Bartaman Patrika
চাষ আবাদ
 

 অসময়ে বাজার ধরতে শরতে তরমুজ চাষ, ৬০ দিনেই ফলন

ব্রতীন দাস: তরমুজ মূলত গরমের ফল। কিন্তু, শরতেও তরমুজ ফলিয়ে বাড়তি লাভ পেতে পারেন কৃষকরা। ছটপুজোর কথা মাথায় রেখে আগাম বাজার ধরতে অসময়ে তরমুজের ভালোই চাহিদা থাকে। হাইব্রিড বিভিন্ন প্রজাতির সুবাদে পলি-মালঞ্চিং করে শরৎকালে তরমুজ ফলানো সম্ভব হচ্ছে। উদ্যানপালন আধিকারিকরা জানিয়েছেন, অসময়ের তরমুজ হিসেবে মূলত সুগার কিং, সুগার কুইন, কিরণ, সরস্বতী, বিশালা, ম্যাক্স, কৃষ্ণা, অর্জুন-এর মতো উন্নতমানের প্রজাতি রয়েছে। এসব প্রজাতির ফলন বেশি। নদীয়ার ঝিকরা, হুগলির ধনিয়াখালি, পশ্চিম মেদিনীপুরের গোপীবল্লভপুর এলাকায় প্রচুর জমিতে অসময়ের তরমুজ চাষ হচ্ছে। লাভের পরিমাণ বেশি থাকায় বহু কৃষক শরৎকালে তরমুজ ফলাতে উৎসাহী হচ্ছেন। সরাসরি জমিতে বীজ বোনা যেতে পারে। নতুবা প্লাস্টিক ট্রে, চায়ের প্লাস্টিক কাপে কিংবা পলি টানেলে চারা তৈরি করে নেওয়া যেতে পারে। পরে ওই চারা জমিতে লাগানো যায়। এতে বর্ষায় চারা নষ্ট হওয়ার আশঙ্কা থাকে না।
উদ্যানপালন বিশেষজ্ঞরা বলছেন, অসময়ের তরমুজে শোষক পোকা, ফলছিদ্রকারী পোকা, ধসা বা পচন দেখা দিতে পারে। প্রতিরোধে আগাম ব্যবস্থা নেওয়া দরকার। ফল ছিদ্রকারী পোকার আক্রমণ দেখা দিলে জমিতে ফেরোমোন ফাঁদ বসানো যেতে পারে। না হলে ঝোলা গুড় কিংবা রসগোল্লার গাদের সঙ্গে কীটনাশক মিশিয়ে বিষটোপ তৈরি করা যেতে পারে। তরমুজের আকার ও গুণমান বাড়াতে অনুখাদ্য প্রয়োগ করতে পারেন কৃষক।
তরমুজ মূলত বালি-পলি মাটিতে চাষ হয়। কিন্তু, পলি মালঞ্চিং পদ্ধতিতে এখন এঁটেল মাটিতেও তরমুজ ফলানো সম্ভব হচ্ছে। বিঘায় অনায়াসেই চার টন ফলন পাওয়া যায়। প্রতি টন তরমুজ বিক্রি করে দাম পাওয়া যায় ২০ হাজার টাকা। ৫০ শতাংশ জৈব ও ৫০ শতাংশ রাসায়নিক সার দিয়ে জমি তৈরি করে নিতে হবে। বীজ লাগানোর ৬৫-৭০ দিনের মাথায় ফল দিতে শুরু করবে। জমিতে বেড তৈরি করে বীজ বুনতে হবে। মাঝে সেচের জল দেওয়ার জন্য নালা কেটে দিতে হবে। মালঞ্চিংয়ের পলিথিন দিয়ে বেড ঢেকে দেওয়ার পর নির্দিষ্ট দূরত্ব অন্তর বীজ বুনতে হবে। প্রতিটি মাদায় দু’টি করে বীজ বোনা যেতে পারে। যেখানে বীজ বোনা হবে, সেখানে পলিথিন ছিদ্র করে দিতে হবে। এক-একটি গাছ থেকে একাধিক শাখা বের হয়। সেখান থেকে তিনটি ভালো শাখা রেখে বাকিগুলি ভেঙে দিতে হবে। তাতে গাছ পুষ্ট হবে। তরমুজের সাইজ বড় হবে। আড়াই থেকে তিন কেজি করে ওজন হবে এক-একটি তরমুজের।
মালঞ্চিংয়ের পলিথিনের উপরের দিকটা স্টিল রঙের, নীচের দিক কালো রঙের হয়। স্টিল রং শোষক পোকাকে বিকর্ষণ করে। ফলে পলি-মালঞ্চিংয়ের মাধ্যমে চাষ করলে জমিতে শোষক পোকার আক্রমণ কম হয়। তাছাড়া সেচের জল, সার কম লাগে। স্বাভাবিকভাবে চাষের খরচ অনেকটাই কমে যায়। ফলনও বাড়ে। চারা যখন ছোট থাকে, তখন ছোট ছোট লাল পোকার আক্রমণ হয়।
ওই পোকা দমনে এক লিটার জলে দুই মিলিলিটার ডাইমিথোয়েট মিশিয়ে প্রয়োগ করা যেতে পারে। তরমুজের জমিতে জল দাঁড়িয়ে গেলে গাছ মরে যাবে। আবার জমিতে জলও থাকতে হবে। সেকারণে জমিতে যাতে জলনিকাশি ব্যবস্থা ঠিক থাকে, সেদিকে নজর রাখতে হবে বলে জানাচ্ছেন উদ্যানপালন বিশেষজ্ঞরা।

