Bartaman Patrika
চাষ আবাদ
 

 হারিয়ে যাওয়া দেশি সুগন্ধী ‘হরিণখুড়ি’ ধান ফিরিয়ে নজর কাড়লেন সাগরের কৃষকরা

ব্রতীন দাস : হারিয়ে যাওয়া দেশি সুগন্ধী ধান ‘হরিণখুড়ি’ ফিরিয়ে নজির গড়লেন সাগরের কৃষকরা। বহু বছর আগে সাগরের বিভিন্ন এলাকায় এই ধানটি চাষ হতো। কিন্তু বারবার প্রাকৃতিক বিপর্যয় ও ঠিকমতো ফলন না মেলায় ধীরে ধীরে এর চাষ কমতে থাকে। দীর্ঘ কয়েক দশক পর বিধানচন্দ্র কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগিতায় ফের এই ধানটি ফিরিয়ে রীতিমতো সাড়া ফেলে দিয়েছেন সাগরের চাষিরা। এ বছর খরিফ মরশুমে সাগরের বিভিন্ন গ্রামে প্রায় দেড়শো বিঘা জমিতে চাষ হচ্ছে হরিণখুড়ি ধানের। সাগরের সুমতিনগর, খাসরাম, কমলপুর, বিষ্ণুপুর, হরিণবাড়ি, গঙ্গাসাগর, দক্ষিণ হারাধনপুর, উত্তর হারাধনপুর এলাকায় হরিণখুড়ি ধানের চাষ করছেন কৃষকরা। অবন্তী মান্না, অমিয় নাগ, নারায়ণ জানা, শিবশঙ্কর পাণ্ডা, সুব্রত দাসের মতো চাষিরা দেশি সুগন্ধী এই ধানটি চাষে এগিয়ে এসেছেন। তাঁদের পাশে দাঁড়িয়েছে সাগরের স্বামী বিবেকানন্দ ইউথ কালচারাল সোসাইটি। এই সংগঠনের উদ্যোগেই মূলত হারিয়ে যাওয়া হরিণখুড়ি ধানটি ফের সাগরের বুকে চাষ শুরু হয়েছে।
হরিণখুড়ি ধানের বিশেষত্ব হল, লবণাক্ত জমিতেও এই ধানটি চাষ করা যায়। বিঘায় ১২-১৩ মণ ফলন পাওয়া যায়। জমিতে জল জমা সহ্য করতে পারে। এই ধানের চিড়ে দারুণ সুস্বাদু। খই ভালো হয়। ধানের দুই মাথা কালচে। দেখতে অনেকটা হরিণের চোখের মতো। চাল মাঝারি সরু। ছোট দানা। সাগরের প্রবীণ কৃষকরা জানিয়েছেন, অনেক বছর আগে ওই এলাকায় এই ধানটি চাষ হতো। নদীর জল ঢুকে অনেক জমি নষ্ট হয়ে যায়। তারপরও কিছু জমিতে এই ধানটি টিকে ছিল। পরে তা ধীরে ধীরে হারিয়ে যায়। স্বামী বিবেকানন্দ ইউথ কালচারাল সোসাইটির সম্পাদক শুকদেব নাথ জানিয়েছেন, বেশ কয়েক বছর আগে স্থানীয় কমলপুর গ্রামের এক কৃষকের কাছে প্রথম ধানটি পাওয়া যায়। তখন ধানটির পরিচয় জানা যায়নি। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, তিনি মন্দিরতলা এলাকার কৃষক দেবাশিস বেরার কাছ থেকে ওই ধান সংগ্রহ করেছেন। দেবাশিসবাবুর কাছে জানা যায়, পূর্ব মেদিনীপুরেও এই ধান চাষ হয়। এর পর ধানটির নমুনা নিয়ে বিধানচন্দ্র কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে যোগাযোগ করেন তাঁরা। সেখানে বিজ্ঞানীরা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে জানান, ধানটির নাম হরিণখুড়ি। বিধানচন্দ্র কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় চাষ করে এই দেশি সুগন্ধী ধানটির বীজের পরিমাণ বাড়ায়। তার পর তা সাগরের কৃষকদের হাতে তুলে দেওয়া হয় চাষের জন্য। ২০১২ সাল থেকে সাগরে নতুন করে হরিণখুড়ি ধানটির চাষ শুরু হয়েছে। প্রতি বছর এলাকা বাড়ছে। হরিণখুড়ি জাতটি ছাড়াও বিবেকানন্দ ইউথ কালচারাল সোসাইটির কাছে অনেক প্রজাতির ধানের বীজ রয়েছে। যেগুলির অধিকাংশই একসময় বিভিন্ন এলাকায় চাষ হলেও এখন হারিয়ে গিয়েছে কিংবা অবলুপ্তপ্রায়। শুকদেববাবু জানিয়েছেন, এই মুহূর্তে তাঁদের কাছে ২১২ ভ্যারাইটির ধানের বীজ রয়েছে। দেশি ধানের বীজ সংরক্ষণের জন্য ২০১৬ সালে ভারত সরকারের বীজ সংরক্ষণ বিভাগ থেকে ১০ লক্ষ টাকা পুরস্কারও পেয়েছে তাঁদের সোসাইটি। ওই টাকায় ধান ভাঙানোর আধুনিক মেশিন বসানোর পরিকল্পনা রয়েছে তাঁদের।
বিধানচন্দ্র কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. মৃত্যুঞ্জয় ঘোষ জানিয়েছেন, সাগরে চাষের জন্য আমরা হরিণখুড়ি ধানের বীজ দিয়েছি। খরিফে ওই ধানটি চাষের জন্য প্রযুক্তি দেওয়া হবে চাষিদের। চাষের বিভিন্ন খুঁটিনাটি নিয়ে প্রশিক্ষণও দেওয়া হয়েছে। আমরা চাই, হারিয়ে যেতে বসা দেশি সুগন্ধী ধানগুলি এভাবেই বাঁচিয়ে রাখুন কৃষকরা। কৃষকরা জানিয়েছেন, হরিণখুড়ি ধানটি মাঝারি জমিতে ভালো হয়। গাছের উচ্চতা ৫ ফুটের মতো হয়। রোগপোকা সহনশীল। ১৩৫-১৪০ দিনে ফলন পাওয়া যায়। ধৈঞ্চা ও জৈবসার দিয়ে চাষের কথা বলছেন কৃষি আধিকারিকরা। বিধানচন্দ্র কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে হরিণখুড়ি ধানের ৪০ কেজি বীজ দেওয়া হয়েছে। বাকিটা দিয়েছে বিবেকানন্দ ইউথ কালচারাল সোসাইটি। একেবারে বিনামূল্যে না দিয়ে তারা কেজি প্রতি বীজের জন্য ৫ টাকা করে নিচ্ছে।
ড. মৃত্যুঞ্জয় ঘোষ জানিয়েছেন, আমাদের রাজ্যে প্রায় এক লক্ষ হেক্টর জমিতে দেশি সুগন্ধী ধানের চাষ হয়। মোট ৩ লক্ষ টন ধান উৎপাদন হয়ে থাকে। যার বেশিরভাগটাই এ রাজ্যে বিক্রি হয়ে যায়। কিছুটা দক্ষিণ ভারতে যায়।

