Bartaman Patrika
শরীর ও স্বাস্থ্য
 

পাওয়ার থাকলে চোখের যত্ন নেবেন কীভাবে? 

ডাঃ অনন্যব্রত দাস
বিশিষ্ট চক্ষু রোগ বিশেষজ্ঞ

চোখের পাওয়ার
জানলে অবাক হবেন, দেশের ৩০ শতাংশ মানুষ মাইয়োপিক। অর্থাৎ তাঁদের চোখে মাইনাস পাওয়ারের চশমা রয়েছে। তুলনায় প্লাস পাওয়ার বা হাইপারমেট্রোপিকের সমস্যায় ভোগা রোগীর সংখা কম। অবশ্য তার মানে এই নয় যে মাইনাস পাওয়ার আসলে বেশি ক্ষতিকর! আর হাইপারমেট্রোপিক কম ক্ষতিকর! বস্তুতঃ দুটি সমস্যাই সমানভাবে জটিল।
আসলে দেখা যায়, চোখের মাইনাস পাওয়ার প্রতিবছর উত্তোরত্তর বাড়তে থাকে। ফলে আমাদের স্বাভাবিকভাবে মনে হয়, চোখের মাইনাস পাওয়ার মোটেই ভালো বিষয় নয়। ঠিকই, তবে খেয়াল করলে দেখবেন, চোখের মাইনাস পাওয়ার ক্রমশ বাড়ে গ্রোয়িং এজ বা বাড়ন্ত বয়সে। সাধারণত, ২০ বছর বয়স পর্যন্ত মাইনাস পাওয়ার বাড়তে থাকে। তার অবশ্য কারণ রয়েছে। বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে শরীরের আকৃতির যেমন পরিবর্তন হয়, তেমনই চোখের আকারও বাড়ে। চোখের আকার বাড়লে অ্যাক্সিয়াল লেন্থ-এরও পরিবর্তন ঘটে। অর্থাৎ কর্নিয়া থেকে রেটিনা অবদি দূরত্ব বাড়তে থাকে। ফলে চোখের দৃষ্টি সমস্যাও বাড়ে। এই কারণেই প্রতিবছর বারবার মাইনাস পাওয়ারের চশমা পরিবর্তন করতে হয়। এছাড়া যাঁরা দিনের বেশিরভাগ সময় কম্পিউটারে কাজ করেন, সর্বক্ষণ মোবাইল ঘাঁটেন বা সোনার অলঙ্কারের নকশা কাটার মতো সূক্ষ্ম কাজ করেন, তাঁদেরও মাইয়োপিয়ার সমস্যা বাড়ে।
অন্যদিকে প্লাস পাওয়ারও কিন্তু ছোট বয়সে আসতে পারে। তবে মাইনাস পাওয়ারের মতো প্রতিবছর সাধারণত বাড়ে না। দেখা গিয়েছে ৩৫ বছর বয়স থেকে ৪০ বছর বয়সের পর থেকে প্লাস পাওয়ার অসুবিধে তৈরি করে ও বাড়তে থাকে। মোটামুটি ৬০ বছর বয়স পর্যন্ত এই সমস্যা বাড়তে পারে। এখানেই বুঝতে হবে, এই বয়সে আসলে মানুষ মোটামুটি নিজের পায়ে দাঁড়িয়ে যায়। রোজগার করতে শেখে। কেরিয়ার তৈরির ক্ষেত্রে চোখের পাওয়ার আলাদা করে কোনও সমস্যা তৈরি করে না। তাই প্লাস পাওয়ার সেভাবে অতটা গুরুত্ব পায় না। তবে প্লাস পাওয়ারের কিছু জটিলতা রয়েছে যেমন, প্লাস পাওয়ারের রোগীর চোখের আকার ছোট হয়। চোখের আকার ছোট হওয়ার কারণে আইরিশের পাশে যে অ্যাঙ্গেল থাকে, সেটিও ছোট হয়। ফলে পরবর্তীকালে প্লাস পাওয়ারের রোগীর গ্লকোমা হওয়ার আশঙ্কা থাকে। তাই যাঁদের চোখে সাড়ে চারের বেশি প্লাস পাওয়ারের চশমা রয়েছে তাঁদের ক্ষেত্রে চোখ পরীক্ষার সময় বেশি সতর্ক থাকা দরকার।
 সমস্যার সমাধান
মাইয়োপিয়া হোক বা হাইপারমেট্রোপিয়া, দু’টি সমস্যারই সমাধানের পথ রয়েছে।
চশমা: তুলনামূলকভাবে কম খরচে চোখের পাওয়ারের সমস্যায় চশমা নিয়ে নেওয়া হল বুদ্ধিমানের কাজ। মাইয়োপিয়ার ক্ষেত্রে, আমরা সাধারণত বলি, ঘুমানো আর স্নান করতে যাওয়ার সময়টুকু বাদে, বাকি সময়ে চশমা ব্যবহার করুন। হাইপারমেট্রোপিয়ার রোগীদেরও একই পরামর্শ দেওয়া হয়।
