Bartaman Patrika
হ য ব র ল
 

 ভগিনী নিবেদিতা

 আমাদের এই দেশকে গড়ে তোলার জন্য অনেকে অনেকভাবে স্বার্থত্যাগ করে এগিয়ে এসেছিলেন। এই কলমে জানতে পারবে সেরকমই মহান মানুষদের ছেলেবেলার কথা। এবার ভগিনী নিবেদিতা। লিখেছেন চকিতা চট্টোপাধ্যায়।

‘ভবিষ্যৎ ভারত-সন্তানদের কাছে তুমি একাধারে জননী, সেবিকা ও বন্ধু হয়ে ওঠো।’ স্বামী বিবেকানন্দ যাঁর সম্বন্ধে এই কথাগুলো বলেছিলেন তিনি হলেন একজন বিদেশিনী— মার্গারেট এলিজাবেথ নোবল যাঁর নাম, যাঁকে আমরা চিনি ‘ভগিনী নিবেদিতা’ বলে। তাঁর জন্ম যদিও হয়েছিল বিদেশের মাটিতে, তবু সেই মহীয়সী নারীর মন, প্রাণ, স্বপ্ন সব কিছুতে ছেয়েছিল শুধুই ভারতবর্ষ! সেই মার্গারেট নোবল ঩কী করে ‘সিস্টার নিবেদিতা’ হয়ে উঠেছিলেন আজ তোমাদের শোনাব সেই কথা।
মার্গারেটের বাবার নাম স্যামুয়েল চিরমন্ড নোবল এবং মায়ের নাম মেরি ইসাবেল। বাবা ছিলেন ধর্মযাজক। দাদামশাই হ্যামিলটন ছিলেন তখনকারের আয়ারল্যান্ডের স্বাধীনতা আন্দোলনের একজন বিশিষ্ট নেতা। মার্গারেটের জন্মের আগেই তাঁর ভবিষ্যৎ নির্ধারণ করে দিয়েছিলেন স্বয়ং ঈশ্বরই, হয়তো এটাকেই বলে বিধিলিপি। ১৮৬৭ সালের ২৮ অক্টোবর। উত্তর আয়ারল্যান্ডের টাইরন প্রদেশের ডানগ্যানন নামে একটি ছোট শহর। মেরি ইসাবেল জন্ম দিতে চলেছেন তাঁর প্রথম সন্তানের। কিন্তু বুক তাঁর কাঁপছে ভয়ে! তিনি ঈশ্বরের কাছে মনে মনে শপথ করলেন, যদি তাঁর প্রথম সন্তান সুস্থভাবে পৃথিবীর আলো দেখে, তাহলে তিনি সেই সন্তানকে ঈশ্বরের চরণেই সমর্পণ করবেন। ঠিক এর পর মুহূর্তেই জন্ম নিলেন মার্গারেট নোবল। সুতরাং তাঁর জন্মই হয়েছিল ঈশ্বরের নির্ধারিত কাজ করবার জন্যই।
মাত্র দশ বছর বয়সে তিনি হারালেন তাঁর বাবাকে। অল্প বয়স থেকেই তাঁর ওপর সংসারের অনেক দায়দায়িত্ব এসে পড়ল। মার্গারেটের বয়স তখন সবে তেরো। সংসারের খরচ বাঁচাতে তিন বছরের ছোট ছেলেকে নিজের বাবার বাড়িতে রেখে মানুষ করবার কথা ভাবলেন মেরি ইসাবেল। কিন্তু তাকে সেখানে পৌঁছে দেবে কে? মার্গারেট দায়িত্ব নিয়ে ছোট ভাইকে ভুলিয়ে ভালিয়ে দীর্ঘপথ এমনকী সমুদ্র পেরিয়ে দাদামশায়ের বাড়ি ঠিক পৌঁছে দিয়ে এলেন। এমনি আত্মবিশ্বাসী আর সাহসী ছিলেন তিনি সেই ছোট্টবেলা থেকেই।