03rd  July, 2019
বোরো মরশুমে ১ লক্ষ ১০ হাজার একর জমিতে নিঃশুল্ক জল দেবে সেচদপ্তর 

বিএনএ, শিলিগুড়ি: এবার বিনা মাশুলে জলপাইগুড়ি জেলায় একলক্ষ একরেরও বেশি বোরো চাষের জমিতে দেওয়া হবে সেচের জল। বুধবার সেচের জল বণ্টন নিয়ে প্রস্তুতি বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে সেচদপ্তরের তিস্তা ব্যারেজ প্রজেক্ট কর্তৃপক্ষ। তবে তিস্তা সেচ প্রকল্পের বহু শাখা ক্যানেল ও ফিল্ড চ্যানেলের অবস্থা বেহাল। 
বিশদ

05th  December, 2019
উদ্যানপালন দপ্তরের সহযোগিতায় বাণিজ্যিকভাবে গাঁদা ফুল চাষে সাফল্য এসেছে, আগ্রহ বেড়েছে চাষিদের 

সংবাদদাতা, গঙ্গারামপুর: দক্ষিণ দিনাজপুর জেলায় উদ্যানপালন দপ্তরের উদ্যোগে সরকারি সহায়তায় বাণিজ্যিকভাবে গাঁদা ফুল চাষ করে লাভের মুখ দেখছেন বাগিচা চাষিরা। খুব অল্প খরচে, কম সময়ে গাঁদাফুল চাষ করা যাচ্ছে। জেলাজুড়ে ফুলের ভালো বাজার থাকায় গাঁদাফুল চাষিরা লাভও করছেন। 
বিশদ

05th  December, 2019
নদীয়ায় নয়া মাছির আক্রমণ, সাদা হয়ে যাচ্ছে নারকেল গাছের পাতা 

শীর্ষেন্দু দেবনাথ, কৃষ্ণনগর: এক ধরনের সাদা মাছির আক্রমণে নারকেল গাছের পাতা সাদা হয়ে যাচ্ছে। এমনকী নারকেল বা ডাবের রং-ও সাদা হয়ে যাচ্ছে। পরে যদিও তা হয়ে যাচ্ছে কালো। নদীয়া জেলায় গত দু’ থেকে তিন দিন ধরে বিভিন্ন ব্লক থেকে এরকম খবর পেয়েছেন জেলা কৃষি দপ্তরের কর্তারা।
বিশদ

04th  December, 2019
গড়বেতায় দেশি মাগুরের সঙ্গে গলদা চিংড়ির চাষে লাভ বেশি 

সংবাদদাতা: পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার গড়বেতা ১ নম্বর ব্লকের তাপসকুমার তেওয়ারি ব্লকের ১০ নম্বর গরঙ্গা গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গত ধ্বনি গ্রামের চাষিদের নিয়ে কম খরচে, অল্প সময়ের মধ্যে দেশি মাগুরের সঙ্গে গলদা চিংড়ির চাষ করে ভালো লাভ পেয়েছেন। এতে ওই অঞ্চলের চাষিদের মধ্যে মাছ চাষে প্রবল উৎসাহ দেখা দিয়েছে।  
বিশদ

04th  December, 2019
ডাল চাষ করে লাভের মুখ দেখতে পারেন চাষিরা 

সন্দীপ বর্মন, কোচবিহার: কোচবিহার জেলার আবহাওয়া ও জমির চরিত্র অনুযায়ী নভেম্বর মাস ডাল চাষের উপযুক্ত সময় বলে জানাচ্ছেন কৃষি বিশেষজ্ঞরা। তাঁরা জানান, একটু উঁচু, যেখানে বৃষ্টির জল দাঁড়ায় না, এ ধরনের ঢালু জমিতে নভেম্বরের প্রথম সপ্তাহ থেকেই কলাইয়ের বীজ বোনা যেতে পারে। 
বিশদ

04th  December, 2019
দুধের উৎপাদন বাড়ানোয় জোর, গোপালকদের প্রশিক্ষণ দেবে প্রাণিসম্পদ দপ্তর 

বিএনএ, বহরমপুর: রাজ্যে দুধের উৎপাদন আরও বাড়াতে একাধিক পদক্ষেপ নিচ্ছে প্রাণিসম্পদ দপ্তর। এখন রাজ্যে মোট দুধ উৎপাদন হয় ৫৬লক্ষ ৬ হাজার ৮৯৯ টন। তারমধ্যে গ্রীষ্মকালে দুধ উৎপাদন হয় ১৮লক্ষ ৫৬ হাজার ৪৫৫ টন। বর্ষার সময় দুধ পাওয়া যায় ১৮ লক্ষ ৯৫ হাজার ৪২ টন। শীতকালে দুধের পরিমাণ কিছুটা কমে যায়। 
বিশদ

