Bartaman Patrika
গল্পের পাতা
 

পুণ্য ভূমির পুণ্য ধুলোয়
অমরকণ্টক  পর্ব-১৮

ষষ্ঠীপদ চট্টোপাধ্যায়: বিন্ধ্যপর্বতের যে অংশটির নাম মেকল বা মৈকল, তীর্থভূমি নর্মদার সেই স্থানই অমরকণ্টক। শুধু তীর্থভূমি নয়, অমরকণ্টক হল সৌন্দর্যের খনি। এখানকার প্রাকৃতিক সৌন্দর্য বর্ণনাতীত।
যে কোনও সময় মন করলেই যাওয়া যেতে পারে অমরকণ্টক। হাওড়া বা কলকাতা থেকে প্রথমে বিলাসপুর। সেখান থেকে ইন্দোর এক্সপ্রেসে পেণ্ড্রা রোড। তবে আরও সুবিধার জন্য শালিমার-উদয়পুর (প্রতি রবিবার) এক্সপ্রেসে সরাসরি পেণ্ড্রা রোডেই নামা যায়। স্টেশন চত্বর থেকে ঘন ঘন বাস, মোটর, ট্রেকারও পাওয়া যায়। ঘণ্টাখানেকেরও কম সময়ে অমরকণ্টক।
নর্মদা ও শোন নদের উৎস এই অমরকণ্টক। নর্মদা হল ভারতের সমস্ত নদীগুলির মধ্যে শ্রেষ্ঠা। কেন না রুদ্রের তেজ থেকেই এর উৎপত্তি। স্কন্দ পুরাণ অনুযায়ী, যমুনার জলে সাতদিন, সরস্বতীর জলে তিনদিন ও গঙ্গার জলে একদিন স্নান করলে সর্বপাপ নাশ হয়। আর নর্মদার জল দর্শনমাত্রেই মোক্ষ লাভ। শুধু তাই নয়, নর্মদা তীরবর্তী যে কোনও অঞ্চল জপতপ ও সাধনভজনের জন্য সর্বোত্তম। অমরকণ্টকে থাকার জায়গার কোনও অভাব নেই। আগে আমি রামবাঈ ধর্মশালায় থাকতাম। এখন রীতা মায়ের আশ্রমে।
এখানে নর্মদা মাতার মন্দিরে এলে মন ভরে যায়। কালো কষ্টিপাথরের তিন ফুট উচ্চতার মূর্তি নর্মদা মায়ের। এক হাতে কমণ্ডলু অপর হাতে বরাভায়। মূর্তির সামনেই বিপরীত দিকে অমরেশ্বর শিবের মন্দির। মন্দিরের ঠিক পিছনদিকেই নর্মদার উৎস। উৎসমুখে জলস্পর্শ করে সংলগ্ন এলাকারই বাঁধানো কুণ্ডে স্নান করা যায়। এর নাম কোটি তীর্থ।
অমরকণ্টকে এলে হাঁটাপথেই বেশ কয়েকটি স্থান দেখে নেওয়া যায়। তার মধ্যে একটি হল শ্রীযন্ত্র মহামেরু মন্দির। অমরকণ্টকের সেরা মন্দির এটি। এর দৈর্ঘ্য, প্রস্থ এবং উচ্চতা সবই বাহান্ন ফুট। মন্দিরের গায়ে সর্বত্র বিভিন্ন দেবদেবীর সুন্দরকলার ভাস্কর্য বিদ্যমান। এরপর আছে স্বল্প দূরত্বে বিখ্যাত কর্ণ মন্দির। সেই একই চত্বরে আছে কেশবনারায়ণ মন্দির। আর আছে ষোলোটি স্তম্ভের ওপর নির্মিত অতীব সুন্দর মৎস্যেন্দ্রনাথের মন্দির।
এবার নর্মদা মায়ের কথা বলি—
মেকলাগিরির এই পুণ্যক্ষেত্রে অনাদিকালে শিব ছিলেন কঠোর তপস্যারত। কত দিন, কত বছর, কত যুগ ধরে যে তিনি ধ্যানমগ্ন ছিলেন তার হিসেব তিনি নিজেও রাখেননি। ঠিক এমনই সময় এক শুভক্ষণে শিবের কণ্ঠদেশ থেকে নির্গত হলেন নর্মদা। আবির্ভূতা হয়েই তিনি শিবের দক্ষিণ চরণে দাঁড়িয়ে সত্যযুগে দশ হাজার বছর রুদ্রের (শিব) তপস্যা করেন। সেই তপোপ্রভাবে শিবেরও ধ্যান ভঙ্গ হল। একটু একটু করে চোখ মেলে তাকালেন তিনি। দেখলেন এক অপূর্ব সুন্দরী কুমারী কন্যা যার মাথায় সুপিঙ্গল জটাভার, এক হাতে কমণ্ডলু অন্য হাতে অক্ষমালা, তাঁর দক্ষিণ চরণে করজোড়ে দাঁড়িয়ে জপ এবং ধ্যানে মগ্ন হয়ে আছে। শিব তখন সেই তাপসীর ধ্যানভঙ্গ করিয়ে সস্নেহে ডাকলেন তাকে, ‘কে তুমি মা?’ কন্যা বললেন, ‘আমি আপনারই কণ্ঠ হতে আবির্ভূতা কন্যা।’ শিব বললেন, ‘তোমার তপস্যায় আমি সন্তুষ্ট হয়েছি। কী বর চাও তুমি বলো?’ কন্যা বললেন, ‘আমি আপনার কণ্ঠনিঃসৃতা হলেও যেন বরপ্রভাবে অমৃতময়ী হতে পারি। শুধু তাই নয়, গঙ্গার মতো মাহাত্ম্য যেন আমারও হয়। আমার সলিলে স্নান করে যেন সর্বপাপ মুক্ত হয় মানুষ।’ শিব বললেন, ‘তাই হবে। শুধু স্নানে নয়, তোমাকে দর্শন করলেও মোক্ষলাভ হবে।’ কন্যা বললেন, ‘আমি আরও বর চাই পিতা। আপনার দেহ হতে নির্গত হয়েছি আমি। তাই এমন বর দিন যেন সবসময় আপনার সঙ্গে আমি একাত্ম থাকতে পারি।’ শিব প্রসন্ন হয়ে বললেন, ‘তথাস্তু। যেখানে তুমি সেখানে আমি।’ তাই তো ‘নর্মদা কি কঙ্কর বিলকুল শঙ্কর’।
নর্মদা মায়ের মন্দির পরিসরে মোট সাতাশটি মন্দির আছে। মুখ্য মন্দিরে আছেন মা নর্মদা ও অমরেশ্বর। এই মন্দির যে কবে কোন যুগে কে নির্মাণ করিয়েছিলেন তা সঠিকভাবে জানা যায় না। কিংবদন্তি অনুসারে, রেবা নায়েক নামে একজন সর্বপ্রথম বাঁশবনের মধ্যে নর্মদাকুণ্ডের পাশে মায়ের মন্দির নির্মাণ করান। পরবর্তীকালে সেই মন্দিরের কোনও অস্তিত্ব না থাকায় দ্বাদশ শতাব্দীতে কলচুরী রাজাদের আমলে মায়ের দ্বিতীয় মন্দির তৈরি হয়েছিল। তারও অনেক পরে নাগপুরের ভোঁসলে রাজারা সেই মন্দিরের জীর্ণোদ্ধার করেন এবং উদ্‌গম কুণ্ড, স্নান কুণ্ড প্রভৃতি নির্মাণ করান। রাজা গুলাব সিংহ কুণ্ড সহ সমস্ত চত্বর বাঁধিয়ে দেন।
নর্মদা তীর্থে এলে একদিন সকালের দিকে একটি গাড়ি নিয়ে কবীর চবুতরা, এরণ্ডি সঙ্গম, কলিধারা ও দুগ্ধধারা না দেখলে মন ভরবে না। প্রবলধারার জল ১০০ ফুট নীচে পড়ছে। এর পাশ দিয়ে দুগ্ধ ধারার পথ। গভীর জঙ্গল। তবে লোকজনের চলাচল আছে।
এখানেই একটি গুহায় দুর্বাশা মুনি তপস্যা করতেন। প্রবাদ, তাঁর আহার জোগানোর জন্য মা নর্মদা ওই ধারার মধ্য দিয়ে দুধ বয়ে আনতেন। এরপর গভীর জঙ্গলের মধ্যে রুদ্রচণ্ডী মায়ের স্থানও দেখে আসেন কেউ কেউ।
পরদিন সকালে গভীর জঙ্গল পার হয়ে ধুনি পানিতে এসে আশ্রম ও কুণ্ড দর্শন। মহর্ষি ভৃগু তপস্যাকালীন সময়ে এখানেই ধুনি জ্বালাতেন। এরপর সিদ্ধি বিনায়ক দর্শন করে ভৃগুকমণ্ডলু। ভৃগুকমণ্ডলুতে এলে একজন অভিজ্ঞ লোক সঙ্গে থাকা চাই। তবে ও পথে না গেলে গাড়ি নিয়ে সোজা চলে যাওয়া উচিত শোন নদীর উৎস দেখতে। বাঁধানো একটি গোমুখ থেকে নির্গত হয়ে শোন এসে কুণ্ডে পড়ছে। ব্রহ্মার চোখের জল থেকেই নাকি শোন নদীর উৎপত্তি। এখানে বেশ কয়েকটি মন্দির আছে। তবে শোন নদের উদগম কুণ্ডের পাশেই সোনাক্ষী দেবীর যে মন্দির তা অত্যন্ত মহিমাময়। কেন না সতীর বাম নিতম্ব নাকি এখানেই পড়েছিল। তাই এটিও একটি শক্তিপীঠ। শোনের উদ্‌গম স্থলের অনতিদূরে ভদ্র নদীর উৎস স্থান। এখান থেকেই শোন ও ভদ্র এক হয়ে প্রপাতের সৃষ্টি করেছে। সেই প্রপাত দেখবার মতো। এরপর দীর্ঘ পথ অতিক্রম করে শোন বিহার প্রদেশে শোনপুরে গিয়ে গঙ্গায় মিলিত হয়েছে। শোন, ভদ্র দেখার পর পাহাড়ের গা বেয়ে যেতে হয় ‘মাঈ কি বাগিয়ায়’। এটি হল নর্মদা মায়ের উদ্যান। এখানে একটি কুণ্ডও আছে। সেই কুণ্ডের নাম চরণোদক।
অমরকণ্টকের রমণীয় দৃশ্য ও তীর্থ মহিমা এমনই যে বারবার এলেও মন ভরে না। তাই আমিও সব সময় ব্যাকুল হয়ে থাকি।
(ক্রমশ)
অলংকরণ : সোমনাথ পাল 
07th  July, 2019
আজও তারা জ্বলে 

