Bartaman Patrika
চাষ আবাদ
 

 হারিয়ে যাওয়া দেশি সুগন্ধী ‘হরিণখুড়ি’ ধান ফিরিয়ে নজর কাড়লেন সাগরের কৃষকরা

ব্রতীন দাস : হারিয়ে যাওয়া দেশি সুগন্ধী ধান ‘হরিণখুড়ি’ ফিরিয়ে নজির গড়লেন সাগরের কৃষকরা। বহু বছর আগে সাগরের বিভিন্ন এলাকায় এই ধানটি চাষ হতো। কিন্তু বারবার প্রাকৃতিক বিপর্যয় ও ঠিকমতো ফলন না মেলায় ধীরে ধীরে এর চাষ কমতে থাকে। দীর্ঘ কয়েক দশক পর বিধানচন্দ্র কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগিতায় ফের এই ধানটি ফিরিয়ে রীতিমতো সাড়া ফেলে দিয়েছেন সাগরের চাষিরা। এ বছর খরিফ মরশুমে সাগরের বিভিন্ন গ্রামে প্রায় দেড়শো বিঘা জমিতে চাষ হচ্ছে হরিণখুড়ি ধানের। সাগরের সুমতিনগর, খাসরাম, কমলপুর, বিষ্ণুপুর, হরিণবাড়ি, গঙ্গাসাগর, দক্ষিণ হারাধনপুর, উত্তর হারাধনপুর এলাকায় হরিণখুড়ি ধানের চাষ করছেন কৃষকরা। অবন্তী মান্না, অমিয় নাগ, নারায়ণ জানা, শিবশঙ্কর পাণ্ডা, সুব্রত দাসের মতো চাষিরা দেশি সুগন্ধী এই ধানটি চাষে এগিয়ে এসেছেন। তাঁদের পাশে দাঁড়িয়েছে সাগরের স্বামী বিবেকানন্দ ইউথ কালচারাল সোসাইটি। এই সংগঠনের উদ্যোগেই মূলত হারিয়ে যাওয়া হরিণখুড়ি ধানটি ফের সাগরের বুকে চাষ শুরু হয়েছে।
হরিণখুড়ি ধানের বিশেষত্ব হল, লবণাক্ত জমিতেও এই ধানটি চাষ করা যায়। বিঘায় ১২-১৩ মণ ফলন পাওয়া যায়। জমিতে জল জমা সহ্য করতে পারে। এই ধানের চিড়ে দারুণ সুস্বাদু। খই ভালো হয়। ধানের দুই মাথা কালচে। দেখতে অনেকটা হরিণের চোখের মতো। চাল মাঝারি সরু। ছোট দানা। সাগরের প্রবীণ কৃষকরা জানিয়েছেন, অনেক বছর আগে ওই এলাকায় এই ধানটি চাষ হতো। নদীর জল ঢুকে অনেক জমি নষ্ট হয়ে যায়। তারপরও কিছু জমিতে এই ধানটি টিকে ছিল। পরে তা ধীরে ধীরে হারিয়ে যায়। স্বামী বিবেকানন্দ ইউথ কালচারাল সোসাইটির সম্পাদক শুকদেব নাথ জানিয়েছেন, বেশ কয়েক বছর আগে স্থানীয় কমলপুর গ্রামের এক কৃষকের কাছে প্রথম ধানটি পাওয়া যায়। তখন ধানটির পরিচয় জানা যায়নি। