Bartaman Patrika
হ য ব র ল
 

ক্ষুদিরামের ছেলেবেলা 

আমাদের এই দেশকে গড়ে তোলার জন্য অনেকে অনেকভাবে স্বার্থত্যাগ করে এগিয়ে এসেছিলেন। এই কলমে জানতে পারবে সেরকমই মহান মানুষদের ছেলেবেলার কথা। এবার শহিদ ক্ষুদিরাম বসু। লিখেছেন চকিতা চট্টোপাধ্যায়।

ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামের ইতিহাসে শহিদ ক্ষুদিরামের নাম অমর হয়ে আছে। ফাঁসির মঞ্চে যাঁরা দেশের স্বাধীনতার জন্য প্রাণ বিসর্জন দিয়েছেন তাঁদের মধ্যে প্রথম বিপ্লবী ছিলেন ক্ষুদিরাম বসু। আজ তোমাদের শোনাব তাঁর ছেলেবেলার কথা, কেমন করে তিনি হয়ে উঠলেন বীর বিপ্লবী ক্ষুদিরাম। ১৮৮৯ সালের ৩ ডিসেম্বর মেদিনীপুরের হাবিবপুর গ্রামে ত্রৈলোক্যনাথ ও লক্ষ্মীদেবীর ঘরে জন্ম হয়েছিল ক্ষুদিরামের। ক্ষুদিরামের নাম কেন ‘ক্ষুদিরাম’ হয়েছিল জানো? ক্ষুদিরামের জন্মের ঠিক আগে তাঁর দুই দাদা শিশু অবস্থাতেই মারা যান। সেই সময় মানুষের মনে একটা সংস্কার ছিল যে, যদি শিশুর জন্মের পর কোনও আত্মীয় তাকে কিনে নেন ‘কড়ি’ অথবা ‘খুদ’-এর বিনিময়, তাহলে সেই শিশুর অকাল মৃত্যু হবে না। তাই ক্ষুদিরামের মা ছেলের জীবন বাঁচাতে নিজের মেয়ে অপরূপার কাছে তিন মুঠো খুদের বিনিময় তাঁকে বিক্রি করে দিয়েছিলেন। এই জন্যই তাঁর নাম হয় ‘ক্ষুদিরাম’। মাত্র দু’বছর বয়সেই মাকে হারালেন ক্ষুদিরাম। বাবাকে হারালেন সাত বছর বয়সে। দিদি অপরূপা নিজের শ্বশুরবাড়ি দাসপুরের হাটগাছা গ্রামে তাঁকে নিয়ে এলেন। ক্ষুদিরাম বড় হতে লাগলেন দিদির বাড়িতেই। জামাইবাবু অমৃতলাল রায় বদলি হয়ে গেলেন তমলুকে। ক্ষুদিরাম তাঁদের সঙ্গে তমলুকে চলে এলেন। ভর্তি হলেন তমলুকের হ্যামিলটন স্কুলে। পড়াশুনোয় কিন্তু একদম মন ছিল না তাঁর। মন পড়ে থাকত নানান রকম দুরন্তপনার দিকে। যদিও তিনি খুব একগুঁয়ে ছিলেন, কিন্তু তাঁর স্বভাবটি ছিল খুব মিষ্টি। তাই মাস্টারমশাইরা তাঁকে খুব ভালোবাসতেন। জামাইবাবু অমৃতলাল আবার বদলি হলেন। এবার মেদিনীপুর শহরে। ক্ষুদিরামও এসে ভর্তি হলেন মেদিনীপুর কলেজিয়েট স্কুলে। তখন দেশে স্বদেশি আন্দোলনের জোয়ার বয়ে চলেছে চারদিকে। এই মেদিনীপুর কলেজিয়েট স্কুলে ক্ষুদিরাম শিক্ষক হিসেবে পেলেন সত্যেন্দ্রনাথ বসুকে। গুরুশিষ্যর এখানেই হল প্রথম দেখা।
মেদিনীপুরের কাঁসাই নদীর ধারে ঘন জঙ্গলের মধ্যে ছিল এক ভাঙা মন্দির। সেই মন্দিরের দেবতা বুড়ো শিব নাকি খুব জাগ্রত। ভক্তের প্রার্থনা অপূর্ণ রাখেন না তিনি। ক্ষুদিরাম গুটি গুটি পায়ে একদিন এসে দাঁড়ালেন সেই মন্দিরের দরজায়। তাঁর মনের ইচ্ছের কথা জানালেন বুড়ো শিবকে। এমন সময় হঠাৎ শোনেন তাঁর নাম ধরে কেউ ডাকছে। দেখেন মাস্টারমশাই সত্যেন্দ্রনাথ। চমকে গেলেন ক্ষুদিরাম। সত্যেন্দ্রনাথ জিজ্ঞেস করলেন, ‘তুমি এখানে? কেন এসেছ?’ ক্ষুদিরাম বললেন, ‘বর চাইতে’। সত্যেন্দ্রনাথ জানতে চাইলেন, ‘কী বর চাইলে?’ ক্ষুদিরাম বললেন, ‘দেশের মুক্তি। দেশের স্বাধীনতা।’ অবাক হয়ে গেলেন মাস্টারমশাই! বললেন, ‘দেশকে তুমি এত ভালোবাসো? নিজের জন্য কিছু না চেয়ে ভগবানের কাছে দেশের স্বাধীনতা চাইতে এসেছ?’ ক্ষুদিরাম বললেন, ‘দেশকে যে আমি খুব ভালোবাসি মাস্টারমশাই!’ মাস্টারমশাই বোধহয় এইটুকু শোনার জন্যই অপেক্ষা করছিলেন। বললেন, ‘পারবে প্রয়োজন হলে দেশের জন্য প্রাণ দিতে?’ ক্ষুদিরাম নির্ভীক কণ্ঠে বললেন, ‘পারব মাস্টারমশাই।’ সত্যেন্দ্রনাথ বললেন, ‘দেশের জন্য তোমার প্রাণ উৎসর্গ করতে হবে। দেশের মুক্তির জন্য তোমায় দীক্ষা নিতে হবে।’ ক্ষুদিরাম ব্যাকুল হয়ে বললেন, আমায় দীক্ষা দিন মাস্টারমশাই! দেশের জন্য আমি প্রাণ বিসর্জন দেব!’ তাঁর ব্যাকুলতা দেখে তিনি বললেন, ‘বেশ। আজ থেকে তুমি হবে আমাদের গুপ্ত সমিতির সদস্য।’
