Bartaman Patrika
সাম্প্রতিক
 

লেডি ডন

হেঁসেলের অন্ধকারে যাঁদের জীবন কাটিয়ে দেওয়ার কথা ছিল। সন্তান পালন, স্বামীর সেবাই ছিল যাঁদের জীবনের আদর্শ। সেই তাঁরাই একদিন ঘোমটা ছেড়ে হাতে তুলে নিয়েছিলেন আগ্নেয়াস্ত্র। তাঁদের অঙ্গুলি হেলনে চলেছে বিরাট অপরাধের সাম্রাজ্য। এক ফোনে মুহূর্তে চলে গিয়েছে কারও প্রাণ। কোটি কোটি টাকার মাদক পাচারের সঙ্গে নাম জড়িয়েছে। এক কথায় যাঁরা অপরাধ জগতের সম্রাজ্ঞী। সেই সব ‘লেডি ডন’রা দাউদ ইব্রাহিম, ছোটা শাকিল বা হাজি মস্তানের মতো নামের সঙ্গে সমানে সমানে টক্কর দেওয়ার ক্ষমতা রাখতেন। কিন্তু এঁদের অধিকাংশই ছিলেন প্রত্যন্ত ভারতবর্ষের পিছিয়ে পড়া মানুষ। আর্থ-সামাজিক পরিস্থিতি তাঁদের বাধ্য করেছিল হাতে বন্দুক তুলে নিতে। অবশ্য সব ক্ষেত্রে গল্পটা একরকম নয়। লিখেছেন শাম্ব মণ্ডল।

