Bartaman Patrika
শরীর ও স্বাস্থ্য
 

ঈষদুষ্ণ জলের
স্বাস্থ্যগুণ কী কী?

পরামর্শে জে বি রায় স্টেট আয়ুর্বেদিক মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের অধ্যাপক ডাঃ প্রশান্ত সরকার।

আয়ুর্বেদ শাস্ত্র অনুযায়ী, আমাদের শরীরের সহনযোগ্য তাপমাত্রাতে জল গরম হলেই ঈষদুষ্ণ জলে পরিণত হয়। ঈষদুষ্ণ জলের কোনও নির্দিষ্ট তাপমাত্রা সম্বন্ধে আয়ুর্বেদে কিছু বলা নেই। আয়ুর্বেদ মতে দুই রকমভাবে জলকে ঈষদুষ্ণ করে তোলা যায়। প্রথমত, জল ততটাই গরম করুন, যতটা সহ্য করতে পারবেন। দ্বিতীয়ত, জলকে ফুটিয়ে অর্ধেক করে নিতে হবে। তারপর সেই জলকে শরীরের সহনযোগ্য  তাপমাত্রায় আসা পর্যন্ত ঠান্ডা হতে দিন। 

আয়ুর্বেদে ব্যবহার
আয়ুর্বেদ শাস্ত্রে ঈষদুষ্ণ জলের বিশাল গুরুত্ব রয়েছে। বিভিন্ন প্রয়োজনে এই জলের ব্যবহার চলে। ঈষদুষ্ণ জল পান, গার্গল, অনুপান, স্নান সহ অন্যান্য উপায়ে ব্যবহার করা হয়। 
জল পান: আয়ুর্বেদ মতে, জ্বর হলে অগ্নিবল কমে যায়। সোজা ভাষায়, খাওয়াদাওয়ার ইচ্ছা কমে। এই সমস্যা সমাধানে জ্বরের সময়ে স্বাভাবিক তাপমাত্রার জলের পরিবর্তে ঈষদুষ্ণ জল পানের কথা বলা হয়। এর মাধ্যমে রোগ থেকে দ্রুত আরোগ্য মেলে।
 এছাড়া হজমজনিত সমস্যা থাকলে খাবার খাওয়ার পর এক গ্লাস ঈষদুষ্ণ জল পান করলে উপকার মেলে। অপরদিকে প্রত্যেকদিন সকালে খালিপেটে এক গ্লাস ঈষদুষ্ণ জল পানের অভ্যাস স্বাভাবিক মলত্যাগে সাহায্য করে। কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা কমে।
 অনেকেরই মাঝেমধ্যে হেঁচকি ওঠার সমস্যা থাকে। এক্ষেত্রেও ঈষদুষ্ণ জল পানে উপকার ঩মিলতে পারে।
 কাশির সমস্যা, শ্বাসকষ্ট রয়েছে— এমন রোগীদের ঈষদুষ্ণ জল পান করার কথা বলা হয়। এর মাধ্যমে জমে থাকা কফ বেরিয়ে আসে।
 শরীরের মেদ ঝরাতেও সাহায্য করে ঈষদুষ্ণ জল। তাই স্থূলত্ব বা ওবেসিটির রোগীরা নিয়মিত এমন তাপমাত্রার জল পান করলে উপকার মেলে। 
গার্গল: গলা ব্যথা, গলা খুসখুস, গলা বসে যাওয়া সহ কন্ঠের যে কোনও সমস্যায় ঈষদুষ্ণ জলের গার্গল খুবই উপকারী। এই সমস্ত সমস্যায় দিনে দুই থেকে তিনবার প্রয়োজনমতো গার্গল করতে হয়।
