Bartaman Patrika
হ য ব র ল
 

মহাপ্রলয় আসছে 

পরিবেশ বিজ্ঞানীরা বলছেন, ষষ্ঠ মহাপ্রলয় ঘটতে আর দেরি নেই। জঙ্গল কেটে সাফ হয়ে যাচ্ছে। বাড়ছে গাড়ি, কলকারখানার সংখ্যা। দূষিত হয়ে উঠছে পরিবেশ। গলতে শুরু করেছে কুমেরু ও সুমেরুর বরফ। মহাপ্রলয় আটকাতে এখনই ব্যবস্থা নেওয়া দরকার। পৃথিবীর ধ্বংস আটকানোর উপায় কী? লিখেছেন সুপ্রিয় নায়েক।
তোমরা গ্রেটা থুনবার্গের নাম শুনেছ? মেয়েটির বয়স মাত্র ১৬। কিশোরী মেয়েটি তার স্কুলে যাবে না বলে পণ করেছে। এভাবেই সে গড়ে তুলেছে আন্দোলন। সে প্রতিবাদ জানাচ্ছে প্রকৃতি ধ্বংস হওয়ার বিরুদ্ধে। গ্রেটা বলছে, মানুষের জন্যই পরিবেশ দূষণ হচ্ছে। তৈরি হচ্ছে গ্লোবাল ওয়ার্মিং। রুষ্ট হতে শুরু করেছে পরিবেশ। এখনই দরকার পেট্রোল, ডিজেলের মতো জ্বালানির ব্যবহার বন্ধ করা। দরকার বনসৃজনের। গ্রেটার পাশে দাঁড়িয়েছে গোটা বিশ্ব। কয়েকজন গ্রেটাকে নোবেল দেওয়ার কথাও বলছেন। কিন্তু কী এই গ্লোবাল ওয়ার্মিং? সেই বিষয়ে যাওয়ার আগে কয়েকটা কথা বলে নিই।
গরম বাড়ছে
আচ্ছা, তোমরা একটা বিষয় খেয়াল করেছ? দিনকে দিন পৃথিবীতে কেমন গরম বেড়ে যাচ্ছে? এমনকী বর্ষার মরশুমে বৃষ্টি পড়ছে না! শীত ছোট হচ্ছে ক্রমশ! কখনও প্রশ্ন করেছ কেন এমন হচ্ছে? ক্রমাগত এমন হয়ে চললে ফলাফল কী হতে পারে?
এককথায় এই প্রশ্নের উত্তর হল, মহাপ্রলয় ঘটবে খুব তাড়াতাড়ি! এর আগে পৃথিবীতে মোট পাঁচবার মহাপ্রলয় ঘটেছে। শেষবার ঘটেছিল ৬.৬ কোটি বছর আগে। দৈত্যাকার সব ডাইনোসররা সেই প্রলয়ে হারিয়ে যায়। সেবার কেন প্রলয় ঘটেছিল, তা নিয়ে নানা মতামত রয়েছে। তবে এবার পরিবেশ বিজ্ঞানীরা একটা বিষয়ে নিশ্চিন্ত যে ষষ্ঠ মহাপ্রলয় ঘটবে মানুষের জন্যই। গ্লোবাল ওয়ার্মিং সেই ইঙ্গিতই দিচ্ছে।
বিশ্ব উষ্ণায়ন বা গ্লোবাল ওয়ার্মিং
আমাদের পৃথিবীর চারদিকে ঘিরে রয়েছে ওজন স্তর। ওজন স্তর পৃথিবীকে রক্ষা করে সূর্যের ক্ষতিকর রশ্মি থেকে। এই স্তর ক্রমশ ক্ষয়ে যাচ্ছে ক্লোরোফ্লুরো কার্বন গ্যাসের কারণে। এয়ার কন্ডিশন মেশিন, রেফ্রিজারেটর বিকিরণ করে ক্লোরোফ্লুরো কার্বন। ফলে সরাসরি সূর্যের ক্ষতিকর রশ্মি প্রবেশ করছে পৃথিবীতে। বাড়ছে পৃথিবীর তাপমাত্রা। এছাড়া কলকারখানার সংখ্যা বেড়েছে। বেড়েছে পৃথিবীতে পেট্রোল, ডিজেল চালিত গাড়ির সংখ্যা। এগুলি বাড়িয়ে তুলছে বায়ুমণ্ডলে কার্বন ডাই অক্সাইডের মাত্রা! সিও-টু পরোক্ষে বাড়িয়ে তুলছে