Bartaman Patrika
চাষ আবাদ
 
 

হুগলির পুরশুড়ায় জাঁক দেওয়া পাটের আঁশ ছাড়াচ্ছেন চাষিরা। -নিজস্ব চিত্র 

পলিহাউসে বাহারি ক্যাপসিকাম চাষে ঝোঁক বাড়ছে 

ব্রতীন দাস: পলিহাউসে বাহারি ক্যাপসিকাম। বাজারে ভালো দাম মেলায় চাষে ঝোঁক বাড়ছে কৃষকদের। সেপ্টেম্বর থেকে চাষ শুরু করতে হয়। তিনমাসেই ফলন পাওয়া যায়। গাছ বাঁচিয়ে রাখতে পারলে মে মাস পর্যন্ত ফলন পাওয়া সম্ভব। ঠিকমতো পরিচর্যা করতে পারলে গোটা মরশুমে প্রতিটি গাছ থেকে গড়ে ১৫ কেজি করে ফলন পাওয়া যায় বলে জানিয়েছেন উদ্যানপালন বিশেষজ্ঞরা। লাল, হলুদ, সবুজ, কমলা, সাদা, বেগুনি নানা রঙের হয়ে থাকে ক্যাপসিকাম। ভিটামিন ও অ্যান্টি অক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ। সারাবছরই বাজারে চাহিদা থাকে। অনুষ্ঠানের মরশুমে এর দাম বাড়ে। এ রাজ্যে মূলত শীতকালীন ফসল হিসেবে ক্যাপসিকাম চাষ করা হয়ে থাকে। খোলা জমিতে চাষ করলে জানুয়ারি পর্যন্ত করা যায়। কিন্তু, পলিহাউসে তাপমাত্রা ও আর্দ্রতা নিয়ন্ত্রিত থাকে বলে আরও তিনমাস বেশি ফলন পাওয়া যায়। উদ্যানপালন বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, ৫০০ বর্গমিটার পলিহাউসে মাটির বেড তৈরি করে গড়ে এক হাজার চারা লাগানো যায়। প্লাস্টিকের ট্রে-তে মাটি ও জৈবসার মিশিয়ে তাতে বীজ বুনে চারা তৈরি করা যেতে পারে। প্রতি কেজি বীজে ৩ গ্রাম থাইরাম দিয়ে বীজ শোধন করতে হবে। গোবরসার ও ভার্মি কম্পোস্ট মিশিয়ে মাটি ভালো করে চেলে নিয়ে তার সঙ্গে ট্রাইকোডার্মা ভিরিডি যোগ করে মাটি শোধন করা যেতে পারে।
ক্যাপসিকামের বীজ মাটির ২ সেমি গভীরে পুঁতে উপরে ঝুরো মাটি দিয়ে ঢেকে দিতে হবে। তার পর হাল্কা জল স্প্রে করে খড় দিয়ে ঢেকে দিতে পারলে ভালো। এক সপ্তাহ পর চারা বেরতে দেখা যাবে। চারা বেরনোর পর খড় সরিয়ে মশারি দিয়ে ঢেকে দিতে পারলে ভালো। চারার গোড়া যাতে পচে না যায়, সেজন্য ব্যাভিস্টিন বা ডাইথেন ব্যাভিস্টিন মিশ্রণ ১ গ্রাম প্রতি লিটার জলে মিশিয়ে গাছে স্প্রে করতে হবে। চারার বয়স ১৬ দিন হলে ইমিডাক্লোপ্রিড ১ মিলি প্রতি লিটার জলে মিশিয়ে আঠা সহযোগে স্প্রে করতে হবে। এতে সাদামাছির আক্রমণ ঠেকানো যায়। ফলে ভাইরাসঘটিত পাতা কোঁকড়ানো রোগের আশঙ্কা কমে। ক্যাপসিকামের এটিই অন্যতম রোগ। এই রোগে গাছের পাতা লঙ্কার মতো কুঁকড়ে যায়। সাদা মাছি ওই ভাইরাসের বাহক। একবার এই রোগের আক্রমণ হলে তখন আর কিছু করার থাকে না। ফলে আগে থেকে ব্যবস্থা নিতে হবে।
