Bartaman Patrika
হ য ব র ল
 

গিরের জঙ্গলে সিংহের মুখোমুখি 

ওমা! এ কী? সামনে দিয়ে শিংওয়ালা কতকগুলো হরিণ জঙ্গলের এপার থেকে ওপারে চলে গেল! গির পৌঁছে গেছি আমরা—হোটেলে যেতে আর কিছুক্ষণ। ‘গির’ শব্দটির অর্থই অরণ্য। আর অরণ্যে প্রবেশ করতেই অরণ্যের আমেজ পেলাম চারদিকে। আমরা গিরে থাকব দু’দিন—অর্থাৎ তিনটে সাফারি। এই সাফারিগুলোর জন্যই অধীর আগ্রহে বসে আছি আমি। যেদিন পৌঁছলাম, সেদিন দুপুরেই প্রথম সাফারি। হোটেল থেকে দু কিলোমিটার গেলে একটা সাফারির অফিস পড়ে, সেখান থেকেই সাফারির জন্য টিকিট কাটতে হবে। দেওলিয়া পার্ক বলে একটা জায়গা আছে যেখানে নাকি গেলেই সিংহ দেখা যায়। কিন্তু এমনি জঙ্গলে সিংহ না দেখতে পেলেই শুধু সেখানে যায় লোকে। আমি এর আগে অনেক জঙ্গলেই বেড়াতে গেছি, কিন্তু কোনওবার বাঘ, সিংহ, কিছু দেখিনি। তবে এবার আমাদের সঙ্গে এক আত্মীয় আছেন, যিনি যেখানেই যান, সেখানেই বাঘ, সিংহ, সব দেখেন। আমার বাবা বলেন যে বাঘ সিংহেরা নাকি তাঁকে একেবারেই পছন্দ করে না। তাই আমরা গেলেই আর দেখা দেয় না! অতএব আমাদের সেই আত্মীয়, আমার মামাদাদুর ভাগ্যের ওপর ভরসা করেই আমরা চলেছি গভীর জঙ্গলের ভিতর।
জঙ্গলের বারোটা রুট। প্রথমদিন আমাদের ছয় নম্বর রুট দেওয়া হল। জঙ্গলে আধঘণ্টা মতো যেতেই প্রথম চমক—একটা চিতা একটা ছোট্ট হরিণকে তাড়া করেছে। চিতার পা-গুলো এবং আকারটা দেখতে পেলাম গাছের আড়ালে। কিছুক্ষণেই জঙ্গলের এপাশ থেকে ওপাশে দৌড়ে পালিয়ে গেল হরিণটা। আমরা চলে আসায় চিতাবাঘটা আর পেরিয়ে যেতে পারল না। সবাই বলল, ‘আমাদের জন্যই হরিণটা এ যাত্রায় বেঁচে গেল!’ এগিয়ে চললাম এবং জঙ্গল ক্রমশ আরও গভীর হতে লাগল। আমরা একবার রণথম্বরে বেড়াতে গিয়েছিলাম। সেখানে প্রতিটি সাফারির সময় গাইড বলত, ‘আজ নিরানব্বুই শতাংশ আশা আছে বাঘ দেখার।’ কিন্তু কোনওদিনই বাঘ দেখতে পাইনি। তাই আমি আর আমার দাদামশাই এটাকে মজা করে গাইডের ‘অভিনয়’ বলতাম। এইবারও একটা উঁচু জায়গায় এসে আমাদের গাইড হিন্দিতে বলল আমরা যেন কেউ শব্দ না করি, সিংহ দেখার নিরানব্বুই শতাংশ সম্ভাবনা এখানে। তার কারণ, কাছেই একটি ছোট জলাশয়, সিংহ সেখানে জল খেতে আসে। কিন্তু আমি এই কথাটায় বিশেষ একটা গুরুত্ব না দিয়ে দাদামশাইকে বললাম, ‘ওই যে; আবার অভিনয় শুরু হয়েছে!’ আমার দাদামশাই এই কথায় সায় দিলেন ঠিকই, কিন্তু গাইডের এবারে উপদেশ শুধুমাত্র ‘অভিনয়’ ছিল না। হঠাৎ দেখি সেই উঁচু জায়গাটা থেকে একটা সিংহী নেমে আসছে...! চোখ একেবারে ধাঁধিয়ে গেল। আমাদের জিপটার দিকে একদৃষ্টিতে তাকিয়ে আছে সিংহীটা। একেবারে কাছাকাছি এসে, তারপর এক লাফে জলাশয়টার দিকে গিয়ে জল খেতে লাগল। কিছুক্ষণ জল খেল, তারপর আবার একটা লাফ দিয়ে জলাশয়টার ওপারে গিয়ে হাত পা ছড়িয়ে বসে পড়ল। তারপর অনেকক্ষণ পা চাটল, হাই তুলল। সব শেষে, আবার জলাশয় পার করে আমাদের দিকে তাকিয়ে, উঁচু জায়গাটার উপর উঠে জঙ্গলের ভেতর ঢুকে গেল। এতক্ষণ আমার বাবার ক্যামেরায় শাটার টেপার শব্দ ছাড়া আর কোনও শব্দ ছিল না আমাদের জিপে। এবার আবার সবাই এই অভিজ্ঞতা নিয়ে আলোচনা করতে