Bartaman Patrika
বিকিকিনি
 

তারকাদের কেনাকাটা

বাঙালির সুখে দুঃখে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের উপস্থিতি প্রজন্মের পর প্রজন্ম সমানে বিরাজমান। আমাদের জীবনের ধ্রুবতারা তিনি। আর বঙ্গসমাজে রবীন্দ্রনাথের সঙ্গে শান্তিনিকেতনের মায়াভরা প্রাকৃতিক সৌন্দর্য, খোয়াইয়ের হাট, সুবর্ণরেখার বইপত্র, আমার কুটিরের হস্তশিল্প যেন ওতপ্রোতভাবে জড়িত! প্রকৃতির মাঝেই সেখানে চলে কেনাকাটার টুকিটাকি। ২৫ বৈশাখের প্রাক্কালে তারকাদের স্মৃতিতে উঠে এল শান্তিনিকেতনে কেনাকাটার কথা। টলিউডের কয়েকজন শিল্পী সেই অভিজ্ঞতা ভাগ করে নিলেন কমলিনী চক্রবর্তীর সঙ্গে।

কেনাকাটার ভিড়ে আমার স্মৃতিতে আজও উজ্জ্বল সেই মিষ্টিওয়ালা: অম্বরীশ ভট্টাচার্য 

শান্তিনিকেতন নামটা শুনলেই এক অন্য ধরনের নস্টালজিয়া ঘিরে ধরে আমায়। সাধারণভাবে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জন্য সব বাঙালির কাছেই শান্তিনিকেতন নামটা এক ভিন্ন ধরনের স্মৃতি বহন করে। সেই স্মৃতিতে নস্টালজিয়া আছে, আবার সেই স্মৃতি আঁকড়ে ধরেই বড় সঙ্কটের মুহূর্তও অনায়াসে পেরিয়ে যাই আমরা। কিন্তু আজ আমি যে স্মৃতির কথা বলব তা একান্তই ব্যক্তিগত। শান্তিনিকেতনের পিয়ারসন পল্লিতে আমার দাদুর বাড়ি ছিল। তাই ছোট থেকে ওখানে বহু সময় কাটিয়েছি। স্কুলের ছুটিছাটার ফুরসত পেলে তো বটেই, এমনকী বছরের অন্যান্য সময়েও নানা অছিলায় দাদুর বাড়ি চলে যেতাম। তাই কেনাকাটা বলতে আমার যে স্মৃতিটা মনে পড়ে তা একটু অন্যরকম। বাগান ঘেরা দাদুর বাড়িতেই আমার কেনাকাটার স্মৃতির সূত্রপাত। কবিগুরুর অনুকরণেই বোধহয় শান্তিনিকেতনে আজও বাড়ির নাম দেওয়ার চল রয়েছে। সেই রীতি মতোই আমার দাদুর বাড়ির নাম ছিল রিমঝিম। গ্রীষ্মের বিকেলে মনে আছে সেই রিমঝিম বাড়িটার সামনে একজন মিষ্টিওয়ালা আসতেন। সাইকেল রিকশার পিঠে বসানো কাচের ভ্যান। তাতে মিষ্টি ঠাসা। আর বিক্রেতা সেই মিষ্টি বিক্রি করেন ঘণ্টা নেড়ে। ঠিক বিকেল চারটের সময় বাড়ির সামনে যেই না ওই মিষ্টিওলার ঘণ্টা বেজে উঠত অমনি আমিও একছুটে চলে আসতাম বাড়ির সামনে। দাদুর সঙ্গে সলা করে নানারকম রসের মিষ্টি কেনা হতো। অতি সুস্বাদু সেই মিষ্টি। শান্তিনিকেতনে কেনাকাটার আর একটা স্মৃতি বলতে সুবর্ণরেখা বইয়ের দোকান থেকে বই আর ক্যাসেট কেনা। শান্তিনিকেতন পোস্ট অফিসের পাশেই সেই দোকান। আজও মনে আছে সত্যজিৎ রায়ের আঁকা মলাটসমেত ‘আম আঁটির ভেঁপু’ বইটি আমায় দাদু ওই দোকান থেকেই কিনে দিয়েছিলেন। এছাড়া হাটের প্রচুর জিনিসও কিনেছি। হাটে বাউলের আখরা থেকে একতারা কিনেছি, রবীন্দ্রনাথের ছবি দেওয়া কাগজ, গ্রাম্য ধাঁচে গড়া লজেন্স— আরও কত কী যে কিনেছি তার শেষ নেই। তবু এত কেনাকাটার ভিড়েও আমার স্মৃতিতে আজও উজ্জ্বল হয়ে রয়েছেন সেই মিষ্টিওলা। 

