Bartaman Patrika
গল্পের পাতা
 

পুণ্য ভূমির পুণ্য ধুলোয় 
ষষ্ঠীপদ চট্টোপাধ্যায়

একান্ন মহাপীঠের অন্যতম শ্রেষ্ঠ মহাপীঠ হল কামাখ্যা। এই মহাতীর্থে সতীর মহামুদ্রা অর্থাৎ যোনিদেশ পতিত হয়েছিল। দেবীর গুপ্ত অঙ্গ পতিত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে, পর্বতটি নীলবর্ণ ধারণ করে এবং শত যোজন উচ্চ পর্বত ক্রমশ ভূগর্ভে নেমে যেতে থাকে। দেবাদিদেব মহাদেব তখন উমানন্দ ভৈরব নাম ধারণ করে পর্বতকে নিজশক্তিতে ধরে রাখেন বলে পর্বত আর নামতে পারে না। সতী অঙ্গ এরপর কঠিন শিলারূপ ধারণ করে এবং দেবী মহামায়াও এই পর্বতে ক্রমশ যোগনিদ্রায় বিলীন হতে থাকেন। পর্বত নীল হওয়ার কারণে এর নাম হয় নীলপর্বত। দেবী কামাখ্যারও নাম হয় নীলপার্বতী। পর্বতের যে স্থানে দেবীর অঙ্গ পতিত হয় সেই স্থানের নাম হয় কুজ্জিকাপীঠ।
আমার পনেরো বছর বয়সের সময় মা-বাবার সঙ্গে প্রথম এসেছিলাম কামাখ্যা-তীর্থে। সালটা হবে ১৯৫৬। তখন কামাখ্যায় যাওয়া সহজসাধ্য ছিল না। প্রথমে সাহেবগঞ্জ হয়ে সকরিগলি ঘাট। তারপর দীর্ঘক্ষণ ধরে গঙ্গা পার হয়ে ওপারে মণিহারি ঘাটে। সেখান থেকে আবার ট্রেনে আমিনগাঁও। পরে আবার ব্রহ্মপুত্র পার হয়ে পাণ্ডুঘাট। সেখান থেকে ট্রেনে অথবা বাসে গৌহাটি (গুয়াহাটি)। এরপর কামাখ্যা, ওই কামাখ্যাতে আমরা কয়েকদিন ছিলাম এবং কামাখ্যা থেকে ঘুরে এসে দেবীর কৃপায় কামাখ্যা ভ্রমণ লিখে আমি লেখকজীবন শুরু করি। এখন এই পথের মহাপ্রস্থান হয়েছে। কামাখ্যা তীর্থযাত্রীদের জন্য হাওড়া থেকে সরাইঘাট এক্সপ্রেসই এখন সবচেয়ে জনপ্রিয় ট্রেন। এছাড়াও ভারতের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ট্রেন আসে গুয়াহাটিতে। এই মহাতীর্থে অজস্র ধর্মশালা, লজ, পাণ্ডার বাড়ি ইত্যাদি হয়েছে।
আমার কিশোর বয়সে যা ছিল না, এখন তাই হয়েছে। তখন হেঁটে উঠতে হতো পাহাড়ে। এখন বাস, মোটর, অটো, ট্রেকার সবেরই ব্যবস্থা হয়েছে। মন্দিরে দর্শনার্থীদের ভিড়ও এখন অনেক। দীর্ঘক্ষণ লাইনে দাঁড়াতে হয় তাই। কম ভিড়ের জন্য একশো টাকা ও পাঁচশো টাকার লাইনও আছে। এখন গেলে ওইভাবেই দর্শন করতে হয়। তবে জাগ্রতা দেবীর আশীর্বাদেই আমি শুধু নয় অনেকেই ধন্য।