11th  September, 2019
বোরো মরশুমে ১ লক্ষ ১০ হাজার একর জমিতে নিঃশুল্ক জল দেবে সেচদপ্তর 

বিএনএ, শিলিগুড়ি: এবার বিনা মাশুলে জলপাইগুড়ি জেলায় একলক্ষ একরেরও বেশি বোরো চাষের জমিতে দেওয়া হবে সেচের জল। বুধবার সেচের জল বণ্টন নিয়ে প্রস্তুতি বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে সেচদপ্তরের তিস্তা ব্যারেজ প্রজেক্ট কর্তৃপক্ষ। তবে তিস্তা সেচ প্রকল্পের বহু শাখা ক্যানেল ও ফিল্ড চ্যানেলের অবস্থা বেহাল। 
বিশদ

05th  December, 2019
উদ্যানপালন দপ্তরের সহযোগিতায় বাণিজ্যিকভাবে গাঁদা ফুল চাষে সাফল্য এসেছে, আগ্রহ বেড়েছে চাষিদের 

সংবাদদাতা, গঙ্গারামপুর: দক্ষিণ দিনাজপুর জেলায় উদ্যানপালন দপ্তরের উদ্যোগে সরকারি সহায়তায় বাণিজ্যিকভাবে গাঁদা ফুল চাষ করে লাভের মুখ দেখছেন বাগিচা চাষিরা। খুব অল্প খরচে, কম সময়ে গাঁদাফুল চাষ করা যাচ্ছে। জেলাজুড়ে ফুলের ভালো বাজার থাকায় গাঁদাফুল চাষিরা লাভও করছেন। 
বিশদ

05th  December, 2019
নদীয়ায় নয়া মাছির আক্রমণ, সাদা হয়ে যাচ্ছে নারকেল গাছের পাতা 

শীর্ষেন্দু দেবনাথ, কৃষ্ণনগর: এক ধরনের সাদা মাছির আক্রমণে নারকেল গাছের পাতা সাদা হয়ে যাচ্ছে। এমনকী নারকেল বা ডাবের রং-ও সাদা হয়ে যাচ্ছে। পরে যদিও তা হয়ে যাচ্ছে কালো। নদীয়া জেলায় গত দু’ থেকে তিন দিন ধরে বিভিন্ন ব্লক থেকে এরকম খবর পেয়েছেন জেলা কৃষি দপ্তরের কর্তারা।
বিশদ

04th  December, 2019
গড়বেতায় দেশি মাগুরের সঙ্গে গলদা চিংড়ির চাষে লাভ বেশি 

সংবাদদাতা: পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার গড়বেতা ১ নম্বর ব্লকের তাপসকুমার তেওয়ারি ব্লকের ১০ নম্বর গরঙ্গা গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গত ধ্বনি গ্রামের চাষিদের নিয়ে কম খরচে, অল্প সময়ের মধ্যে দেশি মাগুরের সঙ্গে গলদা চিংড়ির চাষ করে ভালো লাভ পেয়েছেন। এতে ওই অঞ্চলের চাষিদের মধ্যে মাছ চাষে প্রবল উৎসাহ দেখা দিয়েছে।  
বিশদ

