Bartaman Patrika
গল্পের পাতা
 

কালাদা 

জীবনের প্রধান ও মুখ্য ঘটনাগুলিই কেবল মনে থাকার কথা। কিন্তু অনেক সময়ই দেখা যায় স্মৃতির অতলে অনেক তুচ্ছ ক্ষুদ্র ঘটনাও কেমন করে বেশ বড় হয়ে জাঁকিয়ে বসে রয়েছে। সাহিত্যিকদের ‘ভবঘুরে’ জীবনের তেমনই নানা ঘটনা উঠে এল কলমের আঁচড়ে। আজ লিখছেন বুদ্ধদেব গুহ। 

কলেজে পড়ার সময় এনসিসির ক্যাডেট হিসাবে ন্যাশনাল রাইফেল শ্যুটিং কম্পিটিশনে সিলেক্টেড হয়ে বারাকপুরের পুলিস ট্রেনিং কলেজের রেঞ্জে রাইফেল ছুঁড়তে যেতে হতো। সারাদিন গুলি ছুঁড়তে হতো নানা পজিশন এবং দূরত্ব থেকে। মাথার উপরে এনসিসির এয়ার ফোর্স উইংয়ের ক্যাডেটরা বনানজা এবং টাইগার মথ প্লেনে করে উপরে প্লেন চালানো শিখত।
কয়েক বছর আগে একটি সান্ধ্য অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত হয়ে গঙ্গার পাড়ের একটি ক্লাবে গিয়েছিলাম। সেখান থেকে নদীর অপর পাড়ে একসারি শিবমন্দির দেখা যেত। সেই অনুষ্ঠানে আমি নিধুবাবুর একটি টপ্পা গেয়েছিলাম। অনুষ্ঠান শেষে এক ভদ্রলোক এসে আমার হাত ধরে গানের খুব সুখ্যাতি করে নিজের পরিচয় দিয়ে বলেছিলেন, ‘আমার নাম কালাচাঁদ লাহিড়ী। আমি শুনেছি, তোমার ডাক নাম লালা। আমি তোমার চেয়ে বয়সে বড়। আজ থেকে আমি তোমার কালাদা।’ তারপরই বলেছিলেন, ‘ভায়া, আজকে তো মুখবন্ধ হল। তোমায় এখানে আবার আসতে হবে এবং আমার ছাত্রছাত্রীদের তোমার খালি গলার গান শোনাতে হবে। ইলিশ উঠলে তবেই তোমাকে আসতে বলব। দেড় কেজির কমের ইলিশে কোনও স্বাদ থাকে না। তেলও থাকে না। তোমাকে ইলিশ মাছ ভাজা, সাদা সর্ষে দিয়ে ইলিশ ভাপা, ইলিশের মাথা দিয়ে কচুর শাক, ইলিশ মাছের মাথা দেওয়া মুগের ডাল এবং ইলিশ মাছের মাথার টক খাওয়াব। তুলাইপঞ্জি চালের ভাতের সঙ্গে। সারাদিন আমি, তুমি এবং আমার ছাত্রছাত্রীরা গান গাইব এবং গান শোনাব।’ শুনে আমি বললাম, ‘কালাদা, আমি তো বাথরুম সিঙ্গার। শোনাবার মতো গান তো আমি গাই না। তাছাড়া নিধুবাবুর গান কালীপদ পাঠক মশাই, রামকুমার চট্টোপাধ্যায়, চণ্ডীদাস মাল এবং দিলীপ মুখোপাধ্যায়রাই গেয়েছেন এবং গেয়ে থাকেন। তাছাড়া আমি তো কোনও বাজনার সঙ্গে গেয়ে অভ্যস্ত নই। কারণ প্রচলিত অর্থে আমি তো গায়কও নই।’
—তুমি গায়ক না হতে পার আমি তো গায়ক। গান নিয়েই সারা জীবন কাটিয়ে দিলাম। তুমি তো ভায়া আরেক মিয়াঁ মৌজউদ্দিন। নানা বাজনার সঙ্গে যা রিওয়াজ করার তা তুমি আগের জন্মেই করে এসেছ। ঈশ্বর তোমার গলায় তানপুরা, হারমোনিয়াম, সারেঙ্গি এইসব কেসি দাসের রসগোল্লার টিনের মতো এয়ার টাইট কৌটোতে প্যাক করে পাঠিয়েছেন। তাই এ জন্মে তোমার কোনও বাজনারই প্রয়োজন নেই। তুমি গাইলে অদৃশ্য অনেক বাজনা অশ্রুতভাবে তোমার গানের সঙ্গে বাজবে। আমি বিব্রত হয়ে বললাম, ‘না কালাদা, এতসব প্রশস্তি আমার প্রাপ্য নয়। তবে আপনি অনুরোধ করলে এবং একটু আগে জানালে আমি নিশ্চয়ই আসব এখানে। আপনার এবং আপনার ছাত্রছাত্রীদের গান শুনতে এবং যদি মতি হয় তাহলে আমিও না হয় দু’কলি গাইব।’ তারপর জিজ্ঞেস করলাম, ‘আপনি কি সপরিবারে এখানে থাকেন?’