লন্ডনের এক বোর্ডিং স্কুলে মার্গারেট পড়াশুনো করে সাফল্যের সঙ্গেই স্কুল জীবন শেষ করলেন। তারপর উইম্বলডনে একটি স্কুল খুলে সেখানে পড়াতে শুরু করলেন। সেই সঙ্গে নানান পত্র-পত্রিকায় প্রবন্ধ লিখেও সুনাম অর্জন করলেন। মার্গারেটের মনে কিন্তু অস্থিরতা— প্রকৃত ধর্মজীবন কী তা জানবার জন্য তিনি যখন ব্যাকুল, চিন্তাগ্রস্ত, ঠিক তখনই ১৮৯৫ সালের নভেম্বর মাসের এক সন্ধেবেলা লন্ডনের এক অভিজাত পরিবারের বাড়িতে তাঁর প্রথম সাক্ষাৎ হল স্বামী বিবেকানন্দের সঙ্গে। স্বামীজির মুখে ভারতীয় ধর্মের কথা শুনে তিনি বিস্মিত ও মুগ্ধ হয়ে গেলেন! স্বামীজিকে নানান প্রশ্ন করে তিনি বুঝতে পারলেন এতদিন যে প্রকৃত ধর্মজীবনের পথ তিনি খুঁজছিলেন, এই ভারতীয় সন্ন্যাসীই সেই পথ তাঁকে দেখাতে পারবেন। মার্গারেট তাঁকে মনে মনে ‘গুরু’ হিসেবে মেনে নিলেন। স্বামীজিও বুঝলেন এই বিদেশিনী মেয়েটিই পারবে ভারতবর্ষের মেয়েদের শিক্ষিত করে তুলতে। তাই তিনি এই কাজের জন্য আহ্বান জানালেন মার্গারেটকে।
মার্গারেট ১৮৯৮ সালের ২৮ জানুয়ারি নিজের স্বদেশ ছেড়ে ভারতবর্ষের মাটিতে পা দিলেন। স্বামীজির পবিত্র সংস্পর্শে এসে মার্গারেটও পেলেন তাঁর ‘মাস্টার’কে!
ভারতবর্ষে আসবার পর সংঘ-জননী শ্রীশ্রীমা সারদার সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দিলেন স্বামীজি মার্গারেটের। সারদা মা তাঁকে পরম আদরে কাছে টেনে নিলেন। নিজে হাতে করে তাঁকে শ্রীশ্রীঠাকুর রামকৃষ্ণদেবের প্রসাদ খাওয়ালেন এবং নিজেও সেই বিদেশিনীর সঙ্গে একসঙ্গে বসে সেই মহাপ্রসাদ গ্রহণ করলেন। বললেন, ‘আজ থেকে তুমি আমার খুকি।’ মার্গারেট তাঁর ডায়েরিতে এই দিনটি ‘জীবনের সেরা দিন’ বলে লিখে রেখে গেছেন।
স্টার থিয়েটারে সকলের সঙ্গে এরপর একদিন মার্গারেটের পরিচয় করিয়ে দিলেন স্বামীজি। তিনি সবাইকে বললেন, ‘মার্গারেট হলেন ইংল্যান্ডের দেওয়া ভারতবর্ষকে একটি উপহার! ... মার্গারেট তাঁর প্রাণ ভারতবর্ষের সেবায় দিতে এসেছেন।’
২৫ মার্চ স্বামীজি মার্গারেটকে দীক্ষা দিলেন। এবং তাঁর নাম রাখলেন ‘নিবেদিতা’। নিবেদিতা তাঁর ডায়েরিতে লিখলেন, এটি তাঁর জীবনের সবচেয়ে ‘আনন্দময় সকাল।’
এরপরই শুরু হল ভগিনী নিবেদিতার কর্মকাণ্ড। ১৬নং বোসপাড়া লেনে নিবেদিতা খুললেন মেয়েদের জন্য স্কুল। সে স্কুলের প্রতিষ্ঠা করলেন স্বয়ং শ্রীশ্রীমা শ্রীরামকৃষ্ণের পুজো করে। সেই স্কুলে যাতে শহরের গণ্যমান্য ব্যক্তিরা তাঁদের মেয়েদের পাঠান সে জন্য স্বামীজিও অনেক চেষ্টা করতেন। নিবেদিতা নিজে বাড়ি বাড়ি গিয়ে অভিভাবকদের পায়ের কাছে হাঁটু গেড়ে বসে তাঁদের কাছে মেয়েদের পড়াশুনো শেখানোর জন্য ভিক্ষা চাইতেন। এইভাবে তিনি এদেশে মেয়েদের