কনট্যাক্ট লেন্স: মডেলিং, বিমান সহযোগীর মতো পেশায় চশমা ব্যবহারে সমস্যা থাকে। সেক্ষেত্রে কন্ট্যাক্ট লেন্স ব্যবহার করা যায়। এছাড়া যাঁরা চশমা ব্যবহার করতে পছন্দ করেন না, তাঁরাও কন্ট্যাক্ট লেন্স ব্যবহার করতে পারেন। মুশকিল হল, মাইয়োপিয়ার ক্ষেত্রে চোখের পাওয়ারের বারবার পরিবর্তন হতে পারে। সেক্ষেত্রে লেন্সও বারংবার বদলাতে হয়। এই প্রসঙ্গেই জানিয়ে রাখি, বিশেষ করে যাঁদের কর্নিয়ায় কেরোটোকোনাস আছে, বা যাঁদের কর্নিয়া ‘কোণ’ আকৃতির, তাঁদের ক্ষেত্রে সাধারণ কন্ট্যাক্ট লেন্স বা চশমা কার্যকরী নয়। খুব বেশি মাইয়োপিয়ার সমস্যায় ভোগা রোগী, অর্থাৎ যাঁদের চোখের পাওয়ার প্রায় মাইনাস ১২ বা তার বেশি, তাঁদের চোখের গ্লোব বড় থাকে। চোখের গ্লোব বড় হলে চোখের কর্নিয়াকে কোণ আকৃতির হতে হবে অথবা চোখের রেটিনাকে গর্তের আকৃতি হতে হবে! তবেই অ্যাক্সিয়াল লেন্থ বাড়বে। অ্যাক্সিয়াল লেন্থ বাড়লে চশমা বা সাধারণ কন্ট্যাক্ট লেন্স চোখে পরে তেমন উপকার মেলে না। এই সমস্যায় ভোগা রোগীকে ব্যবহার করতে হয় স্কেরল ফিকসেশন লেন্স নামে আধুনিক লেন্স। এই লেন্স চোখের সাদা অংশ বা স্ক্লেরাতে পরতে হয়। এই কারণেই যাঁদের চোখের পাওয়ার দিনকেদিন বাড়ছে তাঁদের রেটিনা খুব ভালো করে পরীক্ষা করে দেখা দরকার। রেটিনা খুব পাতলা হয়ে গেলে রেটিনা ডিটাচমেন্ট হওয়ার আশঙ্কা থেকে যায়। সেখান থেকে দৃষ্টিশক্তি চলে যাওয়ারও ভয় থেকে যায়।
ল্যাসিক: মাইয়োপিয়া ও হাইপারমেট্রোপিয়া, দুটি সমস্যার সমাধানে ল্যাসিক অপারেশন করা যায়। ল্যাসিক হল, ছুরি-কাঁচি ও রক্তপাতহীন চোখের অপারেশন। লেজারের সাহায্যে চোখে এই অস্ত্রোপচার করা হয়। এই পদ্ধতিতে কর্নিয়ার সামান্য পুনর্গঠন করে দিলেই চোখের পাওয়ারের সমস্যা দূর হয়। ১৮ থেকে ২৫ বয়সের মধ্যে এই সার্জারি করালে ভালো ফল পাওয়া যায়। আরও ভেঙে বললে, চোখে পাওয়ার কোনও একটি নির্দিষ্ট জায়গায় স্থির হলে তারপরেই ল্যাসিক করানো উচিত। তবে চাইলে২৫ বছর বয়সের পরেও অপারেশন করানো যায়। মাইয়োপিয়ার ক্ষেত্রে, মাইনাস ১ থেকে মাইনাস ৮-এর মধ্যে পাওয়ার থাকলে এই অপারেশন নিশ্চিন্তে করানো যায়। তবে মাইনাস ৮ পাওয়ারের উপর এই অপারেশন করালে বেশ কিছু জটিলতা আসতে পারে। বিশেষ করে যাঁদের কর্নিয়া বেশ পাতলা হয়ে গিয়েছে তাঁদের অপারেশনের পর চোখে সমস্যা হতে পারে। প্রশ্ন হল, সেক্ষেত্রে উপায় কী?
ইন্ট্রাঅকুলার লেন্স: আমাদের চোখের স্বাভাবিক লেন্সের ওপরেই রিফ্রাকটিভ আই ওয়েল বা ইন্ট্রাঅকুলার লেন্স প্রতিস্থাপন করে নেওয়া যায়। চোখের পাওয়ারের স্থায়ী সমাধান করা যায় এই পদ্ধতিতে। বিশেষ করে যাঁদের ল্যাসিক করা যাচ্ছে না তাঁদের ক্ষেত্রে ছোট্ট সার্জারির মাধ্যমে ইন্ট্রাঅকুলার লেন্স প্রতিস্থাপন যথেষ্ট কার্যকরী। অর্থাৎ চোখের পাওয়ার মাইনাস ৮-এর বেশি থাকলে, সেক্ষেত্রে চোখে নর্মাল লেন্সের সামনে রিফ্রাকটিভ ইন্ট্রা অকুলার লেন্স প্রতিস্থাপন করে দিলেই চলে। আর চশমা ব্যবহার করতে হয় না।
