Bartaman Patrika
চাষ আবাদ
 

পলিহাউসে বাহারি ক্যাপসিকাম চাষে ঝোঁক বাড়ছে 

ব্রতীন দাস: পলিহাউসে বাহারি ক্যাপসিকাম। বাজারে ভালো দাম মেলায় চাষে ঝোঁক বাড়ছে কৃষকদের। সেপ্টেম্বর থেকে চাষ শুরু করতে হয়। তিনমাসেই ফলন পাওয়া যায়। গাছ বাঁচিয়ে রাখতে পারলে মে মাস পর্যন্ত ফলন পাওয়া সম্ভব। ঠিকমতো পরিচর্যা করতে পারলে গোটা মরশুমে প্রতিটি গাছ থেকে গড়ে ১৫ কেজি করে ফলন পাওয়া যায় বলে জানিয়েছেন উদ্যানপালন বিশেষজ্ঞরা। লাল, হলুদ, সবুজ, কমলা, সাদা, বেগুনি নানা রঙের হয়ে থাকে ক্যাপসিকাম। ভিটামিন ও অ্যান্টি অক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ। সারাবছরই বাজারে চাহিদা থাকে। অনুষ্ঠানের মরশুমে এর দাম বাড়ে। এ রাজ্যে মূলত শীতকালীন ফসল হিসেবে ক্যাপসিকাম চাষ করা হয়ে থাকে। খোলা জমিতে চাষ করলে জানুয়ারি পর্যন্ত করা যায়। কিন্তু, পলিহাউসে তাপমাত্রা ও আর্দ্রতা নিয়ন্ত্রিত থাকে বলে আরও তিনমাস বেশি ফলন পাওয়া যায়। উদ্যানপালন বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, ৫০০ বর্গমিটার পলিহাউসে মাটির বেড তৈরি করে গড়ে এক হাজার চারা লাগানো যায়। প্লাস্টিকের ট্রে-তে মাটি ও জৈবসার মিশিয়ে তাতে বীজ বুনে চারা তৈরি করা যেতে পারে। প্রতি কেজি বীজে ৩ গ্রাম থাইরাম দিয়ে বীজ শোধন করতে হবে। গোবরসার ও ভার্মি কম্পোস্ট মিশিয়ে মাটি ভালো করে চেলে নিয়ে তার সঙ্গে ট্রাইকোডার্মা ভিরিডি যোগ করে মাটি শোধন করা যেতে পারে।
ক্যাপসিকামের বীজ মাটির ২ সেমি গভীরে পুঁতে উপরে ঝুরো মাটি দিয়ে ঢেকে দিতে হবে। তার পর হাল্কা জল স্প্রে করে খড় দিয়ে ঢেকে দিতে পারলে ভালো। এক সপ্তাহ পর চারা বেরতে দেখা যাবে। চারা বেরনোর পর খড় সরিয়ে মশারি দিয়ে ঢেকে দিতে পারলে ভালো। চারার গোড়া যাতে পচে না যায়, সেজন্য ব্যাভিস্টিন বা ডাইথেন ব্যাভিস্টিন মিশ্রণ ১ গ্রাম প্রতি লিটার জলে মিশিয়ে গাছে স্প্রে করতে হবে। চারার বয়স ১৬ দিন হলে ইমিডাক্লোপ্রিড ১ মিলি প্রতি লিটার জলে মিশিয়ে আঠা সহযোগে স্প্রে করতে হবে। এতে সাদামাছির আক্রমণ ঠেকানো যায়। ফলে ভাইরাসঘটিত পাতা কোঁকড়ানো রোগের আশঙ্কা কমে। ক্যাপসিকামের এটিই অন্যতম রোগ। এই রোগে গাছের পাতা লঙ্কার মতো কুঁকড়ে যায়। সাদা মাছি ওই ভাইরাসের বাহক। একবার এই রোগের আক্রমণ হলে তখন আর কিছু করার থাকে না। ফলে আগে থেকে ব্যবস্থা নিতে হবে।