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, তিনি মন্দিরতলা এলাকার কৃষক দেবাশিস বেরার কাছ থেকে ওই ধান সংগ্রহ করেছেন। দেবাশিসবাবুর কাছে জানা যায়, পূর্ব মেদিনীপুরেও এই ধান চাষ হয়। এর পর ধানটির নমুনা নিয়ে বিধানচন্দ্র কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে যোগাযোগ করেন তাঁরা। সেখানে বিজ্ঞানীরা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে জানান, ধানটির নাম হরিণখুড়ি। বিধানচন্দ্র কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় চাষ করে এই দেশি সুগন্ধী ধানটির বীজের পরিমাণ বাড়ায়। তার পর তা সাগরের কৃষকদের হাতে তুলে দেওয়া হয় চাষের জন্য। ২০১২ সাল থেকে সাগরে নতুন করে হরিণখুড়ি ধানটির চাষ শুরু হয়েছে। প্রতি বছর এলাকা বাড়ছে। হরিণখুড়ি জাতটি ছাড়াও বিবেকানন্দ ইউথ কালচারাল সোসাইটির কাছে অনেক প্রজাতির ধানের বীজ রয়েছে। যেগুলির অধিকাংশই একসময় বিভিন্ন এলাকায় চাষ হলেও এখন হারিয়ে গিয়েছে কিংবা অবলুপ্তপ্রায়। শুকদেববাবু জানিয়েছেন, এই মুহূর্তে তাঁদের কাছে ২১২ ভ্যারাইটির ধানের বীজ রয়েছে। দেশি ধানের বীজ সংরক্ষণের জন্য ২০১৬ সালে ভারত সরকারের বীজ সংরক্ষণ বিভাগ থেকে ১০ লক্ষ টাকা পুরস্কারও পেয়েছে তাঁদের সোসাইটি। ওই টাকায় ধান ভাঙানোর আধুনিক মেশিন বসানোর পরিকল্পনা রয়েছে তাঁদের।
বিধানচন্দ্র কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. মৃত্যুঞ্জয় ঘোষ জানিয়েছেন, সাগরে চাষের জন্য আমরা হরিণখুড়ি ধানের বীজ দিয়েছি। খরিফে ওই ধানটি চাষের জন্য প্রযুক্তি দেওয়া হবে চাষিদের। চাষের বিভিন্ন খুঁটিনাটি নিয়ে প্রশিক্ষণও দেওয়া হয়েছে। আমরা চাই, হারিয়ে যেতে বসা দেশি সুগন্ধী ধানগুলি এভাবেই বাঁচিয়ে রাখুন কৃষকরা। কৃষকরা জানিয়েছেন, হরিণখুড়ি ধানটি মাঝারি জমিতে ভালো হয়। গাছের উচ্চতা ৫ ফুটের মতো হয়। রোগপোকা সহনশীল। ১৩৫-১৪০ দিনে ফলন পাওয়া যায়। ধৈঞ্চা ও জৈবসার দিয়ে চাষের কথা বলছেন কৃষি আধিকারিকরা। বিধানচন্দ্র কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে হরিণখুড়ি ধানের ৪০ কেজি বীজ দেওয়া হয়েছে। বাকিটা দিয়েছে বিবেকানন্দ ইউথ কালচারাল সোসাইটি। একেবারে বিনামূল্যে না দিয়ে তারা কেজি প্রতি বীজের জন্য ৫ টাকা করে নিচ্ছে।
ড. মৃত্যুঞ্জয় ঘোষ জানিয়েছেন, আমাদের রাজ্যে প্রায় এক লক্ষ হেক্টর জমিতে দেশি সুগন্ধী ধানের চাষ হয়। মোট ৩ লক্ষ টন ধান উৎপাদন হয়ে থাকে। যার বেশিরভাগটাই এ রাজ্যে বিক্রি হয়ে যায়। কিছুটা দক্ষিণ ভারতে যায়।

