Bartaman Patrika
হ য ব র ল
 

রেনি ডে 

রেনি ডে মানেই একরাশ মজা। পড়ে পাওয়া একদিনের ছুটি, রাস্তার জমা জলে ইচ্ছেমতো হুটোপুটি আর বাড়িতে গরম গরম খিচুড়ি খেয়ে দুপুরবেলা গল্পের বই নিয়ে সোজা বিছানায়। সেই রেনি ডে নিয়ে এবার কলম আর রং-তুলি ধরেছে হিন্দু স্কুলের ছোটরা।

রেনি ডে— স্কুলে গিয়েও পড়াশুনো না করার মতো অভিনব ‘অধিকার’, সর্বকালের সর্বদেশের স্কুলপড়ুয়াদের আজীবন বোধহয় দিয়ে এসেছে একমাত্র এই ‘রেনি ডে’ই! তাই ‘রেনি ডে’র একটা আলাদা মর্যাদা এবং ভূমিকা আছে আমাদের প্রত্যেকেরই জীবনে। ‘রেনি ডে’ হলে পড়াশুনোয় ফাঁকি। ‘রেনি ডে’ হলে জল ভাঙার দাবি। ‘রেনি ডে’ হলে জমা জলে কাগজের নৌকা ভাসিয়ে শুধু কল্পনার ঢেউ গোনা! আজকের স্কুল ছাত্রদের কাছে ‘রেনি ডে’ কেমন, কীভাবে তারা যাপন করে এই ‘বৃষ্টির দিন’টাকে, তা জানতে হাজির হয়েছিলাম হিন্দু স্কুলে। বিভিন্ন ক্লাসের ছাত্ররা মন খুলে তাদের মতো করে জানাল তাদের ‘রেনি ডে’র কথা।
ইচ্ছে করে এক ছুটে চলে যাই বৃষ্টিতে ভিজতে!
বৃষ্টি আমার খুব ভালো লাগে। বৃষ্টি পড়ার আগে যখন খুব গরম হয়, তখন খুব অস্বস্তি হয়। তারপর যখন বৃষ্টি নামে, তখন সব অস্বস্তি চলে যায়। বৃষ্টি এই স্বস্তিটা এনে দেয় বলেই আমার খুব ভালো লাগে বৃষ্টিকে। বাড়িতে থাকলে যদি একটা ‘রেনি ডে’ পাই— সারাদিন ধরে বৃষ্টি পড়েই চলেছে, পড়েই চলেছে— তখন ছাদে উঠে খুব ভিজি। তাই স্কুলে থাকলে এমন ‘রেনি ডে’ হলে মন খারাপ হয়ে যায়। কারণ, তখন তো আর ইচ্ছেমতো বৃষ্টিতে ভিজতে পারি না! তখন খুব অন্যমনস্ক হয়ে যাই— ইচ্ছে করে এক ছুটে চলে যাই ভিজতে! তবে, পরীক্ষার আগে বৃষ্টিতে ভিজি না, পাছে অসুখ করে! আর হ্যাঁ, বাড়ির ছাদে উঠে বৃষ্টিতে ভিজলেও, সঙ্গে সঙ্গেই কিন্তু স্নান করে নিই, তাই আর ঠান্ডা লাগার ভয়
থাকে না।
মিতদ্রু হাটই, ষষ্ঠ শ্রেণী
বন্ধুদের সঙ্গে খুব ভিজি
