Bartaman Patrika
সাম্প্রতিক
 

কোলিন্দার ‘সুন্দর’ মুখের আড়ালে! 

কখনও টিমের জন্য গলা ফাটাচ্ছেন, কখনও ফুটবলারদের সঙ্গে মেতে উঠছেন উদ্দাম সেলিব্রেশনে। দেখে কে বলবে তিনিই ছোট্ট দেশটার প্রথম নাগরিক। প্রেসিডেন্ট কোলিন্দা গ্রাবার কিতারোভিচ। পাপারাৎজিরা কেন তাঁর পিছু ছাড়ে না? তিনি নাকি প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সঙ্গেও খুনসুঁটি করতে ছাড়েন না! র‌্যাকিটিচ, মডরিচদের ফুটবল স্কিলে যখম সম্মোহিত ক্রীড়া দুনিয়া, তখন ক্রোটদের সুন্দরী প্রেসিডেন্টের প্রাণোচ্ছলতায় মজেছে নেট দুনিয়া। বিশ্বের অনেক রাষ্ট্রপ্রধানকে ঘিরে যখন নিরাপত্তার বাড়বাড়ন্ত, তখন তিনি প্রেসিডেনশিয়াল প্রোটোকলের বালাই করেন না। সেলিব্রেট করতে কখনও ঢুকে পড়েন খেলোয়াড়দের ড্রেসিংরুমে, কখনও উঠে পড়েন প্লেনের ইকোনমি ক্লাসে। ১৯৯৬ সালে বিয়ে করেন কোলিন্দা। এখন তিনি দুই সন্তানের মা। তাঁর বড় মেয়ে ক্যাটারিনা একজন প্রফেশনাল স্কেটার। জাতীয় পর্যায়ে ক্রোয়েশিয়ার জুনিয়ার চ্যাম্পিয়নও বটে। বিশ্বকাপ ফুটবলের শেষ সপ্তাহে গোটা দুনিয়ার দর্শকদের বিরাট অংশ হঠাৎ ক্রোয়েশিয়ার সমর্থক বনে যায়। এতে দলটির লড়াকু মনোভাব যেমন প্রভাব রেখেছে, তেমনই দেশটির সুদর্শনা প্রেসিডেন্টের হাসিমাখা মুখচ্ছবিরও জাদু ছিল। অনেক প্রচারমাধ্যম তাঁর ভুয়ো অর্ধনগ্ন ছবিও প্রকাশ করেছে নিজেদের কাটতি বাড়াতে এবং হয়তো–বা তরুণদের ক্রোয়েশিয়ামুখী করতে। কিন্তু কে এই কোলিন্দা গ্রাবার-কিতারোবিচ? ফুটবলপ্রেমীরা কতটা জানেন তাঁর অতীত?
আমেরিকায় রাষ্ট্রদূত থাকাকালীন স্বামী জ্যাকবকে রাষ্ট্রীয় সম্পদ ব্যবহার করতে দিয়ে ধরা পড়েছিলেন তিনি। সেখান থেকে পদ ছেড়ে এরপর তিনি যোগ দেন ন্যাটো দপ্তরে। আফগানিস্তানে ন্যাটো বাহিনীর ইমেজ বৃদ্ধি এবং সেনাদের মনোবল বাড়ানোই ছিল তাঁর মূল দায়িত্ব। বলা বাহুল্য, আফগানিস্তানে পশ্চিমী দুনিয়ার আগ্রাসনে ক্রোট সৈন্যরাও ছিল এবং আছে। ন্যাটোতে থাকাকালেই কোলিন্দা গ্রাবার আমেরিকার খ্যাতনামা ব্যবসায়ী (রাজনীতিবিদ?) ডেভিড রকিফেলোর প্রতিষ্ঠিত ‘ট্রাইলেটারাল কমিশন’-এর সদস্য মনোনীত হন। আমেরিকার বিশ্ব-প্রাধান্য (হেজিমনি) তৈরি এবং ৯/১১–পরবর্তী পরিস্থিতি সৃষ্টির অন্যতম কারিগর এই ‘ট্রাইলেটারাল কমিশন’।
