Bartaman Patrika
সাম্প্রতিক
 

সিলভিও গাজ্জানিগা
বিশ্বকাপের নকশার কারিগর
অরূপ দে

১৯৭০ সালের জুলে রিমে কাপ। টুর্নামেন্ট শুরুর আগেই ঘোষণা করা হয়েছে, নতুন এক নিয়ম। যেসব দল দু’বার করে শিরোপা জিতেছে, তাদের কেউ যদি তৃতীয়বার জিততে পারে, চিরকালের জন্য সেই দেশের অধিকারে চলে যাবে জুলে রিমে ট্রফি। সেই সম্ভাবনাকে নিশ্চিত করতেই যেন ফাইনালে উঠল ১৯৩৪ ও ’৩৮ আসরের বিজয়ী দল ইতালি এবং ১৯৫৮, ’৬২ আসরের শিরোপা জয়ী ব্রাজিল। একদিকে ফ্যাচেত্তি, রিভেরা, ম্যাজোল্লার ইতালি, আরেকদিকে পেলে, কার্লোস আলবার্তোর ব্রাজিল। ফাইনালে দারুণ শৈল্পিক ফুটবল খেলা ব্রাজিল তৃতীয় শিরোপা জিতল ৪-১ গোলে। কার্লোস আলবার্তো শেষ অধিনায়ক হিসেবে ফরাসি ভাস্কর আবেল লাফ্লিওরের নকশা করা ট্রফি যখন মাথার উপরে তুলে ধরলেন, তখন থেকেই চিন্তায় পড়লেন ফিফা কর্তারা। ৪ বছর পরের বিশ্ব আসরের জন্য তো নতুন ট্রফি লাগবে। কীভাবে মিলবে সেটা?
১৯৭১ সালের ৫ এপ্রিল জুরিখে ফিফা প্রেসিডেন্ট স্যার স্ট্যানলি রিউসের নেতৃত্বে একটি বিশেষ কমিটি তৈরি করা হয় নতুন ট্রফির জন্য নকশা নির্বাচনের উদ্দেশ্যে। সেই কমিটি আহ্ববান করে নকশা প্রতিযোগিতার। খবর পেয়েই সিলভিও গাজ্জানিগা শুরু করলেন কাজ। টানা কয়েকদিন নির্ঘুম কাজ করার পর যে নকশাটা দাঁড়াল, তা দারুণ সুন্দর হলেও জুরি কমিটির কাছে এটাকে বিশ্লেষণ করা অসম্ভব হয়ে যাবে বুঝতে পারলেন তিনি। তাই জমা দেওয়ার সময় প্লাস্টার মডেল সহ পেশ করলেন কমিটির কাছে। ২৫ দেশ থেকে সর্বমোট ৫৩টি নকশা জমা পড়লেও দর্শন, প্রতীকী সৌন্দর্য আর ফটোজেনিক হওয়ায় ফিফা কমিটি গাজ্জানিগার নকশাটাই সেরা হিসেবে বিবেচনা করে। ১৯৭২ সালের জানুয়ারিতে গাজ্জানিগা ওই মডেল অনুযায়ী নতুন করে সোনা দিয়ে ঢালাই করে ট্রফি বানিয়ে দিলে ফিফা আনুষ্ঠানিকভাবে গ্রহণ করে।
ট্রফিটা কেমন? সেরা পার্সা (হারানো মোম) নামে এক অদ্ভুত কৌশলে কাপটা ঢালাই করা হয়। এই কৌশলেই কয়েক হাজার বছর আগে প্রাচীন কিছু বিখ্যাত ধাতব স্থাপত্য নির্মাণ করা হয়েছিল। ১৪.৫ ইঞ্চি লম্বা এই ট্রফি ১৮ ক্যারেট স্বর্ণ দিয়ে তৈরি হলেও ওজন মাত্র সাড়ে ৬ কেজি। কারণ, এর ভিতরটা ফাঁপা। ইউরোপের বিভিন্ন সেরা ফুটবল প্রতিযোগিতার রুপোর তৈরি মসৃণ শিরোপার তুলনায় দারুণ সজ্জিত, আনন্দের দুর্নিবার বহিঃপ্রকাশ আছে যেন সেই ট্রফিতে। ধিকিধিকি আগুনের মতো চ্যাম্পিয়নের হাত দু’টি যেন বাকি সব খেলোয়ারের হাত দ্বারা আবৃত, সূর্যের আলো পৃথিবীর বক্রতায় যেন প্রতিফলিত হয়। ট্রফিতে দু’টি ভিন্ন রেখা ধীরে ধীরে দু’জন মানুষের আকার ধারণ করেছে। মানুষ দু’জন দুই নায়কের প্রতীক। কারণ, ফুটবল খেলা হয় দুইটি প্রতিদ্বন্দ্বী দলের মধ্যে। জয়ের অভিলাষে দু’টি ভিন্ন ইচ্ছাশক্তি একসঙ্গে কাজ করে, শক্তি, বেগ, সামর্থ্য, গতিশীলতা, দ্রুততা, গতি, সাফল্য, বিজয়। সবকিছু মানুষকে ছাপিয়ে বিশ্বকে জয় করার দিকে আলিঙ্গন করে।