03rd  July, 2019
খরিফে লাল-কাঁকুরে মাটিতে
চিনাবাদাম চাষে ভালোই লাভ

নিজস্ব প্রতিনিধি: রাজ্যের পশ্চিমাঞ্চলে লাল-কাঁকুরে মাটিতে চিনাবাদাম চাষ করে লাভের মুখ দেখতে পারেন কৃষকরা। এপ্রিলের শুরুতেই চিনাবাদাম চাষের প্রস্তুতি নিতে হবে। গত বছর পুরুলিয়ার নিতুড়িয়া ব্লকে চিনাবাদাম চাষ করে সাফল্য পেয়েছেন চাষিরা। ফলে এবছরও তাঁরা এই চাষে আগ্রহী। এপ্রিলের প্রথমে চিনাবাদাম বুনলে জুলাইয়ে ফসল উঠে যাবে। 
বিশদ

18th  March, 2020
এপ্রিলে বুনুন বেবিকর্নের বীজ
চাষে বাড়ছে ঝোঁক, মিলবে দাম  

নিজস্ব প্রতিনিধি: সারা বছর ধরেই বেবিকর্ন চাষ করা যায়। তবে চাষিরা জানুয়ারি থেকে অক্টোবর পর্যন্ত এই ফসলটি বুনে থাকেন। এপ্রিল-মে মাসে বেবিকর্ন বুনলে ভালো ফলন পাওয়া যায়। কৃষি বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, জল জমে না এমন জমিতে বেবিকর্ন চাষ করতে হবে। বেলে-দোঁয়াশ মাটি এই ফসলটি চাষের জন্য উপযুক্ত।
বিশদ

18th  March, 2020
কাঁথিতে সূর্যমুখী চাষে উৎসাহ বাড়ছে কৃষকদের 

রঞ্জন পাল, কাঁথি: কাঁথি মহকুমা এলাকায় সূর্যমুখী চাষে চাষিদের মধ্যে উৎসাহ বাড়ছে। মহকুমায় ১৫০ একরের কিছু বেশি জায়গা জুড়ে সূর্যমুখী চাষ হয়। কৃষি দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, মহকুমার কাঁথি-৩, খেজুরি-১ ও ২ ব্লক, রামনগর-১ ও ২ ব্লকে বেশি সূর্যমুখী চাষ হয়। এছাড়া কাঁথির দেশপ্রাণ ব্লক ও কাঁথি-১ ব্লকেও কিছু কিছু জায়গায় সূর্যমুখী চাষ হয়। 
বিশদ

18th  March, 2020
রানাঘাটে গোলাপের পাতা, কুঁড়ি ও ফুল শুকিয়ে যাচ্ছে 

নবজ্যোতি সরকার: রানাঘাট ২ নম্বর ব্লকের নোকাড়ি, কামালপুর, মাঝেরগ্রাম, দেবগ্রাম গ্রাম পঞ্চায়েতের গোলাপ ফুল চাষিরা ব্যাপক সমস্যায় পড়েছেন। গোলাপ চারার পাতা কুঁকড়ে যাচ্ছে। কুঁড়ি ও ফুলের সাইজ ছোট হয়ে যাচ্ছে। ফুলের সুগন্ধও নষ্ট হচ্ছে।  বিশদ

18th  March, 2020
বোরো ধানে জোর দিতে হবে রোগপোকা দমনে 

অলোক বন্দ্যোপাধ্যায়: বোরো ধানে ভালো ফলন পেতে সুসংহত উপায়ে ধানের রোগপোকা নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। বোরো মরশুমে ধান গাছ নানা রোগ দ্বারা আক্রান্ত হয়। এতে ফলন খুবই কমে যায়। বোরো ধানের রোগগুলির মধ্যে ঝলসা, খোলাপচা, ধসা, বাদামি চিটে, ব্যাকটেরিয়া জনিত ধসা এবং টুংরো রোগ অত্যন্ত ক্ষতিকারক। 
বিশদ

18th  March, 2020
রাত হলেই নারকেল গাছের পাতায় সাদা দাগ
জেলায় জেলায় সাদা মাছির আক্রমণ, বলছেন কৃষি বিশেষজ্ঞরা

ব্রতীন দাস: করোনা আতঙ্কের মধ্যেই রাতেরবেলা নারকেল গাছের পাতায় সাদা দাগ দেখা যাওয়া নিয়ে গ্রাম-বাংলায় উদ্বেগ ছড়িয়েছে। দেখা যাচ্ছে, গাছের সবুজ পাতা পুরো সাদা হয়ে যাচ্ছে। অনেক জায়গায় আবার নারকেল গাছের গোড়ায় সাদা গুড়ো জমে থাকতেও দেখা যাচ্ছে। 
বিশদ

