Bartaman Patrika
হ য ব র ল
 

মার্কশিট
মাধ্যমিকে চলতড়িৎ খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি অধ্যায় 

ভৌতবিজ্ঞান বিষয়টি নিয়ে অনেক ছাত্রছাত্রীদেরই একটা ভীতি থেকে যায়। বিশেষ করে যখন পরীক্ষায় ছাত্রছাত্রীদের ভৌতবিজ্ঞানের বেশ কিছু গাণিতিক সমস্যার সম্মুখীন হতে হয় তখন তাদের ভীতি আরও বেড়ে যায়। কিন্তু ছাত্ররা, তোমাদের মাথায় রাখতে হবে ভবিষ্যতে অর্থাৎ ক্লাস XI-XII এবং আরও পরবর্তী ধাপে বিজ্ঞানমুখী পড়াশোনা শুরু করার ক্ষেত্রে ক্লাস IX এবং ক্লাস X-এ যে ভৌতবিজ্ঞান বিষয়টি পড়ানো হয় সেটিই হল প্রধান স্তম্ভ। বিষয়টি তোমাদের স্বাধীন ও যুক্তিনির্ভর মানসিকতার বিকাশের প্রধান সহায়ক। ক্লাস X-এ সিলেবাস অনুযায়ী প্রথমে তোমাদের পদার্থবিজ্ঞান ও রসায়ন-এর সম্মিলিত তিনটি সাধারণ অধ্যায় পড়ানো হয়, যাতে থাকে মোট ১৭ নম্বর। এরপর পদার্থবিজ্ঞানের চারটি অধ্যায় নিয়ে আলোচনা করা হয় যাতে মোট ৩৪ নম্বর বরাদ্দ থাকে। সর্বশেষ রসায়নের ছয়টি অধ্যায় থাকে মোট ৩৯ নম্বরের। আজ তোমাদের সঙ্গে আলোচনা করব পদার্থবিজ্ঞানের একটি গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায় চলতড়িৎ নিয়ে। মাধ্যমিকে এই অধ্যায় থেকে তোমাদের গাণিতিক সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। অধ্যায়টির নাম যদিও চলতড়িৎ কিন্তু এই অধ্যায়ের শুরুতে তোমাদের পড়তে হয় স্থিরতড়িতের আলোচনা (কুলম্বের সূত্র) এবং তারপর চলতড়িৎ সংক্রান্ত বিষয়। অধ্যায়টির শেষ অংশে থাকে তড়িৎ চুম্বক সংক্রান্ত বিষয়। সুতরাং তোমরা বুঝতেই পারছ অধ্যায়টির বিষয়বস্তু অত্যন্ত বিস্তৃত। তড়িদাধানের ধারণা থেকে অধ্যায়টির শুরু। দুটি তড়িদাধানের মাঝে কাজ করে আকর্ষণ বা বিকর্ষণ বল। যে বলের মান নির্ণয় করা যায় কুলম্বের সূত্র থেকে। তাই সূত্রটির গাণিতিক রূপ মনে রাখা তোমাদের ভীষণ প্রয়োজন। বলটি আকর্ষণ হবে না বিকর্ষণ তা নির্ভর করে আধানদ্বয়ের পোলারিটির উপর। তাই আধানের মান ও পোলারিটি দুটিই প্রয়োজন হয় বলের মান ও বলের প্রকৃতি জানার জন্য। এই স্থিরতড়িৎ বলের ধারণা থেকে আসে তড়িৎক্ষেত্রের (Electric field) ধারণা। এই দুই ভৌত রাশিরই মান ও অভিমুখ উভয়ই বর্তমান অর্থাৎ এরা ভেক্টর রাশি। আবার তোমরা কার্যের ধারণা পেয়েছ ক্লাস IX-এ। স্থিরতড়িৎ বলের বিরুদ্ধে কার্যের ধারণা থেকে আসে তড়িৎ বিভবের ধারণা। কার্য যেহেতু স্কেলার রাশি তাই বিভব হল স্কেলার রাশি। বিভব এবং বিভবপ্রভেদ নিয়ে তোমাদের ধারণা স্বচ্ছ থাকা দরকার। বিভবের মধ্যে থাকে অসীমের ধারণা কারণ অসীমে কোনও তড়িৎ আধানের জন্য তড়িৎক্ষেত্র শূন্য হয়ে যায়। অসীম আমাদের পরিমাপ যোগ্য নয় বলে এসেছে বিভবপ্রভেদের ধারণা।