চিরবিনয়ী গাজ্জানিগাও নিজের সেরা সৃষ্টি নিয়ে উচ্ছ্বাস ঢেকে রাখতে পারেননি ২০১১ সালে বিবিসিকে দেওয়া সাক্ষাতকারে। সেদিন তিনি বলেছিলেন: বিশ্বসেরা খেলোয়াড়রা এই ট্রফি স্পর্শ করতে পারে, জিততে পারে একবার, খুব ভাগ্যবান হলে দু’বার। কিন্তু ফিফা বিশ্বকাপ ট্রফি সবসময়ই আমার হয়ে থাকবে, আমি সত্যিকারের বিজয়ী। মজার বিষয় হল, ফিফার নকশা প্রতিযোগিতার নিয়মাবলীতে উল্লেখ ছিল, বিজয়ী নকশার উপর নকশাকারের কোনও অধিকার থাকবে না। তাই গাজ্জানিগা কখনোই নিজের বানানো ট্রফির ইমেজস্বত্ব থেকে কোনও আয় করতে পারেননি। কিন্তু এই ইতিহাস বিখ্যাত সৃষ্টিকর্মের আন্তর্জাতিক সাফল্যের ভেলায় চড়ে এই শিল্পী গুরুত্বপূর্ণ সব ক্রীড়া আসরের ট্রফি নকশা করার দায়িত্ব পান। ১৯৭২ সালে করেন উয়েফা কাপের নকশা। পরের বছর উয়েফা সুপার কাপও নির্মিত হয় তাঁর করা নকশাতে। বেসবল, ববস্লেড এবং ভলিবল বিশ্বকাপের ট্রফিও তাঁর হাতে গড়া। অর্জনের তালিকায় আছে বাস্কেটবল, সাঁতার এবং স্কি বিশ্বকাপের মেডেলের নকশাও! এসব করতে করতে ডাকনামই হয়ে যায় ‘মিস্টার কাপ’। কিন্তু কোনওটাই ঘূর্ণায়মান স্বর্ণনির্মিত বিশ্বকাপের চেয়ে আইকনিক হতে পারেনি। কর্দমাক্ত শরীরে ঘর্মাক্ত হাতে যত ফুটবলারই এটা তুলে ধরুক না কেন, এটা অনন্য সুন্দর হয়ে থাকে।
সিলভিও গাজ্জানিগা। সারাজীবন ইতালির ইতিহাস বিখ্যাত ফুটবল ক্লাবের শহর মিলানে কাটিয়ে দেওয়া গাজ্জানিগার জন্ম ১৯২১ সালে। ইতালির লোম্বারডি রাজ্যের রাজধানী মিলানের বিভিন্ন আর্ট স্কুলে শিখতে শিখতে ভাস্কর হয়ে ওঠা। প্রথম পদক নকশা কৈশোরেই। পরের তিন দশক কাটে অলঙ্কার এবং স্কি ট্রফি নকশা করার মধ্য দিয়ে। একটা সময় মিলানের বিখ্যাত ট্রফি নির্মাতা কোম্পানি বার্তোনির সৃজনশীল পরিচালক পদে বসেছিলেন তিনি।
ইতালি সাধারণতন্ত্রের একত্রীকরণের ১৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে বিশেষ ট্রফিও নকশা করার সম্মান পান তিনি। মিলান শহরের বাসিন্দাদের সর্বোচ্চ সম্মান আমব্রোজিনো ডি’অরো পদক পান ২০০৩ সালে। ২০১১ সালে ভূষিত হন আন্তর্জাতিক মুদ্রা এবং পদক নকশাকার সংগঠনের আজীবন সম্মাননায়। ২০১২ সালে পান ইতালির সর্বোচ্চ অসামরিক পদক অর্ডার অব মেরিট অব ইতালি। বিয়ে করেছিলেন জীবনের একমাত্র প্রেম এলসাকে। জর্জিও এবং গ্যাব্রিয়েলা নামে দুই সন্তান রয়েছে এই দম্পতির পরিবারে।
গাজ্জানিগার দেশ ইতালি ১৯৩৪ এবং ১৯৩৮ সালে পরপর দুবার বিশ্বকাপ জিতলেও তেমন কোনও স্মৃতি ছিল না দারিদ্র্যে নিমজ্জিত থাকা তরুণ ভাস্করের। তবে ১৯৮২ এবং ২০০৬ সালে স্টেডিয়ামে বসেই স্বদেশীদের হাতে উঠতে দেখেছেন নিজের গড়া ট্রফি। ২০১৭ সালের ৩১ অক্টোবর সত্যিকারের বিজয়ী হিসেবেই বিদায় নিয়েছেন পৃথিবী থেকে।
03rd  June, 2018
কোলিন্দার ‘সুন্দর’ মুখের আড়ালে! 