 চোখের সমস্যায় যত্ন নিন
চশমা ও কন্ট্যাক্ট লেন্স: অর্থ সাশ্রয় করতে গিয়ে চশমায় কম দামি গ্লাস ও সস্তা কন্ট্যাক্ট লেন্স ব্যবহার করা মোটেই উচিত নয়। দীর্ঘমেয়াদি ক্ষেত্রে চোখে সমস্যা ডেকে আনতে পারে গুণগত মানে খারাপ লেন্স। মনে রাখবেন, কন্ট্যাক্ট লেন্স কর্নিয়ার উপরে থাকে। কর্নিয়ায় কোনও রক্ত সঞ্চালন হয় না। বাতাস থেকে পুষ্টি ও অক্সিজেন সংগ্রহ করে কর্নিয়া। ফলে এমন কন্ট্যাক্ট লেন্স ব্যবহার করা দরকার, যেগুলি অন্তত অক্সিজেন প্রবেশ সহজতর করে। গুণগত মানে উৎকৃষ্ট কন্ট্যাক্ট লেন্সের মধ্যে দিয়ে যথেষ্ট মাত্রায় অক্সিজেন প্রবেশ করে। ফলে কর্নিয়া সুস্থ থাকে। কন্ট্যাক্ট লেন্সের মধ্যে দিয়ে অক্সিজেন কতটা প্রবেশ করছে তা বোঝা যায় ‘ডিকে’ নামে এককের সাহায্যে। ফলে যে কন্ট্যাক্ট লেন্সের ডিকে ভ্যালু যত বেশি, সেই কন্ট্যাক্ট লেন্স তত উৎকৃষ্ট। অর্থাৎ ডিকে ৯০ এর তুলনায় ডিকে ১৭০ ভ্যালু যুক্ত কন্ট্যাক্ট লেন্স বেশি ভালো।
এবার আসা যাক চশমার যত্নে। চশমার গ্লাসে দাগ পড়ে গিয়ে চশমা ঝাপসা হয়ে গেলে সত্ত্বর কাচ বদলে নিন। ভিশন কমে যায় এই ধরনের অবহেলায়। তাই চোখ নিয়ে কোনওরকমভাবে আপস করবেন না। এছাড়া প্রতিদিন সাধারণ জলে চশমা ধুয়ে নিন। নরম কাপড় দিয়ে মুছে নিন। চশমার দোকানেই এমন কাপড় মেলে। চশমার গ্লাস মোছার জন্য আলাদা লিক্যুইড পাওয়া যায়। কাচের স্বচ্ছতা বজায় রাখতে এই লিক্যুইড যথেষ্ট কার্যকরী।
ইন্ট্রাঅকুলার লেন্সের আলাদা করে যত্নের প্রয়োজন নেই। তবে প্রতিবছর চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া অবশ্যই দরকার।
আবার যাঁরা ল্যাসিক অপারেশন করান, তাঁদের কিছু ক্ষেত্রে ড্রাই আই-এর সমস্যা হতে পারে। তাঁদের লুব্রিক্যান্ট ড্রপ নিতে হতে পারে।
 চোখের পাওয়ারের অন্যান্য সমস্যা ও সমাধান
চালশে: চিকিৎসা পরিভাষায় চালশে পড়াকে বলা হয় প্রেসবিয়োপিয়া। বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে কিছু মানুষ কাছের বস্তু ঝাপসা দেখতে থাকেন। মোটামুটি চল্লিশ বছর বয়সের পর থেকেই এই সমস্যা শুরু হয়। আসলে বয়স বাড়ার সঙ্গে চোখের লেন্স ক্রমশ নমনীয়তা হারিয়ে ফেলে। ফলে কোনও বস্তু থেকে আসা আলো, লেন্সের মধ্যে দিয়ে সরাসরি রেটিনায় পড়ে না। বরং রেটিনার পিছনে গিয়ে পড়ে। এই কারণে সুচে সুতো পরানো, বই-এর লেখা পড়ার মতো কাজে অসুবিধা হয়।
তবে এই সমস্যারও সমাধান করা যায় চশমা, কন্ট্যাক্ট লেন্স বা সার্জারির সাহায্যে। ইতিমধ্যে চোখে চশমা ব্যবহার করার পরেও সমস্যা হলে চিকিৎসকের পরামর্শ মতো বাইফোকাল, ট্রাইফোকাল বা প্রোগ্রেসিভ লেন্স ব্যবহার করতে হতে পারে।
মাল্টি ফোকাল লেন্স: যাঁদের চোখে নিকটবর্তী, দূরবর্তী এবং এই দুই দূরত্বের মধ্যবর্তী অংশেও ফোকাসের সমস্যা থাকে, তাঁদের ক্ষেত্রে মাল্টিফোকাল লেন্স ব্যবহার করতে হয়। উদাহরণ হিসেবে বলা যায়, কম্পিউটারকে আমরা কিন্তু মধ্যবর্তী দূরত্বে রেখেই কাজ করি। মাল্টিফোকাল লেন্স ব্যবহার করার অন্যতম সুবিধে হল, ঘাড় উঁচু বা নিচু করে কাজ করতে হয় না। ফলে ঘাড়ে ব্যথা কম হয়।