বিধানচন্দ্র কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক দীপক ঘোষ জানিয়েছেন, তাঁরা ক্যাপসিকামের বিভিন্ন জাতের মধ্যে সংকরায়ণ ঘটাচ্ছেন। এতে ক্যাপসিকামের রং ও আকার আরও ভালো হচ্ছে। বাগান বিলাসিরা টবেও ক্যাপসিকাম ফলাতে পারেন। তবে সাদামাছির আক্রমণ রুখতে বিশেষ ব্যবস্থা নিতে হবে। ক্যাপসিকামের চারার বয়স ১৫ দিন হলে অ্যামোনিয়াম ফসফেট ৩ গ্রাম প্রতি লিটার জলে গুলে স্প্রে করতে পারলে শিকড় ও গাছের স্বাস্থ্য ভালো হয়। একমাস বয়সের চারা ৩-৪টি পাতা হলে তখন ওই চারা মূল জমিতে বসানো উচিত। হলুদ রঙের ক্যাপসিকামের উন্নত জাতগুলি হল, অ্যাঞ্জেল, গোল্ডেন ইয়েলো, অর্কা গৌরব, ইয়েলো ওয়ান্ডার। লাল রঙের ক্যাপসিকামের উন্নত জাত, অদিতি, আশা, ক্যালিফোর্নিয়া ওয়ান্ডার। কমলা রঙের ক্যাপসিকামের উন্নত জাত, কালার-৮, আইএসপি-৭। বেগুনি রঙের ক্যাপসিকামের জাত নিকিতা। কালো রঙের ক্যাপসিকামের জাত স্পিনাজ। সাদা রঙের ক্যাপসিকামের জাত কালার-৬, কালার-৭।
পলিহাউসে প্রথমে বেড তৈরি করতে হবে। বেডে মাটি ফরমালিন দিয়ে শোধন করে নেওয়া উচিত। ১ লিটার জলে ৪০ মিলি ফরমালিন মেশাতে হবে। মাটি শোধনের পর পলিথিন দিয়ে ঢেকে দিতে হবে। মাটি থেকে ১৫ সেমি উঁচু হতে হবে বেড। চওড়া হবে ১০০ সেমি। প্রয়োজনমতো বেড লম্বা করা যেতে পারে। একটি বেড থেকে অন্য বেডের দূরত্ব হবে ৪৫ সেমি। একই বেডে দু’টি গাছের মধ্যে দূরত্ব হবে ৫০ সেমি। ড্রিপ ইরিগেশনের ব্যবস্থা থাকলে ভালো। চারা বসানোর সময় সামান্য ঠাণ্ডার প্রয়োজন। চারা লাগানোর সময় গাছ প্রতি ১০ গ্রাম ইউরিয়া, ২৫ গ্রাম সিঙ্গল সুপার ফসফেট ও ২০ গ্রাম মিউরিয়েট অফ পটাশ দিতে হবে।
একমাস পর একইমাত্রায় প্রথম চাপান দিতে হবে। ৮০ দিন পর গাছ প্রতি ১০ গ্রাম ইউরিয়া দিতে হবে দ্বিতীয় চাপান হিসেবে। চারার গোড়ার দিকের কিছু পাতা ফেলে দিতে হবে। প্লানোফিক্স প্রয়োগে গাছে প্রচুর ফুল আসে এবং ফল ধরতে সাহায্য করে। ফুল ঝরা ঠেকাতে দু’সপ্তাহ অন্তর দু’বার ২৫ পিপিএম জিএ বা ৫০ পিপিএম এনএএ হরমোন প্রয়োগ করা যেতে পারে। ঠিকমতো পরিচর্যা করতে পারলে একটি ক্যাপসিকামের ওজন ৩৫০ গ্রাম হতে পারে। খোলা জমিতে বিঘা প্রতি ১০-১২ কুইন্টাল ফলন পাওয়া যায়।
কিন্তু, পলিহাউসে বিঘায় প্রায় ৩০ কুইন্টাল ফলন মিলতে পারে। চারা রোপণের পর ল্যাদাপোকার আক্রমণ হতে পারে। এই পোকা গাছের পাতা খেয়ে নেয়। কেরোসিন মেশানো ছাই গাছের গোড়ায় দিতে হবে। কার্বারিল ২ গ্রাম, প্রতি লিটার জলে গুলে স্প্রে করলে সুফল মিলবে। সাদামাছির আক্রমণ রুখতে চারা রোপণের তিন দিন আগে ইমিডাক্লোপ্রিড ১ মিলি, ৩ লিটার জলে গুলে স্প্রে করতে হবে। রোপণের ১০ দিন পর ১ মিলি ইমিডাক্লোপ্রিড, ১ লিটার জলে গুলে বা ১ মিলি ফিপ্রোনিল ১ লিটার জলে গুলে স্প্রে করা যেতে পারে। আঠা লাগানো রঙিন বোর্ড পলিহাউসে ঝুলিয়ে রাখলে জাবপোকা বা সাদামাছির আক্রমণ অনেকটা রোধ করা যায়।  