 ফুলন দেবী: উত্তরপ্রদেশের একটি অখ্যাত গ্রামে নিম্নবর্গের পরিবারে জন্ম। উত্তরপ্রদেশের মতো রাজ্যে এই সব পরিবারের মেয়েদের ভাগ্য যেমন হয়, ফুলন তার থেকে অন্য কিছু ছিলেন না। মাত্র এগারো বছরে বিয়ে। স্বামী ঘরে হাড় ভাঙা খাটুনি। রোজ রাতে বয়সে অনেক বড় স্বামীর দ্বারা যৌন নির্যাতন। ভাগ্যের এই লিপি মেনে নিতে পারেননি ছোট্ট ফুলন। একদিন স্বামীর ঘর ছেড়ে ফিরে এলেন বাপের বাড়ি। ঘরে অনেক খানেওয়ালা। তার উপর নিম্নবর্গ। ফুলনের এই ছোট বিদ্রোহ তাঁর বাবা মেনে নিতে পারলেন না। তবুও মেয়েকে ঘর থেকে বের করে দেননি। ছোট ফুলন বড় হওয়ার পর গ্রামের উচ্চবর্ণের এক ঠাকুরে নজরে পড়েন। গ্রাম পঞ্চায়েতের সামনে ঠাকুর বাড়ির ছেলের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানান ফুলন। কিন্তু এতবড় দুঃসাহস গ্রামসভা মানেনি। উল্টে ফুলনকে চরিত্রহীন তকমা দিয়ে গ্রাম ছাড়া করার নির্দেশ দেয়। শুরু হয় ফুলনের সংগ্রাম। যোগাযোগ হয় ডাকাত দলের সঙ্গে। সেই দলের সদস্য হয়ে ভালোবাসার স্বাদ পান। কিন্তু পুলিসি এনকাউন্টারে ভালোবাসা হারানোর পর আরও নৃশংস হয়ে ওঠেন ফুলন। কিন্তু বেপরোয়া ফুলনকে দমন করতে উঠে পড়ে লাগে উচ্চবর্ণের রাজপুত। ফুলনকে বেহমাই গ্রামে আটক করে শুরু হয় নির্যাতন। একটি ঘরে আটকে রেখে দিনের পর দিন চলে গণধর্ষণ। দাঁতে দাঁত চেপে অত্যাচার সহ্য করতে হয়। একদিন সেই গ্রাম পালানোর সুযোগ এল। ফের ডাকাত দলে যোগ দিয়ে হয়ে উঠলেন দস্যুরানি। এই সময় বারংবার সংবাদের শিরোনামে উঠে এসেছে ফুলনের নামে। পুলিস অবশ্য তাঁর কোনওদিন সন্ধান পায়নি। কারণ, প্রত্যন্ত উত্তরপ্রদেশের কাছে ফুলন ছিলেন রবিনহুড। ধনীর কেড়ে গরিবকে দিতেন। তাঁর এই গুণের জন্য ফুলন থেকে হয়ে ওঠেন ‘ফুলন দেবী’। তাঁকে দেবীর আসনে বসিয়ে ছিলেন গ্রামের অনাহার, অধাহারে থাকা মানুষ। দস্যুরানি হলেও বেহমাই গ্রামের সেই গণধর্ষণের ঘটনা ভুলতে পারেননি ফুলন দেবী। ১৯৮১ সালে কোনও গ্রীষ্মের দুপুরে সদলবলে হাজির হন বেহমাই গ্রামে। ঠাকুর পরিবারের ২২ জনকে একলাইনে দাঁড় করিয়ে গুলি করে হত্যা করেন ফুলন দেবী। তাঁর এই হত্যালীলা কাল হয়ে ওঠে। নড়েচড়ে বসে সরকার। দিল্লিতেও এই ঘটনা নিয়ে তৎপরতা শুরু হয়। ক্রমশ কোণঠাসা হয়ে ১৯৮৩ সালে প্রায় আট হাজার মানুষের সামনে আত্মসমর্পণ করেন ফুলন দেবী। এগারো বছরের কারাবাসের পর ফুলন দেবী ফিরে আসেন সমাজের মূলস্রোতে। যোগ দিয়েছিলেন সমাজবাদী পার্টিতে। ১৯৯৬, ১৯৯৯ পর পর দু’বার লোকসভার সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। এমপি হলেও