—না ভায়া, আমি বিয়ে করিনি। এই নয় যে, কোনও মেয়ে আমাকে বিয়ে করতে চায়নি। কিন্তু আমার যে আগেই সুরের সঙ্গে বিয়ে হয়ে গিয়েছিল। আমার দু’কাঁধের দাঁড়ে ললিত, বিভাস, তরী, ভৈরবী, মালকোষ, কাফি, দরবারি কানাড়া এই সব পাখিরা মৌরুসি পাট্টা গেড়েছিল। তাই আমার দু’কাঁধ ঝাঁকিয়ে দিয়ে তাঁদের উড়িয়ে দিয়ে একজন মাত্র ললনাকে আমার অধিশ্বরী করে হৃদয়াসনে বসাতে পারিনি।
আমার ছাত্রছাত্রীরাই আমার পরিবার। দেখো ভায়া, গান তো অনেকেই গায় কিন্তু দুঃখের বিষয় একথা হৃদয়াঙ্গম করে ব্যথা পাই, যখন দেখি যে তাদের সুরের দিনগুলিকে কোনও এক অদৃশ্য অসুর তার অ-সুরের খোঁয়াড়ে পুরে রেখেছে। তাই নিটোল মুক্তোর মতো সুর তাদের কণ্ঠ নিঃসৃত হয় না। গান যদি গানের মতো না হয়, সুর যদি স্বচ্ছতোয়া ঝর্ণার মতো না হয় তাহলে সে সুর হৃদয়ের তন্ত্রে তন্ত্রে আঘাত করবে কী করে? তাই সে গান তাল, লয়, সুর এসবে মাখামাখি হয়ে কয়েতবেল মাখার মতো স্বাদু এবং মধুর হয়ে উঠতে পারে অবশ্যই সেটাকে তখনকার মতো মজিয়ে দিতে পারে কিন্তু সে গান শ্রোতার হৃদয় এবং মস্তিস্কে অনুরণন তুলতে পারে না। ভায়া, তুমি নিজে বুঝবে না বিধাতা তোমাকে কী দিয়েছেন। এই অমূল্য ধন তুমি অতি বিনয়ী হয়ে নষ্ট করো না। যদি তা করো তাহলে তা বিধাতাকে অসম্মান করা হবে।
কালাদা মাঝে মাঝে আমাকে ফোন করেন। ভরাট গলায় বলেন, ‘লালা, আমি তোমার কালাদা বলছি। কী করব বলো ইলিশগুলো সব বেঁটে হয়ে গিয়েছে। এই ক’বছরের মধ্যে দেড় কেজির বেশি ইলিশ চোখেই পড়ল না। তোমাকে আসতে বলি কোন মুখে বলো!’
আমি বললাম, ‘আপনাকে দেড় কেজি ইলিশের জন্য অপেক্ষা করতে হবে না। আপনি পুঁটি মাছের চচ্চড়ি খাওয়ালেও যাব। কিন্তু আমার বয়স পঁচাশি হলেও কালাদা আপনি তো আমার চেয়েও বড়। আপনার কত হল?’
উনি বললেন, ‘নব্বই ছুঁই ছুঁই।’
আমি বললাম, তবে আর দেরি করে লাভ নেই। আমি ছোট হলেও তো আপনার চেয়ে আগে যেতে পারি। তাই আমার ও আপনার গলা যতদিন সুরে বলে ততদিনেরই মধ্যে একদিন ডাকুন আপনার ছাত্রছাত্রীদের। হোক একদিন হুল্লোড়। গানে গানে বারাকপুরের গঙ্গায় আমরা সকলে মিলে ভেসে যাই চলুন। গায়ক আমিও অনেক দেখেছি কালাদা। উচ্চাঙ্গ সঙ্গীতের গায়ক, রবীন্দ্রসঙ্গীতের গায়ক, আধুনিক গানের গায়ক। কিন্তু আপনার মতো প্রকৃত গায়ক বেশি দেখিনি। অনেকেই গান করেন কিন্তু তাঁদের গান শুনে রবীন্দ্রনাথের সেই গানের কলিগুলি মনে পড়ে যায়—
‘প্রাণে গান নাই, মিছে তাই ফিরিনু যে
বাঁশিতে সে গান খুঁজে।
প্রেমেরে বিদায় ক’রে দেশান্তরে
বেলা যায় কারে পূজে।’
আমার কাছে কালাদার ফোন নম্বরটি ছিল কিন্তু চোখে দেখি না বলে কোথায় যে রেখেছি, তা আর খুঁজে পাচ্ছি না। জানি না এ লেখা কালাদার চোখে পড়বে কি না। তাঁকে আমার প্রণাম এবং তাঁর দীর্ঘায়ু প্রার্থনা করে এ ক’টি কথা বললাম।
অলঙ্করণ: সোমনাথ পাল
18th  October, 2020
আজও তারা জ্বলে 