শান্তিনিকেতনের লোকের সঙ্গে মিশে কেনাকাটার আনন্দই আলাদা: স্বস্তিকা দত্ত  

আমার কেরিয়ার শুরুই হয়েছিল বোলপুর থেকে। প্রথম সিরিয়াল ‘পারব না আমি ছাড়তে তোকে’-র শ্যুটিং হতো বোলপুরে। ফলে শান্তিনিকেতন ঘিরে আমার স্মৃতির অভাব নেই। আজও প্রতি বছর নিয়ম করে একবার অন্তত শান্তিনিকেতন যাই। তবে কোভিড বলে গত বছর, আর এ বছরটা বাদ পড়েছে। যাই হোক, শান্তিনিকেতনের ভাঙা পথের রাঙা ধুলোয় কতবার যে আমার পায়ের চিহ্ন পড়েছে তার হিসেব আমার কাছেও নেই। 
ওখানে গেলে একটা বাঁধা দোকান আছে, যেখান থেকে আমি কেনাকাটা করি। আসলে ঠিক দোকানও বলা যাবে না। বরং বলা উচিত বুটিক। খুব পুরনো একটা বাড়ির ভেতর এই বুটিকের অবস্থান। বুটিকের নাম দরজি। ওখানে হাতে তৈরি ক্লে দিয়ে পটারি বানানো হয়। আমি ঘর সাজাতে ভালোবাসি। আর গৃহসজ্জায় অন্য ধরনের ছোঁয়া দিতে ক্লে পটারির জুরি মেলা ভার। ফলে প্রতিবারই আমি ওখান থেকে পটারি কিনে আনি। এছাড়া ওই বুটিক থেকেই আর একটা বিশেষ জিনিস কিনেছি, নীল ডাই দিয়ে তৈরি শাড়ি। এই শাড়িগুলো সম্পূর্ণই হাতে বোনা হয়। তাঁতে সুতো বুনে তারপর সেই সুতোয় নীল ডাই করে তারও পরে তা দিয়ে শাড়ি বোনা হয়। ওই একটা শাড়ি আমি শেষবার নিজের জন্য কিনে এনেছি। 
এছাড়াও শান্তিনিকেতনে খোয়াইয়ের খোলা হাট আমার দ্বিতীয় শপিং ডেস্টিনেশন। সেই হাটে হাতের কাজের প্রাচুর্য। কিন্তু তারও মধ্যে আমায় যেটা সব চেয়ে বেশি টানে তা হল চুলের কাঁটা। 
শান্তিনিকেতনী এই কাঁটা কিন্তু একেবারেই অন্য ধরনের। ফুলের নকশা করা এই কাঁটা দেখলে নিজেকে সংযত রাখতে পারি না। শহুরে জীবনে বনফুলের মালা হয়তো আমার গাঁথা হয়ে ওঠে না, তবে বনফুলের চুলের কাঁটা দিয়ে আজও সুযোগ পেলেই খোঁপা বাঁধি। এখানেও শেষ নয়, হাটে গিয়ে পায়ের মলও অনেক কিনেছি। আর সবচেয়ে মজার কথা হল, সেই তোড়া আমার পছন্দসই ডিজাইনে আমার সামনেই বানিয়ে দেওয়া হয়। হাতে বানানো তোড়া দেখার অভিজ্ঞতার তুলনা হয় না। শান্তিনিকেতনে গিয়ে সেখানকার লোকের সঙ্গে মিশে জিনিস কেনার আনন্দই আলাদা। এছাড়াও আছে মাদুর। আমার ঘর সাজানোর নেশাটা আরও সমৃদ্ধ হয়ে ওঠে এই মাদুরের কালেকশনে। আর টুকরোটাকরা জিনিস তো প্রচুরই কেনা হয়। যেমন গয়না, বিশেষত কানের দুল, ব্যাগ ইত্যাদি। শান্তিনিকেতনী ব্যাগ আমার এতই প্রিয় যে তা আমার সিরিয়ালেও ব্যবহার করি। শহুরে শান্তিনিকেতন আমায় ততটা টানে না, কিন্তু গ্রাম্য শান্তিনিকেতনের সৌন্দর্য আমায় বরাবর মোহিত করে। আর সেই টানেই আমি বারবার ছুটে যাই প্রকৃতি ঘেরা অতি পরিচিত শান্তিনিকেতনে।     