পরিবেশের তাপমাত্রা। একইসঙ্গে একেবারে বোকার মতো মানুষ নির্বিচারে ধ্বংস করে ফেলছে বনাঞ্চল। সমস্ত অরণ্য ধ্বংস করে পৃথিবীকে মরুভূমি বানিয়ে ফেলছি আমরা। এদিকে সবাই জানে, গাছ বাতাস থেকে কার্বন ডাই অক্সাইড নিয়ে অক্সিজেন দেয়। আর সেই উদ্ভিদকুলকে আমরাই ধ্বংস করছি। বাতাসে শ্বাস নেওয়া আরও কঠিন করে তুলছি! ফলে বেড়েই চলেছে পৃথিবীর উষ্ণতা। বিশ্বজুড়ে উষ্ণতার এই বৃদ্ধিকেই বিজ্ঞানীরা  বিশ্ব উষ্ণায়ন  বা  গ্লোবাল ওয়ার্মিং বলছেন।
আগামীর দিন বড় ভয়ঙ্কর
উষ্ণতার বৃদ্ধিতে মেরু অঞ্চলের বরফ গলতে শুরু করেছে। আর কয়েক বছরের মধ্যে সুমেরু আর কুমেরুর সমস্ত বরফ গলে জলে পরিণত হবে। সমুদ্রের জলতলের উচ্চতা বৃদ্ধি পাবে।  ফলে পৃথিবীর সমুদ্রের উপকূলবর্তী এলাকাগুলি চলে যাবে জলের তলায়। মনে রাখতে হবে আমাদের রাজ্য পশ্চিমবঙ্গও কিন্তু তলিয়ে যেতে পারে জলের তলায়। বিজ্ঞানীরা বলছেন, এমন হলে ক্রমশ বাড়বে ম্যালেরিয়া, গোদ, কলেরা, ডেঙ্গু রোগের প্রকোপ। শুরু হবে নতুন ধরনের অসুখ। সমুদ্রের জল দূষিত হতে শুরু করেছে। ক্রমশ আরও দূষণ বাড়বে। মারা পড়বে বহু সামুদ্রিক জীব। সম্পূর্ণ ধ্বংস হবে প্রবাল প্রাচীর। পেঙ্গুইনদেরও সম্ভবত আমরা দেখতে পাব না। বরফ গলতে শুরু করায় মেরু ভাল্লুকরা এমনিতেই মরতে বসেছে। তিমি, হাঙররাও শেষ হয়ে যাবে একদিন। সবচাইতে বড় পরিবর্তন দেখা দেবে আবহাওয়ায়। ঘনঘন ঘূর্ণিঝড় দেখা দেবে। ক্ষতি হবে ফসলের। খাদ্যের অভাব দেখা যাবে। বাড়বে খরা ও বন্যার প্রকোপ। ক্রমশ ধ্বংস হয়ে যাবে মানবজাতি।
উপায় কী?
উপায় মূলত দু’টি। ক) মানুষের কার্যকলাপের উপর নিয়ন্ত্রণ। খ) বনসৃজন।
মানুষের কার্যকলাপের উপর নিয়ন্ত্রণ
প্রথমত কলকারখানায় কয়লার মতো জ্বালানির ব্যবহার কমাতে হবে। এছাড়া পরিবেশে কলকারখানা থেকে মেশা ক্ষতিকর রাসায়নিক মেশা বন্ধ করতে হবে। এছাড়া প্লাস্টিক ব্যবহার এখনই বন্ধ করা দরকার। পেট্রোল, ডিজেল চালিত গাড়ি কমিয়ে ফেলা উচিত। এমনকী বিদ্যুৎ উৎপাদনেও কমাতে হবে কয়লার ব্যবহার। বরং বাড়াতে হবে সৌরশক্তি, বায়ুশক্তি, জলবিদ্যুৎ, বায়ো গ্যাস, জোয়ার-ভাটা শক্তি, পারমাণবিক শক্তির ব্যবহার।
বনসৃজন বা জঙ্গল উদ্ধার
আধুনিকতার নামে বন কেটে বাড়ছে মানুষের বসতি। তাই আগে শহরের বৃদ্ধি কমাতে হবে। বন কেটে আর বাড়িঘর করা যাবে না। বরং নতুন করে আরও গাছ লাগাতে হবে। অরণ্য থাকলে বিশ্ব উষ্ণায়ন আটকে দেওয়া যাবে। আর তা করা সম্ভব মাত্র ২০ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে!