ন্যাটো এবং ‘ট্রাইলেটারাল কমিশন’-এ কাজের অভিজ্ঞতা কোলিন্দা গ্রাবারকে আমেরিকান এস্টাবলিশমেন্টের খুব কাছে নিয়ে এসেছিল। তারই ফসল তাঁর প্রেসিডেন্ট হওয়া। তবে সামাজিক গণতন্ত্রীদের (সোশ্যাল ডেমোক্রেট পার্টি) চেয়ে মাত্র ১ শতাংশ ভোট পেয়ে জিতেছিলেন তিনি। ব্যবধান আরও বাড়াতে এই মুহূর্তে কোলিন্দা নিজেকে ইউরোপজুড়ে বেড়ে ওঠা উগ্র দক্ষিণপন্থী ঢেউয়ে নিজেকে শামিল করেছেন। ট্রাম্প ও পুতিন উভয়েরই সাহায্য চাইছেন তিনি।
দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধকালীন ফ্যাসিবাদী অতীত, ফুটবল এবং পপ মিউজিককে ব্যবহার করে কোলিন্দা এখন উগ্র ক্রোয়েট জাতীয়তাবাদের প্রতীক হয়ে উঠেছেন। গোপনে তাই তাঁকে অস্ট্রিয়া গিয়ে উসতাসা কর্মীদের একটি গোপন সমাধিক্ষেত্রও সফর করতে হয়েছিল একসময়। বিশ্বকাপের স্টেডিয়ামে যাওয়ার মতোই ফ্যাসিবাদী সহযোদ্ধাদের সমাধিক্ষেত্রকে সম্মান জানানোও তাঁর রাজনীতির জন্য জরুরি ছিল।
কোলিন্দাকে এই মুহূর্তে দক্ষিণপন্থী এক বিপ্লবেরই প্রতীক বলা যায় আর তাঁর বড় শক্তি ক্রোট ফুটবল দর্শকদের একাংশ। ক্রোট দর্শকরা আইনগত বাধ্যবাধকতা এড়াতে প্রায় স্টেডিয়ামে নাজিদের স্বস্তিকা চিহ্নসংবলিত পতাকা হাতে না নিয়ে স্বস্তিকার মতো করে গ্যালারিতে বসেন। ক্রোট ফুটবলের এই উগ্র জাতীয়তাবাদীরা এবং ক্রোট দশকদের বর্ণবাদী আচরণের জন্য ২০০৬-এ ইউরোপীয় ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন দেশটিকে একসময় বহিষ্কারেরও উদ্যোগ নিয়েছিল। ২০০৪-এও একই অভিযোগে ক্রোট ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনকে জরিমানা করা হয়। টিম-ক্রোয়েশিয়াকে ব্যবহার করে এবার কোলিন্দা রাজনৈতিক জীবন দীর্ঘায়িত করতে মরিয়া।