সনাতনের মাঝে নতুনত্ব খোঁজার নেশাতেই কেনাকাটায় মেতে উঠি: সোনালি চৌধুরী 

আর পাঁচটা বাঙালির মতোই আমার সঙ্গেও রবীন্দ্রনাথের যোগাযোগটা বড্ড বেশি। সেই কোন ছোটবেলা থেকে ‘আমার সকল ভালোবাসায়, সকল আঘাত সকল আশায়...’ কবিগুরু ফিরে ফিরে এসেছেন। তবু তাঁর শান্তিনিকেতনে আমার ছোটবেলায় যাওয়া হয়নি। তবে যখন গেলাম তখন একটা অন্যরকম কাজের সূত্র ধরে গিয়েছিলাম। 
একটা টিভি চ্যানেলে তখন রবীন্দ্রনাথের ছোটগল্পের ওপর কাজ হচ্ছিল। আমাকে তাতেই একটা চরিত্রে অভিনয়ের জন্য বেছে নেওয়া হয়। আর যখন শুনলাম গোটা শ্যুটিংটাই হবে কোপাই নদীর তীরে, তখন একটা বাঁধভাঙা আনন্দ পেয়ে বসেছিল আমায়। রবীন্দ্রনাথের ‘ইচ্ছাপূরণ’ গল্পটার শ্যুটিং হবে। আর তাতে অভিনয় করবেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। এখানেও শেষ নয়, সিরিয়ালটার পরিচালনায় ছিলেন রমাপ্রসাদ বণিক। শান্তিনিকেতনে পৌঁছনোর রোমাঞ্চ এতই বেশি ছিল যে মে মাসের গরমটাকেও তা ছাপিয়ে গিয়েছিল। আমরা সারাদিন কাজ করতাম আর বিকেল হলেই হাটেবাজারে বেরোতাম কেনাকাটার নেশায়। ডোকরা আমার খুবই পছন্দ। তাই শান্তিনিকেতনে এসে ডোকরার গয়না কেনার সুযোগ তো ছাড়তে পারি না। আমাদের মেকআপ আর্টিস্টের সঙ্গে গিয়েছিলাম ডোকরার গয়না কিনতে। মনে আছে ডোকরার গয়না আর শান্তিনিকেতনের স্টাইলে মুগ্ধ হয়ে আমি যা কিনেছিলাম তা আমার শ্যুটিংয়ের পারিশ্রমিকের চেয়েও ঢের বেশি হয়ে গিয়েছিল। তখন কলকাতায় এত সুতির ফ্যাব্রিকের প্রাচুর্য ছিল না। ফলে সুতির কাপড়ে কাঁথার কাজ, বাটিকের চাদর ইত্যাদি দেখে আমি আহ্লাদে আত্মহারা হয়ে যাই। এরপর একটা সময় এমন এল যখন আমি শান্তিনিকেতনে ডেলি প্যাসেঞ্জারিও করেছি। সোনার হরিণ সিরিয়ালটার শ্যুট চলছিল। আর তাতে আমি শান্তিনিকেতনের মেয়ের চরিত্রে অভিনয় করেছিলাম। ফলে রোজ শান্তিনিকেতন যেতাম আর রাতের ট্রেনে ফিরতাম। শান্তিনিকেতনের ব্যাগ আমার তো বটেই, আমার আত্মীয়দেরও আছে! ফাইল আছে, শান্তিনিকেতনী সুতির শাড়ির তো শেষ নেই। ছোট ছোট প্যাঁচা আছে নানা মাপের, নানা রঙের, ঝুমঝুমি লাগানো চুলের কাঁটা আছে। বাটিক, কাঁথাস্টিচ বা খেসের শাড়ি অনেক আছে। খেস আর বাটিকের কথা একটু আলাদা করেই বলব, খেসের একটা অন্যরকমের সৌন্দর্য আছে। একটা আভিজাত্য আছে। এছাড়া বাটিকও আমার ভীষণ ভালো লাগে। এখন তো শান্তিনিকেতন গেলে কাঁথা কাজের ব্লাউজ পিস, টি শার্ট ইত্যাদিও প্রচুর কিনি। সনাতনের মধ্যে নতুনত্ব খোঁজার নেশাতেই আমি শান্তিনিকেতনের বিকিকিনির হাটে মেতে উঠি।

