Bartaman Patrika
চাষ আবাদ
 
 

বর্ধমানে বেগুন খেত। -নিজস্ব চিত্র 

 হারিয়ে যাওয়া দেশি সুগন্ধী ‘হরিণখুড়ি’ ধান ফিরিয়ে নজর কাড়লেন সাগরের কৃষকরা

ব্রতীন দাস : হারিয়ে যাওয়া দেশি সুগন্ধী ধান ‘হরিণখুড়ি’ ফিরিয়ে নজির গড়লেন সাগরের কৃষকরা। বহু বছর আগে সাগরের বিভিন্ন এলাকায় এই ধানটি চাষ হতো। কিন্তু বারবার প্রাকৃতিক বিপর্যয় ও ঠিকমতো ফলন না মেলায় ধীরে ধীরে এর চাষ কমতে থাকে। দীর্ঘ কয়েক দশক পর বিধানচন্দ্র কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগিতায় ফের এই ধানটি ফিরিয়ে রীতিমতো সাড়া ফেলে দিয়েছেন সাগরের চাষিরা। এ বছর খরিফ মরশুমে সাগরের বিভিন্ন গ্রামে প্রায় দেড়শো বিঘা জমিতে চাষ হচ্ছে হরিণখুড়ি ধানের। সাগরের সুমতিনগর, খাসরাম, কমলপুর, বিষ্ণুপুর, হরিণবাড়ি, গঙ্গাসাগর, দক্ষিণ হারাধনপুর, উত্তর হারাধনপুর এলাকায় হরিণখুড়ি ধানের চাষ করছেন কৃষকরা। অবন্তী মান্না, অমিয় নাগ, নারায়ণ জানা, শিবশঙ্কর পাণ্ডা, সুব্রত দাসের মতো চাষিরা দেশি সুগন্ধী এই ধানটি চাষে এগিয়ে এসেছেন। তাঁদের পাশে দাঁড়িয়েছে সাগরের স্বামী বিবেকানন্দ ইউথ কালচারাল সোসাইটি। এই সংগঠনের উদ্যোগেই মূলত হারিয়ে যাওয়া হরিণখুড়ি ধানটি ফের সাগরের বুকে চাষ শুরু হয়েছে।
হরিণখুড়ি ধানের বিশেষত্ব হল, লবণাক্ত জমিতেও এই ধানটি চাষ করা যায়। বিঘায় ১২-১৩ মণ ফলন পাওয়া যায়। জমিতে জল জমা সহ্য করতে পারে। এই ধানের চিড়ে দারুণ সুস্বাদু। খই ভালো হয়। ধানের দুই মাথা কালচে। দেখতে অনেকটা হরিণের চোখের মতো। চাল মাঝারি সরু। ছোট দানা। সাগরের প্রবীণ কৃষকরা জানিয়েছেন, অনেক বছর আগে ওই এলাকায় এই ধানটি চাষ হতো। নদীর জল ঢুকে অনেক জমি নষ্ট হয়ে যায়। তারপরও কিছু জমিতে এই ধানটি টিকে ছিল। পরে তা ধীরে ধীরে হারিয়ে যায়। স্বামী বিবেকানন্দ ইউথ কালচারাল সোসাইটির সম্পাদক শুকদেব নাথ জানিয়েছেন, বেশ কয়েক বছর আগে স্থানীয় কমলপুর গ্রামের এক কৃষকের কাছে প্রথম ধানটি পাওয়া যায়। তখন ধানটির পরিচয় জানা যায়নি। