Bartaman Patrika
চাষ আবাদ
 

পলিহাউসে বাহারি ক্যাপসিকাম চাষে ঝোঁক বাড়ছে 

ব্রতীন দাস: পলিহাউসে বাহারি ক্যাপসিকাম। বাজারে ভালো দাম মেলায় চাষে ঝোঁক বাড়ছে কৃষকদের। সেপ্টেম্বর থেকে চাষ শুরু করতে হয়। তিনমাসেই ফলন পাওয়া যায়। গাছ বাঁচিয়ে রাখতে পারলে মে মাস পর্যন্ত ফলন পাওয়া সম্ভব। ঠিকমতো পরিচর্যা করতে পারলে গোটা মরশুমে প্রতিটি গাছ থেকে গড়ে ১৫ কেজি করে ফলন পাওয়া যায় বলে জানিয়েছেন উদ্যানপালন বিশেষজ্ঞরা। লাল, হলুদ, সবুজ, কমলা, সাদা, বেগুনি নানা রঙের হয়ে থাকে ক্যাপসিকাম। ভিটামিন ও অ্যান্টি অক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ। সারাবছরই বাজারে চাহিদা থাকে। অনুষ্ঠানের মরশুমে এর দাম বাড়ে। এ রাজ্যে মূলত শীতকালীন ফসল হিসেবে ক্যাপসিকাম চাষ করা হয়ে থাকে। খোলা জমিতে চাষ করলে জানুয়ারি পর্যন্ত করা যায়। কিন্তু, পলিহাউসে তাপমাত্রা ও আর্দ্রতা নিয়ন্ত্রিত থাকে বলে আরও তিনমাস বেশি ফলন পাওয়া যায়। উদ্যানপালন বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, ৫০০ বর্গমিটার পলিহাউসে মাটির বেড তৈরি করে গড়ে এক হাজার চারা লাগানো যায়। প্লাস্টিকের ট্রে-তে মাটি ও জৈবসার মিশিয়ে তাতে বীজ বুনে চারা তৈরি করা যেতে পারে। প্রতি কেজি বীজে ৩ গ্রাম থাইরাম দিয়ে বীজ শোধন করতে হবে। গোবরসার ও ভার্মি কম্পোস্ট মিশিয়ে মাটি ভালো করে চেলে নিয়ে তার সঙ্গে ট্রাইকোডার্মা ভিরিডি যোগ করে মাটি শোধন করা যেতে পারে।
ক্যাপসিকামের বীজ মাটির ২ সেমি গভীরে পুঁতে উপরে ঝুরো মাটি দিয়ে ঢেকে দিতে হবে। তার পর হাল্কা জল স্প্রে করে খড় দিয়ে ঢেকে দিতে পারলে ভালো। এক সপ্তাহ পর চারা বেরতে দেখা যাবে। চারা বেরনোর পর খড় সরিয়ে মশারি দিয়ে ঢেকে দিতে পারলে ভালো। চারার গোড়া যাতে পচে না যায়, সেজন্য ব্যাভিস্টিন বা ডাইথেন ব্যাভিস্টিন মিশ্রণ ১ গ্রাম প্রতি লিটার জলে মিশিয়ে গাছে স্প্রে করতে হবে। চারার বয়স ১৬ দিন হলে ইমিডাক্লোপ্রিড ১ মিলি প্রতি লিটার জলে মিশিয়ে আঠা সহযোগে স্প্রে করতে হবে। এতে সাদামাছির আক্রমণ ঠেকানো যায়। ফলে ভাইরাসঘটিত পাতা কোঁকড়ানো রোগের আশঙ্কা কমে। ক্যাপসিকামের এটিই অন্যতম রোগ। এই রোগে গাছের পাতা লঙ্কার মতো কুঁকড়ে যায়। সাদা মাছি ওই ভাইরাসের বাহক। একবার এই রোগের আক্রমণ হলে তখন আর কিছু করার থাকে না। ফলে আগে থেকে ব্যবস্থা নিতে হবে।