শুরু করলাম। আমার জীবনে প্রথম এমন একটা অভিজ্ঞতা। এখনও বিশ্বাসই হচ্ছে না যে সত্যিই এই ঘটনা ঘটেছে এক্ষুনি, মনে হচ্ছে যেন সবটাই একটা অপূর্ব স্বপ্ন। চোখ বন্ধ করলেই বারবার দৃশ্যটা ভেসে উঠছে চোখের ওপর। বাবা বললেন, তিনি নাকি একবারও ক্যামেরার শাটারটা ছাড়েননি। তাই নিজের চোখে যা দেখেছেন, সবটাই আছে ক্যামেরায় বন্দি। সেদিন আরও কয়েকটি হরিণ ছাড়া আর কিছু দেখিনি, কিন্তু যা দেখেছি, তাই যথেষ্ট।
পরের দিন ভোর পাঁচটায় উঠে আবার রওনা দিলাম সাফারি অফিসের পথে। এটা দু নম্বর সাফারি। তখনও আলো ফোটার কোনও নাম নেই। সাফারি শুরু হওয়ার বেশ কিছুক্ষণ পরে ভালো করে আলো ফুটল। শুনে গিয়েছিলাম গিরে নাকি খুব গরম। কিন্তু তবুও একটা করে জ্যাকেট নিয়ে গিয়েছিলাম সকলেই। সেদিন ভোরে বুঝলাম গিরেও ঠান্ডা পড়ে। প্রায় সকাল আটটার আগে, অর্থাৎ সূর্য ওঠার আগে পর্যন্ত খুবই ঠান্ডা ছিল। সেদিন আমাদের নয় নম্বর রুট অ্যালট করা হল। সাফারির প্রায় শুরুর দিকেই সিংহ দেখলাম সেদিন। গভীর জঙ্গলের ভেতর কেশরওয়ালা সিংহটাকে দেখতে পাওয়ার প্রায় সঙ্গে সঙ্গেই উঁচু ঘাসের মধ্যে মুখ লুকিয়ে ফেলল সে। এক ঝলক দেখতে পেলাম মুখটা। কিন্তু একটুখানি এগিয়ে যা দেখলাম, তা বর্ণনার বাইরে! দুটো সিংহী কোথা থেকে দৌড়ে এসে ঘাসের ওপর শুয়ে পড়ে খেলা শুরু করল। এ-ওর গা চাটছে, ঘাসে গড়াগড়ি খাচ্ছে, আরও কত রকম খেলা দেখাচ্ছে। পরপর দুবেলা এইরকম অভিজ্ঞতা হবে, ভাবতেই পারিনি আমি। অন্য জিপগুলোকে দেখতে দেওয়ার জন্য আমাদের জিপটা যখন এগিয়ে চলে গেল, তখন ইচ্ছেই করছিল না যেতে। মনে হচ্ছিল সিংহ সিংহীদের দেখেই যাই যতক্ষণ তারা আছে। কিন্তু সেটা তো আর হয় না, তাই অগত্যা! সবাই সিংহটার মুখ দেখতে পেয়েছি এক ঝলক। কিন্তু তাই বা কম কীসে?
দ্বিতীয় দিন দুপুরেই তৃতীয়, অর্থাৎ শেষ সাফারি। এবার বারো নম্বর রুট। এই রুটের বিশেষত্ব হল কমলেশ্বর ড্যাম নামক একটি জলাশয়। এই সাফারিতে আমরা সিংহ বা সিংহী দেখিনি ঠিকই, কিন্তু তার পরিবর্তে দেখেছি কমলেশ্বর ড্যামের সৌন্দর্য ও সেখানকার নানা রকম পাখি। ড্যামে পৌঁছে কিছুক্ষণের বিরতি। জিপ থেকে নেমে নাম না জানা পাখির ছবি তুললাম বাবার সঙ্গে। যখন ড্যামের ধার দিয়ে আবার ফেরার পথ ধরেছি, তখন দেখি ড্যামের মাঝে চরা! আসলে বিশাল কুমির ড্যামের একেবারে মাঝখানে পিঠটুকু তুলে শুয়েছিল। হঠাৎ দেখে তাই চরা মনে হয়েছিল আমার। এছাড়াও আর একটা জিনিস দেখলাম এই সাফারিতে। যখন গভীর জঙ্গলের ভেতর দিয়ে ফিরছি, তখন দেখি একটা নীল গাই জঙ্গলের একেবারে বাইরের দিকে বেরিয়ে এসে পাতা খাচ্ছে। আমাদের দিকে এক মুহূর্ত তাকিয়ে থেকে, লাফিয়ে, দৌড়ে, যেভাবে, যত তাড়াতাড়ি সম্ভব জঙ্গলের ভেতরে ঢুকে গেল।
তিনটে সাফারিতে তিনরকম আলাদা আলাদা অভিজ্ঞতা হল। বাড়ি ফিরে আসার পরেও বেশ কয়েকদিন এই দৃশ্যগুলো দেখতে পাচ্ছিলাম চোখ বুজলেই। গির ভ্রমণ চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবে।
লেখা ও ছবি : জাগরী বিশ্বাস
সপ্তম শ্রেণী, সাউথ পয়েন্ট হাই স্কুল  
07th  July, 2019
স্পাইসি অ্যালফানসো ও ওয়াটারমেলন ফেটা স্যালাড 

