Bartaman Patrika
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 

জল সঙ্কট 

কল্যাণ বসু: দুধ সাদা ধুতি পাঞ্জাবি, মাথায় নেহরু টুপি, গলায় মালা ঝুলিয়ে মন্ত্রী দু’হাত জোড় করে হাসিমুখে মঞ্চের দিকে যাচ্ছেন। চারদিকে জয়ধ্বনি, হাততালি। মঞ্চে উঠে মাইক্রোফোন হাতে নিয়ে মন্ত্রী বলতে শুরু করেছেন সবে। ‘আমি অবশ্যই এই গ্রামে জল এনে দেব, এ আমার অঙ্গীকার...’। ঠিক তখনই জনগণের মধ্যে থেকে এক তরুণ পাঁচ বছর আগের নির্বাচনী প্রচারে করা মন্ত্রীর একই প্রতিশ্রুতির রেকর্ডিংটা চালিয়ে দেয়। মঞ্চে নেতার তখন কাঁচুমাচু অবস্থা। রেকর্ডিং বন্ধ করার অনুনয়-বিনয়। ছোকরা তখন বলে ওঠে, ‘মন্ত্রীমশাই, গ্রামে থাকি বলে বুদ্ধু বানাবেন না।’ এরপর মোবাইল রেকর্ডিংটা হাতে নিয়ে মুচকি হেসে সে মাথা দোলাতে থাকে আর ব্যাকগ্রাউন্ডে চালু হয়ে যায় কোম্পানির সেই বিখ্যাত ব্র্যান্ড স্লোগান—‘নো উল্লু বানাউয়িং, নো উল্লু বানাউয়িং।’
বেশ কয়েক বছর আগে এক বিখ্যাত মোবাইল সার্ভিস প্রোভাইডার কোম্পানির হয়ে অভিষেক বচ্চনের প্রায় আধ মিনিটের এই বিজ্ঞাপনটি জলকে জড়িয়ে সমাজ-রাজনীতির একটা গুরুত্বপূর্ণ দিক উন্মোচিত করেছিল। স্বাধীনতার ৭১ বছর পার করেও দেশের অধিকাংশ মানুষ নিরাপদ পানীয় জল থেকে বঞ্চিত।
তৃষ্ণা মেটাতে ও শারীরবৃত্তীয় আবশ্যকতার বিচারে ‘জলের অপর নাম জীবন’। এই আপ্তবাক্যটির যথার্থতা যেমন তর্কাতীত, তেমনই জলকে কেন্দ্র করেই আবার দুনিয়াজুড়ে দু’ভাবে জীবনসঙ্কট তৈরি হয়েছে। এক, দূষণের কারণে জীবনস্বরূপ জল হয়ে উঠেছে জীবনহানির অন্যতম কারণ। ফি বছর ৫০ লক্ষেরও বেশি মানুষ জলঘটিত রোগে বিশ্বজুড়ে প্রাণ হারায়, যার মধ্যে প্রতি ৮ সেকেন্ডে একজন শিশু। শুধুমাত্র ডায়ারিয়া বা পেট খারাপের কারণে বিশ্বে গড়ে বার্ষিক মৃত্যু প্রায় ৩৩ লক্ষ। দুই, জলের দাবি বা সংগ্রহকে ঘিরে ঘনিয়ে ওঠা যুদ্ধংদেহি পরিস্থিতি। বিশ্বজুড়ে জনসংখ্যার বিস্ফোরণ ঘটায় পাল্লা দিয়ে জলের চাহিদা বাড়তে শুরু করে। সেই সঙ্গে বাড়তে থাকল বিবাদের সম্ভাবনাও। বিশ্বব্যাঙ্কের প্রাক্তন ভাইস প্রেসিডেন্ট ইসমাইল সেরেজেলডিন শোনালেন চরম আশঙ্কার কথা, ‘পরবর্তী বিশ্বযুদ্ধটি হবে জলকে ঘিরেই।’ জলের জন্য বিশ্বযুদ্ধ! অতিরঞ্জিত মনে হলে জেনে রাখুন, দুনিয়াজুড়ে যাঁরা জলের জন্য বিভিন্ন মাপের লড়াই লড়ছেন তাঁদের জলযোদ্ধা (ওয়াটার ওয়ারিয়রস) বলে অভিহিত করা হচ্ছে। যুদ্ধের মতো সেইসব সংগ্রামের সঙ্গেও জড়িয়ে থাকছে নানা হানাহানি। এই হানাহানি প্রত্যক্ষ করেছে ভারতও। ২০০৫ সালে। জলের দাবিতে আন্দোলনকারীদের উপর বিজেপিশাসিত রাজস্থান সরকারের পুলিস গুলি চালিয়েছিল। দু’টি ঘটনায় মোট ১১ জনের মৃত্যু হয়। প্রথমটি ঘটে শ্রীগঙ্গানগর জেলায়। মৃত্যু হয়েছিল ৬ জনের। দ্বিতীয় ঘটনাটি টঙ্ক শহর থেকে ১৪ কিমি দূরে সোহেলা গ্রামে। সেখানে মৃত ৫ জনের মধ্যে অনিতা গুজুর নামে ৪৫ বছরের এক গর্ভবতী মহিলাও ছিলেন। বছর চারেক আগে মধ্যপ্রদেশের দামোহ জেলায় সরকারি কল থেকে জল সংগ্রহের সময় কাড়াকাড়ির কারণে খুন হতে হয় এক মহিলাকে। জলের জন্য এও কি যুদ্ধ নয়?