সিলিন্ড্রিকাল পাওয়ার: মাইনাস এবং সিলিন্ড্রিকাল চোখের পাওয়ার কারেকশন করা খুব জরুরি। সিলিন্ড্রিকাল পাওয়ারের ক্ষেত্রে কম দামি লেন্স ব্যবহার করা একেবারে উচিত নয়। নিম্ন মানের গ্লাস ব্যবহার করতে গিয়ে সামান্য সিলিন্ড্রিকাল পাওয়ারের এদিক-ওদিক হয়ে গেলে পরবর্তীকালে বড় ধরনের সমস্যা হতে পারে।
 মুশকিল কোথায়?
চোখে পাওয়ারের সমস্যা হতেই পারে। কিন্তু মূল সমস্যা হল, চোখে পাওয়ার আসার পর তাকে অবহেলা করা। সাধারণ মানুষ কিন্তু ঠিক এই কাজটাই করেন। চোখে পাওয়ার আসার পর দোকানে গিয়ে একটা চশমা করিয়ে নিয়ে চলে আসেন। তারপর ভাবেন এতেই সমস্যার সমাধান হয়ে গেল বোধহয়। আসলে চোখের পাওয়ারের সমস্যাটি চিহ্নিত করেন অপটোমেট্রিস্ট। কিন্তু পাওয়ারের পাশাপাশি চোখে অন্য কোনও অসুখ বাসা বেঁধেছে কি না সেই বিষয়ে কথা বলতে পারেন একমাত্র একজন চক্ষুরোগ বিশেষজ্ঞ!
অতএব, চক্ষু সম্পর্কিত যে কোনও সমস্যায়, প্রথম ধাপে থাকবেন চক্ষুরোগ বিশেষজ্ঞ। এরপর আসবেন অপটোমেট্রিস্ট। অথচ সচেতনতার অভাবে প্রথম ধাপটিই বেশিরভাগ মানুষ এড়িয়ে যান। এছাড়া অপট্রোমেট্রিস্টরেও উচিত, রোগীর চোখ নিয়ে কোনওরকম সন্দেহ হলে চক্ষু বিশেষজ্ঞের কাছে রোগীকে পাঠানো।
 খেলোয়াড়দের চোখে পাওয়ার
ক্রিকেট, ফুটবল, তিরন্দাজি বা রাইফেল শ্যুটিং— সব খেলাতেই চোখের পাওয়ার থাকা মানেই সমস্যা। এই সমস্ত ক্ষেত্রে চোখের পাওয়ারের নির্ণয় নিখুঁত হওয়া বাঞ্ছনীয়। তাই খেলোয়াড়দের চোখে পাওয়ারের সমস্যা থাকলে, এমনকী না থাকলেও ভিশন থেরাপির সাহায্য নেওয়া যেতে পারে। কারণ চোখ কিছু দেখার পর সেই ছবি পাঠায় ব্রেনে। মস্তিষ্ক সেই ছবির বিশ্লেষণ করে জানিয়ে দেয় সেটি কোন বস্তু, কতটা দূরত্বে রয়েছে ইত্যাদি। ছোটবয়স থেকে যে ব্যক্তি তিরন্দাজি করেন বা ব্যাট দিয়ে বলে আঘাত করেন অথবা বোলিং-এ উইকেট তুলে নেন, তাঁর এই বিশ্লেষণ তত উন্নত হয়। এই বিশ্লেষণের মানে ভাটা আনতে পারে পাওয়ারের সমস্যা, চোখে ক্লান্তির সমস্যা। ভিশন থেরাপির মাধ্যমে সেই হৃত বিশ্লেষণের গুণ ফিরিয়ে আনা যায়। এছাড়া বিশ্লেষণ আরও উন্নত করতেও ভিশন থেরাপি করানো যায়।
 বাচ্চা যখন পড়াশোনায় অমনোযোগী
বাচ্চাদের ক্ষেত্রেও ভিশন থেরাপি বেশ কার্যকরী। বাচ্চাদের চোখে পাওয়ার আসলে তারা পড়াশোনায় অমনোযোগী হয়ে পড়তে পারে। সেক্ষেত্রে শুধু চশমা দিলেই হবে না। দেখতে হবে বস্তুর ছবি দেখা এবং তার বিশ্লেষণেও কোনও ফাঁক থেকে যাচ্ছে কি না।
কারণ কারণ চোখের পেশি দুর্বল থাকলে তা নির্ণয় করা দরকার। কারণ পরবর্তীকালে পেশির দুর্বলতার কারণে চোখ ট্যারা হওয়ার সমস্যাও হতে পারে। তাই এখনই সতর্ক হন নিজের এবং সন্তানের চোখ নিয়ে। কারণ চোখ নিয়ে আপস চলে না। 
19th  September, 2019
আত্মহত্যা বিরোধী দিবস উদযাপন
 