তোমাদের জন্য চলছে একটি আকর্ষণীয় বিভাগ ছোটদের রান্নাঘর। এই বিভাগ পড়ে তোমরা নিজেরাই তৈরি করে ফেলতে পারবে লোভনীয় খাবারদাবার। বাবা-মাকেও চিন্তায় পড়তে হবে না। কারণ আগুনের সাহায্য ছাড়া তৈরি করা যায় এমন রেসিপিই থাকবে তোমাদের জন্য। এবার সেরকমই দুটি জিভে জল আনা রেসিপি দিয়েছেন ওয়াটস আপ ক্যাফে রেস্তরাঁর শেফ দেবব্রত রায়। 
বিশদ

21st  July, 2019
কলকাতায় ডাবর ওডোমসের ডেঙ্গু-মুক্তি প্রচারাভিযান 

আজ তোমাদের একটা ভালো খবর দিই। ডাবর ইন্ডিয়া লিমিটেডের ওডোমস ব্র্যান্ড ভারতকে ডেঙ্গুমুক্ত করতে একটি বিশেষ প্রচারাভিযানের উদ্যোগ নিয়েছে। নাম দেওয়া হয়েছে ‘#মেকিংইন্ডিয়াডেঙ্গুফ্রি’। উদ্যোগটিকে সফল করতে ওডোমসের বিশেষজ্ঞ দল ভারতে বিভিন্ন জায়গায় প্রায় দশ লক্ষ অফিসকর্মীর কাছে পৌঁছেছিলেন।   বিশদ

21st  July, 2019
বিস্ময়কর নদী 

নদীর জল হবে স্বচ্ছ ও নীলাভ। আমরা ছোটবেলা থেকে এমন কথাই পড়েছি বইয়ের পাতায়। দেখেছিও তাই। বাস্তবের সঙ্গে কল্পনার রং মেলে না ঠিকই। কিন্তু আজ যেসব নদীর গল্প তোমাদের বলব, শুনলে মনে হবে রূপকথার গল্প। পৃথিবীতে এমন কিছু নদী আছে যার জলের রং প্রকৃতির আপন খেয়ালে তৈরি। কোনওটা বা মানুষের দুষ্কর্মের ফলে অন্য রং ধারণ করেছে। কোনওটির আবার গতিপথ এতটাই অদ্ভুত যে অবাক হতে হয়। এই নদীগুলির কথা জানলে সত্যিই মনে হবে, বিপুলা এ পৃথিবীর কতটুকু জানি। অদ্ভুত এই পাঁচটি নদীর রোমাঞ্চকর গল্প শুনিয়েছে সৌম্য নিয়োগী।  
বিশদ

