Bartaman Patrika
গল্পের পাতা
 

পুণ্য ভূমির পুণ্য ধূলোয়
চন্দ্রগুট্টির দেবী গুত্তেভারা, পর্ব-২৯
ষষ্ঠীপদ চট্টোপাধ্যায়  

সেবার কোলহাপুর থেকে সৌন্দত্তি গিয়েছিলাম দেবদাসী তীর্থের ইয়েলাম্মাকে দেখতে। ঠিক তার পরের বছরই ওই একই তিথিতে অর্থাৎ মাঘী পূর্ণিমায় কর্ণাটকেরই আর এক দেবী চন্দ্রগুট্টির গুত্তেভারা দেবীকে দর্শন করতে গেলাম। কিন্তু কেন এত জায়গা থাকতে এই সুদূর দেবীতীর্থে আসা? কারণটা বলছি।
সেবার সৌন্দত্তি থেকে ফেরার পথে কোলহাপুরে না এসে সবার নির্দেশ অনুযায়ী এসেছিলাম বেলগাঁওয়ে। সেখানে যে লজে উঠেছিলাম তার মালিক বললেন, ‘আপনি সৌন্দত্তি গিয়েছিলেন শুনে খুব খুশি হলাম। ওখানকার নিয়মরীতি দেখে খুবই অবাক হয়েছিলেন, তাই না? সামনের বছর ঠিক একই সময়ে চলে যান চন্দ্রগুট্টি গ্রামে। বেলগাঁও থেকে বাসে অথবা একটা গাড়ি নিয়ে চলে যান। সকালে গিয়ে রাতে ফিরে আসুন। অর্থাৎ ওই মাঘী পূর্ণিমার দিন ওখানকার পবিত্র বরোদা নদীতে মেয়েরা পুণ্যস্নান সেরে গুত্তেভারা দেবীর মন্দিরে পুজো দিতে যান। ওখানে আপনার অন্যরকম অভিজ্ঞতা লাভ হবে। তবে ভুলেও যেন ওদের ছবি তুলতে যাবেন না।’ ঠিক সেই কারণেই আবার হাওড়া থেকে রওনা হয়ে পুনেয় এসে ভাস্কো-দা-গামার পথে বেলগাঁওতে নামলাম। আগে থেকে চিঠি দেওয়াই ছিল। তাই একটা সিঙ্গল রুম রাখা ছিল আমার জন্য। ঘরের ভাড়া তখনকার দিনে দশ টাকা। পরদিন খুব সকালে বেলগাঁও থেকে রওনা হলাম চন্দ্রগুট্টির দিকে। ভাগ্য ভালো যে লজ মালিকের সৌজন্যে অন্য এক যাত্রীদলের সঙ্গে তাদের গাড়িতেই ব্যবস্থা হল। প্রায় ঘণ্টা তিনেকের যাত্রাপথ। এক সময় পৌঁছে গেলাম চন্দ্রগুট্টিতে।
বাস থেকে নেমেই যে দৃশ্য দেখলাম তা শুধুই অভাবনীয় নয়, অকল্পনীয়। যাই হোক, এই ভাবেই একবার বরোদা নদীর তীরে এসে জলস্পর্শ করে মাথায় একটু জল ছেটালাম। চারদিকে তখন অসংখ্য পুলিসের কড়া নজরদারি। সে কী স্নানের উৎসব সেখানে। পুলিসের লোকেরা অবশ্য আমাকে থাকতে দিল না বেশিক্ষণ। হাত নেড়ে স্থান ত্যাগ করতে বললেন। সৌজন্যবোধে আমিও বিদায় নিলাম। এরপর প্রশস্ত রাজপথ ধরে চলে এলাম মহাদেবী গুত্তেভারার মন্দিরে। এখানেও বৃহন্নলাদের দল ঘোরাফেরা করছে সর্বত্র। এখানে নারী-পুরুষ নির্বিশেষে সবাই পুজো দিচ্ছেন মন্দিরে। মেয়েরা স্নান করে গলায় মালা ও হাতে ঘটি বা ছোট কলসি ভর্তি বরোদার জল নিয়ে মন্দিরে এসে ঢালছেন। এই দিন মা গঙ্গা নাকি গুপ্তপথে বরোদা নদীতে এসে মিলিত হন। আমি বহুকষ্টে ভিড় ঠেলে কোনওরকমে দর্শন করলাম গুত্তেভারাদেবীকে।