এই দ্বিতীয় কাজটি করা হল সবচাইতে সোজা। জানলে অবাক হবে, বেশ কয়েকজন আছেন, যাঁরা একটা গোটা জঙ্গলই বানিয়ে ফেলেছেন নিজের চেষ্টায়। তাঁরাই হলেন আমাদের অরণ্য মানব আর মানবী। তাঁরাই আমাদের আদর্শ, আমাদের নায়ক ও নায়িকা। এসো তাঁদের কয়েকজনকে চিনে রাখি।
 যাদব পায়েং: তাঁকে সবাই মুলাই বলে ডাকে। অসমিয়া ভাষায় মুলাই শব্দের অর্থ জঙ্গল। যাদব ওরফে মুলাই একটা অসম্ভব কাজ করে ফেলেছেন। ধু ধু করা ব্রহ্মপুত্রের ন্যাড়া বালুচরে, একা হাতে গাছ লাগাতে শুরু করেন ১৬ বছর বয়স থেকে। এখন সেই জঙ্গল ৫৫০ হেক্টর জুড়ে বড় হয়েছে! যাদবের সম্মানে এই গোটা জঙ্গলটির নাম হয়েছে মুলাই কাঠনি। সম্পূর্ণ মরুভূমি হয়ে যাওয়া ব্রহ্মপুত্রের বুকে গড়ে ওঠা জঙ্গলে এখন বাস করে হাতি, গণ্ডার, চিতাবাঘ, হরিণ, অসংখ্য পরিযায়ী পাখি। এভাবেই যাদব বন্যপ্রাণীদের ফিরিয়ে দিচ্ছেন তাঁদের কাছ থেকে কেড়ে নেওয়া জঙ্গল! ২০১২ সালে যাদবের এই অবদানের জন্য জওহরলাল নেহরু ইউনিভার্সিটি তাঁকে  ফরেস্ট ম্যান অব ইন্ডিয়া  শিরোপা  দেয়। ওই বছরেই ভারতের সেই সময়ের প্রেসিডেন্ট এপিজে আব্দুল কালাম মুম্বইয়ে যাদব পায়েংকে আর্থিকভাবে পুরস্কৃত করেন। ২০১৫ সালে তিনি পান পদ্মশ্রী পুরস্কার।
 কোল্লাক্কোয়িল দেবকী আম্মা: দেবকী আম্মার বয়স এখন ৮৫। দেবকী আম্মার বাড়ি কেরালার আলাপ্পুরা জেলায়। বাড়ির পিছনে পাঁচ একর জমি ছিল তাঁর। সেই ১৯৮০ সাল থেকে তিনি সেই জমিতে বিভিন্ন প্রজাতির গাছ লাগাতে শুরু করেন। আজ সেই জমিতে তৈরি হয়েছে গভীর শান্ত বন। সেখানে নিশ্চিন্তে বাসা বেঁধেছে ময়ূর, বাজ, নীলকণ্ঠ, ডাহুক সহ নানা প্রজাতির পাখি। বাঁদর, বনবেড়াল, ছোটখাট জন্তু জানোয়ারেরও ঠাঁই হয়েছে বইকি। দেবকী আম্মার নাতিনাতনিরাও স্কুলের ছুটিতে ঠাকুমার সঙ্গে হাত লাগিয়ে সেই বনে গাছ লাগান। এই অরণ্যে রয়েছে ছোট পুকুর! জলাভূমি! দেবকী আম্মা তাঁর নিজের হাতে তৈরি অরণ্য খুলে দিয়েছেন শিক্ষামূলক ভ্রমণের জন্য। স্কুল কলেজের ছাত্রছাত্রীরা সেখানে প্রায় ৩ হাজার প্রজাতির গাছপালা দেখতে যান। আহরণ করেন প্রকৃতি নিয়ে জ্ঞান। দেবকী আম্মার এই কাজের জন্য তিনি ভারত সরকারের তরফে পেয়েছেন, ইন্দিরা প্রিয়দর্শিনী বৃক্ষামিত্র পুরস্কার এবং নারী শক্তি পুরস্কার। এছাড়া রাজ্য সরকারের তরফেও পেয়েছেন।