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, তিনি মন্দিরতলা এলাকার কৃষক দেবাশিস বেরার কাছ থেকে ওই ধান সংগ্রহ করেছেন। দেবাশিসবাবুর কাছে জানা যায়, পূর্ব মেদিনীপুরেও এই ধান চাষ হয়। এর পর ধানটির নমুনা নিয়ে বিধানচন্দ্র কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে যোগাযোগ করেন তাঁরা। সেখানে বিজ্ঞানীরা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে জানান, ধানটির নাম হরিণখুড়ি। বিধানচন্দ্র কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় চাষ করে এই দেশি সুগন্ধী ধানটির বীজের পরিমাণ বাড়ায়। তার পর তা সাগরের কৃষকদের হাতে তুলে দেওয়া হয় চাষের জন্য। ২০১২ সাল থেকে সাগরে নতুন করে হরিণখুড়ি ধানটির চাষ শুরু হয়েছে। প্রতি বছর এলাকা বাড়ছে। হরিণখুড়ি জাতটি ছাড়াও বিবেকানন্দ ইউথ কালচারাল সোসাইটির কাছে অনেক প্রজাতির ধানের বীজ রয়েছে। যেগুলির অধিকাংশই একসময় বিভিন্ন এলাকায় চাষ হলেও এখন হারিয়ে গিয়েছে কিংবা অবলুপ্তপ্রায়। শুকদেববাবু জানিয়েছেন, এই মুহূর্তে তাঁদের কাছে ২১২ ভ্যারাইটির ধানের বীজ রয়েছে। দেশি ধানের বীজ সংরক্ষণের জন্য ২০১৬ সালে ভারত সরকারের বীজ সংরক্ষণ বিভাগ থেকে ১০ লক্ষ টাকা পুরস্কারও পেয়েছে তাঁদের সোসাইটি। ওই টাকায় ধান ভাঙানোর আধুনিক মেশিন বসানোর পরিকল্পনা রয়েছে তাঁদের।
বিধানচন্দ্র কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. মৃত্যুঞ্জয় ঘোষ জানিয়েছেন, সাগরে চাষের জন্য আমরা হরিণখুড়ি ধানের বীজ দিয়েছি। খরিফে ওই ধানটি চাষের জন্য প্রযুক্তি দেওয়া হবে চাষিদের। চাষের বিভিন্ন খুঁটিনাটি নিয়ে প্রশিক্ষণও দেওয়া হয়েছে। আমরা চাই, হারিয়ে যেতে বসা দেশি সুগন্ধী ধানগুলি এভাবেই বাঁচিয়ে রাখুন কৃষকরা। কৃষকরা জানিয়েছেন, হরিণখুড়ি ধানটি মাঝারি জমিতে ভালো হয়। গাছের উচ্চতা ৫ ফুটের মতো হয়। রোগপোকা সহনশীল। ১৩৫-১৪০ দিনে ফলন পাওয়া যায়। ধৈঞ্চা ও জৈবসার দিয়ে চাষের কথা বলছেন কৃষি আধিকারিকরা। বিধানচন্দ্র কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে হরিণখুড়ি ধানের ৪০ কেজি বীজ দেওয়া হয়েছে। বাকিটা দিয়েছে বিবেকানন্দ ইউথ কালচারাল সোসাইটি। একেবারে বিনামূল্যে না দিয়ে তারা কেজি প্রতি বীজের জন্য ৫ টাকা করে নিচ্ছে।
ড. মৃত্যুঞ্জয় ঘোষ জানিয়েছেন, আমাদের রাজ্যে প্রায় এক লক্ষ হেক্টর জমিতে দেশি সুগন্ধী ধানের চাষ হয়। মোট ৩ লক্ষ টন ধান উৎপাদন হয়ে থাকে। যার বেশিরভাগটাই এ রাজ্যে বিক্রি হয়ে যায়। কিছুটা দক্ষিণ ভারতে যায়।
03rd  July, 2019
পানিফল চাষে লাভ মেলায় খুশি আরামবাগের কৃষকরা 