১০ সেপ্টেম্বর ছিল বিশ্ব আত্মহত্যা বিরোধী দিবস। এই উপলক্ষ্যে মেডিক্যাল ব্যাঙ্কের পক্ষ থেকে কলকাতার বিভিন্ন স্কুলের পড়ুয়াদের একত্রিত করে শোভাবাজার মেট্রো স্টেশনের সামনে আত্মহত্যা বিরোধী প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়েছিল।  
বিশদ

19th  September, 2019
বিএমবিড়লায় প্রাণ বাঁচানোর অ্যাঞ্জিওপ্লাস্টি 

বারবার বুকে ব্যথা হয়েই চলেছিল পঞ্চাশোর্ধ্ব এক রোগীর। রোগী বিশ্রামরত অবস্থাতে থাকলেও বুকে এমন ব্যথা হতো। এমনকী শেষ কদিনে অ্যান্টি অ্যানজাইনাল ওষুধও আর কাজ করছিল না। অথচ কয়েকমাস আগেই তিনি অ্যাঞ্জিওপ্লাস্টি করিয়েছিলেন।  
বিশদ

19th  September, 2019
বোন অ্যান্ড জয়েন্ট ক্লিনিকের অনুষ্ঠান 

চতুর্থ প্রতিষ্ঠা দিবস উপলক্ষে বোন অ্যান্ড জয়েন্ট ক্লিনিক প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে নেওয়া হয়েছিল অভিনব উদ্যোগ। সংস্থার পক্ষ থেকে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। ওই অনুষ্ঠানে ২৫ জন বিশেষ ভাবে সক্ষম ও দুঃস্থ ছাত্রছাত্রীদের সম্বর্ধনা দেওয়া হয়। 
বিশদ

19th  September, 2019
তারাপিঠে বিনামূল্যে স্বাস্থ্য পরীক্ষা শিবির 

কৌশিকী অমাবস্যা উপলক্ষ্যে তারাপিঠ মন্দিরের কাছে বিনামূল্যে স্বাস্থ্য পরীক্ষা শিবিরের আয়োজন করা হয়েছিল। বাম তারা অর্চনম ট্রাস্ট পরিচালিত এই শিবিরে কলকাতার বিশিষ্ট চিকিৎসকরা উপস্থিত ছিলেন।  
বিশদ

19th  September, 2019
নারায়ণা হাওড়ায় হার্টের বিরল চিকিৎসা 

‘ওয়ার্ল্ড হার্ট ডে’ উপলক্ষ্যে হাওড়ার নারায়ণা সুপারস্পেশালিটি হাসপাতালের তরফে প্রেস ক্লাবে একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল। সেখানে সম্প্রতি হাসপাতালে বিরল কার্ডিয়াক ইন্টারভেনশন সফলভাবে সম্পন্ন হয়েছে বলে সংস্থার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।   বিশদ