২০১৫ থেকে ক্রোয়েশিয়ার প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালনকারী এই রাজনীতিবিদ ছিলেন মূলত একজন কূটনীতিবিদ। ন্যাটোতে গুরুত্বপূর্ণ পদে কাজ করেছেন। কিছু দিন আমেরিকায় ক্রোয়েশিয়ার রাষ্ট্রদূতও ছিলেন। দেশটির দক্ষিণপন্থী ক্রোয়েশিয়া ডেমোক্রেটিক ইউনিয়নের (‘এইচডিজেড’ নামে পরিচিত) সদস্য তিনি। এইচডিজেড গড়েছিলেন যুগোস্লাভিয়া ভাঙার অন্যতম কারিগর ফ্রানজো ট্রডাম্যান। যে কারণে মার্কিন বিদেশসচিব হেনরি কিসিঞ্জারের খুব প্রিয় ছিলেন তিনি। সেই এইচডিজেডের আজকের নেতা হলেন কোলিন্দা। কিন্তু এইচডিজেডের ভাবাদর্শের রয়েছে কুৎসিত এক অতীত।
আজকের ফুটবলপ্রেমী কোলিন্দা গ্রাবার যে এইচডিজেড দল করেন, সেটা সে দেশের ফ্যাসিবাদী ‘উসতাসা’ আন্দোলনের বর্তমান উত্তরাধিকারী। ১৯২৯ থেকে ১৯৪৫ পর্যন্ত এরাই হাজার হাজার ভিন্নমতাবলম্বীকে হত্যা করেছিল। ক্রোয়েট ‘বিশুদ্ধতা’ রক্ষা করতে ‘উসতাসা’ সদস্যরা গণহত্যাকেও সমর্থন করত। যে গণহত্যার টার্গেট ছিল যুগোস্লাভিয়ার সার্ব, ইহুদি, মুসলিম এবং রোমা জিপসিরা। ১৯৪১-৪৫ সময়ে এরা হিটলার ও নাৎসিদের অন্যতম সহযোগী ছিল। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় জার্মানি ও ইতালির যুদ্ধজোটেও ছিল তারা। হিটলারের বাহিনী যুগোস্লাভিয়ার ওই অঞ্চল দখল করে ১৯৪১-এর ১০ এপ্রিল তাদের ক্রোট সহযোগীদের একটি সরকার গড়ে দিয়েছিল, তা চার বছর স্থায়ী হয়। আজকের ক্রোয়েট ফুটবল উত্তেজনায় মিশে আছে সেই রক্তাক্ত অতীত। এখনও ক্রোট ফুটবল দর্শকেরা উত্তেজনার বশে স্লোগান দেয়: ‘ফর দ্য হোমল্যান্ড—রেডি!’ এটাই ছিল উসতাসা আন্দোলনের শপথ। রাজনৈতিক প্রয়োজনেই তাই গ্যালারি থেকে ড্রেসিংরুম পর্যন্ত কোলিন্দা গ্রাবারকে ফুটবল উত্তেজনায় থাকতে হয়েছে। প্রায়ই সুযোগ পেলে তিনি এও বলেন, মার্কো পারকোভিচের ভক্ত তিনি। ক্রোট এই পপগানের শিল্পী ওই অঞ্চলে তরুণদের উগ্র জাতীয়তাবাদে আসক্ত করার ক্ষেত্রে ব্যাপক ভূমিকা রাখছেন। সুইজারল্যান্ডসহ বিভিন্ন স্থানে তিনি নিষিদ্ধ।
 নিজস্ব প্রতিনিধি
22nd  July, 2018
ভালোবাসার শহর সেন্ট পিটার্সবার্গ
রাশিয়া থেকে ফিরে
সন্দীপন বিশ্বাস