 দাঁতে ব্যথা এবং মুখে ঘায়ের অসুখেও দিনে এক থেকে দু’বার ঈষদুষ্ণ জলে গার্গল করলে সমস্যা অনেকটাই কমে। 
মূত্রথলি শোধন: ইউরিনারি ব্লাডারের বিভিন্ন ধরনের সমস্যা রয়েছে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল— মূত্রনালীর জ্বালা, মূত্রত্যাগে জ্বালা, প্রস্রাব কম হওয়া ইত্যাদি। এই ধরনের সমস্যায় আয়ুর্বেদ মত অনুযায়ী মূত্রথলির শোধন করতে হয়। এক্ষেত্রে বিশেষজ্ঞ আয়ুর্বেদ চিকিৎসকের তত্ত্বাবধানে মূত্রনালীর মধ্য দিয়ে ঈষদুষ্ণ জল মূত্রথলিতে প্রবেশ করানো হয়। মূত্রথলির সমস্যাগুলি কমে।   
অনুপান: ‌আয়ুর্বেদ ওষুধ খাওয়ার জন্য ঘি, দুধ, গরম জলের মতো খাদ্য ও পানীয়ের সাহায্য নেওয়া হয়। এগুলিকে বলে অনুপান। অনুপান ওষুধের শোষণে সাহায্য করে। শরীরের ঠিক যে অংশে ওষুধের প্রয়োজন, সেই নির্দিষ্ট জায়গায় ওষুধকে দ্রুত পৌঁছে দিতেও সাহায্য করে অনুপান। 
আয়ুর্বেদ শাস্ত্র অনুযায়ী, অন্যসব অনুপানের মধ্যে শ্রেষ্ঠ অনুপান হল ঈষদুষ্ণ জল। 
এই পানীয় সবথেকে ভালোভাবে এবং দ্রুত আয়ুর্বেদিক ওষুধকে শরীরে কার্যক্ষম করে তোলে।
 বাতের বিভিন্ন সমস্যার আয়ুর্বেদিক ওষুধ নির্দিষ্ট করে ঈষদুষ্ণ জলের সঙ্গেই পান করার কথা বলা হয়। তখনই ওষুধগুলি সবথেকে ভালো কাজ করে। 
স্নান: ঈষদুষ্ণ জলে স্নান করলে শরীরের নিজস্ব তাপমাত্রা শরীর থেকে বেরতে পারে না। ফলে শরীর ঝরঝরে থাকে। তাই যে কোনও সুস্থ মানুষ চাইলে প্রায় গোটা বছরই ঈষদুষ্ণ জলে স্নান করতে পারেন।   
 বাতের বিভিন্ন সমস্যায় আক্রান্ত মানুষের ঈষদুষ্ণ জলে স্নান করলে সমস্যা বেশকিছুটা কমে। বিশেষত, বর্ষা এবং শীতে বাতের সমস্যা বাড়ে। তাই অন্তত এই দুই ঋতুতে বাতব্যাধিতে ভুক্তভোগী মানুষ রোজ নিয়ম করে ঈষদুষ্ণ জলে স্নান করতে পারেন। 

কখন ঈষদুষ্ণ জল নয়
ঈষদুষ্ণ জলের গুণ প্রশ্নাতীত হলেও কিছু ক্ষেত্রে এই জল ব্যবহার চলবে না। গ্রীষ্মের তীব্র দহনে ঈষদুষ্ণ জল যতটা সম্ভব এড়িয়ে চলা দরকার। এছাড়া আয়ুর্বেদ শাস্ত্র অনুযায়ী, পিত্তজ প্রকৃতির মানুষকে (গরম খাবার সহ্য হয় না এমন মানুষ) ঈষদুষ্ণ জল এড়িয়ে চলতে হয়। 
লিখেছেন সায়ন নস্কর     
এখন মাস্ক হোক ‘মাস্ট’
মিলবে ভ্যাকসিনের মতোই লাভ

