Bartaman Patrika
চাষ আবাদ
 

পলিহাউসে বাহারি ক্যাপসিকাম চাষে ঝোঁক বাড়ছে 

ব্রতীন দাস: পলিহাউসে বাহারি ক্যাপসিকাম। বাজারে ভালো দাম মেলায় চাষে ঝোঁক বাড়ছে কৃষকদের। সেপ্টেম্বর থেকে চাষ শুরু করতে হয়। তিনমাসেই ফলন পাওয়া যায়। গাছ বাঁচিয়ে রাখতে পারলে মে মাস পর্যন্ত ফলন পাওয়া সম্ভব। ঠিকমতো পরিচর্যা করতে পারলে গোটা মরশুমে প্রতিটি গাছ থেকে গড়ে ১৫ কেজি করে ফলন পাওয়া যায় বলে জানিয়েছেন উদ্যানপালন বিশেষজ্ঞরা। লাল, হলুদ, সবুজ, কমলা, সাদা, বেগুনি নানা রঙের হয়ে থাকে ক্যাপসিকাম। ভিটামিন ও অ্যান্টি অক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ। সারাবছরই বাজারে চাহিদা থাকে। অনুষ্ঠানের মরশুমে এর দাম বাড়ে। এ রাজ্যে মূলত শীতকালীন ফসল হিসেবে ক্যাপসিকাম চাষ করা হয়ে থাকে। খোলা জমিতে চাষ করলে জানুয়ারি পর্যন্ত করা যায়। কিন্তু, পলিহাউসে তাপমাত্রা ও আর্দ্রতা নিয়ন্ত্রিত থাকে বলে আরও তিনমাস বেশি ফলন পাওয়া যায়। উদ্যানপালন বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, ৫০০ বর্গমিটার পলিহাউসে মাটির বেড তৈরি করে গড়ে এক হাজার চারা লাগানো যায়। প্লাস্টিকের ট্রে-তে মাটি ও জৈবসার মিশিয়ে তাতে বীজ বুনে চারা তৈরি করা যেতে পারে। প্রতি কেজি বীজে ৩ গ্রাম থাইরাম দিয়ে বীজ শোধন করতে হবে। গোবরসার ও ভার্মি কম্পোস্ট মিশিয়ে মাটি ভালো করে চেলে নিয়ে তার সঙ্গে ট্রাইকোডার্মা ভিরিডি যোগ করে মাটি শোধন করা যেতে পারে।
ক্যাপসিকামের বীজ মাটির ২ সেমি গভীরে পুঁতে উপরে ঝুরো মাটি দিয়ে ঢেকে দিতে হবে। তার পর হাল্কা জল স্প্রে করে খড় দিয়ে ঢেকে দিতে পারলে ভালো। এক সপ্তাহ পর চারা বেরতে দেখা যাবে। চারা বেরনোর পর খড় সরিয়ে মশারি দিয়ে ঢেকে দিতে পারলে ভালো। চারার গোড়া যাতে পচে না যায়, সেজন্য ব্যাভিস্টিন বা ডাইথেন ব্যাভিস্টিন মিশ্রণ ১ গ্রাম প্রতি লিটার জলে মিশিয়ে গাছে স্প্রে করতে হবে। চারার বয়স ১৬ দিন হলে ইমিডাক্লোপ্রিড ১ মিলি প্রতি লিটার জলে মিশিয়ে আঠা সহযোগে স্প্রে করতে হবে। এতে সাদামাছির আক্রমণ ঠেকানো যায়। ফলে ভাইরাসঘটিত পাতা কোঁকড়ানো রোগের আশঙ্কা কমে। ক্যাপসিকামের এটিই অন্যতম রোগ। এই রোগে গাছের পাতা লঙ্কার মতো কুঁকড়ে যায়। সাদা মাছি ওই ভাইরাসের বাহক। একবার এই রোগের আক্রমণ হলে তখন আর কিছু করার থাকে না। ফলে আগে থেকে ব্যবস্থা নিতে হবে।