এই ৮৫ বছর বয়সেও তিনি এখনও রোজ ভোরবেলা হেঁটে যান তাঁর নিজের হাতে তৈরি বনের মধ্যে দিয়ে। এখনও গাছ লাগান মাটি খুঁড়ে!
 পামেলা মলহোত্রা এবং অনিল কে মলহোত্রা: এই দম্পতি কর্ণাটকের কোদাগু জেলায়, পশ্চিমঘাট পর্বতমালায় প্রায় ৩০০ একর জমিতে বানিয়ে ফেলেছেন বিশাল অরণ্য। এই অরণ্য তৈরি করতে সময় লেগেছে প্রায় ২৫ বছর। নিজেদের সমস্ত জমানো টাকাপয়সা খরচ করে অল্প অল্প করে তাঁরা জমি কিনতে থাকেন। সঙ্গে শুরু করেন গাছ লাগানো। বর্তমানে ওই জঙ্গলের নাম সাই স্যাংচুয়ারি। সেখানে বাস করে হাতি, লেপার্ড, হরিণ, সাপ, কতশত পাখি।
 সেবাস্টিও রিবেইরো সালগাদো ও লিলিয়া: সেবাস্টিও একজন চিত্রসংবাদিক। তাঁর স্ত্রী’র নাম লিলিয়া। ব্রাজিলের মিনে জ়েরাইস অঞ্চলে এই মোরেস-এ সেবাস্টিওর বাপ-ঠাকুর্দার ছিল প্রায় ১৭৫৪ একর জমি। সেই জমিতে ছিল জঙ্গল। বড় বড় গাছ। কতশত পাখি আর বন্যপ্রাণীর বাস। সেবাস্টিওর বাবা ও দাদুরা নির্বিচারে সেই অরণ্যের গাছ কেটে বিক্রি করতে শুরু করলেন। ফলে একটা বড় জঙ্গল ধূসর জমিতে পরিণত হল। সেবাস্টিও বুঝলেন প্রকৃতির সঙ্গে বড় পাপ করা হয়ে গিয়েছে। তিনি আর তাঁর স্ত্রী পণ করলেন এই জঙ্গলকে ফেরাতে হবে। ধীরে ধীরে গাছ লাগাতে শুরু করলেন সেই জমিতে। ২০ বছরের চেষ্টায় ২০ লক্ষ গাছ লাগিয়ে ফেলেছিলেন তাঁরা। রুক্ষ জমি এখন বদলে গিয়েছে জঙ্গলে। ফিরে এসেছে কতশত পাখি,  জন্তু-জানোয়ার! সালগাদো বলছেন, আমাদের গ্রহকে বাঁচাতে হলে অরণ্য ফিরিয়ে আনা ছাড়া আর কোনও গতি নেই। তিনি বলছেন, জঙ্গল উদ্ধার করলে আমরা জলবায়ুর পরিবর্তন আটকাতে পারব। পারব পৃথিবীকে ধ্বংস হওয়ার হাত থেকেও বাঁচাতে।
 সবশেষে আমরা: চলো বন্ধুরা। আমরাও আজ থেকে গাছ লাগাতে শুরু করি। একটুকরো ফাঁকা জমি পেলেই তো চলবে! একইসঙ্গে কোথাও গাছ কাটা হলে তার প্রতিবাদ করি। কারণ অরণ্য থাকলেই সেখানে বাসা করবে সবুজ বসন্তবৌরি, টুনটুনি, দুর্গা টুনটুনি, কাঠঠোকরা, ধনেশ, নীলকণ্ঠ, পাপিয়া, ময়না, টিয়া, প্যাঁচা। একই সঙ্গে বন্ধ করতে হবে পুকুর বোজানো। কারণ জলেও তো বহু প্রাণী বাস করে। তারাও পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা করে। বন্ধ করি প্লাস্টিকের ব্যবহার। প্লাস্টিক জমিকে করে তোলে অনুর্বর। এসো এভাবেই আমরা আমাদের প্রকৃতি মা’কে রক্ষা করি একসঙ্গে, আজ থেকেই!
ছবি: সংশ্লিষ্ট সংস্থার সৌজন্যে 
20th  October, 2019
নতুন পৃথিবী গড়বো আমরা 