পুলিস যদি ধরে! রাস্তায় কেউ যদি কটু কথা বলে! এই ভয়ে মাস্ক সকলেই সঙ্গে রাখছেন। হ্যাঁ, ‘সঙ্গে রাখছেন’ বলাই ভালো। কারণ রাস্তায় বেরলেই এখন দেখতে পাওয়া যায়, মাস্ক প্রায় সকলের কাছেই রয়েছে, তবে অনেকেরই তা ঝুলছে থুতনিতে। কখনও কানের পাশে। কখনও আবার নাকের নীচে। বিশদ

বাইরে পা দিলেই মাস্ক জরুরি

কথা বলার সময়, হাঁচি, কাশির সময় মুখ-নাক থেকে বেশকিছু তরলবিন্দু বেরিয়ে আসে। এই তরলবিন্দুকে বলে ড্রপলেট। মুশকিল হল, একজন করোনা আক্রান্তের ড্রপলেটে থাকে ভাইরাস। আক্রান্ত মানুষটি কথা বললে, হাঁচলে বা কাশলে ড্রপলেট বের হয়। বিশদ

গাড়িতে বসেই করোনা পরীক্ষা

অ্যাপোলো ক্লিনিক সল্টলেক অ্যান্ড নিউটাউনে করোনা পরীক্ষার নমুনা সংগ্রহের জন্য ড্রাইভ থ্রু স্যাম্পেল কালেকশন ব্যবস্থা চালু করল। গোটা ব্যবস্থাপনায় পাশে রয়েছে হিডকো এবং এনকেডিএ। সংস্থার পক্ষ থেকে জানানো হয়, এই ব্যবস্থায় নমুনা দিতে আসা ব্যক্তি নিজের গাড়িতেই বসে থাকবেন। বিশদ

হৃদযন্ত্র প্রতিস্থাপন

আহসানা খাতুন। ১৭ বছরের মেয়েটির চাহিদা ছিল সামান্য। সে চেয়েছিল অন্যান্য মেয়েদের মতো দশম শ্রেণীর পরীক্ষায় বসতে। মুশকিল হল, বাচ্চা মেয়েটি অদ্ভুত এক হার্টের সমস্যায় আক্রান্ত হয়েছিল। অসুখের নাম ছিল ডায়ালেটেড কার্ডিওমায়োপ্যাথি। বিশদ

ব্রেস্ট ক্যান্সার সচেতনতায়

গোটা অক্টোবর মাসটিই জনসাধারণের মধ্যে ব্রেস্ট ক্যান্সার সচেতনতা মাস হিসেবে পালিত হয়। এই উপলক্ষে সঞ্জীবনী লাইফ বেয়ন্ড ক্যান্সার নামক সংস্থা ব্রেস্ট ক্যান্সার নিয়ে আন্তর্জাতিক সম্মেলনের (পূর্বাঞ্চল) আয়োজন করেছে। বিশদ

পায়ের দুর্গন্ধ দূর
করতে আয়ুর্বেদ 

পরামর্শে বাঁকুড়া জেলার রাষ্ট্রীয় বালক স্বাস্থ্য কার্যক্রমের আয়ুর্বেদ মেডিক্যাল অফিসার ডাঃ সুমিত সুর। অনেকেরই ঢাকা জুতো বা মোজা পরলে পায়ে দুর্গন্ধ হয়। জুতো, মোজা খুললেই বেরিয়ে পরে গন্ধ। সেই দুর্গন্ধ মানুষটিকে অস্বস্তিতে ফেলে দেয়। অনেকে আবার এই কারণে হীনমন্যতায় ভুগতেও শুরু করেন। তবে এই নিয়ে খুব বেশি চিন্তার কিছু নেই। বিশদ