বিধানচন্দ্র কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক দীপক ঘোষ জানিয়েছেন, তাঁরা ক্যাপসিকামের বিভিন্ন জাতের মধ্যে সংকরায়ণ ঘটাচ্ছেন। এতে ক্যাপসিকামের রং ও আকার আরও ভালো হচ্ছে। বাগান বিলাসিরা টবেও ক্যাপসিকাম ফলাতে পারেন। তবে সাদামাছির আক্রমণ রুখতে বিশেষ ব্যবস্থা নিতে হবে। ক্যাপসিকামের চারার বয়স ১৫ দিন হলে অ্যামোনিয়াম ফসফেট ৩ গ্রাম প্রতি লিটার জলে গুলে স্প্রে করতে পারলে শিকড় ও গাছের স্বাস্থ্য ভালো হয়। একমাস বয়সের চারা ৩-৪টি পাতা হলে তখন ওই চারা মূল জমিতে বসানো উচিত। হলুদ রঙের ক্যাপসিকামের উন্নত জাতগুলি হল, অ্যাঞ্জেল, গোল্ডেন ইয়েলো, অর্কা গৌরব, ইয়েলো ওয়ান্ডার। লাল রঙের ক্যাপসিকামের উন্নত জাত, অদিতি, আশা, ক্যালিফোর্নিয়া ওয়ান্ডার। কমলা রঙের ক্যাপসিকামের উন্নত জাত, কালার-৮, আইএসপি-৭। বেগুনি রঙের ক্যাপসিকামের জাত নিকিতা। কালো রঙের ক্যাপসিকামের জাত স্পিনাজ। সাদা রঙের ক্যাপসিকামের জাত কালার-৬, কালার-৭।
পলিহাউসে প্রথমে বেড তৈরি করতে হবে। বেডে মাটি ফরমালিন দিয়ে শোধন করে নেওয়া উচিত। ১ লিটার জলে ৪০ মিলি ফরমালিন মেশাতে হবে। মাটি শোধনের পর পলিথিন দিয়ে ঢেকে দিতে হবে। মাটি থেকে ১৫ সেমি উঁচু হতে হবে বেড। চওড়া হবে ১০০ সেমি। প্রয়োজনমতো বেড লম্বা করা যেতে পারে। একটি বেড থেকে অন্য বেডের দূরত্ব হবে ৪৫ সেমি। একই বেডে দু’টি গাছের মধ্যে দূরত্ব হবে ৫০ সেমি। ড্রিপ ইরিগেশনের ব্যবস্থা থাকলে ভালো। চারা বসানোর সময় সামান্য ঠাণ্ডার প্রয়োজন। চারা লাগানোর সময় গাছ প্রতি ১০ গ্রাম ইউরিয়া, ২৫ গ্রাম সিঙ্গল সুপার ফসফেট ও ২০ গ্রাম মিউরিয়েট অফ পটাশ দিতে হবে।
একমাস পর একইমাত্রায় প্রথম চাপান দিতে হবে। ৮০ দিন পর গাছ প্রতি ১০ গ্রাম ইউরিয়া দিতে হবে দ্বিতীয় চাপান হিসেবে। চারার গোড়ার দিকের কিছু পাতা ফেলে দিতে হবে। প্লানোফিক্স প্রয়োগে গাছে প্রচুর ফুল আসে এবং ফল ধরতে সাহায্য করে। ফুল ঝরা ঠেকাতে দু’সপ্তাহ অন্তর দু’বার ২৫ পিপিএম জিএ বা ৫০ পিপিএম এনএএ হরমোন প্রয়োগ করা যেতে পারে। ঠিকমতো পরিচর্যা করতে পারলে একটি ক্যাপসিকামের ওজন ৩৫০ গ্রাম হতে পারে। খোলা জমিতে বিঘা প্রতি ১০-১২ কুইন্টাল ফলন পাওয়া যায়।
কিন্তু, পলিহাউসে বিঘায় প্রায় ৩০ কুইন্টাল ফলন মিলতে পারে। চারা রোপণের পর ল্যাদাপোকার আক্রমণ হতে পারে। এই পোকা গাছের পাতা খেয়ে নেয়। কেরোসিন মেশানো ছাই গাছের গোড়ায় দিতে হবে। কার্বারিল ২ গ্রাম, প্রতি লিটার জলে গুলে স্প্রে করলে সুফল মিলবে। সাদামাছির আক্রমণ রুখতে চারা রোপণের তিন দিন আগে ইমিডাক্লোপ্রিড ১ মিলি, ৩ লিটার জলে গুলে স্প্রে করতে হবে। রোপণের ১০ দিন পর ১ মিলি ইমিডাক্লোপ্রিড, ১ লিটার জলে গুলে বা ১ মিলি ফিপ্রোনিল ১ লিটার জলে গুলে স্প্রে করা যেতে পারে। আঠা লাগানো রঙিন বোর্ড পলিহাউসে ঝুলিয়ে রাখলে জাবপোকা বা সাদামাছির আক্রমণ অনেকটা রোধ করা যায়।  