তবে এই জল সংক্রান্ত লড়াইয়ে মেয়েদের কথা না বললে তা অসম্পূর্ণ থেকে যায়। নারীর মর্যাদায়ন ও ক্ষমতায়ন নিয়ে প্রচুর গালভরা কথা, কুম্ভীরাশ্রু মোচন দেখা গেলেও, জল সংগ্রহকে ঘিরে যে বিপুল নারীশক্তির অপচয় হয়, অমর্যাদা হয় সে দিকটা অন্ধকারেই থাকে। মেয়েদের এই জল সংগ্রহকে প্রথম জীবনে কাব্যিক দৃষ্টিতে (‘দুই বিঘা জমি’র উপেনের চোখ দিয়ে) দেখে রবীন্দ্রনাথ লিখেছিলেন, ‘বুকভরা মধু বঙ্গের বধূ জল লয়ে যায় ঘরে—/ মা বলিতে প্রাণ করে আনচান, চোখে আসে জল ভরে।’ কিন্তু ৪১ বছর বাদে সেই তিনিই রূঢ় গদ্যে জানালেন, ‘যে জলকষ্ট সমস্ত দেশকে অভিভূত করেছে তার সবচেয়ে প্রবল দুঃখ মেয়েদের ভোগ করতে হয়। মাতৃভূমির মাতৃত্ব প্রধানত আছে তার জলে—তাই মন্ত্রে আছে: আপো অস্মান মাতরঃ শুদ্ধয়ন্তু। জল মায়ের মতো আমাদের পবিত্র করুক। জলাভাবে দেশে যেমন মাতৃত্বের ক্ষতি হয়, সেই ক্ষতি মেয়েদের দেয় বেদনা।’ গনগনে রোদ মাথায় নিয়ে তপ্ত বালির উপর দিয়ে বারংবার মাইলের পর মাইল হেঁটে মেয়েদের জল সংগ্রহের দৃশ্য দেখে রবীন্দ্রনাথ এই কষ্টকে এক বক্তৃতায় ‘মরণদশা’র সঙ্গে তুলনা করেছিলেন। তারপর ৮২ বছর অতিক্রান্ত। মেয়েদের এই জলকষ্ট কতটা দূর হল? উত্তর হল, ভারতে জল সংগ্রহকে কেন্দ্র করে নারী দুর্দশার চিত্র বিশ্বের দরবারে মাথা হেঁট করে দেওয়ার ক্ষেত্রে যথেষ্ট। ঘটনাটি হল—মধ্যপ্রদেশের বুন্দেলখণ্ড এলাকার একাধিক জেলায় পানীয় জলের সঙ্কট বহু বছরের। টিকমগড় জেলার লিধোরা গ্রামে এই সমস্যা নিয়ে বলতে গিয়ে জেলার সাব-ডিভিশনাল ম্যাজিস্ট্রেট গ্রামবাসীদের উদ্দেশে বলেন, ‘জাতারা ব্লকের বায়িরবার গ্রামের মধ্যে দিয়ে যেতে গিয়ে কয়েকদিন আগে দেখলাম রাত দু’টোর সময় মহিলারা উঠে জল আনতে যাচ্ছে। এই সমস্যার সমাধানে তিনটে বিয়ে করা যায়। একটা বউ সন্তান জন্ম দেওয়া ও প্রতিপালনের জন্য আর জল আনার জন্য বাকি দুই বউ। গরিবদের ক্ষেত্রে এটা অসম্ভব হলেও, বড়লোকরা এটা করতেই পারেন।’ শুনতে খারাপ লাগলেও, পরিবারের জল সংগ্রহের জন্য মেয়েদের দুর্ভোগ এমন পর্যায়েই। শুধু মধ্যপ্রদেশ কেন, মহারাষ্ট্রেও এক কাহিনী। মুম্বই থেকে ১৪০ কিমি দূরে দেঙ্গনমাল গ্রামের শ’খানেক পরিবারের অনেকেই একাধিক বউ পালন করেন জল সংগ্রহের জন্য। এরকমই একজন ৬৬ বছর বয়সি সখারাম ভগত। সোজাসাপ্টা মন্তব্য, ‘বউকে বাচ্চা সামলাতে হতো। জল আনতে তো কাউকে দরকার! তাই ফের বিয়ে করলাম। দ্বিতীয় স্ত্রী অসুস্থ হওয়ায় আবার বিয়ে করতে হল।’