বেহমাইয়ের সেই হত্যাকাণ্ড ভুলতে পারেনি ঠাকুর সম্প্রদায়। ফুলন দেবীকে হত্যা করে তার বদলা নিয়েছিল তারা। ২০০১ সালের ২৫ জুলাই। দিল্লিতে নিজের বাড়ির সামনে অজ্ঞাত পরিচয় দুষ্কৃতীদের গুলিতে প্রাণ হারালেন ফুলন দেবী। একসঙ্গে শেষ হয় নিম্নবর্গের একটি মেয়ের বিদ্রোহের কাহিনী। সমাজ যাঁকে দস্যুরানি তকমা দিয়ে কোনওদিন ক্ষমা করেনি।
 সীমা পারিহার: ফুলন দেবীর পর চম্বলের আর এক রানি সীমা পারিহার। উত্তরপ্রদেশের এক গরিব ঠাকুর পরিবারে জন্ম সীমার। মাত্র ১৩ বছর বয়সে ডাকাত সর্দার লালা রাম এবং কুসুম নিয়ানের নজরে পড়ে সীমা। একদিন অতর্কিতে হামলা চালিয়ে সীমাকে অপহরণ করে নিয়ে যায় তারা। শৈশব চুরি হয়ে যায় সীমা পারিহারের। ডাকাতদের মাঝে বড় হয়ে উঠতে শুরু করেন। বাড়ি ফিরে আসার চেষ্টা করলেও পরিবার তাঁকে ফিরিয়ে নেয়নি। বাড়ির বাইরে পা রাখা মেয়েকে ঘরে ফেরালে সমাজে একঘরে হতে হবে। ১৬ বছর বয়স হতে না হতেই একজন পাক্কা ডাকাত রানি হয়ে ওঠেন সীমা। হাতে বন্দুক, খাঁকি পোশাক, আর কপালে লাল তিলক। ঠাকুর পরিবারের মেয়ে সীমা পরিহার এই সাজে ঘোড়ার পিঠে চড়ে বেরলে থরহরিকম্প হত উত্তরপ্রদেশের বির্স্তীণ এলাকা। বিহান্দ জঙ্গল এবং চম্বল নদীর তীরে সীমার সন্ত্রাস মাত্রা ছাড়িয়ে যায়। ৭০টি হত্যা, ২০০ টির বেশি অপহরণ এবং ৩০টি বাড়িতে লুটপাট চালানোর অভিযোগ ওঠে তাঁর বিরুদ্ধে। ১৮ বছর সন্ত্রাস চালানোর পর ২০০০ সালের জুন মাসে উত্তরপ্রদেশ পুলিসের কাছে আত্মসমর্পণ করেন তিনি। জেলে গেলেও সীমা পারিহার সেখানেই শেষ হয়ে যাননি। এরপর রাজনৈতিক জীবন আরও দাপটের সঙ্গে শুরু হয়। ২০০২ সালে শিবসেনার সমর্থনে উত্তরপ্রদেশ বিধানসভা নির্বাচনে দাঁড়ান। কিন্তু জয়ী হননি। এরপর ইন্ডিয়ান জাস্টিস পার্টিতে যোগদান। ২০০৭ সালে মির্জাপুর-ভাদোহি লোকসভা কেন্দ্রে প্রার্থী হিসেবে ভোটে লড়াই করেন। ২০০৮-এ লোক জনশক্তি পার্টিতে যোগ দিলেও ২০১৭ তে সমাজবাদী পার্টি থেকে নতুন ইনিংশ শুরু করেছেন।
 হাসিনা পারকার: দাউদ ইব্রাহিমের বোন। শুধুমাত্র এইটুকু পরিচয়ই মুম্বইয়ের বুকে কাঁপন ধরানোর পক্ষে যথেষ্ট। নাম তাঁর হাসিনা পারকার। যেমন দাদা, তার তেমন বোন। দাউদ ইব্রাহিম দেশান্তরে যাওয়ার পর মুম্বইয়ের ‘ডি’ কোম্পানিতে ধীরে ধীরে পা জমিয়ে ছিলেন হাসিনা। পুরোদস্তুর আত্মপ্রকাশ স্বামীর হত্যার পর। ১৯৯১ সালে অরুণ গাউলির গুলিতে খুন হয় তাঁর স্বামী ইসমাইল পারকার। এরপরই গ্যাংস্টার দুনিয়ায় পা রাখেন হাসিনা।