বাংলা ছবির দিকপাল চরিত্রাভিনেতারা একেকটা শৈল্পিক আঁচড়ে বঙ্গজীবনে নিজেদের অমর করে রেখেছেন। অভিনয় ছিল তাঁদের শরীরে, মননে, আত্মায়। তাঁদের জীবনেও ছড়িয়ে ছিটিয়ে অনেক অমূল্য রতন। তারই খোঁজে সন্দীপ রায়চৌধুরী। আজ ছায়া দেবী- সপ্তম কিস্তি। 
বিশদ

18th  October, 2020
খিদে
তপন বন্দ্যোপাধ্যায় 

ক্লাস ফাইভে পড়াতে ঢুকেই সবচেয়ে বেশি সমস্যায় পড়ে মিলিতা। কারও বয়স দশ, কারও এগারো। অধিকাংশই গরিব ঘরের, অনেকেরই সব বই কেনা হয়নি এখনও। কেউ কেউ একটা-দুটো বই হয়তো হাতে পাবেই না, অথচ অ্যানুয়াল পরীক্ষা দিতে বসবে। গার্জেনদের কাকুতি-মিনতি, অনুরোধে তুলে দিতে হয় পরের ক্লাসে। আজ পড়াতে পড়াতে হঠাৎ চোখ পড়ল ইমনের দিকে।  
বিশদ

18th  October, 2020
সেই মুখ

জীবনের প্রধান ও মুখ্য ঘটনাগুলিই কেবল মনে থাকার কথা। কিন্তু অনেক সময়ই দেখা যায় স্মৃতির অতলে অনেক তুচ্ছ ক্ষুদ্র ঘটনাও কেমন করে বেশ বড় হয়ে জাঁকিয়ে বসে রয়েছে। সাহিত্যিকদের ‘ভবঘুরে’ জীবনের তেমনই নানা ঘটনা উঠে এল কলমের আঁচড়ে। আজ লিখছেন অনিতা অগ্নিহোত্রী। 
বিশদ

11th  October, 2020
আজও তারা জ্বলে 

বাংলা ছবির দিকপাল চরিত্রাভিনেতারা একেকটা শৈল্পিক আঁচড়ে বঙ্গজীবনে নিজেদের অমর করে রেখেছেন। অভিনয় ছিল তাঁদের শরীরে, মননে, আত্মায়। তাঁদের জীবনেও ছড়িয়ে ছিটিয়ে অনেক অমূল্য রতন। তারই খোঁজে সন্দীপ রায়চৌধুরী। আজ ছায়া দেবী- ষষ্ঠ কিস্তি। 
বিশদ