কখনও টিমের জন্য গলা ফাটাচ্ছেন, কখনও ফুটবলারদের সঙ্গে মেতে উঠছেন উদ্দাম সেলিব্রেশনে। দেখে কে বলবে তিনিই ছোট্ট দেশটার প্রথম নাগরিক। প্রেসিডেন্ট কোলিন্দা গ্রাবার কিতারোভিচ। পাপারাৎজিরা কেন তাঁর পিছু ছাড়ে না? তিনি নাকি প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সঙ্গেও খুনসুঁটি করতে ছাড়েন না! র‌্যাকিটিচ, মডরিচদের ফুটবল স্কিলে যখম সম্মোহিত ক্রীড়া দুনিয়া, তখন ক্রোটদের সুন্দরী প্রেসিডেন্টের প্রাণোচ্ছলতায় মজেছে নেট দুনিয়া।
বিশদ

22nd  July, 2018
ভালোবাসার শহর সেন্ট পিটার্সবার্গ
রাশিয়া থেকে ফিরে
সন্দীপন বিশ্বাস

সেন্ট পিটার্সবার্গ যেমন ইতিহাসের শহর, তেমনই ভালোবাসারও শহর। এই শহরের প্রাসাদে, নদীতে, গির্জায়, মেট্রোয়, পথে পথে মিশে আছে এক রোমান্টিসিজম। তাকে দেখা যায়, অনুভব করা যায়। প্রেমের শহর সেন্ট পিটার্সবার্গ। জার শাসকদের সময় ছুঁয়ে আজ পর্যন্ত এই শহর দেখেছে বহু প্রেম। সেই প্রেম কখনও সফল, কখনও রক্তাক্ত, কখনও ব্যর্থ, কখনও বা সেই প্রেম এনে দিয়েছে মৃত্যুর গন্ধ।
বিশদ

22nd  July, 2018
থাই শিশুদের নিয়ে চলচ্চিত্র নির্মাণে আগ্রহী হলিউড 

ঘটনা অবিশ্বাস্য হলেও সত্যি। ১৭ দিন পর থাইল্যান্ডের বিপজ্জনক গুহায় আটকে পড়া কিশোরদের উদ্ধার করেছেন দুঃসাহসী ডুবুরিরা। চিয়াং রাই হাসপাতালের বেডে মুখে মাস্ক ও হাসপাতালের গাউন পরা অবস্থায় রয়েছে তারা।
বিশদ

15th  July, 2018
ইতিহাসের সন্ধানে... 
সেন্ট পিটার্সবার্গে
(রাশিয়া থেকে ফিরে সন্দীপন বিশ্বাস)

জুন, জুলাই মাসের এই সময়টায় সেন্ট পিটার্সবার্গে সূর্যের আলস্য দেখার মতো। অস্ত যেতে যেন মন চায় না তার। সারাদিন মাথার উপর জ্বলছে তো জ্বলছেই। ঘড়িতে তখন সাড়ে এগারোটা বেজে গেল। সেটাকে রাত বলব কিনা বুঝতে পারছি না! তখন পশ্চিমের আকাশে সূয্যিমামার অনিচ্ছার ডুব।
বিশদ