বাংলা ছবির দিকপাল চরিত্রাভিনেতারা একেকটা শৈল্পিক আঁচড়ে বঙ্গজীবনে নিজেদের অমর করে রেখেছেন। অভিনয় ছিল তাঁদের শরীরে, মননে, আত্মায়। তাঁদের জীবনেও ছড়িয়ে ছিটিয়ে অনেক অমূল্য রতন। তাঁরই খোঁজে সন্দীপ রায়চৌধুরী। আজ তুলসী চক্রবর্তী। ষষ্ঠ কিস্তি।
বিশদ

05th  July, 2020
দু’জন  

জীবনের প্রধান ও মুখ্য ঘটনাগুলিই কেবল মনে থাকার কথা। কিন্তু অনেক সময়ই দেখা যায় স্মৃতির অতলে অনেক তুচ্ছ ক্ষুদ্র ঘটনাও কেমন করে বেশ বড় হয়ে জাঁকিয়ে বসে রয়েছে। সাহিত্যিকদের ‘ভবঘুরে’ জীবনের তেমনই নানা ঘটনা উঠে এল কলমের আঁচড়ে। আজ লিখছেন ভগীরথ মিশ্র।
বিশদ

05th  July, 2020
সিনেমার মতো
প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়

শিলিগুড়িতে সেটল করতে একটু সময় লাগছে শাশ্বতর। শাশ্বত মুখার্জি। কলকাতার বনেদি বাড়ির পরিবেশে মানুষ হওয়াটা কোথাও কোথাও একটু অসুবিধাজনকও বটে। মজ্জায় মজ্জায় মানিয়ে নেওয়ার সমস্যা।  বিশদ

05th  July, 2020
ফেয়ার-ওয়েল
অঞ্জনা চট্টোপাধ্যায়
(১)

 নাইন-বি এর ক্লাসরুম থেকে বেরিয়ে ধীরপায়ে সিঁড়ির দিকে এগিয়ে চললেন অলকানন্দা রায়চৌধুরী, ছাত্রীদের প্রিয় শিক্ষিকা ‘অলকা দি’। গতকাল রাত থেকেই হাঁটুর ব্যথাটা আবার চাগাড় দিয়েছে, পা মুড়তে বেশ কষ্ট হচ্ছে। তবে গত কয়েকদিন ধরে মনের ভিতর যে ব্যথাটা জমে রয়েছে তার কাছে এই হাঁটুর ব্যথাটা তো একেবারেই তুচ্ছ। রেলিং ধরে ধীরে ধীরে একতলার দিকে নামতে শুরু করলেন অলকা।
বিশদ

