Bartaman Patrika
শরীর ও স্বাস্থ্য
 

রোবটিক, জেনারেল সার্জারি না ল্যাপারোস্কপি এগিয়ে কে?

পরামর্শে হাওড়ার নারায়ণা সুপারস্পেশালিটি হাসপাতালের বিশিষ্ট রোবটিক সার্জেন ডাঃ পার্থপ্রতিম সেন ও বিশিষ্ট জিআই ও ক্যানসার সার্জেন ডাঃ শুদ্ধসত্ত্ব সেন।

আরাম ও আরোগ্যে এগিয়ে রোবটিক

একটা গল্প বলি বরং! 
ধরুন, একটি পাড়ায় জঙ্গি লুকিয়ে আছে। পুলিস বোমাবাজি করছে। একটি বোমার আঘাতে পাড়ার দু’-তিনটি বাড়ি ভেঙে গেল। বেশ কিছু পাড়ার লোকজনও মারা গেল। দেখা গেল, যে জঙ্গিদের মারতে পুলিস এসেছিল, তারা মরলেও সঙ্গে কিছু নিরপরাধ লোকজনেরও প্রাণ গেল। 
এবার পদ্ধতি একটু উন্নত হল। দেখা গেল, পুলিস এমন পদ্ধতিতে জঙ্গি নিকেশ করছে, যাতে নির্দিষ্ট যে বাড়িতে জঙ্গিটি লুকিয়ে, সেটিই শুধু ভেঙে পড়ল। অন্য কোনও বাড়ির ক্ষয়ক্ষতি হল না। তবে সেই বাড়িতে থাকা নিরপরাধ লোকজন দু’-একজন মারা গেলেন। এতে ক্ষতির পরিমাণ অনেকটা কমানো গেল।
যুগ বদলেছে। পুলিসি অভিযানও বদলেছে। এবার এমন যন্ত্রপাতিতে পুলিস জঙ্গি খতম করে যে ঠিক যে ঘরে সে লুকিয়ে আছে, সেখানে ঢুকে শুধুমাত্র জঙ্গিটিকেই গ্রেপ্তার করে বা মেরে ফেলে। ওই বাড়ি তো ছাড়, ঘরে থাকা অন্য কোনও নিরপরাধের কোনও ক্ষতি হয় না। 
গল্পের প্রথম ভাগটিকে যদি ওপেন অপারেশন ধরা হয়, দ্বিতীয়টি তবে ল্যাপেরোস্কপিক সার্জারি ও তৃতীয়টি অবশ্যই রোবোটিক সার্জারি। 

কাকে বলে রোবটিক সার্জারি?
মানুষের হাত ও চোখের উপর ভরসা করে অস্ত্রোপচার হওয়াটাই দস্তুর হয়ে উঠেছিল। তারপর বিজ্ঞানের অগ্রগতির সঙ্গে তাল মিলিয়ে অপারেশনের বেদনা, রক্তপাত কমাতে ও অস্ত্রোপচারকে আরও নিখুঁত করে তুলতে ল্যাপারোস্কপির উপর ভরসা করা শুরু হল। একটা সময় ল্যাপারোস্কপির কিছু কিছু অসুবিধা দূর করতে আরও উন্নত মানের রোবটিক সার্জারি নিয়ে আসা হল। এটি এমন একটি অস্ত্রোপচার পদ্ধতি, যেখানে রোবটিক সার্জারি সিস্টেমের সাহায্য নেওয়া হয়। চিকিৎসকরা একটি রোবটিক হাতের সঙ্গে সংযুক্ত খুব ছোট একটি সরঞ্জাম ব্যবহার করে অস্ত্রোপচার করেন। রোবটিক আর্ম কম্পিউটারে বসে নিয়ন্ত্রণ করেন সার্জেন স্বয়ং। এই ধরনের সার্জারির মাধ্যমে আরও সুনির্দিষ্ট ও নিখুঁতভাবে অস্ত্রোপচার করা যায়।