27th  October, 2020
চোখে ইনফেকশন?
হোমিওপ্যাথিতে অব্যর্থ দাওয়াই  

পরামর্শে সল্টলেকের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব হোমিওপ্যাথির প্রাক্তন ডিরেক্টর প্রফেসর ডাঃ গৌতম আশ। চোখের ইনফেকশনের সমস্যা যাঁর হয় সেই জানে। প্রচণ্ড ব্যথা তো থাকেই। পাশাপাশি চোখ লাল হয়ে যায়, চোখ দিয়ে জল পড়ে, কটকট করে, পিচুটি জমে, জ্বালা করে, চুলকায় ইত্যাদি। আর এত সব সমস্যা উপস্থিত হলে চোখে দেখতে যে অসুবিধে হবে, এ আর বলার প্রয়োজন নেই।   বিশদ

27th  October, 2020
পুজোয় হোক মাস্ক ‘মাস্ট’
মিলবে ভ্যাকসিনের মতোই লাভ 

পুলিস যদি ধরে! যদি রাস্তায় কেউ কোনও কটু কথা বলে! এই ভয়ে মাস্ক সকলেই সঙ্গে রাখছেন। হ্যাঁ, ‘সঙ্গে রাখছেন’ বলাই ভালো। কারণ রাস্তায় বেরলেই এখন দেখতে পাওয়া যায়, মাস্ক প্রায় সকলের কাছেই রয়েছে, তবে অনেকেরই তা ঝুলছে থুতনিতে। কখনও কানের পাশে। কখনও আবার নাকের নীচে। অথচ মাস্ক ব্যবহারের প্রথম শর্ত হল, নাক এবং মুখ ঢেকে রাখতেই হবে। ব্যস্‌, এইটুকু শর্ত পালনই যথেষ্ট। বিশদ

22nd  October, 2020
বাইরে পা দিলেই
মাস্ক জরুরি 

কথা বলার সময়, হাঁচি, কাশির সময় মুখ-নাক থেকে বেশকিছু তরলবিন্দু বেরিয়ে আসে। এই তরলবিন্দুকে বলে ড্রপলেট। মুশকিল হল, একজন করোনা আক্রান্তের ড্রপলেটে থাকে ভাইরাস। আক্রান্ত মানুষটি কথা বললে, হাঁচলে বা কাশলে ড্রপলেট বেরয়। সেই ড্রপলেট কোনও সুস্থ ব্যক্তির নাক, মুখ, চোখ হয়ে শরীরে প্রবেশ করলেই বিপদ! তখন সুস্থ মানুষটির দেহের অন্দরে প্রবেশ করে নোভেল করোনা ভাইরাস।   বিশদ

22nd  October, 2020
কাপড়ের মাস্ক পরলে কী
করবেন, কী করবেন না? 

করোনায় আক্রান্ত প্রায় ৪০ শতাংশ রোগীই উপসর্গহীন। এঁদের শরীরে ভাইরাস বাসা বাঁধলেও রোগ লক্ষণ ফুটে ওঠে না। মুশকিল হল, এঁরা কিন্তু অন্যের মধ্যে রোগ ছড়িয়ে দিতে পারে। রোগ লক্ষণ থাকে না বলে এঁদের চিহ্নিত করাও কঠিন। আপনি বুঝতেও পারবেন না, সামনের মানুষটি উপসর্গহীন কি না! এই সমস্যা সমাধানে বাড়ির বাইরে পা দিলেই মাস্ক ব্যবহার করুন। আর পুজোর কয়েকটা দিন তো বাইরে বেরিয়ে মাস্ক হতেই হবে ‘মাস্ট’।  বিশদ

22nd  October, 2020
মাস্ক পরায় ৭৬-এও ছুঁতে পারেনি করোনা 

দেখতে দেখতে বয়স এখন ৭৬-এর কোটায়। সুগার-প্রেশার দু’ই আছে। মাঝে মধ্যে ডাক্তারের পরামর্শও নিতে হয়। আর সে কারণে করোনা আবহে আমাদের মতো বয়সিদের একটু বাড়তি সর্তকতা অবশ্যই নেওয়া দরকার।   বিশদ