আমিনা বিবি এবং মহম্মদ ইব্রাহিম কাস্করের সপ্তম সন্তান হাসিনা। বাবা ছিলেন মুম্বই ক্রাইম ব্রাঞ্চের হেড কনস্টেবল। দাদা দাউদ ইব্রাহিম অন্ধকার জগতে বাদশায় পরিণত হওয়ার পর বোন হাসিনারও ধীরে ধীরে উত্থান হয়। একসময় ক্রাইম সিন্ডিকেটের মাথা হয়ে উঠেছিলেন তিনি। হাওলার র‌্যাকেটের সঙ্গেও যুক্ত ছিলেন। নির্মাণ শিল্প সহ একাধিক ক্ষেত্রে হাসিনার অনুমতি ছাড়া একটি পাতাও নড়ত না। দাউদের গ্যাং হাসিনার হাত ধরে মুম্বইয়ে আরও বিস্তার লাভ করেছিল। বিপক্ষকে হাসতে হাসতে খুন করতে পারতেন। অন্ধকার জগতে তিনি ‘আপা’ নামে পরিচিত ছিলেন। শোনা যায়, আটের দশকে হাসিনা আপার সম্পত্তির পরিমাণ ছিল প্রায় পাঁচ হাজার কোটি টাকা। মুম্বইয়ের যে ফ্ল্যাটে তিনি থাকতেন, সেখানে নিরাপত্তা ব্যবস্থা প্রধানমন্ত্রী বা রাষ্ট্রপতির থেকে কিছু কম ছিল না। বিলাসবহুল সেই ফ্ল্যাটের ডবল ডোরের পাশাপাশি কয়েকশো নিরাপত্তা রক্ষী দিনরাত পাহারা দিত। ২০০০ সালের পর থেকে মুম্বই পুলিসের সক্রিয়তা এবং দাউদের প্রভাব কমে যাওয়া হাসিনা সাম্রাজ্য ধীরে ধীরে ছোট হয়ে এসেছিল। ২০১৪ সালে রমজান মাসে রোজা পালনের সময় হৃদরোগে আক্রান্ত হন হাসিনা। চিকিৎসার সুযোগ পাওয়া যায়নি।
 স্বপ্না দিদি: প্রকৃত নাম আশরাফ খান। অপরাধ জগৎ তাঁকে স্বপ্না দিদি নাম দিয়েছিল। অপরাধ জগতে প্রবেশ ইচ্ছা করে নয়। বলা ভালো, অস্তিত্ব রক্ষা করতেই আশরাফ খানের লেডি ডন হয়ে ওঠা। পুলিসের এনকাউন্টারে মারা গিয়েছিলেন স্বামী মেহমুদ কালিয়া। আশরাফ খান সেই প্রথম জানতে পারেন, দাউদ ইব্রাহিমের কথা। স্বামী যে দাউদের হয়ে কাজ করতেন, এর আগে ঘূণাক্ষরে টের পাননি। অভিযোগ ওঠে, ডি কোম্পানি পরিকল্পনা করেই খুন করিয়েছে স্বামীকে। স্বামীর খুনের প্রতিশোধ নিতেই সাদামাটা গৃহবধূ আশরাফ হয়ে ওঠেন মাফিয়া কুইন ওরফে স্বপ্না দিদি। এতদিন পর্যন্ত অন্ধকার জগৎ সম্পর্কে কোনও ধারণা ছিল না। কিন্তু শুধুমাত্র বুদ্ধির জোরে ধীরে ধীরে ভয়াবহ হয়ে উঠেছিলেন। ডি কোম্পানির একাংশের জন্য হয়ে ওঠেন ত্রাস। কীভাবে অন্যের বুকে ধারালো অস্ত্র বসিয়ে দিতে হয়, তার রীতিমতো প্রশিক্ষণ নিয়েছিলেন। শিখেছিলেন বাইক চড়া, মার্শাল আর্ট। একটি সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন, জীবনে একটাই স্বপ্ন, দাউদকে খতম করব। সেই স্বপ্ন পূরণ করতে একাধিকবার পরিকল্পনা করেন। কিন্তু সফল হলনি। দাউদ এই দুঃসাহস হজম করেনি। ১৯৯০ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে মুম্বইয়ের নাগপাড়া এলাকায় বাড়ির সামনে নৃশংসভাবে খুন হন স্বপ্না দিদি। ডি কোম্পানির পথের কাঁটা দূর হয়।
13th  May, 2018
কোলিন্দার ‘সুন্দর’ মুখের আড়ালে! 