কামাখ্যা দর্শনের পর একটু উচ্চস্থানে নীলপর্বতের সর্বোচ্চ শৃঙ্গে হল ভুবনেশ্বরী পীঠ। কামাখ্যা মন্দির ছাড়া এই পর্বতের বিভিন্ন অংশে দশমহাবিদ্যার যেসব মন্দির আছে তার মধ্যে মহাগৌরী ভুবনেশ্বরীরই প্রাধান্য বেশি। এখান থেকে ব্রহ্মপুত্র ও পিকক আইল্যান্ডে উমানন্দ ভৈরবের দৃশ্য ভারী সুন্দর দেখায়। কামাখ্যা দর্শনার্থীদের প্রত্যেকেরই উচিত উমানন্দ ভৈরবকে দর্শন করা।
ভুবনেশ্বরী পীঠ হল আর এক জাগ্রত পীঠ। এখানে জপতপাদি ক্রিয়াকর্ম করলে স্থানমাহাত্ম্যে অপ্রত্যাশিত ফললাভ হয়। তন্ত্রসাধকদের মতে তন্ত্রসাধনার এর চেয়ে উপযুক্ত স্থান আর নেই। শুধু কামাখ্যা মন্দির বা ভুবনেশ্বরী নয় কামরূপ জেলার সর্বত্র তন্ত্রসাধনা যথেষ্ট ফলপ্রদ। আগে এই কামরূপ প্রদেশ চারভাগে বিভক্ত ছিল। যেমন কামপীঠ, রত্নপীঠ, স্বর্ণপীঠ বা ভদ্রপীঠ ও সৌমার পীঠ। দেবী কামাখ্যা যেখানে বিরাজ করছেন সেই স্থান হল কামপীঠ।
কামরূপের দেবী কামাখ্যা দশমহাবিদ্যার এক মহাবিদ্যা। মহামায়ার বিভূতির অন্তর্গত ষোড়শী দেবী নামেই পূজিতা ইনি। মাতঙ্গী এখানে দেবী সরস্বতী। আর কমলা হলেন লক্ষ্মী। এখানে কামাখ্যা ও কামেশ্বর মন্দিরের মধ্যস্থলে আছেন দেবী কালিকা। ইনি দীর্ঘেশ্বরী নামে পূজিতা। কামাখ্যা এবং কালী মন্দিরের মধ্যস্থলে তারা দেবীর অবস্থান। ইনি এখানে উগ্রতারা। ভুবনেশ্বরীর কথা তো আগেই বলেছি। এবার ভৈরবীর কথা বলি। কামাখ্যা মন্দিরের দক্ষিণ দিকে একটু নিম্নস্থানে ভৈরবী দেবীর মন্দির। এই দেবী ত্রিঅঙ্গে বিভক্ত। উত্তরাঙ্গ হর, পশ্চিমাঙ্গ হেরুক ও দক্ষিণাঙ্গ ত্রিপুর ভৈরবী। এখানকার কুণ্ডটির নাম ভৈরবীকুণ্ড। অসংখ্য কচ্ছপে পরিপূর্ণ। কামাখ্যা মন্দিরের দক্ষিণে দেবী ছিন্নমস্তা গুপ্তদুর্গা নামে বিরাজিতা। অগ্নিকোণে আছেন বগলা। এর দক্ষিণ প্রান্তেই ধূমবতীর পীঠ। ইনি কষ্মাণ্ডী নামে প্রসিদ্ধা। এই পীঠকে বলা হয় কোটেশ্বরী পীঠ। দশমহাবিদ্যা দর্শনের পর মহাদেবের পঞ্চপীঠও দর্শন করতে হয়। তবে এই দর্শনে একজন পাণ্ডা অথবা স্থানীয় কাউকে সঙ্গে নিলে দর্শন সহজসাধ্য হয়।
কামাখ্যা মন্দিরে সবচেয়ে দর্শনীয় যা তা হল সৌভাগ্যকুণ্ড। মন্দির এলাকার মধ্যেই উত্তরদিকে এই সৌভাগ্যকুণ্ড। ইন্দ্রাদি দেবগণ এখানেই কুণ্ড খনন করে নরকাসুর বধের জন্য তপ ও জলতর্পণ করেন। দ্বারভাঙার মহারাজ ইটের প্রাচীর দিয়ে এই কুণ্ডটিকে দু’ভাগ করেছেন। একদিকের জল সাধারণের ব্যবহারের জন্য অপরদিকের কুণ্ডসলিলে মহামায়ার নিত্যস্নান ও ভোগপূজাদি হয়।