এই গুপ্ত সমিতিতে ছেলেদের লাঠিখেলা, তলোয়ার চালানো, কুস্তি করা, বন্দুক চালানো, ঘোড়ায় চড়া, সব কিছু শেখানো হতো। অল্প ক’দিনের মধ্যেই ক্ষুদিরাম সব কিছুতেই পারদর্শী হয়ে উঠলেন।
দিদির নিরাপদ আশ্রয় এবার ছাড়লেন ক্ষুদিরাম। পুরোপুরি দেশের কাজে নিজেকে সঁপে দিলেন। এই সময় থেকে তাঁর কাজ হল বিলিতি কাপড়ের গাঁট লুঠ করা, বিলিতি কাপড় পোড়ানো, বিলিতি লবণের নৌকা ডুবিয়ে দেওয়া। পাশাপাশি পিস্তল ছোঁড়াও অভ্যাস করতেন তিনি।
পরের দুঃখ দেখলে ক্ষুদিরাম আর নিজেকে স্থির রাখতে পারতেন না। জীবন পণ করে ঝাঁপিয়ে পড়তেন সমস্যা সমাধানের জন্য। একবার কাঁসাই নদীর বন্যায় গ্রাম ভেসে গেল। ক্ষুদিরাম ‘রণ-পা’ পরে সেখানে ছুটে গেলেন ত্রাণ কাজ করার জন্য। গ্রামে কোনও কারণে আগুন লাগলে, কিংবা ওলাওঠা বা বসন্তের মতো রোগের মহামারী শুরু হলে ক্ষুদিরাম তাঁদের সমিতির ছেলেদের নিয়ে নিজের জীবন তুচ্ছ করে ঝাঁপিয়ে পড়তেন মানুষের সেবায়।
১৯০৬ সালে মেদিনীপুরের মারাঠা কেল্লা অর্থাৎ পুরোনো জেলখানার মাঠে ‘কৃষিশিল্প প্রদর্শনী ও মেলা’ বসেছে। প্রচুর লোক এসেছে সেই মেলায়। বিপ্লবী দলের পত্রিকা ‘সোনার বাংলা’ বিলি করছেন ক্ষুদিরাম। পুলিস হঠাৎ শুরু করল স্বদেশিদের ধরপাকড়। ক্ষুদিরাম পুলিসকে মেরে সেখান থেকে পালালেন। তাঁর বিরুদ্ধে মামলা উঠল আদালতে। বয়স কম বলে তাঁকে শাস্তি দেওয়া হল না।
এর কিছুদিন পরই ঘটল সেই ঐতিহাসিক ঘটনা। অত্যাচারী ম্যাজিস্ট্রেট কিংসফোর্ডকে হত্যা করার জন্য নির্বাচিত হলেন ক্ষুদিরাম ও প্রফুল্ল চাকী। বিপ্লবী দলের আদেশে তাঁরা দু’জন ১৯০৮ সালের ৩০ এপ্রিল কিংসফোর্ডের ঘোড়ার গাড়ি লক্ষ্য করে বোমা ছুঁড়লেন। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত, সে গাড়িতে কিংসফোর্ড ছিলেন না, ছিলেন দু’জন নিরীহ স্ত্রীলোক মিসেস এবং মিস কেনেডি। ক্ষুদিরাম ও প্রফুল্ল চাকী সেখান থেকে পালালেন।
সারারাত রেললাইন ধরে হেঁটে পরদিন ভোরে চব্বিশ মাইল দূরের ওয়াইনি স্টেশানে পৌঁছলেন ক্ষুদিরাম। খিদে তেষ্টায় বাধ্য হয়ে একটি মুদির দোকানে যখন খাবার কিনে খাচ্ছেন, তখন তাঁকে দেখতে পেয়ে গেল দু’জন কন্সটেবল ফতে সিং আর শিবপ্রসাদ মিশ্র। ক্ষুদিরাম কোমরে গোঁজা পিস্তল বার করবার আগেই তারা দু’জন দু’পাশ থেকে জাপটে ধরে ফেলল তাঁকে।
পয়লা মে ধরা পড়লেন তিনি। কোর্টে মামলা উঠল। বিনা পারিশ্রমিকে আইনজীবী কালিদাস বসু, সতীশ চক্রবর্তী, নৃপেন লাহিড়ী মামলা লড়লেন। কিন্তু তবু বাঁচাতে পারলেন না তাঁকে।
১৯০৮ সালের ১১ আগস্ট ফাঁসির দিন ধার্য হল তাঁর। ভারত মায়ের সোনার ছেলে ক্ষুদিরাম হাসতে হাসতে নিজেই এগিয়ে গেলেন ফাঁসির মঞ্চের দিকে। সোজা দৃপ্ত ভঙ্গিতে দাঁড়িয়ে দেশের স্বাধীনতার জন্য নিজের অমূল্য প্রাণ-বিসর্জন দিলেন তিনি। অমর হয়ে রয়ে গেলেন শুধু ইতিহাসেই নয়, প্রতিটি ভারতবাসীর মনের মধ্যেও। দেশের পথে প্রান্তরে বাউল, ফকিরদের কণ্ঠে ছড়িয়ে পড়ল ক্ষুদিরামকে নিয়ে পল্লীকবির বাঁধা সেই
চিরন্তন গান —
‘একবার বিদায় দে মা ঘুরে আসি—
হাসি হাসি পরব ফাঁসি
দেখবে ভারতবাসী।’
ছবি: সংশ্লিষ্ট সংস্থার সৌজন্যে 
11th  August, 2019
‘চিন্তার জগৎকে বড় করে পৃথিবীটা বদলে দিন...’ 