শিক্ষার জন্য অক্লান্তভাবে চেষ্টা করে গেছেন। কারণ, সেই সময় আমাদের দেশে মেয়েদের পড়াশুনো শেখানোর তেমন চল ছিল না। তাদের তিনি পড়াশুনোর সঙ্গে সঙ্গে সেলাই, ছবি আঁকা, হাতের কাজও শেখাতেন। বয়স্কা বিবাহিতা এবং বিধবা মহিলারাও যাতে লেখাপড়া, সেলাই ইত্যাদি শিখতে পারেন সে ব্যবস্থাও তিনি করেছিলেন। শ্রীশ্রীমা সারদাও তাঁর গৃহী ভক্তদের বলতেন তাঁদের মেয়েদের নিবেদিতার স্কুলে পাঠানোর জন্য।
১৮৯৯ সালে কলকাতায় প্লেগরোগ মহামারির আকার ধারণ করল। স্বামীজির নির্দেশে নিবেদিতা রামকৃষ্ণ মিশনের সন্ন্যাসীদের সঙ্গে নিয়ে সেবা কাজে নেমে পড়লেন। সেই সঙ্গে শহরের রাস্তাঘাট, পাড়াকে আবর্জনামুক্ত করতে নিজে হাতে ঝাড়ু-বালতি নিয়ে নেমে পড়তেও এতটুকু কুণ্ঠা বোধ করলেন না তিনি। এক মেমসাহেবকে এমনভাবে কাজ করতে দেখে পাড়ার ছেলেরা লজ্জিত হয়ে তখন নিজেরাই এগিয়ে এসে তাঁর সঙ্গে হাত লাগাল। আজীবন ভগিনী নিবেদিতা ভারতবাসীর সেবা করে গেছেন। ১৯০৬ সালে পূর্ববঙ্গে দুর্ভিক্ষ ও বন্যা কবলিত মানুষের সেবা করতে গিয়ে তিনি ব্রেন-ফিভারে আক্রান্ত হন, তবু জল-কাদা ভেঙে মানুষের বাড়ি বাড়ি ঘুরে সেবা করেছিলেন সেই অসুস্থ শরীরেও!
ভারতবর্ষের শিল্পের উন্নতির জন্যও তিনি অবনীন্দ্রনাথ ঠাকুর, নন্দলাল বসুর মতো শিল্পীদের অনুপ্রেরণা দিয়েছেন। উদীয়মান বিজ্ঞানী জগদীশচন্দ্র বসুকে সাহায্য করেছেন আর্থিকভাবে যাতে তিনি তাঁর বৈজ্ঞানিক গবেষণাকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারেন। পাশাপাশি ভারতবর্ষের স্বাধীনতা সংগ্রামীদের অত্যন্ত ভরসাস্থল ও প্রেরণাদাত্রী ছিলেন তিনি।
নিবেদিতার লেখা বইগুলোর মধ্যে অন্যতম হল— ‘The Master as I saw Him’, ‘The web of Indian Life’, ‘Hints on National Education in India’, ‘Glimpses of Famine and Flood in East Bengal in 1906’, ‘Notes, of some wanderings with Swami Vivekananda’. ইত্যাদি।
তিনি নিজেকে বলতেন— ‘রামকৃষ্ণ-বিবেকানন্দের নিবেদিতা’। ‘ভারতবর্ষ’ শব্দটি তিনি জপ করতেন ভাবে বিভোর হয়ে। ভারতবর্ষের সমস্ত কিছুর প্রতি তাঁর ছিল পূজার দৃষ্টি। তাইতো রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর তাঁর সম্বন্ধে বলেছিলেন, ‘তিনি যখন বলিতেন “Our People” তখন তাহার মধ্যে যে একান্ত আত্মীয়তার সুরটি লাগিত আমাদের কাহারো কণ্ঠে তেমনটি ত লাগে না।’
ছবি : সংশ্লিষ্ট সংস্থার সৌজন্যে
27th  October, 2019
মার্কশিট 