18th  March, 2020
নয়াগ্রামের ব্রাউন রাইস মিলবে বিশ্ব বাংলার স্টলে 

রঞ্জন পাল, ঝাড়গ্রাম: ঝাড়গ্রাম জেলার প্রত্যন্ত নয়াগ্রাম ব্লকের স্বনির্ভর দলের মহিলাদের উৎপাদন করা ব্রাউন রাইস এবার মিলবে বিশ্ব বাংলার স্টলে। দিল্লি, কলকাতা, দার্জিলিং, বাগডোগরা এয়ারপোর্ট, কলকাতার পার্ক স্ট্রিট, ঢাকুরিয়া, নিউটাউন, রাজারহাটে বিশ্ব বাংলার স্টলে ওই চাল পাওয়া যাবে। সম্পূর্ণ জৈব উপায়ে ওই চাল তৈরি হচ্ছে। রাসায়নিক সারমুক্ত এই ব্রাউন রাইস।  বিশদ

11th  March, 2020
জামালপুরে সরকারি উদ্যোগেই নেদারল্যান্ডের গ্লাডিওলাস চাষ 

মণীন্দ্রনারায়ণ সিংহ, বর্ধমান: পূর্ব বর্ধমান জেলা উদ্যানপালন দপ্তরের সহযোগিতায় জামালপুর ব্লকের জোতশ্রীরাম গ্রাম পঞ্চায়েতের অমরপুর গ্রামে এবার প্রথম বাণিজ্যিক ভিত্তিতে নেদারল্যান্ডের গ্লাডিওলাস ফুলের চাষ হয়েছে।  বিশদ

11th  March, 2020
অজানা রোগে বিঘার পর বিঘা জমির গোলাপ চাষ ক্ষতিগ্রস্ত 

হরিহর ঘোষাল, মেদিনীপুর: অজানা রোগের প্রকোপে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলায় বিঘার পর বিঘা জমিতে গোলাপ চাষ ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। রোগ প্রতিরোধে চাষিদের পক্ষ থেকে গোলাপ গাছে নানা ধরনের ওষুধ দেওয়া হচ্ছে।  বিশদ

11th  March, 2020
বাঁধাকপিতে হীরক পীঠ মথ 

সংবাদদাতা: বাঁধাকপিতে হীরক পীঠ মথের আক্রমণে ফলন কমতে পারে। বাঁধাকপি ছাড়াও ফুলকপি, ব্রোকলি, চিনা বাঁধাকপি, লাল বাঁধাকপিতে এর আক্রমণ হতে পারে।  বিশদ

11th  March, 2020
ফসল রক্ষায় ঠেকাতে
হবে ইঁদুরের আক্রমণ 

সংবাদদাতা: ফসল উৎপাদনের পর চাষিরা উৎপাদিত ফসল বস্তায়, বড় ড্রাম অথবা খড়ের বেড়িতে গুদামজাত করেন। কিন্তু ইঁদুরের আক্রমণে প্রায় ১০-১৫ শতাংশ ফসল নষ্ট হয়ে যায়। ফলে চাষিদের আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়তে হয়।   বিশদ

11th  March, 2020
লিচুতে ভালো ফলন পেতে বিজ্ঞান সম্মত পরিচর্যার প্রয়োজন 

নবজ্যোতি সরকার: এ বছর প্রাকৃতিক কারণেই বারুইপুরের বিভিন্ন লিচু বাগানে প্রচুর ফুল এসেছে। চাষিরা জানিয়েছেন, ফুলের সংখ্যা বাড়াতে এন ট্রায়াকন্টানল ০.৫ মিলি প্রতি লিটার জলে এবং আলফা ন্যাপথাইল অ্যাসেটিক অ্যাসিড ১ মিলি প্রতি লিটার জলে গুলে স্প্রে করেছেন।  বিশদ

11th  March, 2020
রঙিন ফুলকপি ফলিয়ে তাক লাগিয়েছেন
ময়নাগুড়ির কৃষক, দেখতে জমিতে ভিড় 