04th  December, 2019
বীজ আলুর জন্য সময়ে চাষ শুরু করা জরুরি, সার দিতে হবে মেপে 

ব্রতীন দাস: বীজ আলু তৈরির জন্য সময়ে চাষ জরুরি। সারও দিতে হবে মেপে। সেইসঙ্গে পরিচর্যাও গুরুত্বপূর্ণ। সঠিক পদ্ধতি না মানলে মার খেতে পারে ফলন। এমনটাই বলছেন কৃষি বিশেষজ্ঞরা। বিধানচন্দ্র কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক সঞ্জীব দাস জানিয়েছেন, বীজ আলুর লক্ষ্যে চাষ করতে হলে অবশ্যই ব্রিডার সিড লাগবে। 
বিশদ

04th  December, 2019
শিলিগুড়িতে রেশম গুটি উৎপাদনে লাভের মুখ 

সুব্রত ধর, শিলিগুড়ি, রেশম দপ্তরের উদ্যোগে ফাঁসিদেওয়া ও মাটিগাড়ায় অগ্রহায়ণী পি-১ সঞ্চ গুটির ভালো উৎপাদন হয়েছে। পরবর্তী বন্দগুলিতেও উৎপাদনে জোর দেওয়া হচ্ছে। পরিচর্যা, প্রশিক্ষণ ও বিক্রির সুবন্দোবস্ত থাকায় এই গুটি উৎপাদনের ফলে কৃষকরা আর্থিকভাবে সহজেই লাভবান হতে পারবেন। 
বিশদ

04th  December, 2019
কম খরচে বেশি লাভ পাওয়া যায় তিলচাষে

অলোক বন্দ্যোপাধ্যায় : চাষিরা বিভিন্ন ফসলের সঙ্গে কিছুটা জমিতে তিলের চাষ করলে ভালো লাভ পেতে পারেন। তিল চাষে খরচ কম হয় এবং লাভ বেশি পাওয়া যায়। তিল চাষ করার জন্য এখন থেকেই প্রস্তুতি নিতে হবে। তিল বোনার ভালো সময় মাঘের শেষ সপ্তাহ থেকে ফাল্গুন মাসের তৃতীয় সপ্তাহ পর্যন্ত।
বিশদ

04th  December, 2019
নিয়ম মেনে চাষ করুন গাঁদাফুল

সংবাদদাতা: শীতকালিন ফুলচাষের মধ্যে গাঁদাফুলের চাষ লাভজনক। বাজারে শীতকালে গাঁদাফুলের চাহিদা বেশি থাকে। এই ফুল চাষে খরচ কম হয়। এবং অল্প সময়ের মধ্যে উৎপাদন পাওয়া যায়। চাষিরা গাঁদাফুলের চাষ করলে ভালো আর্থিক উপার্জন করতে পারেন। 
বিশদ

04th  December, 2019
বাঁকুড়ার প্রতি ব্লকে ফল ও ফুলের বাগান গড়তে মাটি পরীক্ষা করে ম্যাপ প্রকাশ প্রশাসনের 

বিএনএ, বাঁকুড়া: রুখাশুখা বাঁকুড়া জেলায় ১০০ দিনের কাজের প্রকল্পে পরীক্ষামূলকভাবে আম, মোসাম্বি, আপেল ও বেদানা চাষে সাফল্য মিলেছে। তাই এবার জেলার ২২টি ব্লকের কোন এলাকার মাটি কী ধরনের ফল বা ফুল চাষের জন্য আদর্শ, তা নিয়ে পরীক্ষা চালানোর পর একটি ম্যাপ প্রকাশ করেছে জেলা প্রশাসন।  
বিশদ

03rd  December, 2019
ডাল চাষ করে লাভের মুখ
দেখতে পারেন চাষিরা 

সন্দীপ বর্মন, কোচবিহার: কোচবিহার জেলার আবহাওয়া ও জমির চরিত্র অনুযায়ী নভেম্বর মাস ডাল চাষের উপযুক্ত সময় বলে জানাচ্ছেন কৃষি বিশেষজ্ঞরা। তাঁরা জানান, একটু উঁচু, যেখানে বৃষ্টির জল দাঁড়ায় না, এ ধরনের ঢালু জমিতে নভেম্বরের প্রথম সপ্তাহ থেকেই কলাইয়ের বীজ বোনা যেতে পারে।   বিশদ