আর্নল্ড শোয়ার্জেনেগারকে পৃথিবী চেনে ‘টার্মিনেটর’ হিসেবে। তিনি একজন অভিনেতা, পেশাদার বডিবিল্ডার। রাজনীতিও করেছেন। ছিলেন ক্যালিফোর্নিয়ার গভর্নর। এসব পরিচয় ছাপিয়েও তরুণদের কাছে তিনি একজন অনুপ্রেরণাদায়ী বক্তা। সম্প্রতি স্পিকোলা ডটকম-এ প্রকাশিত হয় অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে দেওয়া তাঁর এক বক্তৃতা। সেই বক্তৃতা তোমাদের জন্য তুলে দিলেন মৃণালকান্তি দাস। 
বিশদ

24th  November, 2019
সারা বাংলা অঙ্কন প্রতিযোগিতার আয়োজন
করেছে ইনস্টিটিউট অব ফিজিক্যাল কালচার 

আজ তোমাদের একটা ভালো খবর দিই। তোমরা যারা ছবি আঁকতে ভালোবাসো তাদের কথা মাথায় রেখে সারা বাংলা অঙ্কন প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছে ইনস্টিটিউট অব ফিজিক্যাল কালচার। আগামী ১৫ ডিসেম্বর সংস্থার নির্দিষ্ট জায়গায় এই বিশেষ প্রতিযোগিতাটি হবে। 
বিশদ