18th  September, 2019
চাহিদা তুঙ্গে, জোগান বাড়াতে
আরামবাগে বাদাম বীজ চাষ 

সুদেব দাস, আরামবাগ: অতিবৃষ্টির কারণে গত বছর বাদাম চাষে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছিল। বাদামের রঙের উজ্জ্বলতা হারিয়ে কালো হয়ে গিয়েছিল। তাই খোলাবাজারে চাহিদা থাকলেও, ভালো মানের বাদামের জোগান দিতে পারেননি চাষিরা। পুজোর পরে আরামবাগ মহকুমাজুড়ে শুরু হবে বাদাম চাষ। তবে এবার ভালো ফলন পেতে এখন থেকেই বাদাম চাষে বাড়তি জোর দিচ্ছেন চাষিরা।   বিশদ

23rd  September, 2020
টবেই ১৮ মাসে
ড্রাগন ফল 

নিজস্ব প্রতিনিধি: টবেই ফলানো যাবে ড্রাগন ফ্রুট। ১৮ মাসের গাছেই মিলবে ফল। এমনটাই জানাচ্ছেন উদ্যানপালন আধিকারিকরা।
ক্যাকটাস গোত্রের এই ফল চাষে ঝক্কি নেই বললেই চলে।   বিশদ

23rd  September, 2020
নাকাশিপাড়ায় ফ্রেঞ্চ বিন চাষ
করে স্বনির্ভর হচ্ছেন যুবকরা 

শীর্ষেন্দু দেবনাথ, কৃষ্ণনগর: বেকার যুবকদের জীবন বদলে দিচ্ছে ফ্রেঞ্চ বিন চাষ। নদীয়ার নাকাশিপাড়ার পাটিকাবাড়ির তাঞ্জির মণ্ডল, চিচুড়িয়ার সাজিদুর রহমান এখন আত্মবিশ্বাসী। একবছর আগে প্রথম এই চাষ শুরু করেছিলেন তাঁরা। বেশ ভালো লাভ হয়েছিল।   বিশদ

23rd  September, 2020
ইংল্যান্ডের হারানো বাজার ধরতে
সবংয়ে জৈব পদ্ধতিতে পান চাষ 

হরিহর ঘোষাল, মেদিনীপুর: একটা সময় সবং থেকে বিপুল পরিমাণ পান রপ্তানি হতো ইংল্যান্ডে। বছর চারেক আগে তাতে ছেদ পড়ে। সালমোনেলা নামে এক ধরনের ব্যাক্টেরিয়ার প্রকোপ দেখা দেয় পানে। তার জেরে সবংয়ের পান তো বটেই, এ রাজ্যের পান নেওয়া বন্ধ করে দেয় ইংল্যান্ড। সেই হারানো বাজার ফিরে পেতে এবার সবংয়েরই একদল চাষি সম্পূর্ণ জৈব পদ্ধতিতে পান চাষের উদ্যোগ নিয়েছেন।   বিশদ

23rd  September, 2020
ছাদের ট্যাঙ্কে অনায়াসেই পছন্দের মাছ চাষ 

ব্রতীন দাস: মাছ চাষের জন্য এখন আর পুকুরের দরকার নেই। বাড়ির ছাদে ট্যাঙ্কেই পছন্দমতো মাছ চাষ করা সম্ভব। মৎস্য বিজ্ঞানীরা বলছেন, যেভাবে দ্রুত নগরায়ণ হচ্ছে, তাতে কমছে জলাশয়। আবার প্রোটিন সমৃদ্ধ খাদ্য হিসেবে বাড়ছে মাছের চাহিদা।   বিশদ