এরপর শহরের একটি দোকানে বসে এখানকার সুস্বাদু ইডলি, ধোসা ইত্যাদি খেয়ে খিদে মেটালাম। এই দোকানেই এক সদাশয় ব্যক্তি প্রসন্ন চিত্তে আমার সঙ্গে আলাপ জমালেন। ভাগ্য ভালো যে, কন্নড়বাসী হয়েও ভাঙা ভাঙা হিন্দিতে আমার সঙ্গে কথা বলতে লাগলেন। পুনেতে ওঁর কর্মস্থল, আজ মাঘী পূর্ণিমা উপলক্ষে এখানে এসেছেন উনি।
আমি গত বছর সৌন্দত্তি গেছি শুনে খুশি হলেন খুব। বললেন, ‘সৌন্দত্তি এখান থেকে বেশি দূরে নয়। তবে সৌন্দত্তি হল সতীপীঠ। আর গুত্তেভারা উপপীঠ। এখানে সতী অঙ্গ নয়, দেবীর ‘মেখলা’ পড়েছিল। সৌন্দত্তির কাহিনী নিশ্চয়ই শুনেছেন? দেবী অতি ভয়ঙ্করী। আর গুত্তেভারাও ঠিক তাই। এঁর কাছে নিষ্কাম হয়ে আসতে হবে। এই সব বিবস্ত্র মহিলাদের দিকে তাকিয়ে যদি কেউ কামভাব মনে আনে, তবে তার কিন্তু নিস্তার নেই। তাই কেউ ওদের দিকে মনে কুভাব নিয়ে তাকায় না। সৌন্দত্তিতেও সেই একই নিয়ম। দেবদাসীদের প্রতি মনে কুভাব আনবে না কেউ।’
এরপর তিনি যা বললেন তা এই— ‘সৌন্দত্তির ওই দেবীর মধ্যে রেণুকা বা রেণুকাম্বা দেহান্তে লীন হয়ে আছেন। এই রেণুকা হলেন জমদগ্নি মুনির স্ত্রী এবং পরশুরামের মাতা। অসাধারণ সতীত্বের জন্য তিনি কাঁচা মাটির কলসিতে ভরে মলপ্রভা নদী থেকে জল নিয়ে আসতেন। একবার জল আনতে গিয়ে এক সর্বাঙ্গসুন্দর গন্ধর্বকে দেখে মুহূর্তের জন্য তাঁর রূপদর্শনে বিচলিত হন। তারই ফলে তাঁর সতীত্ব নষ্ট হওয়ায় তিনি আর কলসিতে জল ভরতে পারলেন না। জল ভরামাত্রই কলসির তলা ছেড়ে গেল। জমদগ্নি সব বুঝে রেণুকাকে অভিশাপ দিলেন এবং পরশুরামকে আদেশ দিলেন এই মুহূর্তে জননীর মস্তক ছেদন করতে। পরশুরাম পিতার আদেশ পালন করলেন। জমদগ্নি তখন খুশি হয়ে বর দিতে চাইলেন পরশুরামকে। পরশুরাম বললেন, ‘আমি আপনার আদেশ পালন করেছি। এখন আমি আমার জননীর পুনর্জীবন চাই।’ জমদগ্নি বললেন, ‘তথাস্তু।’ সেই সময় পথ দিয়ে এক নীচ জাতীয়া স্ত্রীলোক যাচ্ছিলেন। জমদগ্নি তাঁর মাথাটি কেটে বসিয়ে দিলেন রেণুকার দেহের ওপর। রেণুকা কুৎসিত মুখ নিয়ে বেঁচে উঠলেন। জমদগ্নির রাগ তখন পড়েছে। রেণুকাকে তিনি এই বলে আশীর্বাদ করলেন, ‘আজ থেকে তোমাকে দেবীর মতোই পূজা করবে সকলে এবং অবিবাহিতা মেয়েদের উৎসর্গ করা হবে তোমার কাছে। সেই সব মেয়েরা চিরকাল তোমার দাসী হয়ে থেকে পরপুরুষকে দেহদান করবে। সেক্ষেত্রে কুষ্ঠরোগীও বাদ যাবে না। দেহান্তে ইয়েলাম্মায় লীন হবে।’
আমি শুধু শুনেই গেলাম। কোনও মন্তব্য করলাম না। আমাদের পৌরাণিক কাহিনীতে পরস্পর বিরোধী এমন অনেক কাহিনী আছে।
এরপর আমি চন্দ্রগুট্টির পথে পথে ঘুরে সন্ধের আগেই বেলগাঁওতে ফিরে এলাম। কর্ণাটকের গুত্তেভারা মন্দিরে মাঘী পূর্ণিমার দিন দেবদাসীরা এইভাবেই পুজো দিতে যায়।
(ক্রমশ)
অলংকরণ : সোমনাথ পাল 
22nd  September, 2019
ব্লাড
শুদ্ধসত্ত্ব ঘোষ