দুটি বস্তুতে ধনাত্মক ও ঋণাত্মক তড়িৎ আধানের পার্থক্য থাকলে তাদের মধ্যে তৈরি হয় বিভবপ্রভেদের। এই বিভব প্রভেদই তড়িৎ প্রবাহের কারণ। তড়িৎ প্রবাহিত হয় উচ্চ বিভবযুক্ত বস্তু থেকে নিম্ন বিভবযুক্ত বস্তুতে এবং ততক্ষণই এই প্রবাহ চলে যতক্ষণ বিভবপ্রভেদ বজায় থাকে। চলতড়িতের কথা বলতে গিয়ে যে বিজ্ঞানীর কথা প্রথম মনে আসে তিনি হলেন বিজ্ঞানী ওহম্‌। ওহমের সূত্রানুযায়ী কোনও পরিবাহীর দুই প্রান্তের বিভবপ্রভেদ এবং তার মধ্য দিয়ে তড়িৎপ্রবাহ পরস্পরের সমানুপাতিক হয়। যে সূত্র থেকে আমরা পরিবাহীর রোধের ধারণা পাই। গাণিতিক সমস্যা সমাধানের জন্য তোমাদের R= সমীকরণটি বিশেষ ভাবে মনে রাখতে হবে। যেখানে R হল পরিবাহীর রোধ, r হল পরিবাহীর রোধাঙ্ক এবং L, A হল যথাক্রমে পরিবাহীর দৈর্ঘ্য এবং প্রস্থচ্ছেদ। বলা হয় কোনও পরিবাহীর দৈর্ঘ্য X শতাংশ পরিবর্তন হলে রোধের শতকরা কী পরিবর্তন হবে? সেক্ষেত্রে তোমাদের দৈর্ঘ্য পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে পরিবাহীর প্রস্থের পরিবর্তন গণনা করতে ভুললে চলবে না। কারণ পরিবাহী তারটির মোট ভর কিন্তু অপরিবর্তনীয় থাকে। পরিবাহীর তড়িৎ পরিবহণের দরুন যে তড়িৎ ক্ষমতা ব্যয় হয় তার রাশিমালা তোমরা জানো P=I2R বা P = । কিন্তু কোন সূত্রটি শ্রেণীসমবায়ের ক্ষেত্রে অথবা কোনটি সমান্তরাল সমবায়ের ক্ষেত্রে প্রয়োগ করবে তার দিকে তোমাদের বিশেষ নজর দিতে হবে। চলতড়িৎ যে চৌম্বক ক্ষেত্র সৃষ্টি করতে পারে তার কথা তোমরা জানো বিজ্ঞানী ওরস্টেডের পরীক্ষা থেকে। এক্ষেত্রে চৌম্বক শলাকার বিক্ষেপণ কোন দিকে হবে সেই সংক্রান্ত নিয়মগুলি যত্ন নিয়ে পড়তে হবে। চৌম্বক ক্ষেত্রের মধ্যে তড়িৎবাহী পরিবাহীর ওপর যে বল প্রয়োগ হয় তা বার্লোচক্রে দেখা যায়। ফ্লেমিং-এর বাম হস্ত নিয়মটি এক্ষেত্রে বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য। বার্লোচক্রের বৃহত্তর প্রয়োগ হিসাবে তৈরি হয়েছে ইলেকট্রিক মোটর। আবার মোটরের ঠিক বিপরীত নীতি অনুসরণ করে অর্থাৎ যান্ত্রিক শক্তিকে তড়িৎ শক্তিতে রূপান্তরের নীতিকে অনুসরণ করে এসেছে ইলেকট্রিক জেনারেটর (D.C. এবং A.C.)।
একটি D.C. জেনারেটর ও A.C. জেনারেটরের গঠনগত পার্থক্য ঠিক কোথায় তা যদি তোমরা জেনারেটরের বর্তনী চিত্র অঙ্কন করে বোঝার চেষ্টা কর তবে মনে রাখা সহজ হবে। চৌম্বক ক্ষেত্রের অভিমুখ ও আর্মেচারের ঘূর্ণনের অভিমুখ অনুযায়ী ফ্লেমিং-এর দক্ষিণ হস্ত নিয়ম মেনে নিজেরাই আবিষ্ট তড়িৎ প্রবাহের অভিমুখ নির্ধারণের চেষ্টা করবে। তড়িৎ চুম্বকীয় আবেশের প্রাথমিক সূত্র অর্থাৎ ফ্যারাডের সূত্রাবলি বোঝার জন্য তোমরা চৌম্বক আবেশ, চৌম্বক প্রবাহ প্রভৃতি ভৌত রাশিগুলি বিশেষ ভাবে বুঝে নেবার চেষ্টা করবে। আর সব শেষে একটাই কথা বলার যে, ভৌতবিজ্ঞানের যে অধ্যায়ই তোমরা পড়ো না কেন জানার আগ্রহ নিয়ে পড়বে তাহলে তা অনেক বেশি তোমাদের আত্মস্থ হবে। 
28th  July, 2019
বেলুন আবিষ্কারের গল্প