22nd  October, 2020
করোনাকে জবাব
দিতে মাস্ক পরুন 

পুজোয় ‘মাস্ক এবার মাস্ট’! সাধারণ মানুষের পাশাপাশি উত্তর কলকাতার অন্যতম পুরনো হাতিবাগান সর্বজনীন পুজোর উদ্যোক্তা হিসেবে এই বিষয়ে নিজস্ব কিছু অভিজ্ঞতার কথা বলতে চাই। গত ছয়-সাত মাস ধরে আমাদের কিছু অভিজ্ঞতা হয়েছে।  বিশদ

22nd  October, 2020
মাস্ক না পরলে দোকানে ঢুকতে দিচ্ছি না 

পুজোর কেনাকাটা এখনও চলছে। বাজারে জমছে ভিড়। আর এখানেই আমাদের সতর্ক থাকতে হবে। তা না হলে বিগত ছয়-সাতমাসের সব প্রচেষ্টা পুরোপুরি ব্যর্থ হবে। বাজারে যাচ্ছেন, কেনাকাটা করছেন, মাস্ক অবশ্যই মুখে রাখুন।  বিশদ

22nd  October, 2020
নারায়ণায় হার্ট প্রতিস্থাপন 

আহসানা খাতুন। ১৭ বছরের মেয়েটির চাহিদা ছিল সামান্য। সে চেয়েছিল অন্যান্য মেয়েদের মতো দশম শ্রেণীর পরীক্ষায় বসতে। মুশকিল হল, বাচ্চা মেয়েটি অদ্ভুত এক হার্টের সমস্যায় আক্রান্ত হয়েছিল।   বিশদ

22nd  October, 2020
একনজরে
সংবাদদাতা, পতিরাম: ১৯৩৩ সালের ২৮ অক্টোবর। অবিভক্ত ভারতের হিলি স্টেশনে দার্জিলিং মেলে লুটপাট চালিয়েছিলেন স্বাধীনতা সংগ্রামীরা। দেশের স্বাধীনতা আন্দোলনের কাজে লেগেছিল সেই ‘লুটের টাকা’।   ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, তমলুক: ভুয়ো ভাউচার ছাপিয়ে ময়নার শ্রীকণ্ঠা সমবায় কৃষি উন্নয়ন সমিতি থেকে প্রায় ১৩ লক্ষ টাকা আত্মসাৎতের অভিযোগ উঠল সমিতির ম্যানেজারের বিরুদ্ধে। গত ১৭ অক্টোবর সমবায় সমিতির সম্পাদক সুবোধচন্দ্র মাইতি ম্যানেজার সোমনাথ দাসের বিরুদ্ধে ময়না থানায় এফআইআর করেছেন।   ...

কাশ্মীর ইস্যুতে আন্তর্জাতিক মহল, বিশেষ করে দুই মুসলিম দেশের কাছে বড় ধাক্কা খেল পাকিস্তান। জম্মু ও কাশ্মীরের উপর থেকে ৩৭০ ধারা প্রত্যাহারের বর্ষপূর্তি উপলক্ষে মঙ্গলবার ইরানে কালা দিবস পালন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল ইমরান খানের সরকার। এমনকী, সৌদি আরবের রিয়াধেও সেই ...

‘দরওয়াজা বন্ধ’ করেই অনুশীলন করাতে পছন্দ করেন এটিকে মোহন বাগানের হেডস্যার আন্তোনিও লোপেজ হাবাস। গতবার সল্টলেক স্টেডিয়ামের সংলগ্ন প্র্যাকটিস মাঠে এরকমই চিত্র দেখা গিয়েছিল। এবার গোয়াতে আইএসএলের প্রস্তুতি নিচ্ছেন প্রণয়-প্রবীররা। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

উচ্চবিদ্যার ক্ষেত্রে মধ্যম ফল আশা করা যায়। প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় সাফল্য আসবে। প্রেম-প্রণয়ে নতুনত্ব আছে। কর্মরতদের ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