15th  July, 2018
হেরে গিয়েও জিতে যাওয়া বোধহয় একেই বলে 

হেরে গিয়েও জিতে যাওয়া বোধহয় একেই বলে!
বিশ্বকাপের দ্বিতীয় রাউন্ডের লড়াইয়ে বেলজিয়ামের সঙ্গে মুখোমুখি হয় জাপান। দুর্দান্ত খেলে দু’গোলে এগিয়েও যায় তারা। কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি। ম্যাচ শেষ হওয়ার আগেই তিনটে গোল দিয়ে জাপানকে হারিয়ে বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে পৌঁছে যায় বেলজিয়াম।
বিশদ

08th  July, 2018
ভলগা নদীর তীরে... 
রাশিয়া থেকে সোমনাথ বসু

উলিৎসা সেমাশকো থেকে হাঁটাপথেই গোর্কি মিউজিয়াম। সেখানে সংরক্ষিত রয়েছে ‘মা’ উপন্যাসের খসড়া। এমনকী প্রথম মুদ্রিত বইও। দুই খণ্ডে লেখা ‘মা’ বিপ্লবের আগমনি বার্তা ছড়িয়ে দিয়েছিল গোটা রাশিয়ায়। সরল মানবিকতা থেকে গোর্কি উত্তীর্ণ হন শ্রেণী-মানবিকতায়। উৎপল দত্ত এ‌ই উপন্যাসের একটি অংশকে নিয়ে লিখেছিলেন ‘মে দিবস’ নাটক...
বিশদ

08th  July, 2018
বিশ্বকাপের ম্যাসকট
জাবিভাকার জন্মকথা
সন্দীপন বিশ্বাস

পশ্চিম সাইবেরিয়ার একটা ছোট্ট শহর কিদরোভি। মস্কো থেকে অনেক দূর। প্রায় সাড়ে তিন হাজার কিলোমিটার। সেখানকার মেয়ে একাতেরিনা বোচারোভা আজ সারা বিশ্বে এক পরিচিত নাম। সে তো ওই জাবিভাকার দৌলতেই। জাবিভাকা একাতেরিনার কল্পনাপ্রসূত সৃষ্টি। সেই জাবিভাকা এবারের বিশ্বকাপের ম্যাসকট। বিশদ

03rd  June, 2018
লেডি ডন

হেঁসেলের অন্ধকারে যাঁদের জীবন কাটিয়ে দেওয়ার কথা ছিল। সন্তান পালন, স্বামীর সেবাই ছিল যাঁদের জীবনের আদর্শ। সেই তাঁরাই একদিন ঘোমটা ছেড়ে হাতে তুলে নিয়েছিলেন আগ্নেয়াস্ত্র। তাঁদের অঙ্গুলি হেলনে চলেছে বিরাট অপরাধের সাম্রাজ্য। এক ফোনে মুহূর্তে চলে গিয়েছে কারও প্রাণ।
বিশদ

13th  May, 2018
তারাপীঠ
মহাপীঠের ২০০ বছর 

তারাপীঠের মন্দিরের ইতিহাসকে দুশো বছরের মধ্যে আটকানো যায় না। তার ইতিহাস প্রাচীন, আবছায়া, অস্পষ্ট এক অতীতের মধ্যে মিশে আছে। একদিকে পুরাণ আর একদিকে ইতিহাস। একদিকে লোককথা, অন্যদিকে দলিল। সব মিলেই তারাপীঠের মন্দির এবং তারামায়ের কাহিনী একাকার হয়ে গিয়েছে... 
বিশদ

13th  May, 2018
তারামায়ের ছেলে বামাক্ষ্যাপা 

বহু সিদ্ধ পুরুষের সাধনক্ষেত্র তারাপীঠ। কিন্তু তারাপীঠের কথা উঠলেই যে সাধক পুরুষের নামটি মনে আসে, তিনি হলেন বামাক্ষ্যাপা। তারামায়ের ক্ষ্যাপা ছেলে বামাক্ষ্যাপা। নানা লৌকিক এবং অলৌকিক কাহিনী ছড়িয়ে আছে তাঁকে ঘিরে। তারাপীঠের অদূরে আটলা গ্রামে তাঁর জন্ম।
বিশদ