চাঁদে বা মঙ্গলগ্রহে যাওয়া এখন জলভাত। কিন্তু একদিন ছিল যখন আকাশে ওড়া মানুষের পক্ষে যে সম্ভব তা ভাবাই যেত না। প্রথম মানুষ আকাশে উড়ল বেলুন চড়ে। সেই গল্প শোনালেন সুপ্রিয় নায়েক। বিশদ

29th  November, 2020
আচার্য জগদীশচন্দ্র বসুর ছেলেবেলা

‘বিজ্ঞান প্রাচ্যেরও নহে, পাশ্চাত্যেরও নহে, ইহা বিশ্বজনীন’—বলেছিলেন আচার্য জগদীশচন্দ্র বসু, যাঁর বিজ্ঞান সাধনার মধ্যে দিয়ে প্রাচ্যে র দর্শন ও পাশ্চাত্যের বিজ্ঞান ধারার মধ্যে ঘটেছিল এক আশ্চর্য সেতুবন্ধন! আজ তোমাদের শোনাব সেই মহান বিজ্ঞানীর জীবনের কথা। বিশদ

29th  November, 2020
ভুটু জানত 

পিয়ালী ম্যামকে খুব ভালোবাসে ভুটু। ভুটুর রোজ ইচ্ছে করে ম্যাম তাকে চুমু খাক, আদর করুক। কিন্তু ম্যাম তো ভুটুর দিকে ভালো করে তাকায়ই না। ম্যাম তো শুধু আদর করে অর্চিকে। অর্চির সাদা রং, মানুষ সাদা হলে তাকে ফর্সা বলতে হয়, মা বলেছে। অর্চির মাথায় কী সুন্দুর ঝাঁকড়া চুল। অর্চি খুব সুন্দর। সে তো ব্ল্যাক, কালো পচা। এসব কথা মাকে বললেই মা তাকে বুকের মধ্যে জড়িয়ে ধরে। মা ধরলে কী হবে ম্যাম তো তাকে আদর করে না।  
বিশদ

22nd  November, 2020
চাঁদের বুকে জলের খোঁজ 

জল থেকে তৈরি হতে পারে অক্সিজেন। এমনকী জলে থাকা হাইড্রোজেনকে জ্বালানি হিসেবে ব্যবহার করা যায়! তবে কি খুব দ্রুত চাঁদের মাটিতে বাড়ি তৈরি করা যাবে? জানাচ্ছেন এমপি বিড়লা তারামণ্ডলের অধিকর্তা ডঃ দেবীপ্রসাদ দুয়ারি। 
বিশদ

22nd  November, 2020
জমিতে ফাটল! তৈরি হচ্ছে নতুন মহাদেশ! 