04th  December, 2019
ডাল চাষ করে লাভের মুখ দেখতে পারেন চাষিরা 

সন্দীপ বর্মন, কোচবিহার: কোচবিহার জেলার আবহাওয়া ও জমির চরিত্র অনুযায়ী নভেম্বর মাস ডাল চাষের উপযুক্ত সময় বলে জানাচ্ছেন কৃষি বিশেষজ্ঞরা। তাঁরা জানান, একটু উঁচু, যেখানে বৃষ্টির জল দাঁড়ায় না, এ ধরনের ঢালু জমিতে নভেম্বরের প্রথম সপ্তাহ থেকেই কলাইয়ের বীজ বোনা যেতে পারে। 
বিশদ

04th  December, 2019
দুধের উৎপাদন বাড়ানোয় জোর, গোপালকদের প্রশিক্ষণ দেবে প্রাণিসম্পদ দপ্তর 

বিএনএ, বহরমপুর: রাজ্যে দুধের উৎপাদন আরও বাড়াতে একাধিক পদক্ষেপ নিচ্ছে প্রাণিসম্পদ দপ্তর। এখন রাজ্যে মোট দুধ উৎপাদন হয় ৫৬লক্ষ ৬ হাজার ৮৯৯ টন। তারমধ্যে গ্রীষ্মকালে দুধ উৎপাদন হয় ১৮লক্ষ ৫৬ হাজার ৪৫৫ টন। বর্ষার সময় দুধ পাওয়া যায় ১৮ লক্ষ ৯৫ হাজার ৪২ টন। শীতকালে দুধের পরিমাণ কিছুটা কমে যায়। 
বিশদ

04th  December, 2019
বীজ আলুর জন্য সময়ে চাষ শুরু করা জরুরি, সার দিতে হবে মেপে 

ব্রতীন দাস: বীজ আলু তৈরির জন্য সময়ে চাষ জরুরি। সারও দিতে হবে মেপে। সেইসঙ্গে পরিচর্যাও গুরুত্বপূর্ণ। সঠিক পদ্ধতি না মানলে মার খেতে পারে ফলন। এমনটাই বলছেন কৃষি বিশেষজ্ঞরা। বিধানচন্দ্র কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক সঞ্জীব দাস জানিয়েছেন, বীজ আলুর লক্ষ্যে চাষ করতে হলে অবশ্যই ব্রিডার সিড লাগবে। 
বিশদ

04th  December, 2019
শিলিগুড়িতে রেশম গুটি উৎপাদনে লাভের মুখ 

সুব্রত ধর, শিলিগুড়ি, রেশম দপ্তরের উদ্যোগে ফাঁসিদেওয়া ও মাটিগাড়ায় অগ্রহায়ণী পি-১ সঞ্চ গুটির ভালো উৎপাদন হয়েছে। পরবর্তী বন্দগুলিতেও উৎপাদনে জোর দেওয়া হচ্ছে। পরিচর্যা, প্রশিক্ষণ ও বিক্রির সুবন্দোবস্ত থাকায় এই গুটি উৎপাদনের ফলে কৃষকরা আর্থিকভাবে সহজেই লাভবান হতে পারবেন। 
বিশদ

04th  December, 2019
কম খরচে বেশি লাভ পাওয়া যায় তিলচাষে

অলোক বন্দ্যোপাধ্যায় : চাষিরা বিভিন্ন ফসলের সঙ্গে কিছুটা জমিতে তিলের চাষ করলে ভালো লাভ পেতে পারেন। তিল চাষে খরচ কম হয় এবং লাভ বেশি পাওয়া যায়। তিল চাষ করার জন্য এখন থেকেই প্রস্তুতি নিতে হবে। তিল বোনার ভালো সময় মাঘের শেষ সপ্তাহ থেকে ফাল্গুন মাসের তৃতীয় সপ্তাহ পর্যন্ত।
বিশদ

04th  December, 2019
নিয়ম মেনে চাষ করুন গাঁদাফুল

সংবাদদাতা: শীতকালিন ফুলচাষের মধ্যে গাঁদাফুলের চাষ লাভজনক। বাজারে শীতকালে গাঁদাফুলের চাহিদা বেশি থাকে। এই ফুল চাষে খরচ কম হয়। এবং অল্প সময়ের মধ্যে উৎপাদন পাওয়া যায়। চাষিরা গাঁদাফুলের চাষ করলে ভালো আর্থিক উপার্জন করতে পারেন। 
বিশদ