ছোট্ট বন্ধুরা কেমন আছো? দীর্ঘ লকডাউনে বাড়িতে স্কুলের অনলাইন ক্লাসের চাপে ক্লান্ত হয়ে পড়ছো? অবসর সময় ভালো মতো কাটছে না? তবে শোনো, আজ তোমাদের একটা ভালো খবর দিই।   বিশদ

31st  May, 2020
ভাইরাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধ জয় 

লাতিন শব্দ ‘ভাইরাস’-এর অর্থ হল ‘বিষ’। এই বিষ যুগে যুগে মানুষের জীবনকে বিষিয়ে তুলেছে। তেমনই যুগে যুগে মানুষ পরাস্ত করেছে এমন ভয়াবহ শত্রুকেও। আজ গোটা দুনিয়া অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছে, কবে নভেল করোনা ভাইরাসের প্রতিষেধক টিকা হাতের মুঠোয় আসবে। বিজ্ঞানীরা বসে নেই, দিনরাত কাজ করে যাচ্ছেন এই মহা মূল্যবান ধন্বন্তরি হাতের মুঠোয় আনার জন্য। সেইরকম ভয়ঙ্কর সব ভাইরাসের বিরুদ্ধে মানুষের যুদ্ধের বহু ইতিহাস রয়েছে বিশ্বজুড়ে। 
বিশদ

31st  May, 2020
মার্কশিট
এই সময়টাকে কাজে লাগিয়ে
খুঁটিয়ে পড়ো প্রতিটি অধ্যায়

আজ আমরা সৈয়দ মুজতবা আলী রচিত 'চতুরঙ্গ' প্রবন্ধসংগ্রহের অন্তর্গত 'মামদোর পুনর্জন্ম' প্রবন্ধের অংশবিশেষ 'নব নব সৃষ্টি' পাঠ্যাংশটি থেকে প্রাবন্ধিকের কয়েকটি বিশেষ মত সম্পর্কে জানব এবং সে বিষয়টি নবমশ্রেণীরই অন্যান্য পাঠের সঙ্গে মিলিয়ে দেখব।
বিশদ

31st  May, 2020
বাঘ পড়েছিল শান্তিনিকেতনে 

পার্থজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়: রবীন্দ্রনাথ গান বেঁধেছিলেন, ‘আমাদের শান্তিনিকেতন/ সে যে সব হতে আপন/ তার আকাশ ভরা কোলে / মোদের দোলে হৃদয় দোলে, / মোরা বারে বারে দেখি তারে নিত্যই নূতন।’ সত্যিই ছিল সার্থকনামা, যথার্থ অর্থেই ‘শান্তিনিকেতন’।  বিশদ

