/৪০ মধ্যে পুনঃ ৭/২৩ গতে ১১/০ মধ্যে। রাত্রি ৭/২৬ গতে ৮/১৯ মধ্যে পুনঃ ৯/১১ গতে ১১/৪৯ মধ্যে পুনঃ ১/৩৪ গতে ৩/১৯ মধ্যে পুনঃ ৫/৫ গতে উদয়াবধি, বারবেলা ৭/১৬ গতে ৮/৩৮ মধ্যে পুনঃ ১২/৪৩ গতে ২/৫ মধ্যে, কালরাত্রি ৬/২৭ গতে ৮/৫ মধ্যে। 
২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১৯ নভেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার, সপ্তমী ১৯/২৬/৫২ দিবা ১/৪৩/৫৬। অশ্লেষা ৩৬/১/৪১ রাত্রি ৮/২১/৫১, সূ উ ৫/৫৭/১১, অ ৪/৪৮/১৯, অমৃতযোগ দিবা ৬/৫০ মধ্যে ও ৭/৩০ গতে ১১/৬ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/২৮ গতে ৮/২১ মধ্যে ও ৯/১৪ গতে ১১/৫৪ মধ্যে ও ১/৪১ গতে ৩/২৮ মধ্যে ও ৫/১৪ গতে ৫/৫৮ মধ্যে, বারবেলা ৭/১৮/৩৬ গতে ৮/৪০/১ মধ্যে, কালবেলা ১২/৪৩/১৫ গতে ২/৫/৪০ মধ্যে, কালরাত্রি ৬/২৭/৪ গতে ৮/৫/৪০ মধ্যে।
২১ রবিয়ল আউয়ল  

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
কোচবিহারে মদনমোহন মন্দিরে পুজো দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় 

18-11-2019 - 05:36:00 PM

খড়্গপুরের এসডিপিও সুকমল দাসকে সরিয়ে দিল নির্বাচন কমিশন 

18-11-2019 - 05:34:00 PM

হাসপাতালে ভর্তি নুসরত জাহান
অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হলেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী তথা সংসদ সদস্য ...বিশদ

18-11-2019 - 04:58:35 PM

কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে অপারেশন করা হয়েছে: মমতা 

18-11-2019 - 04:46:00 PM

মিথ্যে কথা বলা ছাড়া কোনও কাজ করছে না বিজেপি: মমতা 

18-11-2019 - 04:43:00 PM

৩ দলকেই বাংলা থেকে বিদায় নিতে হবে: মমতা 

18-11-2019 - 04:41:00 PM