খেস, বাটিক, ডোকরার সঙ্গেই চলে আমার কেনাকাটার পালা: বাসদত্তা চট্টোপাধ্যায়  

শান্তিনিকেতনে আমি গিয়েছি মাত্র দু’বার। যদিও প্রথম দর্শনেই শান্তিনিকেতন আমায় মুগ্ধ করেছিল, তবুও বেড়াতে সেখানে কখনওই গিয়ে উঠতে পারিনি। বরং দু’বার গিয়েছি কাজের সূত্রে। ফলে সারাদিনই জ্যামপ্যাক্ট শ্যুটিং থেকেছে। সেইসব শেষ হলে বিকেলে হয়তো বা টুকটাক কেনাকাটার করার সুযোগ পেয়েছি। তবু শান্তিনিকেতনে চুটিয়ে কেনাকাটার সুযোগ আমার হয়নি বললেই চলে। তাই বলে শান্তিনিকেতনী জিনিসের সঙ্গে আমি যে অপরিচিত, তা নয়। বিভিন্ন মেলায় এখন শান্তিনিকেতনের স্টল থাকে। সেইসব স্টল ঘুরে যখনই শান্তিনিকেতনের আঁকা ছবি দেখেছি, সংগ্রহ করেছি। এছাড়া শান্তিনিকেতনের ব্যাগ আমার ভীষণ প্রিয়। কখনও তাতে আঁকা থাকে, কখনও সেলাই থাকে, কখনও বা বাটিকের কাজ করা থাকে, আবার কখনও শুধুই খেসের কাপড়ে তৈরি হয় সেই ব্যাগ। একটা অন্য ধরনের মাধুর্য আছে এই ব্যাগে। যেমন চামড়ার ওপর বাটিক করা পার্স, মিক্স অ্যান্ড ম্যাচ লেদারের তৈরি ব্যাগ এগুলো আমার বিশেষ পছন্দের। 
দেখলে আর ছাড়তে পারি না, কিনে ফেলি। আর এই ছাড়তে না পারার নেশায় কত যে শান্তিনিকেতনী ব্যাগ জমেছে, তা একহাতে গুনে শেষ হবে না। তবে আমি খুব একটা সাইডব্যাগ ভালোবাসি না। মনে হয় আমি বুঝি ওগুলো ঠিক ক্যারি করতে পারি না। খেস জিনিসটাই আমার দারুণ পছন্দ। তাই খেসের ব্যাগ ছাড়াও জ্যাকেট, শাড়ি ইত্যাদি অনেক কিনেছি। খেসের, এমনকী বাটিকেরও এক ধরনের রিভার্সেবল জ্যাকেট পাওয়া যায়। ওগুলোও আমার খুব প্রিয়। একই জ্যাকেট কিন্তু তারই মধ্যে রূপ বদল! এই ধরনের জ্যা঩কেট আমি সবরকম আউটফিটের সঙ্গে পরতে পারি। স্কার্ট, জিন্স, লেগিংস সবের সঙ্গেই এই জ্যাকেট মানানসই। আমাদের স্টুডিওতে এক দিদি আসেন এইসব জিনিস নিয়ে আর আমি টপাটপ কিনে ফেলি। শান্তিনিকেতনে কেনাকাটার স্মৃতি বলতে একবারের কথা আলাদা করে বলতে হয়, আমাদেরই সহ অভিনেতা বাদশা মৈত্রর একটা দোকান আছে শান্তিনিকেতনে। সেখানে গিয়ে ঘর সাজানোর নানারকম জিনিস কিনেছিলাম। ঘর সাজানো আমার অন্যতম প্রিয় শখ, নেশা বললেও ভুল হবে না। তাই ডোকরার নিক-ন্যাক দিয়ে ঘর সাজালে একটা ভিন্ন চিত্র তৈরি হয়। তাতে আমার অতি চেনা ঘরটাও যেন নতুন হয়ে ওঠে। আমি সেটা দেখার জন্যই নব নব রূপে ঘর সাজাই। এছাড়াও ডোকরার গয়না, বালা, দুল ইত্যাদিও ভালো লাগে। শাড়ি বলতে গেলে কাঁথা স্টিচের শাড়ি পছন্দ, কিন্তু আমার শুধু দেখতেই ভালো লাগে। পরতে ততটা নয়। একটু ভারী লাগে বলে কিনিনি কখনও।      
08th  May, 2021
সত্যজিৎ জন্মশতবার্ষিকীতে 
কষে কষা-র শ্রদ্ধাঞ্জলি 