সেন্ট পিটার্সবার্গ যেমন ইতিহাসের শহর, তেমনই ভালোবাসারও শহর। এই শহরের প্রাসাদে, নদীতে, গির্জায়, মেট্রোয়, পথে পথে মিশে আছে এক রোমান্টিসিজম। তাকে দেখা যায়, অনুভব করা যায়। প্রেমের শহর সেন্ট পিটার্সবার্গ। জার শাসকদের সময় ছুঁয়ে আজ পর্যন্ত এই শহর দেখেছে বহু প্রেম। সেই প্রেম কখনও সফল, কখনও রক্তাক্ত, কখনও ব্যর্থ, কখনও বা সেই প্রেম এনে দিয়েছে মৃত্যুর গন্ধ।
বিশদ

22nd  July, 2018
থাই শিশুদের নিয়ে চলচ্চিত্র নির্মাণে আগ্রহী হলিউড 

ঘটনা অবিশ্বাস্য হলেও সত্যি। ১৭ দিন পর থাইল্যান্ডের বিপজ্জনক গুহায় আটকে পড়া কিশোরদের উদ্ধার করেছেন দুঃসাহসী ডুবুরিরা। চিয়াং রাই হাসপাতালের বেডে মুখে মাস্ক ও হাসপাতালের গাউন পরা অবস্থায় রয়েছে তারা।
বিশদ

15th  July, 2018
ইতিহাসের সন্ধানে... 
সেন্ট পিটার্সবার্গে
(রাশিয়া থেকে ফিরে সন্দীপন বিশ্বাস)

জুন, জুলাই মাসের এই সময়টায় সেন্ট পিটার্সবার্গে সূর্যের আলস্য দেখার মতো। অস্ত যেতে যেন মন চায় না তার। সারাদিন মাথার উপর জ্বলছে তো জ্বলছেই। ঘড়িতে তখন সাড়ে এগারোটা বেজে গেল। সেটাকে রাত বলব কিনা বুঝতে পারছি না! তখন পশ্চিমের আকাশে সূয্যিমামার অনিচ্ছার ডুব।
বিশদ

15th  July, 2018
হেরে গিয়েও জিতে যাওয়া বোধহয় একেই বলে 

হেরে গিয়েও জিতে যাওয়া বোধহয় একেই বলে!
বিশ্বকাপের দ্বিতীয় রাউন্ডের লড়াইয়ে বেলজিয়ামের সঙ্গে মুখোমুখি হয় জাপান। দুর্দান্ত খেলে দু’গোলে এগিয়েও যায় তারা। কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি। ম্যাচ শেষ হওয়ার আগেই তিনটে গোল দিয়ে জাপানকে হারিয়ে বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে পৌঁছে যায় বেলজিয়াম।
বিশদ

08th  July, 2018
ভলগা নদীর তীরে... 
রাশিয়া থেকে সোমনাথ বসু

উলিৎসা সেমাশকো থেকে হাঁটাপথেই গোর্কি মিউজিয়াম। সেখানে সংরক্ষিত রয়েছে ‘মা’ উপন্যাসের খসড়া। এমনকী প্রথম মুদ্রিত বইও। দুই খণ্ডে লেখা ‘মা’ বিপ্লবের আগমনি বার্তা ছড়িয়ে দিয়েছিল গোটা রাশিয়ায়। সরল মানবিকতা থেকে গোর্কি উত্তীর্ণ হন শ্রেণী-মানবিকতায়। উৎপল দত্ত এ‌ই উপন্যাসের একটি অংশকে নিয়ে লিখেছিলেন ‘মে দিবস’ নাটক...
বিশদ

08th  July, 2018
বিশ্বকাপের ম্যাসকট
জাবিভাকার জন্মকথা
সন্দীপন বিশ্বাস

পশ্চিম সাইবেরিয়ার একটা ছোট্ট শহর কিদরোভি। মস্কো থেকে অনেক দূর। প্রায় সাড়ে তিন হাজার কিলোমিটার। সেখানকার মেয়ে একাতেরিনা বোচারোভা আজ সারা বিশ্বে এক পরিচিত নাম। সে তো ওই জাবিভাকার দৌলতেই। জাবিভাকা একাতেরিনার কল্পনাপ্রসূত সৃষ্টি। সেই জাবিভাকা এবারের বিশ্বকাপের ম্যাসকট। বিশদ

03rd  June, 2018
সিলভিও গাজ্জানিগা
বিশ্বকাপের নকশার কারিগর
অরূপ দে

১৯৭১ সালের ৫ এপ্রিল জুরিখে ফিফা প্রেসিডেন্ট স্যার স্ট্যানলি রিউসের নেতৃত্বে একটি বিশেষ কমিটি তৈরি করা হয় নতুন ট্রফির জন্য নকশা নির্বাচনের উদ্দেশ্যে। সেই কমিটি আহ্ববান করে নকশা প্রতিযোগিতার। খবর পেয়েই সিলভিও গাজ্জানিগা শুরু করলেন কাজ।
বিশদ