19th  September, 2019
 পুজোয় বেড়াতে গেলে
কী কী ওষুধ রাখবেন?
ডাঃ আশিস মিত্র ( মেডিসিন বিশেষজ্ঞ)

 সারা বছরের ধকল কাটাতে পুজোর ছুটিতে বাইরে বেড়াতে যাওয়া বাঙালির সংখ্যা নেহাত কম নয়। শরতের আবাহাওয়ায় পাহাড়, জঙ্গল, সমুদ্র যেন নতুন রূপে সেজে ওঠে। আর সেই অপরূপ সাজ চাক্ষুষ করতে ভ্রমণ পিপাসুরা দলে পৌঁছে যান প্রকৃতির কোলে। বুনে ফেলেন নতুন অভিজ্ঞতার স্মৃতি।
বিশদ

12th  September, 2019
 হোমিওপ্যাথিক ওষুধ
ডাঃ দেবর্ষি দাস ( হোমিওপ্যাথি চিকিৎসক)

 বাঙালি আর বেড়ানো এই দুই শব্দকে কখনওই আলাদা করা যায় না। কিন্তু বেড়াতে গিয়ে শরীর খারাপ হলে প্রকৃতি দর্শনের পুরো আনন্দটাই মাটি। আর এই বেড়ানোর আনন্দটা যাতে কোনওভাবেই নিরানন্দে পরিণত না হয় তাই বেড়াতে যাবার ব্যাগ গোছানোর সময় অবশ্যই কিছু জরুরি ওষুধ ব্যাগে নিতে হবে। দরকারে এগুলো ভীষণ উপযোগী এবং বেড়ানোটাকে নির্ঝঞ্ঝাট রাখতে পারে। বিশদ

12th  September, 2019
 শিশুদের সমস্যায়
ডাঃ সুজয় চক্রবর্তী ( শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ)

  বর্ষার শেষ আর শরতের আগমন মানেই বাঙালির এক বছরের অপেক্ষার অবসান। মা দুর্গার আগমনীবার্তায় যখন আকাশ-বাতাসে খুশির সুর, ঘরকুনো বাঙালিও তাঁর বদনাম ঘোচাতে হয়ে ওঠে ভ্রমণ পিপাসু। পাহাড় থেকে সমুদ্র, অরণ্য থেকে সমতল— এই সময়টাতে সর্বত্র আমাদের অবাধ বিচরণ।
বিশদ

12th  September, 2019
 ডি এন দে হোমিওপ্যাথিক কলেজের পুনর্মিলন উৎসব

  শিয়ালদহের কৃষ্ণপদ ঘোষ মেমোরিয়াল প্রেক্ষাগ্রৃহে অনুষ্ঠিত হল ডি এন দে হোমিওপ্যাথিক মেডিক্যাল কলেজের বার্ষিক পুনর্মিলন উৎসব। আয়োজক ছিল ওই কলেজের প্রাক্তন ছাত্র সমিতি। উৎসবের সূচনা করেন রামকৃষ্ণ মঠ ও মিশনের (যোগোদদান) অধ্যক্ষ স্বামী বিমলাৎমানন্দজী মহারাজ।
বিশদ

12th  September, 2019
মাতৃভবন হাসপাতালে ল্যাপেরোস্কোপি

  আধুনিক ল্যাপেরোস্কোপি ও হিস্টেরেস্কোপির পদ্ধতিতে পেটের উপর শুধুমাত্র কয়েকটি ছিদ্র করে অপারেশন করা হচ্ছে। এরফলে রোগীর ব্যথা বেদনা কম হওয়া, অপারেশনের ঝুঁকি কম থাকা সহ আরও অনেক সুবিধে রয়েছে। কিন্তু খরচের কারণে অনেকেই এই সার্জারির সুবিধে নিতে পারেন না।
বিশদ

12th  September, 2019
গঙ্গা হাসপাতাল 

তামিলনাড়ুর কোয়াম্বাটুরের গঙ্গা মেডিক্যাল সেন্টার অ্যান্ড হাসপাতালের তরফে সল্টলেকে রিকনস্ট্রাকটিভ মাইক্রোসার্জারি, আগুনে পোড়া, ব্রেস্ট ক্যান্সার, প্লাস্টিক সার্জারি ইত্যাদি চিকিৎসার নয়া কেন্দ্র চালু হল।   বিশদ