বিধানচন্দ্র কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক দীপক ঘোষ জানিয়েছেন, তাঁরা ক্যাপসিকামের বিভিন্ন জাতের মধ্যে সংকরায়ণ ঘটাচ্ছেন। এতে ক্যাপসিকামের রং ও আকার আরও ভালো হচ্ছে। বাগান বিলাসিরা টবেও ক্যাপসিকাম ফলাতে পারেন। তবে সাদামাছির আক্রমণ রুখতে বিশেষ ব্যবস্থা নিতে হবে। ক্যাপসিকামের চারার বয়স ১৫ দিন হলে অ্যামোনিয়াম ফসফেট ৩ গ্রাম প্রতি লিটার জলে গুলে স্প্রে করতে পারলে শিকড় ও গাছের স্বাস্থ্য ভালো হয়। একমাস বয়সের চারা ৩-৪টি পাতা হলে তখন ওই চারা মূল জমিতে বসানো উচিত। হলুদ রঙের ক্যাপসিকামের উন্নত জাতগুলি হল, অ্যাঞ্জেল, গোল্ডেন ইয়েলো, অর্কা গৌরব, ইয়েলো ওয়ান্ডার। লাল রঙের ক্যাপসিকামের উন্নত জাত, অদিতি, আশা, ক্যালিফোর্নিয়া ওয়ান্ডার। কমলা রঙের ক্যাপসিকামের উন্নত জাত, কালার-৮, আইএসপি-৭। বেগুনি রঙের ক্যাপসিকামের জাত নিকিতা। কালো রঙের ক্যাপসিকামের জাত স্পিনাজ। সাদা রঙের ক্যাপসিকামের জাত কালার-৬, কালার-৭।
পলিহাউসে প্রথমে বেড তৈরি করতে হবে। বেডে মাটি ফরমালিন দিয়ে শোধন করে নেওয়া উচিত। ১ লিটার জলে ৪০ মিলি ফরমালিন মেশাতে হবে। মাটি শোধনের পর পলিথিন দিয়ে ঢেকে দিতে হবে। মাটি থেকে ১৫ সেমি উঁচু হতে হবে বেড। চওড়া হবে ১০০ সেমি। প্রয়োজনমতো বেড লম্বা করা যেতে পারে। একটি বেড থেকে অন্য বেডের দূরত্ব হবে ৪৫ সেমি। একই বেডে দু’টি গাছের মধ্যে দূরত্ব হবে ৫০ সেমি। ড্রিপ ইরিগেশনের ব্যবস্থা থাকলে ভালো। চারা বসানোর সময় সামান্য ঠাণ্ডার প্রয়োজন। চারা লাগানোর সময় গাছ প্রতি ১০ গ্রাম ইউরিয়া, ২৫ গ্রাম সিঙ্গল সুপার ফসফেট ও ২০ গ্রাম মিউরিয়েট অফ পটাশ দিতে হবে।
একমাস পর একইমাত্রায় প্রথম চাপান দিতে হবে। ৮০ দিন পর গাছ প্রতি ১০ গ্রাম ইউরিয়া দিতে হবে দ্বিতীয় চাপান হিসেবে। চারার গোড়ার দিকের কিছু পাতা ফেলে দিতে হবে। প্লানোফিক্স প্রয়োগে গাছে প্রচুর ফুল আসে এবং ফল ধরতে সাহায্য করে। ফুল ঝরা ঠেকাতে দু’সপ্তাহ অন্তর দু’বার ২৫ পিপিএম জিএ বা ৫০ পিপিএম এনএএ হরমোন প্রয়োগ করা যেতে পারে। ঠিকমতো পরিচর্যা করতে পারলে একটি ক্যাপসিকামের ওজন ৩৫০ গ্রাম হতে পারে। খোলা জমিতে বিঘা প্রতি ১০-১২ কুইন্টাল ফলন পাওয়া যায়।
কিন্তু, পলিহাউসে বিঘায় প্রায় ৩০ কুইন্টাল ফলন মিলতে পারে। চারা রোপণের পর ল্যাদাপোকার আক্রমণ হতে পারে। এই পোকা গাছের পাতা খেয়ে নেয়। কেরোসিন মেশানো ছাই গাছের গোড়ায় দিতে হবে। কার্বারিল ২ গ্রাম, প্রতি লিটার জলে গুলে স্প্রে করলে সুফল মিলবে। সাদামাছির আক্রমণ রুখতে চারা রোপণের তিন দিন আগে ইমিডাক্লোপ্রিড ১ মিলি, ৩ লিটার জলে গুলে স্প্রে করতে হবে। রোপণের ১০ দিন পর ১ মিলি ইমিডাক্লোপ্রিড, ১ লিটার জলে গুলে বা ১ মিলি ফিপ্রোনিল ১ লিটার জলে গুলে স্প্রে করা যেতে পারে। আঠা লাগানো রঙিন বোর্ড পলিহাউসে ঝুলিয়ে রাখলে জাবপোকা বা সাদামাছির আক্রমণ অনেকটা রোধ করা যায়।  