27th  November, 2019
শিলিগুড়িতে রেশম গুটি উৎপাদনে লাভের মুখ 

সুব্রত ধর, শিলিগুড়ি: রেশম দপ্তরের উদ্যোগে ফাঁসিদেওয়া ও মাটিগাড়ায় অগ্রহায়ণী পি-১ সঞ্চ গুটির ভালো উৎপাদন হয়েছে। পরবর্তী বন্দগুলিতেও উৎপাদনে জোর দেওয়া হচ্ছে। পরিচর্যা, প্রশিক্ষণ ও বিক্রির সুবন্দোবস্ত থাকায় এই গুটি উৎপাদনের ফলে কৃষকরা আর্থিকভাবে সহজেই লাভবান হতে পারবেন।  বিশদ

27th  November, 2019
গড়বেতায় দেশি মাগুরের সঙ্গে গলদা চিংড়ির চাষে লাভ বেশি 

সংবাদদাতা: পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার গড়বেতা ১ নম্বর ব্লকের তাপসকুমার তেওয়ারি ব্লকের ১০ নম্বর গরঙ্গা গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গত ধ্বনি গ্রামের চাষিদের নিয়ে কম খরচে, অল্প সময়ের মধ্যে দেশি মাগুরের সঙ্গে গলদা চিংড়ির চাষ করে ভালো লাভ পেয়েছেন।  বিশদ

27th  November, 2019

Pages: 12345

একনজরে
অর্পণ সেনগুপ্ত, কলকাতা: স্কুলের কাছে ‘প্রায়র পারমিশন’ (পিপি) এসে পৌঁছনোর আগেই শিক্ষক পদপ্রার্থীদের হাতে তা চলে আসছে। আর তার প্রতিলিপি নিয়েই স্কুলে যোগ দিতে চলে আসছেন শিক্ষকরা। রাজ্যের বিভিন্ন স্কুলে এই ঘটনা ঘটছে। বদলির আবেদন করা শিক্ষকদের হাতে এই পিপি ...

ওয়েলিংটন, ৯ ডিসেম্বর (এএফপি): ছবির মতো সুন্দর হোয়াইট আইল্যান্ড। ভ্রমণের আনন্দে মশগুল পর্যটকের দল। ভরদুপুরে হঠাৎ করে জেগে উঠল আগ্নেয়গিরি। সোমবার নিউজিল্যান্ডের এই ঘটনায় মৃত্যু হল অন্তত পাঁচজনের। জখম ১৮ জন। সরকারি সূত্রে খবর, আটকে পড়েছেন বহু পর্যটক। তাঁদের উদ্ধারের ...

সংবাদদাতা, রামপুরহাট: অজ্ঞাতপরিচয় এক সাধুর মৃত্যু হল রামপুরহাট মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। রবিবার রাতে তারাপীঠের শ্মশান থেকে অসুস্থ ওই সাধুকে উদ্ধার করে রামপুরহাট মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসে তারাপীঠ থানার পুলিস। সেখানে চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।   ...

তিরুবনন্তপুরম, ৯ ডিসেম্বর: ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচে বিরাট কোহলি নিজের ব্যাটিং পজিশন ছেড়ে দিয়েছিলেন শিবম দুবেকে। তিন নম্বরে ব্যাট করার সুযোগটা দারুণভাবে কাজে ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
aries

কর্মপ্রার্থীদের ক্ষেত্রে শুভ। সরকারি ক্ষেত্রে কর্মলাভের সম্ভাবনা। প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় সাফল্য আসবে। প্রেম-ভালোবাসায় মানসিক অস্থিরতা থাকবে। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

বিশ্ব মানবাধিকার দিবস,
১৮৭০- ঐতিহাসিক যদুনাথ সরকারের জন্ম,
১৮৮৮- শহিদ প্রফুল্ল চাকীর জন্ম,
২০০১- অভিনেতা অশোককুমারের মৃত্যু  