31st  May, 2020
চিরবিদ্রোহী রণক্লান্ত 

আমাদের এই দেশকে গড়ে তুলতে অনেকে অনেক স্বার্থত্যাগ করে এগিয়ে এসেছিলেন। এই কলমে জানতে পারবে সেরকমই মহান মানুষদের ছেলেবেলার কথা। এবার বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলাম। আগামী ২৫ মে তাঁর জন্মদিন। লিখেছেন চকিতা চট্টোপাধ্যায়।
বিশদ

24th  May, 2020
চোখের যত্ন নাও 

রোজ অনলাইন ক্লাসের জেরে তোমাদের চোখে নানান সমস্যা দেখা দিতে পারে। একটু সতর্ক হলেই কিন্তু এসব সমস্যা এড়ানো যায়। সেরকম ১০টি জরুরি পরামর্শ দিয়েছেন দিশা আই হাসপাতালের সিনিয়র কনসালট্যান্ট চক্ষু বিশেষজ্ঞ ডাঃ ভাস্কর ভট্টাচার্য। লিখেছেন স্নেহাশিস সাউ।
বিশদ

24th  May, 2020
স্কুলে অনলাইন পড়াশোনাই
এখন একমাত্র উপায় 

লকডাউনের মধ্যেও পড়াশোনা এগিয়ে নিয়ে যেতে স্কুলে চলছে অনলাইন ক্লাস। এর ভালো মন্দ নিয়ে আলোচনা করলেন বিভিন্ন স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষিকা ও ছাত্রছাত্রীরা। তাঁদের সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন কমলিনী চক্রবর্তী। 
বিশদ

24th  May, 2020
ছোটদের রান্নাঘর 

করোনার দাপটে স্কুল বন্ধ। সুতরাং বাড়ি থেকে বেরিয়ে এটা ওটা খাওয়ারও জো নেই। তাই বলে কি লকডাউনে কোনও ভালো খাবারই চেখে দেখার সুযোগ হবে না? চিন্তা নেই, ছোটদের রান্নাঘর - এ শুধু তোমাদের জন্যই চারটি লোভনীয় রেসিপি দিয়েছেন ৬ বালিগঞ্জ প্লেসের কর্ণধার ও শেফ সুশান্ত সেনগুপ্ত এবং হলিডে ইন হোটেলের কর্পোরেট শেফ জয়ন্ত বন্দ্যোপাধ্যায়। 
বিশদ

17th  May, 2020
খেলাচ্ছলে যোগাভ্যাস 

বাইরে বেরনো বন্ধ! তাতে কী, এই সুযোগে বাড়িতে বড়দের সঙ্গী হয়ে খেলতে খেলতে কয়েকটি যোগাসন ও প্রাণায়াম শিখে নিতে পারো। এতে শরীর ও মন থাকবে চনমনে, বাড়বে রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা। পরামর্শ দিয়েছেন যোগাচার্য প্রেমসুন্দর দাস। লিখেছেন স্নেহাশিস সাউ। 
বিশদ

17th  May, 2020
পুনুর বন্ধু ডাকু 

কার্তিক ঘোষ: পুনু তখন সবে একটু মুখধরা হয়ে উঠেছে বাবা-মা’র।
বাবা তখন বাড়ি ফিরে এসেছেন কলকাতা থেকে।
দোকানের চাকরিটা গেছে!
বিশদ

17th  May, 2020
বইয়ের নেশায় বুঁদ 

লক ডাউনের সুযোগে ভালো বই পড়ার নেশায় মেতে ওঠো তোমরা। কোন বয়সে কেমন বই পড়বে তার একটা ধারণা দিলেন কমলিনী চক্রবর্তী।  
বিশদ