কেন করব?
গত দু’বছরে গোটা বিশ্বে প্রায় ২০০ কোটি রোবটিক অস্ত্রোপচার হয়েছে। দিনে দিনে এই ধরনের সার্জারির জনপ্রিয়তা বাড়ছে। ল্যাপেরোস্কপির তুলনায় এই অস্ত্রোপচার বেছে নেওয়ার নেপথ্যে অনেকগুলো কারণ আছে।
• ল্যাপেরোস্কপিতে ব্যবহৃত ক্যামেরার চোখ দ্বিমাত্রিক। আবার রোবটের চোখ মানুষের মতোই ত্রিমাত্রিক। তাই রোবটের চোখ অবশ্যই ল্যাপারোস্কপির ক্যামেরার চেয়ে বেশি দেখবে।
• মানুষের চোখের চেয়ে প্রায় ১০-৪০ গুণ জুম করে রোবটের চোখ দিয়ে দেখতে পারেন সার্জেন। ফলে অস্ত্রোপচারের জায়গার সূক্ষ্ম শিরা-উপশিরা পর্যন্ত দেখা যায়। 
• রোবটিক সার্জারিতে রক্তপাত অনেক কম হয়। নামমাত্র রক্তপাতেই সারা যায় অস্ত্রোপচার।
• এই পদ্ধতিতে যেহেতু রোবটের সূক্ষ্ম আঙুলের সাহায্যে অস্ত্রোপচার সারা হয়, তাই অস্ত্রোপচারের সময় আনুষঙ্গিক ব্যথা-বেদনা ও অন্যান্য অঙ্গে চাপ পড়া এড়ানো যায়।
• রোবটিক সার্জারিতে যেহেতু রক্তপাত খুব কম হয় ও ব্যথা-বেদনা প্রায় থাকে না, তাই রোগীর আরোগ্য তড়িৎগতিতে হয়। জটিল হার্নিয়া বা গলব্লাডার স্টোন অপারেশনের পর চার-পাঁচদিনের মাথায় রোগী সুস্থ হয়ে অফিসে যোগ দিয়েছেন, এমন উদাহরণও আছে।
• অনেক সময় দেখা যায়, কোনও এক রোগীর বেলায় চিকিৎসক ঠিক করলেন ল্যাপারোস্কোরি করবেন। কিন্তু অপারেশন করতে গিয়ে জটিলতা এল। রোগী ওপেন সার্জারি করতে বাধ্য হলেন। রোবটিক উপায়ে সার্জারি হওয়ার কারণে এই ধরনের জটিলতা আসবে কি না, তা আগে থেকেই বোঝা যায়। কার্যক্ষেত্রে কোনও সমস্যা হয় না। 

কী কী অপারেশন সম্ভব?
কোলোরেক্টাল অর্থাৎ কোলন বা রেক্টাল রিসেকশন, মেদ ঝরানোর বেরিয়াট্রিক সার্জারি, গলব্লাডারে স্টোন, হার্নিয়া-সহ গাইনোকলজি বিভাগে এন্ডোমেট্রিওসিস, বিনাইন হিস্টেরেক্টমি, ফাইব্রয়েড বাদ দেওয়া, পেলভিক অঙ্গের নানা অপারেশন এর সাহায্যে করা যায়। এছাড়াও জিভের সাধারণ কিছু অপারেশন, লাং সার্জারি, কিডনি, প্রস্টেটের কিছু অস্ত্রোপচারও রোবটিক সার্জারির মাধ্যমে করা সম্ভব। 