 হ্যাঁ, ব্লাড ব্যাঙ্কেরও রক্ত লাগে। আর হাজারে হাজারে লোক রক্ত দিয়ে ব্লাড ব্যাঙ্ক ভরিয়ে দেয়, তেমনটাও মোটে নয়। কিন্তু সে তো দেয়। তার পরিবার দেয়। অনেকদিন হল। সারা বছরে খেপে খেপে দেয়। গ্রীষ্মে যখন প্রবল সঙ্কট, তখন সরাসরি ব্যাঙ্কে গিয়েও দিয়ে এসেছে। তাহলে? বিশদ

09th  August, 2020
চলার পথে
তিলের নাড়ু

জীবনের প্রধান ও মুখ্য ঘটনাগুলিই কেবল মনে থাকার কথা। কিন্তু অনেক সময়ই দেখা যায় স্মৃতির অতলে অনেক তুচ্ছ ক্ষুদ্র ঘটনাও কেমন করে বেশ বড় হয়ে জাঁকিয়ে বসে রয়েছে। সাহিত্যিকদের ‘ভবঘুরে’ জীবনের তেমনই নানা ঘটনা উঠে এল কলমের আঁচড়ে। আজ লিখছেন রতনতনু ঘাটী।
বিশদ

09th  August, 2020
আজও তারা জ্বলে

বাংলা ছবির দিকপাল চরিত্রাভিনেতারা একেকটা শৈল্পিক আঁচড়ে বঙ্গজীবনে নিজেদের অমর করে রেখেছেন। অভিনয় ছিল তাঁদের শরীরে, মননে, আত্মায়। তাঁদের জীবনেও ছড়িয়ে ছিটিয়ে অনেক অমূল্য রতন। তাঁরই খোঁজে সন্দীপ রায়চৌধুরী। আজ মলিনা দেবী। দ্বিতীয় কিস্তি।
বিশদ

09th  August, 2020
আজও তারা জ্বলে 

বাংলা ছবির দিকপাল চরিত্রাভিনেতারা একেকটা শৈল্পিক আঁচড়ে বঙ্গজীবনে নিজেদের অমর করে রেখেছেন। অভিনয় ছিল তাঁদের শরীরে, মননে, আত্মায়। তাঁদের জীবনেও ছড়িয়ে ছিটিয়ে অনেক অমূল্য রতন। তাঁরই খোঁজে সন্দীপ রায়চৌধুরী। আজ মলিনা দেবী। প্রথম কিস্তি। 
বিশদ

02nd  August, 2020
স্মৃতিময় 

জীবনের প্রধান ও মুখ্য ঘটনাগুলিই কেবল মনে থাকার কথা। কিন্তু অনেক সময়ই দেখা যায় স্মৃতির অতলে অনেক তুচ্ছ ক্ষুদ্র ঘটনাও কেমন করে বেশ বড় হয়ে জাঁকিয়ে বসে রয়েছে। সাহিত্যিকদের ‘ভবঘুরে’ জীবনের তেমনই নানা ঘটনা উঠে এল কলমের আঁচড়ে। আজ লিখছেন ষষ্ঠীপদ চট্টোপাধ্যায়। 
বিশদ