কামাখ্যা মন্দির দর্শনের পর তন্ত্র সাধনার মূল পীঠস্থান প্রাগ্‌঩জ্যোতিষপুরেও যাওয়া যেতে পারে। সুপ্রাচীনকালে পিতামহ ব্রহ্মা এখানে বসে নক্ষত্রাদি জগতের সৃষ্টিকার্য আরম্ভ করেছিলেন তাই এর নাম প্রাগ্‌঩জ্যোতিষপুর। নরকাসুর ও তাঁর পুত্র ভগদত্ত এই প্রাগ্‌঩জ্যোতিষপুরেই রাজত্ব করতেন। ভগদত্তের কন্যা ভানুমতীকে মহাভারতের দুর্যোধন বিবাহ করেছিলেন। যেখানে নরকাসুরের রাজ্যপাট ছিল সেটি গুয়াহাটি শহর থেকে তিন কিমি দূরে চিত্রাচলে। সেখানে নবগ্রহের অধিষ্ঠান আছে। এখনও প্রবলভাবে জ্যোতিষচর্চা হয় সেখানে।
গুয়াহাটি শহর থেকে ১২ কিমি দূরে বশিষ্ঠ আশ্রম না দেখলে মন ভরবে না। স্টেশনের কাছ থেকেই ঘন ঘন বাস ছাড়ে বশিষ্ঠ আশ্রমের।
বশিষ্ঠ আশ্রমের অবস্থান সন্ধ্যাচল পর্বতে। কী দারুণ প্রাকৃতিক সৌন্দর্য সেখানকার। দলে দলে যাত্রীরা আসেন এখানে পুজো দিতে। একটি বড় গুহাকে ঘিরে মন্দির। অন্ধকার গুহায় দুটি বড় বড় শিলাখণ্ডই বশিষ্ঠমুনির স্মৃতি বহন করছে। এখানে বসেই মুনি তপস্যা করতেন। গুহামন্দিরের পাশে উচ্চ পর্বতের ঘন বনভূমির মধ্য দিয়ে সন্ধ্যা, ললিতা ও কান্তা নামে তিনটি ঝর্ণা নেমে এসে বশিষ্ঠ গঙ্গা নাম নিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।
কালিকাপুরাণে আছে— ব্রহ্মার মানসপুত্র বশিষ্ঠদেব একবার নিমি রাজার অভিশাপে দেহহীন হন। রাজর্ষি নিমিও তখন দেহহীন হন বশিষ্ঠের শাপে। যাই হোক, বশিষ্ঠদের দেহ ফিরে পাওয়ার জন্য ব্রহ্মার শরণাপন্ন হন। ব্রহ্মা বশিষ্ঠকে উপদেশ দেন কামরূপের সন্ধ্যাচল পর্বতে বসে বিষ্ণুর তপস্যা করতে। বশিষ্ঠদেব তাই করেন। বিষ্ণুও প্রসন্ন হন। বশিষ্ঠের তপোপ্রভাবে এবং বিষ্ণুর বরে সন্ধ্যাচল পর্বতে সন্ধ্যা, ললিতা ও কান্তা নামে তিনটি ঝর্ণা উদ্‌গম হয় এবং সেই ঝর্ণা ধারাতেই আবির্ভূতা হন মা গঙ্গা। তাই এর নাম হল বশিষ্ঠগঙ্গা। বশিষ্ঠদেব প্রতিদিন এই ত্রিধারা সঙ্গমে স্নান, পান, সন্ধ্যা ও তর্পণ করে পূর্বশরীর প্রাপ্ত হন।
(ক্রমশ)
অলংকরণ : সোমনাথ পাল 
29th  September, 2019
 মার্কেনের ঘোড়া
পাপিয়া ভট্টাচার্য