‘কোর্মা, কালিয়া, পোলাও জলদি লাও!’ সত্যজিৎ রায়ের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে কলকাতার ফুডচেন ‘কষে কষা’ নিয়ে এল ‘মহারাজা তোমারে সেলাম’-এর বিশেষ এক আয়োজন। ১৯টি থালির নামকরণে সত্যজিতের ছবির উপস্থিতি যেন সেই বাঙালিয়ানারই উদ্‌যাপন। বিশদ

08th  May, 2021
শ্যামসুন্দর-এর অক্ষয়
তৃতীয়া অফার

 

অক্ষয় তৃতীয়া উপলক্ষে শ্যামসুন্দর কোম্পানি জুয়েলার্স নতুন গয়নার কালেকশন বাজারজাত করেছে। পাশাপাশি প্রতি বছরের মতো এবারও সংস্থাটি গ্রাহকদের কেনাকাটায় আকর্ষণীয় অফার দিচ্ছে। রাসবিহারী অ্যাভিনিউ, বেহালা ও বারাসতে শ্যামসুন্দর কোম্পানি জুয়েলার্সের শোরুমে এই কালেকশন মিলবে। বিশদ

08th  May, 2021
রেপ্লিকা-র ওয়েবসাইটে
ছবির মেলা

তাঁর ক্যামেরায় কখনও বা ধরা পড়েছেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় অটোগ্রাফ করছেন কোনও ভক্তের আবদার রাখতে। আবার কখনও আশাভোঁসলে তাঁর চেনা শহর কলকাতায় নিজের মিউজিক অ্যালবাম মুক্তির অনুষ্ঠানে অডিটোরিয়াম আলো করে আছেন। বিশদ

08th  May, 2021
আভামা-র অল ফর মম 

আভামা জুয়েলার্স মাতৃদিবসে ‘অল ফর মম’ নামে একটি এক্সক্লুসিভ গয়নার কালেকশন নিয়ে এসেছে। হীরে ও বিভিন্ন ধরনের স্টোন দিয়ে গয়নাগুলি তৈরি করা হয়েছে। এতে স্টাইলিশ ব্রেসলেট, পেনডেন্ট, আংটি প্রভৃতি মিলবে। সংস্থার মতে, এমন দিনে মাকে উপহার দেওয়ার জন্য আভামা জুয়েলার্সের এই ট্রেন্ডি কালেকশন খুবই মনোগ্রাহী বিশদ

08th  May, 2021
মায়েদের জন্য প্রিটিয়স-
এর বিশেষ সম্ভার

 

মাতৃদিবসে মাকে কী উপহার দেবেন ভাবছেন? প্রিটিয়স জুয়েলারির এক্সক্লুসিভ গয়না হতেই পারে আপনার সেরা বিকল্প। নয়নাভিরাম রুপোর হ্যান্ডক্রাফ্টেড নেকলেস, ব্রেসলেট প্রভৃতি গয়নার ভালো সম্ভার পাবেন এখানে। উচ্চমানের রুপোর সঙ্গে বিভিন্ন ধরনের স্বচ্ছ ও রঙিন পাথর দিয়ে গয়নাগুলি প্রস্তুত করা হয়েছে। বিশদ

08th  May, 2021
রসনা-র ইমিউনিটি বুস্টার
 

জনপ্রিয় পানীয় প্রস্তুতকারী সংস্থা রসনা বেশ কয়েকটি লোভনীয় স্বাদের ইমিউনিটি বুস্টার প্রোডাক্ট বাজারে এনেছে। নাগপুরের কমলালেবু, আলফানসো আম, নিম্বুপানি, আমেরিকান আনারস, শাহিগুলাব, কুলখুশ, কেশর এলাচ, জলজিরা, লিচু এবং কালা খাট্টা স্বাদে এই ইমিউনিটি বুস্টার পাওয়া যাবে। বিশদ