সোমনাথ চক্রবর্তী: রঙিন ফুলকপি চাষ করে তাক লাগালেন ময়নাগুড়ির ব্যাঙকান্দির কৃষক অজিত সরকার। হলুদ, আভা রং এবং হাল্কা কমলা রঙের ফুলকপি তিনি তাঁর জমিতে চাষ করেছেন।  বিশদ

11th  March, 2020
অকাল বৃষ্টিতে জমিতে জল, সব্জির ক্ষতি 

সংবাদদাতা: ফেব্রুয়ারির শেষ সপ্তাহে আচমকা দু’দিনের অকাল বৃষ্টিতে জমিতে জল জমে যাওয়ায় দক্ষিণ-পূর্ব সুন্দরবন অঞ্চলের গোসাবা, বাসন্তী, ক্যানিং ১ ও ২, কুলতলি, জয়নগর ১ ও ২ অঞ্চলে সব্জি চাষের ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন চাষিরা।   বিশদ

04th  March, 2020

Pages: 12345

একনজরে
সংবাদদাতা, কাঁথি: গাছের ডাল কাটতে গিয়ে তা ছিটকে বুকে এসে লাগায় অস্বাভাবিক মৃত্যু হল এক যুবকের। পটাশপুর থানার রামনগর এলাকায় এই ঘটনা ঘটেছে। মৃতের নাম লক্ষ্মণ মাইতি(৩৭)।   ...

 জীবানন্দ বসু, কলকাতা: করোনা কেন্দ্রিক লকডাউনের জেরে গত কয়েকদিনে তাঁদের স্বাভাবিক জীবনযাপন অনেকটাই দুর্বিষহ হয়ে উঠেছে। পর্যাপ্ত খাদ্য-রসদের অভাবই যে তার অন্যতম কারণ, তা বলার অপেক্ষা রাখে না। ...

 রিও ডি জেনেইরো, ৭ এপ্রিল: বিশ্ব ফুটবলে এক দশকের বেশি সময় ধরে দাপট দেখিয়ে চলেছেন লায়োনেল মেসি ও ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো। তবে অনেকের মতে, এই দুই ...

 কিয়েভ (ইউক্রেন), ৭ এপ্রিল (এপি): করোনা আতঙ্কের মধ্যে চেরনোবিল পরমাণু কেন্দ্র থেকে তেজস্ক্রিয়তা ছড়িয়ে পড়া নিয়ে ইউক্রেনে আতঙ্ক তৈরি হয়েছে। পরমাণু কেন্দ্র লাগোয়া জঙ্গলে দাবানল লেগে যাওয়ার এই বিপত্তি তৈরি হয়েছে। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

ব্যবসায় বাড়তি বিনিয়োগ প্রত্যাশিত সাফল্য নাও দিতে পারে। কর্মক্ষেত্রে পদোন্নতি শ্বাসকষ্ট ও বক্ষপীড়ায় শারীরিক ক্লেশ। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৭৫৭: বাংলার নবাব আলীবর্দী খাঁ মারা যান।
১৭৫৯: ব্রিটিশ বাহিনী ভারতের মাদ্রাজ দখল করে।
১৮৫৭: বারাকপুরে সিপাহি বিদ্রোহের নায়ক মঙ্গল পাণ্ডের ফাঁসি
১৮৯৪: সাহিত্যিক বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের মৃত্যু
১৯০২: কলকাতায় মূক ও বধির বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হয়।
১৯২৯: দিল্লির সেন্ট্রাল অ্যাসেম্বলিতে বোমা ছুঁড়ে ধরা পড়লেন ভগৎ সিং ও বটুকেশ্বর দত্ত
১৯৫০: ভারত পাক চুক্তি স্বাক্ষর করলেন লিয়াকত-নেহরু
১৯৫০: বিপ্লবী হেমচন্দ্র কানুনগোর মৃত্যু
১৯৭৩: স্পেনের চিত্রশিল্পী পাবলো পিকাসোর মৃত্যু
১৯৭৬: ফুটবলার গোষ্ঠপালের মৃত্যু