‘এখন বাজে বারোটা চল্লিশ, আর তুমি বলছ যে তুমি এরপর লাইটহাউসে যাবে আর সব দেখে ফিরবে, তাও হেঁটে?’ ড্রিক একটা লাল বল লোফালুফি করতে করতে বলল। গাঢ় নীল শার্টের উপর একটা লাল জ্যাকেট আর কোমরের নীচে একটা নীল স্ট্রাইপ দেওয়া বড় গাউনের মত পোশাক পরা রূপবান ড্রিককে দেখে মনে হচ্ছে ইতিহাসের পাতা থেকে উঠে আসা কোনও রাজবংশীয় কিশোর।
বিশদ

12th  July, 2020
 আজও তারা জ্বলে
পর্ব- ৩১

বাংলা ছবির দিকপাল চরিত্রাভিনেতারা একেকটা শৈল্পিক আঁচড়ে বঙ্গজীবনে নিজেদের অমর করে রেখেছেন। অভিনয় ছিল তাঁদের শরীরে, মননে, আত্মায়। তাঁদের জীবনেও ছড়িয়ে ছিটিয়ে অনেক অমূল্য রতন। তাঁরই খোঁজে সন্দীপ রায়চৌধুরী। আজ তুলসী চক্রবর্তী। সপ্তম কিস্তি।
বিশদ

12th  July, 2020
চলার পথে
অপমানেও গৌরব

 জীবনের প্রধান ও মুখ্য ঘটনাগুলিই কেবল মনে থাকার কথা। কিন্তু অনেক সময়ই দেখা যায় স্মৃতির অতলে অনেক তুচ্ছ ক্ষুদ্র ঘটনাও কেমন করে বেশ বড় হয়ে জাঁকিয়ে বসে রয়েছে। সাহিত্যিকদের ‘ভবঘুরে’ জীবনের তেমনই নানা ঘটনা উঠে এল কলমের আঁচড়ে। আজ লিখছেন বাণীব্রত চক্রবর্তী ।
বিশদ

12th  July, 2020
আজও তারা জ্বলে 

বাংলা ছবির দিকপাল চরিত্রাভিনেতারা একেকটা শৈল্পিক আঁচড়ে বঙ্গজীবনে নিজেদের অমর করে রেখেছেন। অভিনয় ছিল তাঁদের শরীরে, মননে, আত্মায়। তাঁদের জীবনেও ছড়িয়ে ছিটিয়ে অনেক অমূল্য রতন। তাঁরই খোঁজে সন্দীপ রায়চৌধুরী। আজ তুলসী চক্রবর্তী। ষষ্ঠ কিস্তি।
বিশদ

05th  July, 2020
দু’জন  

জীবনের প্রধান ও মুখ্য ঘটনাগুলিই কেবল মনে থাকার কথা। কিন্তু অনেক সময়ই দেখা যায় স্মৃতির অতলে অনেক তুচ্ছ ক্ষুদ্র ঘটনাও কেমন করে বেশ বড় হয়ে জাঁকিয়ে বসে রয়েছে। সাহিত্যিকদের ‘ভবঘুরে’ জীবনের তেমনই নানা ঘটনা উঠে এল কলমের আঁচড়ে। আজ লিখছেন ভগীরথ মিশ্র।
বিশদ

05th  July, 2020
সিনেমার মতো
প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়

শিলিগুড়িতে সেটল করতে একটু সময় লাগছে শাশ্বতর। শাশ্বত মুখার্জি। কলকাতার বনেদি বাড়ির পরিবেশে মানুষ হওয়াটা কোথাও কোথাও একটু অসুবিধাজনকও বটে। মজ্জায় মজ্জায় মানিয়ে নেওয়ার সমস্যা।  বিশদ