শুধু কি জল সংগ্রহ করে দেওয়ার জন্য বউ? না। মনে পড়ে মতি নন্দীর লেখা গল্প ‘জলের ঘূর্ণি ও বক বক শব্দ’-এর কথা। বহু পরিবারের বাস এমন বাড়িতে থাকেন বিশ্বনাথ ও তাঁর স্ত্রী পূর্ণিমা। বারোয়ারি টাইম কলে কর্পোরেশনের জল আসা বন্ধ থাকে একদিন। পূর্ণিমা পাশের বস্তিতে জল সংগ্রহ করতে গিয়ে বেইজ্জত হন, বস্তির মহিলারা তাঁকে শাড়ি খুলে, ব্লাউজ ছিঁড়ে মাটিতে ফেলে হেনস্তা করে। অবশেষে ভাড়া বাড়ির কলে জল এলে পূর্ণিমা পাগলের মতো ঘরের প্রায় সব কিছুতে জল ভরে রাখে ফের জল বন্ধের আশঙ্কায়। কত জলসঞ্চয় দরকার জানতে বিশ্বনাথ প্রায়োন্মাদ স্ত্রীকে প্রশ্ন করেন, ‘তোমার টার্গেট কত?’ পূর্ণিমা জবাবে বলেন, ‘আমার টার্গেট নেই।’ এই ‘টার্গেট’ শব্দটা গভীর ব্যঞ্জনাময় হয় গল্পের পরিসমাপ্তিতে।
তথ্য বলছে, বিশ্বের মোট জনসংখ্যার ১৮ শতাংশ ভারতে। অথচ জলের ব্যবহার মাত্র ৪ শতাংশ। ১০০ কোটি মানুষ এদেশে জলাভাবে আছেন, যার মধ্যে ৬০ কোটির অবস্থা শোচনীয়। জলের গুণমান সূচকের নিরিখে ভারত ১২২টি দেশের মধ্যে ১২০তম অবস্থানে। ২০১৩-২০১৮ সালে এদেশে জলবাহিত রোগে আক্রান্ত হয়েছে প্রায় ৭ কোটি মানুষ, যা ইংল্যান্ডের জনসংখ্যার প্রায় সমান। ওই পাঁচ বছরে মারা গিয়েছিলেন ১০ হাজার ৭৩৮ জন, যার মধ্যে পেট খারাপেই ৬৫১৪ জন! ২০১৬ সালে ইন্ডিয়া স্পেন্ডের রিপোর্ট বলছে, জলবাহিত রোগে ভারতে ৭ কোটি ৩০ লক্ষ কর্মদিবস নষ্ট হয়।
তবে দেশবাসীকে যথেষ্ট পরিমাণে পরিস্রুত পানীয় জল সরবরাহের লড়াইয়ে ভারত চুপ করে বসে আছে ভাবলে ভুল করা হবে। আমাদের স্বতন্ত্র জলসম্পদ মন্ত্রক আছে, জল কমিশন আছে, একাধিক মন্ত্রী ও সচিব আছেন, জাতীয় জলনীতি আছে, জল নিয়ে বাজেট বরাদ্দ আছে। ছিল ‘হু’-এর মিশন ‘ওয়াটার ফর অল বাই ১৯৯০’, ‘হেল্থ ফর অল বাই ২০০০’, রাষ্ট্রসঙ্ঘের ‘ইন্টারন্যাশনাল ড্রিংকিং ওয়াটার সাপ্লাই অ্যান্ড স্যানিটেশন ডিকেড’ (১৯৮১-১৯৯০), মিলিয়ন ডেভেলপমেন্ট গোলের অন্তর্গত ‘ওয়াটার ফর লাইফ ডিকেড’ (২০০৫-২০১৫)। সর্বোপরি এবছর বিশ্ব জলদিবস (২২ মার্চ) ২৫ বছর অতিক্রম করেছে। এবছরে দিনটির থিম ছিল ‘সকলের জন্য জল।’ কিন্তু বাস্তবটা কী? বিশ্বখ্যাত সংস্থা ‘ওয়াটার এইড’ তাদের সর্বশেষ সমীক্ষায় জানিয়েছে, ভারত যখন বিশ্বের বৃহত্তম গণতন্ত্রের ভোট উৎসবে মেতেছিল, তখন বিশ্বের সবথেকে বেশি সংখ্যক পানীয় জল বঞ্চিত মানুষ (১৬ কোটি ৩১ লক্ষ) এই দেশেই। এহেন কাকতালীয় সমাপতন কপালে ভাঁজ ফেলার মতোই বটে!  
07th  July, 2019
জগন্নাথের ভাণ্ডার
মৃন্ময় চন্দ