08th  May, 2021
মাদার্স ডে-তে সিয়ন-এর প্রোডাক্ট

মাতৃদিবসে মায়েদের উদ্দেশে ডিরেক্ট প্রোডাক্ট সেলিং সংস্থা সিয়ন নিউট্রি ইন্ডিয়া প্রাইভেট লিমিটেড নিয়ে এল এক বিশেষ উপহার। এই উপলক্ষে বিশেষ বিউটি প্রোডাক্টের একটি রেঞ্জ বাজারজাত করেছে তারা। এতে সিয়নক্যাল-ডিজিনম্যাগ, সিয়ন অলওয়েজ ২১ নিম স্কিন টোনার, সিয়ন অলওয়েজ ২১ ফেসওয়াশ এবং সিয়ন অলওয়েজ ২১ সিবু অ্যালোজেল প্রোডাক্ট পাওয়া যাবে। বিশদ

08th  May, 2021
ভিরায়া জুয়েলারি-র
মাতৃদিবস পালন

 

মাতৃদিবসে মায়ের জন্য একটু অন্যধরনের গয়না চাই? তাহলে ভিরায়া জুয়েলারি হতে পারে আপনার সেরা পছন্দ। মায়েদের জন্য ‘টু মম...উইথ লাভ’ নামের বিশেষ গয়নার সম্ভার প্রস্তুত করেছে তারা। সোনার নিত্যনতুন নকশার নেকলেস, ব্রেসলেট, আংটি এবং দুল দিয়েই সেজেছে সম্ভারটি। বিশদ

08th  May, 2021
গরমে গন্ধবিলাস
 

সাজের সঙ্গে জুড়ে আছে সজ্জা। আর সজ্জার অন্যতম উপকরণ সুগন্ধি। সাজ শেষে শরীরে ভুরভুরে সুগন্ধ না ঢাললে কিন্তু ফ্যাশনে গোল্লা! তাই গরমের শুরুতেই ঘামের গন্ধ ঢাকতে জেনে নিন এবার কোন সুগন্ধকে আপন করবেন, দামই বা কেমন? জানালেন মনীষা মুখোপাধ্যায়। বিশদ

01st  May, 2021
জে কে-র মরশুমি মশলা

মহামারীর সময় স্বাদের সঙ্গে স্বাস্থ্যের দিকেও নজর রাখতে হবে বইকি! সে কথা মাথায় রেখে জে কে মশলা বিশেষ মরশুমি মশলার সম্ভার নিয়ে এসেছে। মূলত বাঙালি রান্নার কথা ভেবেই এগুলি বাজারজাত করা হয়েছে। গুঁড়ো ও বাটা দুই প্রকারেই এই মশলা পাওয়া যাবে। বিশদ

01st  May, 2021
মিলে গেল রং ও মুদ্রা

গত ১২-১৪ মার্চ একটি চিত্র প্রদর্শনীর আয়োজন করেছিল ‘মাই ক্যালাইডোস্কোপ’ ও ‘ক্যানভাস’। এই প্রদর্শনীতে প্রায় ৬০টি ভিন্ন ধরনের ছবি প্রদর্শিত হয়েছিল। প্রদর্শনীর অন্যতম আকর্ষণ ছিল নৃত্যশিল্পী সুদর্শন চক্রবর্তীর আঁকা ছবি। এমন একটি প্রদর্শনীর আয়োজন করতে পেরে যারপরনাই খুশি মাই ক্যালাইডোস্কোপের অনুমিত্রা বসু মণ্ডল ও ক্যানভাস গ্রুপের পুষ্পেন নিয়োগী। বিশদ

01st  May, 2021
চন্দন ফুড প্রোডাক্টস-এর
নতুন পণ্য

চন্দন ফুড প্রোডাক্টস নামে একটি সংস্থা উন্নতমানের আটা, ছাতু, বেসন প্রভৃতি খাদ্যসামগ্রীর সম্ভার বাজারজাত করেছে। গত ৭ এপ্রিল কলকাতায় প্রোডাক্টগুলির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন অভিনেত্রী জিনিয়া মুখোপাধ্যায়, সংস্থার কর্ণধার অমরেন্দ্র সিং, খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ বিশেষজ্ঞ বিক্রম মিত্র প্রমুখ। বিশদ

01st  May, 2021
এলজি প্রিমিয়াম লিগ টু

এলজি ইলেকট্রনিক্স ‘এলজি প্রিমিয়াম লিগ টু’ নামে এক আকর্ষণীয় প্রতিযোগিতা শুরু করেছে। এটি দ্বিতীয় বর্ষ। এই বছর লিগটি শুরু হয়েছে আইপিএল-এর উদ্বোধনের দিন। চলবে ফাইনাল ম্যাচের দিন পর্যন্ত। ‘এলজি প্রিমিয়াম লিগ টু’ প্রতিযোগিতায় ক্রেতারা সংস্থার নির্বাচিত কিছু প্রোডাক্ট কিনলে লাকি কুপন পাবেন। বিশদ