সুদেব দাস, আরামবাগ: আরামবাগে পানিফল চাষে তিনগুণ লাভ হওয়ায় খুশি চাষিরা। শীতের আগে রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় যাচ্ছে ওই পানিফল। কৃষি দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, এ রাজ্যে নদীয়া ও মুর্শিদাবাদ জেলায় পানিফলের চাষ শুরু হয়েছিল। পরবর্তী সময়ে রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় বর্তমানে কমবেশি এই ফলের চাষ হচ্ছে।  
বিশদ

আমনে ভালো ফলন পেতে শোষক পোকা ও ঝলসা ঠেকানো জরুরি 

নিজস্ব প্রতিনিধি: আমন ধান কাটার সময় চলে এসেছে। যেসব জমিতে সময়ে ধান লাগানো হয়েছে, সেখানে ধানগাছে শিষ চলে এসেছে। যেখানে একটু দেরিতে রোয়া করা হয়েছে, সেখানে ধানগাছে থোড় এসেছে। এইসময় ধানখেতে পরিচর্যা জরুরি। কয়েকটি রোগপোকা দমনের দিকেও বিশেষ নজর রাখতে হবে চাষিদের। নতুবা ফলন মার খেতে পারে।  
বিশদ

লাভ বাড়বে ৯ গুণ, মালদহে মিশ্র চাষে ঝুঁকছেন কৃষকরা 

সংবাদদাতা, হরিশ্চন্দ্রপুর: মালদহ জেলার হরিশ্চন্দ্রপুর-২ ব্লকে অধিক মুনাফা লাভের আশায় মিশ্র চাষের দিকে ঝুঁকছেন চাষিরা। ব্লক কৃষি দপ্তরের আতমা প্রকল্পের মাধ্যমে ধানের জমিতে মাছ ও সব্জি চাষ করা হয়। ব্লক কৃষি দপ্তরের উদ্যোগে ধানের সঙ্গে মাছ চাষের একটি প্রদর্শনী ক্ষেত্র করা হয় ব্লকের সুলতাননগর গ্রাম পঞ্চায়েতের সাহাপুর গ্রামে। 
বিশদ

উৎপাদন বৃদ্ধিতে নয়া দিশা খাঁচায় মাছচাষে
অনেকটাই এগিয়ে গিয়েছে ঝাড়খণ্ড, ওড়িশা ও ছত্তিশগড়

ব্রতীন দাস: প্রযুক্তির হাত ধরে দারুণ সম্ভাবনার ক্ষেত্র তৈরি করেছে খাঁচায় মাছচাষ। এই পদ্ধতিতে খাঁচার চারদিকে জাল দিয়ে ঘেরা থাকে। কিন্তু তাতে জল ঢুকতে কোনওরকম অসুবিধা হয় না। খাঁচার আকার নানারকম হতে পারে। বাঁশ, দস্তা কিংবা প্রলেপিত লোহা দিয়ে তৈরি হয় খাঁচার কাঠামো। 
বিশদ

বিকল্প হিসেবে আগ্রহ বাড়ছে কুমড়ো চাষে 

মোহন গঙ্গোপাধ্যায় : আলু, বেগুন, পটলের মতো গৃহস্থের বাড়িতে কদর পাচ্ছে কুমড়োও। বাজারে এই সব্জিটির ভালোই চাহিদা। পাল্লা দিয়ে দামও ঊর্ধ্বমুখী। কৃষিবিদরাও এই চাষে যাতে কৃষকরা লাভবান হন, এজন্য কৃষি ব্লকগুলিতে পরামর্শ দিচ্ছেন। বিকল্প চাষ হিসেবে চাষিরা যাতে এগিয়ে আসেন এজন্য প্রশিক্ষণ দেওয়া শুরু হয়েছে। 
বিশদ

প্রাকৃতিক উপায়ে ফসলের পোকা দমনে জোর দিচ্ছে কৃষিদপ্তর 

প্রসেনজিৎ সরকার: মাটি পরীক্ষার ফলাফলের ভিত্তিতে চাষ করে উন্নতমানের ফসল উৎপাদন ও অধিক মাত্রায় কীটনাশকের ব্যবহারের পরিবর্তে কম খরচে ও সহজ পদ্ধতিতে রোগপোকা দমনের পরামর্শ দিচ্ছে কৃষিদপ্তর। জলপাইগুড়ি কৃষি আধিকারিক মেহফুজ আহমেদ বলেন, সচেতনতা শিবিরগুলিতে মাটি পরীক্ষার ভিত্তিতে চাষের পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।  
বিশদ

কদর বাড়ছে মিল্ক ফিশ, পেংবা, মুক্তগাছা মাছের 

ব্রতীন দাস : ‘মৎস্য মারিব খাইব সুখে’। মাছে-ভাতে বাঙালির পাতে পড়তেই রুই-কাতলা-মৃগেলের একঘেয়ে স্বাদ বদলাতে কদর বাড়ছে মণিপুরের পেংবা কিংবা কেরলের মুক্তগাছা মাছের। স্বাদের গুণে জায়গা করে নিয়েছে রাজ্যে নতুন মাছ হিসেবে পরিচিত মিল্ক ফিশ।  
বিশদ