বিধানচন্দ্র কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক দীপক ঘোষ জানিয়েছেন, তাঁরা ক্যাপসিকামের বিভিন্ন জাতের মধ্যে সংকরায়ণ ঘটাচ্ছেন। এতে ক্যাপসিকামের রং ও আকার আরও ভালো হচ্ছে। বাগান বিলাসিরা টবেও ক্যাপসিকাম ফলাতে পারেন। তবে সাদামাছির আক্রমণ রুখতে বিশেষ ব্যবস্থা নিতে হবে। ক্যাপসিকামের চারার বয়স ১৫ দিন হলে অ্যামোনিয়াম ফসফেট ৩ গ্রাম প্রতি লিটার জলে গুলে স্প্রে করতে পারলে শিকড় ও গাছের স্বাস্থ্য ভালো হয়। একমাস বয়সের চারা ৩-৪টি পাতা হলে তখন ওই চারা মূল জমিতে বসানো উচিত। হলুদ রঙের ক্যাপসিকামের উন্নত জাতগুলি হল, অ্যাঞ্জেল, গোল্ডেন ইয়েলো, অর্কা গৌরব, ইয়েলো ওয়ান্ডার। লাল রঙের ক্যাপসিকামের উন্নত জাত, অদিতি, আশা, ক্যালিফোর্নিয়া ওয়ান্ডার। কমলা রঙের ক্যাপসিকামের উন্নত জাত, কালার-৮, আইএসপি-৭। বেগুনি রঙের ক্যাপসিকামের জাত নিকিতা। কালো রঙের ক্যাপসিকামের জাত স্পিনাজ। সাদা রঙের ক্যাপসিকামের জাত কালার-৬, কালার-৭।
পলিহাউসে প্রথমে বেড তৈরি করতে হবে। বেডে মাটি ফরমালিন দিয়ে শোধন করে নেওয়া উচিত। ১ লিটার জলে ৪০ মিলি ফরমালিন মেশাতে হবে। মাটি শোধনের পর পলিথিন দিয়ে ঢেকে দিতে হবে। মাটি থেকে ১৫ সেমি উঁচু হতে হবে বেড। চওড়া হবে ১০০ সেমি। প্রয়োজনমতো বেড লম্বা করা যেতে পারে। একটি বেড থেকে অন্য বেডের দূরত্ব হবে ৪৫ সেমি। একই বেডে দু’টি গাছের মধ্যে দূরত্ব হবে ৫০ সেমি। ড্রিপ ইরিগেশনের ব্যবস্থা থাকলে ভালো। চারা বসানোর সময় সামান্য ঠাণ্ডার প্রয়োজন। চারা লাগানোর সময় গাছ প্রতি ১০ গ্রাম ইউরিয়া, ২৫ গ্রাম সিঙ্গল সুপার ফসফেট ও ২০ গ্রাম মিউরিয়েট অফ পটাশ দিতে হবে।
একমাস পর একইমাত্রায় প্রথম চাপান দিতে হবে। ৮০ দিন পর গাছ প্রতি ১০ গ্রাম ইউরিয়া দিতে হবে দ্বিতীয় চাপান হিসেবে। চারার গোড়ার দিকের কিছু পাতা ফেলে দিতে হবে। প্লানোফিক্স প্রয়োগে গাছে প্রচুর ফুল আসে এবং ফল ধরতে সাহায্য করে। ফুল ঝরা ঠেকাতে দু’সপ্তাহ অন্তর দু’বার ২৫ পিপিএম জিএ বা ৫০ পিপিএম এনএএ হরমোন প্রয়োগ করা যেতে পারে। ঠিকমতো পরিচর্যা করতে পারলে একটি ক্যাপসিকামের ওজন ৩৫০ গ্রাম হতে পারে। খোলা জমিতে বিঘা প্রতি ১০-১২ কুইন্টাল ফলন পাওয়া যায়।
কিন্তু, পলিহাউসে বিঘায় প্রায় ৩০ কুইন্টাল ফলন মিলতে পারে। চারা রোপণের পর ল্যাদাপোকার আক্রমণ হতে পারে। এই পোকা গাছের পাতা খেয়ে নেয়। কেরোসিন মেশানো ছাই গাছের গোড়ায় দিতে হবে। কার্বারিল ২ গ্রাম, প্রতি লিটার জলে গুলে স্প্রে করলে সুফল মিলবে। সাদামাছির আক্রমণ রুখতে চারা রোপণের তিন দিন আগে ইমিডাক্লোপ্রিড ১ মিলি, ৩ লিটার জলে গুলে স্প্রে করতে হবে। রোপণের ১০ দিন পর ১ মিলি ইমিডাক্লোপ্রিড, ১ লিটার জলে গুলে বা ১ মিলি ফিপ্রোনিল ১ লিটার জলে গুলে স্প্রে করা যেতে পারে। আঠা লাগানো রঙিন বোর্ড পলিহাউসে ঝুলিয়ে রাখলে জাবপোকা বা সাদামাছির আক্রমণ অনেকটা রোধ করা যায়।  