বৃষ্টি আমার ভালো লাগে। তার সবচেয়ে বড় কারণ হল বৃষ্টি পড়লে খুব মজা, খুব আনন্দ করতে পারি। যেটা গ্রীষ্মকালে করা যায় না। কোনও একটানা বৃষ্টি পড়া ‘রেনি ডে’তে স্কুলে যদি আসতে হয়, তখন আসার সময় বন্ধুদের সঙ্গে খুব ভিজি। জুতোয় কাদা লেগে গেলে ধুয়ে ফেলি। স্যাররা যদি বকুনিও দেন তাও শুনি না— বৃষ্টি পড়লে আমাকে ভিজতেই হবে! আর তখন আমার মনটা খুব উড়ু উড়ু হয়ে যায়। একদম পড়তে ইচ্ছে করে না। মন খারাপ লাগে। এই অন্যমনস্কতার জন্য অনেক সময় স্যারদের কাছে শাস্তিও পাই। হয়তো ‘নিল ডাউন’ হয়েও থাকতে হয়! কিন্তু তবু শাস্তি মাথায় নিয়েও আমার ভিজতে খুব ভালো লাগে! এভাবেই আমি ‘রেনি ডে’ এনজয় করি। তবে বাড়িতে থাকলে যদি এমন একটা ‘রেনি ডে’ পাই, তখন কিন্তু আমি ছবি আঁকি।
দেবজ্যোতি লাল, সপ্তম শ্রেণী
এমন দিনে মায়ের রান্না করা খিচুড়ি খেতে দারুণ লাগে!
বর্ষাকাল আমার খুব ভালো লাগে। খালি মনে হয় বৃষ্টি আসুক আর এমন একটা ‘রেনি ডে’তে জল ভেঙে স্কুলে যাই। যদি এর জন্য জুতো, মোজা সব ভিজেও যায়, তাহলেও এই ভেজাটা আমি খুব উপভোগ করি। খুব ভালো লাগে বাইরে মুষলধারায় বৃষ্টি পড়ছে, আর ক্লাসে স্যাররা সাহিত্যের কোনও চ্যাপ্টার— মানে গল্প বা কবিতা পড়াচ্ছেন। বাইরে বৃষ্টির আওয়াজের সঙ্গে সঙ্গে এই পড়াটা শুনতে আমার খুব ভালো লাগে! শুকনো দিনে এই পড়াটা শুনতে কিন্তু অতটা ভালো লাগে না। বৃষ্টির শব্দটা যেন পড়ানোটার একটা ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক হয়ে যায়! তবে বাড়িতে থাকলে এমন ‘রেনি ডে’ পেলে দিদির সঙ্গে লুডো খেলতে খুব ভালো লাগে। আর তারপর মায়ের রান্না খিচুড়ি খেতে দারুণ লাগে!
অনিলকুমার দে, অষ্টম শ্রেণী
রেনি ডে’তে একদমই
স্কুল যেতে ইচ্ছে করে না
একটানা বৃষ্টির ‘রেনি ডে’তে আমার একদম স্কুলে যেতে ইচ্ছে করে না। তখন মনে হয় বাড়িতে বসে শুধু প্রকৃতি দেখি। কিংবা ডায়েরিতে গল্প লিখি। বৃষ্টির দাপটে গাছের ডাল কেমন দুলছে দেখতে খুব ভালো লাগে। আমি কবিতা লিখতে খুব ভালোবাসি। কাগজে ছাপাও হয়েছে। বৃষ্টি যেন আমাকে কবিতা লিখতে আরও ইন্সপায়ার করে। স্কুলে থেকে যদি এমন ‘রেনি ডে’ পাই, তখন কিন্তু কেমন যেন বদ্ধ লাগে। বাইরে বৃষ্টি, ভেতরে আমি। ইচ্ছে করলেও বৃষ্টির কাছে যেতে পারছি না— এটা আমার একদম ভালো লাগে না। তবে এমন একটা ‘রেনি ডে’ হলে জনকোলাহল থমকে যায় যখন, তখন মনে হয় যেন বৃষ্টি হলে সবাই একটু অবসর পায়!
শাশ্বত দত্ত, নবম শ্রেণী
রেনি ডে’তে খিচুড়ি
আর পাঁপড় চাই-ই চাই