সামান্য কিছু জমির মালিক বৃদ্ধ এলিউড এনজর্জ এমবুগুয়া। চাষবাস করে দিন চলে বুড়োর। জমির পাশে একখানি কুঁড়ে। সেখানেই বাস করে সে আর তাঁর স্ত্রী। এভাবেই শান্তিতে দিন কাটছিল। বাকি জীবনটাও হয়তো এভাবেই ধীরেসুস্থে কেটে যেত। বাধ সাধল একটা অদ্ভুত ঘটনা! কী সেই ঘটনা? দেখা যাক।  বিশদ

15th  November, 2020
ভিন রাজ্যে ভাইফোঁটার আনন্দ 

 শুধু আমাদের বাংলাতেই নয়, ভারতের বিভিন্ন রাজ্যেই নানান নামে ভাইফোঁটা পালিত হয়। ভারতের নানা প্রান্ত থেকে তোমাদের পাঁচ বন্ধু জানাচ্ছে কীভাবে কাটায় তারা ভাতৃদ্বিতীয়ার দিনটি। বিশদ

15th  November, 2020
মার্কশিট
মাধ্যমিক পরীক্ষায় ‘জ্ঞানচক্ষু’
গল্পটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ 

তোমাদের জন্য চলছে জনপ্রিয় বিভাগ মার্কশিট। এই বিভাগে থাকছে পরীক্ষায় নম্বর বাড়ানোর সুলুক সন্ধান। এবারের বিষয় বাংলা।  বিশদ

08th  November, 2020
ইন্দ্রজা, এবার দেওয়ালিতে
বাজি নাই বা পোড়ালে
ডাঃ অমিতাভ ভট্টাচার্য

ইন্দ্রজার মন খারাপ অনেকটাই কমেছে। ছ- মাসের উপর গৃহবন্দি থাকার পর এই পুজোর চারটে দিন মুখ-মাথা ঢেকে বন্ধুদের সাথে আবাসনের পুজোতে একটু হই হুল্লোড়ও করেছে। বাকিটা এই দেওয়ালিতে করবে, ভেবেই রেখেছে। বাজি পোড়ানোর প্ল্যান আছে বন্ধুদের সঙ্গে। বাবা প্রতি বছরই হরেক রকম বাজি কিনে আনেন বাজি বাজার থেকে। ফুলঝুরি, রং মশাল, তুবড়ি, চরকি— আরও কত কি!   বিশদ

08th  November, 2020
ছোটদের রান্নাঘর

করোনার দাপটে স্কুল বন্ধ। সুতরাং বাড়ি থেকে বেরিয়ে এটা ওটা খাওয়ারও জো নেই। তাই বলে কি লকডাউনে কোনও ভালো খাবারই চেখে দেখার সুযোগ হবে না? চিন্তা নেই, ছোটদের রান্নাঘরে শুধু তোমাদের জন্যই দুটি লোভনীয় রেসিপি দিয়েছেন ট্রাইব ক্যাফের শেফ শিল্পা চক্রবর্তী। এগুলি আগুনের সাহায্য ছাড়াই তৈরি করা যাবে। তোমরাই করে চমকে দাও বড়দের। বিশদ