18th  September, 2019
বার্ড ফ্লু রুখতে খামারে
জৈব নিরাপত্তা জরুরি

দেশের বিভিন্ন রাজ্যে বার্ড ফ্লু সংক্রমণ শুরু হয়েছে। মারা যাচ্ছে হাঁস-মুরগি ও পাখি। এই অবস্থায় প্রাণীপালকদের বিশেষ সতর্ক থাকতে বলছেন বিশেষজ্ঞরা। একবার বার্ড ফ্লু শুরু হলে তা ঠেকানো মুশকিল। তাই আগেভাগেই কিছু প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণেরও পরামর্শ দিচ্ছেন তাঁরা। বিশদ

13th  January, 2021
আচমকা তাপমাত্রা কমায় গম ও
আলু চাষির কপালে চিন্তার ভাঁজ

জানুয়ারির গরমে মুর্শিদাবাদ জেলার গম চাষিদের কপালে চিন্তার ভাঁজ পড়েছে। আলু চাষিদেরও চিন্তা বেড়েছে। কৃষিদপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, মুর্শিদাবাদ জেলার লালবাগ, জিয়াগঞ্জ, আজিমগঞ্জ, ডোমকল, জলঙ্গি, নওদা, রানিনগর সহ বিভিন্ন এলাকায় গম চাষ হয়। বিশদ

13th  January, 2021
ছত্রাকঘটিত রোগের জন্য শুকিয়ে যাচ্ছে আলুগাছ

গত বেশ কয়েক মাস ধরেই বাজারে আলুর দাম চড়া। তাই একটু বেশি লাভের আশায় আমন ধান তুলেই জলদি আলুর চারা লাগিয়েছিলেন বাঁকুড়ার বিষ্ণুপুর ও সোনামুখীর চাষিরা। বিশদ

10th  December, 2020
শীতে টবেই ফলবে লাল টুকটুকে স্ট্রবেরি

লাল টুকটুকে স্ট্রবেরি। দেখতে যেমন সুন্দর। খেতেও তেমনই সুস্বাদু। বাড়ির সামনে এক চিলতে উঠোন থাকলে অনায়াসেই নিজে হাতে সেই স্ট্রবেরি ফলাতে পারেন আপনিও। এই শীতে ফ্ল্যাটের ব্যালকনিতে টবেও ফলবে নজরকাড়া এই সুমিষ্ট ফল।  বিশদ

09th  December, 2020
শীত পড়তেই জমে উঠেছে 
পূর্বস্থলীর নলেন গুড়ের বাজার

শীত পড়তেই জমে উঠেছে পূর্বস্থলী-২ ব্লকের পাটুলি স্টেশনবাজার সংলগ্ন নলেন গুড়ের পাইকারি বাজার। এখানকার নলেন গুড় যাচ্ছে কলকাতা, হাওড়া, দুর্গাপুর, আসানসোল, চুঁচুড়া সহ বিভিন্ন এলাকায়। রেলের কাটোয়া-হাওড়া শাখায় পাটুলি রেলস্টেশনের পাশেই এই পাইকারি বাজারে ১৫টি আড়ত রয়েছে। সন্ধ্যা হলেই ক্রেতা-বিক্রেতাদের ভিড়ে জমজমাট হয়ে ওঠে এই বাজার। বিশদ

09th  December, 2020
মাছের ভালো ফলন পেতে 
দরকার সঠিক মাত্রায় সার

যে কোনও  মাছচাষে সঠিক পরিমাণে উন্নততর সার ব্যবহারের মাধ্যমে মাছের ভালো গঠন ও সঠিক সময়ে ভালো উৎপাদন মিলতে পারে। এ ব্যাপারে মৎস্য আধিকারিকরা বলছেন, গোবরসারে নাইট্রোজেনের পরিমাণ কম, তাই বেশি লাগে। মাছচাষে এই সার দরকার বিঘা প্রতি প্রতি মাসে ১০০-৩০০ কেজির মতো। বিশদ