02nd  August, 2020
বাঘের ডেরায়

জীবনের প্রধান ও মুখ্য ঘটনাগুলিই কেবল মনে থাকার কথা। কিন্তু অনেক সময়ই দেখা যায় স্মৃতির অতলে অনেক তুচ্ছ ক্ষুদ্র ঘটনাও কেমন করে বেশ বড় হয়ে জাঁকিয়ে বসে রয়েছে। সাহিত্যিকদের ‘ভবঘুরে’ জীবনের তেমনই নানা ঘটনা উঠে এল কলমের আঁচড়ে। আজ লিখছেন তপন বন্দ্যোপাধ্যায়। বিশদ

26th  July, 2020
আজও তারা জ্বলে
পর্ব- ৩৩ 

বাংলা ছবির দিকপাল চরিত্রাভিনেতারা একেকটা শৈল্পিক আঁচড়ে বঙ্গজীবনে নিজেদের অমর করে রেখেছেন। অভিনয় ছিল তাঁদের শরীরে, মননে, আত্মায়। তাঁদের জীবনেও ছড়িয়ে ছিটিয়ে অনেক অমূল্য রতন। তাঁরই খোঁজে সন্দীপ রায়চৌধুরী। আজ তুলসী চক্রবর্তী। শেষ কিস্তি।  বিশদ

26th  July, 2020
আজও তারা জ্বলে
পর্ব ৩২

বাংলা ছবির দিকপাল চরিত্রাভিনেতারা একেকটা শৈল্পিক আঁচড়ে বঙ্গজীবনে নিজেদের অমর করে রেখেছেন। অভিনয় ছিল তাঁদের শরীরে, মননে, আত্মায়। তাঁদের জীবনেও ছড়িয়ে ছিটিয়ে অনেক অমূল্য রতন। তাঁরই খোঁজে সন্দীপ রায়চৌধুরী। আজ তুলসী চক্রবর্তী। অষ্টম কিস্তি।
বিশদ

19th  July, 2020
একটি নয়, দু’টি দিন 

জীবনের প্রধান ও মুখ্য ঘটনাগুলিই কেবল মনে থাকার কথা। কিন্তু অনেক সময়ই দেখা যায় স্মৃতির অতলে অনেক তুচ্ছ ক্ষুদ্র ঘটনাও কেমন করে বেশ বড় হয়ে জাঁকিয়ে বসে রয়েছে। সাহিত্যিকদের ‘ভবঘুরে’ জীবনের তেমনই নানা ঘটনা উঠে এল কলমের আঁচড়ে। আজ লিখছেন মৃদুল দাশগুপ্ত। 
বিশদ

19th  July, 2020
কাছিম 
সৌরভ মিত্র

স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়। জীববিজ্ঞান ও জলবায়ু-বিজ্ঞান বিভাগের যৌথ উদ্যোগে আন্তর্জাতিক সম্মেলন। এর আগে তিতিরের বেশ কিছু গবেষণাপত্র এখানে-ওখানে প্রকাশ পেলেও এত বড় মঞ্চে এই প্রথম। এক সপ্তাহের সম্মেলন, আজ চতুর্থ দিন। 
বিশদ

19th  July, 2020
 মার্কেনের ঘোড়া
পাপিয়া ভট্টাচার্য

‘এখন বাজে বারোটা চল্লিশ, আর তুমি বলছ যে তুমি এরপর লাইটহাউসে যাবে আর সব দেখে ফিরবে, তাও হেঁটে?’ ড্রিক একটা লাল বল লোফালুফি করতে করতে বলল। গাঢ় নীল শার্টের উপর একটা লাল জ্যাকেট আর কোমরের নীচে একটা নীল স্ট্রাইপ দেওয়া বড় গাউনের মত পোশাক পরা রূপবান ড্রিককে দেখে মনে হচ্ছে ইতিহাসের পাতা থেকে উঠে আসা কোনও রাজবংশীয় কিশোর।
বিশদ