18th  September, 2019
খরিফে লাল-কাঁকুরে মাটিতে
চিনাবাদাম চাষে ভালোই লাভ

নিজস্ব প্রতিনিধি: রাজ্যের পশ্চিমাঞ্চলে লাল-কাঁকুরে মাটিতে চিনাবাদাম চাষ করে লাভের মুখ দেখতে পারেন কৃষকরা। এপ্রিলের শুরুতেই চিনাবাদাম চাষের প্রস্তুতি নিতে হবে। গত বছর পুরুলিয়ার নিতুড়িয়া ব্লকে চিনাবাদাম চাষ করে সাফল্য পেয়েছেন চাষিরা। ফলে এবছরও তাঁরা এই চাষে আগ্রহী। এপ্রিলের প্রথমে চিনাবাদাম বুনলে জুলাইয়ে ফসল উঠে যাবে। 
বিশদ

18th  March, 2020
এপ্রিলে বুনুন বেবিকর্নের বীজ
চাষে বাড়ছে ঝোঁক, মিলবে দাম  

নিজস্ব প্রতিনিধি: সারা বছর ধরেই বেবিকর্ন চাষ করা যায়। তবে চাষিরা জানুয়ারি থেকে অক্টোবর পর্যন্ত এই ফসলটি বুনে থাকেন। এপ্রিল-মে মাসে বেবিকর্ন বুনলে ভালো ফলন পাওয়া যায়। কৃষি বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, জল জমে না এমন জমিতে বেবিকর্ন চাষ করতে হবে। বেলে-দোঁয়াশ মাটি এই ফসলটি চাষের জন্য উপযুক্ত।
বিশদ

18th  March, 2020
কাঁথিতে সূর্যমুখী চাষে উৎসাহ বাড়ছে কৃষকদের 

রঞ্জন পাল, কাঁথি: কাঁথি মহকুমা এলাকায় সূর্যমুখী চাষে চাষিদের মধ্যে উৎসাহ বাড়ছে। মহকুমায় ১৫০ একরের কিছু বেশি জায়গা জুড়ে সূর্যমুখী চাষ হয়। কৃষি দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, মহকুমার কাঁথি-৩, খেজুরি-১ ও ২ ব্লক, রামনগর-১ ও ২ ব্লকে বেশি সূর্যমুখী চাষ হয়। এছাড়া কাঁথির দেশপ্রাণ ব্লক ও কাঁথি-১ ব্লকেও কিছু কিছু জায়গায় সূর্যমুখী চাষ হয়। 
বিশদ

18th  March, 2020
রানাঘাটে গোলাপের পাতা, কুঁড়ি ও ফুল শুকিয়ে যাচ্ছে 

নবজ্যোতি সরকার: রানাঘাট ২ নম্বর ব্লকের নোকাড়ি, কামালপুর, মাঝেরগ্রাম, দেবগ্রাম গ্রাম পঞ্চায়েতের গোলাপ ফুল চাষিরা ব্যাপক সমস্যায় পড়েছেন। গোলাপ চারার পাতা কুঁকড়ে যাচ্ছে। কুঁড়ি ও ফুলের সাইজ ছোট হয়ে যাচ্ছে। ফুলের সুগন্ধও নষ্ট হচ্ছে।  বিশদ