18th  September, 2019
কলাই চাষের প্রস্তুতি নিতে হবে এখনই 

খরিফ ফসল হিসেবে কলাইয়ের চাষ করার জন্য এখন থেকেই প্রস্তুতি নিতে হবে। বাজারে কলাইয়ের চাহিদা ও দাম ভালোই থাকে। ফলে চাষিরা এই ফসলটি চাষ করলে ভালো লাভ পেতে পারেন।
বিশদ

রানাঘাটে বৃষ্টি ও লকডাউনের জোড়া ফলায় ক্ষতি গাঁদা চাষের 

রানাঘাটে বৃষ্টি এবং লকডাউনের জোড়া ফলায় ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে গাঁদা ফুল চাষে। একে তো চাহিদা না থাকায় এখানকার বিভিন্ন বাজারে ফুল পচে নষ্ট হচ্ছে, তার উপরে গত কয়েকদিন ধরে জেলার বিভিন্ন প্রান্তে নিয়মিত বৃষ্টিপাত হচ্ছে।  
বিশদ

কম খরচে তুলসী চাষে প্রচুর লাভ
কোচবিহারে হচ্ছে ‘তুলসী গ্রাম’, উদ্যোগী রাজ্য সরকার

করোনা পরিস্থিতিতে এখন রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধির উপরেই সবচেয়ে বেশি জোর দেওয়া হচ্ছে। আর এক্ষেত্রে তুলসীর জুড়ি মেলা ভার। কম খরচে তুলসী চাষ করে ভালো টাকা লাভ পেতে পারেন কৃষক।
বিশদ

আপেল বাগান তৈরি করে তাক লাগাল মুর্শিদাবাদ 

নবাবের জেলার হিমসাগর আম বহু আগেই রাজ্যে আলাদা জায়গা তৈরি করে নিয়েছে। এবার এখানকার মাটিতে ফলবে আপেলও। প্রশাসনিক উদ্যোগে সাগরদিঘিতে তৈরি হয়েছে আপেল বাগান।  বিশদ

মাছের ভালো উৎপাদন পেতে জলের
সঠিক লবণাক্ততা বজায় রাখা জরুরি 

নবজ্যোতি সরকার: উম-পুন ঘূর্ণিঝড়ে দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার মাছ চাষ মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। সেই ধাক্কা সামলে মৎস্যচাষিরা যাতে ঘুরে দাঁড়াতে পারেন, সেজন্য জলের লবণাক্ততা মেপে মাছ চাষে বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছে জেলা মৎস্য দপ্তর। 
বিশদ

29th  July, 2020
উষ্ণায়ন রোধে আসানসোলে অভিনব উদ্যোগ
সরকারি ও বেসরকারি ভবনের ছাদে বাগান, সব্জি চাষের ভাবনা 

নিজস্ব প্রতিনিধি, আসানসোল: শিল্পাঞ্চলে উষ্ণায়ন কমানো ও সুস্থ প্রকৃতি গড়ে তুলতে বিদেশের ধাঁচে সরকারি, বেসরকারি ভবনের ছাদে বাগান ও সব্জি চাষের উদ্যোগ নিচ্ছে প্রশাসন। গ্রিন রুফ প্রজেক্ট নামে এই অভিনব প্রকল্প চালু করার জন্য আসানসোলের মহকুমা শাসক ইতিমধ্যেই চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিগুলির সঙ্গে প্রাথমিক আলোচনা করেছেন।  
বিশদ