01st  November, 2020
কালজয়ী ছোটদের ছবি

সময়কে হার মানানো কয়েকটি ইংরেজি ছবির গল্প শোনাচ্ছেন ড. শঙ্কর ঘোষ।  বিশদ

01st  November, 2020
বিস্ময়কর প্রাণী 

১৫০ মিলিয়ন বছর আগে যখন ডাইনোসরদের স্বর্ণযুগ ছিল সেই সময় পাখি নামক আর এক প্রজাতির উদ্ভব হয়েছিল। সরীসৃপের নানা বৈশিষ্ট্যের সঙ্গে সঙ্গে তারা পালকের মতো কিছু অসাধারণ বৈশিষ্ট্য অর্জন করেছিল।   বিশদ

18th  October, 2020
পুজোর আনন্দ 

করোনা ভাইরাস সংক্রমণের কথা মাথায় রেখে এবার কীভাবে পুজোর আনন্দ উপভোগ করবে জানাল তোমাদের দুই বন্ধু।   বিশদ

18th  October, 2020
মহিষাসুর 
হিমাদ্রিকিশোর দাশগুপ্ত

দুর্গাপুজোর মহাষষ্ঠী। সকালবেলাই পদ্মপুকুর গ্রামের পুজো প্যান্ডেলের ছোট আটচালার প্রতিমা এসে গিয়েছে, তবুও বিকেলবেলা প্যান্ডেলের সামনে দাঁড়িয়ে অধীর আগ্রহে গ্রামে ঢোকার রাস্তার দিকে তাকিয়ে ছিল পুজো কমিটির লোকজন ও গ্রামের নানা বয়সি বাচ্চারা।  বিশদ

18th  October, 2020
কয়েকটি আশ্চর্যজনক প্রাণীর কর্মকাণ্ড

পৃথিবীতে এমন অনেক প্রাণী আছে যাদের কিছুটা হলেও মানুষের মতো আচরণ করতে দেখা যায়। হ্যাঁ, আশ্চর্য মনে হলেও এমন প্রাণীর অস্তিত্ব আমাদের এই ব্রহ্মাণ্ডে আছে। ব্যালেট থেকে ট্যাঙ্গোর মতো প্রাণীরা তো নাচতেও পারে।  বিশদ

11th  October, 2020
একনজরে
চীন সহ যে কোনও দেশের হুমকি মোকাবিলায় প্রস্তুত ভারতীয় নৌবাহিনী। বৃহস্পতিবার নৌসেনা দিবস উপলক্ষে এক সাংবাদিক বৈঠকে এমনটাই জানিয়েছেন ভারতীয় নৌবাহিনীর প্রধান অ্যাডমিরাল করমবীর সিং। ...

অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ততম ফরম্যাটে ভালো ফল করাই এখন লক্ষ্য টিম ইন্ডিয়ার। একদিনের সিরিজের ব্যর্থতা থেকে শিক্ষা নিয়ে দলকে আরও শক্তপোক্ত করার চেষ্টা করবেন বলে ...

সংবাদদাতা, দিনহাটা: এক বছর আগে মৃত্যু হয়েছে মায়ের। গরিব, অসহায় ছেলে সরকারি সুবিধার আশায় মায়ের মৃত্যুর সরকারি নথির জন্য হন্যে হয়ে ঘুরছেন বছরভর। এখনও মেলেনি ডেথ সার্টিফিকেট।   ...

নয়া কৃষি আইনের প্রয়োগ রাজ্যে রুখে দিতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রশাসনের উপর চাপ বাড়াচ্ছে বাম ও কংগ্রেস। তারা চায় অবিলম্বে বিধানসভার অধিবেশন ডাকা হোক। আলোচনার মাধ্যমে রাজ্যস্তরে তৈরি করা হোক একটি পাল্টা আইন। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

অতি সত্যকথনের জন্য শত্রু বৃদ্ধি। বিদেশে গবেষণা বা কাজকর্মের সুযোগ হতে পারে। সপরিবারে দূরভ্রমণের যোগ। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