04th  December, 2019
বাঁকুড়ার প্রতি ব্লকে ফল ও ফুলের বাগান গড়তে মাটি পরীক্ষা করে ম্যাপ প্রকাশ প্রশাসনের 

বিএনএ, বাঁকুড়া: রুখাশুখা বাঁকুড়া জেলায় ১০০ দিনের কাজের প্রকল্পে পরীক্ষামূলকভাবে আম, মোসাম্বি, আপেল ও বেদানা চাষে সাফল্য মিলেছে। তাই এবার জেলার ২২টি ব্লকের কোন এলাকার মাটি কী ধরনের ফল বা ফুল চাষের জন্য আদর্শ, তা নিয়ে পরীক্ষা চালানোর পর একটি ম্যাপ প্রকাশ করেছে জেলা প্রশাসন।  
বিশদ

03rd  December, 2019
ডাল চাষ করে লাভের মুখ
দেখতে পারেন চাষিরা 

সন্দীপ বর্মন, কোচবিহার: কোচবিহার জেলার আবহাওয়া ও জমির চরিত্র অনুযায়ী নভেম্বর মাস ডাল চাষের উপযুক্ত সময় বলে জানাচ্ছেন কৃষি বিশেষজ্ঞরা। তাঁরা জানান, একটু উঁচু, যেখানে বৃষ্টির জল দাঁড়ায় না, এ ধরনের ঢালু জমিতে নভেম্বরের প্রথম সপ্তাহ থেকেই কলাইয়ের বীজ বোনা যেতে পারে।   বিশদ

27th  November, 2019
শিলিগুড়িতে রেশম গুটি উৎপাদনে লাভের মুখ 

সুব্রত ধর, শিলিগুড়ি: রেশম দপ্তরের উদ্যোগে ফাঁসিদেওয়া ও মাটিগাড়ায় অগ্রহায়ণী পি-১ সঞ্চ গুটির ভালো উৎপাদন হয়েছে। পরবর্তী বন্দগুলিতেও উৎপাদনে জোর দেওয়া হচ্ছে। পরিচর্যা, প্রশিক্ষণ ও বিক্রির সুবন্দোবস্ত থাকায় এই গুটি উৎপাদনের ফলে কৃষকরা আর্থিকভাবে সহজেই লাভবান হতে পারবেন।  বিশদ

27th  November, 2019
গড়বেতায় দেশি মাগুরের সঙ্গে গলদা চিংড়ির চাষে লাভ বেশি 

সংবাদদাতা: পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার গড়বেতা ১ নম্বর ব্লকের তাপসকুমার তেওয়ারি ব্লকের ১০ নম্বর গরঙ্গা গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গত ধ্বনি গ্রামের চাষিদের নিয়ে কম খরচে, অল্প সময়ের মধ্যে দেশি মাগুরের সঙ্গে গলদা চিংড়ির চাষ করে ভালো লাভ পেয়েছেন।  বিশদ

27th  November, 2019

Pages: 12345

একনজরে
 নয়াদিল্লি, ৫ ডিসেম্বর (পিটিআই): আইনজীবীদের আদালত অবমাননার হুঁশিয়ারি দেওয়ার পর করজোড়ে ক্ষমা চাইলেন বিচারপতি অরুণ মিশ্র। মঙ্গলবার বিচারপতি মিশ্রর নেতৃত্বাধীন পাঁচ সদস্যের বেঞ্চে এক জমি অধিগ্রহণ মামলার শুনানি চলছিল। ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে পাঁচটা। স্থান সল্টলেক স্টেডিয়াম। যুবভারতীর বাঁ দিকে পাশাপাশি দু’টি প্র্যাকটিস গ্রাউন্ড। এটিকে’র প্র্যাকটিসের জন্য প্রথম মাঠটির ফ্লাড লাইট জ্বলে ...

 সংবাদদাতা, উলুবেড়িয়া: বাড়িতে নিয়ে গিয়ে ভাইঝির উপর যৌন নির্যাতনের অভিযোগ উঠল খুড়তুতো জেঠার বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার দুপুরে শ্যামপুর থানার খাড়ুবেড়িয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের মরশাল গ্রামে। ...