13th  May, 2018
রহস্যময়ী রিতা কাৎজ 
মৃণালকান্তি দাস

রিতা কাৎজ। বাংলাদেশের দুই বিদেশি নাগরিক খুন হওয়ার পর ৫২ বছরের এই মহিলাই প্রথম ট্যুইটারে দাবি করেছিলেন, এই হত্যাকাণ্ড আইএস (ইসলামিক স্টেট) ঘটিয়েছে। ঢাকার গুলশানের হোলি আর্টিজান বেকারিতে হামলা চালিয়ে ২০ জনকে জবাই করে হত্যা করার পর হামলাকারীদের ছবিও প্রথম প্রকাশ করেছিল রিতা কাৎজের ‘সাইট ইন্টেলিজেন্স গ্রুপ’ ওয়েবসাইট।
বিশদ

06th  May, 2018
কলঙ্কিত দেশ 
কল্যাণ বসু

ন্যাশনাল ক্রাইম রেকর্ড ব্যুরোর পরিসংখ্যান বলছে ২০১২ সালে গোটা দেশে নথিভুক্ত ধর্ষণের সংখ্যা ছিল ২৪,৯২৩ আর ২০১৬ সালে সেটা ৩৮,৯৪৭! অর্থাৎ হ্রাস তো দূরের কথা, পাঁচ বছরে ধর্ষণের ঘটনা ৫৬ শতাংশ বেড়েছে!
বিশদ

06th  May, 2018
জঙ্গিদের থেকেও রাশিয়ার ভয় পঙ্গপালের দলকে 

সন্দীপন বিশ্বাস: ১৯৯৮ সালের ফ্রান্স বিশ্বকাপে যে লোকটা পুলিশের হাড় পর্যন্ত কাঁপিয়ে দিয়েছিল, সে হল ফরিদ মেলুক। একজন আলজিরিয়ান ইসলামিক জঙ্গি। মেলুককে বলা হতো জঙ্গিদের ঠিকানা। সারা বিশ্বের জঙ্গিদের গতিবিধি, যোগাযোগের তথ্য ছিল তার নখের ডগায়।
বিশদ

29th  April, 2018
জোটের পথে... 

২০১৯-এর আগে বেশ কয়েকটি রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচন। এর মধ্যে রয়েছে বিজেপি শাসিত মধ্যপ্রদেশ, রাজস্থান ও ছত্তিশগড়ও। এই সব রাজ্যের ফল ২০১৯-এর সমীকরণ তৈরিতে অনেকটাই সাহায্যকরবে। কারণ বিধানসভায় বিজেপি ভালো ফল করলে, এখনকার মোদি বিরোধী হাওয়া আবার কমে যাবে। আর যদি বিজেপি হারে, তবে জোট রাজনীতির ঝড় উঠবে। লিখেছেন প্রীতম দাশগুপ্ত।
বিশদ

29th  April, 2018
একনজরে
সংবাদদাতা, শান্তিনিকেতন: লাভপুরের কাজিপাড়া গ্রামে প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনার বাড়ি তৈরির জন্য পুরনো বাড়ি ভেঙে ফেলা হচ্ছিল। সেই বাড়ির দেওয়াল চাপা পড়ে মৃত্যু হল ছোট ছেলের। মৃতের নাম রোজ শেখ(৮)।   ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: চলন্ত বাসের মধ্যে হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়ল দুই স্কুল ছাত্রী। এমনকী দু’জনেই দু’জনকে ধারালো কিছু দিয়ে আঘাত করে বলে অভিযোগ। শনিবার বিকেলে ঘটনাটি ঘটেছে এন্টালি থানা এলাকার বরফকলের কাছে। দুই ছাত্রীর পরিবারই একে অন্যের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ করেছে ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: মধ্যবিত্তের ‘নিজের বাড়ির’ স্বপ্ন পূরণে গৃহঋণ মেলার আয়োজন করেছিল ইডেন রিয়েলটি গ্রুপ। সংস্থার সোলারিস সিটি শ্রীরামপুর এবং জোকা প্রকল্পে গত ১৩ থেকে ১৫ ডিসেম্বর এই ‘ফ্লেক্সি হোম লোন মেলা’ অনুষ্ঠিত হয়। ...