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.৪৪ টাকা ৭২.১৪ টাকা
পাউন্ড ৯২.০৭ টাকা ৯৫.৩৭ টাকা
ইউরো ৭৭.৩৪ টাকা ৮০.২৯ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৮,২৮৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬,৩২৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৬,৮৭০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৩,৫০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৩,৬০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১০ ডিসেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার, ত্রয়োদশী ১১/২৬ দিবা ১০/৪৪। কৃত্তিকা ৫৯/২৯ শেষ রাত্রি ৫/৫৭। সূ উ ৬/৯/৩১, অ ৪/৪৮/৪৩, অমৃতযোগ দিবা ৬/৫২ মধ্যে পুনঃ ৭/৩৫ গতে ১১/৮ মধ্যে। রাত্রি ৭/২৯ গতে ৮/২২ মধ্যে পুনঃ ৯/১৬ গতে ১১/৫৬ মধ্যে পুনঃ ১/৪৩ গতে ৩/৩০ মধ্যে পুনঃ ৫/১৭ গতে উদয়াবধি, বারবেলা ৭/২৮ গতে ৮/৪৮ মধ্যে পুনঃ ১২/৪৮ গতে ২/৮ মধ্যে, কালরাত্রি ৬/২৮ গতে ৮/৮ মধ্যে। 
২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১০ ডিসেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার, ত্রয়োদশী ১০/২/৪৮ দিবা ১০/১২/৫। কৃত্তিকা ৬০/০/০ অহোরাত্র, সূ উ ৬/১০/৫৮, অ ৪/৪৯/১৩, অমৃতযোগ দিবা ৭/৩ মধ্যে ও ৭/৪৫ গতে ১১/৬ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/৩৫ গতে ৮/২৯ মধ্যে ও ৯/২৩ গতে ১২/৪ মধ্যে ও ১/৫২ গতে ৩/৩৯ মধ্যে ও ৫/২৭ গতে ৬/১২ মধ্যে, কালবেলা ১২/৪৯/৫৩ গতে ২/৯/৩৯ মধ্যে, কালরাত্রি ৬/২৯/২৬ গতে ৮/৯/৩৯ মধ্যে।
 
মোসলেম: ১২ রবিয়স সানি 

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
বিধাননগরে বিল্ডিং প্ল্যান অনুমোদন হবে অনলাইনে 
বিল্ডিং প্ল্যান অনুমোদনের কাজে গতি বাড়াতে ও প্রক্রিয়া আরও স্বচ্ছ ...বিশদ

08:55:00 AM

যাদবপুরে রোল শিট ৩ জানুয়ারি 
পড়ুয়াদের দাবি মেনে নির্বাচনের স্টুডেন্টস রোল শিট ৩ জানুয়ারিই দেবে ...বিশদ

08:50:00 AM

সুন্দরবনে ১৬টি সেতুর কাজ চলছে: মন্ত্রী 
সুন্দরবনে তিনটি সেতু তৈরি হয়ে গিয়েছে। আরও ১৬টি সেতুর নির্মাণকাজ ...বিশদ

08:45:00 AM

মানব উন্নয়ন সূচকে এক ধাপ এগিয়ে ১২৯তম স্থান দখল করল ভারত 
মানবসম্পদ উন্নয়নে আরও এক ধাপ উঠে এল ভারত। চলতি বছরে ...বিশদ

08:40:00 AM

বিদেশ যাওয়ার অনুমতি রবার্ট ওয়াধেরাকে 
বিদেশ যাওয়ার অনুমতি পেলেন কংগ্রেস নেত্রী সোনিয়া গান্ধীর জামাই রবার্ট ...বিশদ

08:39:49 AM

সিটুর আবেদনে সাড়া দিল না কোর্ট 
১১ ডিসেম্বর ধর্মতলায় ভিক্টোরিয়া হাউসের সামনে সমাবেশ করার অনুমতি পেল ...বিশদ

08:35:00 AM