29th  July, 2020
পাট পচানোর নয়া প্রযুক্তিতে সময় কম লাগবে, বাড়বে তন্তুর মান, বলছেন কৃষি বিজ্ঞানীরা 

ব্রতীন দাস: জোরকদমে চলছে জমিতে পাট কাটার কাজ। সেইসঙ্গে পাট পচানোর কাজেও এখন ব্যস্ত কৃষকরা। বহু কৃষক এখনও পাট পচানোর ক্ষেত্রে চিরাচরিত পদ্ধতি অবলম্বন করে থাকেন। জলাশয়ে পাটের বান্ডিলের উপর তাঁরা কাদা কিংবা কলাগাছ দিয়ে চাপা দেন। এতে পাটের তন্তুর মান খারাপ হয়ে যায়। সেই তন্তু বিক্রি করে কৃষক সেভাবে দাম পান না। 
বিশদ

22nd  July, 2020
জেলায় এবার হয়েছে ভালো বৃষ্টি
পুরুলিয়ায় আমন চাষে আশা দেখছেন চাষিরা 

পবিত্র ত্রিবেদী, পুরুলিয়া: করোনা পরিস্থিতিতে কৃষিকাজে আশার আলো দেখছে পুরুলিয়া জেলা। রুক্ষ লাল মাটিতে বৃষ্টির উপর এ জেলায় বর্ষায় ধান লাগানো নির্ভর করে। গতবছর পর্যাপ্ত বৃষ্টি না হওয়ায় খানিকটা মার খেয়েছিল আমন ধানের চাষ। কিন্তু, এবার এখনও পর্যন্ত যা বৃষ্টিপাতের প্রবণতা, তাতে কৃষকদের মুখে হাসি ফুটেছে।  
বিশদ

22nd  July, 2020
সয়াবিন চাষ করে লাভ ঘরে তুলতে পারেন চাষিরা 

অলোক বন্দ্যোপাধ্যায় : সয়াবিনের চাষ করে চাষিরা ভালো আর্থিক লাভ পেতে পারেন। কারণ, বাজারে সয়াবিনের চাহিদা বছরের সবসময়ই থাকে। সেইসঙ্গে ভালো দামেই বিক্রি হয়। দামের খুব একটা হেরফের হয় না।সে কারণে কৃষি বিশেষজ্ঞরা চাষিদের প্রচলিত চাষের পাশাপাশি সয়াবিন চাষ করার সুপারিশ করছেন। 
বিশদ

22nd  July, 2020
এবার ঝুঁকি নিয়ে আমন চাষ করছেন ভরতপুরের চাষিরা 

সংবাদদাতা, কান্দি: বাঁধের অবস্থা খারাপ। তবুও ঝুঁকি নিয়েই আমন চাষ করছেন ভরতপুর ১ ব্লকের আমলাই পঞ্চায়েত এলাকার চাষিরা। এলাকার নোনাই নদীর গর্দনমারা বাঁধের দীর্ঘদিন মেরামতি না হওয়ায় চাষিদের ক্ষোভ বাড়ছে। এলাকার বাসিন্দারা সম্প্রতি ভরতপুর ১ বিডিওকে বাঁধ মেরামতির আবেদন করেছেন।   বিশদ

22nd  July, 2020
বায়োফ্লক পদ্ধতিতে মাছ চাষে আগ্রহ বাড়ছে শিলিগুড়িতে 

নিজস্ব প্রতিনিধি, শিলিগুড়ি: শিলিগুড়ির গ্রামীণ এলাকায় ক্রমেই জনপ্রিয় হচ্ছে বায়োফ্লক পদ্ধতিতে মাছ চাষ। মহকুমার নকশালবাড়ি, খড়িবাড়ি, ফাঁসিদেওয়া প্রভৃতি এলাকায় এই চাষ ক্রমেই জনপ্রিয় হচ্ছে। এই পদ্ধতিতে বাড়ির মধ্যেই চৌবাচ্চা বানিয়ে ট্যাংরা, সিঙি, কই প্রভৃতি মাছের চাষ করা হয়ে থাকে। 
বিশদ