18th  March, 2020
বোরো ধানে জোর দিতে হবে রোগপোকা দমনে 

অলোক বন্দ্যোপাধ্যায়: বোরো ধানে ভালো ফলন পেতে সুসংহত উপায়ে ধানের রোগপোকা নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। বোরো মরশুমে ধান গাছ নানা রোগ দ্বারা আক্রান্ত হয়। এতে ফলন খুবই কমে যায়। বোরো ধানের রোগগুলির মধ্যে ঝলসা, খোলাপচা, ধসা, বাদামি চিটে, ব্যাকটেরিয়া জনিত ধসা এবং টুংরো রোগ অত্যন্ত ক্ষতিকারক। 
বিশদ

18th  March, 2020
রাত হলেই নারকেল গাছের পাতায় সাদা দাগ
জেলায় জেলায় সাদা মাছির আক্রমণ, বলছেন কৃষি বিশেষজ্ঞরা

ব্রতীন দাস: করোনা আতঙ্কের মধ্যেই রাতেরবেলা নারকেল গাছের পাতায় সাদা দাগ দেখা যাওয়া নিয়ে গ্রাম-বাংলায় উদ্বেগ ছড়িয়েছে। দেখা যাচ্ছে, গাছের সবুজ পাতা পুরো সাদা হয়ে যাচ্ছে। অনেক জায়গায় আবার নারকেল গাছের গোড়ায় সাদা গুড়ো জমে থাকতেও দেখা যাচ্ছে। 
বিশদ

18th  March, 2020
নয়াগ্রামের ব্রাউন রাইস মিলবে বিশ্ব বাংলার স্টলে 

রঞ্জন পাল, ঝাড়গ্রাম: ঝাড়গ্রাম জেলার প্রত্যন্ত নয়াগ্রাম ব্লকের স্বনির্ভর দলের মহিলাদের উৎপাদন করা ব্রাউন রাইস এবার মিলবে বিশ্ব বাংলার স্টলে। দিল্লি, কলকাতা, দার্জিলিং, বাগডোগরা এয়ারপোর্ট, কলকাতার পার্ক স্ট্রিট, ঢাকুরিয়া, নিউটাউন, রাজারহাটে বিশ্ব বাংলার স্টলে ওই চাল পাওয়া যাবে। সম্পূর্ণ জৈব উপায়ে ওই চাল তৈরি হচ্ছে। রাসায়নিক সারমুক্ত এই ব্রাউন রাইস।  বিশদ

11th  March, 2020
জামালপুরে সরকারি উদ্যোগেই নেদারল্যান্ডের গ্লাডিওলাস চাষ 

মণীন্দ্রনারায়ণ সিংহ, বর্ধমান: পূর্ব বর্ধমান জেলা উদ্যানপালন দপ্তরের সহযোগিতায় জামালপুর ব্লকের জোতশ্রীরাম গ্রাম পঞ্চায়েতের অমরপুর গ্রামে এবার প্রথম বাণিজ্যিক ভিত্তিতে নেদারল্যান্ডের গ্লাডিওলাস ফুলের চাষ হয়েছে।  বিশদ

11th  March, 2020
অজানা রোগে বিঘার পর বিঘা জমির গোলাপ চাষ ক্ষতিগ্রস্ত 

হরিহর ঘোষাল, মেদিনীপুর: অজানা রোগের প্রকোপে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলায় বিঘার পর বিঘা জমিতে গোলাপ চাষ ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। রোগ প্রতিরোধে চাষিদের পক্ষ থেকে গোলাপ গাছে নানা ধরনের ওষুধ দেওয়া হচ্ছে।  বিশদ

11th  March, 2020
বাঁধাকপিতে হীরক পীঠ মথ 

সংবাদদাতা: বাঁধাকপিতে হীরক পীঠ মথের আক্রমণে ফলন কমতে পারে। বাঁধাকপি ছাড়াও ফুলকপি, ব্রোকলি, চিনা বাঁধাকপি, লাল বাঁধাকপিতে এর আক্রমণ হতে পারে।  বিশদ