কখনও টিমের জন্য গলা ফাটাচ্ছেন, কখনও ফুটবলারদের সঙ্গে মেতে উঠছেন উদ্দাম সেলিব্রেশনে। দেখে কে বলবে তিনিই ছোট্ট দেশটার প্রথম নাগরিক। প্রেসিডেন্ট কোলিন্দা গ্রাবার কিতারোভিচ। পাপারাৎজিরা কেন তাঁর পিছু ছাড়ে না? তিনি নাকি প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সঙ্গেও খুনসুঁটি করতে ছাড়েন না! র‌্যাকিটিচ, মডরিচদের ফুটবল স্কিলে যখম সম্মোহিত ক্রীড়া দুনিয়া, তখন ক্রোটদের সুন্দরী প্রেসিডেন্টের প্রাণোচ্ছলতায় মজেছে নেট দুনিয়া।
বিশদ

22nd  July, 2018
ভালোবাসার শহর সেন্ট পিটার্সবার্গ
রাশিয়া থেকে ফিরে
সন্দীপন বিশ্বাস

সেন্ট পিটার্সবার্গ যেমন ইতিহাসের শহর, তেমনই ভালোবাসারও শহর। এই শহরের প্রাসাদে, নদীতে, গির্জায়, মেট্রোয়, পথে পথে মিশে আছে এক রোমান্টিসিজম। তাকে দেখা যায়, অনুভব করা যায়। প্রেমের শহর সেন্ট পিটার্সবার্গ। জার শাসকদের সময় ছুঁয়ে আজ পর্যন্ত এই শহর দেখেছে বহু প্রেম। সেই প্রেম কখনও সফল, কখনও রক্তাক্ত, কখনও ব্যর্থ, কখনও বা সেই প্রেম এনে দিয়েছে মৃত্যুর গন্ধ।
বিশদ

22nd  July, 2018
থাই শিশুদের নিয়ে চলচ্চিত্র নির্মাণে আগ্রহী হলিউড 

ঘটনা অবিশ্বাস্য হলেও সত্যি। ১৭ দিন পর থাইল্যান্ডের বিপজ্জনক গুহায় আটকে পড়া কিশোরদের উদ্ধার করেছেন দুঃসাহসী ডুবুরিরা। চিয়াং রাই হাসপাতালের বেডে মুখে মাস্ক ও হাসপাতালের গাউন পরা অবস্থায় রয়েছে তারা।
বিশদ

15th  July, 2018
ইতিহাসের সন্ধানে... 
সেন্ট পিটার্সবার্গে
(রাশিয়া থেকে ফিরে সন্দীপন বিশ্বাস)

জুন, জুলাই মাসের এই সময়টায় সেন্ট পিটার্সবার্গে সূর্যের আলস্য দেখার মতো। অস্ত যেতে যেন মন চায় না তার। সারাদিন মাথার উপর জ্বলছে তো জ্বলছেই। ঘড়িতে তখন সাড়ে এগারোটা বেজে গেল। সেটাকে রাত বলব কিনা বুঝতে পারছি না! তখন পশ্চিমের আকাশে সূয্যিমামার অনিচ্ছার ডুব।
বিশদ

15th  July, 2018
হেরে গিয়েও জিতে যাওয়া বোধহয় একেই বলে 

হেরে গিয়েও জিতে যাওয়া বোধহয় একেই বলে!
বিশ্বকাপের দ্বিতীয় রাউন্ডের লড়াইয়ে বেলজিয়ামের সঙ্গে মুখোমুখি হয় জাপান। দুর্দান্ত খেলে দু’গোলে এগিয়েও যায় তারা। কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি। ম্যাচ শেষ হওয়ার আগেই তিনটে গোল দিয়ে জাপানকে হারিয়ে বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে পৌঁছে যায় বেলজিয়াম।
বিশদ

08th  July, 2018
ভলগা নদীর তীরে... 
রাশিয়া থেকে সোমনাথ বসু

উলিৎসা সেমাশকো থেকে হাঁটাপথেই গোর্কি মিউজিয়াম। সেখানে সংরক্ষিত রয়েছে ‘মা’ উপন্যাসের খসড়া। এমনকী প্রথম মুদ্রিত বইও। দুই খণ্ডে লেখা ‘মা’ বিপ্লবের আগমনি বার্তা ছড়িয়ে দিয়েছিল গোটা রাশিয়ায়। সরল মানবিকতা থেকে গোর্কি উত্তীর্ণ হন শ্রেণী-মানবিকতায়। উৎপল দত্ত এ‌ই উপন্যাসের একটি অংশকে নিয়ে লিখেছিলেন ‘মে দিবস’ নাটক...
বিশদ