21st  July, 2020
লাগানো হবে দেড় লক্ষ চারা
বাঁকুড়ায় ৪২৫ হেক্টর পতিত জমিতে তৈরি করা হবে ফলের বাগান 

অরূপ ভট্টাচার্য, বাঁকুড়া: গত কয়েক বছরে বাঁকুড়া জেলায় আম, মোসাম্বি, পেয়ারা, বেদানা ও কুলের চাষ করে লাভের মুখ দেখেছেন চাষিরা। তাই বর্ষার মরশুমে জেলায় চাষের অযোগ্য ৪২৫ হেক্টর পতিত জমিতে প্রায় দেড় লক্ষ চারা লাগিয়ে ফলের বাগান তৈরি করবে জেলা প্রশাসন। 
বিশদ

15th  July, 2020
কেঁচো সার তৈরি করে বিক্রি করবে মন্তেশ্বরের পিপলন পঞ্চায়েত 

অনিমেষ মণ্ডল, পূর্বস্থলী: মন্তেশ্বরের পিপলন পঞ্চায়েতের উদ্যোগে চলছে ভার্মি কম্পোষ্ট বা কেঁচো সার তৈরির প্রস্তুতি। প্রতি মাসে ১০ টন সার তৈরির লক্ষ্যমাত্রা নেওয়া হয়েছে। প্রথম পর্যায়ে ব্লকের প্রতিটি পঞ্চায়েতকে ওই সার বিক্রি করা হবে বলে ব্লক প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে। 
বিশদ

15th  July, 2020
ঘুরে দাঁড়াতে জৈব পদ্ধতিতে ভরসা রাখছেন পান চাষিরা 

নবজ্যোতি সরকার: উম-পুন ঘূর্ণিঝড়ে মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে দক্ষিণ সুন্দরবন এলাকার পান চাষ। দক্ষিণ ২৪ পরগনার কাকদ্বীপ, নামখানা, পাথরপ্রতিমা ও সাগরদ্বীপের হাজার হাজার পান বরজ নষ্ট হয়ে গিয়েছে। 
বিশদ

15th  July, 2020

Pages: 12345

একনজরে
মার্কিন মুলুকে খুন হলেন ভারতীয় বংশোদ্ভূত বাঙালি মহিলা গবেষক। তাঁর নাম শর্মিষ্ঠা সেন (৪৩)। শনিবার জগিংয়ে গিয়ে খুন হন তিনি। পুলিস সূত্রে খবর, তিনি টেক্সাসের ...

সংবাদদাতা, রানাঘাট: প্রতি বছর এই সময় নাওয়া খাওয়ার ফুরসত মেলে না। মহাজনের আর দোকানদারদের তাড়ায় অস্থির হতে হতো। কথা রাখতে রাতদিন বুনতে হতো শাড়ি। মাকুর ...

সংবাদদাতা, রায়গঞ্জ: এবছর স্বাধীনতা দিবসে রায়গঞ্জের ঘড়ি মোড় এলাকায় ১০৫ ফুট উঁচু স্তম্ভের সঙ্গে আকাশে উড়বে জাতীয় পতাকা। সেজন্য ইতিমধ্যেই প্রায় সমস্ত প্রস্তুতি শেষ করে ফেলা হয়েছে। মঙ্গলবার শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি খতিয়ে দেখতে ঘড়ি মোড় এলাকায় পরিদর্শন করলেন রায়গঞ্জ পুরসভার ...

লকডাউনের জন্য প্রায় তিন মাস নিকাশিনালা থেকে পলি তোলার কাজ করা যায়নি। বৃষ্টির জন্য তা ফের বন্ধ হলে হাওড়াবাসীর সমস্যা বাড়তে পারে। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

কর্মপ্রার্থীদের কোনও সুখবর আসতে পারে। কর্মক্ষেত্রে পদোন্নতির সূচনা। গুপ্তশত্রু থেকে সাবধান। নতুন কোনও প্রকল্পের জন্য ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৭৭৫ - বৃটিশ ভারতে কর কর্মকর্তা মহারাজা নন্দকুমারের মৃত্যু
১৯৩০ -মার্কিন নভোচারী তথা প্রথম মানুষ, যিনি চাঁদে অবতরণ করেন নীল আর্মস্ট্রংয়ের জন্ম
১৯৩১: অভিনেত্রী গীতা দে’র জন্ম
১৯৬২: অভিনেত্রী মেরিলিন মনরোর মৃত্যু
১৯৬৯: প্রাক্তন ক্রিকেটার বেঙ্কটেশ প্রসাদের জন্ম
১৯৭৪: অভিনেত্রী কাজলের জন্ম
২০০০: ক্রিকেটার লালা অমরনাথের মৃত্যু