অসুবিধা কী কী?
এই ধরনের অস্ত্রোপচারে রোগীর শারীরিক অসুবিধা প্রায় নেই বললেই চলে। তবে এই প্রযুক্তি যেহেতু বিশ্বে বছর কয়েক হল প্রচলিত হয়েছে, তাই স্বাভাবিকভাবেই এটি ব্যয়বহুল। সবক্ষেত্রে সকলে এই সুবিধা নিতে পারেন না। কিছু কিছু স্বাস্থ্যবিমা এই ধরনের অস্ত্রোপচারের ব্যয়ভার বহন করতেও চায় না। এছাড়া রোবটিক সার্জারিতে প্রশিক্ষণ লাভ করেছেন এমন চিকিৎসকের সংখ্যাও বর্তমানে কম। ফলে সব হাসপাতালে এই সুবিধা মেলে না। নইলে রোগীর শরীর ও আরোগ্যের প্রশ্নে সবসময়ই রোবটিক সার্জারি এগিয়ে থাকবে। চিকিৎসকরা নিজেও নিজের বা তাঁর নিকটজনের ক্ষেত্রে এই ধরনের সার্জারিই বেশি পছন্দ করেন। 
লিখেছেন মনীষা মুখোপাধ্যায়

পদ্ধতি নয়, আসল কথা চিকিৎসকের জ্ঞান
কদিন আগেই অজিতবাবু জানতে পেরেছেন, তাঁর গলব্লাডার স্টোনের অপারেশেন করাতে হবে তাড়াতাড়ি। সেইমতো হাসপাতালে ডাক্তারের অ্যাপয়েন্টমেন্ট নেওয়া, অফিসে ছুটির ব্যবস্থা করা চলল কিছুদিন। কিন্তু অপারেশনটা হবে কীভাবে? ওপেন করে না ল্যাপারোস্কপি? নিজেই ইন্টারনেটে ঘাঁটাঘাঁটি করতে গিয়ে আবার জানতে পারলেন রোবটিক সার্জারির কথাও। এছাড়া, অফিসে, বাড়িতে, পাড়ার আড্ডায়—নানা মুনির নানা মত। কেউ বলেন, কনভেনশনাল সার্জারির কথা, কেউ আবার নয়া প্রযুক্তির পক্ষে। সব মিলিয়ে অজিতবাবু ঘেঁটে ঘ!
অপারেশনের প্রয়োজন হলে আমাদের সকলকেও অজিতবাবুর মতো দ্বিধায় পড়তে হয়। অপারেশন তো আর মুদির দোকান থেকে বিস্কুট কেনা নয় যে, ভালো না লাগলে পাল্টে নেওয়া যাবে। তাহলে কোন পদ্ধতিটা সবচেয়ে সুরক্ষিত, সবচেয়ে ভালো? প্রশ্নটা শুনে অবশ্য হেসেই ফেলেন বিশিষ্ট সার্জেন ডাঃ শুদ্ধসত্ত্ব সেন। তাঁর জবাব, ‘এভাবে ভালো খারাপ তো হয় না। সুরক্ষিত সবই। তবে নতুন নতুন প্রযুক্তি আসবেই। ঠিক যেমন কদিন অন্তর বাজারে নতুন গাড়ি আসে। তাতে কত নয়া প্রযুক্তি। কিন্তু গাড়িটা তো মানুষকেই চালাতে হয়। তেমন যে পদ্ধতিই হোক, অপারেশনটাও চিকিৎসকই করেন।’
কিন্তু এই যে প্রযুক্তি, এর ফলে তো চিকিৎসাশাস্ত্রের তো প্রচুর উন্নতি। তাহলে কনভেনশনাল অপারেশন মানুষ করবে কেন? ডাঃ সেন বললেন, রোবটিক সার্জারির কিছু সুবিধা আছে, সেটা অস্বীকার করব না। তবে তা এখনও বহুল পরীক্ষিত নয়। যে কোনও জটিল অপারেশন কিন্তু এখনও রোবোটিক ভাবে নয়, চিরাচরিতভাবেই করা হয়। একটা জটিল ক্ষেত্রে ডাক্তারের নিজের হাতে কোনও অপারেশন করার বিকল্প আর কিছু হতে পারে না। তিনি আরও বলেন, একটি রোবটিক সার্জারিতে যে সময় লাগে, তাঁর থেকে ল্যাপারোস্কপি বা ওপেনে অনেকটা কম সময় লাগে। তার অপর এই রোবটিক সার্জারির খরচ অনেক বেশি। সাধারণ মানুষের পক্ষে তা এই মুহূর্তে ধরাছোঁয়ার বাইরেই একপ্রকার। কেউ কেউ বলবেন, ওপেনে রিকভারি টাইম তো অনেক বেশি। সেক্ষেত্রে কম জটিল অপারেশনে ল্যাপারোস্কপি করানো যেতে পারে। তবে তারও সীমাবদ্ধতা আছে। মস্তিষ্ক, হার্ট বা অন্য গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গের জটিল অপারেশনের ক্ষেত্রে এই মুহূর্তে রোবটিকের থেকে কিন্তু ওপেন সার্জারি অনেকটাই এগিয়ে। তাহলে ইন্টারনেট খুললেই যে রোবটিক সার্জারির এতো স্তুতি? ডাঃ সেনের উত্তর, কোনও জিনিস নতুন এলে তাঁকে নিয়ে একটু হইচই তো হবেই। আর এই সার্জারির যন্ত্রপাতিও বহুমূল্যের। ফলে তার বিজ্ঞাপনও তো বেশি হওয়াটাই স্বাভাবিক। সবচেয়ে বেশি দরকার চিকিৎসকের সঠিক জ্ঞান। তা না হলে, হাইটেক প্রযুক্তি এনেও কোনও লাভ হবে না।
তাহলে ভবিষ্যৎ কী? ডাঃ শুদ্ধসত্ত্ব সেন বললেন, ওপেনের কোনও বিকল্প হতে পারে না। ওপেন সার্জারি থাকবেই। তবে ব্যক্তিগতভাবে আমি মনে করি, আগামী কয়েক বছরের মধ্যে আর্টিফিশিয়াল ইন্টালিজেন্স চিকিৎসাক্ষেত্রেও ব্যাপক প্রভাব ফেলবে। 
11th  April, 2024
হার্টের রোগী কি ডাবের জল খেতে পারেন? 