09th  December, 2020
বোরো ও রবিশস্য চাষের প্রস্তুতি
শুরু, জল নিয়ে দুশ্চিন্তায় কৃষকরা

জেলায় আমন ধান ঘরে তোলার কাজ চলছে। এরই মধ্যে বোরো ও রবিশস্য চাষের প্রস্তুতি শুরু হয়েছে। বোরো চাষের জন্য বীজতলা তৈরির কাজ শুরু হয়ে গিয়েছে। জেলার গলসির বিভিন্ন এলাকায় বোরোর বীজতলা তৈরির জন্য জমিতে চাষ দেওয়া শুরু হয়েছে। বোরো চাষের জন্য প্রস্তুতি তুঙ্গে। তবে, বোরো চাষের জন্য জল মিলবে কি না, তা নিয়ে ধোঁয়াশায় রয়েছেন গলসির চাষিরা। জল নিয়ে কিছুটা চিন্তিত তাঁরা। বিশদ

09th  December, 2020
পুরুলিয়ায় ৫০ হাজার হেক্টর জমিতে বিকল্প চাষে উদ্যোগী জেলা কৃষিদপ্তর

রুখাশুখা জেলা পুরুলিয়া। জলের অভাবে এই জেলায় সব জমিতে ধান চাষ হয় না। তাই জেলায় ব্যাপক হারে বিকল্প চাষ করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। বিশদ

30th  November, 2020
শীতের কামড় থেকে ফসল
বাঁচাতে শেডনেটে পানচাষ 

প্রথাগত পদ্ধতি ছেড়ে এবার শেডনেটে পানচাষে জোর দিচ্ছে উদ্যানপালন দপ্তর। আধুনিক এই প্রযুক্তির ব্যবহারে একদিকে যেমন পানের গুনগত মান ভালো হবে, সংখ্যায় বেশি মিলবে পাতা, তেমনই রোগপোকার হাত থেকে রক্ষা পাবে বরজ। এমনটাই বলছেন উদ্যানপালন আধিকারিকরা। কৃষিভিত্তিক ক্লাস্টারের মাধ্যমে ক্ষুদ্র ব্যবসায় গুরুত্ব দিচ্ছে রাজ্য। 
বিশদ

25th  November, 2020
শীত পড়লেও চাহিদা নেই
মরশুমি ফুলের চারার 

সংবাদদাতা: শীত পড়লেও এখনও পর্যন্ত মরশুমি ফুলের চারার চাহিদা নেই। এতেই কপালে চিন্তার ভাঁজ পড়েছে পূর্বস্থলীর চাষিদের। এছাড়া ট্রেনের কামরায় ফুল বিক্রেতাদের উঠতে না দেওয়ায় ভিন রাজ্যেও যেতে পারছেন না বিক্রেতারা। ফলে নার্সারি থেকেও তাঁরা চারা কিনছেন না। চাষিদের দাবি, এই মরশুমেও প্রচুর টাকা খরচ করে ফুলের চারা তৈরি হয়েছিল। এখন শীতের শুরুতেই মাঠে ফুলের চারা ভালো বাড়ে। 
বিশদ

25th  November, 2020
এবার বাড়তি সতর্কতার
সঙ্গে গম চাষের পরামর্শ 

শীর্ষেন্দু দেবনাথ, কৃষ্ণনগর: নিষেধাজ্ঞা উঠলেও এবারও বাড়তি সতর্কতার সঙ্গে গম চাষ করার পরামর্শ দিচ্ছে নদীয়া জেলার কৃষিদপ্তর। জেলা কৃষিদপ্তর সূত্রের খবর, নির্দিষ্ট কিছু জাতের বীজ সংগ্রহ করার ব্যাপারে চাষিদের ইতিমধ্যেই জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি বলা হয়েছে, শোধন করেই বীজ বুনতে হবে। 
বিশদ