‘রথে চ বামনং দৃষ্ট, পুনর্জন্ম ন বিদ্যতে’। অর্থাৎ, রথের রশি একবার ছুঁতে পারলেই কেল্লা ফতে, পুনর্জন্ম থেকে মুক্তি। আসলে সর্বধর্মের সমন্বয়ে বিবিধের মাঝে মিলন মহানের এক মূর্ত প্রতিচ্ছবি এই রথযাত্রা। সেই কারণেই নিউজিল্যান্ডের হট প্যান্টের গা ঘেঁষে সাত হাত কাঞ্চীপূরমীয় ঘোমটা টানা অসূর্যমপশ্যা দ্রাবিড়ীয় গৃহবধূও শামিল হন রথের রশি ধরতে। অর্কক্ষেত্র, শঙ্খক্ষেত্র আর শৈবক্ষেত্রের সমাহারে সেই মিলন মহানের সুরটিই সতত প্রতিধ্বনিত নীলাচলে। তাই নীলাচলপতির দর্শনে অক্ষয় বৈকুণ্ঠ লাভের আশায় ভিড়ের ঠেলায় গুঁতো খেতে খেতে চলেন সংসার-বঞ্চিত বাল্যবিধবারা। একই মনোবাসনা নিয়ে চলেছেন অন্ধ, চলেছেন বধির, চলেছেন অথর্ব।
বিশদ