11th  October, 2020
যোগিনী হইয়া

 জীবনের প্রধান ও মুখ্য ঘটনাগুলিই কেবল মনে থাকার কথা। কিন্তু অনেক সময়ই দেখা যায় স্মৃতির অতলে অনেক তুচ্ছ ক্ষুদ্র ঘটনাও কেমন করে বেশ বড় হয়ে জাঁকিয়ে বসে রয়েছে। সাহিত্যিকদের ‘ভবঘুরে’ জীবনের তেমনই নানা ঘটনা উঠে এল কলমের আঁচড়ে। আজ লিখছেন এষা দে। বিশদ

04th  October, 2020
 আজও তারা জ্বলে

 বাংলা ছবির দিকপাল চরিত্রাভিনেতারা একেকটা শৈল্পিক আঁচড়ে বঙ্গজীবনে নিজেদের অমর করে রেখেছেন। অভিনয় ছিল তাঁদের শরীরে, মননে, আত্মায়। তাঁদের জীবনেও ছড়িয়ে ছিটিয়ে অনেক অমূল্য রতন। তারই খোঁজে সন্দীপ রায়চৌধুরী। আজ ছায়া দেবী- পঞ্চম কিস্তি। বিশদ

04th  October, 2020
চলার পথে
ব্যাক বেঞ্চারস

জীবনের প্রধান ও মুখ্য ঘটনাগুলিই কেবল মনে থাকার কথা। কিন্তু অনেক সময়ই দেখা যায় স্মৃতির অতলে অনেক তুচ্ছ ক্ষুদ্র ঘটনাও কেমন করে বেশ বড় হয়ে জাঁকিয়ে বসে রয়েছে। সাহিত্যিকদের ‘ভবঘুরে’ জীবনের তেমনই নানা ঘটনা উঠে এল কলমের আঁচড়ে। আজ লিখছেন তন্ময় চক্রবর্তী। বিশদ

27th  September, 2020
আজও তারা জ্বলে

 বাংলা ছবির দিকপাল চরিত্রাভিনেতারা একেকটা শৈল্পিক আঁচড়ে বঙ্গজীবনে নিজেদের অমর করে রেখেছেন। অভিনয় ছিল তাঁদের শরীরে, মননে, আত্মায়। তাঁদের জীবনেও ছড়িয়ে ছিটিয়ে অনেক অমূল্য রতন। তারই খোঁজে সন্দীপ রায়চৌধুরী। আজ ছায়া দেবী- চতুর্থ কিস্তি।
বিশদ

27th  September, 2020
চলার পথে 

জীবনের প্রধান ও মুখ্য ঘটনাগুলিই কেবল মনে থাকার কথা। কিন্তু অনেক সময়ই দেখা যায় স্মৃতির অতলে অনেক তুচ্ছ ক্ষুদ্র ঘটনাও কেমন করে বেশ বড় হয়ে জাঁকিয়ে বসে রয়েছে। সাহিত্যিকদের ‘ভবঘুরে’ জীবনের তেমনই নানা ঘটনা উঠে এল কলমের আঁচড়ে। আজ লিখছেন বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায়।  বিশদ

20th  September, 2020
আজও তারা জ্বলে 

বাংলা ছবির দিকপাল চরিত্রাভিনেতারা একেকটা শৈল্পিক আঁচড়ে বঙ্গজীবনে নিজেদের অমর করে রেখেছেন। অভিনয় ছিল তাঁদের শরীরে, মননে, আত্মায়। তাঁদের জীবনেও ছড়িয়ে ছিটিয়ে অনেক অমূল্য রতন। তাঁরই খোঁজে সন্দীপ রায়চৌধুরী। আজ ছায়া দেবী- তৃতীয় কিস্তি। 
বিশদ

20th  September, 2020
রেলগাড়ি ঝমা ঝম
কাকলি দেবনাথ 

পিয়ানোর সুরেলা টুং টাং আওয়াজ। রান্না ছেড়ে দৌড়ে গিয়ে মোবাইলটা দেখলাম।
তিতাসের মেসেজ— তা হলে আমি অনলাইনে টিকিট কেটে নিচ্ছি?  বিশদ