02nd  October, 2019
শত্রুপোকার সঙ্গেই জমিতে ধ্বংস হচ্ছে মিত্রপোকা, উদ্বেগ 

মোহন গঙ্গোপাধ্যায়: খেতের পোকা। এদের কেউ শত্রু। আবার কেউ মিত্র। অবশ্যই তা চাষিদের কাছে। শত্রু পোকাদের নিকেশ করতে গিয়ে মিত্ররাও হারিয়ে যাচ্ছে। ফলস্বরূপ উত্তরোত্তর শত্রু পোকার বৃদ্ধি ঘটছে। চাষিদের কাছে এরাই এখন প্রধান মাথাব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এ নিয়ে চিন্তিত কৃষি বিশেষজ্ঞ ও গবেষণারত বিজ্ঞানীরা। 
বিশদ

02nd  October, 2019
মালদহে সব্জির উৎপাদন বাড়াতেই উন্নত জাতের বীজ দেওয়ার উদ্যোগ 

মঙ্গলচন্দ্র ঘোষ, গাজোল: মালদহ জেলায় সব্জির উৎপাদন আরও বাড়াতে চাষিদের শঙ্কর জাতীয় উন্নতমানের টম্যাটো, বেগুন ও লঙ্কার বীজ দেওয়ার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। মূলত জেলার সব্জিচাষিদের আর্থিক দিক দিয়ে লাভবান করবার জন্যই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে প্রশাসন।  
বিশদ

25th  September, 2019
খরিফে পেঁয়াজের ভালো দাম পাওয়ার আশা ফলন বৃদ্ধিতে পরিচর্যায় জোর দেওয়ার পরামর্শ 

ব্রতীন দাস: চাহিদার তুলনায় জোগান নিতান্তই কম। ফলে প্রতিদিনই দর চড়ছে পেঁয়াজের। ইতিমধ্যেই ৭০ টাকা কেজি ছাড়িয়েছে। পুজোয় ১০০ টাকা ছুঁয়ে ফেলার আশঙ্কা। পেঁয়াজের দামের ঝাঁঝে মধ্যবিত্তর চোখে জল আসার জোগাড়। এই পরিস্থিতিতে খরিফের পেঁয়াজ বাজারে এলে ভালোই দাম পেতে পারেন চাষিরা। 
বিশদ

25th  September, 2019
আমন চাষে সুধা পদ্ধতিতে জোর 

প্রসেনজিৎ সরকার: সুধা পদ্ধতি বা সুনিশ্চিত ধান চাষ পদ্ধতির মাধ্যমে আমন চাষে উৎপাদন বৃদ্ধিতে জোর দিয়েছে কৃষিদপ্তর। কৃষিদপ্তর জানিয়েছে, প্রচলিত পদ্ধতির থেকে নতুন এই পদ্ধতিতে খরচও কিছুটা কম হয়। বীজতলায় বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে সুস্থ সবল ও শক্তিশালী চারা তৈরি করে ফলন বৃদ্ধি করা যায়।  
বিশদ

25th  September, 2019
চাহিদা বাড়ছে অর্কিডের, রপ্তানি হচ্ছে দক্ষিণ ২৪ পরগনার বিষ্ণুপুর থেকে 

অতিরিক্ত আলোয় অর্কিড রাখা যাবে না। এতে পাতা সাদা হয়ে যাবে। ঘরের টিউবের আলোই যথেষ্ট। বেডরুমে রাখলে জানলা খুলে রাখতে হবে। ফ্যালেনপসিস অর্কিডের বাইরে বেরনো শিকড়ের রং সবুজ হলে বুঝতে হবে গাছের সার, জল ও আলো সবই পর্যাপ্ত পরিমাণে আছে।
বিশদ