23rd  September, 2020
সেচে জল সাশ্রয়ের লক্ষ্যে
ভর্তুকিতেই স্প্রিংলার যন্ত্র
কাটোয়া

 জল সাশ্রয় করতে ভর্তুকি দিয়েই কাটোয়া মহকুমাজুড়ে চাষিদের হাতে স্প্রিংলার তুলে দিচ্ছে কৃষিদপ্তর। এই যন্ত্র দিয়েই অত্যাধুনিক পদ্ধতিতে জমিতে সেচ দিতে পারবেন চাষিরা। বাংলার কৃষি সেচ যোজনার মাধ্যমে এই ধরনের যন্ত্রপাতি দেওয়া হচ্ছে। মহকুমার প্রতিটি ব্লকেই বিলি করার কাজ শুরু হয়েছে।
বিশদ

16th  September, 2020
শখ থেকে জীবিকা যখন বনসাই 

না রঙের বাহারি টবে সাজানো রয়েছে বট, তেঁতুল, শ্যাওড়া, পাকুড়, অর্জুন, বাবলা গাছ। নানা ধরনের গাছের তালিকাটি যেমন দীর্ঘ, তেমনই বৈচিত্র্য তাদের গড়নে। আর তার বর্ণনা দিতে গিয়ে প্রাপ্তির আনন্দে তৃপ্তির ঢেঁকুর তুলছিলেন ববিন। পোশাকি নাম প্রসেনজিৎ গুহ।
বিশদ

09th  September, 2020
বাঁকুড়ায় এবার ৪০০ বিঘায় বর্ষাকালীন পেঁয়াজ 

তের মুখে পেঁয়াজের সঙ্কট কাটাতে ও দাম নিয়ন্ত্রণে রাখতে সরকারি উদ্যোগে বর্ষাকালীন পেঁয়াজ চাষের উদ্যোগ নিয়েছে বাঁকুড়া জেলা প্রশাসন। ছাতনা, বড়জোড়া, সোনামুখী ও গঙ্গাজলঘাটি ব্লকে মোট ৪০০ বিঘা জমিতে চাষের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে জেলা কৃষিদপ্তর ও উদ্যানপালন দপ্তরের তরফে।
বিশদ

09th  September, 2020
পুরুলিয়ায় ফলের বাগান গড়ছে বনদপ্তর 

পরিযায়ী শ্রমিকদের কাজে লাগিয়ে লালমাটিতে ফলের বাগান তৈরি করছে বনদপ্তর। পুরুলিয়া মফস্‌সল থানার ছররাতে ১১ ব্যাটালিয়নের ১০ হেক্টর জমিজুড়ে তৈরি হচ্ছে ওই বাগান। গোটা জেলার মধ্যে ছররাতেই বনদপ্তর সবচেয়ে বড়সড় ফলের বাগান তৈরি করছে বলে দাবি আধিকারিকদের।
বিশদ

09th  September, 2020
বৃষ্টিতে সব্জির ক্ষতি পুষিয়ে দিচ্ছে বরবটি ও লাফা চাষ 

 সাম্প্রতিক বৃষ্টিতে নষ্ট হয়েছে পটল, লঙ্কা, বেগুন সহ নানা ধরনের সব্জি চাষ। এর জেরে ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছেন কৃষকরা। সেই ক্ষতি থেকে বাঁচতে চাষিদের ভরসা জোগাচ্ছে লাফা ও বরবটি। তেহট্ট সহ নদীয়া জেলার বিভিন্ন এলাকার চাষিরা জানাচ্ছেন, উম-পুন ঘূর্ণিঝড়ে জমির ধান, পাট, কলা সহ বিভিন্ন সব্জির অনেক ক্ষতি হয়েছিল। বিশদ

09th  September, 2020
ভগবানগোলার মোজাম্মেলের জমিতে ১২-১৩ কেজির ওল 

ক-একটি ওলের ওজন ১২ থেকে ১৩ কেজি। জমি থেকে তোলার পরে তা বিক্রি হতে বেশি সময় লাগে না। দামও ভালোই পাওয়া যায়। অথচ চাষের খরচ নেই বললেই চলে। 
বিশদ