20th  September, 2020
তর্পণ
ধ্রুব মুখোপাধ্যায়

 এখন আমার বিরানব্বই। সেই ছেলেবেলা থেকেই আমি ভীষণ সেয়ানা। যদিও এই জিনিসটা, আমি সারা জীবন উপভোগই করেছি। সেই যেবার রাতের অন্ধকারে মা, বাবার সঙ্গে পদ্মা পেরিয়ে এপারে এলাম সেবারও, সবাই যখন বহরমপুরে মাথা গোঁজার ঠাঁই খুঁজছে আমি তখন চুপচাপ খবর লাগিয়েছিলাম, শিয়ালদা স্টেশনের।
বিশদ

13th  September, 2020
আজও তারা জ্বলে
পর্ব- ৩৯

 বাংলা ছবির দিকপাল চরিত্রাভিনেতারা একেকটা শৈল্পিক আঁচড়ে বঙ্গজীবনে নিজেদের অমর করে রেখেছেন। অভিনয় ছিল তাঁদের শরীরে, মননে, আত্মায়। তাঁদের জীবনেও ছড়িয়ে ছিটিয়ে অনেক অমূল্য রতন। তাঁরই খোঁজে সন্দীপ রায়চৌধুরী। আজ ছায়া দেবী- দ্বিতীয় কিস্তি।
বিশদ

13th  September, 2020
মুনকুদি

 জীবনের প্রধান ও মুখ্য ঘটনাগুলিই কেবল মনে থাকার কথা। কিন্তু অনেক সময়ই দেখা যায় স্মৃতির অতলে অনেক তুচ্ছ ক্ষুদ্র ঘটনাও কেমন করে বেশ বড় হয়ে জাঁকিয়ে বসে রয়েছে। সাহিত্যিকদের ‘ভবঘুরে’ জীবনের তেমনই নানা ঘটনা উঠে এল কলমের আঁচড়ে। আজ লিখছেন নলিনী বেরা। বিশদ

13th  September, 2020
একনজরে
ট্যুইটারে লাদাখকে চীনের অংশ হিসেবে দেখানো হচ্ছে। এনিয়ে ভারতের যৌথ সংসদীয় কমিটির প্রশ্নের মুখে ট্যুইটার ইন্ডিয়া। তাদের তরফে বিষয়টি নিয়ে এই মাইক্রোব্লগিং সাইট কর্তৃপক্ষের কাছে কৈফিয়ত তলব করা হয়। যার উত্তরে সংশ্লিষ্ট কমিটিকে ট্যুইটার ইন্ডিয়া জানিয়েছে, এ ব্যাপারে তারা ভারতের ...

করোনা আবহেও লক্ষ্মীর আরাধনার বাজেটে খামতি পড়েনি। এমনকী বাইরে থেকে চাঁদা আদায়ও নয়। গ্রামবাসীরাই বছরভর মাটির ভাঁড়ে যে টাকা জমিয়েছেন, তাতেই হচ্ছে পুজোর আয়োজন। ...

বংশপরম্পরায় আজও মহানায়ক উত্তমকুমারের বাড়ির লক্ষ্মী প্রতিমা তৈরি করে চলেছেন কুমোরটুলির একটি নির্দিষ্ট শিল্পী পরিবার। পটুয়াপাড়ার ৪০/১, বনমালি সরকার স্ট্রিটে মৃৎশিল্পী জয়ন্ত পালের ঘরে জোরকদমে ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, তমলুক: ভুয়ো ভাউচার ছাপিয়ে ময়নার শ্রীকণ্ঠা সমবায় কৃষি উন্নয়ন সমিতি থেকে প্রায় ১৩ লক্ষ টাকা আত্মসাৎতের অভিযোগ উঠল সমিতির ম্যানেজারের বিরুদ্ধে। গত ১৭ অক্টোবর সমবায় সমিতির সম্পাদক সুবোধচন্দ্র মাইতি ম্যানেজার সোমনাথ দাসের বিরুদ্ধে ময়না থানায় এফআইআর করেছেন।   ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