পরামর্শে বিশিষ্ট হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডাঃ অরূপ দাসবিশ্বাস বিশদ

11th  April, 2024
আয়ুর্বেদ অনুযায়ী ডাবের গুণাগুণ

পরামর্শে আয়ুর্বেদিক চিকিৎসক ডাঃ সুমিত সুর বিশদ

11th  April, 2024
স্টেন্টের জন্ম

ব্যাঙ্ক থেকে সদ্য বাড়ি ফিরেছেন সোমনাথবাবু। চেয়ারে বসতে গিয়ে হুড়মুড়িয়ে পড়ে গেলেন। ছুটে এলেন ষাটোর্ধ্ব প্রতিমাদেবী। স্বামীর এমন অবস্থা দেখে খানিক ঘাবড়ে গিয়েও সামলে নিলেন। ছুটলেন প্রতিবেশীদের কাছে। সকলে মিলে ধরাধরি করে নিয়ে যাওয়া হল হাসপাতালে। বিশদ

11th  April, 2024
এবার জয়েন্টের সার্জারি করবে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা!

অস্থিসন্ধির অপারেশন নিখুঁতভাবে করার সুবিধার জন্য এতদিন ধরে রোবটিক সার্জারির ব্যবহার হয়ে আসছিল। বিশদ

11th  April, 2024
পজিটিভ থাকবেন কীভাবে?
 

আজকাল সবাই ভীষণ ব্যস্ত। ব্যস্ত কারণ আমরা সকলেই বেশি বেশি উপার্জন করে ভীষণ ভালো থাকতে চাই। এই করতে গিয়ে একসময় আমরা সামাজিক সব যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে ফেলি। আরও বড় জটিলতা হল, ব্যস্ততার বাইরে, রোজকার কাজের বাইরে যেটুকু সময় থাকে, সেই সময়টাতেও আমরা তাত্ক্ষণিক আনন্দ লাভের জন্য মাথা গলিয়ে দিই সোশ্যাল মিডিয়ার ছত্রছায়ায়। বিশদ

07th  April, 2024
লাগামছাড়া তাপমাত্রা বৃদ্ধি, বিপদ কি নিজেরাই ডেকেছি?