09th  September, 2020
আমন চাষের মাধ্যমেই ঘুরে
দাঁড়ানোর আশায় গ্রামীণ অর্থনীতি

 কেরলে রাজমিস্ত্রির কাজ করতেন খানাকুলের মানিক সাঁতরা। লকডাউনে তিনি বাড়ি ফিরে আসেন। তারপর করোনা আতঙ্কে আর সেখানে যাওয়া হয়নি। কর্মহীন হয়ে পড়েছিলেন। কী করবেন ভেবে পাচ্ছিলেন না। শেষমেশ বাবার সঙ্গে চাষের কাজে হাত লাগান।
বিশদ

26th  August, 2020
পুরুলিয়ায় পড়ে থাকা কিষাণ মাণ্ডিতে
কৃত্রিম মাছচাষের হাপা তৈরির উদ্যোগ

 কৃষকদের ফসল বিক্রির জন্য জেলায় কৃষক বাজার বা কিষাণ মাণ্ডি তৈরি করা হয়েছে। কিন্তু, অনেক জায়গায় ভৌগোলিক দূরত্ব বা অন্যান্য কারণে সেই কিষাণ মাণ্ডি কার্যত ফাঁকা পড়ে থাকছে। বিশদ

26th  August, 2020
মাছচাষে আগ্রহ বাড়ছে
কান্দির চাষিদের

 সংবাদদাতা: ধান সহ অন্যান্য ফসল লাগিয়ে সেভাবে লাভের মুখ দেখতে পাওয়া যাচ্ছে না। তাই মাছ চাষ করার দিকে ঝুঁকছেন কান্দি ব্লকের আন্দুলিয়া পঞ্চায়েত এলাকার চাষিরা। মাছচাষ করার জন্য কিছু চাষি নিজেদের উদ্যোগে পুকুর খনন করলেও, বেশিরভাগ চাষিই সরকারিভাবে পুকুর খনন করার দাবি জানাচ্ছেন।
বিশদ

26th  August, 2020

Pages: 12345

একনজরে
সংবাদদাতা, দুর্গাপুর: সংক্রমণ এড়াতে এবার ঘরের তৈরি নারকেল, খই ও সিঁড়ির নাড়ু দিয়েই মাকে পুজো দেবেন দুর্গাপুরের মহিলা পুজো কমিটিগুলি। কাটা ফল সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ করা ...

 অন্যান্য বছরের মতো এবছরও শারদ সুন্দরী প্রতিযোগিতার আয়োজন করছে শ্যামসুন্দর কোম্পানি জুয়েলার্স। এবছর তা অষ্টম বর্ষে পড়তে চলেছে। ...

মরুভূমির উষ্ণতাকে ছাপিয়ে কলকাতা নাইট রাইডার্স দলে যেন ফাগুন হাওয়া বয়ে এনেছেন লকি ফার্গুসন। গত ম্যাচে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বিরুদ্ধে তাঁর দুরন্ত বোলিংয়ের সুবাদে সুপার ওভারে ...

 মাঝেরহাট ব্রিজ ভেঙে পড়ার পর থেকেই মধ্য এবং দক্ষিণ কলকাতার সঙ্গে বেহালার দিকে যাতায়াত করা কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

বিদ্যায় সাফল্য ও হতাশা দুই-ই বর্তমান, নতুন প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠবে। কর্মপ্রার্থীদের শুভ যোগ আছে। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৮৬৯: স্বাধীনতা সংগ্রামী মাতঙ্গিনী হাজরার জন্ম
১৯৫০: কোরিয়ার যুদ্ধে যোগ দিল গণপ্রজাতন্ত্রী চীন। রাষ্ট্রসংঘের সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে যুদ্ধ অভিযানে অংশ নিতে ইয়ালু নদী পার হল চীনের এক হাজার সেনা।
১৯৫৬: বলিউড তারকা সানি দেওল জন্মগ্রহণ করেন।
২০০৫: মানবতা বিরোধী অপরাধে সাদ্দাম হুসেনের বিচার প্রক্রিয়া শুরু হল বাগদাদে।