উচ্চবিদ্যার ক্ষেত্রে মধ্যম ফল আশা করা যায়। প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় সাফল্য আসবে। প্রেম-প্রণয়ে নতুনত্ব আছে। কর্মরতদের ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

বিশ্ব স্ট্রোক দিবস
১৯৬৯: ইন্টারনেটের আগের স্তর আরপানেটের আবিষ্কার
১৯৭১: অস্ট্রেলিয় ক্রিকেটার ম্যাথু হেডের জন্ম
১৯৮১: অভিনেত্রী রীমা সেনের জন্ম
১৯৮৫: বক্সার বিজেন্দর সিংয়ের জন্ম
১৯৮৮: সমাজ সংস্কারক ও স্বাধীনতা সংগ্রামী কমলাদেবী চট্টোপাধ্যায়ের মৃত্যু
১৯৯৯: ওড়িশায় ঘূর্ণিঝড়ে কমপক্ষে ১০ হাজার মানুষের মৃত্যু
২০০৫: দিল্লিতে পরপর তিনটি বিস্ফোরণে অন্তত ৬২জনের মৃত্যু  



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭২.৮৯ টাকা ৭৪.৬০ টাকা
পাউন্ড ৯৪.৪৭ টাকা ৯৭.৮৪ টাকা
ইউরো ৮৫.২৮ টাকা ৮৮.৪৪ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৫১,৮১০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৪৯,১৫০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৪৯,৮৯০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৬২,১০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৬২,২০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

১২ কার্তিক, ১৪২৭, বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২০, ত্রয়োদশী ২৩/৫২ দিবা ৩/১৬। উত্তরভাদ্রপদ নক্ষত্র ১৫/৪১ দিবা ১২/০। সূর্যোদয় ৫/৪৩/১৬, সূর্যাস্ত ৪/৫৭/৩০। অমৃতযোগ দিবা ৭/১৩ মধ্যে পুনঃ ১/১৩ গতে ২/৪২ মধ্যে। রাত্রি ৫/৪৮ গতে ৯/১৩ মধ্যে পুনঃ ১১/৪৬ গতে ৩/১০ মধ্যে পুনঃ ৪/১ গতে উদয়াবধি। বারবেলা ২/১০ গতে অস্তাবধি। কালরাত্রি ১১/২১ গতে ১২/৫৬ মধ্যে।
১২ কার্তিক, ১৪২৭, বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২০, ত্রয়োদশী দিবা ৩/২১। উত্তরভাদ্রপদ নক্ষত্র দিবা ১/১২। সূর্যোদয় ৫/৪৪, সূর্যাস্ত ৪/৫৮। অমৃতযোগ দিবা ৭/১৮ মধ্যে ও ১/১১ গতে ২/৩৯ মধ্যে এবং রাত্রি ৫/৪৩ গতে ৯/১১ মধ্যে ও ১১/৪৬ গতে ৩/১৪ মধ্যে ও ৪/৬ গতে ৫/৪৫ মধ্যে। কালবেলা ২/১০ গতে ৪/৫৮ মধ্যে। কালরাত্রি ১১/২১ গতে ১২/৫৭ মধ্যে।
১১ রবিয়ল আউয়ল।

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
আজকের দিনটি কেমন যাবে?  
মেষ: কর্মরতদের উপার্জনের ক্ষেত্রে কোনও বাধা নেই। বৃষ: শেয়ার বা ফাটকায় বিনিয়োগ ...বিশদ

04:29:40 PM

ইতিহাসে আজকের দিনে  
বিশ্ব স্ট্রোক দিবস ১৯৬৯: ইন্টারনেটের আগের স্তর আরপানেটের আবিষ্কার ১৯৭১: অস্ট্রেলিয় ক্রিকেটার ...বিশদ

04:28:18 PM

আইপিএল: কেকেআর-কে ৬ উইকেটে হারাল সিএসকে 

11:14:20 PM

আইপিএল: চেন্নাই ১২১/৩ (১৫ ওভার) 

10:43:26 PM

আইপিএল: চেন্নাই ৮৮/১ (১১ ওভার) 

10:19:05 PM

আইপিএল: চেন্নাই ৩৭/০ (৫ ওভার) 

09:51:13 PM