03rd  June, 2018
লেডি ডন

হেঁসেলের অন্ধকারে যাঁদের জীবন কাটিয়ে দেওয়ার কথা ছিল। সন্তান পালন, স্বামীর সেবাই ছিল যাঁদের জীবনের আদর্শ। সেই তাঁরাই একদিন ঘোমটা ছেড়ে হাতে তুলে নিয়েছিলেন আগ্নেয়াস্ত্র। তাঁদের অঙ্গুলি হেলনে চলেছে বিরাট অপরাধের সাম্রাজ্য। এক ফোনে মুহূর্তে চলে গিয়েছে কারও প্রাণ।
বিশদ

13th  May, 2018
তারাপীঠ
মহাপীঠের ২০০ বছর 

তারাপীঠের মন্দিরের ইতিহাসকে দুশো বছরের মধ্যে আটকানো যায় না। তার ইতিহাস প্রাচীন, আবছায়া, অস্পষ্ট এক অতীতের মধ্যে মিশে আছে। একদিকে পুরাণ আর একদিকে ইতিহাস। একদিকে লোককথা, অন্যদিকে দলিল। সব মিলেই তারাপীঠের মন্দির এবং তারামায়ের কাহিনী একাকার হয়ে গিয়েছে... 
বিশদ

13th  May, 2018
তারামায়ের ছেলে বামাক্ষ্যাপা 

বহু সিদ্ধ পুরুষের সাধনক্ষেত্র তারাপীঠ। কিন্তু তারাপীঠের কথা উঠলেই যে সাধক পুরুষের নামটি মনে আসে, তিনি হলেন বামাক্ষ্যাপা। তারামায়ের ক্ষ্যাপা ছেলে বামাক্ষ্যাপা। নানা লৌকিক এবং অলৌকিক কাহিনী ছড়িয়ে আছে তাঁকে ঘিরে। তারাপীঠের অদূরে আটলা গ্রামে তাঁর জন্ম।
বিশদ

13th  May, 2018
রহস্যময়ী রিতা কাৎজ 
মৃণালকান্তি দাস

রিতা কাৎজ। বাংলাদেশের দুই বিদেশি নাগরিক খুন হওয়ার পর ৫২ বছরের এই মহিলাই প্রথম ট্যুইটারে দাবি করেছিলেন, এই হত্যাকাণ্ড আইএস (ইসলামিক স্টেট) ঘটিয়েছে। ঢাকার গুলশানের হোলি আর্টিজান বেকারিতে হামলা চালিয়ে ২০ জনকে জবাই করে হত্যা করার পর হামলাকারীদের ছবিও প্রথম প্রকাশ করেছিল রিতা কাৎজের ‘সাইট ইন্টেলিজেন্স গ্রুপ’ ওয়েবসাইট।
বিশদ

06th  May, 2018
কলঙ্কিত দেশ 
কল্যাণ বসু

ন্যাশনাল ক্রাইম রেকর্ড ব্যুরোর পরিসংখ্যান বলছে ২০১২ সালে গোটা দেশে নথিভুক্ত ধর্ষণের সংখ্যা ছিল ২৪,৯২৩ আর ২০১৬ সালে সেটা ৩৮,৯৪৭! অর্থাৎ হ্রাস তো দূরের কথা, পাঁচ বছরে ধর্ষণের ঘটনা ৫৬ শতাংশ বেড়েছে!
বিশদ

06th  May, 2018
জঙ্গিদের থেকেও রাশিয়ার ভয় পঙ্গপালের দলকে 

সন্দীপন বিশ্বাস: ১৯৯৮ সালের ফ্রান্স বিশ্বকাপে যে লোকটা পুলিশের হাড় পর্যন্ত কাঁপিয়ে দিয়েছিল, সে হল ফরিদ মেলুক। একজন আলজিরিয়ান ইসলামিক জঙ্গি। মেলুককে বলা হতো জঙ্গিদের ঠিকানা। সারা বিশ্বের জঙ্গিদের গতিবিধি, যোগাযোগের তথ্য ছিল তার নখের ডগায়।
বিশদ

29th  April, 2018
জোটের পথে... 