চারদিকের এই ভেজা ভাব, এই কাদা কাদা হয়ে থাকা আমার একটুও ভালো লাগে না। মাঠভর্তি জল, তাই ক্রিকেট খেলা যায় না, তাই ‘রেনি ডে’ ভালো লাগে না। পরীক্ষার আগে বৃষ্টি হলে অবশ্য ভিজি। কিন্তু পরীক্ষা এসে গেলে ভিজি না। বৃষ্টির মধ্যে কোনও ‘রেনি ডে’তে স্কুলে আসতে একটুও ভালো লাগে না। আমার মনে হয় অন্য সময় বৃষ্টি হোক, কিন্তু খেলার সময় যেন না হয়। আমাদের স্কুলে ‘রেনি ডে’ হলে পড়া হয় না। লাইব্রেরিতে নিয়ে যাওয়া হয়, কিংবা আমাদের ‘স্মার্ট ক্লাস’-এ নিয়ে গিয়ে তখন স্যাররা ‘মুভি’ দেখান প্রোজেক্টারে। বাইরে বৃষ্টি, ভেতরে বন্ধুদের সঙ্গে সেদিন যখন ‘সোনার কেল্লা’ দেখছিলাম সবাই মিলে, তখন আমার খুব ভালো লাগছিল! বাড়িতে থাকলে ‘রেনি ডে’তে আমার খিচুড়ি আর পাঁপড় ভাজা চাই-ই চাই!
সন্দীপন দাস, ষষ্ঠ শ্রেণী
স্কুলে রেনি ডে হলে বৃষ্টি পড়া দেখতে ভালো লাগে
‘রেনি ডে’ হলে ভালো লাগে। বেশ ঠান্ডা ঠান্ডা অনুভূতি হয়। আলসেমি লাগে, স্কুলে আসতে ইচ্ছে করে না একদম। তবে, আমার জল ঘাঁটতে একটুও ভালো লাগে না। শুধু ইচ্ছে করে ঘরে বসে থাকি। আর খিচুড়ি-পাঁপড়ভাজা খাই। স্কুলে থাকলে ‘রেনি ডে’ হলে জানলা দিয়ে বাইরে বৃষ্টি পড়া দেখতে ভালো লাগে। পড়ায় যেন পুরো মন বসে না। তখন মনে হয় কেন আজ স্যাররা পড়াচ্ছেন! ছুটি দিয়ে দিন না! তাহলে বেশ নিজের ইচ্ছেমতো এই একটানা বৃষ্টি পড়াটাকে উপভোগ করতে পারি! কিন্তু তারপরই ভয় হয়— এত বৃষ্টি পড়ছে রাস্তায় তো জল জমে যাবে! তখন সেই জল ভেঙে বাড়ি ফিরতে হবে! আমাদের স্কুলের পাড়ায় খুব জল জমে। তবে, বাড়ি ফিরে যদি গরম গরম খিচুড়ি পাই তবে জল ভাঙার সব কষ্ট দূর হয়ে যায়!
দেবাংশু পালুই, অষ্টম শ্রেণী
বাড়িতে থাকলে রেনি ডে’তে শুধু বই পড়ি
‘রেনি ডে’ ভালো লাগে। তবে জল জমে যায় রাস্তায় সেটা ভালো লাগে না। খুব বৃষ্টি হলে গাড়ি-ঘোড়া বন্ধ হয়ে যায়। তখন খুব অসুবিধে হয়, একটুও ভালো লাগে না। তবে ঝিরঝিরে বৃষ্টি ভালো লাগে। বাইরে মুষলধারায় বৃষ্টি ঝরছে, স্যাররা ক্লাসে পড়াচ্ছেন, তখন একদম পড়ায় মন বসে না, বারবার আমার চোখ চলে যায় জানলার বাইরে জলের দিকে। তখন খুব ইচ্ছে করে ক্লাসে বসে টিফিন খেতে খেতে বন্ধুদের সঙ্গে গল্প করি। কারণ বৃষ্টি হলে তো নীচেও নামতে পারি না। মাঠে জল জমে থাকে। বাড়িতে থাকলে ‘রেনি ডে’তে শুধু