হু হু করে চড়ছে পারদ। প্রকৃতির খামখেয়ালিপনার নেপথ্যে দায়ী কে? প্রতিকারই বা কী? লিখছেন কেন্দ্রীয় দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদের প্রাক্তন অতিরিক্ত নির্দেশক দীপঙ্কর সাহা ও বিশিষ্ট চিকিৎসক ডাঃ সুকুমার মুখোপাধ্যায়। বিশদ

07th  April, 2024
হিট স্ট্রোক প্রতিরোধ করবেন কীভাবে?

মার্চ থেকেই গুছিয়ে গরম পড়েছে এবার। চড়চড় করে চড়ছে পারদ। খর বেলায় যাঁরা কাজেকর্মে বেরচ্ছেন, হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছেন ভাজা ভাজা হওয়ার মর্ম! বাইরে বেরলেই গলদঘর্ম অবস্থা। ঘামের সঙ্গে শরীরের জল তো বেরচ্ছেই। পরামর্শে বিশিষ্ট মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডাঃ আশিস মিত্র।
বিশদ

04th  April, 2024
রাতে কাঁদলে ভালো ঘুম! 

কাঁদলে চোখের জল পড়ার জন্য যে ইন্দ্রিয় দরকার হয়, তা তৈরি হতে শিশুদের সাত আট মাস সময় লাগে। জন্মলগ্ন থেকেই কান্নার সঙ্গে মানুষের একটি বিশেষ সংযোগ আছে। জন্মের পর প্রথম কান্নার সঙ্গে প্রথমবার সরাসরি নিজে পৃথিবীর অক্সিজেন গ্রহণ করে শিশু
বিশদ

04th  April, 2024
 প্রিয়জনের মৃত্যুশোক সামলে উঠবেন কীভাবে?

রোজ যে মানুষটির সঙ্গে কথা হত, হঠাৎ করে সে নেই! মৃত্যু অদ্ভুত এক শূন্যতা সৃষ্টি করে। সেই ধাক্কা কীভাবে সামলে উঠা সম্ভব, তা ভেবে উঠতে পারেন না অনেকেই। জন্ম ও মৃত্যু জীবনের স্বাভাবিক প্রক্রিয়া। পরামর্শে বিশিষ্ট মনোরোগ বিশেষজ্ঞ ডাঃ দেবাঞ্জন পান।
বিশদ

04th  April, 2024
অ্যান্টিবায়োটিক খেলেই কি গণ্ডগোল?

অ্যান্টিবায়োটিকের নাম শুনলে অনেকেই চমকে ওঠেন। ডাক্তারবাবুকে অনুরোধ করেন, ‘ওটা ছাড়া অন্য কিছু দেওয়া যায় না! খেলে তো মাথা ঘোরা, চোখ অন্ধকার, শরীর দুর্বল– আরও কত কী!’
বিশদ

04th  April, 2024
নতুন বিপদ ‘সুপার ইনফেকশন’

সম্প্রতি ইনফ্লুয়েঞ্জায় আক্রান্ত এক শিশুকে শহরের এক নামজাদা শিশু হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। চিকিত্সার পরও তার সর্দি, কাশি, জ্বর কিছুতেই কমছে না। পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখা গেল বাচ্চাটি স্ট্রেপটোকক্কাস নিউমোনিয়াতেও আক্রান্ত হয়েছে।
বিশদ

04th  April, 2024
হার্ট অ্যাটাক না গ্যাসের ব্যাথা, বুঝবেন কীভাবে?

কীভাবে আলাদা করবেন দুই ব্যথার উপসর্গ। পরামর্শ দিলেন  ডাঃ অমিতাভ ভট্টাচার্য।  বিশদ

28th  March, 2024
গুণের রাজা হলুদ! 