08th  July, 2018
বিশ্বকাপের ম্যাসকট
জাবিভাকার জন্মকথা
সন্দীপন বিশ্বাস

পশ্চিম সাইবেরিয়ার একটা ছোট্ট শহর কিদরোভি। মস্কো থেকে অনেক দূর। প্রায় সাড়ে তিন হাজার কিলোমিটার। সেখানকার মেয়ে একাতেরিনা বোচারোভা আজ সারা বিশ্বে এক পরিচিত নাম। সে তো ওই জাবিভাকার দৌলতেই। জাবিভাকা একাতেরিনার কল্পনাপ্রসূত সৃষ্টি। সেই জাবিভাকা এবারের বিশ্বকাপের ম্যাসকট। বিশদ

03rd  June, 2018
সিলভিও গাজ্জানিগা
বিশ্বকাপের নকশার কারিগর
অরূপ দে

১৯৭১ সালের ৫ এপ্রিল জুরিখে ফিফা প্রেসিডেন্ট স্যার স্ট্যানলি রিউসের নেতৃত্বে একটি বিশেষ কমিটি তৈরি করা হয় নতুন ট্রফির জন্য নকশা নির্বাচনের উদ্দেশ্যে। সেই কমিটি আহ্ববান করে নকশা প্রতিযোগিতার। খবর পেয়েই সিলভিও গাজ্জানিগা শুরু করলেন কাজ।
বিশদ

03rd  June, 2018
তারাপীঠ
মহাপীঠের ২০০ বছর 

তারাপীঠের মন্দিরের ইতিহাসকে দুশো বছরের মধ্যে আটকানো যায় না। তার ইতিহাস প্রাচীন, আবছায়া, অস্পষ্ট এক অতীতের মধ্যে মিশে আছে। একদিকে পুরাণ আর একদিকে ইতিহাস। একদিকে লোককথা, অন্যদিকে দলিল। সব মিলেই তারাপীঠের মন্দির এবং তারামায়ের কাহিনী একাকার হয়ে গিয়েছে... 
বিশদ

13th  May, 2018
তারামায়ের ছেলে বামাক্ষ্যাপা 

বহু সিদ্ধ পুরুষের সাধনক্ষেত্র তারাপীঠ। কিন্তু তারাপীঠের কথা উঠলেই যে সাধক পুরুষের নামটি মনে আসে, তিনি হলেন বামাক্ষ্যাপা। তারামায়ের ক্ষ্যাপা ছেলে বামাক্ষ্যাপা। নানা লৌকিক এবং অলৌকিক কাহিনী ছড়িয়ে আছে তাঁকে ঘিরে। তারাপীঠের অদূরে আটলা গ্রামে তাঁর জন্ম।
বিশদ

13th  May, 2018
রহস্যময়ী রিতা কাৎজ 
মৃণালকান্তি দাস

রিতা কাৎজ। বাংলাদেশের দুই বিদেশি নাগরিক খুন হওয়ার পর ৫২ বছরের এই মহিলাই প্রথম ট্যুইটারে দাবি করেছিলেন, এই হত্যাকাণ্ড আইএস (ইসলামিক স্টেট) ঘটিয়েছে। ঢাকার গুলশানের হোলি আর্টিজান বেকারিতে হামলা চালিয়ে ২০ জনকে জবাই করে হত্যা করার পর হামলাকারীদের ছবিও প্রথম প্রকাশ করেছিল রিতা কাৎজের ‘সাইট ইন্টেলিজেন্স গ্রুপ’ ওয়েবসাইট।
বিশদ

06th  May, 2018
কলঙ্কিত দেশ 
কল্যাণ বসু

ন্যাশনাল ক্রাইম রেকর্ড ব্যুরোর পরিসংখ্যান বলছে ২০১২ সালে গোটা দেশে নথিভুক্ত ধর্ষণের সংখ্যা ছিল ২৪,৯২৩ আর ২০১৬ সালে সেটা ৩৮,৯৪৭! অর্থাৎ হ্রাস তো দূরের কথা, পাঁচ বছরে ধর্ষণের ঘটনা ৫৬ শতাংশ বেড়েছে!
বিশদ

06th  May, 2018
জঙ্গিদের থেকেও রাশিয়ার ভয় পঙ্গপালের দলকে 

সন্দীপন বিশ্বাস: ১৯৯৮ সালের ফ্রান্স বিশ্বকাপে যে লোকটা পুলিশের হাড় পর্যন্ত কাঁপিয়ে দিয়েছিল, সে হল ফরিদ মেলুক। একজন আলজিরিয়ান ইসলামিক জঙ্গি। মেলুককে বলা হতো জঙ্গিদের ঠিকানা। সারা বিশ্বের জঙ্গিদের গতিবিধি, যোগাযোগের তথ্য ছিল তার নখের ডগায়।
বিশদ

29th  April, 2018
জোটের পথে... 