বই পড়ি আর খিচুড়ি খাই। মা যদি কোনও দিন খুব বৃষ্টি পড়ছে দেখে বলে, ‘থাক, আজ আর স্কুলে যেতে হবে না’, তখন খুব মজা হয়। তবে, আজকাল স্কুলে আমাদের ‘স্মার্ট
ক্লাস’ চালু হয়েছে। ‘রেনি ডে’ হলে স্যাররা ওখানে নিয়ে গিয়ে আমাদের মুভি
দেখান। বাইরে বৃষ্টি, আর ভেতরে ‘গুপী গাইন বাঘা বাইন’ দেখছি— দারুণ এনজয়মেন্ট!
সৌরিত্র বিশ্বাস, দশম শ্রেণী
আমার পছন্দ ঝমঝমে বৃষ্টি
‘রেনি ডে’ কথাটা শুনলেই বৃষ্টির সোঁদা গন্ধ, খিচুড়ি আর ইলিশ মাছ ভাজার গন্ধ যেন মিলেমিশে যায়! আমার তখন খুব ইচ্ছে করে বৃষ্টির একটানা শব্দের সঙ্গে মিলিয়ে মান্না দের কণ্ঠে ‘আমি ফুল না হয়ে কাঁটা হয়েই বেশ ছিলাম’ এই গানটা বিশেষ করে শুনতে! মান্নাদের গাওয়া আরও অনেক গানই ভালো লাগে, তবে এই গানটা না শুনলে যেন আমার ‘রেনি ডে’ পুরোপুরি উপভোগ করা হয় না! ঝিরঝিরে বৃষ্টি না, আমার পছন্দ ঝমঝমে বৃষ্টি। সঙ্গে মেঘের ডাক, বিদ্যুতের ঝলকানি। আর সেই সঙ্গে খিচুড়ি, পেঁয়াজি! ‘রেনি ডে’ আমার ‘জাঙ্ক ফুড’ খাওয়ার প্রবণতাকে যেন আরও বাড়িয়ে দেয়। ‘রেনি ডে’তে সবসময় স্কুলে আসা তো সম্ভব হয় না। এলে বাড়ি ফেরার সময় জল ভাঙতে হয়। তখন অবশ্য খুব সমস্যা হয়। ‘রেনি ডে’তে যদি ক্লাসে স্যাররা ভূগোলের কোনও কঠিন চ্যাপ্টার পড়ান। তখন সত্যিই আমার খুব ঘুম পেয়ে যায়।
উজান বিশ্বাস, দশম শ্রেণী
আজকের স্কুল পড়ুয়াদের বৃষ্টি যাপনের দিন— ‘রেনি ডে’র কথা শুনতে শুনতে মনে হল, দিদি দুর্গাকে নিয়ে অপু যেমন একদিন বৃষ্টিতে ভিজেছিল, তেমনি কিন্তু আজকের কিশোররাও ভেজে, কখনও বাস্তবে, কখনও আবার মনে মনে। যুগ পাল্টে যায়, কিন্তু, সর্বকালের শিশু-কিশোরদের মন কিন্তু একই থাকে। বৃষ্টি তাদের ছুটির ডাক দেয়— বৃষ্টি তাদের মনকে ভাসিয়ে নিয়ে চলে যায় কোন সে সুদূরে—। সবসময় সে ছুটি বাস্তবে না পেলেও মন তো সে ছুটির নাগাল পেতে চায়—! তাই ‘রেনি ডে’তে পড়া থেকে মুক্তি নিয়ে তারা যখন ‘স্মার্ট ক্লাস’-এ বসে বসে বন্ধুদের সঙ্গে ‘মুভি’ দেখে, তখন যে মনে মনে তারা প্রত্যেকেই হয়ে ওঠে এক একজন ‘অপু’ সে বিষয়ে কিন্তু কোনও সন্দেহই নেই।