২০১৯-এর আগে বেশ কয়েকটি রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচন। এর মধ্যে রয়েছে বিজেপি শাসিত মধ্যপ্রদেশ, রাজস্থান ও ছত্তিশগড়ও। এই সব রাজ্যের ফল ২০১৯-এর সমীকরণ তৈরিতে অনেকটাই সাহায্যকরবে। কারণ বিধানসভায় বিজেপি ভালো ফল করলে, এখনকার মোদি বিরোধী হাওয়া আবার কমে যাবে। আর যদি বিজেপি হারে, তবে জোট রাজনীতির ঝড় উঠবে। লিখেছেন প্রীতম দাশগুপ্ত।
বিশদ

29th  April, 2018
একনজরে
মঙ্গল ঘোষ, গাজোল, সংবাদদাতা: দেশলাইয়ের বিভিন্ন মার্কা ও কাঠি দিয়ে নানা শিল্পকর্ম করে সাড়া ফেলে দিয়েছেন ইংলিশবাজার শহরের বাসিন্দা সুবীর কুমার সাহা। কখনও আর্ট পেপারে ...

 বিশ্বজিৎ দাস, কলকাতা: ছ’ঘণ্টার জায়গায় চারদিন! হ্যাঁ, শুনতে অবাক লাগলেও এমনই অবস্থা হচ্ছে ডেঙ্গু কবলিত কলকাতা লাগোয়া দুই ২৪ পরগনার বিস্তীর্ণ এলাকার মানুষের ডেঙ্গু পরীক্ষার রিপোর্ট পেতে। কিছুদিন আগেই রাজ্য সরকার নির্দেশ দিয়েছিল, ডেঙ্গু পরীক্ষার রিপোর্ট দিতে সরকারি হাসপাতালগুলির ঢিলেমি ...

মাদ্রিদ ১০ ডিসেম্বর (পিটিআই): গ্রিন হাউস গ্যাসের নির্গমণের মাত্রা কমিয়ে এনে আন্তর্জাতিক মঞ্চে উচ্চ প্রশংসিত হল ভারত। মঙ্গলবার মাদ্রিদে জলবায়ু সংক্রান্ত শীর্ষ সম্মেলন সিওপি-২৫’-এ ‘ক্লাইমেক্স চেঞ্জ পারফরমেন্স ইনডেক্স (সিসিপিআই) প্রকাশিত হয়। ...

গুয়াংঝৌ, ১০ ডিসেম্বর: বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপ ব্যাডমিন্টনে সোনা জেতার পর ফর্ম হারিয়েছেন পিভি সিন্ধু। বছরের শেষ টুর্নামেন্ট ওয়ার্ল্ড ট্যুর ফাইনালে খেতাব ধরে রাখাই লক্ষ্য গোপীচাঁদের এই ছাত্রীর। ওয়ার্ল্ড ট্যুর ফাইনালে বিশ্বের প্রথম আটজন খেলার সুযোগ পেয়েছেন। সিন্ধুর এখন র‌্যাঙ্কিং ১৫।  ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
aries

মানসিক অস্থিরতার জন্য পঠন-পাঠনে আগ্রহ কমবে। কর্মপ্রার্থীদের যোগাযোগ থেকে উপকৃত হবেন। ব্যবসায় যুক্ত হলে শুভ। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৯২২: অভিনেতা দিলীপকুমারের জন্ম
১৯২৪: সাহিত্যিক সমরেশ বসুর জন্ম
১৯৩৫: প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়ের জন্ম
১৯৪২: সঙ্গীত পরিচালক আনন্দ শংকরের জন্ম
১৯৬১: অভিনেতা তুলসী চক্রবর্তীর মৃত্যু
১৯৬৯: ভারতীয় দাবাড়ু বিশ্বনাথন আনন্দের জন্ম
২০০৪: সঙ্গীতশিল্পী এম এস শুভলক্ষ্মীর মৃত্যু
২০১২: সেতারশিল্পী রবিশঙ্করের মৃত্যু  