তোমাদের জন্য চলছে নতুন বিভাগ। এই বিভাগে থাকছে পরীক্ষায় নম্বর বাড়ানোর সুলুক সন্ধান। এবারের বিষয় বাংলা।
 
বিশদ

03rd  November, 2019
সে কি সত্যি হবে! 
আয়ূষী বন্দ্যোপাধ্যায়

পাইন আর দেওদার গাছের মধ্যে পাখির বাসা থাকে কি না তা ঠিক জানা নেই, তবে এক মিষ্টি পাখির কূজন কানে ভেসে আসে রোজই। গতকাল রাতে অমন ঝড়, বৃষ্টি, দম্ভোলি হয়েছে কে বলবে? ভোরের প্রভাকরের প্রকীর্ণ আভা যেন দুর্যোগকে নিশ্চিহ্ন করেছে। ঈশ্বরের দেশে সবই তো তাঁর লীলাখেলা, সেখানে যে নেই কোনও মোহ, মায়া, মাৎসর্য। শুধুই আছে মনকে দয়ার্দ্র করে তোলার পরিপূর্ণ রসদ। 
বিশদ

03rd  November, 2019
পুজোর ছুটি 

পুজোর ছুটিতে কে কী করবে তার পরিকল্পনা অনেক আগেই সেরে ফেলে ছোটরা। সেই তালিকায় ঠাকুর দেখা, খাওয়া-দাওয়া, বন্ধুদের সঙ্গে গল্পগুজব, মামার বাড়ি যাওয়া, বেড়ানো, গল্পের বই পড়া, খেলাধুলো সবই থাকে। এবারের পুজোর ছুটি কার কেমন কাটাল তোমাদের শোনাচ্ছে বৈঁচি বিহারীলাল মুখার্জি’স ফ্রি ইনস্টিটিউশনের ছাত্র-ছাত্রীরা। 
বিশদ

03rd  November, 2019
 আলোর উৎসব
কা লী পু জো

 রং-বেরঙের আলো দিয়ে বাড়ি সাজানো, তুবড়ি, হাউই আর রংমশালের আলোর ছটা, মিষ্টিমুখ, রাত জেগে পুজো দেখা... এমনভাবেই কেটে যায় কালীপুজোর দিনটা। জানাল বিভিন্ন স্কুলের ছেলেমেয়েরা। বিশদ

27th  October, 2019
হ্যালোইন নাকি ভূত উৎসব

কার কতটা ভূতের ভয় তা আমার জানা নেই, আমার কিন্তু খুবই ভূতের ভয়, তাই রাতে আমি একা একা ঘরে শুতে পারি না, চোখ বুঝলেই ভূশুণ্ডির মাঠ থেকে হাজার হাজার ভূত উড়ে এসে আমাকে ঘিরে ধরে, কেউ আমার পা ধরে টানে কেউ বা আবার কাতুকুতু দিয়ে আমাকে নাজেহাল করে ছাড়ে, সে সব দুঃখের কথা আজ নয় ছেড়েই দিলাম। তাই ভূত নিয়ে কিছু লিখতে গেলে আমার হাত-পা ঠান্ডা হয়ে আসে, গায়ের লোম খাড়া হয়ে যায়। বিশদ

27th  October, 2019
হিলি গিলি হোকাস ফোকাস 

চলছে নতুন বিভাগ হিলি গিলি হোকাস ফোকাস। এই বিভাগে জনপ্রিয় জাদুকর শ্যামল কুমার তোমাদের কিছু চোখ ধাঁধানো আকর্ষণীয় ম্যাজিক সহজ সরলভাবে শেখাবেন। আজকের বিষয় থট-রিডিং।   বিশদ

20th  October, 2019
মামরাজ আগরওয়াল রাষ্ট্রীয় পুরস্কার 

প্রতিবারের মতো এবারও ‘মামরাজ আগরওয়াল রাষ্ট্রীয় পুরস্কার’ প্রদান অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিল মামরাজ আগরওয়াল ফাউন্ডেশন। গত ২১ সেপ্টেম্বর রাজভবনে অনুষ্ঠানটি হয়েছিল। এবার মোট ৯৯ জন ছাত্রছাত্রীকে পুরস্কৃত করা হয়।   বিশদ

20th  October, 2019
মহাপ্রলয় আসছে 

পরিবেশ বিজ্ঞানীরা বলছেন, ষষ্ঠ মহাপ্রলয় ঘটতে আর দেরি নেই। জঙ্গল কেটে সাফ হয়ে যাচ্ছে। বাড়ছে গাড়ি, কলকারখানার সংখ্যা। দূষিত হয়ে উঠছে পরিবেশ। গলতে শুরু করেছে কুমেরু ও সুমেরুর বরফ। মহাপ্রলয় আটকাতে এখনই ব্যবস্থা নেওয়া দরকার। পৃথিবীর ধ্বংস আটকানোর উপায় কী? লিখেছেন সুপ্রিয় নায়েক। 
বিশদ

20th  October, 2019
হোয়াইট হাউসে ভূতের ভয়! 