30th  June, 2019
স্টেফির হাফ সেঞ্চুরি
প্রীতম দাশগুপ্ত

 মার্টিনা নাভ্রাতিলোভা, ক্রিস এভার্টরা নিজেদের প্রতিষ্ঠিত করার লড়াই শুরু করেছেন তখন। ঠিক একই সময়ে জার্মানির অখ্যাত শহর ব্রুয়ে বেড়ে উঠছিল স্টিফানি মারিয়া গ্রাফ। ১৯৬৯ সালের ১৪ জুন জার্মানির ম্যানহাইনে জন্ম স্টিফানির। মেয়ের দুষ্টুমি বন্ধের দাওয়াই হিসেবে স্টিফানির বাবা পিটার তার হাতে ধরিয়ে দিয়েছিলেন একটা পুরনো টেনিস র‌্যাকেট।
বিশদ

23rd  June, 2019
বাঙালি জীবনের গল্পই ছিল তাঁর ছবির বিষয় 
রঞ্জিত মল্লিক

ঢুলুদার সঙ্গে কাজ করা আমার জীবনের অন্যতম সেরা অভিজ্ঞতা। অমন রসিক মানুষ খুব কমই দেখেছি। মৃণাল সেন কিংবা সত্যজিৎ রায়ের মধ্যেও আমি রসবোধ দেখেছি। কিন্তু ঢুলুদার রসবোধ তুলনাহীন। 
বিশদ

16th  June, 2019
শতবর্ষে স্রষ্টা 
সন্দীপন বিশ্বাস

সবাই তাঁকে চেনেন ঢুলুদা নামে। পোশাকি নাম অরবিন্দ মুখোপাধ্যায়। সেই মানুষটির হাত দিয়ে বেরিয়েছিল ‘আহ্বান’, ‘অগ্নীশ্বর’, ‘ধন্যি মেয়ে’, ‘মৌচাক’-এর মতো অমর ছবি। আগামী মঙ্গলবার, ১৮ জুন তাঁর জন্মশতবর্ষ।  
বিশদ

16th  June, 2019
ধ্বংসের প্রহর গোনা 
মৃন্ময় চন্দ

আরও একটা বিশ্ব পরিবেশ দিবস গেল। অনেক প্রতিজ্ঞা, প্রতিশ্রুতি...। কিন্তু দূষণ বা অবৈজ্ঞানিক নির্মাণ কি কমছে? উদাসীনতায় আজ ধ্বংসের মুখে যে এরাজ্যের সমুদ্রতটও! 
বিশদ

09th  June, 2019
বিরাট সম্ভাবনা ভারতের

রাতুল ঘোষ: প্রায় দেড় মাসব্যাপী সাত দফার লোকসভা নির্বাচন পর্ব শেষ। একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে নরেন্দ্র দামোদর দাস মোদির প্রধানমন্ত্রিত্বের দ্বিতীয় ইনিংসের সূচনা হয়েছে। অতঃপর পরবর্তী দেড় মাস আসমুদ্রহিমাচলব্যাপী ভারতবর্ষের সোয়াশো কোটি জনগণ আন্দোলিত হবেন দ্বাদশ আইসিসি বিশ্বকাপ ঘিরে।
বিশদ

02nd  June, 2019
মোদি ম্যাজিক
সমৃদ্ধ দত্ত

আর নিছক জয় নয়। দেখা যাচ্ছে জয় খুব সহজ তাঁর কাছে। ২০ বছর ধরে কখনও মুখ্যমন্ত্রী হয়ে, কখনও প্রধানমন্ত্রী হয়ে জিতেই চলেছেন। সুতরাং ওটা নিয়ে ভাবতে হচ্ছে না। তাহলে এরপর টার্গেট কী? সম্ভবত ইতিহাস সৃষ্টি করা। এক রেকর্ড সৃষ্টি করাই লক্ষ্য হবে নরেন্দ্র মোদির। কিসের রেকর্ড?
বিশদ