05th  July, 2020
ফেয়ার-ওয়েল
অঞ্জনা চট্টোপাধ্যায়
(১)

 নাইন-বি এর ক্লাসরুম থেকে বেরিয়ে ধীরপায়ে সিঁড়ির দিকে এগিয়ে চললেন অলকানন্দা রায়চৌধুরী, ছাত্রীদের প্রিয় শিক্ষিকা ‘অলকা দি’। গতকাল রাত থেকেই হাঁটুর ব্যথাটা আবার চাগাড় দিয়েছে, পা মুড়তে বেশ কষ্ট হচ্ছে। তবে গত কয়েকদিন ধরে মনের ভিতর যে ব্যথাটা জমে রয়েছে তার কাছে এই হাঁটুর ব্যথাটা তো একেবারেই তুচ্ছ। রেলিং ধরে ধীরে ধীরে একতলার দিকে নামতে শুরু করলেন অলকা।
বিশদ

28th  June, 2020
চলার পথে
ফ্রেদরিকের চিঠি

 জীবনের প্রধান ও মুখ্য ঘটনাগুলিই কেবল মনে থাকার কথা। কিন্তু অনেক সময়ই দেখা যায় স্মৃতির অতলে অনেক তুচ্ছ ক্ষুদ্র ঘটনাও কেমন করে বেশ বড় হয়ে জাঁকিয়ে বসে রয়েছে। সাহিত্যিকদের ‘ভবঘুরে’ জীবনের তেমনই নানা ঘটনা উঠে এল কলমের আঁচড়ে। আজ লিখছেন অমর মিত্র। বিশদ

28th  June, 2020
আজও তারা জ্বলে
পর্ব- ২৯

 বাংলা ছবির দিকপাল চরিত্রাভিনেতারা একেকটা শৈল্পিক আঁচড়ে বঙ্গজীবনে নিজেদের অমর করে রেখেছেন। অভিনয় ছিল তাঁদের শরীরে, মননে, আত্মায়। তাঁদের জীবনেও ছড়িয়ে ছিটিয়ে অনেক অমূল্য রতন। তাঁরই খোঁজে সন্দীপ রায়চৌধুরী। আজ তুলসী চক্রবর্তী। পঞ্চম কিস্তি। বিশদ

28th  June, 2020
আজও তারা জ্বলে
পর্ব- ২৮

বাংলা ছবির দিকপাল চরিত্রাভিনেতারা একেকটা শৈল্পিক আঁচড়ে বঙ্গজীবনে নিজেদের অমর করে রেখেছেন। অভিনয় ছিল তাঁদের শরীরে, মননে, আত্মায়। তাঁদের জীবনেও ছড়িয়ে ছিটিয়ে অনেক অমূল্য রতন। তাঁরই খোঁজে সন্দীপ রায়চৌধুরী। আজ তুলসী চক্রবর্তী। চতুর্থ কিস্তি।
বিশদ

14th  June, 2020
নিলডাউন

জীবনের প্রধান ও মুখ্য ঘটনাগুলিই কেবল মনে থাকার কথা। কিন্তু অনেক সময়ই দেখা যায় স্মৃতির অতলে অনেক তুচ্ছ ক্ষুদ্র ঘটনাও কেমন করে বেশ বড় হয়ে জাঁকিয়ে বসে রয়েছে। সাহিত্যিকদের ‘ভবঘুরে’ জীবনের তেমনই নানা ঘটনা উঠে এল কলমের আঁচড়ে। আজ লিখছেন সঞ্জীব চট্টোপাধ্যায়।  বিশদ