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময়কার ঘটনা। ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী উইনস্টন চার্চিল এসেছেন হোয়াইট হাউসে। সারা দিনের কর্মব্যস্ততায় ক্লান্ত শরীর। স্নান সেরে সোজা নিজের ঘরে। পরনে কোনও পোশাক নেই। নিজের মতো করে পাওয়া সময়টাকে আরও একটু উপভোগ করতে ধরালেন একটা চুরুট।  
বিশদ

13th  October, 2019
কাটিয়ে উঠে ভীতি, প্রথম দিনের স্মৃতি 

স্কুলের প্রথম দিনটি সবার কাছে একই অনুভূতি নিয়ে আসে না। কেউ ভয় পায়, কেউ বা উদ্বেগে ভোগে। কিছুদিন বাদে সব ভুলে স্কুলই হয়ে ওঠে ঘরবাড়ি। সেইরকমই কিছু অনুভূতি তোমাদের সঙ্গে ভাগ করে নিল মিশ্র অ্যাকাডেমির বন্ধুরা। 
বিশদ

13th  October, 2019
হুলো ও স্কুটি
জয়ন্ত দে

হুলোর কোনওদিন মন খারাপ হয় না। ভালোই থাকে। হাসিতে, খুশিতে থাকে। কিন্তু ইদানীং মনটা বড্ড খারাপ হয়ে যাচ্ছে। চারদিকে এই অনাচার, অত্যাচার দেখে দেখে সে খুবই বিষণ্ণ হয়ে পড়ছে। হয়তো এমন হতে পারে, এটা তার বয়েসের রোগ! বয়স যত বাড়ছে, মন মেজাজ তত খারাপ হচ্ছে।  বিশদ

29th  September, 2019
স্মৃতির পুজো
পার্থজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় 

পুজো এলেই হাজার স্মৃতি দেয় মনেতে হানা,
কাশের বনে হারিয়ে যেতে করত কে আর মানা!  বিশদ

29th  September, 2019
প্যান্ডেল ঘুরে ঠাকুর দেখার মজাই আলাদা 

‘প্যান্ডেল ঘুরে ঠাকুর দেখা’ এই ছিল এবারের লেখার বিষয়বস্তু। তোমাদের এত লেখা পেয়ে আমরা আপ্লুত। সেইসব মজাদার লেখার মধ্যে থেকে বেছে নিতে হয়েছে কয়েকটা। বাছাই করা লেখাগুলিই প্রকাশিত হল আজ, শিউলিস্নাত শারদ সকালে। দুর্গাপুজোর প্রাক্কালে। 
বিশদ

29th  September, 2019
একনজরে
 ন্যাশনাল স্টক এক্সচেঞ্জে যেসব সংস্থার শেয়ার গতকাল লেনদেন হয়েছে শুধু সেগুলির বাজার বন্ধকালীন দরই নীচে দেওয়া হল। ...

সংবাদদাতা, নবদ্বীপ: রাস উৎসবকে সামনে রেখে নবদ্বীপে ফেরিঘাটগুলিতে নিরাপত্তা বাড়ানো হল। রাসের দিনগুলিতে ফেরিঘাট দিয়ে কয়েক লক্ষ মানুষের আনাগোনা লেগে থাকে। ফলে তাদের পারাপার ও নিরাপত্তা নিয়ে নবদ্বীপের ফেরিঘাট কর্তৃপক্ষ উদ্যোগী হয়েছেন। পাশাপাশি নবদ্বীপ পুরসভা ও ব্লক প্রশাসনও এনিয়ে তৎপর। ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: আগামী শিক্ষাবর্ষে প্রাথমিকে পঞ্চম শ্রেণীর আসা বড়সড় প্রশ্নচিহ্নের মুখে। সরকারের এই পরিকল্পনা কার্যকর করতে স্কুলগুলিতে যে অতিরিক্ত ক্লাসরুমের বন্দোবস্ত করতে হবে, তার ...

 বিএনএ, বারাকপুর: বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিংয়ের গড় ভাটপাড়া পুরসভার আরও পাঁচ বিজেপি কাউন্সিলার তৃণমূলের দিকে পা বাড়িয়ে রাখলেন। তাঁরা যে কোনও দিন ঘরে ফিরতে পারেন ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