সংকলন: চকিতা চট্টোপাধ্যায়
25th  August, 2019
এই রিম ঝিম ঝিম বরষা 

গ্রীষ্মের তাপে যখন পৃথিবীর মাটি ফেটে চৌচির হয়ে যায়, তখন কালো মেঘের ছায়া ফেলে নামে অপরূপ বর্ষা! সেই সঙ্গে সঙ্গে তোমাদের মনে কেমন অনুভূতি হয় সেকথাই জানিয়েছে তোমাদের আট বন্ধু। সঙ্গের ছবিগুলোও এঁকেছে তোমাদের বন্ধুরা। 
বিশদ

12th  July, 2020
হিলি গিলি হোকাস ফোকাস 

চলছে নতুন বিভাগ হিলি হিলি হোকাস ফোকাস। এই বিভাগে জনপ্রিয় জাদুকর শ্যামল কুমার তোমাদের কিছু চোখ ধাঁধানো আকর্ষণীয় ম্যাজিক সহজ সরলভাবে শেখাচ্ছেন।আজকের বিষয় অঙ্কের জাদু।   বিশদ

12th  July, 2020
দুঃসাহসী বাঙালি 

অসমসাহসী বাঙালিদের সঙ্গে তোমাদের পরিচয় করাচ্ছেন স্বস্তিনাথ শাস্ত্রী।  
বিশদ

12th  July, 2020
সহজ উপায়ে মনঃসংযোগ  

ছোট্ট বন্ধুরা কেমন আছ? বাড়িতেই অনলাইন ক্লাস করতে করতে ক্লান্ত হয়ে পড়েছ নাকি? কম্পিউটারে পড়াশোনা একঘেয়ে লাগছে তোমাদের? মন বসছে না বুঝি পড়ায়? পড়ায় মন বসানোর কয়েকটা সহজ উপায় তোমাদের বলি তাহলে।
বিশদ

05th  July, 2020
দিশারী  

আয়ুষী বন্দ্যোপাধ্যায়: বিশ্বময় যখন থাবা বসিয়েছে মারণ করোনা ভাইরাস তখন ছোট্ট মিনির মনে অনেক প্রশ্ন। আজকাল তার দিনগুলো ভালো কাটছে না। কেমন যেন থম মেরে পড়ে আছে কলের কলকাতা, নিস্তব্ধ গোটা তল্লাট-স্তব্ধতার অন্তর্গত বোধ হয়ে ঘেয়ো কুকুর লালুর ডাকও।   বিশদ

05th  July, 2020
এই সময়ের বােয়াস্কোপ 

দীর্ঘদিন একটানা স্কুল বন্ধ। যদিও তোমাদের অনলাইনে ক্লাস চলছে, কিন্তু বাইরে বেরনোর কোনও উপায় নেই। এক কাজ করো, ঘরে বসে অনলাইনে কিছু সিনেমা দেখে ফেলো। একঘেয়েমি কিছুটা কাটবে। লিখেছেন ড. শংকর ঘোষ। 
বিশদ

05th  July, 2020
ছোটদের রান্নাঘর 

করোনার দাপটে স্কুল বন্ধ। সুতরাং বাড়ি থেকে বেরিয়ে এটা ওটা খাওয়ারও জো নেই। তাই বলে কি লকডাউনে কোনও ভালো খাবারই চেখে দেখার সুযোগ হবে না? চিন্তা নেই, ছোটদের রান্নাঘর-এ শুধু তোমাদের জন্যই চারটি লোভনীয় রেসিপি দিয়েছেন জেমস ইন সিরাজের এক্সিকিউটিভ শেফ সাগ্নিক মজুমদার এবং হাটারি রেস্তরাঁর শেফ স্বপন বিশ্বাস। এগুলি আগুনের সাহায্য ছাড়াই তৈরি করা যাবে। তোমরাই করে চমকে দাও বড়দের। 
বিশদ

28th  June, 2020
রায় অ্যান্ড মার্টিনের অনলাইন ক্লাস 

করোনা ভাইরাসের জন্য আপাতত ৩১ জুলাই পর্যন্ত স্কুল বন্ধ। একটানা অনেকদিন ধরে তোমরা গৃহবন্দী। এজন্য যে তোমাদের পড়াশোনার ভীষণ ক্ষতি হচ্ছে তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। যদিও তোমরা এখন স্কুলের অনলাইন ক্লাসে পড়াশোনা করা করছ। এর মাধ্যমে তোমরা অনেকটাই উপকৃতও হচ্ছ।  বিশদ

28th  June, 2020
ইংরেজিতে শুদ্ধ বাক্যগঠন করবে কী কী দেখে?  

তোমাদের জন্য চলছে জনপ্রিয় বিভাগ মার্কশিট। এই বিভাগে থাকছে পরীক্ষায় নম্বর বাড়ানোর সুলুক সন্ধান। এবারের বিষয় ইংরেজি। পরামর্শে রহড়া রামকৃষ্ণ মিশন বালকাশ্রম উচ্চ বিদ্যালয়ের (উচ্চ মাধ্যমিক) ইংরেজির শিক্ষক উৎপল ভৌমিক। বিশদ