14th  June, 2020
আজও তারা জ্বলে 

বাংলা ছবির দিকপাল চরিত্রাভিনেতারা একেকটা শৈল্পিক আঁচড়ে বঙ্গজীবনে নিজেদের অমর করে রেখেছেন। অভিনয় ছিল তাঁদের শরীরে, মননে, আত্মায়। তাঁদের জীবনেও ছড়িয়ে ছিটিয়ে অনেক অমূল্য রতন। তাঁরই খোঁজে সন্দীপ রায়চৌধুরী। আজ তুলসী চক্রবর্তী। তৃতীয় কিস্তি। 
বিশদ

07th  June, 2020
অথৈ সাগর 

চলতি বছর ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের দ্বিশতজন্মবর্ষ। সেই উপলক্ষে মাইলফলক দেখে ইংরেজি সংখ্যা শেখাই হোক বা বিধবা বিবাহ প্রচলনের জন্য তীব্র লড়াই— বিদ্যাসাগরের জীবনের এমনই নানা জানা-অজানা কাহিনী দিয়ে সাজানো এ ধারাবাহিকের ডালি। 
বিশদ

07th  June, 2020
স্বপ্নসঙ্গী 

উদয়চাঁদ বন্দ্যোপাধ্যায়: ট্রেনটা প্রায় আড়াই ঘণ্টা দেরি করে ঢুকল গোমো স্টেশনে। বাতানুকূল কামরা থেকে নেমে আসে তন্বী পিয়ালি। ভিড় এড়িয়ে, সঙ্গের চাকা লাগানো ব্যাগটা নিয়ে একটু সরে এসে, উদ্বিগ্ন চোখে দু’দিকে তাকায়। একটা সাধারণ পোশাক পরা যুবক পিয়ালির সামনে এসে বলে, আপনি মুখার্জি স্যারের ফরেস্ট বাংলোয় যাবেন তো?
পিয়ালি ভ্রু কুঁচকে বলে, কে তুমি?  বিশদ

31st  May, 2020
একনজরে
সুমন তেওয়ারি  আসানসোল: করোনার দাপটের মধ্যেই এবার ডেঙ্গু হানা দিল পশ্চিম বর্ধমান জেলায়। স্বাস্থ্যদপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, আসানসোল, দুর্গাপুর সহ জেলার বিভিন্ন প্রান্তে এখনও ...

  ওয়াশিংটন: ভুয়ো লাইসেন্সধারী পাইলটদের উপর বিশ্বাস নেই। ইউরোপের পর এবার আমেরিকাতেও নিষিদ্ধ হল পাকিস্তান ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইন্স (পিআইএ)। ...

সংবাদদাতা, মালদহ: প্রাকৃতিক বিপর্যয় ও লকডাউনের জেরে ক্ষতিগ্রস্ত মালদহের আম ব্যবসাকে চাঙ্গা করতে ইতিমধ্যেই উদ্যোগ নিয়েছে রাজ্যের খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ ও উদ্যানপালন দপ্তর। দিল্লিতে নিযুক্ত ...

  নয়াদিল্লি: ফের বাড়ল ডিজেলের দাম। দু’সপ্তাহ আগে দিল্লিতে প্রথমবার ডিজেলের মূল্য লিটার প্রতি ৮০ টাকা ছাড়িয়েছিল। রবিবার তা প্রতি লিটারে ১৬ পয়সা বেড়ে ৮১ ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

কর্মপ্রার্থীরা বেশ কিছু সুযোগের সংবাদে আনন্দিত হবেন। বিদ্যার্থীরা পরিশ্রমের সুফল নিশ্চয় পাবে। ভুল সিদ্ধান্ত থেকে ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৮৩০: কলকাতায় দ্য জেনারেল অ্যাসেম্বলিজ ইনস্টিটিউশন, অধুনা স্কটিশ চার্চ কলেজ প্রতিষ্ঠা করলেন আলেকজান্ডার ডাফ এবং রাজা রামমোহন রায়
১৯০০: অভিনেতা ছবি বিশ্বাসের জন্ম
১৯৪২: মার্কিন অভিনেতা হ্যারিসন ফোর্ডের জন্ম
১৯৫৫: সাহিত্যিক আশাপূর্ণা দেবীর মৃত্যু
২০১১: মুম্বইয়ে ধারাবাহিক তিনটি বিস্ফোরণে হত ২৬, জখম ১৩০
২০১৩: বোফর্স কান্ডে অভিযুক্ত ইতালীয় ব্যবসায়ী অত্তাভিও কাত্রোচ্চির মৃত্যু।