21st  July, 2019
অগ্রসেন বালিকা শিক্ষা সদনের পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান 

অগ্রসেন বালিকা শিক্ষা সদন গত ২৮ জুন একটি বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিল। এদিন এবছরের আই সি এস ই পরীক্ষায় ভালো ফলের জন্য এই বিদ্যালয়েরই ছাত্রী রত্না নাঙ্গালিয়াকে পুরস্কৃত করা হয়। পরীক্ষায় রত্না জাতীয়স্তরে তৃতীয় এবং রাজ্যে দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেছে।   বিশদ

14th  July, 2019
মার্কশিট
মাধ্যমিক পরীক্ষার জন্য কবিতা মুখস্থ
করো শব্দার্থ ও ব্যাখ্যা বিশ্লেষণসহ

তোমাদের জন্য চলছে মার্কশিট বিভাগটি। এই বিভাগে থাকছে পরীক্ষায় নম্বর বাড়ানোর সুলুক সন্ধান। এবারের বিষয় বাংলা। 
বিশদ

14th  July, 2019
যদি ফিরে আসে ডাইনোসর 

কয়েক কোটি বছর আগের কথা! তখন আমাদের চেনাজানা পৃথিবী ছিল সম্পূর্ণ আলাদা। ঘন অরণ্যে ঘুরে বেড়াত দানবাকৃতি ডাইনোসররা। কালের নিয়মে তারা অবলুপ্ত। তবে বিজ্ঞান এখন খুবই উন্নত। গবেষণা চলছে সেই হারিয়ে যাওয়া ডাইনোসরদের ফিরিয়ে আনার। যদি ফিরে আসে তারা তাহলে কী হবে? কেমনই বা দেখতে ছিল সেই ডাইনোসরদের। লিখেছেন সুপ্রিয় নায়েক। 
বিশদ

14th  July, 2019
মার্কশিট 

তোমাদের জন্য চলছে মার্কশিট বিভাগটি। এই বিভাগে থাকছে পরীক্ষায় নম্বর বাড়ানোর সুলুক সন্ধান। এবারের বিষয় ইংরেজি। পরামর্শ দিচ্ছেন বাণীপুরের গভর্নমেন্ট বেসিক কাম মাল্টিপারপাস স্কুলের ইংরেজির শিক্ষিকা পর্ণা চৌধুরী।
বিশদ

07th  July, 2019
মাসির বাড়ি পোড়া পিঠে খেতে যান শ্রীজগন্নাথ 

শ্রীজগন্নাথ, শ্রীবলরাম ও সুভদ্রাদেবী এখন মাসির বাড়িতে। বাড়ি ফিরবেন উল্টোরথের দিন। মাসির বাড়ির গল্প শোনালেন চকিতা চট্টোপাধ্যায়।
 
বিশদ

07th  July, 2019
হিলি গিলি হোকাস ফোকাস
 

শুরু হল নতুন বিভাগ হিলি গিলি হোকাস ফোকাস। এই বিভাগে জনপ্রিয় জাদুকর শ্যামল কুমার তোমাদের কিছু চোখ ধাঁধানো আকর্ষণীয় ম্যাজিক সহজ সরলভাবে শেখাবেন। আজকের বিষয় তাসের টেলিপ্যাথি।  
বিশদ

23rd  June, 2019
শতবর্ষে গোখলে মেমোরিয়াল গার্লস স্কুল 

১০০ বছর আগে সরলা রায় নারীদের মধ্যে শিক্ষার আলো ছড়াতে প্রতিষ্ঠা করেছিলেন এই স্কুল। শতবর্ষে দাঁড়িয়ে নিজের স্কুল সম্পর্কে লিখল সেখানকার ছাত্রীরা।   বিশদ

23rd  June, 2019
এক কিলোগ্রাম ঠিক কতটা কম এক কিলোগ্রামের থেকে? 