24th  November, 2019
মার্কশিট

তোমাদের জন্য শুরু হয়েছে নতুন বিভাগ। এই বিভাগে থাকছে পরীক্ষায় নম্বর বাড়ানোর সুলুক সন্ধান। এবারের বিষয় ইংরেজি।
  বিশদ

24th  November, 2019
নোলকপুরের গোলকরাজা
প্রদীপ আচার্য

নোলকপুরের রাজার কান্না আর থামছে না। দিনরাত ভেউ ভেউ করে কেঁদেই চলেছে। ঘুম থেকে উঠেই রাজা কাঁদতে শুরু করে। আবার কাঁদতে কাঁদতেই ঘুমিয়ে পড়ে। তারই ফাঁকে ব্রেকফাস্টে গোটা দুয়েক আস্ত চিকেন রোস্ট, দিস্তা দিস্তা বাটার টোস্ট, কাটলেট, ওমলেট ভরপেট খাচ্ছে। 
বিশদ

24th  November, 2019
গোলাপি বিপ্লবের সন্ধিক্ষণে ইডেন

ছোট্টবন্ধুরা! তোমরা যারা ক্রিকেট খেলা দেখতে ভালোবাসো, বা যারা ক্রিকেটের খোঁজখবর একটু আধটু রাখো, তারা নিশ্চয়ই ইডেনে দিন-রাতের টেস্ট ম্যাচ হওয়ার খবর জানো। ভারত তাদের প্রথম দিন-রাতের টেস্ট ম্যাচটি খেলতে নামছে ২২ নভেম্বর, বাংলাদেশের বিরুদ্ধে। 
বিশদ

17th  November, 2019
অরণ্যে অ্যাডভেঞ্চার

গা ছমছমে গহিন অরণ্য। দূর থেকে শোনা যাচ্ছে জলপ্রপাতের গর্জন। পথে বন্য পশুর ভয়। কোথাও ভয়ঙ্কর নদী পেরতে হবে। এমনই কয়েকটি অরণ্যের কথা তোমাদের শুনিয়েছেন সায়ন নস্কর। 
বিশদ

17th  November, 2019
ছোটদের রান্নাঘর 

তোমাদের জন্য চলছে একটি আকর্ষণীয় বিভাগ ছোটদের রান্নাঘর। এই বিভাগ পড়ে তোমরা নিজেরাই তৈরি করে ফেলতে পারবে লোভনীয় খাবারদাবার। বাবা-মাকেও চিন্তায় পড়তে হবে না। কারণ আগুনের সাহায্য ছাড়া তৈরি করা যায় এমন রেসিপিই থাকবে তোমাদের জন্য। এবার সেরকমই দুটি জিভে জল আনা রেসিপি দিয়েছেন দ্য পার্কিং লট রেস্তোরাঁর এক্সিকিউটিভ শেফ সুমিত রঘুবংশী। 
বিশদ

10th  November, 2019
জওহরলাল নেহরুর ছেলেবেলা 

আমাদের এই দেশকে গড়ে তোলার জন্য অনেকে অনেকভাবে স্বার্থত্যাগ করে এগিয়ে এসেছিলেন। এই কলমে জানতে পারবে সেরকমই মহান মানুষদের ছেলেবেলার কথা। এবার পণ্ডিত জওহরলাল নেহরু। লিখেছেন চকিতা চট্টোপাধ্যায়। 
বিশদ

10th  November, 2019
ছোটদের ভালোবাসতেন চাচা নেহেরু 

স্বাধীন ভারতের প্রথম প্রধানমন্ত্রী জওহরলাল নেহরু। শিশুদের কাছে তিনি চাচা নেহরু হিসেবে বেশি জনপ্রিয়। নেহরু ছোটদের খুব ভালোবাসতেন বলে তাঁর জন্মদিনটি অর্থাৎ ১৪ নভেম্বর দেশজুড়ে শিশুদিবস পালিত হয়। প্রিয় চাচা নেহরুকে নিয়ে লিখেছে বিভিন্ন স্কুলের ছাত্রছাত্রীরা।  
বিশদ

10th  November, 2019
মার্কশিট 

তোমাদের জন্য চলছে নতুন বিভাগ। এই বিভাগে থাকছে পরীক্ষায় নম্বর বাড়ানোর সুলুক সন্ধান। এবারের বিষয় বাংলা।
 