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭৪.৩১ টাকা ৭৬.০৩ টাকা
পাউন্ড ৯৩.০০ টাকা ৯৬.২৯ টাকা
ইউরো ৮৩.২৩ টাকা ৮৬.২৯ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
11th  July, 2020
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৪৯,৯৪০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৪৭,৩৮০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৪৮,০৯০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৫২,১০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৫২,২০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

২৯ আষাঢ় ১৪২৭, ১৩ জুলাই ২০২০, সোমবার, অষ্টমী ৩২/৪৫ অপঃ ৬/১০। রেবতী ১৫/২৫ দিবা ১১/১৪। সূর্যোদয় ৫/৩/৫২, সূর্যাস্ত ৬/২০/৩৮। অমৃতযোগ দিবা ৮/৩৬ গতে ১০/২২ মধ্যে। রাত্রি ৯/১২ গতে ১২/৪ মধ্যে পুনঃ ১/৩০ গতে ২/৫৫ মধ্যে। বারবেলা ৬/৪৩ গতে ৮/২২ মধ্যে পুনঃ ৩/১ গতে ৪/৪১ মধ্যে। কালরাত্রি ১০/২১ গতে ১১/৪২ মধ্যে।
২৮ আষাঢ় ১৪২৭, ১৩ জুলাই ২০২০, সোমবার, অষ্টমী অপরাহ্ন ৫/০। রেবতী নক্ষত্র দিবা ১১/৮। সূযোদয় ৫/৩, সূর্যাস্ত ৬/২৩। অমৃতযোগ দিবা ৮/৩৬ গতে ১০/২৩ মধ্যে এবং রাত্রি ৯/১৩ গতে ১২/৪ মধ্যে ও ১/২৯ গতে ২/৫৫ মধ্যে। কালবেলা ৬/৪৩ গতে ৮/২৩ মধ্যে ও ৩/৩ গতে ৪/৪৩ মধ্যে। কালরাত্রি ১০/২৩ গতে ১১/৪৩ মধ্যে।
২১ জেল্কদ

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
গুজরাটে একদিনে করোনা আক্রান্ত ৯০২ 
গুজরাটে গত ২৪ ঘণ্টায় ৯০২ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। মৃত্যু ...বিশদ

08:06:12 PM

মহারাষ্ট্রে একদিনে করোনা আক্রান্ত ৬,৪৯৭ 
মহারাষ্ট্রে গত ২৪ ঘণ্টায় ৬ হাজার ৪৯৭ জন করোনায় আক্রান্ত ...বিশদ

07:52:00 PM

উত্তর প্রদেশে একদিনে করোনা আক্রান্ত ১,৬৬৪ 
উত্তর প্রদেশে গত ২৪ ঘণ্টায় ১ হাজার ৬৬৪ জন করোনায় ...বিশদ

07:47:39 PM

২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে করোনা আক্রান্ত ১,৪৩৫
গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১,৪৩৫ জন। ...বিশদ

07:47:36 PM

তামিলনাড়ুতে একদিনে করোনা আক্রান্ত ৪,৩২৮ 
তামিলনাড়ুতে গত ২৪ ঘণ্টায় ৪ হাজার ৩২৮ জন করোনায় আক্রান্ত ...বিশদ

06:40:21 PM

অন্ধ্রপ্রদেশে একদিনে করোনা আক্রান্ত ১,৯৩৫ 
অন্ধ্রপ্রদেশে গত ২৪ ঘণ্টায় ১ হাজার ৯৩৫ জন করোনায় আক্রান্ত ...বিশদ

05:53:11 PM