05th  September, 2019
তামাকমুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলতে শিক্ষকদের নিয়ে প্রশিক্ষণ শিবির 

গ্লোবাল অ্যাডাল্ট টোব্যাকো সার্ভে (গ্যাটস ২০১৭) অনুযায়ী পশ্চিমবঙ্গে রোজ তামাকের নেশায় পা দিয়ে চলেছে ৪৩৮টি শিশু! রাজ্য জুড়ে যে হারে শিশুরা তামাকের নেশায় জড়িয়ে পড়ছে তা যথেষ্ট চিন্তায় রেখেছে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের শিক্ষা দপ্তরকে।   বিশদ

05th  September, 2019
মেডিকার সেন্টার ফর লিভার ডিজিজ 

লিভারের রোগের চিকিৎসা এবং লিভার ট্রান্সপ্ল্যান্টের ক্ষেত্রে চিকিৎসা পরিষেবা দিতে মেডিকা হাসপাতালে শুরু হল সেন্টার ফর লিভার ডিজিজ ক্লিনিক। লিভারের চিকিৎসার সঙ্গে প্যাংক্রিয়াস ও গল ব্লাডারের রোগেরও চিকিৎসা হবে সেখানে।  বিশদ

05th  September, 2019
রক্তের গ্রুপ থেকে চরিত্র নির্ণয় 

জাপানের কোনও পানশালায় আপনার সঙ্গে অচেনা কারও হঠাৎ আলাপ হল। এক কথা- দু’কথার পরই উল্টোদিকের মানুষটি আচমকাই আপনার ব্লাড গ্রুপ জানতে চাইলেন। ভাবখানা এমন যেন আপনার বাড়ি কোথায় বা কোথায় চাকরি করেন, জানতে চাইছেন।   বিশদ

05th  September, 2019
একনজরে
বিএনএ, রায়গঞ্জ: দুই শিক্ষাকর্মীর বদলির প্রতিবাদে ছাত্র আন্দোলনে শুক্রবার উত্তাল হল রায়গঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয়। এদিন বিশ্ববিদ্যালয়ে অঙ্ক ও কম্পিউটার অ্যান্ড ইনফর্মেশন সায়েন্স বিভাগের সামনে কয়েকশ’ ছাত্রছাত্রী ...

 ওয়াশিংটন, ২০ সেপ্টেম্বর (পিটিআই): আমেরিকার রাস্তায় ফের প্রকাশ্যে বন্দুকবাজের তাণ্ডব। গুলিতে একজন প্রাণ হারিয়েছেন এবং আরও পাঁচজন জখম হয়েছেন। পুলিস জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার রাত ১০টা নাগাদ কলম্বিয়া হাইটস এলাকায় ওই ঘটনা ঘটেছে। জায়গাটি হোয়াইট হাউস থেকে খুব বেশি দূরে নয় বলেও ...

 নিজস্ব প্রতিনিধি, হাওড়া: শুক্রবার সকালে সাঁকরাইলের ডেল্টা জুটমিলের পরিত্যক্ত ক্যান্টিন থেকে নিখোঁজ থাকা এক শ্রমিকের মৃতদেহ উদ্বার হল। তাঁর নাম সুভাষ রায় (৪৫)। তাঁকে খুন করা হয়েছে বলে পরিবারের লোকজন অভিযোগ করেছেন। ...

 দিব্যেন্দু বিশ্বাস, নয়াদিল্লি, ২০ সেপ্টেম্বর: যাদবপুর-কাণ্ডে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে রিপোর্ট দেবে বঙ্গ বিজেপি। আজ এ কথা জানিয়েছেন বিজেপির অন্যতম কেন্দ্রীয় সম্পাদক তথা পশ্চিমবঙ্গের দায়িত্বপ্রাপ্ত দলের সহনেতা সুরেশ পূজারি। তিনি বলেছেন, ‘যে রাজ্যে একজন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীরই কোনও নিরাপত্তা নেই, সেই ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

শরীর ভালো যাবে না। সাংসারিক কলহবৃদ্ধি। প্রেমে সফলতা। শত্রুর সঙ্গে সন্তোষজনক সমঝোতা। সন্তানের সাফল্যে মানসিক ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