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭৪.৩৮ টাকা ৭৬.১০ টাকা
পাউন্ড ৯৬.৬৯ টাকা ১০০.০৭ টাকা
ইউরো ৮৬.৯৫ টাকা ৯০.১৪ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৫৪,৬৭০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৫১,৮৭০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৫২,৬৫০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৬৫,০৮০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৬৫,১৮০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

২০ শ্রাবণ ১৪২৭, বুধবার, ৫ আগস্ট ২০২০, দ্বিতীয়া ৪৪/৩ রাত্রি ১০/৫১। ধনিষ্ঠানক্ষত্র ১০/৪২ দিবা ৯/৩০। সূর্যোদয় ৫/১৩/২৬, সূর্যাস্ত ৬/১১/৪২। অমৃতযোগ দিবা ৬/৫৭ মধ্যে পুনঃ ৯/৩২ গতে ১১/১৭ মধ্যে পুনঃ ৩/৩৭ গতে ২/২১ মধ্যে। রাত্রি ৬/৫৭ গতে ৯/৯ মধ্যে পুনঃ ১/৩২ গতে উদয়াবধি। মাহেন্দ্রযোগ দিবা ১/৫৩ গতে ৩/৩৭ মধ্যে, রাত্রি ৯/৯ গতে ১০/৩৬ মধ্যে। বারবেলা ৮/২৮ গতে ১০/৫ মধ্যে পুনঃ ১১/৪২ গতে ১/১৯ মধ্যে। কালরাত্রি ২/২৮ গতে ৩/৫১ মধ্যে।
২০ শ্রাবণ ১৪২৭, বুধবার, ৫ আগস্ট ২০২০, দ্বিতীয়া রাত্রি ৯/৪৮। ধনিষ্ঠানক্ষত্র দিবা ৯/৪০। সূর্যোদয় ৫/১২, সূর্যাস্ত ৬/১৪। অমৃতযোগ দিবা ৭/০ মধ্যে ও ৯/৩২ গতে ১১/১৪ মধ্যে ও ৩/২৮ গতে ৫/১০ মধ্যে এবং রাত্রি ৬/৪৬ গতে ৯/১ মধ্যে ও ১/৩২ গতে ৫/১৩ মধ্যে। মাহেন্দ্রযোগ দিবা ১/৪৬ গতে ৩/২৮ মধ্যে এবং রাত্রি ৯/১ গতে ১০/৩১ মধ্যে। কালবেলা ৮/২৮ গতে ১০/৬ ও ১১/৪৩ গতে ১/২১ মধ্যে। কালরাত্রি ২/২৮ গতে ৩/৫০ মধ্যে।
১৪ জেলহজ্জ

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
রুপোর প্রধান শিলা সহ মোট ৯টি শিলার পুজো করলেন প্রধানমন্ত্রী 

01:13:04 PM

ভূমিপুজোর অনুষ্ঠান সমাপ্ত করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি

01:07:44 PM

সুশান্ত মৃত্যুর সিবিআই তদন্তের সুপারিশ গ্রহণ করল কেন্দ্র 
বিহার সরকারের সুপারিশ মেনে অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যু রহস্য ...বিশদ

12:18:32 PM

অযোধ্যায় রাম জন্মভূমিতে শুরু হল ভূমিপুজোর অনুষ্ঠান
অযোধ্যায় রাম জন্মভূমিতে শুরু হল ভূমিপুজোর অনুষ্ঠান। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ...বিশদ

12:18:00 PM

অযোধ্যায় হনুমানগড়িতে পুজো দেওয়ার পর রামলালা দর্শন করলেন প্রধানমন্ত্রী 

12:08:00 PM

অযোধ্যায় হনুমানগড়ি থেকে বেরিয়ে রামলালার পথে প্রধানমন্ত্রী 

12:02:35 PM