28th  June, 2020
চলার পথে
ফ্রেদরিকের চিঠি

 জীবনের প্রধান ও মুখ্য ঘটনাগুলিই কেবল মনে থাকার কথা। কিন্তু অনেক সময়ই দেখা যায় স্মৃতির অতলে অনেক তুচ্ছ ক্ষুদ্র ঘটনাও কেমন করে বেশ বড় হয়ে জাঁকিয়ে বসে রয়েছে। সাহিত্যিকদের ‘ভবঘুরে’ জীবনের তেমনই নানা ঘটনা উঠে এল কলমের আঁচড়ে। আজ লিখছেন অমর মিত্র। বিশদ

28th  June, 2020
আজও তারা জ্বলে
পর্ব- ২৯

 বাংলা ছবির দিকপাল চরিত্রাভিনেতারা একেকটা শৈল্পিক আঁচড়ে বঙ্গজীবনে নিজেদের অমর করে রেখেছেন। অভিনয় ছিল তাঁদের শরীরে, মননে, আত্মায়। তাঁদের জীবনেও ছড়িয়ে ছিটিয়ে অনেক অমূল্য রতন। তাঁরই খোঁজে সন্দীপ রায়চৌধুরী। আজ তুলসী চক্রবর্তী। পঞ্চম কিস্তি। বিশদ

28th  June, 2020
আজও তারা জ্বলে
পর্ব- ২৮

বাংলা ছবির দিকপাল চরিত্রাভিনেতারা একেকটা শৈল্পিক আঁচড়ে বঙ্গজীবনে নিজেদের অমর করে রেখেছেন। অভিনয় ছিল তাঁদের শরীরে, মননে, আত্মায়। তাঁদের জীবনেও ছড়িয়ে ছিটিয়ে অনেক অমূল্য রতন। তাঁরই খোঁজে সন্দীপ রায়চৌধুরী। আজ তুলসী চক্রবর্তী। চতুর্থ কিস্তি।
বিশদ

14th  June, 2020
নিলডাউন

জীবনের প্রধান ও মুখ্য ঘটনাগুলিই কেবল মনে থাকার কথা। কিন্তু অনেক সময়ই দেখা যায় স্মৃতির অতলে অনেক তুচ্ছ ক্ষুদ্র ঘটনাও কেমন করে বেশ বড় হয়ে জাঁকিয়ে বসে রয়েছে। সাহিত্যিকদের ‘ভবঘুরে’ জীবনের তেমনই নানা ঘটনা উঠে এল কলমের আঁচড়ে। আজ লিখছেন সঞ্জীব চট্টোপাধ্যায়।  বিশদ

14th  June, 2020
আজও তারা জ্বলে 

বাংলা ছবির দিকপাল চরিত্রাভিনেতারা একেকটা শৈল্পিক আঁচড়ে বঙ্গজীবনে নিজেদের অমর করে রেখেছেন। অভিনয় ছিল তাঁদের শরীরে, মননে, আত্মায়। তাঁদের জীবনেও ছড়িয়ে ছিটিয়ে অনেক অমূল্য রতন। তাঁরই খোঁজে সন্দীপ রায়চৌধুরী। আজ তুলসী চক্রবর্তী। তৃতীয় কিস্তি। 
বিশদ

07th  June, 2020
অথৈ সাগর 

চলতি বছর ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের দ্বিশতজন্মবর্ষ। সেই উপলক্ষে মাইলফলক দেখে ইংরেজি সংখ্যা শেখাই হোক বা বিধবা বিবাহ প্রচলনের জন্য তীব্র লড়াই— বিদ্যাসাগরের জীবনের এমনই নানা জানা-অজানা কাহিনী দিয়ে সাজানো এ ধারাবাহিকের ডালি। 
বিশদ