26th  May, 2019
ভোটের ভারত 

রাত নামল দশাশ্বমেধ ঘাটে। অন্ধ ভিক্ষুককে প্রতিবন্ধী ফুলবিক্রেতা এসে বলল, চলো ভান্ডারা শুরু হয়েছে। ফুল বিক্রেতার হাত ধরে অন্ধ ভিক্ষুক এগিয়ে গেল বিশ্বনাথ গলির দিকে। পোস্টার, ফ্লেক্স, টিভি চ্যানেল আর সভামঞ্চ থেকে মুখ বাড়িয়ে এসব দেখে গোপনে শ্বাস ফেলল ভোটের ভারত! যে ভারত ঘুরে দেখলেন সমৃদ্ধ দত্ত।
 
বিশদ

19th  May, 2019
মাসুদনামা

অবশেষে আন্তর্জাতিক জঙ্গি মাসুদ আজহার। ভারতের কূটনীতির কাছে পরাস্ত চীন এবং পাকিস্তান। কীভাবে উত্থান হল তার? রাষ্ট্রসঙ্ঘের সিদ্ধান্তে মোদির লাভই বা কতটা হল? লিখলেন শান্তনু দত্তগুপ্ত
বিশদ

12th  May, 2019
কবিতর্পণ 

তিনি রবীন্দ্রনাথের বড়দাদা দ্বিজেন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রপৌত্রী। জোড়াসাঁকো ও শান্তিনিকেতনে শৈশব কাটানোর সুবাদে কবিগুরুকে খুব সামনে থেকে দেখার সৌভাগ্য হয়েছিল তাঁর। যদিও শৈশবের বেশিরভাগ স্মৃতিই কালের নিয়মে ঢাকা পড়েছে ধুলোর আস্তরণে। তবুও স্মৃতির সরণিতে কিছু ঘটনা ইতিউতি উঁকি মেরে যায়। একসময়ে নিজে অভিনয় করেছেন সত্যজিৎ রায়, তপন সিংহের মতো পরিচালকদের ছবিতে। দাপিয়ে বেড়িয়েছেন মঞ্চেও। আজ তিনি অশীতিপর। আরও একটি পঁচিশে বৈশাখের আগে ঠাকুরবাড়ির কন্যা স্মিতা সিংহের কবিতর্পণের সাক্ষী থাকলেন বর্তমানের প্রতিনিধি অয়নকুমার দত্ত। 
বিশদ

05th  May, 2019
চিরদিনের সেই গান
শতবর্ষে মান্না দে 
হিমাংশু সিংহ

২৫ ডিসেম্বর ২০০৮। কলকাতার সায়েন্স সিটি প্রেক্ষাগৃহ। একসঙ্গে আসরে প্রবাদপ্রতিম দুই শিল্পী। পদ্মভূষণ ও দাদাসাহেব ফালকে সম্মানে ভূষিত মান্না দে ও গীতশ্রী সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায়। একজনের বয়স ৮৯ অন্য জনের ৭৭। মঞ্চে দুই মহান শিল্পীর শেষ যুগলবন্দি বলা যায়।  
বিশদ

28th  April, 2019
রাজনীতির ভাগ্যপরীক্ষা
আকাশদীপ কর্মকার

 এই মুহূর্তে দেশের রাজনীতিতে মুখ্য আলোচিত বিষয় লোকসভা নির্বাচন। রাজনীতিকদের ভাগ্যপরীক্ষা। এই নির্বাচনে দেশের প্রধান প্রধান রাজনৈতিক দলের শক্তি পরীক্ষার পাশাপাশি ভাগ্য পরীক্ষা দেশের হাইপ্রোফাইল ব্যক্তিদেরও।
বিশদ