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭৫.০৯ টাকা ৭৬.৮১ টাকা
পাউন্ড ৯১.৫৭ টাকা ৯৪.৮৬ টাকা
ইউরো ৮০.৬৮ টাকা ৮৩.৭২ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৪১,৮৮০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৯,৭৩০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৪০,৩৩০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৩৮,৮০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৩৮,৯০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]
22nd  March, 2020

দিন পঞ্জিকা

২৪ চৈত্র ১৪২৬, ৭ এপ্রিল ২০২০, মঙ্গলবার, (চৈত্র শুক্লপক্ষ) চতুর্দশী ১৬/২৬ দিবা ১২/২। উত্তরফাল্গুনী ৯/৩০ দিবা ৯/১৫। সূ উ ৫/২৭/২৬, অ ৫/৫০/১৬, অমৃতযোগ দিবা ৭/৫৭ গতে ১০/২৫ মধ্যে পুনঃ ১২/৫৩ গতে ২/৩২ মধ্যে পুনঃ ৩/২১ গতে ৫/০ মধ্যে। রাত্রি ৬/৩৬ মধ্যে পুনঃ ৮/৫৬ গতে ১১/১৫ মধ্যে পুনঃ ১/৩৫ গতে ৩/৮ মধ্যে। বারবেলা ৭/০ গতে ৮/৩৩ মধ্যে পুনঃ ১/১২ গতে ২/৪৪ মধ্যে। কালরাত্রি ৭/১৭ গতে ৮/৪৪ মধ্যে।
২৪ চৈত্র ১৪২৬, ৭ এপ্রিল ২০২০, মঙ্গলবার, চতুর্দশী ১৩/৫৮/১৪ দিবা ১১/৪/৯। উত্তরফাল্গুনী ৭/১০/১০ দিবা ৮/২০/৫৫। সূ উ ৫/২৮/৫১, অ ৫/৫০/৫৪। অমৃতযোগ দিবা ৭/৫৪ গতে ১০/২৩ মধ্যে ও ১২/৫৩ গতে ২/৩২ মধ্যে ও ৩/২২ গতে ৫/১ মধ্যে এবং রাত্রি ৬/৩৭ মধ্যে ও ৮/৫৬ গতে ১১/১৫ মধ্যে ও ১/৩৩ গতে ৩/৬ মধ্যে। বারবেলা ৭/১/৩৬ গতে ৮/৩৪/২২ মধ্যে, কালবেলা ১/১২/৩৮ গতে ২/৪৫/২৩ মধ্যে।
১৩ শাবান

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
কালনায় পুরসভার উদ্যোগে রাস্তায় জীবানুনাশক স্প্রে করলেন দমকল কর্মীরা 

03:09:17 PM

মুর্শিদাবাদের নওদায় এক ব্যবসায়ীর বাড়ি থেকে ৫১৮ বস্তা চাল ও গম উদ্ধার, গ্রেপ্তার ১ 

03:06:00 PM

করোনা: কেরলের ওয়ানাড়ে হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেলেন ২ যুবক

03:04:44 PM

পঃমেদিনীপুরে মোবাইলের দোকান থেকে উদ্ধার বেআইনি শব্দবাজি
পশ্চিম মেদিনীপুরের একটি মোবাইল দোকান থেকে উদ্ধার হল প্রচুর পরিমাণে ...বিশদ

02:21:32 PM

করোনা: নতুন করে হরিয়ানায় আক্রান্ত ১১
পাঞ্জাবের হরিয়ানায় নতুন করে আরও ১১ জনের শরীরে মিলল কোভিড-১৯ ...বিশদ

02:13:29 PM

করোনা চিকিৎসায় এবার ইন্টানেট চালিত রোবট !
করোনায় আক্রান্তদের সেবায় এবার ব্যবহার করা যেতে পারে রোবট। এমনটাই ...বিশদ

01:46:52 PM