বিশদ

03rd  November, 2019
সে কি সত্যি হবে! 
আয়ূষী বন্দ্যোপাধ্যায়

পাইন আর দেওদার গাছের মধ্যে পাখির বাসা থাকে কি না তা ঠিক জানা নেই, তবে এক মিষ্টি পাখির কূজন কানে ভেসে আসে রোজই। গতকাল রাতে অমন ঝড়, বৃষ্টি, দম্ভোলি হয়েছে কে বলবে? ভোরের প্রভাকরের প্রকীর্ণ আভা যেন দুর্যোগকে নিশ্চিহ্ন করেছে। ঈশ্বরের দেশে সবই তো তাঁর লীলাখেলা, সেখানে যে নেই কোনও মোহ, মায়া, মাৎসর্য। শুধুই আছে মনকে দয়ার্দ্র করে তোলার পরিপূর্ণ রসদ। 
বিশদ

03rd  November, 2019
পুজোর ছুটি 

পুজোর ছুটিতে কে কী করবে তার পরিকল্পনা অনেক আগেই সেরে ফেলে ছোটরা। সেই তালিকায় ঠাকুর দেখা, খাওয়া-দাওয়া, বন্ধুদের সঙ্গে গল্পগুজব, মামার বাড়ি যাওয়া, বেড়ানো, গল্পের বই পড়া, খেলাধুলো সবই থাকে। এবারের পুজোর ছুটি কার কেমন কাটাল তোমাদের শোনাচ্ছে বৈঁচি বিহারীলাল মুখার্জি’স ফ্রি ইনস্টিটিউশনের ছাত্র-ছাত্রীরা। 
বিশদ

03rd  November, 2019
 আলোর উৎসব
কা লী পু জো

 রং-বেরঙের আলো দিয়ে বাড়ি সাজানো, তুবড়ি, হাউই আর রংমশালের আলোর ছটা, মিষ্টিমুখ, রাত জেগে পুজো দেখা... এমনভাবেই কেটে যায় কালীপুজোর দিনটা। জানাল বিভিন্ন স্কুলের ছেলেমেয়েরা। বিশদ

27th  October, 2019
 ভগিনী নিবেদিতা

 আমাদের এই দেশকে গড়ে তোলার জন্য অনেকে অনেকভাবে স্বার্থত্যাগ করে এগিয়ে এসেছিলেন। এই কলমে জানতে পারবে সেরকমই মহান মানুষদের ছেলেবেলার কথা। এবার ভগিনী নিবেদিতা। লিখেছেন চকিতা চট্টোপাধ্যায়। বিশদ

27th  October, 2019
একনজরে
বিএনএ, মালদহ: উত্তর-পূর্ব ভারত থেকে বাংলাদেশে পাচার করা হচ্ছে মাদক ট্যাবলেট। আর সেই পাচারের রুট হিসেবে এখন দুষ্কৃতীদের পছন্দের তালিকায় উঠে এসেছে মালদহ সহ উত্তরবঙ্গের ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, হাওড়া: সমস্ত দপ্তরের অফিসারদের নিয়ে এবার ব্লক অফিসে গিয়ে বৈঠক করে কাজের হালহকিকত খতিয়ে দেখতে শুরু করলেন হাওড়ার জেলাশাসক মুক্তা আর্য। বৃহস্পতিবার তিনি সাঁকরাইল ব্লকে প্রশাসনিক বৈঠক করেন। এর আগে তিনি আমতা-২ ব্লকেও প্রশাসনিক বৈঠক করেছিলেন। ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: সাইনি হুন্ডাইয়ের উদ্যোগে ২৯তম ফ্রি কার কেয়ার ক্লিনিকের আয়োজন করা হয়েছে। শুক্রবার থেকে সেই ক্লিনিক শুরু হয়েছে। তা চলবে ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত। ...