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৯.৪২ টাকা ৭২.৫৪ টাকা
পাউন্ড ৯১.১৯ টাকা ৯৫.৫৯ টাকা
ইউরো ৭৬.৭৫ টাকা ৮০.৪৪ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৮,২৩৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬,২৭৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৬,৮২০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৩,৫০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৩,৬০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১১ ডিসেম্বর ২০১৯, বুধবার, চতুর্দশী ১২/৩ দিবা ১০/৫৯। রোহিণী অহোরাত্র। সূ উ ৬/১০/১৮, অ ৪/৪৯/০, অমৃতযোগ দিবা ৬/৫২ মধ্যে পুনঃ ৭/৩৫ গতে ৮/১৮ মধ্যে পুনঃ ১০/২৫ গতে ১২/৩৩ মধ্যে। রাত্রি ৫/৪২ গতে ৬/৩৫ মধ্যে পুনঃ ৮/২২ গতে ৩/৩০ মধ্যে, বারবেলা ৮/৫০ গতে ১০/১০ মধ্যে পুনঃ ১১/৩০ গতে ১২/৫০ মধ্যে, কালরাত্রি ২/৪৯ গতে ৪/৩০ মধ্যে।
২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১১ ডিসেম্বর ২০১৯, বুধবার, চতুর্দশী ১১/৩৯/৪১ দিবা ১০/৫১/২৭। কৃত্তিকা ০/৪১/৪৪ প্রাতঃ ৬/২৮/১৭, সূ উ ৬/১১/৩৫, অ ৪/১/১৭, অমৃতযোগ দিবা ৭/২ মধ্যে ও ৭/৪৪ গতে ৮/৩২ মধ্যে ও ১০/৩৩ গতে ১২/৪০ মধ্যে এবং রাত্রি ৫/৪৮ গতে ৬/৪১ মধ্যে ও ৮/২৯ গতে ৩/৩৯ মধ্যে, কালবেলা ৮/৫১/২ গতে ১০/১০/৪৫ মধ্যে, কালরাত্রি ২/৫১/২ গতে ৪/৩১/১৯ মধ্যে।
১৩ রবিয়স সানি

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
নাগরিকত্ব বিল: অগ্নিগর্ভ পরিস্থিতি অসমে, পুড়ল বাসও
নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের প্রতিবাদের জেরে অগ্নিগর্ভ পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে অসমে। ...বিশদ

05:59:14 PM

নাগরিকত্ব বিল: শহরে প্রতিলিপি পুড়িয়ে প্রতিবাদ কংয়ের
নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের প্রতিবাদে পথে নামল প্রদেশ কংগ্রেস। আজ বিকালে ...বিশদ

05:43:21 PM

 ত্রিপুরা ও অসমে মোতায়েন হল সেনা
নাগরিকত্ব বিল নিয়ে প্রতিবাদের মোকাবিলা করতে সেনা মোতায়েন করা হল ...বিশদ

05:33:48 PM

ফুলেশ্বরে বেসরকারি হাসপাতালে ভাঙচুর 
রোগীকে অন্যত্র রেফার করা নিয়ে উত্তেজনা ফুলেশ্বরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে। ...বিশদ

04:47:59 PM

পর্ণশ্রীতে বাড়ি থেকে বৃদ্ধার দেহ উদ্ধার 

03:54:51 PM

শ্রীহরিকোটা থেকে রিস্যাট-২বিআরআই১ কৃত্রিম উপগ্রহর সফল উৎক্ষেপণ করল ইসরো 

03:49:00 PM