11th  March, 2020
ফসল রক্ষায় ঠেকাতে
হবে ইঁদুরের আক্রমণ 

সংবাদদাতা: ফসল উৎপাদনের পর চাষিরা উৎপাদিত ফসল বস্তায়, বড় ড্রাম অথবা খড়ের বেড়িতে গুদামজাত করেন। কিন্তু ইঁদুরের আক্রমণে প্রায় ১০-১৫ শতাংশ ফসল নষ্ট হয়ে যায়। ফলে চাষিদের আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়তে হয়।   বিশদ

11th  March, 2020
লিচুতে ভালো ফলন পেতে বিজ্ঞান সম্মত পরিচর্যার প্রয়োজন 

নবজ্যোতি সরকার: এ বছর প্রাকৃতিক কারণেই বারুইপুরের বিভিন্ন লিচু বাগানে প্রচুর ফুল এসেছে। চাষিরা জানিয়েছেন, ফুলের সংখ্যা বাড়াতে এন ট্রায়াকন্টানল ০.৫ মিলি প্রতি লিটার জলে এবং আলফা ন্যাপথাইল অ্যাসেটিক অ্যাসিড ১ মিলি প্রতি লিটার জলে গুলে স্প্রে করেছেন।  বিশদ

11th  March, 2020
রঙিন ফুলকপি ফলিয়ে তাক লাগিয়েছেন
ময়নাগুড়ির কৃষক, দেখতে জমিতে ভিড় 

সোমনাথ চক্রবর্তী: রঙিন ফুলকপি চাষ করে তাক লাগালেন ময়নাগুড়ির ব্যাঙকান্দির কৃষক অজিত সরকার। হলুদ, আভা রং এবং হাল্কা কমলা রঙের ফুলকপি তিনি তাঁর জমিতে চাষ করেছেন।  বিশদ

11th  March, 2020
অকাল বৃষ্টিতে জমিতে জল, সব্জির ক্ষতি 

সংবাদদাতা: ফেব্রুয়ারির শেষ সপ্তাহে আচমকা দু’দিনের অকাল বৃষ্টিতে জমিতে জল জমে যাওয়ায় দক্ষিণ-পূর্ব সুন্দরবন অঞ্চলের গোসাবা, বাসন্তী, ক্যানিং ১ ও ২, কুলতলি, জয়নগর ১ ও ২ অঞ্চলে সব্জি চাষের ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন চাষিরা।   বিশদ

04th  March, 2020

Pages: 12345

একনজরে
বিশ্বজিৎ দাস, কলকাতা: বড় বড় হাসপাতালগুলিকে করোনা যুদ্ধে শামিল হওয়ার আহ্বান করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই অনুযায়ী এবার কলকাতার বড় বেসরকারি হাসপাতালগুলির তালিকা প্রস্তুত করছে রাজ্য।   ...

সংবাদদাতা, কাঁথি: করোনা পরিস্থিতিতে দেশজুড়ে লকডাউন চলাকালীন ১০০ শতাংশ বকেয়া কৃষিঋণ আদায় করে নজির গড়ল কাঁথির দইসাই সমবায় কৃষি উন্নয়ন সমিতি। বকেয়া ১ কোটি টাকার বেশি কৃষিঋণ আদায় করেছে সমিতি। দেশজুড়ে লকডাউন চলায় সকলেই গৃহবন্দি।   ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ এখনও দ্বিতীয় ধাপে রয়েছে, তৃতীয় ধাপে পৌঁছয়নি। এই ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে লকডাউন একমাত্র পথ, তা কোনওভাবেই শিথিল করা যাবে না। মানুষের বাড়িতে থাকা প্রয়োজন।   ...