21st  April, 2019
প্রতীক বদলে ডিজিটাল ছোঁয়া
দেবজ্যোতি রায়

সাহিত্য বা লেখালিখিতে সর্বদা সময়ের দাবিই উঠে আসে। প্রতিফলিত হয় তৎকালীন সময়ের পটভূমি, চরিত্র, চিত্রায়ন। অতীতেও হয়েছে, আধুনিক বা নব্য আধুনিক যুগও তার ব্যতিক্রম নয়। বর্তমানে আধুনিক সাহিত্য বা পটভূমির একটা বড় অংশ দখল করে নিয়েছে সোশ্যাল মিডিয়া বা সামাজিক মাধ্যম।
বিশদ

21st  April, 2019
শতবর্ষে জালিয়ানওয়ালাবাগ হত্যাকাণ্ড

১৯১৯ সালের ১৩ এপ্রিল জালিয়ানওয়ালাবাগে একটি প্রতিবাদ সভায় জেনারেল ডায়ার বিনা প্ররোচনায় নির্বিচারে গুলি চালিয়েছিলেন। এ বছর ওই হত্যাকাণ্ডের ১০০ বছর। সেদিনের ঘটনা স্মরণ করলেন সমৃদ্ধ দত্ত।
বিশদ

14th  April, 2019
একনজরে
 নিজস্ব প্রতিনিধি, হাওড়া: পাত্রের বাড়ির দাবিমতো বাপের বাড়ি থেকে টাকা আনতে না পারায় বিয়ের সাড়ে ৪ মাসের মধ্যে এক গৃহবধূকে শ্বাসরোধ করে খুনের অভিযোগ উঠল তাঁর শ্বশুরবাড়ির লোকজনের বিরুদ্ধে। পুলিস জানিয়েছে, মৃতার নাম আতিফা খাতুন (১৬)। ...

 ন্যাশনাল স্টক এক্সচেঞ্জে যেসব সংস্থার শেয়ার গতকাল লেনদেন হয়েছে শুধু সেগুলির বাজার বন্ধকালীন দরই নীচে দেওয়া হল। ...

 অভিজিৎ চৌধুরী  মালদহ, বিএনএ: গৌড়বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ে লাগাতার নানান অশান্তি এবং অভিযোগের প্রেক্ষিতে এবার উপাচার্যকে ডেকে পাঠালেন রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী। আগামী ১৪ই জুলাই কলকাতায় উপাচার্যকে বৈঠকে থাকার জন্য বলেছেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। ...

 কুলগাঁও, ১০ জুলাই (পিটিআই): বছরের অন্য সময়ে যেখানে অনবরত গুলির শব্দ সন্ত্রাসের আবহ তৈরি করে, মঙ্গলবার সেখানেই শোনা গেল শঙ্খধ্বনি, বৈদিক মন্ত্র। দক্ষিণ কাশ্মীরের কুলগাঁওয়ে তিনটি প্রাচীন মন্দিরে জঙ্গি সন্ত্রাসকে উপেক্ষা করেই কাশ্মীরি পণ্ডিতরা আয়োজন করলেন যজ্ঞানুষ্ঠান। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
aries

আবেগের বশে কোনও কাজ না করাই ভালো। দাম্পত্য জীবনে বনিবনার অভাবে সংসারে অশান্তি বাড়বে। কর্মে ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস
১৮২৩ সালের এই দিনে ভারতের তৈরি প্রথম জাহাজ ডায়না কলকাতা বন্দর থেকে আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু করে।
১৮৮৯ সালের এই দিনে অবিভক্ত ভারতের কলকাতায় প্রথম প্রতিযোগিতামূলক ফুটবল টুর্নামেন্ট শুরু হয়।
১৯২১: মঙ্গোলিয়ায় গণপ্রজাতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করল লাল ফৌজ
১৯৩০ সালের এই দিনে অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটার ডন ব্রাডম্যান এক দিনে ৩০৯ রান করার রেকর্ড করেন, পরে টেস্ট ম্যাচে তা ৩৩৪ রানের সর্বোচ্চ রেকর্ড হয়েছিল।
১৯৫৬: সাহিত্যিক অমিতাভ ঘোষের জন্ম
১৯৬২: প্রথম ট্রান্সআতলান্তিক স্যাটেলাইট টেলিভিশনের সম্প্রচার শুরু হল
১৯৬৭: সাহিত্যিক ঝুম্পা লাহিড়ির জন্ম
১৯৭২: বিশ্ব দাবা চ্যাম্পিয়নশিপে প্রথম খেলা ববি ফিশার ও বরিস স্পাসকির মধ্যে শুরু হল
১৯৭৯: মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম মহাকাশ স্টেশন স্কাইল্যাব পৃথিবীর বায়ুমণ্ডলে প্রবেশ করে। সেটিকে ভারত মহাসাগরে ফেলে ধ্বংস করা হয়।
২০০৬: মুম্বইয়ে ধারাবাহিক বিস্ফোরণে ২০৯জনের মৃত্যু
২০১২: আবিষ্কার হল প্লুটোর পঞ্চম উপগ্রহ এস/২০১২ পি ১