28th  June, 2020
দেখতে যাবে মিশরের মমি

ইতিহাসের দিনগুলোয় ফিরতে চাইলে দি ইন্ডিয়ান মিউজিয়াম বা কলকাতার ভারতীয় জাদুঘর ঘুরে আসা হল সেরা উপায়। তবে এখন জাদুঘর বন্ধ। তাহলে? খুব সহজ। আমাদের প্রত্যেকের বাড়িতেই রয়েছে আশ্চর্য এক যন্ত্র! সেই যন্ত্রের সাহায্যেই আমরা ঢুকে পড়ব জাদুঘরে! ঘুরেও বেড়াব ইচ্ছে মতো! লিখেছেন সুপ্রিয় নায়েক।  
বিশদ

28th  June, 2020
একদিনে বাংলা বর্ণমালা শিখেছিলেন  

আমাদের এই দেশকে গড়ে তোলার জন্য অনেকে অনেকভাবে স্বার্থত্যাগ করে এগিয়ে এসেছিলেন। এই কলমে জানতে পারবে সেরকমই মহান মানুষদের ছেলেবেলার কথা। এবার সাহিত্য-সম্রাট ঋষি বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়। লিখেছেন চকিতা চট্টোপাধ্যায়।
 
বিশদ

21st  June, 2020
রথযাত্রার ছোট্ট অঙ্গীকার 

করোনা সংক্রমণের জন্য এবারে কিন্তু রথ নিয়ে আর বেরিও না। পুরীর রথযাত্রাও এবার হচ্ছে না। তোমরা কীভাবে কাটাবে রথযাত্রার দিনটি? লিখেছেন সুমন গুপ্ত। 
বিশদ

21st  June, 2020
সবুজ দেশের স্বপ্ন 

তোমরা নিশ্চয়ই জানো একটি গাছ একটি প্রাণ। বর্ষার শুরুতে তোমরা যদি একটি করে চারাগাছ লাগাও, তাহলে পৃথিবী হয়ে উঠবে সবুজের দেশ। এমনই এক সবুজ দেশের স্বপ্ন দেখালেন অভীক বসু। 
বিশদ

21st  June, 2020
নতুন পৃথিবী গড়বো আমরা 

ছোট্ট বন্ধুরা কেমন আছো? দীর্ঘ লকডাউনে বাড়িতে স্কুলের অনলাইন ক্লাসের চাপে ক্লান্ত হয়ে পড়ছো? অবসর সময় ভালো মতো কাটছে না? তবে শোনো, আজ তোমাদের একটা ভালো খবর দিই।   বিশদ

31st  May, 2020
একনজরে
ওয়াশিংটন: চাপের মুখে অবশেষে বিদেশি পড়ুয়াদের দেশে ফেরানোর সিদ্ধান্ত থেকে পিছু হটল ট্রাম্প প্রশাসন। মঙ্গলবার ম্যাসাচুসেটসের ফেডারেল ডিস্ট্রিক্ট কোর্টে সরকার জানিয়েছে, অনলাইনে ক্লাস করা বিদেশি পড়ুয়াদের ভিসা বাতিল করে দেশে ফেরানোর সিদ্ধান্ত রদ করা হয়েছে। হার্ভার্ড ও এমআইটির দায়ের করা ...

লখনউ: গ্যাংস্টার বিকাশ দুবের ঘনিষ্ঠ এক সহযোগী তথা আত্মীয়কে গ্রেপ্তার করল উত্তরপ্রদেশ পুলিস। ধৃতের নাম শশীকান্ত ওরফে সোনু পাণ্ডে। তাকে জেরা করে এনকাউন্টারের দিন পুলিসের ...

সঞ্জয় সরকার, কলকাতা: বাবা পেশায় দিনমজুর। আয় আছে, নেই সঞ্চয়। দিন আনা, দিন খাওয়া পরিবারে জন্ম গ্রহণ করলেও একদিন ভারতীয় দলের জার্সি গায়ে নিজেকে দেখতে ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, আরামবাগ: সোমবার গভীর রাতে আরামবাগ শহরের কালীপুরে তৃণমূলের পতাকা ও ফ্লেক্স ছিঁড়ে ফেলার ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। শাসক দলের অভিযোগ, বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীরাই ওই কাজ করেছে। যদিও অভিযোগ অস্বীকার করেছে বিজেপি।   ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