নয়াদিল্লি ও নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা, ১ এপ্রিল: করোনা সঙ্কট মোকাবিলায় যৌথভাবে ১ হাজার ১২৫ কোটি টাকা খরচ করার কথা জানাল তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থা উইপ্রো লিমিটেড, উইপ্রো এন্টারপ্রাইজেস লিমিটেড এবং সংস্থার কর্ণধারের নামাঙ্কিত আজিম প্রেমজি ফাউন্ডেশন।   ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

কর্মপ্রার্থীদের ধৈর্য্য ধরতে হবে। প্রেম-প্রণয়ে আগ্রহ বাড়বে। নিকটস্থানীয় কারও প্রতি আকর্ষণ বাড়বে। পুরোনো কোনও বন্ধুর ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৯০২: ওস্তাদ বড়ে গুলাম আলি খানের জন্ম
১৯৩৩: ক্রিকেটার রনজিৎ সিংজির মৃত্যু
১৯৬৯: অভিনেতা অজয় দেবগনের জন্ম 





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭৪.৬৪ টাকা ৭৬.৩৬ টাকা
পাউন্ড ৭৬.৩৬ টাকা ৯৪.৮৪ টাকা
ইউরো ৮১.৭৩ টাকা ৮৪.৭৬ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
01st  April, 2020
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৪১,৮৮০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৯,৭৩০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৪০,৩৩০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৩৮,৮০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৩৮,৯০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]
22nd  March, 2020

দিন পঞ্জিকা

১৮ চৈত্র ১৪২৬, ১ এপ্রিল ২০২০, বুধবার, (চৈত্র শুক্লপক্ষ) অষ্টমী ৫৫/১৯ রাত্রি ৩/৪১। আর্দ্রা ৩৪/৫০ রাত্রি ৭/২৯। সূ উ ৫/৩৩/১, অ ৫/৪৮/১১, অমৃতযোগ দিবা ৭/১২ মধ্যে পুনঃ ৯/৩৮ গতে ১১/১৬ মধ্যে পুনঃ ৩/২১ গতে ৪/২৯ মধ্যে। রাত্রি ৬/৩৫ গতে ৮/৫৬ মধ্যে ১০/৩০ মধ্যে। বারবেলা ৮/৩৬ গতে ১০/৮ মধ্যে পুনঃ ১১/৪১ গতে ১/১৩ মধ্যে। কালরাত্রি ২/৩৬ গতে ৪/৪ মধ্যে।
১৮ চৈত্র ১৪২৬, ১ এপ্রিল ২০২০, বুধবার, অষ্টমী ৪১/১৫/৩৫ রাত্রি ১০/৪/৫৮। আর্দ্রা ২২/৩০/৫২ দিবা ২/৩৫/৫। সূ উ ৫/৩৪/৪৪, অ ৫/৪৮/৩১। অমৃতযোগ দিবা ৭/১২ মধ্যে ও ৯/৩২ গতে ১১/১২ মধ্যে ও ৩/২১ গতে ৫/১ মধ্যে এবং রাত্রি ৬/২৭ গতে ৮/৫৫ মধ্যে ও ১/৩২ গতে ৫/৩৪ মধ্যে। কালবেলা ৮/৩৮/১১ গতে ১০/৯/৫৪ মধ্যে।
 ৭ শাবান

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
বিশ্বে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ১০ লক্ষ ছাড়াল 

12:02:29 AM

বিশ্বে করোনায় মৃতের সংখ্যা ৫০ হাজার ছাড়াল 

09:45:51 PM

মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে সোহিনীর এক লক্ষ 
করোনা মোকাবিলায় রাজ্য সরকারের পাশে দাঁড়ালেন অভিনেত্রী সোহিনী সরকার। মুখ্যমন্ত্রীর ...বিশদ

08:27:27 PM

দেশে করোনা আক্রান্ত ২৩৩১ জন, মৃত ৭৩: পিটিআই 

07:35:43 PM

রাজ্যে বর্তমানে সক্রিয় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৩৪ জন, নবান্নে জানালেন  মুখ্যসচিব
বিকেল সাড়ে ৪টে নাগাদ করোনা মোকাবিলায় নবান্নে স্পেশাল টাস্ক ফোর্সের ...বিশদ

06:34:00 PM

আজ কলকাতা, হাওড়া, হুগলি, পূর্ব বর্ধমানে বৃষ্টির সম্ভাবনা 

06:32:00 PM