25th  November, 2020
আমন উঠছে, বিক্রির চিন্তায় চাষিরা 

সংবাদদাতা, লালবাগ: ফলন আশানুরূপ হয়েছে। যেদিকে তাকানো যায় চোখে পড়ে মাঠ ভর্তি সোনালি ধান। তা সত্ত্বেও দুশ্চিন্তায় রয়েছেন নবগ্রাম ব্লকের ধান চাষিরা। করোনা মহামারীর জেরে ব্লকের অধিকাংশ চাষির বোরো ধান এখনও বিক্রি হয়নি। ঘরে বস্তাবন্দি হয়ে পড়ে রয়েছে। 
বিশদ

25th  November, 2020
গ্ল্যাডিওলাস ফুল চাষে আগ্রহ
বাড়ছে দক্ষিণ দিনাজপুরের চাষিদের

শীতকালে রজনীগন্ধা ফুলের চাষ তো দক্ষিণ দিনাজপুরে আগে থেকেই জনপ্রিয়। সেইসঙ্গে এখন পাল্লা দিয়ে জনপ্রিয়তা বাড়ছে গ্ল্যাডিওলাস ফুলের চাষেরও। জেলার অনেক জায়গাতেই অন্যান্য সব্জির সঙ্গেই এই ফুল চাষ করছেন অনেকে। ধান, গম, পাট সহ অন্যান্য অর্থকরী ফসলের মতোই গ্ল্যাডিওলাস ফুল চাষেও লাভের মুখ দেখছেন এখানকার চাষিরা। বিশদ

11th  November, 2020
সারাবছরই চাহিদা থাকে বাজারে,
লাভজনক ফ্রেঞ্চ বিন চাষ 

ফ্রেঞ্চ বিন অত্যন্ত লাভজনক একটি চাষ। এই বিনের চাষ করলে কৃষকরা অন্যান্য ফসলের থেকে অনেকটাই বেশি লাভ পাবেন, এমনটাই জানিয়েছেন কৃষি আধিকারিকরা। তাঁরা বলেছেন, বাজারে বিনের চাহিদা সারা বছর ধরেই থাকে এবং দামও ভালোই পাওয়া যায়। বিশদ

11th  November, 2020

Pages: 12345

একনজরে
ভোটের আগেই বাংলায় জাল টাকা ছড়ানোর আন্তঃরাজ্য চক্রের হদিশ পেল পুলিস। কুলটি থানা এলাকা থেকে ৭৮ হাজার টাকার জাল নোট উদ্ধারের ঘটনার তদন্তে নেমে পুলিস ...

নর্থ ইস্ট ইউনাইটেডের বিরুদ্ধে প্রথম লেগে শেষপর্বে গোল হজম করেছিল এটিকে মোহন বাগান। রক্ষণের সেই ভুল কিছুতেই মানতে পারছেন না কোচ আন্তোনিও লোপেজ হাবাস। শেষ ...

কেন্দ্রের পেট্রল-ডিজেল-রান্নার গ্যাসের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে সরব হয়েছে গোটা বাংলা। সেই পথেই সোমবার গাড়ি ছেড়ে সাইকেলে অভিনব প্রচার শুরু করলেন ময়ূরেশ্বর বিধানসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী ...

শীপুর কেন্দ্রে বিজেপির প্রার্থী হচ্ছেন কমলাকান্ত হাঁসদা। সোমবার এই ঘোষণা করেছে বিজেপি। কাশীপুর কেন্দ্রে ভোট রয়েছে প্রথম দফাতেই। শনিবার রাজ্যের প্রথম দুই দফার ভোটের ৫৭টি আসনের প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করেছিল বিজেপি।  ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

উচ্চতর বিদ্যায় সফলতা আসবে। সরকারি ক্ষেত্রে কর্মলাভের সম্ভাবনা। প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় সাফল্য আসবে। প্রেম-প্রণয়ে মানসিক অস্থিরতা ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৪৫৪: আমেরিগেডস পুচির (তাঁর নামানুসারে আমেরিকার নাম করন হয়) জন্ম
১৮৫৮: দ্বিতীয় বাহাদুর শাহ জাফারি রেঙ্গুনে নির্বাসিত
১৯৩৪: মহাকাশচারী ইউরি গ্যাগারিনের জন্ম
১৯৫১: তবলাবাদক জাকির হুসেনের জন্ম
১৯৫৯: নিউ ইয়র্কে আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল টয় ফেয়ারে আত্মপ্রকাশ করল বার্বি ডল
১৯৬১: মহাকাশ যান স্ফুটনিক ৯-এর সফল উৎক্ষেপণ
২০১২: বলিউড অভিনেতা ও পরিচালক জয় মুখার্জির মৃত্যু 