বিএনএ, মালদহ: রোগীকে পরীক্ষার নাম করে তার শ্লীলতাহানির অভিযোগে অভিযুক্ত চিকিৎসকের খোঁজ মিলল না বৃহস্পতিবারেও। ইংলিশবাজার শহরে তার চেম্বারটিও বন্ধ রয়েছে বলে জানা গিয়েছে। এব্যাপারে মালদহ মহিলা থানা একটি মামলা দায়ের করেছে বলে পুলিস সূত্রে জানা গিয়েছে।  ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

অতিরিক্ত পরিশ্রমে শারীরিক ক্লান্তি। প্রিয়জনের বিপদগামিতায় অশান্তি ও মানহানির আশঙ্কা। সাংসারিক ক্ষেত্রে মতানৈক্য এড়িয়ে চলা ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৮২৩: জার্মান দার্শনিক ম্যাক্সমুলারের জন্ম
১৮৫৩: ঐতিহাসিক ও শিক্ষাবিদ হরপ্রসাদ শাস্ত্রীর জন্ম
১৯৫৬: দলিত আন্দোলনের নেতা ভীমরাওজি রামাজি আম্বেদকরের মৃত্যু
১৯৮৫: ক্রিকেটার আর পি সিংয়ের জন্ম
১৯৯২: অযোধ্যার বিতর্কিত সৌধ ধ্বংস
২০১৬ - তামিলনাড়ুর প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী জয়ললিতার মৃত্যু





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৯.৯২ টাকা ৭৩.০৯ টাকা
পাউন্ড ৯১.৬২ টাকা ৯৬.০৫ টাকা
ইউরো ৭৭.৪২ টাকা ৮১.১৯ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৮,৭২৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬,৭৪০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৭,২৯০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৪,২০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৪,৩০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ৬ ডিসেম্বর ২০১৯, শুক্রবার, দশমী অহোরাত্র। উত্তরভাদ্রপদ ৪২/৬ রাত্রি ১০/৫৭। সূ উ ৬/৬/৫৩, অ ৪/৪৭/৫৩, অমৃতযোগ দিবা ৬/৪৮ মধ্যে পুনঃ ৭/৩২ গতে ৯/৪০ মধ্যে পুনঃ ১১/৪৮ গতে ২/৩৯ মধ্যে পুনঃ ৩/২৩ গতে অস্তাবধি। রাত্রি ৫/৪১ গতে ৯/১৪ মধ্যে পুনঃ ১১/৫৪ গতে ৩/২৭ মধ্যে পুনঃ ৪/২০ গতে উদয়াবধি, বারবেলা ৮/৪৭ গতে ১১/২৭ মধ্যে, কালরাত্রি ৮/৭ গতে ৯/৪৭ মধ্যে।
১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ৬ ডিসেম্বর ২০১৯, শুক্রবার, দশমী ৫৮/২৮/৪৯ শেষরাত্রি ৫/৩১/৫০। উত্তরভাদ্রপদ ৪১/৪৫/৪১ রাত্রি ১০/৫০/৩৪, সূ উ ৬/৮/১৮, অ ৪/৪৮/২৩, অমৃতযোগ দিবা ৭/২ মধ্যে ও ৭/৪৪ গতে ৯/৫০ মধ্যে ও ১১/৫৭ গতে ২/৫১ মধ্যে ও ৩/২৭ গতে ৪/৪৮ মধ্যে এবং রাত্রি ৫/৪৫ গতে ৯/২১ মধ্যে ও ১২/৩ গতে ৩/৩৮ মধ্যে ও ৪/৩২ গতে ৬/৯ মধ্যে, কালবেলা ১০/৮/২০ গতে ১১/২৮/২১ মধ্যে, কালরাত্রি ৮/৮/২২ গতে ৯/৪৮/২১ মধ্যে।
৮ রবিয়স সানি

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে সিরিজের প্রথম টি-২০ জিতল ভারত

10:31:05 PM

 প্রথম টি২০: ভারত ১৭৭/২ (১৬ ওভার)

10:13:22 PM

প্রথম টি২০: ভারত ৮৯/১ (১০ ওভার) 

09:34:38 PM

প্রথম টি২০: ভারতকে ২০৮ রানের টার্গেট দিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ 

08:34:59 PM

প্রথম টি২০: ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১৪৪/৩ (১৫ ওভার) 

08:09:22 PM

প্রথম টি২০: ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১০১/২ (১০ ওভার) 

07:47:55 PM