10th  May, 2020
ইন্দ্রজা, ফুড হ্যাবিটটা
এবার পালটে ফেলো 

ডাঃ অমিতাভ ভট্টাচার্য: ইন্দ্রজার কথা দিয়েই শুরু করি। এই এক মাসে কেমন যেন পাল্টে গিয়েছে মেয়েটা। ভাবসাব দেখে তো রমা আর ইন্দ্রজিতের চোখ কপালে ওঠার জোগাড়। তাদের একমাত্র মেয়ে যে এমন লক্ষ্মীমন্ত হয়ে উঠবে, এ যে তারা স্বপ্নেও ভাবেনি।  
বিশদ

10th  May, 2020
সত্যজিতের ছেলেবেলা, ছেলেবেলার

সত্যজিৎ রায়ের শততম জন্মবর্ষে ছোট্ট সত্যজিতের মধ্য দিয়ে ভবিষ্যতের সত্যজিৎকে দেখার চেষ্টা করলেন অতনু বিশ্বাস। 
বিশদ

10th  May, 2020
বন্দি জীবনে সঙ্গী সিনেমা

 লকডাউনে বাড়িতে বসে পড়াশুনো আর গল্পের বই পড়ার পাশাপাশি দেখে নাও দশটি দুর্দান্ত সিনেমা। তোমাদের জন্য বেছে দিলেন স্বস্তিনাথ শাস্ত্রী। বিশদ

03rd  May, 2020
একনজরে
বেজিং, ৪ জুন (পিটিআই): চীনে একটি প্রাথমিক স্কুলে ছুরিকাহত হলেন পড়ুয়া ও শিক্ষক মিলিয়ে কমপক্ষে ৪০ জন। আহতদের মধ্যে তিনজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৮টা নাগাদ গুয়াংজি প্রদেশের ওঝাউ শহরের একটি সরকারি স্কুলে ওই ঘটনা ঘটেছে। ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: লকডাউনে দেশের সর্বত্র গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্পগুলি আটকে রয়েছে। ব্যতিক্রম নয় প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রও। প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের কর্তাদের চিন্তা বাড়িয়েছে দেশীয় প্রযুক্তিতে প্রথম তৈরি হতে চলা ...

সংবাদদাতা, হরিশ্চন্দ্রপুর: বৃহস্পতিবার মালদহে তিনজনের মৃত্যু হল বজ্রপাতে। তাঁরা হরিশ্চন্দ্রপুর-১ ব্লকের বাসিন্দা। পুলিস সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃতরা হলেন বিনু ওঁরাও (৫৫), সুলতান আহমেদ (২৩) ও মিঠু কর্মকার (৩৩)। বিনুর বাড়ি বাইশা গ্রামে। সুলতানের বাড়ি নারায়ণপুর গ্রামে ও মিঠুর বাড়ি দক্ষিণ ...

  নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: মাসখানেক হল চালু হয়েছে কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ কোভিড হাসপাতাল। চালু হয়েছে করোনা রোগীদের সুপার স্পেশালিটি ব্লক বা এসএসবি বাড়ি। কিন্তু, এরই মধ্যে কোভিডে মৃত ব্যক্তির মোবাইল উধাও হয়ে গিয়েছে বলে অভিযোগ জমা পড়েছে মেডিক্যালের সিকিউরিটি অফিসারের ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

সঠিক বন্ধু নির্বাচন আবশ্যক, কর্মরতদের ক্ষেত্রে শুভ। বদলির কোনও সম্ভাবনা এই মুহূর্তে নেই। শেয়ার বা ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৯৩২: শ্রীশ্রীরামকৃষ্ণ কথামৃতের রচনাকার মহেন্দ্রনাথ গুপ্তের (শ্রীম) মৃত্যু
১৯৩৬: অভিনেত্রী নূতনের জন্ম
১৯৫৯: শিল্পপতি অনিল আম্বানির জন্ম
১৯৭৪: অভিনেতা অহীন্দ্র চৌধুরির মৃত্যু
১৯৭৫ - মার্কিন অভিনেত্রী অ্যাঞ্জেলিনা জোলির জন্ম
১৯৮৫: জার্মান ফুটবলার লুকাস পোডোলোস্কির জন্ম