কাক্কেশ্বর কুচকুচে জানত ঠিক। তাদের দেশে সাত দুগুণে সব সময় চোদ্দো হয় না। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে বদলে যায় গুণফলটা। সুকুমারী দুনিয়ার ভরও সময়ের সঙ্গে সঙ্গে বদলে যেত কি না, কে জানে! 
বিশদ

16th  June, 2019
বিশ্বকাপে তালিবানের দেশের লড়াই 

তালিবান বললেই যে ভয়ঙ্কর ব্যাপারটা মনে আসে আফগানিস্তান কিন্তু চেষ্টা করছে সেই অধ্যায় ভুলে যাওয়ার। ক্রিকেট বিশ্বকাপে সে দেশের অংশগ্রহণ এই কথাটাই প্রমাণ করে। লিখেছেন সঞ্জয় চট্টোপাধ্যায়।  
বিশদ

16th  June, 2019
মার্কশিট 

তোমাদের জন্য চলছে মার্কশিট বিভাগটি। এই বিভাগে থাকছে পরীক্ষায় নম্বর বাড়ানোর সুলুক সন্ধান। এবারের বিষয় জীবনবিজ্ঞান। নবম শ্রেণীর ছাত্রছাত্রীদের জন্য জীবনবিজ্ঞানের জীববিদ্যা ও মানবকল্যাণ বিভাগটি গুরুত্বপূর্ণ। পরামর্শ দিচ্ছেন বালিগঞ্জ গভঃ হাই স্কুলের জীবনবিজ্ঞানের শিক্ষক অরণ্যজিৎ সামন্ত।
বিশদ

09th  June, 2019
কীট-পতঙ্গের বিজ্ঞানী গোপালচন্দ্র ভট্টাচার্য 

দেখার চোখ, অনুসন্ধিৎসু মন, আত্মবিশ্বাস, অধ্যবসায় এবং নিরন্তর অনুশীলন এই গুণগুলির সহাবস্থান যে কোনও মানুষকে খ্যাতির শীর্ষে পৌঁছে দিতে পারে। দারিদ্র্য বা উচ্চতর ডিগ্রির অভাব কোনও প্রতিবন্ধকতা হতে পারে না তা বারে বারেই প্রমাণ করেছেন অনেকের সঙ্গে গোপালচন্দ্র ভট্টাচার্য ।  
বিশদ

09th  June, 2019
একনজরে
 ওয়াশিংটন, ২১ জুলাই (পিটিআই): ডোনাল্ড ট্রাম্প মার্কিন প্রেসিডেন্ট পদে আসার পর থেকেই ক্রমশ ইসলামাবাদের সঙ্গে সম্পর্কের অবনতি ঘটেছিল ওয়াশিংটনের। সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে পাকিস্তান কঠোর পদক্ষেপ নিচ্ছে না, মূলত এই অভিযোগে তাদের সামরিক সাহায্য করাও বন্ধ করে দেয় আমেরিকা। ...

কলম্বো, ২১ জুলাই: বিশ্বকাপের ফাইনালে ওভার থ্রোয়ে আম্পায়ার কুমার ধর্মসেনার ৬ রান দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়ে কম বিতর্ক হয়নি। তবে অবশেষে নিজের ভুল স্বীকার করলেন ধর্মসেনা। ঘনিষ্ঠ মহলে শ্রীলঙ্কার আম্পায়ারটি জানিয়েছেন, ‘ওই ওভার থ্রো-তে ৬ রান দেওয়ার সিদ্ধান্ত ঠিক ছিল না। ...

 নয়াদিল্লি, ২১ জুলাই (পিটিআই): বাজেট বরাদ্দের ক্ষেত্রে সংবেদনশীল হওয়ার ইঙ্গিত দিয়েছিল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক। সেই অনুযায়ী নজিরবিহীন সিদ্ধান্ত নিল তারা। এই প্রথম সিআরপিএফের মহিলাকর্মীদের জন্য কর্মক্ষেত্রে স্যানিটারি প্যাড ভেন্ডিং মেশিন বসতে চলেছে। ...