01st  May, 2021
চুলের যত্নে সিগমা-র নতুন
প্রোডাক্ট ও কর্মশালা

সিগমা লাইফস্টাইলের হেয়ার কেয়ার ব্র্যান্ড কে টি প্রফেশনাল একটি উন্নতমানের প্রোডাক্ট বাজারজাত করেছে। প্রোডাক্টটির নাম ‘মাস্টার্ড অয়েল মিস্ট প্রিকন্ডিশনার অ্যান্ড সেরাম’। গত ২১ এপ্রিল কলকাতায় এই প্রোডাক্টটির উদ্বোধন করেন হেয়ার স্টাইল এক্সপার্ট জাভেদ হাবিব ও সিগমা লাইফস্টাইলের ম্যানেজিং ডিরেক্টর ধ্রুব সায়ানি। বিশদ

01st  May, 2021
একনজরে
শেষ পর্যন্ত বিস্তর টানাপোড়েনের পর আলোচনায় বসতে চেয়ে শ্রী সিমেন্ট কর্তারা বুধবার চিঠি দিল ইস্ট বেঙ্গল ক্লাবকে। ওই চিঠিতে এসসি ইস্ট বেঙ্গলের সিইও শিবাজি সমাদ্দার বলেছেন, ‘অবিলম্বে আলোচ্য বিষয়গুলি জানান।’ ...

করোনার সংক্রমণ এড়িয়ে সুরক্ষিতভাবে বাড়িতে বসেই গয়না কেনার সুযোগ করে দিচ্ছে সেনকো গোল্ড অ্যান্ড ডায়মন্ডস। অক্ষয় তৃতীয়া ও ঈদ উপলক্ষে থাকছে হরেক অফারও। ...

বাড়ির উঠোনে বেড়া দিয়ে ঘেরা ছোট্ট ঘর। সেখানে রান্না করছিলেন গৃহবধূ দীপালি সর্দার। পাশের মাটির ঘরের নিকনো বারান্দায় রাখা ফোন হঠাৎই বেজে উঠল। রান্না ফেলে ...

দলের নির্দেশে নন্দীগ্রাম গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান পদ থেকে ইস্তফা দিলেন বনশ্রী খাঁড়া। তিনি সম্পর্কে রাজ্যের মন্ত্রী শিউলি সাহার মা। বিধানসভা ভোটে বনশ্রীদেবী তৃণমূলের হয়ে সেভাবে প্রচারে নামেননি বলে দলীয় নেতৃত্বের অভিযোগ। সেজন্য তাঁকে অবিলম্বে ইস্তফা দিতে নির্দেশ দিয়েছিল দল। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

আত্মীয়স্বজন, বন্ধু-বান্ধব সমাগমে আনন্দ বৃদ্ধি। চারুকলা শিল্পে উপার্জনের শুভ সূচনা। উচ্চশিক্ষায় সুযোগ। কর্মক্ষেত্রে অযথা হয়রানি। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৬৩৮ - সম্রাট শাহজাহানের তত্ত্বাবধায়নে দিল্লির লাল কেল্লার নির্মাণ কাজ শুরু
১৮৩৬ - ভারততত্ত্ববিদ স্যার চার্লস উইলকিন্সের মৃত্যু
১৮৮৭ - বাঙালি কবি, সাহিত্যিক, সাংবাদিক এবং প্রবন্ধকার রঙ্গলাল বন্দ্যোপাধ্যায়ের মৃত্যু
১৮৫৭: ম্যালেরিয়ার জীবাণু আবিষ্কারক রোনাল্ড রসের জন্ম
১৯১৮: নৃত্যশিল্পী বালাসরস্বতীর জন্ম
১৯৪৭: কবি সুকান্ত ভট্টাচার্যের মৃত্যু
১৯৫৬: আর্ট অফ লিভিং ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা তথা আধ্যাত্মিক নেতা শ্রীশ্রী রবিশঙ্করের জন্ম
১৯৬২: ভারতের দ্বিতীয় রাষ্ট্রপতি হিসাবে শপথ নিলেন সর্বপল্লি রাধাকৃষ্ণাণ
১৯৬৭: ভারতের তৃতীয় রাষ্ট্রপতি হিসাবে শপথ নিলেন জাকির হোসেন
১৯৯৫ - প্রথম নারী হিসেবে ব্রিটিশ বংশদ্ভূত এলিসনের অক্সিজেন ও শেরপা ছাড়াই এভারেস্ট জয়
২০০০ - ভারতের লারা দত্তের বিশ্বসুন্দরী শিরোপা লাভ
২০০৫ - বিশিষ্ট সঙ্গীতিশিল্পী উৎপলা সেনের মৃত্যু
২০১১: পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা নির্বাচনে বিপুল জয় তৃণমূল কংগ্রেসের