04th  June, 2020


ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭৪.৭৪ টাকা ৭৬.৪৫ টাকা
পাউন্ড ৯৩.১৩ টাকা ৯৬.৪৪ টাকা
ইউরো ৮৩.২২ টাকা ৮৬.৩১ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৪১,৮৮০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৯,৭৩০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৪০,৩৩০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৩৮,৮০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৩৮,৯০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]
22nd  March, 2020

দিন পঞ্জিকা

দৃকসিদ্ধ: ২২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ৫ জুন ২০২০, শুক্রবার, পূর্ণিমা ৪৯/২৮ রাত্রি ১২/৪২। অনুরাধা নক্ষত্র ২৯/৩১ অপঃ ৪/৪৪। সূর্যোদয় ৪/৫৫/১২, সূর্যাস্ত ৬/১৪/৩২। অমৃতযোগ দিবা ১২/১ গতে ২/১৪ মধ্যে। রাত্রি ৮/২২ মধ্যে পুনক্ষ ১২/৩৮ গতে ২/৪৭ মধ্যে পুনঃ ৩/২৯ গতে উদয়াবধি। বারবেলা ৮/১৫ গতে ১১/৩৫ মধ্যে। কালরাত্রি ৮/৫৫ গতে ১০/১৫ মধ্যে।
২২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ৫ জুন ২০২০, শুক্রবার, পূর্ণিমা ১/১। অনুরাধা নক্ষত্র অপরাহ্ন ৫/১২। সূর্যোদয় ৪/৫৬, সূর্যাস্ত ৬/১৬। অমৃতযোগ দিবা ১২/৬ গতে ২/৪৭ মধ্যে এবং রাত্রি ৮/২৯ মধ্যে ও ১২/৪২ গতে ২/৪৮ মধ্যে ও ৩/৩০ গতে ৪/৫৬ মধ্যে। বারবেলা ৮/১৬ গতে ১১/৩৬ মধ্যে কালরাত্রি ৮/৫৬ গতে ১০/১৬ মধ্যে।
১২ শওয়াল

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
মহরাষ্ট্রে ফের ৪ জন পুলিস করোনা আক্রান্ত, মৃত ১ 
মহারাষ্ট্র ফের ৪ জন পুলিস কর্মী করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। মৃত্যু ...বিশদ

11:48:00 AM

মালদহে শাশুড়িকে কুমন্তব্য করায় ভাড়াটিয়া ও জামাইয়ের সংঘর্ষ 
শাশুড়ির বিরুদ্ধে কু মন্তব্য করায় ভাড়াটিয়া ও মালিকের জামাইয়ের মধ্যে ...বিশদ

11:45:10 AM

দিল্লি মেট্রো রেলের ২০ জন কর্মী করোনা আক্রান্ত 
দিল্লি মেট্রোর ২০ জন কর্মী করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। সেখানকার মেট্রো ...বিশদ

11:27:17 AM

করোনা: কোন কোন দেশ বেশি আক্রান্ত? 
করোনায় আক্রান্তের বিচারে তালিকায় শীর্ষে রয়েছে আমেরিকা। এদেশে করোনায় আক্রান্ত ...বিশদ

11:13:14 AM

বিশ্ব পরিবেশ দিবসের শুভেচ্ছা জানালেন মুখ্যমন্ত্রী 
আজ বিশ্ব পরিবেশ দিবস। সেই উপলক্ষে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ট্যুইটারে ...বিশদ

10:46:00 AM

কলেজ স্ট্রিটে ভেঙে পড়ল দোতলা বাড়ি 
কলেজ স্ট্রিটে ভেঙে পড়ল একটি দোতলা বাড়ি। ঘটনাটি ঘটেছে আজ ...বিশদ

10:37:19 AM