সঞ্জয় গঙ্গোপাধ্যায়, কলকাতা: এবার ‘বুথে চলো’। ২০২১-এর বিধানসভা নির্বাচনকে সামনে রেখে বুথস্তর থেকে সংগঠন ঢেলে সাজার ডাক দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শুধু ডাক দিয়েই ক্ষান্ত হননি ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

বিদ্যার্থীদের বেশি শ্রম দিয়ে পঠন-পাঠন করা দরকার। কোনও সংস্থায় যুক্ত হলে বিদ্যায় বিস্তৃতি ঘটবে। কর্মপ্রার্থীরা ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৮১৪: সাহিত্যিক প্যারীচাঁদ মিত্রের জন্ম
১৮৪৭: সাহিত্যিক ত্রৈলোক্যনাথ মুখোপাধ্যায়ের জন্ম
১৯১৮: ভারতের প্রথম যুদ্ধবিমানের পাইলট ইন্দ্রলাল রায়ের মৃত্যু প্রথম বিশ্বযুদ্ধে
১৯২৩: সঙ্গীতশিল্পী মুকেশের জন্ম
১৯৪৮: চিত্রশিল্পী হেমেন্দ্র মজুমদারের মৃত্যু





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৭.৯৫ টাকা ৬৯.৬৪ টাকা
পাউন্ড ৮৪.৭৭ টাকা ৮৭.৯২ টাকা
ইউরো ৭৬.১০ টাকা ৭৯.০৪ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
20th  July, 2019
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৫,৫২৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৩,৭০৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৪,২১০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪০,৫৫০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪০,৬৫০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]
21st  July, 2019

দিন পঞ্জিকা

৫ শ্রাবণ ১৪২৬, ২২ জুলাই ২০১৯, সোমবার, পঞ্চমী ২২/২২ দিবা ২/৪। পূর্বভাদ্রপদ ১৩/১৩ দিবা ১০/২৪। সূ উ ৫/৭/১৮, অ ৬/১৮/৩৬, অমৃতযোগ দিবা ৬/৫৩ মধ্যে পুনঃ ১০/২৪ গতে ১/২ মধ্যে। রাত্রি ৭/১ গতে ৯/১১ মধ্যে পুনঃ ১১/২১ গতে ২/১৪ মধ্যে, বারবেলা ৬/৪৬ গতে ৮/২৫ মধ্যে পুনঃ ৩/১ গতে ৪/৪০ মধ্যে, কালরাত্রি ১০/২২ গতে ১১/৪৩ মধ্যে। 
৫ শ্রাবণ ১৪২৬, ২২ জুলাই ২০১৯, সোমবার, পঞ্চমী ১৪/২০/৫৯ দিবা ১০/৫০/২১। পূর্বভাদ্রপদনক্ষত্র ৮/২৮/৩৩ দিবা ৮/২৯/২২, সূ উ ৫/৫/৫৭, অ ৬/২১/৩৯, অমৃতযোগ দিবা ৬/৫৬ মধ্যে ও ১০/২৪ গতে ১/০ মধ্যে এবং রাত্রি ৬/৫৬ গতে ৯/৮ মধ্যে ও ১১/২০ গতে ২/১৬ মধ্যে, বারবেলা ৩/২/৪৩ গতে ৪/৪২/১১ মধ্যে, কালবেলা ৬/৪৫/২৫ গতে ৮/২৪/৫২ মধ্যে, কালরাত্রি ১০/২৩/১৬ গতে ১১/৪৩/৪৮ মধ্যে। 
১৮ জেল্কদ 

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
  সল্টলেকের বিএসএনএল-এর অফিসে আগুন
সল্টলেকের ১৩ নম্বর ট্যাঙ্কের বিএসএন এল-এর নোভাল সেন্টারে আগুন লেগেছে। ...বিশদ

09:50:50 PM

বরানগর জুট মিলে আগুন, অকুস্থলে দমকলের ৪টি ইঞ্জিন 

07:18:32 PM

কালিকাপুরে সোনার গয়না চুরির অভিযোগে গ্রেপ্তার পরিচারিকা 

06:20:00 PM

মহেশতলায় দুটি গাড়ির সংঘর্ষ, আহত ৬ 
অটো এবং ৪০৭ গাড়ির মুখোমুখি সংঘর্ষে আহত ছ’জন। জানা গিয়েছে, ...বিশদ

06:18:00 PM

ফুলশয্যার দিনেই আত্মঘাতী গৃহবধু 
ফুলশয্যার দিনেই আত্মঘাতী হলেন এক গৃহবধু। মৃতার নাম প্রিয়াঙ্কা সর্দার ...বিশদ

06:05:00 PM

বজবজ ফাঁড়ির কাছে পচাগলা দেহ উদ্ধার
 

পচাগলা দেহ উদ্ধার হলো বজবজ ফাঁড়ির সংলগ্ন এলাকায়। এই ঘটনায় ...বিশদ

05:34:26 PM