ব্যবসা সূত্রে উপার্জন বৃদ্ধি। বিদ্যায় মানসিক চঞ্চলতা বাধার কারণ হতে পারে। গুরুজনদের শরীর-স্বাস্থ্য নিয়ে সচেতন ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৮৬২- সঙ্গীত জগতের কিংবদন্তি পুরুষ ওস্তাদ আলাউদিন খাঁর জন্ম।
১৮৯৫- জার্মান পর্দাথবিদ উইলিয়াম কনরাড রঞ্জন এক্স রে আবিষ্কার করেন।
১৯১০ - ওয়াশিংটনের নির্বাচনে প্রথম কোনও মহিলা ভোট দেন।
১৯২৭- রাজনীতিক লালকৃষ্ণ আদবানির জন্ম
১৯৩৬ - প্রখ্যাত হিন্দী কথাসাহিত্যিক মুনশি প্রেমচাঁদের মৃত্যু
১৯৪৭ – সঙ্গীতশিল্পী ঊষা উত্থুপের জন্ম
১৯৭৬ - ক্রিকেটার ব্রেট লি’র জন্ম
২০১৭ – ভারতে ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট বাতিল হয়





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৯.৪৮ টাকা ৭২.৬৪ টাকা
পাউন্ড ৮৯.১২ টাকা ৯৩.৪৫ টাকা
ইউরো ৭৬.৭৪ টাকা ৮০.৪৮ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৮,৮২৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬,৮৩৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৭,৩৯০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৫,৭৫০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৫,৮৫০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

২১ কার্তিক ১৪২৬, ৮ নভেম্বর ২০১৯, শুক্রবার, একাদশী ১৬/৩০ দিবা ১২/২৫। পূর্বভাদ্রপদ ১৫/৫৯ দিবা ১২/১২। সূ উ ৫/৪৮/২৭, অ ৪/৫২/২১, অমৃতযোগ দিবা ৬/৩৩ মধ্যে পুনঃ ৭/১৭ গতে ৯/৩০ মধ্যে পুনঃ ১১/৪২ গতে ২/৩৯ মধ্যে পুনঃ ৩/২৩ গতে অস্তাবধি। রাত্রি ৫/৪৪ গতে ৯/১১ মধ্যে পুনঃ ১১/৪৬ গতে ৩/১৩ মধ্যে পুনঃ ৪/৫ গতে উদয়াবধি, বারবেলা ৮/৩৫ গতে ১১/২১ মধ্যে, কালরাত্রি ৮/৬ গতে ৯/৪৩ মধ্যে। 
২১ কার্তিক ১৪২৬, ৮ নভেম্বর ২০১৯, শুক্রবার, একাদশী ১৫/৫৮/১৯ দিবা ১২/১২/৪৩। পূর্বভাদ্রপদ ১৭/৫৮/২৫ দিবা ১/০/৪৫, সূ উ ৫/৪৯/২৩, অ ৪/৫৩/১৪, অমৃতযোগ দিবা ৬/৪৪ মধ্যে ও ৭/২৭ গতে ৯/৩৬ মধ্যে ও ১১/৪৫ গতে ২/৩৭ মধ্যে ও ৩/২০ গতে ৪/৫৩ মধ্যে এবং রাত্রি ৫/৩৯ গতে ৯/১১ মধ্যে ও ১১/৫০ গতে ৩/২২ মধ্যে ও ৪/১৫ গতে ৫/৫০ মধ্যে, বারবেলা ৮/৩৫/২১ গতে ৯/৫৮/২০ মধ্যে, কালবেলা ৯/৫৮/২০ গতে ১১/২১/১৮ মধ্যে, কালরাত্রি ৮/৭/১৬ গতে ৯/৪৪/১৭ মধ্যে। 
১০ রবিয়ল আউয়ল 

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
আগামীকাল অযোধ্যা মামলার রায় ঘোষণা করবে সুপ্রিম কোর্ট

09:17:50 PM

এবার হকি বিশ্বকাপ ভারতে
২০২৩ সালে পুরুষদের এফআইএইচ হকি বিশ্বকাপ আয়োজন করবে ভারত। ...বিশদ

05:08:38 PM

পদত্যাগ করলেন মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী
 মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী পদ থেকে ইস্তফা দিলেন দেবেন্দ্র ফড়নবিশ। সরকার গড়ার ...বিশদ

05:01:39 PM

আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন হল এবছরের আন্তর্জাতিক কলকাতা ফিল্ম উৎসবের

05:01:00 PM

বর্ধমান স্টেশনে পদপিষ্ট হয়ে জখম বহু
বর্ধমান স্টেশনে ৪ ও ৫ নম্বর প্লাটফর্মের মাঝে ফুটওভারব্রিজে ওঠানামা ...বিশদ

04:54:00 PM

গান্ধী পরিবারের এসপিজি নিরাপত্তা তুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত কেন্দ্রের: সূত্র 

03:53:10 PM