বদাউন, ১৫ ডিসেম্বর: ধুমধাম করে গত সোমবার বিয়ের পর্ব সম্পন্ন হয়েছিল। আর শুক্রবার ভোররাতে টাকা, গয়না নিয়ে শ্বশুরবাড়ি থেকে চম্পট দিল নববধূ। তাঁর সঙ্গে পলাতক বিয়ের মধ্যস্থতাকারী ব্যক্তিও। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি উত্তরপ্রদেশের।   ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
aries

বাড়তি অর্থ পাওয়ার যোগ আছে। পদোন্নতির পাশাপাশি কর্মস্থান পরিবর্তন হতে পারে। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ পক্ষে থাকবে। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৭৭০: জার্মান সুরকার লুদভিগ ভ্যান বেটোভেনের জন্ম
১৯১৭: কল্পবিজ্ঞান লেখক আর্থার সি ক্লার্কের জন্ম
১৯২১: হুগলি নদীর নীচ দিয়ে টানেল তৈরির কাজ শুরু করল সিইএসসি
১৯৭১: বাংলাদেশে ভারতীয় বাহিনীর কাছে পাক সেনার আত্মসমর্পণ। জন্ম স্বাধীন বাংলাদেশ রাষ্ট্রের
২০১২: দিল্লির গণধর্ষণের ঘটনায় উত্তাল দেশ 





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৯.৮০ টাকা ৭১.৪৯ টাকা
পাউন্ড ৯৩.৪৩ টাকা ৯৬.৮০ টাকা
ইউরো ৭৭.৪৪ টাকা ৮০.৪৩ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
14th  December, 2019
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৮, ৪৫৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬, ৪৮৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৭, ০৩০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৪, ০০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৪, ১০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]
15th  December, 2019

দিন পঞ্জিকা

২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯, সোমবার, পঞ্চমী ৫৩/৩৭ দিবা ৩/৪০। অশ্লেষা ৫১/২৫ রাত্রি ২/৪৭। সূ উ ৬/১৩/১০, অ ৪/৫০/৪০, অমৃতযোগ দিবা ৭/৩৮ মধ্যে পুনঃ ৯/৩ গতে ১১/১১ মধ্যে। রাত্রি ৭/৩১ গতে ১১/৫ মধ্যে পুনঃ ২/৪০ গতে ৩/৩৩ মধ্যে, বারবেলা ৭/৩২ গতে ৮/৫২ মধ্যে পুনঃ ২/১১ গতে ৩/৩১ মধ্যে, কালরাত্রি ৯/৫১ গতে ১১/৩১ মধ্যে। 
২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯, সোমবার, চতুর্থী ১/২৭/৫৩ প্রাতঃ ৬/৫০/১৯ পরে পঞ্চমী ৫৬/৩৮/৫ শেষরাত্রি ৪/৫৪/২৪। অশ্লেষা ৫৫/৪৫/৩৮ শেষরাত্রি ৪/৩৩/২৫, সূ উ ৬/১৫/১০, অ ৪/৫০/৪০, অমৃতযোগ দিবা ৭/৪৬ মধ্যে ৯/১১ গতে ১১/১৮ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/৩৮ গতে ১১/১২ মধ্যে ও ২/৪৭ গতে ৩/৪০ মধ্যে, কালবেলা ৭/৩৪/৩৬ গতে ৮/৫৪/২ মধ্যে, কালরাত্রি ৯/৫২/২১ গতে ১১/৩২/৫৫ মধ্যে। 
১৮ রবিয়স সানি 

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
আইলিগ: মোহন বাগান ২-১ গোলে হারাল গোকুলাম এফসিকে 

06:59:44 PM

রায়গঞ্জের কানকি ফাঁড়িতে হামলার অভিযোগ, জাতীয় সড়কে একাধিক গাড়ি ভাঙচুর 

06:42:00 PM

ঠাকুরপুকুরে দোকান থেকে লক্ষাধিক টাকা চুরির ঘটনায় ধৃত ১ 

06:39:00 PM

আগামী ২৪ ঘণ্টায় শিবপুর বাদে হাওড়ায় বন্ধ থাকবে ইন্টারনেট 

06:29:00 PM

আইলিগ: মোহন বাগান ১ গোকুলাম এফসি ১ (বিরতি) 

05:53:28 PM

নবান্ন সূত্রে খবর রাজ্যে আপাতত জাতীয় জনসংখ্যা নিবন্ধীকরণ হবে না

05:01:00 PM