বিশ্ব স্ট্রোক দিবস
১৯৬৯: ইন্টারনেটের আগের স্তর আরপানেটের আবিষ্কার
১৯৭১: অস্ট্রেলিয় ক্রিকেটার ম্যাথু হেডের জন্ম
১৯৮১: অভিনেত্রী রীমা সেনের জন্ম
১৯৮৫: বক্সার বিজেন্দর সিংয়ের জন্ম
১৯৮৮: সমাজ সংস্কারক ও স্বাধীনতা সংগ্রামী কমলাদেবী চট্টোপাধ্যায়ের মৃত্যু
১৯৯৯: ওড়িশায় ঘূর্ণিঝড়ে কমপক্ষে ১০ হাজার মানুষের মৃত্যু
২০০৫: দিল্লিতে পরপর তিনটি বিস্ফোরণে অন্তত ৬২জনের মৃত্যু  



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭২.৮৯ টাকা ৭৪.৬০ টাকা
পাউন্ড ৯৪.৪৭ টাকা ৯৭.৮৪ টাকা
ইউরো ৮৫.২৮ টাকা ৮৮.৪৪ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৫১,৮১০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৪৯,১৫০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৪৯,৮৯০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৬২,১০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৬২,২০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

১২ কার্তিক, ১৪২৭, বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২০, ত্রয়োদশী ২৩/৫২ দিবা ৩/১৬। উত্তরভাদ্রপদ নক্ষত্র ১৫/৪১ দিবা ১২/০। সূর্যোদয় ৫/৪৩/১৬, সূর্যাস্ত ৪/৫৭/৩০। অমৃতযোগ দিবা ৭/১৩ মধ্যে পুনঃ ১/১৩ গতে ২/৪২ মধ্যে। রাত্রি ৫/৪৮ গতে ৯/১৩ মধ্যে পুনঃ ১১/৪৬ গতে ৩/১০ মধ্যে পুনঃ ৪/১ গতে উদয়াবধি। বারবেলা ২/১০ গতে অস্তাবধি। কালরাত্রি ১১/২১ গতে ১২/৫৬ মধ্যে।
১২ কার্তিক, ১৪২৭, বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২০, ত্রয়োদশী দিবা ৩/২১। উত্তরভাদ্রপদ নক্ষত্র দিবা ১/১২। সূর্যোদয় ৫/৪৪, সূর্যাস্ত ৪/৫৮। অমৃতযোগ দিবা ৭/১৮ মধ্যে ও ১/১১ গতে ২/৩৯ মধ্যে এবং রাত্রি ৫/৪৩ গতে ৯/১১ মধ্যে ও ১১/৪৬ গতে ৩/১৪ মধ্যে ও ৪/৬ গতে ৫/৪৫ মধ্যে। কালবেলা ২/১০ গতে ৪/৫৮ মধ্যে। কালরাত্রি ১১/২১ গতে ১২/৫৭ মধ্যে।
১১ রবিয়ল আউয়ল।

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
আজকের দিনটি কেমন যাবে?  
মেষ: কর্মরতদের উপার্জনের ক্ষেত্রে কোনও বাধা নেই। বৃষ: শেয়ার বা ফাটকায় বিনিয়োগ ...বিশদ

04:29:40 PM

ইতিহাসে আজকের দিনে  
বিশ্ব স্ট্রোক দিবস ১৯৬৯: ইন্টারনেটের আগের স্তর আরপানেটের আবিষ্কার ১৯৭১: অস্ট্রেলিয় ক্রিকেটার ...বিশদ

04:28:18 PM

আইপিএল: কেকেআর-কে ৬ উইকেটে হারাল সিএসকে 

11:14:20 PM

আইপিএল: চেন্নাই ১২১/৩ (১৫ ওভার) 

10:43:26 PM

আইপিএল: চেন্নাই ৮৮/১ (১১ ওভার) 

10:19:05 PM

আইপিএল: চেন্নাই ৩৭/০ (৫ ওভার) 

09:51:13 PM