12th  July, 2020
 আজও তারা জ্বলে
পর্ব- ৩১

বাংলা ছবির দিকপাল চরিত্রাভিনেতারা একেকটা শৈল্পিক আঁচড়ে বঙ্গজীবনে নিজেদের অমর করে রেখেছেন। অভিনয় ছিল তাঁদের শরীরে, মননে, আত্মায়। তাঁদের জীবনেও ছড়িয়ে ছিটিয়ে অনেক অমূল্য রতন। তাঁরই খোঁজে সন্দীপ রায়চৌধুরী। আজ তুলসী চক্রবর্তী। সপ্তম কিস্তি।
বিশদ

12th  July, 2020
চলার পথে
অপমানেও গৌরব

 জীবনের প্রধান ও মুখ্য ঘটনাগুলিই কেবল মনে থাকার কথা। কিন্তু অনেক সময়ই দেখা যায় স্মৃতির অতলে অনেক তুচ্ছ ক্ষুদ্র ঘটনাও কেমন করে বেশ বড় হয়ে জাঁকিয়ে বসে রয়েছে। সাহিত্যিকদের ‘ভবঘুরে’ জীবনের তেমনই নানা ঘটনা উঠে এল কলমের আঁচড়ে। আজ লিখছেন বাণীব্রত চক্রবর্তী ।
বিশদ

12th  July, 2020
আজও তারা জ্বলে 

বাংলা ছবির দিকপাল চরিত্রাভিনেতারা একেকটা শৈল্পিক আঁচড়ে বঙ্গজীবনে নিজেদের অমর করে রেখেছেন। অভিনয় ছিল তাঁদের শরীরে, মননে, আত্মায়। তাঁদের জীবনেও ছড়িয়ে ছিটিয়ে অনেক অমূল্য রতন। তাঁরই খোঁজে সন্দীপ রায়চৌধুরী। আজ তুলসী চক্রবর্তী। ষষ্ঠ কিস্তি।
বিশদ

05th  July, 2020
একনজরে
করোনার ধাক্কা কাটিয়ে টেনিসে ফিরছেন ভেনাস ও সেরেনা উইলিয়ামস। বৃহস্পতিবার কেন্টাকিতে অনুষ্ঠেয় ডব্লুটিএ টুর্নামেন্টে আমেরিকার এই দুই তারকা বোন মুখোমুখি হবেন। তবে একটাই আপশোস, করোনা ...

নাবালিকার বিয়ে রুখল পুলিস-প্রশাসন। পাত্রের বাড়িতেই বসেছিল বিয়ের আসর। ঘটনাটি ঘটে বৃহস্পতিবার দুপুরে রায়দিঘি থানার নগেন্দ্রপুরের কেওড়াতলায়। ...

কৃষি মাণ্ডিতে ভিড় না হওয়ায় ধান কেনা বন্ধ করল দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা খাদ্যদপ্তর। বোরো ধান না কেনায় কৃষকরা ধান বিক্রি করতে কেউ যাননি। ...

আগামী বছরের ১৫ আগস্ট ভারতের স্বাধীনতার প্ল্যাটিনাম জয়ন্তী। ৭৪ পেরিয়ে ৭৫ বছরে পা দেবে স্বাধীনতা। বর্তমান প্রজন্মের কাছে এই বিশেষ দিনটি স্মরণীয় করে তুলতে ফেলে ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

ব্যয় বৃদ্ধি পাবে। কর্মক্ষেত্রে কোনও বিরূপ অবস্থার সৃষ্টি হতে পারে। বিদ্যার্থীদের শুভ ফল লাভ হবে। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৯৪৭- পাকিস্তানের স্বাধীনতা দিবস
১৯৪৮- শেষ ইনিংসে শূন্য রানে আউট হলনে ডন ব্র্যাডম্যান
১৯৫৬- জার্মা নাট্যকার বের্টোল্ট ব্রেখটের মৃত্যু
২০১১- অভিনেতা শাম্মি কাপুরের মৃত্যু



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭৪.০১ টাকা ৭৫.৭২ টাকা
পাউন্ড ৯৬.০৬ টাকা ৯৯.৪৬ টাকা
ইউরো ৮৬.৮১ টাকা ৮৯.৯৯ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৫৩,৩৬০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৫০,৬৩০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৫১,৩৯০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৬৬,৯৩০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৬৭,০৩০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