25th  September, 2019
সামান্য খরচে পেঁপে চাষে ভালো লাভ 

সংবাদদাতা: সামান্য খরচে পেঁপে চাষ করে ভালো লাভ করা সম্ভব। চাষিরা জমিতে এই চাষ করতে পারেন। আবার বাড়িতে সামান্য জায়গা থাকলেও পেঁপে গাছ লাগানো যেতে পারে। বাড়ির চাহিদা মিটিয়ে বাড়তি পেঁপে বাজারে বিক্রি করে আয় করা যাবে। চারা লাগানোর তিন-চার মাস পর থেকেই পেঁপে পাওয়া যায়। 
বিশদ

25th  September, 2019
বর্ষা কম, হাইব্রিড চাষে ভরসা রাখছে বারুইপুর  

সংবাদদাতা: এ বছর বর্ষা কম। তাই দক্ষিণ ২৪ পরগনার বারুইপুর ব্লকের চাষিদের ভরসা বাড়ছে হাইব্রিড চাষের উপর। সম্প্রতি ব্লকের শঙ্করপুর ২ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতে হয়ে গেল চাষিদের নিয়ে কৃষি-প্রশাসনের মিটিং।  
বিশদ

25th  September, 2019

Pages: 12345

একনজরে
সংবাদদাতা, জঙ্গিপুর: মঙ্গলবার দুপুরে সূতি থানার সাজুরমোড়ে একটি বেসরকারি স্কুলের উদ্বোধনে আসেন ভারতীয় ক্রিকেট দলের প্রাক্তন অধিনায়ক তথা হায়দরাবাদ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মহম্মদ আজহারউদ্দিন। আজাহার বলেন, ওঁর যথেষ্ট যোগ্যতা রয়েছে। আশা করি সৌরভ ভারতীয় ক্রিকেটকে বহুদূর এগিয়ে নিয়ে যাবেন।  ...

বিএনএ, রায়গঞ্জ: ডেঙ্গু আক্রান্ত এক রোগীকে রায়গঞ্জ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের কোনও চিকিৎসক মঙ্গলবার রেফার করার কথা মৌখিকভাবে পরিবারের লোকদের বলায় উত্তেজনা ছড়ায়। যদিও শেষপর্যন্ত ওই রোগীকে কোথাও রেফার করা হয়নি। ...

 তাল তামর (সিরিয়া) ও ওয়াশিংটন, ১৫ অক্টোবর (এএফপি ও পিটিআই): সিরিয়ার উত্তরপূর্ব প্রান্তে তুরস্কের সামরিক বাহিনীর আগ্রাসনে বেশ খানিকটা জমি হারাতে হয়েছে কুর্দদের। এর পাল্টা আঙ্কারার বিরুদ্ধে বেশ কিছু প্রশাসনিক পদক্ষেপ নিল আমেরিকা। ...

 সৌম্যজিৎ সাহা, কলকাতা: পড়াশোনা চলাকালীন পড়ুয়াদের হাতে-কলমে কাজ শেখার জন্য ইন্টার্নশিপ বাধ্যতামূলক করেছে এআইসিটিই। তবে দেখা যাচ্ছে, নিজেদের উপযোগী করে তোলার ক্ষেত্রে আগ্রহ কম পশ্চিমবঙ্গের ছাত্রছাত্রীদের। অল ইন্ডিয়া কাউন্সিল অব টেকনিক্যাল এডুকেশনের এক সমীক্ষায় উঠে এসেছে এই তথ্য। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

উচ্চবিদ্যায় ভালো ফল হবে। কর্মপ্রার্থীদের ক্ষেত্রে সুযোগ আসবে। কোনও প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় সাফল্য আসবে। ব্যবসায় যুক্ত ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

বিশ্ব খাদ্য দিবস
১৯০৫: বঙ্গভঙ্গ হয়
১৯২৩: দি ওয়াল্ট ডিজনি সংস্থা প্রতিষ্ঠা হয়
১৯২৭: নোবেল পুরস্কার বিজয়ী জার্মান সাহিত্যিক, চিত্রকর, ভাস্কর এবং নাট্যকার গুন্টার গ্রাসের জন্ম
১৯৪৮: অভিনেত্রী হেমা মালিনীর জন্ম
১৯৫১: রাওয়ালপিন্ডিতে খুন হন পাকিস্তানের প্রথম প্রধানমন্ত্রী লিয়াকত আলি খান
১৯৬৪: প্রথম পরমাণু বিস্ফোরণ ঘটাল চীন