২০১৯-এর আগে বেশ কয়েকটি রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচন। এর মধ্যে রয়েছে বিজেপি শাসিত মধ্যপ্রদেশ, রাজস্থান ও ছত্তিশগড়ও। এই সব রাজ্যের ফল ২০১৯-এর সমীকরণ তৈরিতে অনেকটাই সাহায্যকরবে। কারণ বিধানসভায় বিজেপি ভালো ফল করলে, এখনকার মোদি বিরোধী হাওয়া আবার কমে যাবে। আর যদি বিজেপি হারে, তবে জোট রাজনীতির ঝড় উঠবে। লিখেছেন প্রীতম দাশগুপ্ত।
বিশদ

29th  April, 2018
একনজরে
বিএনএ, কোচবিহার: দলের একাধিক নির্দেশকে অমান্য করার জেরে কোচবিহার পুরসভার দু’জন দলীয় কাউন্সিলারকে রবিবার সাসপেন্ড করেছে ফরওয়ার্ড ব্লক। ১ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলার চন্দনা মোহন্ত ও ১৬ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলার তপন ঘোষকে দ্রুত সাসপেন্ডের চিঠি পাঠানো হবে।  ...

কারাকাস, ১০ ফেব্রুয়ারি: আন্তর্জাতিক বাজারে তেল বিক্রি থেকে পাওয়া অর্থ যুক্তরাষ্ট্রের বদলে রাশিয়ার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট স্থানান্তরের উদ্যোগ নিয়েছে ভেনেজুয়েলা। এর অংশ হিসেবে ইতিমধ্যেই রাষ্ট্রায়ত্ত্ব তেল কোম্পানি পিডিভিএসএ’র পক্ষ থেকে ক্রেতাদের রাশিয়ার একটি ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের নম্বর সরবরাহ করা হয়েছে। ...

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: পিএফ খেলাপিদের সংখ্যা বাড়ছে। অর্থাৎ, কর্মীর বেতন থেকে পিএফ বাবদ টাকা কেটে নিলেও, তা পিএফ দপ্তরে জমা করছে না বহু সংস্থা। গোটা দেশেই এই অপরাধ বাড়ছে। বাদ নেই পশ্চিমবঙ্গও। এবার এই বিষয়ে প্রত্যেকটি আঞ্চলিক অফিসকে সতর্ক করল ...

 প্রসেনজিৎ কোলে, কলকাতা: এবার নতুন ভাবে সাজতে চলেছে অটো। অটোর মূল রং এক রেখে তার উপরে এবার দিতে হবে হলুদ, সাদা, নীলের আঁচড়। পরিবহণ দপ্তর ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
aries

পারিবারিক ঝামেলার সন্তোষজনক নিষ্পত্তি। প্রেম-প্রণয়ে শুভ। অতিরিক্ত উচ্চাভিলাষে মানসিক চাপ বৃদ্ধি। প্রতিকার: আজ দই খেয়ে ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৮৪৭: বিজ্ঞানী টমাস আলভা এডিসনের জন্ম
১৮৮২: ছন্দের জাদুকর সত্যেন্দ্রনাথ দত্তের জন্ম
১৯১৭: মার্কিন লেখক সিডনি শেলডনের জন্ম
১৯৮০: ঐতিহাসিক রমেশচন্দ্র মজুমদারের মৃত্যু
১৯৯০: দক্ষিণ আফ্রিকার জেল থেকে মুক্তি পেলেন নেলসন ম্যান্ডেলা 