আন্তর্জাতিক শান্তি দিবস
১৮৬৬: ব্রিটিশ সাংবাদিক, ঐতিহাসিক ও লেখক এইচ জি ওয়েলসের জন্ম
১৯৩৪: জাপানের হনসুতে টাইফুনের তাণ্ডব, মৃত ৩ হাজার ৩৬ জন
১৯৪৭: মার্কিন লেখক স্টিফেন কিংয়ের জন্ম
১৯৭৯: ওয়েস্ট ইন্ডিজের ক্রিকেটার ক্রিস গেইলের জন্ম
১৯৮০: অভিনেত্রী করিনা কাপুর খানের জন্ম
১৯৮১: অভিনেত্রী রিমি সেনের জন্ম
১৯৯৩: সংবিধানকে অস্বীকার করে রাশিয়ায় সাংবিধানিক সংকট তৈরি করলেন তৎকালীন প্রেসিডেন্ট বরিস ইয়েলৎসিন
২০০৭: রিজওয়ানুর রহমানের মৃত্যু
২০১৩: কেনিয়ার রাজধানী নাইরোবিতে ওয়েস্ট গেট শপিং মলে জঙ্গি হামলা, নিহত কমপক্ষে ৬৭





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৯.১৯ টাকা ৭২.৭০ টাকা
পাউন্ড ৮৬.৪৪ টাকা ৯১.১২ টাকা
ইউরো ৭৬.২৬ টাকা ৮০.৩৮ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৭,৯৯০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬,০৪৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৬,৫৮৫ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৫,৯০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৬,০০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

৪ আশ্বিন ১৪২৬, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শনিবার, সপ্তমী ৩৭/১২ রাত্রি ৮/২১। রোহিণী ১৪/৪৩ দিবা ১১/২২। সূ উ ৫/২৮/২৩, অ ৫/৩১/৪০, অমৃতযোগ দিবা ৬/১৬ মধ্যে পুনঃ ৭/৪ গতে ৯/২৯ মধ্যে পুনঃ ১১/৫৪ গতে ৩/৬ মধ্যে পুনঃ ৩/৫৫ গতে অস্তাবধি। রাত্রি ১২/৪১ গতে ২/১৭ মধ্যে, বারবেলা ৬/৫৯ মধ্যে পুনঃ ১/০ গতে ২/৩০ মধ্যে পুনঃ ৪/০ গতে অস্তাবধি, কালরাত্রি ৭/১ মধ্যে পুনঃ ৩/৫৯ গতে উদয়াবধি।
৩ আশ্বিন ১৪২৬, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শনিবার, সপ্তমী ২৫/২২/২১ দিবা ৩/৩৭/৫। রোহিণী ৭/১/২৪ দিবা ৮/১৬/৪৩, সূ উ ৫/২৮/৯, অ ৫/৩৩/২৯, অমৃতযোগ দিবা ৬/২০ মধ্যে ও ৭/৭ গতে ৯/২৯ মধ্যে ও ১১/৪৮ গতে ২/৫৫ মধ্যে ও ৩/৪২ গতে ৫/৩৩ মধ্যে এবং রাত্রি ১২/৩৮ গতে ২/১৭ মধ্যে, বারবেলা ১/১/২৯ গতে ২/৩২/৯ মধ্যে, কালবেলা ৬/৫৮/৪৯ মধ্যে ও ৪/২/৪৯ গতে ৫/৩৩/২৯ মধ্যে, কালরাত্রি ৭/২/৪৯ মধ্যে ও ৩/৫৮/৪৯ গতে ৫/২৮/২৮ মধ্যে।
২১ মহরম

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
রাজীব কুমারের আগাম জামিনের আবেদন খারিজ
আজ রাজীব কুমারের আগাম জামিনের আবেদন খারিজ করে দিল আলিপুর ...বিশদ

08:21:33 PM

ফের সিএবি প্রেসিডেন্ট সৌরভ
আরও একবার সিএবি-র প্রেসিডেন্ট হলেন সৌরভ গঙ্গোপাধধ্যায়। আজ বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ...বিশদ

07:39:27 PM

অস্কারে মনোনীত ছবি-গালি বয়

06:03:00 PM

ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করায় যুবককে মারধর
স্কুলের ছাত্রীদের উত্ত্যক্ত করার প্রতিবাদ করায় এক যুবককে লাঠি-রড দিয়ে ...বিশদ

05:22:00 PM

মুর্শিদাবাদে আগ্নেয়াস্ত্র সহ গ্রেপ্তার ১ 
আজ সকালে মুর্শিদাবাদের পাহাড়ঘাটি মোড় থেকে আগ্নেয়াস্ত্র সহ সফিকুল ইসলাম ...বিশদ

05:13:00 PM

দীঘায় ডুবন্ত ব্যক্তিকে উদ্ধার করল নুলিয়া
 

দীঘার সমুদ্রে তলিয়ে যাওয়ার মুখে এক পর্যটককে উদ্ধার করল নুলিয়া। ...বিশদ

05:05:00 PM