19th  October, 2020


ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭১.৭৪ টাকা ৭৪.৯৭ টাকা
পাউন্ড ৯২.৬৪ টাকা ৯৭.১০ টাকা
ইউরো ৮৩.৮৮ টাকা ৮৭.৯২ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৫১,৭৪০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৪৯,০৯০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৪৯,৮৩০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৬২,৭৪০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৬২,৮৪০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

৩ কার্তিক, ১৪২৭, মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০, চতুর্থী ১৪/১১ দিবা ১১/১৯। জ্যোষ্ঠা নক্ষত্র ৫১/২২, রাত্রি ২/১২। সূর্যোদয় ৫/৩৮/৫৪, সূর্যাস্ত ৫/৪/৪। অমৃতযোগ দিবা ৬/২৫ মধ্যে পুনঃ ৭/১০ গতে ১০/৫৮ মধ্যে। রাত্রি ৭/৩৫ গতে ৮/২৫ মধ্যে পুনঃ ৯/১৬ গতে ১১/৪৭ মধ্যে পুনঃ ১/২৮ গতে ৩/৯ মধ্যে পুনঃ ৪/৫০ গতে উদয়াবধি। মাহেন্দ্রযোগ রাত্রি ৭/৩৫ মধ্যে। বারবেলা ৭/৪ গতে ৮/৩০ মধ্যে পুনঃ ১২/৪৭ গতে ২/১৩ মধ্যে। কালরাত্রি ৬/৩৯ গতে ৮/১৩ মধ্যে।
৩ কার্তিক, ১৪২৭, মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০, চতুর্থী অপরাহ্ন ৪/৩৭। অনুরাধানক্ষত্র দিবা ৯/৩৪। সূর্যোদয় ৫/৪০, সূর্যাস্ত ৫/৫। অমৃতযোগ দিবা ৬/৩৩ মধ্যে ও ৭/১৭ গতে ১০/৫৮ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/২৭ গতে ৮/১৯ মধ্যে ও ৯/১৯ গতে ১১/৪৬ মধ্যে ও ১/৩০ গতে ৩/১৩ মধ্যে ও ৪/৫৭ গতে ৫/৪০ মধ্যে। মাহেন্দ্রযোগ রাত্রি ৭/২৭ মধ্যে। বারবেলা ৭/৫ গতে ৮/৩১ মধ্যে ও ১২/৪৮ গতে ২/১৪ মধ্যে। কালরাত্রি ৬/৩৯ গতে ৮/১৪ মধ্যে।
  ২ রবিয়ল আউয়ল।

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
 কোভিড-বিনাশী কলকাতার দুর্গামূর্তি ভাইরাল, শিল্পীকে কুর্নিশ থারুরের
 দেবী এখানেও দশভুজা। কিন্তু তাঁর আট হাতে কোনও অস্ত্র নেই। ...বিশদ

11:01:16 AM

আরও এক জঙ্গি খতম জম্মু-কাশ্মীরে 
গতকালের পর আজ, মঙ্গলবার আরও এক জঙ্গিকে খতম করল ভারতীয় ...বিশদ

10:43:16 AM

 করোনা: আপনার জেলার হাল কী, জানুন...
রাজ্যে নতুন করে আরও ৩,৯৯২ জনের শরীরে মিলেছে করোনা ভাইরাস। ...বিশদ

10:35:55 AM

পেট কেটে ভূগর্ভস্থ সন্তানকে চুরির অপরাধে ৬৭ বছর পর কোনও মহিলার মৃত্যুদণ্ড আমেরিকায় 
দীর্ঘ ৬৭ বছর পর কোনও মহিলাকে মৃত্যুদণ্ড দিল আমেরিকা। আগামী ...বিশদ

10:18:55 AM

 ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা আক্রান্ত ৪৬,৭৯০
ভারতে কমছে দৈনিক করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যু। গত ২৪ ঘণ্টায় ...বিশদ

10:06:32 AM

 দিনের শুরুতে সেনসেক্স পড়ল ৭৫ পয়েন্ট

09:57:10 AM