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৭.৮৩ টাকা ৬৯.৫২ টাকা
পাউন্ড ৮৩.৯৪ টাকা ৮৭.০৭ টাকা
ইউরো ৭৫.৪৬ টাকা ৭৮.৩৮ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৪,৭৬৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩২,৯৮৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৩,৪৮০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৩৮,০৫০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৩৮,১৫০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

২৬ আষা‌ঢ় ১৪২৬, ১১ জুলাই ২০১৯, বৃহস্পতিবার, দশমী ৫০/০ রাত্রি ১/৩। স্বাতী ২৭/১১ দিবা ৩/৫৫। সূ উ ৫/২/৪৯, অ ৬/২১/১, অমৃতযোগ দিবা ৩/৪১ গতে অস্তাবধি। রাত্রি ৭/৪ গতে ৯/১২ মধ্যে পুনঃ ১২/৩ গতে ২/১২ মধ্যে পুনঃ ৩/৩৮ গতে উদয়াবধি, বারবেলা ৩/১ গতে অস্তাবধি, কালরাত্রি ১১/৪২ গতে ১/২ মধ্যে।
২৫ আষাঢ় ১৪২৬, ১১ জুলাই ২০১৯, বৃহস্পতিবার, নবমী ০/১৫/১৭ প্রাতঃ ৫/৮/৪৭ পরে দশমী ৫৬/১২/২১ রাত্রি ৩/৩১/৪০। স্বাতীনক্ষত্র ৩৫/৩৮/১৯ রাত্রি ৭/১৮/৪, সূ উ ৫/২/৪৪, অ ৬/২৩/১০, অমৃতযোগ দিবা ৩/৪২ গতে ৬/২৩ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/৪ গতে ৯/১৩ মধ্যে ও ১২/৪ গতে ২/১২ মধ্যে ও ৩/৩৭ গতে ৫/৩ মধ্যে, বারবেলা ৪/৪৩/৬ গতে ৬/২৩/১০ মধ্যে, কালবেলা ৩/৩/৩ গতে ৪/৪৩/৬ মধ্যে, কালরাত্রি ১১/৪২/৫৭ গতে ১/২/৫৪ মধ্যে।
৭ জেল্কদ
এই মুহূর্তে
 বিশ্বকাপ: অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে ফাইনালে ইংল্যান্ড

09:49:59 PM

 বিশ্বকাপ: ইংল্যান্ড ২১০/২ (৩০ ওভার)

09:41:16 PM

 বিশ্বকাপ: ইংল্যান্ড ১৪৭/২ (২০ ওভার)

08:55:51 PM

বিশ্বকাপ: ইংল্যান্ড ৫০/০ (১০ ওভার)

08:00:01 PM

 মুচিপাড়া ডাকাতি: একজন কনস্টেবল পলাতক

06:46:00 PM

 বিশ্বকাপ: ইংল্যান্ডকে ২২৪ রানের টার্গেট দিল অস্ট্রেলিয়া

06:44:41 PM