07th  June, 2020
স্বপ্নসঙ্গী 

উদয়চাঁদ বন্দ্যোপাধ্যায়: ট্রেনটা প্রায় আড়াই ঘণ্টা দেরি করে ঢুকল গোমো স্টেশনে। বাতানুকূল কামরা থেকে নেমে আসে তন্বী পিয়ালি। ভিড় এড়িয়ে, সঙ্গের চাকা লাগানো ব্যাগটা নিয়ে একটু সরে এসে, উদ্বিগ্ন চোখে দু’দিকে তাকায়। একটা সাধারণ পোশাক পরা যুবক পিয়ালির সামনে এসে বলে, আপনি মুখার্জি স্যারের ফরেস্ট বাংলোয় যাবেন তো?
পিয়ালি ভ্রু কুঁচকে বলে, কে তুমি?  বিশদ

31st  May, 2020
আজও তারা জ্বলে
তুলসী চক্রবর্তী

পথে চলতে চলতে বহু মানুষের সঙ্গে আলাপ হয়েছে তুলসীর। বহু পেশার মানুষ দেখেছেন। তাই যে কোনও চরিত্র ফুটিয়ে তুলতে অভিজ্ঞতার ঝাঁপি উপুড় করে দিতেন। নিজের দেখা মানুষের ছাঁচে ফেলে গড়ে তুলতেন চরিত্রটি। তাই তাঁর অভিনয় ওরকম স্বাভাবিক মনে হতো।
বিশদ

31st  May, 2020
ভৈরবী মা
সঙ্গীতা দাশগুপ্ত রায়

 ‘নিজে রান্নাবান্না পারেন?’ ‘নাহ, একদম আনাড়ি,’ অর্জুন হাসে। ‘তবে তো এ ব্যবস্থাই বেশ। ওনার ফেরার কোনও ঠিক থাকে না। আপনাকে ন’টায় খেতে দেব তো? আর হ্যাঁ, কোনও অসুবিধা হলে বউদি বলে ডাক দেবেন ভাই।’ একটু আন্তরিকতা ছুঁইয়ে দিয়ে যান মহিলা। বিশদ

24th  May, 2020
আজও তারা জ্বলে
তুলসী চক্রবর্তী

‘ওরে, আমি হলাম গিয়ে হেঁশেলবাড়ির হলুদ। ঝালে-ঝোলে-অম্বলে সবেতেই আছি। হাসতে বললে হাসব, কাঁদতে বললে কাঁদব, নাচতে বললে নাচব, দু’কলি গান গেয়ে দিতে বললে তাও পারব। হলুদ যেমন সব ব্যঞ্জনেই লাগে তেমনই আর কী! কিন্তু হলুদের কি নিজস্ব কোনও স্বাদ আছে? তাই আমার এই অভিনয়কে আমি অভিনয় বলি না গো!
বিশদ

24th  May, 2020
একনজরে
 কাঠমাণ্ডু: গদি বাঁচাতে শেষপর্যন্ত করোনাকে হাতিয়ার করতে চাইছেন নেপালের প্রধানমন্ত্রী কে পি শর্মা ওলি। তবে খাদের কিনারায় দাঁড়িয়ে তাঁর এই কৌশল কতটা কার্যকর হবে, তা নিয়ে সন্দিগ্ধ রাজনৈতিক মহল। জানা গিয়েছে, করোনার মোকাবিলায় দেশে স্বাস্থ্য ক্ষেত্রে জরুরি অবস্থা জারির প্রস্তাব ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: ট্রেন বন্ধ। শিয়ালদহ খাঁ খাঁ করছে। স্টেশন সংলগ্ন হোটেল ব্যবসায়ীরা কার্যত মাছি তাড়াচ্ছেন। এশিয়ার ব্যস্ততম স্টেশনের আশপাশের লজ, হোটেল, গেস্ট হাউসগুলির সদর ...

  নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: মিউচুয়াল ফান্ড সংস্থাগুলির সিস্টেমেটিক ইনভেস্টমেন্ট প্ল্যান বা ‘সিপ’ বাবদ আদায় কমল জুন মাসে। গত মাসে গোটা দেশে সিপ-এ বিনিয়োগ হয়েছে ৭ হাজার ৯২৭ কোটি টাকা। অথচ তার আগের মাসে, অর্থাৎ মে মাসে বিনিয়োগ হয়েছিল ৮ হাজার ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, তমলুক: পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় ভুয়ো ক্ষতিগ্রস্তদের কাছ থেকে টাকা ফেরাতে ব্লক লেভেল টাস্ক ফোর্স (বিএলটিএফ) তৈরি করল জেলা প্রশাসন। গত ৭জুলাই জেলাশাসক পার্থ ঘোষ এই সংক্রান্ত একটি নির্দেশিকা জারি করেছেন। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