পড়শির ঈর্ষায় অযথা হয়রানি। সন্তানের বিদ্যা নিয়ে চিন্তা। মামলা-মোকদ্দমা এড়িয়ে চলা প্রয়োজন। প্রেমে বাধা।প্রতিকার: একটি ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৮২০: সাহিত্যিক অক্ষয়কুমার দত্তের জন্ম
১৯০৩: রাজনীতিক কে কামরাজের জন্ম
১৯০৪: রুশ লেখক আস্তন চেকভের মৃত্যু
১৯৫৪: আর্জেন্তিনার ফুটবলার মারিও কেম্পেসের জন্ম  



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭৪.৪৬ টাকা ৭৬.১৭ টাকা
পাউন্ড ৯২.৯৩ টাকা ৯৬.২০ টাকা
ইউরো ৮৩.৮৮ টাকা ৮৬.৯৯ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৪৯, ৭৭০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৪৭, ২২০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৪৭, ৯৩০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৫১, ৯০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৫২, ০০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

৩১ আষাঢ় ১৪২৭, ১৫ জুলাই ২০২০, বুধবার, দশমী ৪৩/৯ রাত্রি ১০/২০। ভরণী ২৯/৭ অপঃ ৪/৪৩। সূর্যোদয় ৫/৪/৪২, সূর্যাস্ত ৬/২০/১৪। অমৃতযোগ দিবা ৭/৪৩ গতে ১১/১৫ মধ্যে পুনঃ ১/৫৫ গতে ৫/২৭ মধ্যে। রাত্রি ৯/৫৫ মধ্যে পুনঃ ১২/৪ গতে ১/৩০ মধ্যে। বারবেলা ৮/২৩ গতে ১০/৩ মধ্যে পুনঃ ১১/৪২ গতে ১/২১ মধ্যে। কালরাত্রি ২/২৩ গতে ৩/৪৪ মধ্যে।  
৩০ আষাঢ় ১৪২৭, ১৫ জুলাই ২০২০, বুধবার, দশমী রাত্রি ৮/৪৩। ভরণী নক্ষত্র অপরাহ্ন ৪/৭। সূযোদয় ৫/৪, সূর্যাস্ত ৬/২৩। অমৃতযোগ দিবা ৭/৪৩ গতে ১১/১৬ মধ্যে ও ১/৫৬ গতে ৫/২৮ মধ্যে এবং রাত্রি ৯/৫৬ মধ্যে ও ১২/৪ গতে ১/৩০ মধ্যে। কালবেলা ৮/২৪ গতে ১০/৪ মধ্যে ও ১১/৪৩ গতে ১/২৩ মধ্যে। কালরাত্রি ২/২৪ গতে ৩/৪৪ মধ্যে।
২৩ জেল্কদ  

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
সাতদিন বন্ধ থাকবে ক্যানিং বাজার  
আজ, বুধবার বিকেল থেকে সাতদিনের জন্য ক্যানিং বাজার বন্ধ থাকবে। ...বিশদ

09:30:00 AM

পাটনায় শুরু কোভ্যাকসিন-এর হিউম্যান ট্রায়াল 
ঘোষণা মেনেই দেশে সম্ভাব্য করোনা প্রতিষেধকের পরীক্ষামূলক প্রয়োগের কাজ শুরু ...বিশদ

09:23:47 AM

আর কিছুক্ষণেই মাধ্যমিকের ফল
 আর কিছুক্ষণের মধ্যেই মাধ্যমিকের ফল ঘোষণা করা হবে। গতকালই মুখ্যমন্ত্রী ...বিশদ

09:20:00 AM

করোনা: আপনার জেলার হাল কী, জানুন...  
রাজ্যে নতুন করে আরও ১,৩৯০ জনের শরীরে মিলেছে করোনা ভাইরাস। ...বিশদ

09:17:44 AM

কন্টেইনমেন্ট জোনে লকডাউন বাড়ল 
কন্টেইনমেন্ট জোনে লকডাউনের মেয়াদ বাড়াল রাজ্য। আগামী ১৯ জুলাই পর্যন্ত ...বিশদ

09:12:10 AM

হাই মাদ্রাসা, আলিম ও ফাজিলের ফল কাল 
কাল, বৃহস্পতিবার প্রকাশিত হতে চলেছে মাদ্রাসা শিক্ষা পর্ষদ পরিচালিত হাই ...বিশদ

08:55:00 AM