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭২.৬৭ টাকা ৭৪.৬৮ টাকা
পাউন্ড ১০১.৯৯ টাকা ১০৫.৫১ টাকা
ইউরো ৮৭.৪৯ টাকা ৯০.৭১ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৪৮,৪৫০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৪৫,৯৫০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৪৬,৬৫০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৭১,৬০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৭১,৭০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

২৯ বৈশাখ ১৪২৮, বৃহস্পতিবার, ১৩ মে ২০২১। দ্বিতীয়া অহোরাত্র। রোহিণী নক্ষত্র অহোরাত্র। সূর্যোদয় ৫/১/১৪, সূর্যাস্ত ৬/৪/৩৬। অমৃতযোগ রাত্রি ১২/৪০ গতে ২/৫১ মধ্যে। মাহেন্দ্রযোগ দিবা ৬/৪৬ মধ্যে পুনঃ ১০/১৫ গতে ১২/৫২ মধ্যে। বারবেলা ২/৪৯ গতে অস্তাবধি। কালরাত্রি ১১/৩৩ গতে ১২/৫৫ মধ্যে। 
২৯ বৈশাখ ১৪২৮, বৃহস্পতিবার, ১৩ মে ২০২১। দ্বিতীয়া রাত্রি ৩/৩৬। রোহিণী নক্ষত্র শেষরাত্রি ৪/৮। সূর্যোদয় ৫/১, সূর্যাস্ত ৬/৬। অমৃতযোগ রাত্রি ১২/৪০ গতে ২/৫০ মধ্যে। মাহেন্দ্রযোগ দিবা ৬/৪৬ মধ্যে ও ১০/১৫ গতে ১২/৫১ মধ্যে। কালবেলা ২/৫০ গতে ৬/৬ মধ্যে। কালরাত্রি ১১/৩৪ গতে ১২/৫৬ মধ্যে। 
৩০ রমজান।

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
শিবপুরে জমা জলে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে বালকের মৃত্যু
কলকাতার পর এবার হাওড়ায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মৃত্যুর ঘটনা ঘটল আজ ...বিশদ

07:43:56 PM

দুর্গাপুরে  দিদিকে গুলি, অভিযুক্ত ভাই
দুর্গাপুরে  দিদিকে গুলি করে খুনের চেষ্টার অভিযোগ ভাইয়ের বিরুদ্ধে। আজ, ...বিশদ

05:17:18 PM

ধনেখালিতে ট্রেন থেকে পড়ে মৃত্যু বিহারের দম্পতির
স্ত্রী জ্যোতিকে নিয়ে কলকাতায় শ্বশুরবাড়ি আসছিলেন বিহারের দ্বারভাঙ্গার বাসিন্দা সৌরভ ...বিশদ

04:07:09 PM

স্টাফ স্পেশাল ট্রেনে এবার উঠতে পারবেন স্বাস্থ্যকর্মীরাও
রেলকর্মীদের জন্য ‘স্টাফ স্পেশাল’ ট্রেনে এবার থেকে উঠতে পারবেন স্বাস্থ্যকর্মীরাও। ...বিশদ

03:35:34 PM

গঙ্গায় মৃতদেহ ভেসে আসতে পারে, শুরু নজরদারি
উত্তরপ্রদেশ এবং বিহারের গঙ্গায় ভাসতে দেখা গিয়েছে অসংখ্য মৃতদেহ। আশঙ্কা, ...বিশদ

03:29:57 PM

পিছিয়ে গেল পরীক্ষা
করোনার জেরে পিছিয়ে গেল ইউপিএসসি-র প্রিলিমিনারি পরীক্ষা। ইউপিএসসি-র প্রিলিমিনারি হওয়ার ...বিশদ

03:17:14 PM