২৯ শ্রাবণ, ১৪২৭, শুক্রবার, ১৪ আগস্ট ২০২০, দশমী ২১/৫৪ দিবা ২/২। রোহিণীনক্ষত্র ০/১৪ প্রাতঃ ৫/২২। সূর্যোদয় ৫/১৬/৪৮, সূর্যাস্ত ৬/৫/৪৪। অমৃতযোগ দিবা ৬/৫৮ মধ্যে পুনঃ ৭/৫০ গতে ১০/২৪ মধ্যে পুনঃ ১২/৫৮ গতে ২/৪১ মধ্যে পুনঃ ৪/২৪ গতে অস্তাবধি। রাত্রি ৭/৩৬ গতে ৯/৬ মধ্যে পুনঃ ৩/৩ গতে ৩/৪৭ মধ্যে। মাহেন্দ্রযোগ রাত্রি ১০/৩৫ গতে ১১/১৯ মধ্যে পুনঃ ৩/৪৭ গতে উদয়াবধি। বারবেলা ৮/২৯ গতে ১১/৪১ মধ্যে। কালরাত্রি ৮/৫৪ গতে ১০/১৮ মধ্যে।
২৯ শ্রাবণ, ১৪২৭, শুক্রবার, ১৪ আগস্ট ২০২০, দশমী দিবা ১০/৪৬। মৃগশিরানক্ষত্র শেষরাত্রি ৪/৪৩। সূর্যোদয় ৫/১৬, সূর্যাস্ত ৬/৯। অমৃতযোগ দিবা ৭/১ মধ্যে ও ৭/৫১ গতে ১০/২১ মধ্যে ও ১২/৫২ গতে ২/৩২ মধ্যে ও ৪/১২ গতে ৬/৭ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/২৪ গতে ৮/৫৩ মধ্যে ও ৩/৩ গতে ৩/৪৯ মধ্যে। মাহেন্দ্রযোগ রাত্রি ১০/২৮ গতে ১১/১৪ মধ্যে ও ৩/৪১ গতে ৫/১৬ মধ্যে। বারবেলা ৮/২৯ গতে ১১/৪২ মধ্যে। কালরাত্রি ৮/৫৫ গতে ১০/১৯ মধ্যে।
২৩ জেলহজ্জ।

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
২৪ ঘণ্টায় বাংলায় করোনা আক্রান্ত ২,৯৯৭
গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ২,৯৯৭ জনের শরীরে মিলল করোনা ভাইরাসের ...বিশদ

13-08-2020 - 09:45:41 PM

মুম্বইয়ে বাড়ির একাংশ ভেঙে মৃত ১, জখম ৪
মুম্বইয়ে হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ল একটি বাড়ির একাংশ। ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে ...বিশদ

13-08-2020 - 07:38:59 PM

প্রধানমন্ত্রী হিসাবে নয়া রেকর্ড মোদির
অকংগ্রেসি প্রধানমন্ত্রীদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি দিন মসনদে থাকার রেকর্ড গড়লেন ...বিশদ

13-08-2020 - 07:34:00 PM

তামিলনাড়ুতে একদিনে করোনা আক্রান্ত ৫,৮৩৫ 
তামিলনাড়ুতে গত ২৪ ঘণ্টায় ৫,৮৩৫ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। মৃত্যু ...বিশদ

13-08-2020 - 06:51:17 PM

মেডিক্যাল কলেজে ট্রলি থেকে করোনা রোগীর মৃতদেহ আছড়ে পড়ল রাস্তায়
হাসপাতালে ট্রলি করে নিয়ে যাওয়ার সময় রাস্তায় আছড়ে পড়ল ...বিশদ

13-08-2020 - 05:57:00 PM

করোনা: কোন কোন দেশ বেশি আক্রান্ত? 
করোনায় আক্রান্তের বিচারে তালিকায় শীর্ষে রয়েছে আমেরিকা। এদেশে করোনায় আক্রান্ত ...বিশদ

13-08-2020 - 03:45:28 PM