পঠন-পাঠনে আগ্রহ বাড়লেও মন চঞ্চল থাকবে। কোনও হিতৈষী দ্বারা উপকৃত হবার সম্ভাবনা। ব্যবসায় যুক্ত হলে ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৮৮৫- ভাষাবিদ মহম্মদ শহীদুল্লাহর জন্ম,
১৮৯৩- গণিতজ্ঞ কে সি নাগের জন্ম,
১৯৪৯- ক্রিকেটার সুনীল গাভাসকরের জন্ম,
১৯৫০- গায়িকা পরভীন সুলতানার জন্ম,
১৯৫১- রাজনীতিক রাজনাথ সিংয়ের জন্ম



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭৩.০৪ টাকা ৭৬.৭৪ টাকা
পাউন্ড ৯২.১৪ টাকা ৯৭.১৪ টাকা
ইউরো ৮২.৯৩ টাকা ৮৭.৪০ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৫০,০৬০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৪৭,৪৯০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৪৮,২০০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৫১,৭১০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৫১,৮১০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

২৬ আষাঢ় ১৪২৭, ১০ জুলাই ২০২০, শুক্রবার, পঞ্চমী ১৬/৩০ দিবা ১১/৩৯। পূর্বভাদ্রপদ অহোরাত্র। সূর্যোদয় ৫/২/৪২, সূর্যাস্ত ৬/২১/২৷ অমৃতযোগ দিবা ১২/৮ গতে ২/৪৮ মধ্যে। রাত্রি ৮/২৯ মধ্যে পুনঃ ১২/৪৬ গতে ২/৫৫ মধ্যে পুনঃ ৩/৩৮ গতে উদয়াবধি। বারবেলা ৮/২২ গতে ১১/৪২ মধ্যে। কালরাত্রি ৯/১ গতে ১০/২১ মধ্যে।
২৫ আষাঢ় ১৪২৭, ১০ জুলাই ২০২০, শুক্রবার, পঞ্চমী দিবা ১১/২৭। পূর্বভাদ্রপদ নক্ষত্র অহোরাত্র। সূযোদয় ৫/২, সূর্যাস্ত ৬/২৩। অমৃতযোগ দিবা ১২/৯ গতে ২/৪৯ মধ্যে এবং রাত্রি ৮/৩০ মধ্যে ও ১২/৪৬ গতে ২/৫৫ মধ্যে ও ৩/৩৭ গতে ৫/৩ মধ্যে। বারবেলা ৮/২৩ গতে ১১/৪৩ মধ্যে। কালরাত্রি ৯/৩ গতে ১০/২৩ মধ্যে।
১৮ জেল্কদ

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
মহারাষ্ট্রের জেলগুলিতে করোনায় আক্রান্ত ৫৯৬ জন বন্দী ও ১৬৭ কর্মী
মহারাষ্ট্রের জেলগুলিতে এ পর্যন্ত মোট করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৫৯৬ জন ...বিশদ

09:44:11 AM

করোনা:ফের রেকর্ড, দেশে একদিনে আক্রান্ত ২৬,৫০৬
গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হলেন আরও ...বিশদ

09:35:40 AM

 শিয়ালদহ-ভুবনেশ্বর স্পেশাল ট্রেন এখন সপ্তাহে ২ দিন
আগামী ১৩ জুলাই থেকে শিয়ালদহ-ভুবনেশ্বর স্পেশাল ট্রেন সপ্তাহে তিনদিনের বদলে ...বিশদ

09:20:11 AM

কন্টেইনমেন্ট জোনে হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ 
কন্টেইনমেন্ট জোনে বিভিন্ন আবাসন, বাড়ি কিংবা পাড়ার বাসিন্দাদের নিয়ে হোয়াটসঅ্যাপ ...বিশদ

09:00:19 AM

ফের রেকর্ড আমেরিকায়, একদিনে আক্রান্ত ৬৫ হাজারেরও বেশি
করোনা আক্রান্ত নিয়ে ফের রেকর্ড আমেরিকায়। গত ২৪ ঘণ্টায় মার্কিন ...বিশদ

08:55:18 AM

আজ আইসিএসই, আইএসসির ফল
 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: আজ, শুক্রবার দুপুর ৩টেয় প্রকাশিত হতে চলেছে ...বিশদ

08:43:37 AM