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.৫৪ টাকা ৭২.২৪ টাকা
পাউন্ড ৯০.৮২ টাকা ৯৪.০৯ টাকা
ইউরো ৭৯.৩৬ টাকা ৮২.৫৩ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
09th  February, 2019
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৩,৭৮০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩২,০৫০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩২,৫৩০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪০,১৫০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪০,২৫০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]
10th  February, 2019

দিন পঞ্জিকা

 ২৮ মাঘ ১৪২৫, ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, সোমবার, ষষ্ঠী ২২/৪৪ দিবা ৩/২১। অশ্বিনী ৩৭/২৩ রাত্রি ৯/১২। সূ উ ৬/১৫/১২, অ ৫/২৬/৪২, অমৃতযোগ দিবা ৭/৪৫ মধ্যে পুনঃ ১০/৪৩ গতে ১২/৫৮ মধ্যে। রাত্রি ৬/১৮ গতে ৮/৫১ মধ্যে পুনঃ ১১/২৫ গতে ২/৫১ মধ্যে। বারবেলা ৭/৩৯ গতে ৯/৩ মধ্যে পুনঃ ২/৩৮ গতে ৪/২ মধ্যে, কালরাত্রি ১০/১৫ গতে ১১/৫১ মধ্যে।
২৭ মাঘ ১৪২৫, ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, সোমবার, ষষ্ঠী ১১/০/১১। অশ্বিনীনক্ষত্র অপঃ ৫/২৪/৩২, সূ উ ৬/১৬/৩৫, অ ৫/২৪/৫৯, অমৃতযোগ দিবা ৭/৪৫/৪২ মধ্যে ও ১০/৪৩/৫৭ থেকে ১২/৫৭/৩৮ এবং রাত্রি ৬/১৬/২৫ থেকে ৮/৫০/৪৪ মধ্যে ও ১১/২৫/৪ থেকে ২/৫০/৪৯ মধ্যে, বারবেলা ২/৩৭/৫৩ থেকে ৪/১/২৬ মধ্যে, কালবেলা ৭/৪০/৮ থেকে ৯/৩/৪১ মধ্যে, কালরাত্রি ১০/১৪/২০ থেকে ১১/৫০/৪৭ মধ্যে। 
৫ জমাদিয়স সানি
এই মুহূর্তে
পথ দুর্ঘটনায় মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীর মৃত্যু ঘিরে উত্তেজনা বীরভূম জেলার ময়ূরেশ্বরের কোটসুরে 

07:03:00 PM

পশ্চিম মেদিনীপুরের কেশিয়াড়িতে স্কুলে ছাত্রীর ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার, চাঞ্চল্য 

05:32:00 PM

মেট্রো চ্যানেলে ধর্না, গ্রেপ্তার মান্নান সহ অনেকে
কলকাতার মেট্রো চ্যনেলে ধর্নায় বসতে গিয়ে গ্রেপ্তার হলেন বিরোধী দলনেতা ...বিশদ

05:21:00 PM

বেশ কিছু বাস বন্ধ হাওড়ায়, চরম ভোগান্তি যাত্রীদের
হাওড়া ময়দান থেকে ১০টি রুটের মোট ২৮০টি বাস চলাচল বন্ধ ...বিশদ

05:16:17 PM

শিয়ালদহ মেন ও বনগাঁ শাখায় রেল অবরোধ
কৃষ্ণগঞ্জের বিধায়ক সত্যজিৎ বিশ্বাস খুনেরপ্রতিবাদে অবরোধের জেরে শিয়ালদহ মেন শাখা ...বিশদ

04:47:00 PM

মাধ্যমিকের প্রশ্নপত্র নিয়ে কী কী বিধি জারি করল পর্ষদ
আগামীকাল শুরু মাধ্যমিক। এবারের মাধ্যমিকে পরীক্ষার্থির সংখ্যা বেশ কিছুটা ...বিশদ

04:43:50 PM