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭২.৩৯ টাকা ৭৪.১০ টাকা
পাউন্ড ৯৯.৪৩ টাকা ১০২.৯২ টাকা
ইউরো ৮৫.৬০ টাকা ৮৮.৭৭ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৪৫, ১৫০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৪২, ৮৫০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৪৩, ৫০০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৬৬, ১০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৬৬, ২০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

২৫ ফাল্গুন, ১৪২৭, মঙ্গলবার, ৯ মার্চ ২০২১। একাদশী ২২/৪৯ দিবা ৩/৩। উত্তরাষাঢ়া নক্ষত্র ৩৬/৫৬ রাত্রি ৮/৪১। সূর্যোদয় ৫/৫৫/১, সূর্যাস্ত ৫/৩৯/৪৩। অমৃতযোগ দিবা ৮/১৫ গতে ১০/৩৬ মধ্যে পুনঃ ১২/৫৭ গতে ২/৩২ মধ্যে পুনঃ ৩/১৯ গতে ৪/৫৩ মধ্যে। রাত্রি ৬/২৯ মধ্যে পুনঃ ৮/৫৫ গতে ১১/২১ মধ্যে পুনঃ ১/৪৮ গতে ৩/২৫ মধ্যে। বারবেলা ৭/২৩ গতে ৮/৫১ মধ্যে পুনঃ ১/১৫ গতে ২/৪৩ মধ্যে। কালরাত্রি ৭/১০ গতে ৮/৪৩ মধ্যে।  
২৪ ফাল্গুন ১৪২৭, মঙ্গলবার, ৯ মার্চ ২০২১। একাদশী অপরাহ্ন ৪/১৫। উত্তরাষাঢ়া নক্ষত্র রাত্রি ৯/৫৪। সূর্যোদয় ৫/৫৭, সূর্যাস্ত ৫/৩৯। অমৃতযোগ দিবা ৮/৩ গতে ১০/২৮ মধ্যে ও ১২/৫৪ গতে ২/৩১ মধ্যে ও ৩/১৯ গতে ৪/৫৬ মধ্যে এবং রাত্রি ৬/৩২ মধ্যে ও ৮/৫৫ গতে ১১/১৭ মধ্যে ও ১/৪০ গতে ৩/১৫ মধ্যে। বারবেলা ৭/২৫ গতে ৮/৫৩ মধ্যে ও ১/১৬ গতে ২/৪৪ মধ্যে। কালরাত্রি ৭/১২ গতে ৮/৪৪ মধ্যে।  
২৪ রজব। 

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
খড়্গপুরে যুবকের রক্তাক্ত মৃতদেহ উদ্ধার, চাঞ্চল্য এলাকায়
খড়্গপুর লোকাল থানা এলাকার কেশিয়াশোল গ্রামে যুবকের রক্তাক্ত মৃতদেহ উদ্ধার। ...বিশদ

12:42:26 PM

বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের মনোনয়ন ঘিরে খড়্গপুর শহরে তীব্র যানজট
 

12:33:00 PM

করোনা আক্রান্ত অভিনেতা রনবীর কাপুর
 

12:29:19 PM

ময়নাগুড়িতে সোনা-রুপোর দোকানে চুরি
ময়নাগুড়ি ব্লকের হেলাপাকড়ি বাজারে একটি সোনা-রুপোর দোকানে  চুরির ঘটনা ঘিরে ...বিশদ

12:25:17 PM

সংরক্ষণ মামলায় মতামত চেয়ে সব রাজ্যকে নোটিস 
আইনসভা কি নির্দিষ্ট কোনও জাতি বা সম্প্রদায়কে সামাজিকভাবে ও শিক্ষাগত ...বিশদ

11:52:15 AM

বিজেপি বিরোধী পোস্টার পাড়া বিধানসভা এলাকায়
বিজেপি বিরোধী পোস্টার পড়ল পাড়া বিধানসভা এলাকায়। ওই বিধানসভায় বিজেপির ...বিশদ

11:40:41 AM