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.৪৬ টাকা ৭২.১৬ টাকা
পাউন্ড ৮৮.৩২ টাকা ৯১.৬১ টাকা
ইউরো ৭৭.১৯ টাকা ৮০.১৭ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৯,১৭০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৭,১৬৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৭,৭২০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৫,৯০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৬,০০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

২৯ আশ্বিন ১৪২৬, ১৬ অক্টোবর ২০১৯, বুধবার, দ্বিতীয়া ০/২১ প্রাতঃ ৫/৪৫। ভরণী ২১/৫১ দিবা ২/২১। সূ উ ৫/৩৬/৫৪, অ ৫/৭/৫৮, অমৃতযোগ দিবা ৬/২৩ মধ্যে পুনঃ ৭/৯ গতে ৭/৫৫ মধ্যে পুনঃ ১০/১৩ গতে ১২/৩২ মধ্যে। রাত্রি ৫/৫৯ গতে ৬/৪৯ মধ্যে পুনঃ ৮/২৯ গতে ৩/৭ মধ্যে, বারবেলা ৮/৩০ গতে ৯/৫৬ মধ্যে পুনঃ ১১/২৩ গতে ১২/৪৯ মধ্যে, কালরাত্রি ২/৩০ গতে ৪/৪ মধ্যে।
২৮ আশ্বিন ১৪২৬, ১৬ অক্টোবর ২০১৯, বুধবার, তৃতীয়া ৫৯/১০/৩৯ শেষরাত্রি ৫/১৭/৩৫। ভরণী ২১/৩৭/১৬ দিবা ২/১৬/১৩, সূ উ ৫/৩৭/১৯, অ ৫/৯/১৯, অমৃতযোগ দিবা ৬/৩০ মধ্যে ও ৭/১৫ গতে ৭/৫৯ মধ্যে ও ১০/১৩ গতে ১২/২৭ মধ্যে এবং রাত্রি ৫/৪৭ গতে ৬/৪৮ মধ্যে ও ৮/২১ গতে ৩/১১ মধ্যে, বারবেলা ১১/২৩/১৯ গতে ১২/৪৯/৪৯ মধ্যে, কালবেলা ৮/৩০/১৯ গতে ৯/৫৬/৪৯ মধ্যে, কালরাত্রি ২/৩০/১৯ গতে ৪/৩/৪৯ মধ্যে।
১৬ শফর

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
অনন্তনাগে পুলিসের গুলিতে হত ৩ জঙ্গি 

11:05:18 AM

শহরে ট্রাফিকের হাল
আজ, বুধবার সকালে শহরের রাস্তাঘাটে যান চলাচল মোটের উপর স্বাভাবিক। ...বিশদ

10:25:27 AM

ওড়িশার মালকানগিরিতে ১৫০ কেজি নিষিদ্ধ মাদক সহ গ্রেপ্তার ২ 

10:20:00 AM

  বৌদ্ধধর্ম গ্রহণ করা নিয়ে মায়াবতীর কড়া সমালোচনায় সরব বিজেপি
সঠিক সময়ে বৌদ্ধধর্ম গ্রহণ করবেন বলে জানিয়েছিলেন মায়াবতী। মহারাষ্ট্রে নির্বাচনী ...বিশদ

09:57:06 AM

আলিপুরের সৌজন্য ভবনে আজ মন্ত্রিসভার বৈঠক
আজ, বুধবার রাজ্য সরকারের অতিথিশালা আলিপুরের ‘সৌজন্য ভবন’-এ রাজ্য মন্ত্রিসভার ...বিশদ

09:56:13 AM

সংখ্যালঘু মেধাবী পড়ুয়াদের জন্য বিশেষ কোচিং রাজ্যের
প্রতিযোগিতামূলক সরকারি চাকরির প্রস্তুতিতে মেধাবী সংখ্যালঘু পড়ুয়াদের জন্য বিশেষ প্রশিক্ষণের ...বিশদ

09:43:20 AM