হলুদের ব্যবহার ভারতে হাজার হাজার বছর ধরে চলে আসছে। যে কোনও রান্নাঘরে আমরা হলুদকে কোনও না কোনও রূপে দেখতে পাই। কোথাও হলুদ গুঁড়ো ব্যবহার করা হয়, কোথায় হলুদ বেটে আবার কোথাও শুকনো হলুদ ব্যবহার করা হয়।  বিশদ

28th  March, 2024
দোলের পরে ত্বকের যত্ন

দোলে রং খেলে হইহুল্লোড়ে মেতেছেন কমবেশি সকলেই। সকাল থেকে বিকেল লাল, নীল, সবুজ, হলুদ রংয়ে মেতে চেহারা আর চেনার উপায় ছিল না। কিন্তু গায়ে জ্বর আসে তখনই যখন এই সব রং পরিষ্কার করে আবার নিজেকে আগের চেহারায় ফিরিয়ে নিয়ে যেতে হয়। কী করবেন তখন? ত্বকের যত্ন নেবেন কী করে? পরামর্শে বিশিষ্ট অ্যারোমাথেরাপিস্ট কেয়া শেঠ।
বিশদ

28th  March, 2024
একনজরে
যিনি দত্তক নেওয়া গ্রামের উন্নয়ন করতে পারেননি, গোটা লোকসভা এলাকার উন্নয়ন করবেন কীভাবে! বালুরঘাট কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী বিপ্লব মিত্রর সমর্থনে প্রচারে এসে বিজেপি প্রার্থী সুকান্ত মজুমদারকে এভাবেই আক্রমণ শানালেন মন্ত্রী বীরবাহা হাঁসদা। ...

 ফুটবলের মক্কা কলকাতা। তিন প্রধানকে ঘিরে সমর্থকদের অফুরান আবেগ ময়দানের ইউএসপি। ফুটবলের মতো মেট্রো রেলও বঙ্গ সংস্কৃতির ...

বাগদার বিজেপি নেতাদের ফোন করে ভোট চাইছেন বনগাঁর তৃণমূল প্রার্থী বিশ্বজিৎ দাস। অভিযোগ, তিনি বলছেন, ‘আমাকে জিতিয়ে দিন। জিতে আবার বিজেপিতে ফিরে আসব।’ ...

বিধাননগর হাসপাতাল মোড়ের কাছে  দুই ব্যক্তি গল্প করছেন। ধীরেন রায় নামে একজন বলছেন, দেখলেন তো তৃণমূলের মিছিলে ভিড়। কিসের লোভে লোকগুলো ঘুরছে বলুন তো? ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

পেশা ও ব্যবসায় অর্থাগমের যোগটি অনুকূল। বিপরীত লিঙ্গের প্রতি আকর্ষণ বৃদ্ধি পেতে পারে। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

বিশ্ব হিমোফিলিয়া দিবস
হাজব্যান্ড অ্যাপ্রিসিয়েশন ডে
১৬২৯ - প্রথম বাণিজ্যিক মাছের খামার চালু
১৭৮১ - ওয়ারেন হেস্টিংস কলকাতায় প্রথম মাদ্রাসা স্থাপন করেন
১৭৯০- মার্কিন বিজ্ঞানী বেঞ্জামিন ফ্রাঙ্কলিনের মৃত্যু
১৮৫৩ - নাট্যকার ও নাট্য অভিনেতা রসরাজ অমৃতলাল বসুর জন্ম
১৮৯৯ - কলকাতায় প্রথম বিদ্যুৎ সরবরাহ শুরু
১৯২৭- প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী চন্দ্রশেখরের জন্ম
১৯৭১- স্বাধীনতা ঘোষণা করল বাংলাদেশ, গঠিত হল অস্থায়ী মুজিবনগর সরকার
১৯৭২- শ্রীলঙ্কার ক্রিকেটার মুথাইয়া মুরলীধরনের জন্ম
১৯৭৪ - ইংরেজ গায়িকা, অভিনেত্রী ও ফ্যাশন ডিজাইনার ভিক্টোরিয়া বেকহ্যামের জন্ম
১৯৭৫- ভারতের দ্বিতীয় রাষ্ট্রপতি সর্বপল্লী রাধাকৃষ্ণানের মৃত্যু
১৯৮৩- এস এল ভি-৩ রকেটের সাহায্যে ভারত মহাকাশে পাঠাল দ্বিতীয় উপগ্রহ ‘রোহিনী’ আর এস ডি-২