নয়াদিল্লি, ৬ ডিসেম্বর (পিটিআই): একমাত্র পশ্চিমবঙ্গ ছাড়া সব রাজ্যই প্রধানমন্ত্রী কিষান যোজনার সুফল নিয়েছে। শুক্রবার রাজ্যসভায় এ কথা জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমার। তিনি বলেছেন, ‘প্রধানমন্ত্রী কিষান যোজনায় বছরে বরাদ্দ ছ’হাজার কোটি টাকা।  ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
aries

মানসিক অস্থিরতা দেখা দেবে। বন্ধু-বান্ধবদের থেকে দূরত্ব বজায় রাখা দরকার। কর্মে একাধিক শুভ যোগাযোগ আসবে। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৮৭২: কলকাতায় প্রতিষ্ঠিত হল ন্যাশনাল থিয়েটার
১৯৪১: দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে পার্ল হারবারে বোমাবর্ষণ
১৯৮৪: বরুণ সেনগুপ্তের সম্পাদনায় আত্মপ্রকাশ করল ‘বর্তমান’  





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.৪৯ টাকা ৭২.১৯ টাকা
পাউন্ড ৯২.২০ টাকা ৯৫.৫৪ টাকা
ইউরো ৭৭.৭৫ টাকা ৮০.৭৪ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৮,৬৫০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬,৬৭০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৭,২২০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৪,২৫০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৪,৩৫০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ৭ ডিসেম্বর ২০১৯, শনিবার, দশমী ১/৭ দিবা ৬/৩৪। রেবতী ৪৭/৫০ রাত্রি ১/২৮। সূ উ ৬/৭/৩৪, অ ৪/৪৮/২, অমৃতযোগ দিবা ৬/৫১ মধ্যে পুনঃ ৭/৩৩ গতে ৯/৪১ মধ্যে পুনঃ ১১/৪৯ গতে ২/৪০ মধ্যে পুনঃ ৩/২৩ গতে অস্তাবধি। রাত্রি ১২/৪৮ গতে ২/৩৫ মধ্যে, বারবেলা ৭/২৭ মধ্যে পুনঃ ১২/৪৭ গতে ২/৮ মধ্যে পুনঃ ৩/২৮ গতে অস্তাবধি, কালরাত্রি ৬/২৮ মধ্যে পুনঃ ৪/২৬ গতে উদয়াবধি। 
২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ৭ ডিসেম্বর ২০১৯, শনিবার, একাদশী ৬০/০/০ অহোরাত্র। রেবতী ৪৭/৫০/২৭ রাত্রি ১/১৭/৯, সূ উ ৬/৮/৫৮, অ ৪/৪৮/৩৬, অমৃতযোগ দিবা ৭/১ মধ্যে ও ৭/৪৩ গতে ৯/৫০ মধ্যে ও ১১/৫৭ গতে ২/৫২ মধ্যে ও ৩/২৭ গতে ৪/৪৯ মধ্যে এবং রাত্রি ১২/৫৬ গতে ২/৪৩ মধ্যে, কালবেলা ৭/২৮/৫৫ মধ্যে ও ৩/২৮/৩৮ গতে ৪/৪৮/৩৬ মধ্যে, কালরাত্রি ৬/২৮/৩৯ মধ্যে ও ৪/২৮/৫৬ গতে ৬/৯/৩৭ মধ্যে। 
৯ রবিয়স সানি

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
আলিপুরে ভেঙে পড়ল নির্মীয়মান বাড়ির একাংশ 
আলিপুর রোডে ভেঙে পড়ল নির্মীয়মাণ বহুতলের একাংশ। দুর্ঘটনায় এখনও পর্যন্ত ...বিশদ

05:05:00 PM

মালদহে মহিলার রহস্যমৃত্যুর ঘটনার তদন্তে অতিরিক্ত পুলিস সুপারকে ঘেরাও করে বিক্ষোভ বিজেপির 

03:51:00 PM

মালদা, বালুরঘাট, কোচবিহার বিমানবন্দর নবীকরণের উদ্যোগ নিয়েছে রাজ্য সরকার, জানালেন মুখ্যমন্ত্রী 
মালদা, বালুরঘাট, কোচবিহারের মতো অব্যবহৃত বিমানবন্দর ও বিমান স্ট্রিপগুলির নবীকরণের ...বিশদ

03:34:00 PM

একনজরে গতকালের ম্যাচের রেকর্ডগুলি 
গতকাল হায়দরাবাদে প্রথম টি-২০ ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে দারুণ জয় ...বিশদ

02:35:02 PM

বাটানগরে জলের পাইপের স্তূপে আগুন, ঘটনাস্থলে দমকল 
মহেশতলা পুরসভার ৩২ নম্বর ওয়ার্ডের বাটা রিভারসাইড প্রোজেক্ট সংলগ্ন এলাকায় ...বিশদ

12:41:00 PM

বি গার্ডেন লেনে ব্যক্তির দেহ উদ্ধার 
হাওড়ার বি গার্ডেন লেনে এক ব্যক্তির দেহ উদ্ধার হল। মৃতের ...বিশদ

12:16:18 PM