ভারতীয় নৌ দিবস
১১৩১- পারস্যের কবি ও দার্শনিক ওমর খৈয়ামের মৃত্যু
১৮২৯- সতীদাহ প্রথা রদ করলেন লর্ড বেন্টিঙ্ক
১৮৮৪- ঐতিহাসিক রমেশচন্দ্র মজুমদারের জন্ম
১৯১০- ভারতের ষষ্ঠ রাষ্ট্রপতি আর বেঙ্কটরামনের জন্ম
১৯২৪- মুম্বইয়ে গেটওয়ে অব ইন্ডিয়ার উদ্বোধন হল
১৯৭৭- ক্রিকেটার অজিত আগরকরের জন্ম  



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭২.৯৯ টাকা ৭৪.৭০ টাকা
পাউন্ড ৯৭.১৫ টাকা ১০০.৫৫ টাকা
ইউরো ৮৭.৯২ টাকা ৯১.১০ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৫০, ০৬০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৪৭, ৫০০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৪৮, ২১০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৬৩, ৬০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৬৩, ৭০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

১৮ অগ্রহায়ণ, ১৪২৭, শুক্রবার, ৪ ডিসেম্বর ২০২০, চতুর্থী ৩৪/৫৫ রাত্রি ৮/৪। পুনর্বসু নক্ষত্র ১৮/৫২ দিবা ১/৩৯। সূর্যোদয় ৬/৬/৩, সূর্যাস্ত ৪/৪৭/৩৯। অমৃতযোগ দিবা ৬/৪৮ মধ্যে পুনঃ ৭/৩২ গতে ৯/৪০ মধ্যে পুনঃ ১১/৪৮ গতে ২/৩৯ মধ্যে পুনঃ ৩/২৩ গতে অস্তাবধি। রাত্রি ৫/৪১ গতে ৯/১৪ মধ্যে পুনঃ ১১/৫৪ গতে ৩/২৭ মধ্যে পুনঃ ৪/২০ গতে উদয়াবধি। বারবেলা ৮/৪৫ গতে ১১/২৬ মধ্যে। কালরাত্রি ৮/৬ গতে ৯/৪৬ মধ্যে।
১৮ অগ্রহায়ণ, ১৪২৭, শুক্রবার, ৪ ডিসেম্বর ২০২০, চতুর্থী রাত্রি ৫/৪৫। পুনর্বসু নক্ষত্র দিবা ১২/২৮। সূর্যোদয় ৬/৭, সূর্যাস্ত ৪/৪৮। অমৃতযোগ দিবা ৭/২ মধ্যে ও ৭/৪৪ গতে ৯/৫০ মধ্যে ও ১১/৫৭ গতে ২/৫১ মধ্যে ও ৩/২৭ গতে ৪/৪৮ মধ্যে এবং রাত্রি ৫/৪৫ গতে ৯/২১ মধ্যে ও ১২/৩ গতে ৩/৩৮ মধ্যে ও ৪/৩২ গতে ৬/৮ মধ্যে। বারবেলা ৮/৪৭ গতে ১১/২৮ মধ্যে। কালরাত্রি ৮/৮ গতে ৯/৪৮ মধ্যে। 
১৮ রবিয়ল সানি।

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
আইএসএল: চেন্নাইকে ১-০ গোলে হারাল বেঙ্গালুরু 

09:32:56 PM

আইএসএল: চেন্নাই ০ বেঙ্গালুরু ১ (৫৫ মিনিট) 

08:52:01 PM

ফ্রান্সে বিজয় মালিয়ার সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত
ফ্রান্সে বিজয় মালিয়ার সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করল ইডি। যার আনুমানিক মূল্য ...বিশদ

07:31:00 PM

প্রথম টি-২০: অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ১১ রানে জিতল ভারত

05:33:31 PM

পূর্ব মেদিনীপুরের নতুন পুলিস সুপার প্রবীণ প্রকাশ 
মাত্র পাঁচ মাসের ব্যবধানে বদলি হলেন পূর্ব মেদিনীপুরের পুলিস সুপার ...বিশদ

05:30:18 PM

প্রথম টি-২০: অস্ট্রেলিয়া ১১৩/৪ (১৫ ওভার) 

05:08:30 PM