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৮৩.০৩ টাকা ৮৪.১২ টাকা
পাউন্ড ১০২.৫৫ টাকা ১০৫.১৬ টাকা
ইউরো ৮৭.৪৮ টাকা ৮৯.৮৯ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৭৩,৮৫০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৭৪,২০০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৭০,৫৫০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৮৩,৫০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৮৩,৬০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

৪ বৈশাখ, ১৪৩১, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪। নবমী ২৪/৫০ দিবা ৩/১৫। অশ্লেষা নক্ষত্র অহোরাত্র। সূর্যোদয় ৫/১৮/৩৩, সূর্যাস্ত ৫/৫৩/৫৪। অমৃতযোগ প্রাতঃ ৬/৫৯ মধ্যে পুনঃ ৯/২৯ গতে ১১/১১ মধ্যে পুনঃ ৩/২৩ গতে ৫/৪ মধ্যে। রাত্রি ৬/৪০ গতে ৮/৫৬ মধ্যে পুনঃ ১/৩০ গতে উদয়াবধি। মাহেন্দ্রযোগ দিবা ১/৪২ গতে ৩/২৩ মধ্যে। রাত্রি ৮/৫৬ গতে ১০/২৮ মধ্যে। বারবেলা ৮/২৮ গতে ১০/২ মধ্যে পুনঃ ১১/৩৭ গতে ১/১১ মধ্যে। কালরাত্রি ২/২৭ গতে ৩/৫৩ মধ্যে।  
৪ বৈশাখ, ১৪৩১, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪। নবমী সন্ধ্যা ৫/৩৫। পুষ্যা নক্ষত্র দিবা ৭/৫৫। সূর্যোদয় ৫/১৯, সূর্যাস্ত ৫/৫৫। অমৃতযোগ দিবা ৬/৪৭ মধ্যে ও ৯/২৩ গতে ১১/৭ মধ্যে ও ৩/২৭ গতে ৫/১১ মধ্যে এবং রাত্রি ৬/৪৭ গতে ৯/০ মধ্যে ও ১/২৩ গতে ৫/১৮ মধ্যে। মাহেন্দ্রযোগ দিবা ১/৪৩ গতে ৩/২৭ মধ্যে এবং রাত্রি ৯/০ গতে ১০/২৭ মধ্যে। কালবেলা ৮/২৮ গতে ১০/৩ মধ্যে ও ১১/৩৭ গতে ১/১২ মধ্যে। কালরাত্রি ২/২৮ গতে ৩/৫৪ মধ্যে। 
৭ শওয়াল।

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
আইপিএল: গুজরাতকে ৬ উইকেটে হারিয়ে ম্যাচ জিতল দিল্লি

10:27:17 PM

আইপিএল: ১৯ রানে আউট সাই হোপ, দিল্লি ৬৭/৪ (৫.৪ ওভার) টার্গেট ৯০

10:14:08 PM

আইপিএল: ১৫ রানে আউট অভিষেক পোরেল, দিল্লি ৬৫/৩ (৫ ওভার) টার্গেট ৯০

10:08:47 PM

জম্মু ও কাশ্মীরের অনন্তনাগে জঙ্গিদের গুলিতে নিহত এক পরিযায়ী শ্রমিক

10:01:42 PM

আইপিএল: ৭ রানে আউট পৃথ্বী শ, দিল্লি ৩১/২ (২.৪ ওভার) টার্গেট ৯০

09:53:34 PM

আইপিএল: ২০ রানে আউট জ্যাক, দিল্লি ২৫/১ (২ ওভার) টার্গেট ৯০

09:50:47 PM